Monday 26th of October 2020 06:56:22 PM

“করোনা ভাইরাসের কারণে বৃটেনের ওয়েলসের রাজধানী কাডিফ শহরের ১২ এপ্রিলের মুজিববর্ষের অনুষ্ঠান স্থগিত করা হয়েছে”

বদরুল মনসুর:  হাজার বছরের শ্রেষ্ঠ বাঙালী স্বাধীন বাংলাদেশের প্রতিষ্ঠাতা সোনার বাংলা গড়ার রূপকার বাঙালি জাতির পথ প্রদর্শক জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান এর জন্মশত-বার্ষিকী মুজিববর্ষ উপলক্ষে বৃটেনের ওয়েলসের রাজধানী কাডিফ শহরের সিটি হলে জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মশত-বার্ষিকী মুজিববর্ষ উদযাপন নাগরিক কমিটি ইন ইউকে ওয়েলস কর্তৃক গৃহীত আগামী ১২ এপ্রিল রোববার ২০২০ দিনব্যাপী কর্মসূচি করোনা ভাইরাস এর কারণে বিশ্বজুড়ে জনস্বাস্থ্য হুমকির সম্মুখীন হওয়ায় জনস্বার্থে স্থগিত করা হয়েছে বলে জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মশত-বার্ষিকী মুজিববর্ষ উদযাপন নাগরিক কমিটি ওয়েলসের আহবায়ক প্রবাসের মুক্তিযুদ্ধের অন্যতম সংগঠক মোহাম্মদ ফিরুজ আহমদ. যুগ্ম আহবায়ক শেখ মোহাম্মদ তাহির উল্লাহ. যুগ্ম আহবায়ক এম আব্দুর রকিব. ও যুগ্ম আহবায়ক মোহাম্মদ মকিস মনসুর. সদস্য সচিব আব্দুল মালিক. যুগ্ম সদস্য সচিব আব্দুল হান্নান.ও গোলাম আবু সালেহ সুয়েব.এক যুক্ত বিবৃতিতে জানিয়েছেন।

জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মশত-বার্ষিকী মুজিববর্ষ উদযাপন নাগরিক কমিটি ওয়েলসের আহবায়ক প্রবাসের মুক্তিযুদ্ধের অন্যতম সংগঠক মোহাম্মদ ফিরুজ আহমদ বলেন পরবর্তীতে সুবিধাজনক সময়ে সকলের অংশগ্রহণে স্থগিতকৃত কর্মসূচি বাস্তবায়ন করা হবে। মহাণ আল্লাহর দরবারে বাংলাদেশ ও বৃটেন সহ সারা বিশ্বের সকলের সুস্থতা ও নিরাপত্তার তিনি দোয়া করার জন্য সবার প্রতি বিনীতভাবে অনুরোধ জানিয়ে বলেন জাতিরজনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানশুধু একটি নামই নয়, একটি মুক্তির পথ, একটি বিশ্বাসের নাম। তিনি ছিলেন বাঙালি জাতির পথ প্রদর্শক ও জাতির মুক্তির নায়ক। যতকাল ধরে পদ্মা-মেঘনা-গৌরী যমুনা কুশিয়ারা ও মনু বহমান থাকবে, ততকাল বঙ্গবন্ধুর নাম বাঙালি জাতির অন্তরে লালিত হয়ে থাকবে চির অম্লান হয়ে।

ইতিহাস ঐতিহ্যের ও উন্নয়নের ধারক আমাদের এই প্রাণের সংগঠন বাংলাদেশের স্বাধীনতা যুদ্ধের নেতৃত্ব থেকে শুরু সকল গণতান্ত্রিক আন্দলোন এবং সংগ্রামের অগ্রভাগে থাকা দক্ষিণ এশিয়ার বৃহত্তম রাজনৈতিক সংগঠন বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের রাজনীতি উন্নয়নের রাজনীতি, দেশ গঠনের রাজনীতি, সুখী-সমৃদ্ধ বাংলাদেশের জন্য বঙ্গবন্ধুর স্বপ্নের সোনার বাংলা বিনির্মাণের মুক্তিযুদ্ধের চেতনায় মানণীয় প্রধানমন্ত্রী দেশরত্ন শেখ হাসিনার নেতৃত্বে উন্নত বাংলাদেশ গড়ার প্রত্যয়ে ডিজিটাল বাংলার আলোর মিছিলকে এগিয়ে নেওয়া হোক বঙ্গবন্ধুর জন্মশতবার্ষিকী মুজিববর্ষে আমাদের দীপ্ত শপথ।

