ঈদের পরে করোনা বৃদ্ধির সম্ভাবনায় বাড়তে পারে লকডাউন মেয়াদ

0
105
ঈদের পরে করোনা বৃদ্ধির সম্ভাবনায় বাড়তে পারে লকডাউন মেয়াদ
ফাইল ছবি

নিজস্ব প্রতিনিধিঃ পূর্বঘোষিত লকডাউন দেশব্যাপী চলমান থাকলেও জনপ্রশাসন প্রতিমন্ত্রীর উদ্বেগ ঈদের পর অর্থাৎ চলতি মাসের ২০/২২ তারিখের দিকে করোনাভাইরাস এর ঊর্ধ্বগতির সম্ভাবনা রয়েছে এর প্রতি আশঙ্কায় করোনা সংক্রমণ রোধে চলমান লকডাউন এর বিধি নিষেধের মেয়াদ আরো সাত দিন অর্থাৎ ২৩ শে মে পর্যন্ত বৃদ্ধি পেতে পারে।
বৃহস্পতিবার (১৩ মে) সাংবাদিকদের জানিয়েছেন,আগামী ১৬ মে মেয়াদ বাড়ানোর বিষয়ে প্রজ্ঞাপন জারি করা হবে বলেও জানান প্রতিমন্ত্রী। করোনা সংক্রমণ রোধে গত ১৪ এপ্রিল থেকে ৮ দিনের লকডাউন শুরু হয় পরে তিন দফা লকডাউন এর মেয়াদ বাড়ানো হয় সে মেয়াদ শেষ হবে ঈদের পরের দিন রোববার মধ্যরাতে।
জনপ্রশাসন প্রতিমন্ত্রী বলেন দেশে লকডাউন থাকার ফলে পরীক্ষা কম হচ্ছে শনাক্ত ও কম হচ্ছে। এটা সায়েন্সের মত,আমরা যখন কঠোরতা দিলাম আমাদের জনস্বাস্থ্য বিশেষজ্ঞ গত মাসের ১৫ তারিখের দিকে বলেছিলেন মে মাসের প্রথম সপ্তাহের দিকে এটা কমতে থাকবে ঠিকই বর্তমান পরিস্থিতি উন্নতির দিকে যাচ্ছে কিন্তু আমাদের বাস্তবতার নিরিখে দোকানপাট খুলে দিতে হলো সে ক্ষেত্রে আমরা দেখছি অনেক মানুষ বাহিরে যাচ্ছে, শতভাগ মাস্ক পরার বিষয়টি হচ্ছে না এটি একটি গুরুত্বপূর্ণ বিষয়।
এছাড়া তিনি আরো বলেন আরেকটি বিষয় হলো ইন্ডিয়ান ভেরিয়েন্ট। পার্শ্ববর্তী দেশের অবস্থাটা আমাদের মাথায় রাখতে হবে,আমরা আমাদের টা কমিয়েছি বিধিনিষেধের মধ্য দিয়ে কিন্তু ঈদ উপলক্ষে মাস্ক না পড়া কিছু সংখ্যক লোকের বাড়িতে যাওয়া এই বিষয়গুলো আমাদের ভাবাচ্ছে। এটাও একটা সাইন্স।হয়তো ঈদের পর সংক্রমণ আবার বেড়ে যেতে পারে। প্রতিমন্ত্রী বলেন, সে ক্ষেত্রে আমাদের পরিকল্পনা আমরা অবশ্যই শতভাগ মাস্ক পরাতে হবে। জেলা শহর, সিটি কর্পোরেশন, পৌরসভাসহ যেসব স্থানে জনসমাগম বেশি হয় যে সমস্ত জায়গা থেকে মানুষ আসে এর কানেক্টিভিটির যেগুলিতে আমাদের শতভাগ মাস্ক পরাতে চিন্তা ভাবনা রয়েছে।
তিনি বলেন যারা মাস্ক ব্যবহার করছেন তারা সেফ থাকবেন কিন্তু যারা মাস্ক পরছেন না তারা ঝুঁকির মধ্যে রয়েছেন তাই ঈদের পর সংক্রমণ ২০/২২ তারিখের দিকে আবার বেড়ে যেতে পারে এসব অবস্থা নিয়ে আমরা শঙ্কিত। যারা মাস্ক পরেনি তারা অক্সিজেন সিলিন্ডার নিয়ে দৌড়াদৌড়ি করবে কিনা তা আমরা বুঝতে পারছি না! তিনি বলেন “সে জায়গা থেকে আমরা চিন্তাভাবনা করছি ঈদের পর আরও অন্তত এই দেশে লকডাউন চলমান রাখতে এরই মধ্যে মাস্ক শতভাগ পরতে পারে সে ব্যবস্থা করা।
এই বিষয়গুলো সক্রিয়ভাবে চিন্তাভাবনা করছি চলতি মাসের ১৬ তারিখের মধ্যে হয়তো প্রজ্ঞাপন দিয়ে আমরা জানাতে পারবো। এখন বিধি-নিষেধ জেলার মধ্যে বাস চলছে। আন্তঃজেলা পরিবহন বন্ধ রয়েছে, এছাড়া আগের মতই বন্ধ রয়েছে ট্রেন ও লঞ্চ। স্বাস্থ্যবিধি মেনে দোকান-শপিংমল সকাল ১০ টা থেকে রাত ৮ টা পর্যন্ত খোলা, খোলা রয়েছে শিল্প-কারখানাসহ অন্যান্য প্রতিষ্ঠান। এছাড়া জরুরী সেবা প্রতিষ্ঠান,সরকারি-বেসরকারি অফিস বন্ধ রয়েছে সীমিত পরিসরে খোলা রয়েছে ব্যাংক লেনদেন।

নোটঃ ফাইল ছবি

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here