Friday 23rd of October 2020 03:15:52 AM

এম ওসমান :  ভারতে পাচারকালে বেনাপোল পোর্ট থানাধীন  সাদিপুর সীমান্তের পাকা রাস্তার উপর থেকে প্রায় ৭০ লাখ টাকা মূল্যের ১০টি স্বর্ণের বারসহ জিহাদ আলী (২৮) নামে এক স্বর্ণ পাচারকারীকে আটক করেছে বর্ডার গার্ড বাংলাদেশের (বিজিবি) সদস্যরা। আটক স্বর্ণ পাচারকারী জিহাদ আলী বেনাপোল পোর্ট থানাধীন সাদিপুর গ্রামের তাহাজ্জত আলীর ছেলে।
যশোর-৪৯ বর্ডার গার্ড বাংলাদেশ (বিজিবি)’র অধিনায়ক লে. কর্ণেল সেলিম রেজা প্রেস বিফিংয়ে জানান, বুধবার (৫ ফেব্রয়ারি) সকালে কাশিপুর বিওপি’র সুবেদার আব্দুল মালেক গোপন সংবাদের ভিত্তিতে বেনাপোল পোর্ট থানাধীন সাদিপুর পাকা রাস্তার উপর থেকে ১০ টি স্বর্ণের বারসহ জিহাদকে আটক করা হয়।
আটককৃত স্বর্ণের সিজার মূল্য ৬৯,৯৬,০০০/- (ঊনসত্তর লক্ষ ছিয়ানব্বই হাজার) টাকা। আটক জিহাদ আলীকে স্বর্ণসহ বেনাপোল পোর্ট থানায় হস্তান্তর করা হয়েছে।

বেনাপোল থেকে এম ওসমানঃ  যশোরের বেনাপোল আইসিপি বিজিবি ক্যাম্পের সদস্যরা ২ পিচ স্বর্ণের বার উদ্ধার করেছে। যার ওজন ৬২০ গ্রাম। শনিবার দুপুর সাড়ে ৩টার সময় নাভারন রেলষ্টেশন মোড় থেকে মালিক বিহীন অবস্থায় উদ্ধার করেন।

বেনাপোল আইসিপি বিজিবি ক্যাম্প কমান্ডার নায়েব সুবেদার শহিদ জানান, গোপন সংবাদের ভিত্তিতে নাভারন ষ্টেশন মোড়ে ফল পট্টিতে অভিযান চালিয়ে পরিত্যক্ত অবস্থায় একটি লাল স্কুল ব্যাগের মধ্যে ২ পিচ স্বর্ণের বার মালিক বিহীন অবস্থায় উদ্ধার করা হয়েছে। যার ওজন ৬২০ গ্রাম। মূল্য ৩৪ লক্ষ ৭২ হাজার টাকা। বিজিবির উপস্থিতি টের পেয়ে পাচারকারীরা পালিয়ে যায়।

এম ওসমান,বেনাপোল: যশোরের বেনাপোল সীমান্তে অভিযান চালিয়ে ৩.৮ কেজি ওজনের ৪৯ পিচ স্বর্ণেরবারসহ মোমিনুর রহমান (৫০) নামে এক যুবককে আটক করেছে বর্ডার গার্ড বাংলাদেশ (বিজিবি) সদস্যরা ।
বৃহস্পতিবার (৩১ অক্টোবর) সকাল ৮টার দিকে বেনাপোল সীমান্তের সাদিপুর সড়কের সিটি আবাসিক হোটেল থেকে এসব স্বর্ণসহ তাকে আটক করে বেনাপোল আইসিপি বিজিবি ক্যাম্পের সদস্যরা। আটক মোমিন বেনাপোল সাদিপুর গ্রামের হাসমত উল্লাহর ছেলে। জব্দকৃত স্বর্ণের ওজন ৩ কেজি ৮শ’ ২০ গ্রাম। জব্দকৃত স্বর্ণের সিজার মূল্য প্রায় ২ কোটি টাকা।
বর্ডার গার্ড বাংলাদেশ (বিজিবি)’র যশোর-৪৯ ব্যাটেলিয়নের অধিনায়ক লে. কর্নেল সেলিম রেজা জানান, গোপন সংবাদের মাধ্যমে জানতে পারি একজন পাচারকারী বিপুল পরিমানের স্বর্ণ নিয়ে বেনাপোল বর্ডারের সাদিপুর মোড়ে সিটি আবাসিক হোটেলে অবস্থান করছে। এসময়ে ফোর্স নিয়ে সেখানে অভিযান চালিয়ে তাকে আটক করা হয়। পরে তার দেহে তল্লাশী চালিয়ে ৪৯পিচ স্বর্ণেরবার জব্দ করা হয়। জব্দকৃত স্বর্ণের ওজন ৩ কেজি ৮শ’ ২০ গ্রাম । যার বাজার মূল্য প্রায় ২ কোটি টাকা । আটককৃতের নামে স্বর্ণ পাচারের মামলার প্রক্রিয়া চলছে বলে তিনি জানান।