আসন্ন একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে চট্টগ্রাম-১২ (পটিয়া) ও চট্টগ্রাম-১৩ (আনোয়ারা-কর্ণফুলী) আসনে বরেণ্য রাজনীতিবিদ, সম্মিলিত জাতীয় জোটের শীর্ষনেতা ও বাংলাদেশ ইসলামী ফ্রন্ট মহাসচিব আল্লামা এম এ মতিন এর পক্ষে মনোনয়নপত্র নেয়া হয়েছে। আজ ১৮ নভেম্বর রবিবার বিকাল ২টায় পটিয়া উপজেলা নির্বাচন অফিসার সৈয়দ আবু ছাইদের নিকট থেকে এম এ মতিনের পক্ষে মনোনয়নপত্র সংগ্রহ করেন ইসলামী ফ্রন্ট চট্টগ্রাম দক্ষিণ জেলা সাংগঠনিক সম্পাদক আলী হোসেন ও পটিয়া উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান পীরজাদা এয়ার মুহাম্মদ পেয়ারু সহ নেতৃবৃন্দ। গত ১১ নভেম্বর জেলা রিটার্নিং কর্মকর্তার কার্যালয় থেকে চট্টগ্রাম-১৩ আসনের জন্য এম এ মতিনের পক্ষে মনোনয়নপত্র সংগ্রহ করেন দক্ষিণ জেলা ইসলামী ফ্রন্ট সাধারণ সম্পাদক মাষ্টার আবুল হোসেন।

এসময় উপস্থিত ছিলেন ইসলামী ফ্রন্টনেতা কাযী মুহাম্মদ ইলিয়াছ, জসীম উদ্দীন সিদ্দীকী, কাযী আবু বকর, কেন্দ্রীয় যুবনেতা জসীম উদ্দীন, ছাত্রনেতা নিজামুল করিম সুজন, এনামুল হক, কামাল উদ্দিন, জোবাইরুল হক, রফিক ওসমানী, সরোয়ার প্রমুখ। জননেতা আল্লামা এম এ মতিন, মাদ্রাসা ও বিশ্ববিদ্যালয় থেকে সর্বোচ্চ ডিগ্রীপ্রাপ্ত মেধাবী সংগঠক, রাজনীতিবিদ। তিনি মাদ্রাসার সর্বোচ্চ স্তরে হাদীছ শাস্ত্রের উপর কামিল ডিগ্রী এবং চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয় থেকে আরবি সাহিত্যে বিএ (অনার্স) সহ সর্বোচ্চ ডিগ্রী অর্জন করেছেন। শিক্ষা জীবনের প্রতিটি স্তর অতিক্রম করেছেন সাফল্যের সাথে। ছাত্রজীবন থেকে তিনি ছিলেন বয়সের তুলনায় একজন প্রাগ্রসর ব্যক্তিত্ব। অন্য দশজন ছাত্রের চাইতে দেশ নিয়ে, সমাজ নিয়ে তার চিন্তাভাবনা ছিল ভিন্নতর।

স্বাধীনতা উত্তর সময়ে দেশের ছাত্রসমাজকে যখন স্বাধীনতা বিরোধী অপশক্তি ইসলামের বুলি আওডিয়ে বিভ্রান্ত করার চক্রান্তে নেমেছিল তখন তিনি ১১ জন মেধাবী ছাত্র নিয়ে গড়ে তুললেন বাংলাদেশ ইসলামী ছাত্রসেনা। ১৯৮০ সালে তার হাতে গড়া এ সংগঠন আজ বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয়সহ ৬৪ জেলায় দেশপ্রেমিক নেতৃত্ব গড়ে তোলার মাধ্যমে সমৃদ্ধ বাংলাদেশ গড়ার লক্ষে সামনে এগিয়ে যাচ্ছে। যুবসমাজকে নৈতিক অবক্ষয়ের হাত থেকে উদ্ধার করতে ১৯৮৪ সালে প্রতিষ্ঠা করেন বাংলাদেশ ইসলামী যুবসেনা। আর্তপীড়িত, অসহায় মানুষের পাশে দাড়ানোর জন্য ১৯৮৬ সালে প্রতিষ্ঠা করেন সরকারি রেজিষ্টার্ড সামাজিক সংগঠন আনজুমানে খোদ্দামুল মুসলেমীন। এ সেবামূলক সংগঠনের মাধ্যমে এ পর্যন্ত ১৩৯টি কন্যাদায়গ্রস্থ পরিবারকে আর্থিক সহায়তা প্রদান, ৫৮২ জন অসহায় ছাত্রকে অর্থ সহায়তা প্রদান সহ ট্রাস্টের মাধ্যমে বর্তমানে চট্টগ্রাম-নোয়াখালীতে পরিচালিত হচ্ছে ৩টি মাদ্রাসা, ২টি মসজিদ, এতিমখানা ও হেফজখানা কমপ্লেক্স। ১৯৯০ সালে প্রতিষ্ঠিত হওয়া সুন্নী জনতার একক রাজনৈতিক সংগঠন বাংলাদেশ ইসলামী ফ্রন্টের তিনি অন্যতম প্রতিষ্ঠাতা। দেশের শোষিত, বি ত, অধিকার হারা জনগোষ্ঠীর অধিকার আদায়ের লক্ষে তার প্রতিষ্ঠিত জাতীয় রাজনৈতিক দল বাংলাদেশ ইসলামী ফ্রন্ট ৯১ থেকে ২০০৮ পর্যন্ত প্রতিটি নির্বাচনে অংশ নিয়ে শান্তিপ্রিয় জনতার দলে পরিণত হয়েছে।

