Wednesday 28th of October 2020 09:08:21 AM

নড়াইল প্রতিনিধিঃ  মাগুরার মহম্মদপুর উপজেলার কেডিনগর গ্রামের আকলিমা খাতুন আখি অগ্নিদগ্ধ হয়ে নিহতের ঘটনা দায়েরকৃত মামলার আসামীদের গ্রেফতার ও শাস্তির দাবিতে নড়াইলে মানববন্ধন অনুষ্ঠিত হয়েছে।
সোমবার কমলাপুর পল্লী সমাজের আয়োজনে এ মানববন্ধন অনুষ্টিত হয়।
আধাঘন্টাব্যাপী মানববন্ধন চলাকালে অগ্নিদগ্ধ হয়ে আখির মৃত্যুর জন্য দায়ীদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবি জানিয়ে বক্তব্য দেন ব্র্যাকের সামাজিক ক্ষমতায়ন কর্মসূচির ফিল্ড অফিসার মোঃ বকুল আলী, কমলাপুর পল্লী সমাজের সভা প্রধান পুতুল রানী, সাধারণ সম্পাদক উন্নতি রানী, কোষাধ্যক্ষ তিথি রায়সহ অনেকে।

নড়াইল প্রতিনিধি: নড়াইল-২ (নড়াইল সদর ও লোহাগড়া) আসনে ক্রিকেট তারকা মাশরাফী বিন মুর্তজার পক্ষে নির্বাচনী প্রচারণা করতে নড়াইলের নাগরিক সমাজের মত বিনিময় সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে। শুক্রবার (৭ ডিসেম্বর) বিকেলে জেলা পরিষদ মিলনায়তনে ‘নড়াইল সচেতন নাগরিক সমাজ’-এর আয়োজনে এ মত বিনিময় সভা অনুষ্ঠিত হয়।
এ মত বিনিময় সভায় নড়াইল সচেতন নাগরিক সমাজ-এর আহবায়ক ও জেলা মুক্তিযোদ্ধা সংসদের ডেপুটি কমান্ডার অ্যাডঃ এস.এ মতিনের সভাপতিত্বে বক্তব্য রাখেন, জেলা আইনজীবী সমিতির সভাপতি গোলাম নবী, নড়াইল সচেতন নাগরিক সমাজ-এর কর্মকর্তা রেজাউল আলম, কাজী হাফিজুর রহমান, শিক্ষক আসাদুজ্জামান, অধ্যক্ষ বদরুল ইসলাম, অ্যাডঃ মাহবুবুর রহমান রাবু, অধ্যক্ষ ফয়সাল খান, নারী নেত্রী আঞ্জুমান আরা, রওশন আরা কবির লিলিসহ অনেকে।
সভায় বক্তারা বলেন, জেলার উন্নয়নের স্বার্থে সকলকে ঐক্যবদ্ধ করে মাশরাফি’র জন্য কাজ করতে হবে এবং তাকে বিপুল ভোটে বিজয়ী করতে হবে এ জন্য ‘ নড়াইল সচেতন নাগরিক সমাজ’এর ব্যানারে ডোর টু ডোর সকল শ্রেণিপেশার মানুষের নিকট দেশের শ্রেষ্ঠ সম্পদ নড়াইল এক্সপ্রেস মাশরাফির জন্য ভোট ক্যাম্পেইনে নামতে হবে।
সভায় সংসদীয় আসনের নড়াইল ও লোহাগড়া পৌরসভার প্রত্যেকটি ওয়ার্ড এবং প্রতিটি ইউনিয়নে ( ২০টি ইউনিয়ন) নির্বাচনী কমিটি গঠনের সিদ্ধান্ত হয়।
সভাশেষে সুশীল সমাজের প্রতিনিধিদের নিয়ে একটি কমিটি গঠন করা হয়, কমিটিতে জেলা মুক্তিযোদ্ধা সংসদের সাবেক ডেপুটি কমান্ডার অ্যাডঃ এসএ মতিনকে আহবায়ক, ফকির ওয়াহিদুজ্জামান ঠান্ডু, অ্যাডঃ শরীফ মাহাবুবুল করীম, কাজী হাফিজুর রহমান ও রেজাউল আলমকে যুগ্ম আহবায়ক করা হয়েছে। এছাড়া নড়াইল ও লোহাগড়া উপজেলা পর্যায়ের সামাজিক ও সাংস্কৃতিক সংগঠনের প্রতিনিধিরা এই কমিটির সদস্য হিসেবে থাকছেন।

