বর্ণবাদবিরোধী প্রবাদ পুরুষ ম্যান্ডেলার শেষ বিদায়

    0
    7

    আমারসিলেট24ডটকম,০ডিসেম্বরঃ মাদিবা গোষ্ঠীর বর্ণবাদবিরোধী আন্দোলনের প্রবাদ পুরুষ নেলসন ম্যান্ডেলা মারা গেছেন। দক্ষিণ আফ্রিকায় তাকে আদর করে মাদিবা বা তাতা নামে ডাকা হতো। মাদিবা তার গোষ্ঠী নাম। আর তাতা মানে পিতা বা বাবা। দক্ষিণ আফ্রিকার প্রথম কৃষ্ণাঙ্গ প্রেসিডেন্ট তিনিই। দক্ষিণ আফ্রিকার প্রেসিডেন্ট জ্যাকব জুমা জাতির উদ্দেশ্যে টেলিভিশনে দেওয়া এক বিবৃতিতে – ৯৫ বছর বয়স্ক বর্ষিয়ান এই নেতার মৃত্যুর খবর ঘোষণা করেন। জুমা জানান, মাদিবা স্থানীয় সময় ২১:০০টা (গ্রিনিচ মান সময় ১৯:০০) কিছু আগে শান্তিপূর্ণভাবে মারা যান। দীর্ঘদিন ধরে ফুসফুসের সমস্যায় ভুগছিলেন তিনি।
    টেলিভিশনে জাতির উদ্দেশে দেওয়া ভাষণে প্রেসিডেন্ট জুমা বলেন, পূর্ণ রাষ্ট্রীয় সম্মানে তার অন্ত্যেষ্টিক্রিয়া হবে। তিনি জাতীয় পতাকা অর্ধনমিত রাখার নির্দেশ দেন। এবং যতদিন না পর্যন্ত নেলসন ম্যান্ডেলার সমাধি হবে ততদিন পতাকা অর্ধনমিত রাখার জন্য ঘোষণা দেন আফ্রিকার প্রেসিডেন্ট জ্যাকব জুমা।
    দক্ষিণ আফ্রিকার জনতাকে উদ্দেশ্য করে জুমা বলেন, প্রিয় দেশবাসী, আমাদের গণতান্ত্রিক রাষ্ট্রের প্রতিষ্ঠাতা প্রেসিডেন্ট, আমাদের সবার প্রিয় নেলসন ম্যান্ডেলা চলে গেছেন। নিজের বাড়িতেই শান্তিপূর্ণভাবে তিনি মারা গেছেন। তাঁর বিদায়ে আমাদের জাতি হারিয়েছে তার শ্রেষ্ঠ সন্তান, আমাদের জনতা হারিয়েছে পিতার মত এক আশ্রয়।তিনি আরো বলেন, “আমরা জানতাম যে, বিদায়ের এই দিন একদিন আসবে। কিন্তু তবুও, তার বিদায়ে আমরা যে গভীর বেদনা পেয়েছি, যে অপূরণীয় ক্ষতি আমাদের হয়েছে, তা কিছুতেই কমানো সম্ভব নয়।”
    “মাদিবা” নামে ভক্তদের কাছে পরিচিত ম্যান্ডেলার উত্থান গ্রামীণ জীবন থেকে। ১৯১৮ সালের ১৮ জুলাই জন্ম নিয়েছিলেন নেলসন রোলিহ্লাহ্লা ম্যান্ডেলা। দক্ষিণ আফ্রিকায় যখন সংখ্যালঘু শেতাঙ্গ সম্প্রদায়ের আধিপত্য, নিপীড়ন ও বৈষম্যমূলক শাসন ব্যাবস্থা চলছিল তখন বর্ণবাদ বিরোধী আন্দোলন নিয়ে রাস্তায় নামেন ম্যান্ডেলা। প্রতিবাদী কর্মকাণ্ডের অপরাধে দীর্ঘ ২৭ বছর তিনি কারাবন্দী জীবন কাটিয়েছিলেন। তাঁর নেতৃত্বেই গত শতকের নব্বইয়ের দশকে দক্ষিণ আফ্রিকায় ঘটে শেতাঙ্গ শাসনের আধিপত্যের অবসান যা আজ বিদ্যমান।

    LEAVE A REPLY

    Please enter your comment!
    Please enter your name here