মজলুম মানুষদের অধিকার প্রতিষ্ঠা ও দেশে সুশাসন প্রতিষ্ঠার লক্ষেই দেশপ্রেমিক জননেতা এম এ মতিনের রাজনৈতিক অগ্রযাত্রা। এ লক্ষে তিনি ২০০১ সালে কোতোয়ালি ও ২০০৮ সালের নির্বাচনে আনোয়ারা আসনে প্রতিদ্বন্ধিতা করেন। স্বচ্ছ ও জবাবদিহিতামূলক সিটি গভর্মেন্ট প্রতিষ্ঠার স্লোগান তুলে তিনি ২০১৪ সালে চসিক মেয়র নির্বাচনে অংশ নিয়ে শক্ত প্রতিদ্বন্ধিতা করেন। ২০১৩ সালে দেশে জঙ্গিবাদী অপশক্তি মাথাচাড়া দিয়ে ওঠলে সুফিবাদী শান্তিকামী জনতাকে সাথে নিয়ে তিনি প্রতিরোধের ডাক দেন। তার আহবানে সাড়া দিয়ে ২০১৩ সালের ২০ এপ্রিল লালদীঘি ময়দানে দশ লক্ষাধিক জনতা অংশ নেয়। তার উদ্যোগে প্রতিষ্ঠিত আহলে সুন্নাত ওয়াল জমাআত সমন্বয় কমিটির ব্যানারে অনুষ্ঠিত হওয়া এ মহাসমাবেশে অংশ নেন হাজারো পীর- মাশায়েখ ওলামায়ে কিরাম। তিনি পরিচিতি পান সুন্নী ঐক্যের মহানায়ক অভিধায়। মুসলিম জাতির ক্রান্তিলগ্নেও বলিষ্ঠ ভূমিকা রাখেন এ দেশপ্রেমিক নেতৃত্ব।

ছিন্নভিন্ন শরীর নিয়ে বাংলাদেশে পালিয়ে আসা রোহিঙ্গা মুসলিম জনগোষ্ঠীর জন্য সর্বাত্মক সহায়তার আহ্বান জানিয়েছিলেন আহলে সুন্নাত ওয়াল জমাআত সমন্বয় কমিটির প্রধান সমন্বয়ক জননেতা এম এ মতিন। ২০১৭ সালের সেপ্টেম্বর মাসে ৩০ ট্রাক খাদ্য ও বস্ত্র সামগ্রী বিতরণ করে নির্যাতিত অসহায় রোহিঙ্গা জনগোষ্ঠীর পাশে দাঁড়ান এ মানবদরদী জননেতা। রাসুলে কারীম (দ) এর রওজা শরীফ নিয়ে সৌদি ষড়যন্ত্রের প্রতিবাদ, ফিলিস্তিন, সিরিয়াসহ নির্যাতিত মুসলমানদের জন্য তার নির্দেশে ঢাকা চট্টগ্রামসহ সারাদেশে কর্মসূচিও পালন করে সর্বস্তরের জনগণ। তিনি শুধু দেশে নন, কর্মগুণে প্রবাসেও সমান সমাদৃত। গত বছর ওমান, আরব আমিরাত ও সৌদি আরব সফরে বিভিন্ন সংস্থা কর্তৃক ব্যাপক সংবর্ধিত হন।

সুফিবাদী জনতার প্রতিনিধি হিসেবে বিভিন্ন রাজনৈতিক ও ধর্মীয় গুরুত্বপূর্ণ বিষয়ে টকশো আলোচনাতেও তিনি নিয়মিত অংশ নেন। ইসলামী রাজনীতি, সমাজচিন্তা, সংগঠন ভাবনাসহ নানা ইস্যূতে তার প্রকাশিত প্রবন্ধের সংখ্যা শতাধিক। দেশের মানুষের ভাগ্যোন্নয়নে দীর্ঘসময় সেবামূলক বহুমূখী কাজ করার অভিজ্ঞতায় ঋদ্ধ এ জননেতা । একাধারে সংগঠক, লেখক-গবেষক আলেমেদ্বীন, সমাজসেবক, বহু শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের প্রতিষ্ঠাতা, সম্মিলিত জাতীয় জোটের শীর্ষনেতা ও বাংলাদেশ ইসলামী ফ্রন্টের মহাসচিব জননেতা এম এ মতিন চট্টগ্রাম-১২ ও চট্টগ্রাম-১৩ আসনে নির্বাচনী লড়াইয়ে অবতীর্ণ হওয়ায় এ দু’আসনে ভোটের হিসাব পাল্টে যাবে।

বেনাপোল প্রতিনিধি : ভারতে পাচার কা‌লে বেনাপোল চেকপোস্ট থে‌কে শহিদুল্লা (৩০) নামে এক পাসপোর্ট যাত্রীকে ১২ পিছ (১ কেজি ২শ গ্রাম ওজনের) স্বর্ণের বারসহ আটক করেছে কাস্টমস শুল্ক গোয়েন্দা সদস্যরা। বুধবার সকা‌লে ওই যাত্রীর পায়ু পথ থে‌কে স্বর্ণের বারগুলো পাওয়া যায়। আটক শহিদুল্লা কিশোরগঞ্জের করিমগঞ্জ এলাকার আবতার উদ্দীনের ছেলে।