সভায় জেলা আইনজীবী সমিতি, বিভিন্ন সাংস্কৃতিক সংগঠন ও ক্রীড়া সংগঠন, প্রাথমিক ও মাধ্যমিক শিক্ষক সমিতি, এনজিও প্রতিনিধি, অবসরপ্রাপ্ত সরকারি কর্মকর্তা-কর্মচারি কল্যান সমিতি, ইজিবাইক-ইজিভ্যান সমিতি, ইমারত নির্মাণ শ্রমিক, কবি-সাহ্যিতিক সমিতি, বনিক সমিতি, মহিলা সমিতি, নারী সংগঠন ও তরুণ সমাজের প্রতিনিধিবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।

আমারসিলেট টুয়েন্টিফোর ডটকম,২৩নভেম্বরঃ    যুব সমাজ হচ্ছে দেশ ও জাতির অন্যতম প্রধান চালিকা শক্তি । এই শক্তির সঠিক ব্যবহারে দেশ উন্নত হয়, জাতিসত্ত্বার বিকাশ ঘটে, সমাজ জীবনের সকল জটিলতার অবসান হয় । সামাজিক পরিবর্তন সাধনে সম্ভবপর হয়ে ওঠে । তাই দেখা যায় বিভিন্ন সময়ে বিভিন্ন দেশে যে বৈপ্লবিক পরিবর্তন সাধিত হয়েছে তার পেছনে এই যুব সমাজেই মোক্ষম ভূমিকা পালন করছে । জাতীয় অগ্রগতি তথা সার্বিক উন্নয়নে যুব সমাজেই ব্যাপক ভূমিকা পালন করছে। সর্বোচ্চ ডিগ্রীধারীদের থেকে শুরু করে অক্ষর জ্ঞানহীন হাজার হাজার লোক বেকারত্বের অসহনীয় দুর্দশায় দিনাতিপাত করছে । ফলে একটি শূন্যপদে একজন নিয়োগের জন্যে আবেদন পত্র চাওয়া হলে হাজার খানেক আবেদন পত্র জমা হতে দেখা যায়। আবার এই বেকারত্ব এক ধরণের হতাশার জন্ম দেয়। মাদকাশক্তি, ব্যাভিচার, জুয়া, চুরি, ডাকাতি ইত্যাদির জন্মও বেকারত্ব থেকে। তাছাড়া বিপথে গমন বা অপরাধমূলক সংগঠনে জড়িয়ে পড়া এবং কুরআন ও হাদিসের সঠিক জ্ঞান না থাকা।
ব্যাভিচার হচ্ছে ধর্মীয়, সামাজিক ও আদর্শিক সকল মাপকাঠিতেই একটি জঘন্য অপরাধ। বহুকাল থেকেই সব ধর্ম ও দেশেই এটি অন্যায় বলেই বিবেচিত হয়ে আসছে। ইসলাম এ অপরাধকে সর্বাধিক ঘৃণিত বিবেচনা করে।
জুয়ায় অভ্যস্ত ব্যাক্তি ক্রমান্বয়ে উপার্জনের ব্যাপারে অলস, উদাসীন ও নিস্পৃহ হয়ে যায়। তার একমাত্র চিন্তা থাকে বসে বসে অসৎ উপায় অবলম্বন করে অন্যের মাল হাতিয়ে নেওয়া যাতে কোনো ধরণের পরিশ্রমের প্রয়োজন না হয়। এভাবে দিনে দিনে তারা অলস হয়ে পড়ে ফলে তারা দেশ ও জাতির উন্নয়নে কোনো অবদান রাখতে পারে না। জুয়া খেলার বহু ক্ষতির দিক রয়েছে জুয়াও মদের মতো পরস্পরের মধ্যে বিশৃংঙ্খলা ও বিদ্বেষ সৃষ্টি করে । কেননা খেলায় পরাজিত ব্যাক্তি স্বাভাবিকভাবেই জয়ী ব্যাক্তি প্রতি হিংসা ও বিদ্বেষ পোষণ করে এবং শত্রু হয়ে দাঁড়ায়। খেলায় জয়-পরাজয়ের এক পর্যায়ে মারামারি এমনকি হত্যাকান্ড পর্যন্ত সংঘঠিত হতে দেখা যায়।
