Saturday 5th of December 2020 07:57:36 PM

১৯ বিজিবি’র লালাখাল ক্যাম্প কর্তৃক নৌকা আটকের প্রতিবাদ,নৌকা ছেড়ে দেওয়ার আশ্বাসে অবরোধ প্রত্যাহার

জৈন্তাপুর সিলেট প্রতিনিধি: ১৯ বিজিবি’র লালাখাল ক্যাম্প কর্তৃক নৌকা আটকের প্রতিবাদে সিলেট তামাবিল মহাসড়ক অবরোধ, নৌকা ছেড়ে দেওয়ার আশ্বাসে অবরোধ প্রত্যাহার, লালাখাল ক্যাম্পের বিজিবি’র বিরুদ্ধে চাঁদা আদায় সহ চেরাচালানের বিস্তর অভিযোগ স্থানীয়দের।
সিলেটের জৈন্তাপুর উপজেলার সারী নদীর লালাখাল খেয়াঘাট সংলগ্ন এলাকা হতে ১৯ বিজিবি’র লালাখাল ক্যাম্পের সদস্যরা সকাল ৯টায় তিনটি আটক করে নিয়ে যায়। এসময় তারা কয়েকজন শ্রমিককে মারধর করে। এঘটনার প্রতিবাদে শ্রমিক ও নৌকা মালিকরা বিজিবি’র লালাখাল ক্যাম্পের ক্যাম্প কমান্ডার তার সদস্যদের অন্যায় কার্যক্রমের প্রতিবাদ জানাতে এবং নৌকা ফেরত দিতে সিলেট-তামাবিল মহাসড়কের ফেরীঘাট এলাকায় বিকাল ৩টা হতে ৫টা পর্যন্ত সড়ক অবরোধ করে। সড়ক অবরোধের খবর পেয়ে জৈন্তাপুর মডেল থানার সেকেন্ড ইন কমান্ড তপন কান্তি, এস.আই প্রদীপ ঘটনাস্থলে উপস্থিত হয়ে শ্রমিকদের শান্ত করেন এবং নৌকা ছেড়ে দেওয়ার আশ্বাসে শ্রমিকরা সড়ক অবরোধ প্রত্যাহার করে।

অপরদিকে সড়ক অবরোধের পরিপ্রেক্ষিতে যাত্রীবাহি বাস, লেগুনা, হিউম্যান হুলার, রোগী বহনকারী গাড়ী, এ্যাম্বুলেন্স, মালবাহি ট্রাক, পিকআপ অবরোধে আটকা পড়ে জন দূভোগ সৃষ্টি হয়।

স্থানীয় লালাখালের আব্দুর রহমান, আব্দুর রহিম, ইজারাদার সোহেল তাজ সহ প্রায় শাতাধিক শ্রমিকরা জানান, ১৯ বিজিবি’র লালাখাল ক্যাম্প দীর্ঘ দিন হতে সন্ধ্যা হতে ভোর রাত পর্যন্ত লালখাল জিরো পয়েন্ট হতে লাইনম্যান আনোয়ার এবং বিজিবি’র সদস্যরা সরাসরি উপস্থিত থেকে বালু নৌকা হতে ৪শত হতে ৫শত এবং পাথরের নৌকা হতে ৯শত হতে ১হাজার টাকা প্রকাশ্যে চাঁদা উত্তোলন করে আসছে। দিনের বেলা পর্যটকদের আনাগোনা থাকায় দিনে তারা কঠোর অবস্থান নিয়ে কোন নৌকা জিরো পয়েন্ট এলাকায় যাতায়াত করতে দেয় না। রাত হলে লুটপাট অব্যাহত থাকে। উর্দ্বতন কর্তৃপক্ষের কাছে নিজেদের পারফমেন্স দেখাতে দিন দুপুরে ঘাটে বেঁধে রাখা ধরে নিয়ে যায় এবং শ্রমিকদের মারধর করে।

তারা আরও জানান লালাখাল ক্যাম্পের বিজিবি’র লাইনম্যানদের মাধ্যমে উৎকোচ নিয়ে ভারতীয় নাছির বিড়ি, বিভিন্ন ব্যান্ডরে সিগারেট, ভারতীয় বিভিন্ন ব্যান্ডের মদ, কসমেট্রিক্স সামগ্রী সহ ভারতীয় গরু মহিষ বাংলাদেশে প্রবেশ করছে সেগুলো তারা আটক করে না, বরং বিভিন্ন সময় তারা নিরিহ শ্রমিকদের নৌকা ধরে নিয়ে যায়।