এম ওসমান,বেনাপোল: ভারতে পাচারের সময় ৪১টি স্বর্ণের বারসহ ৪ পাচারকারীকে আটক করেছে বর্ডার গার্ড বাংলাদেশ (বিজিবি) সদস্যরা।
রোববার (১৬জুন)  সকাল ৮  টায় যশোর-বেনাপোল মহাসড়কের শার্শার  আমড়াখালী বিজিবি চেকপোষ্ট এলাকা  থেকে পৃথক দুটি অভিযানে ৪৯ ব্যাটালিয়নের বিজিবি সদস্যরা স্বর্ণের বারসহ তাদেরকে  আটক করে।
আটককৃত পাচারকারী হলেন, নড়াইলের টোনাগ্রামের মৃত আব্দুল মান্নানের ছেলে সবুজ মৃধা, ফরিদপুরের বড়পাল্লা গ্রামের মনিরুজ্জামানের ছেলে তানভির জামান, মাদারীপুরের টেকেরহাট গ্রামের সোরয়ার কাজীর ছেলে আনিসুর রহমান ও খুলনার ফুলবাড়ি গেটের শাহাজাত মোল্লার ছেলে রিয়াজ মোল্লা।
বিজিবি  জানান, গোপন সংবাদের ভিত্তিতে জানতে পারি বেনাপোল সীমান্ত পথে  স্বর্ণের একটি বড় চালান ভারতে পাচার হবে। পরে বিজিবি নিরাপত্তা ব্যবস্থা  জোরদার করে। এক পর্যায়ে আমড়াখালী চেকপোষ্টে ঢাকা থেকে বেনাপোল গামী ঈগল ও দেশ ট্রাভেল পরিবহন থেকে সন্দেহ ভাজন চার যুবককে ধরা হয়।  এসময় তাদের কাছ থেকে ৪কেজি ৭৮০ গ্রাম ওজনের ৪১টি স্বর্ণের বার পাওয়া যায়। যার বাজার মূল্য প্রায় ২ কোটি ১০ লাখ ৩২ হাজার টাকা বলে জানায় বিজিবি।
৪৯ ব্যাটালিয়ন বিজিবির অধিনায়ক লে. কর্ণেল সেলিম রেজা বিষয়টি জানান, আটককৃতরা ঢাকা থেকে স্বর্ণ নিয়ে ভারতের উদ্দেশ্যে যাচ্ছিল।তাদের বিরুদ্ধে স্বর্ণ পাচার আইনে মামলা দিয়ে পুলিশে সোপর্দের প্রক্রিয়া চলছে।

