বৃহত্তর জৈন্তা পাথর শ্রমিক ট্রেড ইউনিয়নের স্মারকলিপি

    0
    12

    আমার সিলেট টুয়েন্টি ফোর ডটকম,১৭এপ্রিল,রেজওয়ান করিম সাব্বির, জৈন্তাপুর   সিলেটের জৈন্তাপুরের সর্ববৃহত সংগঠন বৃহত্তর জৈন্তা পাথর শ্রমিক ট্রেড ইউনিয়ন রেজিনং চট্ট-১৯০৯ এর অন্তভূক্ত ৮নং ইউনিটের শ্রমিকরা সারীঘাট বাজারে বিশাল মানব বন্ধন কর্মসূচী পালন করে। শ্রমিক নামধারী কতিপয় অশ্রমিকদের অনিয়ম, দূর্নীতি ও তহবিল আত্মসাতের বিরুদ্ধে জৈন্তাপুর উপজেলা নির্বাহী অফিসার বরাবর স্মারকলিপি দাখিল করে।

    মানব বন্ধন ও স্মারকলিপি সূত্রে জানাযায়- বৃহত্তর জৈন্তা পাথর শ্রমিক ট্রেড ইউনিয়ন রেজিনং চট্ট-১৯০৯ এর অন্তভূক্ত সারীঘাট দক্ষিণ পারস্থ ৮নং ইউনিটের শ্রমিক হই। আমরা ট্রেড ইউনিয়নের নিয়মনীতি মানিয়া আমরা কাজ করে আসছি। এদিকে ৮নং ইউনিটের সভাপতি গোলাম মোস্তফা, আব্দুল বারী, ফুরকান আহমদ, আব্দুস শুক্কুর, হোসেন আহমদ, আজিজুল হক, নুরুল হক, আবু, গিয়াছ উদ্দিন, কুদরত উল্লাহ, আহমদ আলী, রশীদ আহমদ, মোহাম্মদ আলী, লোকমান আহমদ গংরা দীঘদিন হতে সাধারণ শ্রমিকদের নিকট হতে প্রতি মাসে ২০টাকা হারে চাঁদা আদয় করে আসিতেছে।

    শ্রমিকদের কার্ড দেওয়ার নামে ১হাজার ৫শত করে ৩৫জন শ্রমিকদের নিকট হতে ৫২হাজার ৫শত টাকা আদায় এবং বিভিন্ন সময়ে প্রভাব বিস্তার করিয়া আরও ৫০/১০০ টাকা আদায় করিয়াছেন। বিনিময়ে সুযোগ সুবিধা পাওয়া দূরের কথা আজ পর্যন্ত শ্রমিকরা তাদের কার্ড পায়নি। এছাড়া কার্ড দাবী করিলে সিরিয়াল বন্ধ করা হয় এমনকি ১৫দিন কিংবা ১মাস পর্যন্ত ইউনিটে কাজ করা বন্ধ করে দেওয়া হয়।

    এছাড়া স্থানীয় বালু ব্যবসায়ীদের সাথে ইচ্ছাকৃত ভাবে খারাপ আচরনের জন্য আমাদেরকে প্রলুব্ধ করা হয় তাতে রাজি না হওয়ায় তারা আমাদের দ্বারা গাড়ীতে বালু লোড-আনলোড বন্ধ করে দিয়েছে। আমরা গবির অসহায় দিনমজুরন হওয়ার কারনে আমাদের উপর মিথ্যা হয়রানিমূলক মামলা দায়ের করিয়া আর্থিক ভাবে ক্ষতিগ্রস্থ করার পায়তারা করিতেছে। বর্তমানে ঘাট বন্ধ অহেতুক ভাবে শ্রমিক হয়রানীর কারনে পরিবার পরিজন নিয়ে মনবেতর জীবন যাপন করছে বলে মানব বন্ধনে দাবী জানান।

    গতকাল ১৭ এপ্রিল সোমবার দুপুর ২টায় সারীঘাট বাজারে নির্যাতীত ৮নং ইউনিটের সাবেক সভাপতি লুতু মিয়ার সভাপতিত্বে ও সাধারণ সম্পাদক মোঃ মাসুক মিয়ার পরিচালনায় মানব বন্দন পালন কালে বক্তব্য রাখেন সাবেক সহ সভাপতি হুনা আলী, আকলাকুর রহমান, ইসলাম উদ্দিন পেড়াই, ইসুব, আল-আমিন, লোকমান আহমদ, সুহেল আহমদ প্রমুখ। এসময় প্রায় ২শতাধিক শ্রমিক মানব বন্ধনে অংশগ্রহন করে। পরে বিকাল ৩টায় উপজেলা নির্বাহী কার্যালয়ে বিরাট বিক্ষোভ মিছিল নিয়ে ট্রেড ইউনিয়নের অন্তভূক্ত ১৯০৯এর ৮নং ইউনিটের কতিপয় নামধারী শ্রমিকদের কবল হতে এবং অব্যাহৃত অনিয়ম দূর্ণীতি ও তহবিল আত্মসাতের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা গ্রহনের জন্য উপজেলা নির্বাহী অফিসার বরাবরে স্মারকলিপি প্রদান করে।

     

    LEAVE A REPLY

    Please enter your comment!
    Please enter your name here