রেলপথে অধিক ঝুঁকিপূর্ণ শতাধিক রেলব্রিজ:প্রাণের ঝুঁকি

    0
    21

    আমারসিলেট টুয়েন্টিফোর ডটকম,২৬ফেব্রুয়ারী,শাব্বির এলাহী: বাংলাদেশ রেলওয়ের পূর্বা লীয় জোনের সিলেট ডিভিশনে সিলেট-আখাউড়া রেললাইনের শতাধিক রেলব্রিজ অধিক ঝুঁকিপূর্ণ। আর এসব ঝুঁকিপূর্ণ ব্রিজের উপর দিয়ে প্রতিদিন ট্রেন ঝুঁকি নিয়ে চলাচল করে। রেলপথের পাহাড়ি ছড়া ও নদীর উপর প্রায় ৬০-৭০ বছর পূর্বে নির্মিত এসব ব্রিজ দীর্ঘদিন যাবত পুনঃনির্মাণ না করায় এই ঝুঁকির কারণ বলে জানিয়েছে রেলওয়ের দায়িত্বশীল সূত্র। যার ফলে এ রেল পথে হাজারো মানুষকে প্রতিদিন চলাচল  করতে হয় প্রাণের ঝুঁকি নিয়ে। সর্বশেষ গত ২৫ ফেব্রুয়ারি বৃহস্পতিবার ভোর রাতে ভারী বৃষ্টি ও পাহাড়ি ঢলে এ রোডের মৌলভীবাজারের কমলগঞ্জ উপজেলার ভানুগাছ-শ্রীমঙ্গল রোডের লাউয়াছড়া জাতীয় উদ্যানের জানকিছড়া রেলসেতুর নিচের মাটি সরে যায়। এতে সিলেটের সঙ্গে সারা দেশের ট্রেন যোগাযোগ বন্ধ হয়ে পড়েছে। মেরামতের পর সন্ধ্যা ৬ টার দিকে রেল যোগাযোগ স্বাভাবিক হয়।

    রেলওয়ে প্রকৌশল বিভাগ সূত্র জানায়, সিলেট-কুলাউড়া-আখাউড়া সেকশনে রেললাইনে তিন ফিট থেকে ৩০০ ফিট দীর্ঘ ব্রিজও রয়েছে। এ সেকশনের ১৭৭ কিলোমিটার দীর্ঘ রেলপথে ২৫০টির বেশি ছোট-বড় ব্রিজ রয়েছে। এখন থেকে ৬০-৭০ বছর আগে নির্মিত এসব ব্রিজ একবারও পুনঃনির্মিত হয়নি। ফলে পাহাড়ি ছড়া ও নদীতে বালু উত্তোলন ও ঢলের  কারণে মাটি দেবে গিয়ে এখন  অনেক ব্রিজই অধিক ঝুঁকিপূর্ণ হয়ে পড়েছে। আর এ কারণে এই রেল রুটের ব্রিজে এখন ঘন ঘন ত্রুটি-বিচ্যুতি  দেখা দেয়।  রেলওয়ে সূত্র আরও জানায়, এই সেকশনে সর্বশেষ বৃহস্পতিবার ভোর রাত আড়াইটার দিকে ভারী বৃষ্টি ও পাহাড়ি ঢলে মৌলভীবাজারের লাউয়াছড়া জাতীয় উদ্যানের জানকিছড়া রেলসেতুর নিচের মাটি সরে যায়। এতে সিলেটের সঙ্গে সারা দেশের ট্রেন যোগাযোগ বন্ধ হয়ে পড়ে।

    কমলগঞ্জের ভানুগাছ রেলওয়ে স্টেশন মাস্টার রুস্তম আলী ফকির জানান, ভানুগাছ-শ্রীমঙ্গল রেলপথের পাহাড়ি এলাকাটি খুবই ঝুঁকিপূর্ণ। সংস্কার কাজ না করলে আগামীতে আরো দুর্ঘটনার আশংকা রয়েছে। কুলাউড়া স্টেশনের প্রকৌশলী পীযূষ কান্তি দে জানান, “গত বুধবারের ভারি বর্ষণে সৃষ্ট পাহাড়ি ঢলে মাটি সরে গিয়ে প্রায় ২০ ফিট উচ্চতার গার্ডার ১৪ ফিটে নেমে এসেছে।”

    বাংলাদেশ রেলওয়ে সিলেট ডিভিশনের সহকারী নির্বাহী প্রকৌশলী মুজিবুর রহমান জানান, সিলেট-আখাউড়া সেকশনে রেলের ছোট-বড় শতাধিক ব্রিজ ঝুঁকিপূর্ণ রয়েছে। আমরা প্রায় সময় এসব ঝুঁকিপূর্ণ ব্রিজ পুনঃনির্মাণের প্রকল্প সংশি¬ষ্ট মন্ত্রণালয়ে পাঠিয়েছিলাম। কিন্তু অপ্রতুল বরাদ্দের কারণে সবগুলো একসাথে পুনঃনির্মাণ করা সম্ভব হচ্ছে না।

    LEAVE A REPLY

    Please enter your comment!
    Please enter your name here