এখানে উল্লেখ করা যেতে পারে, যে হাজার হাজার লোক বেকার । তার একটা বড় অংশ হচ্ছে যুব সমাজ । মাদকাসক্ত বা বিপদগামীর মধ্যেও সংখ্যাগরিষ্ঠ হচ্ছে এই যুব সমাজ । দেশ ও জাতির অন্যতম প্রধান চালিকা শক্তি যে যুব সমাজ, তাদের দৈন্যদশা সত্যি বেদনাদায়ক।
এখন আসা যাক স্বেচ্ছাকর্মী সংস্থানের বিষয়ে এটা প্রমাণিত সত্য যে, কাজ থাকলে গতি থাকে । যেখানে হতাশার কোন অবকাশ থাকে না। আমার মতে মোটেও আত্মসমর্পণ করা যাবে না । আত্মসমর্পণ মানেই তো হেরে যাওয়া। জীবন থেকে নির্বাসিত হওয়া আত্মসমর্পণ না করে যা করা যায় তা হচ্ছে আল্লাহর ওপর ভরসা করে নিজের উদ্যেগে কর্মসংস্থান করা ,যাকে এক কথায় বলা যায় – আত্মকর্মসংস্থান। এভাবে নিজেদের কর্মের ব্যবস্থা করে হতাশকে পরাস্ত করা সম্ভব; অন্যদিকে তেমনি নিজেদের শ্রম ও সেবা দিয়ে দেশ ও জাতিকে উন্নত করা সম্ভব । আল্লাহর উপর ভরসা করে ধৈর্য্যের সহিত রিজিকের মালিক আল্লাহ সুবহানাহু তায়ালার সাহায্য চাইতে হবে। সব সময় তিনটি বিষয়ের আমল করতে হবে যা ১. হারাম ও নাজায়েজ বিষয়বস্তুগুলো থেকে নিজেকে বিরত রাখতে হবে। ২. আল্লাহর ইবাদত ও আনুগত্যে নিজেকে বাধ্য করা এবং ৩. যে কোনো বিপদে-আপদে ধৈর্য্যধারণ করা। যারা ধৈর্য্য ধারণ করে, আল্লাহ সুবহানাহু তায়ালা তাদেরকে সাহায্য করেন। আল কুরআনুল কারিমে আল্লাহু সুবহানাহু তায়ালা বলেন – “হে মুমিনগণ, তোমরা ধের্য্য ও সালাতের মাধ্যমে ( আল্লাহর নিকট) সাহায্য প্রার্থণা করো। নিশ্চয় আল্লাহ ধের্য্যশীলদের সাথে আছেন।” ( সুরাতুল বাকারা, ০২:১৫৩) মানুষের জীবনে কখনো সুখ আসে আবার কখনো দুঃখ আসে। প্রতিকূল সকল অবস্থায় তাকে সবর করতে হবে। আজকের যুবকেরা সৎ ও যোগ্য হয়ে আগামীর সুখী ও সমৃদ্ধি বাংলাদেশ গড়বে এই প্রত্যাশা আজকের সমাজের। লেখকঃসাংবাদিক ও কলামিষ্ট,আবদুল বাছেত (মিলন)