এম ওসমান, বেনাপোল: বেনাপোল চেকপোস্ট কাস্টমসের শুল্ক গোয়েন্দা সদস্যরা প্রায় ১২ লাখ টাকা মূল্যমানের ২ টি স্বর্ণের বারসহ পাসপোর্ট যাত্রী শহিদুল ইসলাম ইসলাম (২৫) নামে একজন স্বর্ন পাচারকারীকে আটক করেছে । সে শরিয়াতপুর জেলার জাজিরা থানার কুনদেচর গ্রামের নুরুল ইসলামের ছেলে।
সোমবার (০৪ নভেম্বর ) সকাল ৯টার  সময় ভারতে প্রবেশ এর আগে সন্দেহ জনক হলে তাকে আটক করে শুল্ক গোয়েন্দার সদস্যরা। তার পাসপোর্ট নম্বর বিপি ০০৮৯২৭০।
বেনাপোল শুল্ক গোয়েন্দারা জানান, পাসপোর্ট যাত্রী শহিদুল ইসলাম ভারতে যাওয়ার জন্য প্যাসেন্জার টার্মিনালে অবস্থিত স্ক্যানার মেশিনে তার ব্যাগ স্ক্যান করে কাস্টমস ও ইমিগ্রেশনের কাজ সম্পন্ন করে ভারতে প্রবেশের জন্য রওনা দিলে শুল্ক গোয়েন্দাদের তার গতিবিধি দেখে সন্দেহ হয়। এ সময় তাকে চেকিং রুমে নিয়ে তার ব্যাগ তল্লাশি করে ২ টি সোনার বার পায়। এ সময় শহিদুল ইসলাম কে আটক করে শুল্ক কর্তপক্ষ।
শুল্ক গোয়েন্দার রাজস্ব কর্মকর্তা মোঃ আকবর হোসেন ১২ লাখ টাকা মূল্যমানের ২ টি সোনার বারসহ শহিদুল ইসলাম নামে একজন স্বর্ন পাচারকারী আটকের বিষয়টি নিশ্চিত করে জানান উদ্ধারকৃত সোনারবার সহ তাকে বেনাপোল পোর্ট থানায় সোপর্দ করা হয়েছে ।

বেনাপোল প্রতিনিধি : ভারতে পাচার কা‌লে বেনাপোল চেকপোস্ট থে‌কে শহিদুল্লা (৩০) নামে এক পাসপোর্ট যাত্রীকে ১২ পিছ (১ কেজি ২শ গ্রাম ওজনের) স্বর্ণের বারসহ আটক করেছে কাস্টমস শুল্ক গোয়েন্দা সদস্যরা। বুধবার সকা‌লে ওই যাত্রীর পায়ু পথ থে‌কে স্বর্ণের বারগুলো পাওয়া যায়। আটক শহিদুল্লা কিশোরগঞ্জের করিমগঞ্জ এলাকার আবতার উদ্দীনের ছেলে।

কাস্টমস সূত্রে জানা যায়, ওই যাত্রী তার পাসপোর্টের আনুষ্ঠানিকতা সম্পন্ন করে বেনাপোল চেকপোস্ট দিয়ে ভারতে যাওয়ার সময় গতিবিধি দেখে সন্দেহ হয় কাস্টম্স শুল্ক গোয়েন্দা সদস্যদের। পরে ভারতে প্রবেশের আগ মুহূর্তে ওই যাত্রীর গতিরোধ করে জিজ্ঞাসাবাদ করা হয়।

এ সময় প্রথমে তিনি শরীরে স্বর্ণবার বহনের বিষয়টি অস্বীকার করলেও পরে জিজ্ঞাসাবাদে তার শরীরে স্বর্ণ বহনের বিষয়টি স্বীকার করেন। এসময় তার পায়ুপথ থেকে ১২টি স্বর্ণের বার উদ্ধার করা হয়। যার বাজার মুল্য প্রায় ৬০ লক্ষ টাকা।

বেনাপোল কাস্টমস হাউজের সহকারী পরিচালক নিপুন চাকমা বলেন, আটক ব্যক্তির বিরুদ্ধে স্বর্ণপাচার আইনে মামলা দিয়ে বেনাপোল পোর্টথানা পুলিশে সোপর্দ করা হয়েছে।

রাজধানী ঢাকার দোহার উপজেলার মৈনটঘাট এলাকা থেকে ২০৪টি স্বর্ণের বারসহ পাঁচ ব্যক্তিকে গ্রেফতার করেছে র‌্যাব-১১। এসব স্বর্ণের ওজন ২৪ কেজির ও বেশি।

আজ শুক্রবার ৭ সেপ্টেম্বর সকালে তাদের আটক করে র‌্যাব-১১। এ সময় তাদের সঙ্গে ছিলো ঢাকা দক্ষিণ ডিবি পুলিশের একটি দল।

র‌্যাব-১১ এর ডিউটি অফিসার সিনিয়র এএসপি আলেক উদ্দিন ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে সংবাদ পত্রকে জানান, গোপন সংবাদের ভিত্তিতে র‌্যাব-১১ এর একটি টিম মৈনটঘাট এলাকায় অভিযান চালিয়ে তাদের আটক করে। আটকদের নাম-ঠিকানা এখনও জানা যায়নি, তাদের বালাসোর র‌্যাব ক্যাম্পে নিয়ে জিজ্ঞাসাবাদ চলছে।

