১০ম নির্বাচনে অংশ নেয়ার অপেক্ষায় বিএনপি

    0
    10

    হেফাজতে ইসলামের শাপলা চত্বরের ২৪ ডিসেম্বর ঘোষিত সমাবেশের জন্য অবরোধ শিথিল হচ্ছে না বলে জানান নজরুল ইসলাম

    “বিএনপি স্বাধীনতার ঘোষক শহীদ প্রেসিডেন্ট জিয়াউর রহমান বীরোত্তমের হাতে গড়ে তোলা দলইতিহাস সাক্ষ্য দেয়, বিএনপি কখনো গণতন্ত্র হত্যা করেনিগণতন্ত্র হত্যাকারী কাউকে কখনো স্বাগতও জানায়নিবিরোধী দলের বিরুদ্ধে অপপ্রচার চালিয়ে জনগণকে চলমান আন্দোলন থেকে সরানো যাবে না বলেও হুঁশিয়ারি দেন নজরুল

    আমারসিলেট24ডটকম,২৩ডিসেম্বরঃ  যদিও ইতোমধ্যেই ১৫৪ আসনে বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় নির্বাচন এবং অবশিষ্ট আসনগুলোতে আগামী ৫ জানুয়ারি ভোট গ্রহণের সব প্রস্তুতি সম্পন্ন হওয়ার পরও ১০ম জাতীয় সংসদ নির্বাচনে অংশ নেয়ার সুযোগের অপেক্ষায় বসে আছে বিএনপির ১৮ দলীয় জোট। সমঝোতার মাধ্যমে এ নির্বাচনে অংশ নেয়ার সুযোগ এখনো রয়েছে বলে দাবি করেছে দলটি। নির্বাচন স্থগিত করার দাবিতে অবরোধের মধ্যে রবিবার বিকালে এক সংবাদ সম্মেলনে দলটির স্থায়ী কমিটির সদস্য নজরুল ইসলাম খান এ কথা জানিয়েছেন। তিনি বলেন, দশম সংসদ নির্বাচনের যথেষ্ট সময় আছে। আমরা মনে করি, সরকারের সদিচ্ছা থাকলে এখনো সমঝোতা সম্ভব।
    উল্লেখ্য,আগামী ২৪ জানুয়ারি বর্তমান সরকারের মেয়াদ শেষ হবে। তার আগেই নির্বাচন অনুষ্ঠানের সাংবিধানিক বাধ্যবাধকতা রয়েছে। ফলে নির্বাচন পেছানোর সুযোগ নেই বলে সরকারি দলের নেতারা সব সময়ই দাবি করে আসছে। আর তাই আগামী ৫ জানুয়ারি নির্বাচন অনুষ্ঠানে অনড় আওয়ামী লীগ। দলটি বলছে, এখন আর বিএনপির এ নির্বাচনে অংশ নেয়ার সুযোগ নেই। তবে তাদের সঙ্গে আলোচনা হতে পারে পরবর্তী নির্বাচনের বিষয়ে।
    সংসদ বহাল থাকার কথা জানিয়ে নজরুল ইসলাম খান বলেন, সমঝোতার মাধ্যমে সকলের অংশ গ্রহণে ১০ম জাতীয় সংসদ নির্বাচন অনুষ্ঠানের জন্য, এমনকি সংবিধানের কোনো সংশোধনীর প্রয়োজন হলে তাও করা সম্ভব। তিনি বলেন, সরকারকে বলব, দেশ, জনগণ ও গণতন্ত্রের স্বার্থে আলোচনার মাধ্যমে সমঝোতা করে সবার অংশগ্রহণে দশম সংসদ নির্বাচনের উদ্যোগ নিন।
    নির্বাচনে অংশ না নিয়ে বিরোধী দল কপাল চাপড়াচ্ছে বলে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার বক্তব্যের জবাবে নজরুল বলেন, আমরা তো অনেক আগে থেকেই বলে আসছি, কোনো দলীয় সরকারের অধীনে নির্বাচনে যাবে না। তাই বিরোধী দল কপাল চাপড়াচ্ছে- এটা ঠিক নয়। তিনি বলেন, বরং একতরফা ভোটারবিহীন নির্বাচন নিয়ে আজ দেশ বিদেশে যে নিন্দার ঝড় উঠেছে, তার জন্য সরকারেরই কপাল চাপড়ানোর কথা। নিজের অবস্থান অন্যের ওপর বর্ণনা করার হাস্যকর চেষ্টা কারো জন্যই মর্যাদাকর নয়।
    বিএনপির স্থায়ী কমিটির এ সদস্য বলেন, সংবিধান অনুযায়ী সংসদের মেয়াদের ৯০ দিন আগে নির্বাচনের বিধান রয়েছে। একই সঙ্গে সংসদ ভেঙে দিলে তার ৯০ দিন মধ্যে নির্বাচনের বিধান রয়েছে বিদ্যমান সংবিধানেই। তাই সমঝোতা হলে সব দলকে নিয়েই নির্বাচন হতে পারে। তিনি বলেন, সংবিধান অনুযায়ী জানুয়ারিতেই নির্বাচন হতেই হবে, এটা ঠিক নয়। সরকারের মন্ত্রীরা এসব কথা বলে জনগণকে বিভ্রান্ত করছে।
    বিএনপিকে নিয়ে সরকারি দলের নেতাদের বক্তব্যের জবাবে নজরুল বলেন, বিএনপি স্বাধীনতার ঘোষক শহীদ প্রেসিডেন্ট জিয়াউর রহমান বীরোত্তমের হাতে গড়ে তোলা দলইতিহাস সাক্ষ্য দেয়, বিএনপি কখনো গণতন্ত্র হত্যা করেনিগণতন্ত্র হত্যাকারী কাউকে কখনো স্বাগতও জানায়নিবিরোধী দলের বিরুদ্ধে অপপ্রচার চালিয়ে জনগণকে চলমান আন্দোলন থেকে সরানো যাবে না বলেও হুঁশিয়ারি দেন নজরুল
    টানা চার দিন অবরোধের দ্বিতীয় দিন সর্বশেষ পরিস্থিতি জানাতে গুলশানে চেয়ারপারসনের কার্যালয়ে এ সংবাদ সম্মেলন হয়। এতে জানানো হয়, অবরোধের দ্বিতীয় দিনে সারাদেশে ৩৩৭ জন গ্রেপ্তার, ৬৫ জন গুলিবিদ্ধসহ ৪২৩ জন আহত হয়েছে।  এছাড়া ২৬০০ নেতা কর্মীর বিরুদ্ধে মামলা হয়েছে। এ সময় হেফাজতে ইসলামের শাপলা চত্বরের ২৪ ডিসেম্বর ঘোষিত সমাবেশের জন্য অবরোধ শিথিল হচ্ছে না বলে জানান নজরুল ইসলাম।

    LEAVE A REPLY

    Please enter your comment!
    Please enter your name here