কাস্টমস সূত্রে জানা যায়, ওই যাত্রী তার পাসপোর্টের আনুষ্ঠানিকতা সম্পন্ন করে বেনাপোল চেকপোস্ট দিয়ে ভারতে যাওয়ার সময় গতিবিধি দেখে সন্দেহ হয় কাস্টম্স শুল্ক গোয়েন্দা সদস্যদের। পরে ভারতে প্রবেশের আগ মুহূর্তে ওই যাত্রীর গতিরোধ করে জিজ্ঞাসাবাদ করা হয়।

এ সময় প্রথমে তিনি শরীরে স্বর্ণবার বহনের বিষয়টি অস্বীকার করলেও পরে জিজ্ঞাসাবাদে তার শরীরে স্বর্ণ বহনের বিষয়টি স্বীকার করেন। এসময় তার পায়ুপথ থেকে ১২টি স্বর্ণের বার উদ্ধার করা হয়। যার বাজার মুল্য প্রায় ৬০ লক্ষ টাকা।

বেনাপোল কাস্টমস হাউজের সহকারী পরিচালক নিপুন চাকমা বলেন, আটক ব্যক্তির বিরুদ্ধে স্বর্ণপাচার আইনে মামলা দিয়ে বেনাপোল পোর্টথানা পুলিশে সোপর্দ করা হয়েছে।

গীতি গমন চন্দ্র রায়,পীরগঞ্জ (ঠাকুরগাঁও) প্রতিনিধি: ঠাকুরগাঁওয়ের পীরগঞ্জে ১১নং বৈরচুনা ইউপি সদস্যদের না জানিয়ে একক ভাবে ইউনিয়ন পরিষদ পরিচালনা ও  মাসিক ভাতার টাকা আতœসাত করার অভিযোগ এনে ঠাকরগাঁওয়ের পীরগঞ্জ উপজেলার বৈরচুনা ইউপি চেয়ারম্যানের মোঃ জালাল উদ্দীনের বিরুদ্ধে অনাস্থা প্রস্তাব গ্রহন করেছেন পরিষদের ১২ জন নির্বাচিত সদস্য। এ বিষয়ে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহনের জন্য সোমবার দুপুরে উপজেলা নির্বাহী অফিসার এডব্লিউএম রায়হান শাহের নিকট আবেদন করেছেন পরিষদের সদস্যরা।

উপজেলা পরিষদে দায়ের করা ১২ জন সদস্য স্বাক্ষরিত আবেদনে উল্লেখ করা হয়, বৈরচুনা ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান জালাল উদ্দীন পরিষদের সদস্যদের না জানিয়েই একক ভাবে ইউনিয়ন পরিষদের সকল কাজকর্ম পরিচালনা করে আসছেন। এমন কি ২০১৬ সালের আগষ্ট মাসে দায়িত্ব নেওয়ার পর থেকে এখন পর্যন্ত সদস্যদের মাসিক সম্মানি ভাতা প্রদান না করে আতœসাত করেছেন। বাধ্য হয়েই পরিষদের ৯ জন সাধারণ এবং ৩ জন সংরক্ষিত নারি সদস্য চেয়ারম্যনের বিরুদ্ধে অনাস্থা প্রস্তাব গ্রহন করেছেন বলে অভিযোগে উল্লেখ করা হয়।

এ বিষয়ে ইউপি সদস্য অনিসুর রহমান বলেন, চেয়ারম্যান একক ক্ষমতা বলে সব কিছু করছেন। কোন সদস্যকেই জানাচ্ছেন না। আমরা একাধিকবার তাকে (চেয়ারম্যান) বলেছি। তিনি কোন ব্যবস্থা নেননি।

অভিযোগ বিষয়ে ইউপি চেয়ারম্যান জালাল উদ্দীন বলেন, একক ভাবে পরিষদ চালানোর অভিযোগ সত্য নয়। সোলার ভাগ বন্টনে একমত হতে না পারায় তারা অভিযোগ দিতে পারে। তাছাড়া পরিষদের আয় না থাকলে সদস্যদের ভাতা দিব কিভাবে। ভাতার টাকা আতœসাতের প্রশ্নই উঠে না।

অনাস্থা প্রস্তাব বিষয়ে উপজেলা নির্বাহী অফিসার এ ডব্লিউ এম রায়হান শাহ বলেন, দরখাস্ত পেয়েছি। বিধি মোতাবেক ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