আমারসিলেট টুয়েন্টিফোর ডটকম,১০মে,বেনাপোল থেকে এম ওসমান : বেনাপোল সীমান্ত থেকে ১২টি স্বর্ণের বার উদ্ধার করেছে বর্ডার গার্ড বাংলাদেশ (বিজিবি) সদস্যরা। তবে এসময় কোন পাঁচারকারিকে আটক করতে পারেনি বিজিবি। বুধবার (০৯মে) সকাল ৮ টার দিকে বেনাপোল পোর্ট থানার পুটখালী সীমান্তের খলসী বাজারের ইটভাটার পাশ থেকে এ স্বর্ণের চালান উদ্ধার করা হয়।
এ বিষয়ে ২১ বিজিবি ব্যাটালিয়নের অধিনায়ক লে. কর্ণেল তারিকুল হাকিম জানান, তাদের কাছে গোপন খবর আসে বেনাপোল সীমান্ত পথে স্বর্ণের একটি বড় চালান পাঁচার হবে। সেসময়ে বিজিবি সদস্যরা সেখানে অভিযান চালালে চোরাকারবারীরা বিজিবির উপস্থিতি বুঝতে পেরে একটি প্যাকেট ফেলে পালিয়ে যায়।

পরে প্যাকেটটি উদ্ধার করে প্যাকেটের মধ্যে থাকা ১২পিছ স্বর্ণের বার পাওয়া যায়। যার ওজন কেজি ৪’শ গ্রাম এবং মূল্য ৫৮ লক্ষ ৮০ হাজার টাকা বলে তিনি জানান।

আমারসিলেট টুয়েন্টিফোর ডটকম,১৮এপ্রিল,বেনাপোল প্রতিনিধি : বেনাপোলের পুটখালী সীমান্ত থেকে ৯পিচ স্বর্ণের বার উদ্ধার করেছে বর্ডার গার্ড বাংলাদেশ (বিজিবি) সদস্যরা। মঙ্গলবার বেলা ১১টার সময় বেনাপোল পোর্ট থানাধীন পুটখালী গ্রামস্থ খলসী বাজারের দক্ষিণ পার্শ্বে বটতলা নামক স্থান হতে এ স্বর্ণের চালান উদ্ধার করেন।

বর্ডার গার্ড বাংলাদেশ (বিজিবি)’র খুলনা-২১ ব্যাটালিয়নের অধিনায়ক তারিকুল হাকিম জানান, সুনির্দিষ্ট গোপন সংবাদের ভিত্তিতে মঙ্গলবার সকালে পুটখালী ক্যাম্পের বিজিবি’র একটি টহল দল যশোর জেলার বেনাপোল পোর্ট থানাধীন পুটখালী গ্রামস্থ খলসী বাজারের দক্ষিণ পার্শ্বে বটতলা নামক স্থান হতে ০৯ পিচ স্বর্ণের বার (ওজন আনুমানিক ০১ কেজি) উদ্ধার করতে সক্ষম হয়। আটককৃত স্বর্ণের আনুমানিক সিজার মূল্য ৪২ লক্ষ টাকা।

আমারসিলেট টুয়েন্টিফোর ডটকম,২৭মার্চ,এম ওসমান, বেনাপোল প্র‌তি‌নি‌ধি : ভারতে পাচারের সময় বেনাপোল সীমান্ত থে‌কে ৩২ পিস (তিন কেজি ৪শ” গ্রাম) স্বর্ণের বারসহ মিঠু তরফদার নামে ভারতীয় এক নাগরিককে আটক করেছে বর্ডার গার্ড বাংলাদেশ (বিজিবি) সদস্যরা।

মঙ্গলবার সকালে বেনাপোল সীমান্তবর্তী গ্রাম শিকারপুর মাঠ থেকে তাকে আটক করা হয়।আটক মিঠু ভারতের উত্তর ২৪ পরগুনা জেলার মোস্তফাপুর গ্রামের হযরত আলীর ছেলে।
বি‌জি‌বি জানায়, গোপন সংবা‌দের ভি‌ত্তি‌তে জানা যায়, বেনাপোল সীমান্তপথে স্বর্ণের একটি চালান ভারতে পাচার হচ্ছে। এমন সময় বিজিবি সদস্যরা সেখা‌নে অভিযান চালিয়ে এক পাচারকারীকে আটক করে।
পরে তার শরীর তল্লাশি করে বি‌শেষ কায়দায় কোমরের গামছায় মোড়ানো ৩২ পিস স্বর্ণের বার উদ্ধার করা হয়।
৪৯ বিজিবি ব্যাটালিয়নের ভারপ্রাপ্ত অধিনায়ক মেজর নজরুল জানান, উদ্ধারকৃত স্বর্ণের বারসহ পাচারকারীকে বেনাপোল পোর্ট থানায় সোপর্দের প্রক্রিয়া চলছে।

