ঠাকুরগাঁওয়ের বালিডাঙ্গীতে বিবাহিত স্ত্রীকে শারীরিক নির্যাতন করে হত্যা চেষ্টা!    

0
89
ঠাকুরগাঁওয়েঠাকুরগাঁওয়ের বালিডাঙ্গীতে বিবাহিত স্ত্রীকে শারীরিক নির্যাতন করে হত্যা চেষ্টা! র বালিডাঙ্গীতে বিবাহিত স্ত্রীকে শারীরিক নির্যাতন ও হত্যার চেষ্টা! 
পিংকিকে বালিয়াডাঙ্গী স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চিকিৎসার জন্য ভর্তি, বর্তমানে হাসপাতালে ব্যাথায় কাতরাচ্ছেন।

গীতি গমন চন্দ্র রায় গীতি,স্টাফ রিপোর্টারঃ ঠাকুরগাঁওয়ের বালিয়াডাঙ্গী উপজেলার পিতামৃত দুলাল ও মাতা মোছাঃ মরিয়ম বেগমের কন্যা মোছাঃ পিংকি(২১)কে শারীরিক,মানষিক,পাশবিক নির্যাতনের শিকার ও গলায় ফাঁস দিয়ে হত্যা করার চেষ্টার তথ্য পাওয়া গেছে পিংকির স্বামী ও তার পরিবারের লোকজনদের বিরুদ্ধে।

জানা যায় যে,বালিডাঙ্গী উপজেলার পিতা মজিবর রহমান মাতা মোছাঃ হানিফা বেগমের পুত্র মোঃ আব্দুর হামিদের সঙ্গে ইসলামি শরীয়া মোতাবেক নোটারী পাবলিক ঠাকুরগাঁওয়ে গত ১৬/০৮/২০২১ ইং তারিখে মোছাঃ পিকির সাথে মোঃ আব্দুল হামিদ বিবাহ বন্ধনে আবদ্ধ হয়ে এফিডেভিট করেন।এফিডেভিট এ ২ লাখ টাকা দেনমোহর ধার্য করিয়া বিবাহ রেজিস্ট্রেশন করেন।

উক্ত বিবাহের পরেই পিংকিকে নিয়ে হামিদ ঢাকা সাভার হেমায়েতপুরে নিয়ে গিয়ে দুজনেই গার্মেন্টসে চাকরি করেন সেখানে থাকা অবস্থায় বিভিন্ন বিষয়ে পিংকিকে হামিদ শারিরীক মানষিক নির্যাতন ও মারপিট করতে থাকেন। এভাবে কিছু দিন যেতে না যেতেই গত ১লা এপ্রিল ২০২২ আবারও মারপিট করে আহত করেন হামিদ এবং এক পর্যায়ে পিংকিকে মেরে ফেলতে চান হামিদ। হামিদের এই অত্যাচার আহত পিংকিকে ঐ এলাকার ভাড়ায় থাকা বাসা মালিকের সহযোগিতায় হামিদ তার স্ত্রী পিংকিকে নিজ এলাকার ঠাকুরগাঁওয়ের বালিয়াডাঙ্গী উপজেলার হলদিবাড়ি মোড়ে মুমূর্ষু অবস্থায় ফেলে রেখে পালিয়ে যায়।তৎক্ষণাৎ ঐ এলাকার লোকজন পিংকির মাকে খবর দিলে সেখানে পিংকির মা এসে পিংকিকে বালিয়াডাঙ্গী স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে গিয়ে চিকিৎসার জন্য ভর্তি করান এবং পিংকি বর্তমানে হাসপাতালে ব্যাথায় কাতরাচ্ছেন ও মৃত্যুর সাথে লড়ছেন।

এ বিষয়ে পিংকির সাথে কথা হলে তিনি সাংবাদিক কে জানান আমাকে ফুসলিয়ে বিয়ে করে ঢাকায় নিয়ে গিয়ে ব্যাপক মারপিট ও নির্যাতন চালায় হামিদ এবং আমাকে গলায় ফাঁস দিয়ে হত্যার চেষ্টা করে। আমাকে এভাবে নির্যাতন করার জন্য আমি প্রশাসনের নিকট তার আইনানুগ ব্যবস্থা সহ সু বিচার দাবী করছি এবং পিংকির মা মোছাঃ মরিয়ম বেগমের সাথে কথা হলে তিনি বলেন আমার মেয়েকে মারপিট নির্যাতন ও যারা হত্যা করতে চেয়েছে আমি তাদের উপযুক্ত আইনের আওতায় এনে কঠিন শাস্তি ও সুবিচার প্রার্থনা করছি।বর্তমানে মামলা প্রক্রিয়াধীন চলছে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here