আমারসিলেট টুয়েন্টিফোর ডটকম,১০মে,বেনাপোল থেকে এম ওসমান : বেনাপোল সীমান্ত থেকে ১২টি স্বর্ণের বার উদ্ধার করেছে বর্ডার গার্ড বাংলাদেশ (বিজিবি) সদস্যরা। তবে এসময় কোন পাঁচারকারিকে আটক করতে পারেনি বিজিবি। বুধবার (০৯মে) সকাল ৮ টার দিকে বেনাপোল পোর্ট থানার পুটখালী সীমান্তের খলসী বাজারের ইটভাটার পাশ থেকে এ স্বর্ণের চালান উদ্ধার করা হয়।
এ বিষয়ে ২১ বিজিবি ব্যাটালিয়নের অধিনায়ক লে. কর্ণেল তারিকুল হাকিম জানান, তাদের কাছে গোপন খবর আসে বেনাপোল সীমান্ত পথে স্বর্ণের একটি বড় চালান পাঁচার হবে। সেসময়ে বিজিবি সদস্যরা সেখানে অভিযান চালালে চোরাকারবারীরা বিজিবির উপস্থিতি বুঝতে পেরে একটি প্যাকেট ফেলে পালিয়ে যায়।

পরে প্যাকেটটি উদ্ধার করে প্যাকেটের মধ্যে থাকা ১২পিছ স্বর্ণের বার পাওয়া যায়। যার ওজন কেজি ৪’শ গ্রাম এবং মূল্য ৫৮ লক্ষ ৮০ হাজার টাকা বলে তিনি জানান।

আমারসিলেট টুয়েন্টিফোর ডটকম,৩০এপ্রিল,নড়াইল প্রতিনিধি: নড়াইলে ১২দলীয় জেলা প্রশাসক গোল্ডকাপ ফুটবল টুর্নামেন্টের উদ্বোধন অনুষ্ঠিত হয়েছে। রবিবার বিকেলে নড়াইল বীরশ্রেষ্ঠ নূর মোহাম্মদ ষ্টেডিয়ামে জেলা ক্রিড়া সংস্থার আয়োজনে এ টুর্নামেন্টের উদ্বোধন করেন জেলা প্রশাসক ও জেলা প্রশাসক গোল্ডকাপ ফুটবল টুর্নামেন্টের সভাপতি এমদাদুল হক চৌধুরী। উদ্বোধনী খেলায় নড়াইল জেলা ফুটবল দল– ৪-১ গোলে আবাহনী ক্রিড়া চক্র গোপালগঞ্জকে পরাজিত করে। নড়াইলের ১১ নং খেলোয়ার আওরঙ্গ শ্রেষ্ঠ খেলোয়ার নির্বাচিত হয়েছেন।
পুলিশ সুপার মোহাম্মদ জসিমউদ্দিনের সভাপতিত্বে উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান অ্যাডঃ সোহরাব হোসেন বিশ^াস, পৌর মেয়র মোঃ জাহাঙ্গীর হোসেন বিশ^াস, অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক ( সার্বিক) মোঃ কামরুল আরিফ , অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক( রাজস্ব) কাজী মাহবুবুর রশীদ, জেলা ক্রীড়া সংস্থার সাধারন সম্পাদক আশিকুর রহমান মিকু, জেলা প্রশাসক গোল্ডকাপ ফুটবল টুর্নামেন্টের সাধারন সম্পাদক মোঃ হাসানুজ্জামান,জেলা ক্রীড়া সংস্থার সহ সভাপতি আইয়ুব খান বুলু, জেলা পরিষদের সদস্য ও জেলা ক্রীড়া সংস্থার সহ-সভাপতি রওশন আরা কবীর লিলি, জেলা মহিলা ক্রীড়া সংস্থার সাধারন সম্পাদক রাবেয়া ইউসুফ, সাংবাদিক, সুশীল সমাজের প্রতিনিধিসহ কয়েক হাজার ফুটবল প্রেমী দর্শক এ সময় উপস্থিত ছিলেন। উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে নড়াইল সরকারি উচ্চ বালিকা বিদ্যালয় ও শিবশঙকর বালিকা বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের অংশগ্রহনে মনোজ্ঞ ডিসপ্লে ও নৃত্যানুষ্ঠান এবং বীরশ্রেষ্ঠ নূর মোহাম্মদ শেখ লাঠিয়াল দলের অংশগ্রহনে লাঠি খেলা পরিবেশিত হয়।
এ টুর্নামেন্টে ভারতের মোহামেডান স্পোটিং ক্লাব, ঢাকার ব্রাদার্স ইউনিয়ন ক্লাব, নড়াইল জেলা ক্রীড়া সংস্থা, জেলা ফুটবল এসোসিয়েসন, খুলনা, আবাহনী ক্রীড়াচক্র, গোপালগঞ্জ, ফরিদপুর জেলা ক্রীড়া সংস্থা, সেন্ট মেরী স্পোটিং ক্লাব, সাতক্ষিরা, মাগুরা জেলা ক্রীড়া সংস্থা, জেলা ফুটবল এসোসিয়েশন, ঝিনাইদাহ, চুয়াডাঙ্গা জেলা ফুটবল এসোসিয়েশেন ও যশোর জেলা ক্রীড়া সংস্থাসহ ১২টি দল এ প্রতিযোগিতায় অংশগ্রহন করবে।