আমারসিলেট টুয়েন্টিফোর ডটকম,০২মার্চ,বেনাপোল প্রতিনিধি: ভারতে পাচারের সময় বেনাপোল সীমান্তের পুটখালী থেকে ১০ পিস স্বর্ণের বারসহ মনিরুল ইসলাম (২৫) নামে এক পাচারকারীকে আটক করেছে বর্ডার গার্ড বাংলাদেশের (বিজিবি) সদস্যরা।

শুক্রবার বিকাল সাড়ে ৪টার সময় তাকে আটক করা হয়। আটক মনিরুল ইসলাম বেনাপোলের পুটখালী গ্রামের সাবুর আলীর ছেলে।
বিজিবি জানায়, বিপুল পরিমান স্বর্ণের বার পুটখালী সীমান্ত দিয়ে ভারতে পাচার হচ্ছে এমন সংবাদের ভিত্তিতে বিজিবি’র একটি টহল দল পুটখালী সীমান্তে অভিযান চালিয়ে মনিরুলকে আটক করে। পরে তার দেহ তল্লাশী করে ১০ পিস স্বর্ণের বার পাওয়া যায়।

যার ওজন ১ কেজি ৩৪০ গ্রাম ও বাজারমূল্য প্রায় ৫০ লাখ টাকা বলে বিজিবি জানায়।

বর্ডার গার্ড বাংলাদেশের (বিজিবি)’র খুলনা-২১ ব্যাটালিয়নের কমান্ডিং অফিসার (সিও) লে. কর্নেল তারিকুল হাকিম আটকের বিষয়টি নিশ্চিত করে বলেন, ওই ব্যক্তির বিরুদ্ধে স্বর্ণ পাচার আইনে মামলা দিয়ে বেনাপোল পোর্টথানায় পাঠানো হয়েছে।

আমারসিলেট টুয়েন্টিফোর ডটকম,২৯নভেম্বর,বেনাপোল  প্রতিনিধি:যশোরের বেনাপোল ইমিগ্রেশন চেকপোস্ট এলাকা থেকে ভারতে পাচারের সময় ১০ পিস স্বর্ণের বারসহ ২ পাসপোর্ট যাত্রীকে আটক করেছে কাস্টমস শুল্ক গোয়েন্দা সদস্যরা। বুধবার সকাল সাড়ে ১১ টার দিকে ভারতে স্বর্ণ পাচার কালে তাদের আটক করা হয়।
আটক স্বর্ণ পাচারকারীরা হলেন- গোপালগঞ্জের ঘোষেরচর এলাকার জাহাঙ্গীর খানের ছেলে মহাসিন খান (৩৬) ও শরিয়তপুরের জাজিরা উপজেলার ইব্রাহীম মাদবরের ছেলে ইলিয়াস আহম্মেদ (৪১)।
বেনাপোল কাস্টমস শুল্ক গোয়েন্দা ও তদন্ত অফিসের উপ-পরিচালক মোহাম্মদ আব্দুস সাদেক বলেন, আটক ২ যুবককে বেনাপোল ইমিগ্রেশন চেকপোস্ট থেকে বের হয়ে ভারতে প্রবেশ করার আগে ২ যুবকের চলাফেরা সন্দেহ হলে তাদেরকে আটক করা হয়। পরে তাদের দেহ তল্লাশী করে ১ কেজি ওজনের ১০ পিচ স্বর্ণের বার ২ জনের কাছ থেকে উদ্ধার হয়। তাদের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করে বেনাপোল পোর্ট থানায় সোপর্দ করা হয়েছে।

