নবীগঞ্জে সরকারী জায়গা থেকে মাটি উত্তোলনের অভিযোগ

0
30

নূরুজ্জামান ফারুকী,নবীগঞ্জ থেকে: নবীগঞ্জে সরকারী জায়গা থেকে অবৈধভাবে আবারও মাটি উত্তোলন করে রাস্তা ভেঙ্গে যাওয়ার কারণে জনসাধারণ চলাচলে মারাত্মক দূর্ভোগ এবং পাশ্ববর্তী মিল মালিকের গাড়ী চলাচল করতে না পারায় ব্যাপক আর্থিক ক্ষতি সম্ভাবনা দেখা দিয়েছে। এ ব্যাপারে পাশ্ববর্তী মিল মালিক গৌরাঙ্গ দাশ প্রতিকার চেয়ে নবীগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী অফিসার বরাবরে লিখিত অভিযোগ দিয়েছেন। জানা যায়, নবীগঞ্জ উপজেলার বাউসা ইউনিয়নের রিপাতপুর মৌজার রিপাতপুর শিল্প এলাকার রিপাতপুর-সুর্জাপুর রাস্তা সংলগ্ন জায়গায় প্রায় ৩/৪ বছর যাবত পৌর এলাকার শিবপাশা গ্রামের গৌরাঙ্গ দাশের মালিকনাধীন সেবা অটো রাইছমিল ও একটি কৃষি খামার পরিচালনা করে আসছেন। এর দক্ষিণ দিকে এড. রাজীব কুমার দে তাপস, এড. আনোয়ার হোসেন, এড. রুপক চৌধুরী, ব্যবসায়ী মোহন লাল রায়, নবীগঞ্জ জে.কে উচ্চ বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষক সলিল কুমার দাশ, নবীগঞ্জ সরকারী কলেজের ল্যাব সহকারী জ্যোতিষ সরকারসহ আরো অনেক লোকজনের প্রায় শতাধিক প্লট রয়েছে।

তিনি অভিযোগে আরও উল্লেখ করেন যে, রিপাতপুর-সুজাপুর রাস্তাটি দিয়ে প্রতিদিন আমার সেবা অটো রাইছ মিলের গাড়ী চলাচল করার জন্য আমি নিজ উদ্যোগে প্রায় ৫/৬ লক্ষ টাকা ব্যয় করে রাস্তা সংস্কার করি। ওই রাস্তার পাশে বেশকিছু সরকারী জায়গা অবৈধভাবে ব্যবহার করে আসছে রিপাতপুর গ্রামের গোপেন্দ্র পাল নামের জনৈক ব্যক্তি। এরই জের ধরে বিগত ৭ মার্চ রাতের আধারে গোপেন্দ্র পালের লোকজন এক্সেভেটর দিয়ে প্রায় ৬/৭ ফুট মাটি খনন করার কারণে রাস্তাটি ভেঙ্গে যাওয়ায় গাড়ী চলাচল বন্ধ রয়েছে। ফলে গৌরাঙ্গ দাশের পরিচালিত সেবা অটো রাইছ মিলের প্রতিদিন প্রায় ২০ হাজার টাকার ক্ষতি সাধিত হয়েছে।

এ ব্যাপারে গৌরাঙ্গ দাশ এর প্রতিকার চেয়ে গতকাল মঙ্গলবার নবীগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী অফিসার বরাবর একটি লিখিত অভিযোগ দায়ের করেন।

এ ব্যাপারে পাশ্ববর্তী ভূমির মালিক সরকারী আইনজীবি এড. রাজীব কুমার দে তাপস বলেন, এভাবে অবৈধভাবে সরকারী ভূমি থেকে মাটি উত্তোলন করার কারণে রাস্তাটি ভেঙ্গে যাওয়ায় আমার মালিকানাধীন জায়গায় চলাচল করতে পারছি না। এ ব্যাপারে নবীগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা শেখ মহিউদ্দিনের সাথে যোগাযোগ করা হলে তিনি বলেন, উক্ত বিষয়ে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করতে উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) কে দেওয়া হয়েছে।