বাংলাদেশে নির্জীব বামপন্থী রাজনৈতিক দলগুলোর হালচাল

    0
    76

    অনেকটাই নির্জীব বাংলাদেশের বামপন্থী রাজনৈতিক দলগুলো। নিত্যপণ্যের উচ্চমূল্য, আইনশৃংখলা পরিস্থিতিসহ নানা ইস্যুতে আগের মতো সোচ্চার নয় তারা। নানা কারণে দ্বিধাবিভক্ত হয়ে পড়াতেই বামধারাকে আর আগের মতো রাজপথে সক্রিয় দেয়া যায় না বলে মনে করেন বিশ্লেষকরা।

    পরিবর্তিত বিশ্ব রাজনীতিতে ক্রমশ ক্ষয়ে যাচ্ছে সমাজতন্ত্র। তারই প্রভাব যেন পড়েছে বাংলাদেশের দলগুলোর ওপরও। অভ্যন্তরীণ রাজনৈতিক পরিবেশও শক্তিহীন করেছে তাদের। একটি অংশ সমাজতন্ত্রকে আকড়ে থাকলেও অপর একটি অংশ মিশছে প্রচলিত সুবিধাবাদী ধারায়। ক্ষমতার আশপাশে থাকতে গণমানুষের অধিকার নিয়ে রাজপথের আন্দোলন থেকে সরে গেছেন অনেকে।

    এরপরও যারা এখনো রাজপথে আছেন, ক্ষমতার রাজনীতিতে সুবিধা করতে পারছেন না তারা। ফলে রাজপথে মিটিং, মিছিল, আন্দোলনের পরিবর্তে ঘরে ঢুকে পড়েছে বামধারা। অনেকটা ঘরোয়া সভা-সমাবেশ কিংবা মানববন্ধনের মতো নিরীহ কর্মসূচিতেই সীমাবদ্ধ তাদের কার্যক্রম।

    দেশের বাম রাজনীতি প্রসঙ্গে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যাপক ডক্টর গোলাম রাব্বানী বলেন, রাজনৈতিক পরিমণ্ডলে বামদলগুলোর প্রয়োজনীয়তা মোটেও শেষ হয়ে যায়নি। তবে স্বার্থসিদ্ধির রাজনীতিতে তাদের কোন কর্মসূচি জনগণকে আকৃষ্ট করতে পারছে না।

    নিজেদের দুর্বলতা স্বীকার করে সিপিবি সম্পাদক রুহিন হোসেন প্রিন্স বলেন, রাজনীতিতে দুর্বৃত্তায়ন ঢুকে পড়েছে। বাম নেতাদের অনেকে জড়িয়ে পড়েছেন সুবিধাভোগী ধারায়। তাই চাইলেও এ পরিবেশে নিজেদের গুছিয়ে নেয়া সম্ভব হচ্ছে না। তবে চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছেন তারা।

    গণমানুষের স্বার্থে নানা কর্মসূচি নিয়ে মাঠে থাকার চেষ্টা করছেন তারা। এসব কর্মসূচিতে অংশ না নিলেও বৈষম্য ও শোষনমুক্ত সমাজ প্রতিষ্ঠার আন্দোলনকে সাধারণ মানুষ সমর্থন করে বলেই মনে করেন এ সিপিবি নেতা।পার্সটুডে