আমারসিলেট টুয়েন্টিফোর ডটকম,২৮মার্চ,হবিগঞ্জ প্রতিনিধিঃ  হবিগঞ্জের নবীগঞ্জ উপজেলায় বারো হাজার চারশত চল্লিশ পিস ইয়াবাসহ এক শীর্ষ মাদক বিক্রেতাকে আটক করেছে র‌্যাব। ২৮ মার্চ বুধবার দুপুরে গণ্যমাধ্যমে এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে র‌্যাব-৯।
র‌্যাব ৯ জানায়, গত মঙ্গলবার বিকেল ৩ ঘটিকায় অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মোঃ মনিরুজ্জামান এর নেতৃত্বে র‌্যাব-৯ এর স্পেশাল কোম্পানী, সিলেট ক্যাম্পের একটি বিশেষ দল নবীগঞ্জ উপজেলার আউশকান্দি এলাকায় দীর্ঘ অভিযান পরিচালনা করে বিল্ডিং এর ৩য় তলা থেকে ১২,৪৪০ (বার হাজার চারশত চল্লিশ) পিস ইয়াবা ও মাদক বিক্রয়লব্ধ প্রায় ৪০,০০০/-(চল্লিশ হাজার) নগদ টাকাসহ মাদক বিক্রেতা মহিবুর রহমান (২২) আটক করা হয়। ধৃত মুহিবুর উপজেলার পানিউমদা ইউনিয়নের গণি মিয়ার ছেলে।
উল্লেখ্য, মুহিবুর এর পিতা গণি মিয়া ওই এলাকায় মাদক ব্যবসায়ী হিসেবে পরিচিত। এবং তার পিতা বর্তমানে মাদক মামলায় কারাগারে রয়েছে। র‌্যাব আরও বলে গোয়েন্দা তথ্যের মাধ্যমে জানা যায়, গ্রেফতারকৃত মহিবুর রহমান ও তার সহযোগীরা নবীগঞ্জসহ অন্যান্য এলাকায় বিভিন্ন প্রকারের মাদকদ্রব্য পাইকারী হিসেবে বিক্রি করে আসছিল। যা পর্যায়ক্রমে পুরো হবিগঞ্জ ও আশপাশের জেলায় সরবরাহ করে থাকে। মহিবুর এর আস্তানায় যুবক থেকে শুরু করে নারীসহ সব বয়সের মাদকসেবীরা মাদক সেবন করে আসছিল। র‌্যাব জানায় জিজ্ঞাসাবাদে মুহিবুর জানায়, লোকচক্ষুর অন্তরালে দীর্ঘদিন যাবত সে হবিগঞ্জ জেলার বিভিন্ন এলাকায় মাদক ব্যবসা করে আসছিল।

আমারসিলেট টুয়েন্টিফোর ডটকম,০৪সেপ্টেম্বর,শ্রীমঙ্গল প্রতিনিধি: মৌলভীবাজারের শ্রীমঙ্গলে ১১ টি ডাকাতি ১ টি হত্যা মামলার আসামীকে গ্রেফতার করেছে শ্রীমঙ্গল থানা পুলিশ।

রোববার  বিকাল সাড়ে ৪ টায় শ্রীমঙ্গল থানার অফিসার ইনচার্জ কে এম নজরুল এর নেতৃত্বে এস আই মো: ফজলে রাব্বী, এএসআই জয়নাল আবেদীন  এক দল পুলিশসহ গোপন সংবাদের ভিত্তিতে এলাকাবাসীর সহযোগীতায় সিন্দুরখান ইউনিয়নস্থ গোলগাও এলাকা থেকে আকতার মিয়া কে গ্রেফতার করা হয়েছে। পুলিশের সুত্রে জানা যায় গ্রেপ্তারকৃত আকতার মিয়া আন্ত:বিভাগীয় কুখ্যাত ডাকাত দলের সদস্য। তার বাড়ি হবিগঞ্জ জেলার চুনারুঘাট থানার আঠালিয়া গ্রামে তিনি মৃত আকবর আলীর ছেলে।
পুলিশ সূত্রে  আরও জানা যায়, আকতার মিয়ার বিরুদ্ধে মৌলভীবাজার সদর থানায় ০৩ টি ডাকাতি, ০১ টি খুন মামলা,সিলেটের কানাইঘাট থানায় ১ টি ডাকাতি মামলাও বিশ্বনাথ থানায় ০২ টি ডাকাতি মামলা, চুনারুঘাট থানায় ০৩ টি ডাকাতি মামলাসহ সিলেটের বিয়ানীবাজার থানায় ০২ টি ডাকাতি মামলা বিজ্ঞ আদালতে বিচারাধীন আছে।
এস আই মো: ফজলে রাব্বী জনান, তাহার বিরুদ্ধে হবিগঞ্জ জেলার চুনারুঘাট থানায় ১২ টি গ্রেফতারি পরোয়ানা মূলতবী রয়েছে। আজ সোমবার দুপুরে তাকে চুনারুঘাট থানা পুলিশের হাতে হস্তান্তর করা হয়েছে।

