উদ্ধারকৃত ২তরুণীর লাশ পরিবারের কাছে হস্তান্তর

    0
    5

    আমারসিলেট24ডটকম,১০ফেব্রুয়ারী,শাব্বির এলাহীমৌলভীবাজারের কমলগঞ্জ উপজেলার রহিমপুর ইউনিয়নের মৃর্ত্তিঙ্গা চা বাগান এলাকা থেকে একই গাছে ফাঁস লাগানো অবস্থায় উদ্ধারকৃত ২ তরুণীর লাশের ময়না তদন্ত শেষে রোববার বিকেল ৪টায় পরিবারের কাছে হস্তান্তর করা হয়েছে। এ ঘটনায় কমলগঞ্জ থানায় অপমৃত্যু মামলা রুজু করা হয়েছে। প্রত্যক্ষদর্শী সূত্রে জানা যায়, কমলগঞ্জ উপজেলার ১নং রহিমপুর ইউনিয়নের মৃর্ত্তিঙ্গা চা বাগানের ২২ নং সেকশনের বামবোতল এলাকার চা শ্রমিক বিজু উড়াং এর প্রতিবন্ধী মেয়ে ভিমশাড়ি উড়াং (১৬) ও মৃত রাজারাম গৌড় এর মেয়ে জাগনী গৌড় (১৮) শনিবার সকালে কালাছড়া রিজার্ভ ফরেষ্ট এলাকায় একটি গাছের সাথে দড়ি দিয়ে গঁলায় ফাঁস লাগানো অবস্থায় পরিবারের লোকজন উদ্ধার করে বাড়িতে নিয়ে আসে। দুপুর ৩টায় কমলগঞ্জ থানা পুলিশ খবর পেয়ে লাশ উদ্ধার করে। নিহত ২ তরুণী পরষ্পর বান্ধবী ছিল।

    শুক্রবার রাতে একটি বিয়ের অনুষ্ঠান শেষে তারা দুজন জাগনী গৌড়ের বাড়িতেই রাতে ঘুমিয়েছিল। শনিবার ভোররাতে তারা দুজন ঘর থেকে বের হওয়ার পর আর খোঁজ মিলেনি। অনেক খোজাখোঁজির পর কালাছড়া রিজার্ভ ফরেষ্ট এলাকায় একটি গাছের সাথে দড়ি দিয়ে গঁলায় ফাঁস লাগানো অবস্থায় দুজনের লাশ পাওয়া যায়। শনিবার দুপুর ৩টায় কমলগঞ্জ থানার এসআই জিয়াউর রহমানের নেতৃত্বে কমলগঞ্জ থানার একদল পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌঁছেছে লাশ দুটি  উদ্ধার করে সুরত হাল রিপোর্ট তৈরী করে। এ ঘটনায় শনিবার রাতেই কমলগঞ্জ থানায় অপমৃত্যু মামলা রুজু করা হয়। রোববার সকালে কমলগঞ্জ থানা পুলিশ নিহত দুই চা শ্রমিক তরুণীর লাশ মৌলভীবাজার ২৫০ শয্যা বিশিষ্ট হাসপাতাল মর্গে ময়না তদন্ত শেষে মৃর্ত্তিঙ্গা চা বাগানে স্বজনদের কাছে হস্তান্তর করা হয়। রোববার বিকেল সাড়ে ৫টায় নিহতদের শেষকৃত্য অনুষ্ঠান সম্পন্ন হয়। দুই তরুনীর রহস্যজনক মৃত্যু নিয়ে এলাকায় চলছে নানা গুঞ্জন।

    মৃর্ত্তিঙ্গা চা বাগানের বাসিন্দা ও রহিমপুর ইউনিয়নের স্থানীয় ইউপি সদস্য ধনা বাউরী এ প্রতিনিধিকে বলেন, দুই যুবতী মেয়ে একই গাছের সাথে দড়ি দিয়ে গলায় ফাঁস লাগানো অবস্থায় পাওয়ার ঘঁনাটি রহস্যজন্ক বলে মনে হয়। এটি হত্যা না আত্মহত্যা এ নিয়ে এলাকায় চলছে নানা গুঞ্জন।

    LEAVE A REPLY

    Please enter your comment!
    Please enter your name here