চুনারুঘাটে মানবপাচারের অভিযোগে আদালতে মামলা

    0
    22

    চুনারুঘাট (হবিগঞ্জ) প্রতিনিধিঃ হবিগঞ্জের চুনারুঘাট উপজেলার পাইকপাড়া ইউনিয়নের সতং গ্রামের মৃত ফিরোজ মিয়ার পুত্র নিরীহ দিনমজুরী সাজু মিয়া (৪০) এর স্ত্রী দিলারা খাতুন (৩৫) কে দুই মানবপাচারকারী বিভিন্ন প্রলোভন দেখিয়ে গত ১১ জানুয়ারী সৌদি আরবে পাঠিয়ে দেয়। সৌদি আরবে যাওয়ার পর থেকে দিলারা খাতুন নির্যাতনের শিকার হয়ে তার পরিবারের সাথে যোগাযোগ করতে পারছে না। এখন পর্যন্ত দেশে তার স্বামীর সাথে মোবাইল ফোনে যোগাযোগ বন্ধ থাকায় তার স্বামী সাজু মিয়া তার স্ত্রী দিলারা খাতুনকে দেশে ফেরত পাঠানোর জন্য মানবপাচারকারীদেরকে চাপ দিলে তারা বিভিন্ন টালবাহানা শুরু করে।

    এ বিষয়ে এলাকায় কয়েকবার সালিশ বৈঠক বসেও কোন সুরাহা হয়নি। দিলারা খাতুনকে ফিরে পাওয়ার জন্য তার স্বামী সাজু মিয়া বাদী হয়ে গত ৩০ জুন হবিগঞ্জ মানব পাচার প্রতিরোধ ও দমন ট্রাইব্যুনালে ০২ জনকে আসামী করে মানব পাচার প্রতিরোধ ও দমন আইন ২০১২ এর ৬/৭ ধারায় একটি মামলা দায়ের করেন। যার মামলা নং- ১০/১৯।

    অভিযোগের বিবরণে জানা যায়, উপজেলার পাইকপাড়া ইউনিয়নের সতং গামের মৃত জবেদ আলীর পুত্র দুলাল মিয়া ওরফে বেলাল মিয়া ও জিনাত টাওয়ার, ৫ম তলা, ১১৬/১১৭ ডি.আইটি এক্সটেনশন রোড, রুম নং- জি-৫/ডি, ফকিরাপুল, ঢাকাস্থ মেসার্স আল সাফা ইন্টারন্যাশনাল রিক্রুটিং এজেন্ট লাইসেন্স নং- ৬১৩ এর মালিক মো: তছলিম আলম সেলিম।

    এ ব্যাপারে বিজ্ঞ বিচারক চুনারুঘাট থানার ওসিকে তদন্ত পূর্বক ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য নির্দেশ প্রদান করেন। এ ব্যাপারে চুনারুঘাট থানার এস.আই হাবিব রবিবার দুপুরের দিকে ঘটনাস্থলে গিয়ে পরিদর্শন করে সত্যতা নিশ্চিত করেন। সাজু মিয়ার স্ত্রী দিলারা খাতুন ০২ ছেলে ও ০১ মেয়ে সন্তানকে রেখে যান।

    স্থানীয় সূত্রে জানা যায় যে, মানবপাচারকারী দুলাল মিয়া ওরফে বেলাল মিয়ার বিরুদ্ধে মানবপাচারের একাধিক অভিযোগ রয়েছে। মামলার বাদী সাজু মিয়াকে মামলা তুলে নেওয়ার জন্য বিভিন্ন সময়ে মানবপাচার মামলার আসামী দুলাল মিয়া গংরা বাড়িতে ও রাস্তাঘাটে হুমকি দিয়ে আসছে। এলাকার দিনমজুরী সাজু মিয়া সুবিচার পাওয়ার জন্য প্রশাসনের প্রতি সুদৃষ্টি কামনা করেছেন।