রক্তে অর্জিত এদেশ আমাদের সকলের, জামায়াত-হেফাজতের নয় : বেগম মুশতারী শফী

    0
    10
    রক্তে অর্জিত এদেশ আমাদের সকলের, জামায়াত-হেফাজতের নয় : বেগম মুশতারী শফী
    রক্তে অর্জিত এদেশ আমাদের সকলের, জামায়াত-হেফাজতের নয় : বেগম মুশতারী শফী

    চট্টগ্রাম, ০৪ মে: চট্টগ্রামে গণজাগরণ মঞ্চে হেফাজতে ইসলামের বিরুদ্ধে মহাসমাবেশে নারী নেত্রীরা বলেছেন, ‘ধর্মের নাম দিয়ে কেউ নারীদের অপমান করলে সেটা বাংলাদেশের নারীসমাজ মেনে নেবেনা। এ দেশ শুধু জামায়াত কিংবা হেফাজতের নয়। এ দেশ আমাদেরও। এ দেশ নারী-পুরুষ, ধর্ম, বর্ণ নির্বিশেষে সবার। ধর্মের নামে রাজনীতি অতীতেও বাংলাদেশের মানুষ গ্রহণ করেনি, ভবিষ্যতেও করবেনা।’
    মহাসমাবেশ থেকে নারীনেত্রীরা ৫ মে হেফাজতে ইসলামের ঢাকা অবরোধ কর্মসূচী প্রত্যাহারেরও আহবান জানিয়েছেন।

    শুক্রবার বিকেল ৪টায় জাতীয় সংগীত পরিবেশনের মধ্য দিয়ে হেফাজতে ইসলামের ১৩ দফা দাবির বিরুদ্ধে সম্মিলিত নারী সমাজ, চট্টগ্রাম এর মহাসমাবেশ শুরু হয়। সমাবেশ শুরু হওয়ার আগেই নগরীর ও জেলার বিভিন্ন স্থান থেকে বিপুল সংখ্যক নারী খন্ড খন্ড মিছিল নিয়ে সমাবেশে যোগ দেন।

    সমাবেশে প্রধান অতিথির বক্তব্যে শহীদ জায়া বেগম মুশতারী শফী বলেন, ‘এদেশের নারী-পুরুষ মহান মুক্তিযুদ্ধে সমানভাবে লড়াই করেছেন। রক্তে অর্জিত এদেশ আমাদের সকলের, জামায়াত-হেফাজতের নয়। তাদেরকে নিষিদ্ধ করতে হবে। এ অপশক্তি ও মৌলবাদী শক্তির বিরুদ্ধে আমাদের সকলকে ঐক্যবদ্ধ থাকতে হবে।’
    কর্মজীবী নারী’র প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি ও নারীনেত্রী শিরিন আখতার বলেন, ‘নারীরা দেশের অর্থনৈতিক চাকার গতি সচল রেখেছেন। নারীর অবদানের কারণে দেশের অর্থনীতি আজ অগ্রসরমান। নারীদের এ অগ্রযাত্রা কেউ রুখতে পারবে না। তাই নারীকে সম্মান করতে শিখুন। নারী সমাজের বিরুদ্ধে যেকোন ধরণের ষড়যন্ত্র ঐক্যবদ্ধভাবে মোকাবিলা করা হবে।’

    তিনি বলেন, ‘হেফাজতের ১৩ দফা দাবি মানলে নারীদের ঘরে ফিরে যেতে হবে। কিন্তু এদেশের নারীরা ঘরে ফিরে যাবে না। তারা হেফাজতের ১৩ দফা মানেনা।’

    হেফাজতের আমীর আহমদ শফীকে উদ্দেশ্য করে এ নারী নেত্রী বলেন, ‘আপনি একাত্তরের মহান মুক্তিযুদ্ধে বাঙালি নারীদের ধর্ষণকারীদের বিচার দাবি করেন না, আপনি যুদ্ধাপরাধীদের বিচারের কথা বলেন না, আপনি দেলাওয়ার হোসাইন সাঈদীকে চাঁদে দেখা যাওয়ার অপপ্রচারের বিষয়ে কোনো কথা বলেন না, আপনি পবিত্র কাবা শরীফের গিলাফ নিয়ে মিথ্যাচারকারী মাহমুদুর রহমানের বিরুদ্ধে কিছু বলেন না, উল্টো তার মুক্তি দাবি করেন। আসলে আপনি ইসলাম রক্ষা করতে মাঠে নামনেনি। আপনি জামায়াতকে রক্ষা করতে মাঠে নেমেছেন।’

    শিরিন আখতার আগামী রোববার হেফাজতের ঢাকা অবরোধ কর্মসূচি প্রত্যাহারের অনুরোধ জানিয়ে বলেন,‘সাভারের বিধস্ত ভবন থেকে এখনো লাশ উদ্ধার করা হচ্ছে। জাতীয় এ দুর্যোগে বিরোধী দলসহ সকলে তাদের কর্মসূচি স্থগিত করেছে। আপনিও অবরোধ প্রত্যাহার করুন।’

    নারীনীতি ও শিক্ষানীতি বাতিলের কর্মসূচি এদেশের মাটিতে সফল হবেনা বলেও উল্লেখ করেন শিরিন আখতার।

    সমাবেশের অন্যতম বক্তা ও বাংলাদেশের কমিউনিস্ট পার্টির প্রেসিডিয়াম সদস্য ও কেন্দ্রীয় নারী সেলের আহবায়ক লক্ষী চক্রবর্তী বলেন, ‘দেশের প্রধানমন্ত্রী-স্পিকার-বিরোধী দলীয় নেত্রী নারী। নারী সমাজের এ অগ্রযাত্রা মৌলবাদী গোষ্ঠী মেনে নিতে পারছে না। বাংলার নারী সমাজ আজ জেগেছে। নারীর এ জাগরণকে স্তব্ধ করা যাবে না। নারী সমাজকে অন্ধকার যুগে ফিরিয়ে নেয়া যাবে না।’

    তিনি বলেন, মৌলবাদী গোষ্ঠীটি যুদ্ধাপরাধীদের বিচার প্রক্রিয়া নস্যাৎ করার জন্য ভিন্ন সংগঠনের নামে মাঠে নেমেছে।

    LEAVE A REPLY

    Please enter your comment!
    Please enter your name here