চুনারুঘাটে অতর্কিত হামলায় আহত-১,আদালতে মামলা

    0
    38

    চুনারুঘাট প্রতিনিধি:  চুনারুঘাট উপজেলার শানখলা ইউনিয়নের পাইকুড়া গ্রামের আব্দুল ছমদের পুত্র কবির মিয়া (৩৫) কে পূর্ব বিরোধের জের ধরে বেধড়ক মারপিট ও মাথায় কুপিয়ে জখম করার ঘটনায় কবির মিয়া বাদী হয়ে বিজ্ঞ সিনিয়র জুডিসিয়াল ম্যাজিষ্ট্রেট কগ-২ আদালত হবিগঞ্জ এ হাজির হয়ে ৪ জনকে আসামী করে একটি মামলা দায়ের করেছেন।

    যার সি.আর মামলা নং- ১১৫/১৯ (চুনা:)।

    মামলার বিবরণে জানা যায় যে, উপজেলার শানখলা ইউনিয়নের পাইকুড়া গ্রামের আব্দুল ছমদের পুত্র নিরীহ কাঠমিস্ত্রী কবির মিয়াকে পূর্ব বিরোধের জের ধরে একই গ্রামের মৃত আবু মিয়ার পুত্র আব্দুল আলী (৪৫), আব্দুল আলীর পুত্র নাঈম মিয়া (২৫), মৃত বারিক উল্লার পুত্র আফরোজ মিয়া (৪০), আব্দুল আলীর স্ত্রী মনোযারা খাতুন (৩৮) গণ গত ১৫ মার্চ শুক্রবার বিকাল অনুমান ৪টার দিকে বাড়ি থেকে শাকির মোহাম্মদ বাজার যাওয়ার পথে পথিমধ্যে পশ্চিম দিকে রাস্তায় কবির মিয়াকে একা পেয়ে পূর্ব পরিকল্পিতভাবে তার পথরোধ করে উত্তেজিত হইয়া দেশীয় প্রাণনাশক অস্ত্র দা দিয়ে মাথায় কুপিয়ে গুরুতর আহত করে ও তাহার সাথে নগদ ২০ হাজার টাকা ছিনিয়ে নিয়ে পালিয়ে যায়।

    আহত কবির মিয়ার আত্মচিৎকারে স্থানীয় এলাকাবাসী লোকজনরা এগিয়ে এসে কবির মিয়াকে আশংকাজনক অবস্থায় উদ্ধার করে চুনারুঘাট উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে আসলে কর্তব্যরত ডাক্তার কবির মিয়াকে প্রাথমিক চিকিৎসা শেষে উন্নত চিকিৎসার জন্য হবিগঞ্জ আধুনিক জেলা সদর হাসপতালে প্রেরণ করা হয়েছে।

    আহত কবির মিয়া বর্তমানে উক্ত হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় রয়েছে। আহত নিরীহ কাঠমেস্ত্রী কবির মিয়া জানান, আসামী আব্দুল আলীর বসতঘরের মেরামতের কাজের পারিশ্রমিক পাওনা ১ হাজার আসামী আ: আলীর কাছে চাহিলে উক্ত পাওনা টাকা আসামী আব্দুল আলী না দিলে কবির মিয়ার সথে কথাকাটাকাটির এক পর্যায়ে উত্তেজিত হয়ে আব্দুল আলী তাহার দলবল অন্যান্য আসামীদেরকে নিয়ে পথিমধ্যে কবির মিয়াকে আটক করে দা দিয়ে মাথায় কুপিয়ে গুরুতর আহত করে পালিয়ে যায়।

    এ ঘটনায় আদালতে কবির মিয়া হাজির হয়ে ০৪ জনকে আসামী করে একটি মামলা দায়ের করলে বিজ্ঞ বিচারক মামলাটি আমলে নিয়ে চুনারুঘাট থানাকে এফ.আই.আর গণ্যের আদেশ প্রদান করেন। এ বিষয়ে চুনারুঘাট থানার ওসি কে.এম আজমিরুজ্জামান মামলাটি রুজু করতঃ আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ করবেন বলে জানান।

    ঘটনার পর থেকে উক্ত মামলার আসামীগণ আত্মগোপন করে পালিয়ে বেড়াচ্ছে। মামলা দায়েরের পর থেকে বাদী কবির মিয়া নিরাপত্তাহীনতায় ভুগছেন বলে জানান।