সৌদি আরব থেকে অপহরণ করার অভিযোগে দেশে আটক-১

    0
    31

    আমারসিলেট টুয়েন্টিফোর ডটকম,১৬নভেম্বর,নিজস্ব প্রতিনিধিঃ     ব্রা‏হ্মণবাড়িয়ার কসবা উপজেলার গোবিন্দপুর গ্রামের দেলোয়ার হোসেন নামের এক তরুণকে সৌদি আরব থেকে অপহরণ করা হয়েছে। অপহরণ করার পর অপহৃতের পরিবারের কাছে ১০ লাখ টাকা মুক্তিপণ দাবি করেছে দুর্বৃত্তরা।
    অপহৃত দেলোয়ার হোসেন (৩৫) গোবিন্দপুর গ্রামের মো. দুধু মিয়ার ছেলে।

    এ ঘটনায় মাদারীপুর থেকে এক তরুণকে গ্রেফতার করেছে র‍্যাব। গ্রেফতার হওয়া ব্যক্তির নাম সোহাগ ব্যাপারী। তাঁর বাড়ি মাদারীপুর জেলা সদরের পূর্ব রাস্তি এলাকায়।

    পুলিশ সূত্রে জানা যায়, দেলোয়ার হোসেন ১১ বছর ধরে সৌদি আরবের রিয়াদ শহরের একটি প্রতিষ্ঠানে চাকরি করছেন। ১১ নভেম্বর কাজ শেষে বাসায় ফেরার পথে তিনি যে প্রতিষ্ঠানে চাকরি করেন, তার গেট থেকে কয়েকজন অজ্ঞাতনামা তরুণ তাকে গাড়িতে তুলে নিয়ে যায়। পরে সৌদি আরবের নম্বর থেকে দেলোয়ারের বাবার মুঠোফোনে ছেলেকে অপহরণ করা হয়েছে বলে জানায় অপহরণকারীরা। এ সময় তার কাছে ১০ লাখ টাকা মুক্তিপণ দাবি করা হয়। মুক্তিপণের টাকা বাংলাদেশের বেশ কয়েকটি বিকাশ নম্বরে পাঠানোর নির্দেশ দেয় অপহরণকারীরা। দেলোয়ারের বাবা এর মধ্যে কয়েকটি নম্বরে এক লাখ টাকা পাঠান।

    এ ঘটনায় ১৪ নভেম্বর রাতে দুধ মিয়া কসবা থানায় অপহরণের অভিযোগে অজ্ঞাতনামা ব্যক্তিদের বিরুদ্ধে মামলা করেছেন। বিষয়টি তিনি র‌্যাব-১৪ ভৈরব ক্যাম্পকেও জানান।

    গত মঙ্গলবার (১৪ নভেম্বর) রাতে র‌্যাবের একটি দল মোবাইল নম্বর ট্র্যাকিংয়ের মাধ্যমে মাদারীপুর জেলা সদর থেকে সোহাগ ব্যাপারীকে আটক করে। এ সময় তার কাছ থেকে অপহরণকারীদের দেয়া বিকাশ নম্বরসংযুক্ত সিমকার্ড ও ১০টি মুঠোফোন জব্দ করা হয়।
    বুধবার (১৫ নভেম্বর) রাতে সোহাগ ব্যাপারীকে কসবা থানায় সোপর্দ করে র‌্যাব।

    কসবা থানা থেকে বৃহস্পতিবার (১৬ নভেম্বর) সকালে তাকে ব্রা‏হ্মণবাড়িয়া বিচারিক হাকিমের আদালতে পাঠিয়েছে।

    কসবা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মোহাম্মদ মহিউদ্দিন বলেন, প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে সোহাগের কাছ থেকে কিছু তথ্য পাওয়া গেছে। রিমান্ডে এনে পুলিশি হেফাজতে জিজ্ঞাসাবাদ করা হলে আরও তথ্য পাওয়া যাবে। তাকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য ১০ দিনের রিমান্ড চাওয়া হয়েছে।

    LEAVE A REPLY

    Please enter your comment!
    Please enter your name here