আমারসিলেট টুয়েন্টিফোর ডটকম,০৬অক্টোবর,বেনাপোল প্র‌তি‌নি‌ধিঃ   এক‌দি‌নের ব্যবধা‌নে আবারও ভারতে পাচারের সময় বেনাপোল চেকপোস্ট কাস্টমস থেকে ৭ পিস স্বর্ণের বারসহ ২ পাসপোর্ট যাত্রীকে আটক ক‌রে‌ছে বেনা‌পোল চেকপোস্ট কাস্টমস শুল্ক গোয়েন্দা সদস্যরা। শুক্রবার সকালে বেনাপোল চেক‌পোস্ট কাস্টমস থে‌কে তা‌দের আটক করা হয়।
আটককৃতরা হলেন- কুমিল্লা জেলার চান্দিনা উপজেলার চান্দিয়ারা গ্রামের হাজী আব্দুল মান্নানের ছেলে মাহাবুব আলম (৩৫) ও মুন্সিগঞ্জ সদরের বানিয়া আশুলিরচর গ্রামের আব্দুল মান্নানের ছেলে মিজানুর রহমান (৪২)।
বেনাপোল কাস্টমস শুল্ক গোয়েন্দা ও তদন্ত অফিসের ডেপুটি কমিশনার মোহাম্মদ সাদিক জানান, আটককৃতরা বেনাপোল চেকপোস্ট কাস্টমস থেকে বা‌হির হ‌য়ে ভার‌তে প্র‌বে‌শের সময় তা‌দের চলাচল স‌ন্দেহজনক হওয়ায় তাদের আটক করা হয়। পরে তাদের দেহ তল্লাশী ক‌রে একজনের জুতার ভেতর ও অন্যজনের কোটের পকেট থেকে মোট ৭ পিস স্বর্ণের বার উদ্ধার করা হয়। আটক স্ব‌র্ণের বা‌রের মূল্য আনুমা‌নিক ৫০ লাখ টাকা।

জিজ্ঞাসাবাদ ও আইনি প্রক্রিয়া শেষে তাদের বেনাপোল পোর্ট থানায় সোপর্দ করা হয়েছে বলেও জানান তি‌নি।

আমার সিলেট টুয়েন্টিফোর ডটকম,২৬জুলাই,বেনাপোল প্রতিনিধিঃ ভারতে পাচারের সময় বেনাপোলে ৪শ’ গ্রাম ওজনের ৪পিচ স্বর্ণেরবারসহ ২ বাংলাদেশী পাসপোর্ট যাত্রীকে আটক করেছে কাস্টমস শুল্ক গোয়েন্দার কর্মকর্তারা। বুধবার (২৬ জুলাই) সকাল সাড়ে ৮ টার সময় বেনাপোল কাস্টমস শুল্ক গোয়েন্দা সদস্যরা তাদেরকে আটক করে।

আটককৃতরা নারায়ণগঞ্জ জেলার চরশাহারা এলাকার আব্দুল গফুর তালুকদারের ছেলে হারুন-অল কবির (৪১) ও মুন্সিগঞ্জ জেলার গজারিয়া থানার মুলি-কাচর গ্রামের মৃত সফিকুল ইসলামের ছেলে আরিফুল ইসলাম (৩১)। তাদের পাসপোর্ট নাম্বার বিপি ০৩৩৭০৩৫, বিএফ ০৮০৪২৯৭।
বেনাপোল কাস্টমস শুল্ক গোয়েন্দার সহকারী রাজস্ব কর্মকর্তা আব্দুল মোতালিব জানান, গোপন সংবাদের ভিত্তিতে জানতে পারি হারুন-অল-কবির ও আরিফুল ইসলাম নামে দুইজন পাসপোর্ট যাত্রী পৃথক দুটি সোনার চালান নিয়ে ভারতে যাবে। এই তথ্যের ভিত্তিতে শুল্ক গোয়েন্দার একটি দল আগে থেকে চেকপোস্ট নো-ম্যান্সল্যান্ডে অবস্থান করে।

এরপর ওই যাত্রীরা বেনাপোল কাস্টমস-চেকপোস্ট পার হয়ে ভারতে যাওয়ার জন্য পাসপোর্টের কার্যাক্রম শেষ করে পুলিশ চেকপোস্ট পার হয়ে ভারতে প্রবেশের সময় তাদেরকে আটক করা হয়।

পরে তাদের শরীর তল্লাশী করে দুটি করে মোট চারটি সোনার বার পাওয়া যায়। উদ্ধারকৃত সোনারবার বেনাপোল কাস্টমসে জমা দিয়ে আসামি দু’জনকে বেনাপোল পোর্ট থানায় সোপর্দ করা হয়েছে।

