১৩ দিন পর স্কুল ছাত্রী উদ্ধারঃআটক শ্রীমঙ্গলের দু’ই জন

    0
    26

    পিতা ও পুত্রের উপর নারী শিশু নির্যাতন থানায় মামলা দায়ের

    আমার সিলেট টুয়েন্টি ফোর ডটকম,১৩মে,ফারুক মিয়াঃ    চুনারুঘাট উপজেলার রানীগাঁও ইউনিয়নের কালেঙ্গা শিবিরের রিজার্ভ অফিস টিলার আবুল খয়ারের মেয়ে রাহিমা (১৪) গত ৩০ এপ্রিল বাড়ী থেকে সকালের দিকে স্কুলে আসার পথে কালেঙ্গা করইতলা রাস্তা নামক স্থান থেকে নিখোঁজ হয়। নিখোজের বিষয়টি নিয়ে বিভিন্ন জায়গায় খোজাখুজি করে পাওয়া না গেলে রাহিমা আক্তারের মাতা বিবি কুলসুমা খাতুন চুনারুঘাট থানায় একটি জিডি এন্ট্রি দায়ের করে।

    পরে চুনারুঘাট থানার এসআই আতাউর রহমান বিভিন্ন জায়গায় খোজাখুজির পরে গোপন সংবাদের ভিত্তিতে গত বৃহস্পতিবার ২টার দিকে বাহুবল থানার মিরপুর নতুন বাজার নামক স্থান থেকে শ্রীমঙ্গল কালাপুরের আব্দুল মতলিব ও তার ছেলে সেলিম মিয়াকে গ্রেফতার করে চুনারুঘাট থানায় নিয়ে আসে।

    পুলিশ জানায়, কালিকাপুর উচ্চ বিদ্যালয়ের ৯ম শ্রেণির ছাত্রী রাহিমা আক্তার গত ৩০ এপ্রিল করইতলা রাস্তা নামক স্থান থেকে নিখোঁজ হয়।

    এ ব্যাপারে রাহিমা আক্তারের মাতা কুলসুমা খাতুন বাদী হয়ে চুনারুঘাট থানায় পিতা আব্দুল মতলিব ও পুত্র সেলিম মিয়াসহ ৪জনের বিরুদ্ধে আসামী করে নারী ও শিশু নির্যাতন মামলা দায়ের করেন। চুনারুঘাট থানার মামলা নং-১  ।

    উক্ত মামলার বিবরণের জানা যায়, শ্রীমঙ্গল থানার মাইজদী পাহাড় কালাপুর গ্রামের মতলিব মিয়ার পুত্র সেলিম মিয়া (২০) ও মৃত আব্দুল খালেক মিয়ার পুত্র আব্দুল মতলিব (৪৫) অজ্ঞাত আরো দুইজনসহ ৪জনের বিরুদ্ধে চুনারুঘাট থানায় নারী ও শিশু নির্যাতন মামলা দায়ের করা হয়।

    শুক্রবার দুপুরের দিকে সেলিম মিয়াকে হবিগঞ্জ আদালতে প্রেরণ করা হয়েছে। ধর্ষিতা রাহিমা আক্তার জানায়, দীর্ঘদিন যাবৎ ধরে সেলিম মিয়া তার মামার বাড়ী ৯নং রানীগাঁও ইউনিয়নের কালেঙ্গা তালতলা শিবির এলাকায় মিজানুর রহমানের বাড়ীতে আসা যাওয়া করত।

    গত ৩০এপ্রিল এ সুবাদে নানার বাড়ী থেকে যাওয়ার পথে পথিমধ্য থেকে স্কুল ছাত্রী রাহিমাকে সিএনজি যোগে শ্রীমঙ্গল মাইজদী পাহাড় এলাকায় নিয়ে চলে যায় সেলিম মিয়া। সেখানে বিষয়টি জানাজানি হলে মিরপুর এলাকায় তার আত্মীয় স্বজনদের বাড়ীতে রেখেছিল রাহিমা আক্তারকে।

    এ ব্যাপারে চুনারুঘাট থানার ওসি তদন্ত নূরুল ইসলাম, এসআই আতাউর রহমান, এএসআই শামছুদ্দিনসহ একদল পুলিশ মিরপুর নতুন বাজার নামক স্থান থেকে পিতা পুত্রকে হাতে নাতে গ্রেফতার করে চুনারুঘাট থানায় নিয়ে আসে।

    এ ঘটনায় চুনারুঘাট থানার ওসি কে এম আজমিরুজ্জামান বিষয়টির সত্যতা নিশ্চিত করেন।

    LEAVE A REPLY

    Please enter your comment!
    Please enter your name here