চুনারুঘাটে শাহিন হত্যাঃ১০ জনের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের

    0
    12

    আমারসিলেট টুয়েন্টিফোর ডটকম,২২অক্টোবর,চুনারুঘাট প্রতিনিধিঃ  চুনারুঘাট উপজেলার মিরাশী ইউনিয়নের চামলতলী গ্রামের শাহিন মিয়া (১৭) হত্যার অভিযোগে চুনারুঘাট থানায় ১০ জনকে আসামী করে একটি হত্যা মামলা দায়ের করা হয়েছে। গত শুক্রবার রাতে নিহত শাহিন মিয়ার মাতা উপজেলার চামলতলী গ্রামের আছকিরা খাতুন বাদী হয়ে ১০ জনকে আসামী করে একটি হত্যা মামলা দায়ের করেন। যার মামলা নং- ১৮, তাং-২০/১০/১৭। মামলার ধারা- ১৪৩/৩৪১/৩২৩/৩২৪/৩২৫/৩২৬/৩০৭/৩০২/১১৪/৩৪ দঃ বিঃ।

    অভিযোগের বিবরণে জানা যায়, গত ১৭ অক্টোবর মঙ্গলবার বিকেল অনুমান ৩ ঘটিকার সময় উপজেলার মিরাশী ইউনিয়নের হরিণমারা চামলতলী গ্রামের পুলিশের টিলা নামক স্থানে পূর্ব বিরোধের জের ধরে একই গ্রামের মৃত সাফাজ উদ্দিনের পুত্র ঘাতক মাঈন উদ্দিন (৩৫) সহ একদল দূর্বৃত্তদের সাথে কাছুম আলীর পরিবারের সংঘর্ষ বাধে। সংঘর্ষে ঘাতক মাঈন উদ্দিন তার হাতে থাকা ধারালো অস্ত্র দা দিয়ে কাছুম আলীর পুত্র শাহিন মিয়া (১৭) কে মাথায় কুব মারিলে শাহিন মিয়া গুরুতর আহত হয়।

    এসময় কাছুম আলীর স্ত্রী আছকিরা খাতুন এগিয়ে আসলে দুর্বৃত্তরা তার মাথায় দা দিয়ে এলোপাতারি কুপিয়ে গুরুতর আহত করে। কাছুম আলী তার স্ত্রীকে বাঁচাতে এলে প্রতিপক্ষের লোকজনরা কাছুম আলী (৪৫) এর বাম হাতের কব্জিতে কুব মেরে মারাত্মক হাঁড়কাটা রক্তাক্ত জখম করে পালিয়ে যায়।

    গুরুতর আহত অবস্থায় আহতদেরকে স্থানীয় লোকজনরা উদ্ধার করে প্রথমে চুনারুঘাট উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে আসলে কর্তব্যরত ডাক্তার শাহিন মিয়ার অবস্থার অবনতি হলে তাকে দ্রুত হবিগঞ্জ আধুনিক সদর হাসপাতালে রেফার করেন ও কাছুম আলীকে ঢাকা পঙ্গু হাসপাতালে রেফার করেন এবং মাতা আছকিরা খাতুনকে চুনারুঘাট হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। গুরুতর আহত শাহিন মিয়াকে স্বজনরা হবিগঞ্জ সদর আধুনিক হাসপাতালে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত ডাক্তার শাহিন মিয়াকে মৃত ঘোষণা করেন। এই হত্যাকান্ডের ঘটনায় ২০ অক্টোবর শুক্রবার রাতে শাহিন মিয়ার মাতা আছকিরা খাতুন ১০ জনকে আসামী করে একটি হত্যা মামলা দায়ের করেছেন।

    মামলার বিবরণে মামলার আসামীরা হলেন- উপজেলার মিরাশী ইউনিয়নের চামলতলী গ্রামের মৃত আঃ জলিলের পুত্র আলাই মিয়া (৫০), আলাই মিয়ার পুত্র শামীম মিয়া (৩০), মৃত সাফাজ উদ্দিনের পুত্র ঘাতক মাঈন উদ্দিন (৩৫), ওমর আলী (৩০), মৃত জামাল মিয়ার পুত্র সফিক মিয়া, মাঈন উদ্দিনের স্ত্রী সিতারা বানু (২৮), ফালু মিয়ার স্ত্রী মালেকা খাতুন (২৫), মৃত সুরুজ আলীর পুত্র সবুজ মিয়া (২৮), মৃত আলীম উদ্দিনের পুত্র ফিরোজ আলী (৫০), মৃত জামাল মিয়ার পুত্র সইয়া মিয়া (৪০) সহ অজ্ঞাতনামা ৭/৮ জন। উল্লেখ্য যে, উপজেলার চামলতলী গ্রামের মোঃ কাছুম আলীর পরিবারের সাথে একই গ্রামের মাঈন উদ্দিন, আলাই মিয়া, শামিম সহ একদল দূর্বত্তদের দীর্ঘদিন যাবত পূর্ব বিভিন্ন বিরোধ চলে আসছিল।

    এরই জের ধরে গত ১৭ অক্টোবর মঙ্গলবার বিকাল ৩টার দিকে হরিণমারা চামলতলী পুলিশের টিলা নামক স্থানে উভয়পক্ষের মধ্যে সংঘর্ষ দেখা দিলে এতে কাছুম আলীর পুত্র শাহিন মিয়া নিহত হয় ও কাছুম আলী, তার স্ত্রী, কন্যা সহ ৩ জন গুরুতর হয়। এ বিষয়ে চুনারুঘাট থানার ওসি (তদন্ত) মোঃ আলী আশরাফের সাথে আলাপকালে তিনি জানান, শাহিন মিয়ার হত্যাকান্ডের সাথে জড়িত আসামীদেরকে ধরতে পুলিশ জোর তৎপরতা চালাচ্ছে। নিহত শাহিন মিয়ার পরিবারের মাঝে এখনও কান্নার আহাজারি থামেনি। তারা সুষ্ঠু ও ন্যায় বিচার পাওয়ার জন্য প্রশাসনের সুদৃষ্টি কামনা করছেন।

    LEAVE A REPLY

    Please enter your comment!
    Please enter your name here