ভারতে গঙ্গার পানিতে চল্লিশটিরও অধিক লাশ ভাসছে,আতঙ্কে গ্রামবাসি !

0
89
ভারতে গঙ্গার পানিতে চল্লিশটিরও অধিক লাশ ভাসছে,আতঙ্কে গ্রামবাসি!
ভারতে গঙ্গার পানিতে চল্লিশটিরও অধিক লাশ ভাসছে,আতঙ্কে গ্রামবাসি!

ভারতের গঙ্গা নদীতে ৪০ থেকে ৪৫ টি লাশ ভাসার খবর ছড়িয়ে পড়ায় উত্তর প্রদেশের হামিরপুর গ্রামবাসীদের মধ্যে আতঙ্ক তাদের আশঙ্কা করুণা আক্রান্তদের মৃতদেহের সৎকার না করে গঙ্গার জলে ভাসিয়ে দিয়েছে স্বজনরা, সোমবার ভারতীয় সংবাদ মাধ্যম এনডিটিভি’র প্রতিবেদন থেকে এ তথ্য পাওয়া গেছে।
প্রতিবেদন সূত্রে জানা যায়,রোববার ৯মে সকালে হামিরপুর এলাকার বিভিন্ন গ্রামের বাসিন্দারা গঙ্গার পানিতে চল্লিশটির ও বেশি মৃত দেহ নদীতে ভাসতে দেখেছেন। এরপরে আতঙ্ক ছড়িয়ে পড়ে পুরো এলাকায়।
স্থানীয় সূত্র ধরে এনডিটিভি জানান, আশপাশের এলাকায় করোনা সংক্রমনের হার অত্যন্ত বেশি। সেখানে আক্রান্ত হয়ে মৃত্যুর পরিমাণ এতটাই বেশি যে শ্মশানে সৎকার করতে হিমশিম খেতে হচ্ছে ওই এলাকার লোকদের। এ অবস্থায় ফাঁকা মাঠে মৃতদেহ পোড়ানো হচ্ছে। অনেকে সৎকার না করে গঙ্গার জলে ভাসিয়ে দিচ্ছে লাশ। এই ঘটনায় অনেকে আবার স্থানীয় প্রশাসনের বিরুদ্ধে নদীতে ভাসিয়ে দেওয়ার অভিযোগ তুলেছেন,তাদের দাবি বেশকিছু গ্রামের মানুষ শ্মশানে না পুড়িয়ে ফাঁকা মাঠে দেহ পোড়াচ্ছে। সবকিছু দেখেও স্থানীয় প্রশাসন চুপ রয়েছে, কত দেহ পোড়ানো হচ্ছে সে বিষয়ে প্রশাসনের কাছে কোনো তথ্য নেই বলে দাবি করেছে স্থানীয়রা।
এরকম ভয়াবহ অবস্থা প্রসঙ্গে চৌসার জেলার পুলিশ কর্মকর্তা অশোককুমার ভারতীয় বলেন,”প্রায় ৪০ প্লাস ৪৫ টি লাশ নদীতে ফেলে দেওয়া হয়েছে বলে মনে করছেন তিনি এ বিষয়ে হামিরপুর অ্যাসিস্ট্যান্ট পুলিশ সুপার অনুপ কুমার সিং সংবাদ মাধ্যমকে জানান, কানপুর ও হামিরপুর এর সীমানা বরাবর গঙ্গা নদীর অবস্থান এর আশপাশের গ্রামের পুরনো রীতি ও রয়েছে তারা মাঝেমধ্যে একটা-দুটো লাশ ভাসাতে দেখা যায়। তবে মহামারীতে লাশের সংখ্যা বাড়তে শুরু করেছে এ থেকে বুঝা যায় ওই অঞ্চলে মৃত্যুর হার কতটা বেশি। তিনি আরো জানান আতঙ্কের কারণেই মৃতদেহ না পুড়িয়ে নদীতে ভাসিয়ে দিচ্ছেন।
ভয়াবহ এ ধরনের ঘটনা বন্ধ করতে প্রশাসনের ভূমিকা কি? এবিষয়ে প্রশাসনের পক্ষ থেকে কোনো উত্তর পাওয়া যায়নি।
প্রসঙ্গত ভারতে প্রায় তিন সপ্তাহ ধরে প্রতিদিন কমপক্ষে তিন লক্ষাধিক মামলা রেকর্ড করেছে এবং গত সপ্তাহে রেকর্ড পরিমাণ মৃত্যু ঘটেছে ওই দেশে যার পরিমাণ ছিল ৪ হাজারেরও বেশি।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here