প্রেমে ব্যর্থতার কারণে যুক্তরাষ্ট্রে হামলার পরিকল্পনা করেন : নাফিস

    0
    6

    যুক্তরাষ্ট্র, ০৯ আগস্ট : হামলার ‘পরিকল্পনার কারণ’ বললেন কাজী মোহাম্মদ রিজওয়ানুল আহসান নাফিস। তোতলামো ও প্রেমে ব্যর্থতার কারণে যুক্তরাষ্ট্রে ফেডারেল রিজার্ভ ভবনে হামলার পরিকল্পনা  করেছিলেন নাফিস। বিচারককে লেখা এক চিঠিতে একথা বলেছেন তিনি।

    যুক্তরাষ্ট্রের নিউ ইয়র্কে ফেডারেল রিজার্ভ ভবন গাড়িভর্তি বিস্ফোরক দিয়ে উড়িয়ে দেওয়ার ‘ষড়যন্ত্রের’ অভিযোগে গত বছরের ৯ অক্টোবর নাফিসকে গ্রেফতার করে এফবি আই। ওই মামলার বিচারক ক্যারল অ্যামনের কাছে নাফিস পাঁচ পৃষ্ঠার দীর্ঘ চিঠিটি লেখেন গত ৩১ জুলাই।

    এই চিঠির প্রতিলিপিসহ এ বিষয়ে প্রতিবেদন প্রকাশ করেছে ডেইলি নিউজ।

    ২২ বছর বয়সী নাফিস চিঠির শুরুতে লিখেছেন, একেবারে শৈশব থেকেই আমার খুব তোতলামোর সমস্যা ছিল, যা এখনও অব্যাহত।আমি অনেকটা নিঃসঙ্গভাবে বেড়ে উঠেছি, উল্লেখ করে চিঠিতে নাফিস লিখেছেন, আমাকে নিয়ে আমার মা-বাবার কোনো আশাই ছিল না। আমাকে ঘিরে তাদের সব প্রচেষ্টাই ব্যর্থ হয়েছে। ব্যর্থতার ভিড়ে আমার জীবনটা একেবারে শেষ হয়ে গিয়েছিল।

    বাংলাদেশে কলেজে পড়ার সময় কয়েকজন মৌলবাদী ছাত্রের সঙ্গে পরিচয় হলে অবস্থার আরও অবনতি হতে শুরু করে, উল্লেখ করে নাফিস চিঠিতে লেখেন, সহজেই আমি মানুষকে বিশ্বাস করতাম।

    দেশে কলেজজীবন শেষে উচ্চ শিক্ষার জন্য তিনি যুক্তরাষ্ট্রের দক্ষিণ-পূর্বাঞ্চলের মিসৌরি অঙ্গরাজ্যে পাড়ি জমালেও শেষ পর্যন্ত তাকে প্রতিবারের মতো এবারও বিপর্যয়কর পরিণতি বরণ করতে হয়, লিখেছেন নাফিস। নাফিস জানান, মিসৌরির যে বিশ্ববিদ্যালয়ে তিনি ভর্তি হয়েছিলেন সেখানে খারাপ ফলাফল করায় তাকে বহিস্কার করা হয়।

    ওই সময় তিনি আত্মহত্যা করতে চেয়েছিলেন দাবি করে নাফিস বলেন, তবে ইসলামে আত্মহত্যা নিষিদ্ধ হওয়ায় তিনি ‘জিহাদের’ পথ বেছে নেন।এরপর থেকে অ্যালবেনিতে তার এক চাচার সঙ্গে থাকলেও সেসময় কোনো কাজ খুঁজে পাচ্ছিলেন না নাফিস।

    এরপর এক সময় তিনি জ্যামাইকাতে চলে যান এবং সেখানে দূরসম্পর্কের এক আত্মীয়ের সঙ্গে বসবাস করতে থাকেন। সেখানেও তিনি বিপর্যয় কাটিয়ে ওঠার মতো কোনো উপায় করতে পারছিলেন না চিঠিতে তিনি লিখেছেন, আমি ভাবতে শুরু করি যে সফল হওয়ার মতো শারীরিক ও মানসিক সামর্থ্য আমার নেই।

    তার ‘প্রেমে ব্যর্থতার’ ঘটনা ও এসময়ই ঘটে । নাফিস জানতে পারেন বাংলাদেশে যে মেয়েটিকে তিনি ভালোবাসতেন সে তার সঙ্গে ‘প্রতারণা’ করেছে।

    প্রেমে ব্যর্থতার বিষয়ে নাফিস লেখেন, তখন মনে হয়েছিল আমার মাথায় আকাশ ভেঙে পড়েছে।ওই সময় তিনি আত্মহত্যা করতে চেয়েছিলেন দাবি করে বলেন, তবে ইসলামে আত্মহত্যা নিষিদ্ধ হওয়ায় তিনি ‘জিহাদের পথ বেছে নেন। ব্যর্থতার ভিড়ে আমার জীবনটা একেবারে শেষ হয়ে গিয়েছিল।

    চিঠিতে নাফিস লিখেছেন, সে সময় আমি কিভাবে মৃত্যুর সম্ভাব্য সব ধরনের উপায় নিয়েই ভাবতাম।

    এরই এক পর্যায়ে তিনি গাড়িভর্তি বিস্ফোরক দিয়ে যুক্তরাষ্ট্রের নিউ ইয়র্কে ফেডারেল রিজার্ভ ভবন উড়িয়ে দেওয়ার ‘পরিকল্পনা’ করেন। তবে ‘পরিকল্পনা’র সময় থেকেই এফবি আই গোয়েন্দারা তাকে অনুসরণ করতে শুরু করে।

    এফবি আই গোয়েন্দারা সে সময় তাকে নকল বিস্ফোরকসহ একটি গাড়ি চালিয়ে নিউ ইয়র্কে ফেডারেল রিজার্ভ ভবনের সামনে নিয়ে যেতে দেয় এবং একটি মোবাইল ফোনের মাধ্যমে তিনি কিভাবে সেই বিস্ফোরকের বিস্ফোরণ ঘটানোর চেষ্টা করেন তা পর্যবেক্ষণ করে। পরে এফবি আই তাকে আটক করে।

    এ ঘটনায় নাফিসের বিরুদ্ধে করা মামলায় আজ শুক্রবার রায় ঘোষণা হওয়ার কথা। অভিযোগ প্রমাণ হলে নাফিসের ৩০ বছরের কারাদন্ড হতে পারে। ডেইলি নিউজ

     

    LEAVE A REPLY

    Please enter your comment!
    Please enter your name here