জৈন্তাপুর সিলেট প্রতিনিধিঃ করোনা ভাইরাসের প্রাদুর্ভাবের কারণে বিদ্যানন্দ ফাউন্ডেশন কর্তৃক বিজিবি’র উপর আস্থা রেখে সারাদেশ ব্যাপী হতদরিদ্র জনগনের মাঝে সুষ্ঠু ভাবে সহায়তার ত্রাণ সামগ্রী বিতরণ করা হয় । তারই ধারাবাহিকতায় ১৯ বিজিবি’র অধীনস্থ বিওপি সমূহের আওতাধীন সীমান্তবর্তী হতদরিদ্র এক হাজার পরিবারের মাঝে ত্রাণ সহায়তা সামগ্রী বিতরণের দায়িত্ব দেওয়া হয়। বিদ্যানন্দ ফাউন্ডেশন হতে প্রাপ্ত সহায়তার ত্রাণ সামগ্রী স্থানীয় চেয়ারমান সহ গণ্যমান্য ব্যক্তিবর্গের উপস্থিতিতে গত ০৬ মে ব্যাটালিয়ন ১৯ বিজিবি’র  অধিনায়ক লেঃ কর্নেল মোঃ রফিকুল ইসলাম, পিএসসি ত্রাণ সহায়তা বিতরণ উদ্বোধন করেন।
৮ মে বিজিবি সিলেট সেক্টরের সেক্টর কমান্ডার কর্ণেল মাহমুদ মাওলা ডন, এএফডব্লিউসি, পিএসসি’র উপস্থিতিতে উত্তরকুল, সোনাপুর, লক্ষীবাজার, লোভাছড়া এবং বিয়াবাইল বিওপি’র পার্শ্ববর্তী এলাকা সমূহে খেটে খাওয়া, গরিব-দূঃখী এবং কর্মহীন মানুষের মধ্যে সহায়তার ত্রাণ বিতরণ করা হয়। সহায়তার ত্রাণের প্রতি প্যাকেটে ৬ কেজী চাউল, ২ কেজি আটা, ১ কেজি ছোলা, ১কেজি ডাল সহ অন্যান্য মোট ১১কেজি খাদ্য সামগ্রী করোনা ভাইরাস সংক্রমণের প্রতিরোধ মূলক সকল নির্দেশনা ও দূরত্ব বজায় রেখে বিতরণ করা হয়।

জৈন্তাপুর সিলেট প্রতিনিধিঃ করোনা ভাইরাসের প্রাদুর্ভাবের কারণে বিদ্যানন্দ ফাউন্ডেশন কর্তৃক বিজিবি’র উপর আস্থা রেখে সারাদেশ ব্যাপী হতদরিদ্র জনগনের মাঝে সুষ্ঠু ভাবে ত্রাণ সহায়তা সামগ্রী বিতরণের দায়িত্ব দেয়া হয়৷ তারই ধারাবাহিকতায় ১৯ বিজিবি’র অধীনস্থ বিওপি সমূহের আওতাধীন সীমান্তবর্তী হতদরিদ্র অসহায় ১ হাজার পরিবারের মাঝে সহায়তার ত্রাণ সামগ্রী বিতরন করা হয়েছে।
বিদ্যানন্দ ফাউন্ডেশন হতে প্রাপ্ত সহায়তার ত্রাণ সামগ্রী স্থানীয় চেয়ারমানসহ গণ্যমান্য ব্যক্তিবর্গের উপস্থিতিতে নিম্ন বর্ণিত তারিখে বিতরণের পরিকল্পনা গ্রহণ করা হয়।
৭ মে ২০২০ ইংরেজী ১৯ বিজিবি’র উপ-অধিনায়ক মেজর সাইফুল ইসলাম, পিএসসি এবং সহকারী পরিচালক মনছুর আলী এর উপস্থিতিতে বারঠাকুরী, আয়ুরগ্রাম, মানিকপুর, আমলশীদ, জকিগঞ্জ, লালাখাল, জৈন্তাপুর এবং ডোনা বিওপি’র পার্শ্ববর্তী এলাকা সমূহে বিতরণ করা হবে এবং ৮ মে ২০২০ ইংরেজী বিজিবি সিলেট সেক্টরের সেক্টর কমান্ডার কর্নেল মাহমুদ মাওলা ডন, এএফডব্লিউসি, পিএসসি এর উপস্থিতিতে উত্তরকুল, সোনাপুর, লক্ষীবাজার, লোভাছড়া, আটগ্রাম, সুরাইঘাট এবং বিয়াবাইল বিওপি’র পার্শ্ববর্তী এলাকা সমূহে বিতরণ করা হবে।
সহায়তার প্রতিটি ত্রাণ প্যাকেটে ৬ কেজী চাউল, ২ কেজী আটা, ১ কেজী ছোলা, ১ কেজী ডাল, অাধা কেজী তৈল এবং অাধা কেজী লবণ সহ সর্বমোট ১১ কেজি খাদ্য সামগ্রী বিতরণ করা হবে।
উল্লেখ্য যে, ত্রাণ সামগ্রী বিতরণের সময় করোনা ভাইরাস সংক্রমণের প্রতিরোধ কল্পে সকল নির্দেশনা ও দূরত্ব বজায় রাখা হবে৷

  

এডিটর: আনিছুল ইসলাম আশরাফী, এনিমেটরস্ বাংলা মিডিয়া গ্রুপ কর্তৃক প্রকাশিত
সম্পাদকীয় কার্যালয়: কলেজ রোড, শ্রীমঙ্গল, মৌলভীবাজার।
Email: news.amarsylhet24@gmail.com Mobile: 01772 968 710

Developed By : i-Tech Sreemangal
Email : itech.official@hotmail.com
Facebook : http://facebook.com/itech.ctc