আমার সিলেট টুয়েন্টি ফোর ডটকম,০৭মে,কমলগঞ্জ প্রতিনিধিঃ মৌলভীবাজারের কমলগঞ্জ উপজেলার  ঐতিহ্যবাহী আদমপুর খন্দকার দীঘি থেকে মাত্রাতিরিক্ত বিষ প্রয়োগের মাধ্যমে মাছ মারার অভিযোগে ১১জন জেলেসহ লিজগ্রহীতা আব্দুল খালেককে আটক করে পুলিশে সোর্পদ করা হয়। শনিবার(৬মে) বিকালে আদমপুর ইউনিয়ন পরিষদ সংলগ্ন ঐতিহ্যবাহী আদমপুর খন্দকার দীঘি তে প্রচুর পরিমাণ মরা মাছ ভেসে উঠতে দেখেন স্থানীয় এলাকাবাসী। এ সময় দুর্গন্ধে দুষিত হয়ে যায় আশেপাশের এলাকা।

পরে স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যানকে খবর দিলে তিনি এসে দীঘিরপাড়ে অবস্থানরত ১১জন জেলেকে আটক করে কমলগঞ্জ থানা পুলিশকে খবর দেন। আদমপুর ইউপি চেয়ারম্যান আবদাল হোসেন জানান, দীঘির লীজগ্রহীতা মাত্রাতিরিক্ত বিষ প্রয়োগ করে মাছ মেরে সে মাছ বাজারে বিক্রয় করছে এবং দীঘির পানিও বিষাক্ত করে তুলছে। এয়াড়া বাজারের মাদ্রাসার শিক্ষার্থী.মসজিদের মুসল্লীরা এ পানি ব্যবহার করছে এবং  অর্ধশতাধিক চায়ের দোকানে চা তৈরিতেও এ পানি ব্যবহার হচ্ছে। যা পরিবেশ ও স্বাস্থ্যের জন্য মারাত্মক হুমকি স্বরূপ।

তিনি বিষয়টি কমলগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী অফিসার ও উপজেলা মৎস্য অফিসারকে অবহিত করেছেন। সন্ধ্যায় কমলগঞ্জ থানার উপ-পুলিশ পরিদর্শক মাহাবুবুল হকের নেতৃত্বে পুলিশের একটি দল আটককৃত ১১জন জেলেসহ মৌলভীবাজার গুলবাগ নিবাসী  লিজ গ্রহীতা আব্দুল খালেক(৬০)কে কমলগঞ্জ থানায় নিয়ে যায়।

জানা যায়, আদমপুর ইউপি সদস্য রেজাউল করিম বাদী হয়ে এ ব্যাপারে কমলগঞ্জ থানায় একটি লিখিত এজাহার দায়ের করেন।কমলগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা(তদন্ত) নজরুল ইসলাম জানান, রবিবার দুপুরে আটককৃতদের মৌলভীবাজার কারাগারে প্রেরণ করা হয়। উপজেলা মৎস্য কর্মকর্তা শাহাদাত হোসেন ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে এ প্রতিবেদককে জানান, পুকুরে বা দীঘিতে বিষ প্রয়োগ করে মাছ মারা ও পরিবেশ দুষন দণ্ডনীয় অপরাধ।

আমার সিলেট টুয়েন্টি ফোর ডটকম,২৮এপ্রিল,এম ওসমান,বেনাপোল প্রতিনিধি : ভারতে বিভিন্ন মেয়াদে ২/৩ বছর জেল খেটে বিশেষ ট্রাভেল পারমিটের মাধ্যমে বেনাপোল চেকপোষ্ট দিয়ে দেশে ফিরেছে ১২ তরুনী ও ১ শিশু। শুক্রবার সন্ধ্যা সাড়ে ৬ টার সময় ভারতীয় ইমিগ্রেশন পুলিশ বেনাপোল ইমিগ্রেশন পুলিশের কাছে হস্তান্তর করেছেন।
ফেরত আসা তরুনীরা হলো, নড়াইল জেলার শিমুল শেখের মেয়ে শামিমা খাতুন (২৩), রাজবাড়ী জেলার আমজাদ আলীর মেয়ে মালা খাতুন (২০), নিলফামারী জেলার সেকেন্দার এর মেয়ে পায়েল (১৮), ঠাকুরগাঁও জেলার বরকত আলীর মেয়ে লাইজু (১৯), নারানগঞ্জ জেলার আলী হোসেনের মেয়ে সাহিদা (২৪), ঢাকা জেলার শাহ আলমের মেয়ে শাহনাজ (২২), মাগুরা জেলার হেলাল উদ্দিনের মেয়ে রেনু খাতুন (২৩), ফরিদপুর জেলার শেখ ছলেমানের মেয়ে রেনু বেগম (২৫), নড়াইল জেলার জাবের আলীর মেয়ে সাগরিকা খাতুন (২৩), ঝিনাইদাহ জেলার শাহজাহান এর মেয়ে মাজেদা খাতুন (২৪), বাগেরহাট জেলার আজগর আলীর মেয়ে তহমিনা (২৩), যশোর জেলার নুর ইসলামের মেয়ে রুনা খাতুন ডলি (২৫) ও তার মেয়ে রুমি (৪)।
বেনাপোল চেকপোষ্ট ইমিগ্রেশনের অফিসার ইনচার্জ (ওসি) ওমর শরীফ বলেন, পাচার হওয়া ১২ তরুনী দেশের বিভিন্ন সীমান্ত দিয়ে ভারতের বোম্বাই শহরে বিভিন্ন কাজের সময় পুলিশের কাছে ধরা পড়ে। পরে সেখানে একটি এনজিও সংস্থা তাদের একটি শেল্টার হোমে রাখে। এরপর দু’দেশের স্বরাষ্ট্র মন্ত্রনালয় চিঠি চালাচালির এক পর্যায়ে শুক্রবার সন্ধ্যায় বেনাপোল চেকপোষ্ট দিয়ে দেশে ফিরেছে। এদের আহসানিয়া মিশন নামে একটি এনজিও সংস্থা পরিবারের কাছে ফিরে দেওয়ার জন্য ইমিগ্রেশনের আনুষ্ঠানিকতা শেষ করে গ্রহন করেছেন।
ঢাকা আহসানিয়া মিশনের এরিয়া কোয়ার্ডিনেটর শেফালী খানম জানান, তাদের বেনাপোল থেকে যশোর আহসানিয়া মিশনের কার্যালয় নিয়ে যাওয়া হবে। এরপর তাদের পরিবারের সাথে যোগাযোগ করে স্ব-স্ব পরিবারের কাছে তাদের হস্তান্তর করা হবে।

