নড়াইলের কালিয়ায় দুই গ্রামবাসির মধ্যে সংঘর্ষে শতাধিক আহত॥ পুলিশের গুলি বর্ষন

    0
    13

    নড়াইল প্রতিনিধি
    জমি রেজিস্ট্রি খরচের হিসাবকে কেন্দ্র করে নড়াইলের কালিয়া উপজেলার পহরডাঙ্গার ইউনিয়নের দুই গ্রামের মধ্যে এক সংঘর্ষে সোমবার (২৭মে) সকালে অন্তত শতাধিক লোক আহত হয়েছেন। আহতদেরকে পার্শ্ববর্তী গোপালগঞ্জ ও মোল্যারহাট হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। সংঘর্ষ ঠেকাতে পুলিশ ১৫ রাউন্ড ফাকা গুলি বর্ষন করেছে। মিমাংশার জন্য বিকালেই ডাকা হয়েছে শালিশ বৈঠক।
    এলাকাবাসিরা জানান, উপজেলার সরশপুর গ্রামের দলিল লেখক মোশারেফ হোসেনের সাথে পহরডাঙ্গা গ্রামের ভোলা শরীফের মধ্যে জমি-রেজিষ্ট্রির হিসাবকে কেন্দ্র করে রোববার (২৬মে)কথা কাটাকাটি হয়। এর জের ধরে ঐদিন বিকালে ভোলা শরীফের লোকজন মোশারেফ হোসেনকে পহরডাঙ্গা বাজারে লাঞ্চিত করলে সরসপুর ও পহরডাঙ্গা গ্রামের বাসিন্দাদের মধ্যে উত্তেজনা দেখা দেয়। এ ঘটনাকে কেন্দ্র করে সোমবার সকাল ৮ টার দিকে সরসপুর ও পহরডাঙ্গা গ্রামের বাসিন্দারা সংঘর্ষে লিপ্ত হয়।
    প্রায় দেড় ঘন্টা ব্যাপি সড়কি ও ইট যুদ্ধে উভয় পক্ষের হাফিজুর খা (৩৮), রেনু বেগম(৪৫), পান্নাবেগম(৩৫),রিফাত শেখ(৯),ইনজাহের মোল্যা(৫৫), আকবর খা(২৫), মোয়ের মোল্যা(৩৮), রুবেল ঠাকুর(৪৫), সাজ্জাদ বিশ্বাস(২৮), রিজাল ফকির(৩৮), সেলিম মোল্যা(১৪), পলাশ মোল্যা(১৮), তরিক শেখ(৩৭),সদর খা(৩৮), পাচু বিশ্বাস(৫৮), সাকেত বিশ্বাস(৬০), রফিক মোল্যা(৪০), জাকির হোসেন(২৭) রহমত মোল্যা(৩২) এলেক বিশ্বাস(৪৩), রমজান শিকদার(৫২), লতিফ শিকদার(৩২), মোশারেফ হোসেন(৫৬) ও জাকির হোসেন(৩৫) সহ অনেকেই গুরুতর আহত হন।
    পহরডাঙ্গার ইউপি চেয়ারম্যান লাবু শিকদার বলেছেন, প্রশাসনের সহায়তায় গ্রামবাসিদের শান্ত করা হয়েছে। ঘটনাটি মিমাংশার জন্য সোমবার বিকাল ৫ টায় উভয় পক্ষের সম্মতিতে পহরডাঙ্গা বাজারে শালিশ বৈঠক ডাকা হয়েছে।
    নড়াগাতি থানার ওসি মোঃ আমীর তৈমুর ইলী বলেছেন,ঘটনার খবর পেয়ে তিনি নিজে ঘটনাস্থলে ছুটে যান এবং পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রনে আনতে পুলিশ শর্টগানের ১৫ রাউন্ড ফাকা গুলি বর্ষন করা হয়। ঘটনাটি মিমাংশার জন্য এলাকাবাসিরা বিকালে শালিশ বৈঠক ডেকেছে। এলাকাবাসি শান্তি ফিরিয়ে আনার উদ্যোগ নেয়ায় পুলিশ কাউকে আটক করেনি।

    LEAVE A REPLY

    Please enter your comment!
    Please enter your name here