রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ে উদ্ভূত পরিস্থিতি সম্পর্কে ছাত্র মৈত্রীর বিবৃতি

    0
    6

    আমারসিলেট24ডটকম,০২ফেব্রুয়ারীঃ বাংলাদেশ ছাত্র মৈত্রীর কেন্দ্রীয় সভাপতি বাপ্পাদিত্য বসু ও সাধারণ সম্পাদক তানভীর রুসমত আজ এক বিবৃতিতে রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ে চলমান ছাত্র আন্দোলনের উপর পুলিশী আক্রমণের তীব্র নিন্দা জানিয়েছেন। তারা আন্দোলনের দাবির সাথে একমত পোষণ করে অবিলম্বে সান্ধ্যকালীন কোর্স বাতিল এবং বর্ধিত সকল ফি প্রত্যাহারের জন্য বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষের প্রতি অনুরোধ জানিয়েছেন। তারা একই সাথে আন্দোলনের আড়ালে কোনোভাবেই যেন জঙ্গি ছাত্রদল ও শিবির বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পাস দখল বা ক্যাম্পাসে আধিপত্য প্রতিষ্ঠা করতে না পারে সে বিষয়েও আন্দোলনকারীদের সতর্ক থাকার আহ্বান জানিয়েছেন।

    বিবৃতিতে ছাত্র মৈত্রীর নেতৃদ্বয় বলেন, শিক্ষার বাণিজ্যিকীকরণের চলমান প্রক্রিয়ার অংশ হিসেবেই সা¤্রাজ্যবাদী অর্থলগ্নীকারী প্রতিষ্ঠানসমূহের প্রেসক্রিপশনে বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয় ও উচ্চ শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে নামে-বেনামে বেতন-ফি বৃদ্ধির প্রক্রিয়া চলছে। এরই ধারাবাহিকতায় রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ সান্ধ্যকালীন কোর্স চালু এবং বিভিন্ন খাতে বর্ধিত ফি শিক্ষার্থীদের উপর চাপিয়ে দিয়েছে। এই সিদ্ধান্ত বাস্তবায়িত হলে সাধারণ শিক্ষার্থীদের উচ্চ শিক্ষা গ্রহণের পথ আরো সংকুচিত হবে। ফলে শিক্ষার্থীদের চলমান আন্দোলনের সাথে আমরা সম্পূর্ণ একমত পোষণ করে এই সকল সিদ্ধান্ত থেকে সরে আসার জন্য বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষের প্রতি অনুরোধ জানাচ্ছি।

    বিবৃতিতে তারা আরো বলেন, তবে আমরা একই সাথে এও মনে করি যে, যেকোনো পরিস্থিতিতে দেশের সকল শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের শিক্ষার যথাযথ পরিবেশ বজায় রাখা উচিৎ। দেশের বিদ্যমান রাজনৈতিক পরিস্থিতিতে জঙ্গিবাদী সন্ত্রাসী সংগঠন ছাত্রদল ও শিবির যাতে কোনোক্রমেই কোনো ক্যাম্পাসে দখলদারিত্ব বা আধিপত্য বিস্তার করে শিক্ষার্থী ও শিক্ষার পরিবেশকে জিম্মি করতে না পারে সে বিষয়েও সকলকে সতর্ক থাকা দরকার। রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়কে কেন্দ্র করে সমগ্র রাজশাহীর শিক্ষা প্রতিষ্ঠান ও অন্যান্য স্থানে জঙ্গিবাদী ছাত্রদল-শিবির গোষ্ঠী তাদের দখল প্রতিষ্ঠা করতে মরিয়া হয়ে আছে। তাদের হাতে ক্যাম্পাসের দখল চলে গেলে তা হবে বিশ্ববিদ্যালয় ও দেশের জন্য চরম ক্ষতিকর। তাই এই আন্দোলনের আড়ালে ঐসব জঙ্গিবাদী গোষ্ঠী যাতে কোনোভাবেই তাদের অপকৌশল ও ষড়যন্ত্র বাস্তবায়ন করতে না পারে, সে বিষয়েও আন্দোলনরত শিক্ষার্থী ও ক্যাম্পাসের ক্রিয়াশীল প্রগতিশীল ছাত্র সংগঠনসমূহকে সতর্ক থাকা ও দায়িত্বশীলতার পরিচয় দিতে হবে।

    বিবৃতিতে ছাত্র মৈত্রীর নেতৃবৃন্দ বলেন, শিক্ষার অধিকার রক্ষার এই ন্যায্য দাবিতে আন্দোলন গড়ে তোলার উদ্যোগ গ্রহণের জন্য আমরা রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ে ক্রিয়াশীল প্রগতিশীল ছাত্র সংগঠনসমূহের নেতৃত্বকে অভিনন্দন জানাই। কিন্তু সাথে সাথে ছাত্রদল-শিবিরের মতো জঙ্গিগোষ্ঠী যাতে উদ্ভূত পরিস্থিতির কোনো সুযোগ নিতে না পারে, সে বিষয়েও ঐ নেতৃত্বকে আমরা সজাগ ও দায়িত্বশীল থাকার আহ্বান জানাই।প্রেস বিবৃতি

    LEAVE A REPLY

    Please enter your comment!
    Please enter your name here