আমার সিলেট টুয়েন্টি ফোর ডটকম,০৬এপ্রিল,সুনামগঞ্জ প্রতিনিধিঃ সুনামগঞ্জের জামালগঞ্জ উপজেলায় সাচনা ও জামালগঞ্জ বাজারের ১২জন ব্যবসায়ী কে জরিমানা করেছে ভ্রাম্যমান আদালত।

আজ সকাল ১১ঘটিকায় চাল-আটা সহ নিত্য প্রয়োজনীয় পণ্যের দাম বৃদ্ধি করায় ১২ব্যবসায়ীকে ৩৪হাজার টাকা অর্থদন্ড করেছে ভ্রাম্যমান আদালতের উপজেলা নির্বাহী ম্যাজিষ্ট্রেট। অর্থদন্ড প্রাপ্ত ব্যবসায়ী প্রতিষ্ঠান গুলো হল,জামালগঞ্জ বাজারের মের্সাস ভাই ভাই ট্রেডার্স ২হাজার,সাচনা বাজারের সাথী গ্রোসারী এন্ড কনফেকশনারী ২হাজার,সাথী এন্টার প্রাইজ ২হাজার,ইব্রাহিম এন্টারপ্রাইজ ১হাজার, মের্সাস দূর্জয় ষ্টোর ২হাজার,মের্সাস নয়ন ষ্টোর ৫হাজার,মের্সাস পিয়েস ষ্টোর ১হাজার, মের্সাস জয় কালী ভান্ডার ২হাজার,মের্সাস জয় ষ্টোর ৫হাজার,মের্সাস পিয়াস ষ্টোর ৫হাজার, মের্সাস জুবায়েদ ষ্টোর ৫হাজার,মের্সাস গৌরাঙ্গ ট্রেডার্স ২হাজার টাকা অর্থদন্ড করা হয়।

এ সময় সাথে ছিলেন,এস আই সাইফুল্লাহ আকন্দ সহ সঙ্গীয় ফোর্স। গত বুধবার ব্যবসায়ীদের সাথে প্রশাসন দ্রব্য মূল্য নিয়ন্ত্রনে রাখতে জরুরী বৈঠক করলেও উপজেলার বিভিন্ন হাট বাজরে কিছু অসাধু ব্যবসায়ী মানুষের অসহায়ত্বের সুযোগে কৃত্রিম সংকট তৈরী করে চড়া দামে ভোগ্যপণ্য বিক্রি করছেন।

এমন অভিযোগে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ও ম্যাজিষ্ট্রেট প্রসূন কুমার চক্রবর্তী দুর্গত এলাকার বাজার নিয়ন্ত্রনে চাল-আটা সহ নিত্য প্রয়োজনীয় দ্রব্য মূল্যের দাম স্থিতিশীল রাখতে ভ্রাম্যমান আদালত পরিচালনা অব্যাহত রয়েছে। উপজেলার প্রত্যেকটি বাজারে পুলিশ প্রশাসনের মনিটরিং জোরদার করার দাবী জানিয়েছেন ভোক্তভূগণ।

  

এডিটর: আনিছুল ইসলাম আশরাফী, এনিমেটরস্ বাংলা মিডিয়া গ্রুপ কর্তৃক প্রকাশিত
সম্পাদকীয় কার্যালয়: কলেজ রোড, শ্রীমঙ্গল, মৌলভীবাজার।
Email: news.amarsylhet24@gmail.com Mobile: 01772 968 710

Developed By : i-Tech Sreemangal
Email : itech.official@hotmail.com
Facebook : http://facebook.com/itech.ctc