আমার সিলেট টুয়েন্টিফোর ডটকম,১৪জুলাই,এম ওসমান, বেনাপোল : বেনাপোল চেকপোষ্ট দিয়ে ভারতে পাচারকালে আবারও ৫টি স্বর্ণের বারসহ জালাল আহম্মেদ সেলিম (৪৪) নামে এক পাসপোর্ট যাত্রীকে আটক করেছে কাষ্টমস শুল্ক গোয়েন্দারা। শুক্রবার বেলা সাড়ে ১১টায় কাস্টমস অফিসের সামনে থেকে শুল্ক গোয়েন্দারা গোপণ সংবাদের ভিত্তিতে তাকে আটক করে।
আটককৃত স্বর্ণপাচারকারী পাসপোর্ট যাত্রী জালাল আহম্মেদ সেলিম শরিয়তপুর জেলার নড়িয়া উপজেলার সেতু মাতবর কান্দি গ্রামের ইয়াকুব আলী মুন্সির ছেলে। তার পাসপোর্ট নং-এ এফ- ৭৫৯১৩০৬। আটককৃত স্বর্ণের মূল্য প্রায় ২২ লাখ টাকা।
বেনাপোল কাষ্টমসের শুল্ক গোয়েন্দার উপ-পরিচালক আব্দুস সাদিক জানান, গোপন সংবাদের ভিত্তিতে জানতে পারি শুক্রবার সকালে বেনাপোল কাষ্টমস চেকপোষ্ট দিয়ে একটি স্বর্ণের চালান ভারতে পাচার হবে। সকাল থেকে শুল্ক গোয়েন্দার কয়েকজন সিপাহী ইমিগ্রেশন ও নো-ম্যান্সল্যান্ডে গোপণে কাজ করে আসছে। এসময় কাস্টমস অফিসের সামনে ভারতে যাওয়া জন্য লাইনে দাড়িয়ে থাকা সেলিমকে সন্দেহ হয়। পরে সন্দেহভাজন সেলিমকে সিপাহী মো: ইমাম হোসেন আটক করে কাস্টমস শুল্ক গোয়েন্দা অফিসে নিয়ে আসে। শুল্ক গোয়েন্দা ইন্সপেক্টর মোতালেব হোসেনসহ উপস্থিত সাংবাদিকদের সামনে তার শরীরে তল্লাশী চালায়। তল্লাশী করে তার ডান উরুতে বিশেষভাবে বাধা অবস্থায় ৫টি স্বর্ণের বার উদ্ধার করা হয়। উদ্ধারকৃত স্বর্ণের ওজন ৫’শ ৮০’গ্রাম। আটক স্বর্ণ পাচারকারীকে বেনাপোল পোর্ট থানায় সোপর্দ এবং স্বর্ণের বার গুলি কাস্টম হাউসে জমা দেওয়া হয়েছে।
আটককৃত জালাল আহম্মেদ সেলিম জানান, ঢাকার জিল্লুর রহমান নামে এক স্বর্ণ ব্যবসায়ী ৫ হাজার টাকার বিনিময়ে এই স্বর্ণের বারগুলি কোলকাতায় পৌঁছে দেওয়ার জন্য চুক্তিবদ্ধ হয়। জিল্লুর রহমান দীর্ঘদিন যাবত স্বর্ণের ব্যবসা করে আসছে।
উল্লেখ্য, গত এক সপ্তাহের ব্যবধানে বেনাপোল সীমান্ত থেকে বাংলাদেশী পাসপোর্টযাত্রীর নিকট থেকে ৩২ পিস স্বর্ণের বার উদ্ধার করা হয়। তার মধ্যে বাংলাদেশী পাসপোর্ট যাত্রীর নিকট থেকে ভারতের কাষ্টমস ২০ পিস স্বর্ণের বার উদ্ধার করে।

  

এডিটর: আনিছুল ইসলাম আশরাফী, এনিমেটরস্ বাংলা মিডিয়া গ্রুপ কর্তৃক প্রকাশিত
সম্পাদকীয় কার্যালয়: কলেজ রোড, শ্রীমঙ্গল, মৌলভীবাজার।
Email: news.amarsylhet24@gmail.com Mobile: 01772 968 710

Developed By : i-Tech Sreemangal
Email : itech.official@hotmail.com
Facebook : http://facebook.com/itech.ctc