আমার সিলেট টুয়েন্টি ফোর ডটকম,০১জুন,ডেস্ক নিউজঃ আজ শিশুদের ঘোষিত বিশ্ব-শান্তি দিবসের ৩১ তম বার্ষিকী। ৩১ বছর আগের এই দিনে বিশ্বের বহু দেশের প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিশুরা পয়লা জুনকে শান্তির দিবস হিসেবে পালনের আহ্বান জানিয়েছিল।

তাদের বাণীতে বলা হয়েছিল: ‘আমাদের বয়স্ক নাগরিকরা নির্দিষ্ট নানা বিশ্বাস বা মতবাদের বিশ্বাসী। তারা আমাদের পছন্দ করেন, কারণ আমরা তাদেরই সন্তান। কিন্তু তারা কি জানেন কোন্ এক বিশ্ব তারা আমাদের জন্য গড়ে তুলেছেন? তাদের পরমাণু স্থাপনাগুলোতে সামান্যতম ভুল হলেও আমাদের তথা শিশুদের বড় হওয়ার কোনো সম্ভাবনা আর থাকবে না। আমরা বড় হওয়ার ও উন্নয়নের নানা মাধ্যম ও উপকরণ চাই।’

সেই থেকে প্রতি বছর জুন মাসের প্রথম দিনটিকে পালন করা হচ্ছে বিশ্ব শিশু দিবস হিসেবে। এ উপলক্ষে বিশ্বে নানা বিশেষ অনুষ্ঠানও পালন করা হয়।

শিশুদের নানা স্বপ্ন-সাধ, আশা-আকাঙ্ক্ষা ও দাবি-দাওয়া পূরণ এবং তাদের সমস্যাগুলো সমাধানের জন্য নানা মহল ও আন্তর্জাতিক সংস্থার প্রচেষ্টা সত্ত্বেও প্রতি বছর বিশ্বে ৬০ লাখেরও বেশি শিশু প্রাণ হারাচ্ছে পুষ্টিহীনতার কারণে। এ ছাড়াও বিশ্বের বহু দেশে ২৫ কোটি শিশু বাধ্যতামূলক শ্রমের শিকার হচ্ছে।

বিশ্বের বহু অঞ্চল বিশেষ করে  ইয়েমেন, ফিলিস্তিন, গাজা, সিরিয়া, ইরাক ও মিয়ানমারের  রোহিঙ্গা মুসলিম শিশুদের ওপর নির্যাতনে জড়িত  সৌদি, ইসরাইলি, দায়েশ বা আইএসাাইএল ও মিয়ানমারের সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের বিরুদ্ধে জোরালো কোনো ব্যবস্থা নিতে বা নিন্দা জানাতেও ব্যর্থ  বিশ্ব-সমাজ নিষ্পাপ শিশুদের কাছে চিরকালই লজ্জিত হয়ে থাকবে।পার্সটুডে

আমার সিলেট টুয়েন্টিফোর ডটকম,১৯মার্চ,এম এস জিলানী আনজী,চুনারুঘাটঃ হবিগঞ্জের চুনারুঘাট উপজেলার আহম্মদাবাদ ইউনিয়নস্থ নালুয়া চা বাগানের পূর্ব টিলায় বাংলাদেশর ভূমিজ সমাজের তিনদিন ব্যাপী ৯ম সম্মেলন (রংসভা) দ্বিতীয় দিন ছিল গতকাল, এ উপলক্ষে ১৮ মার্চ বুধবার বেলা ২টায় এক আলোচনা সভা অনুষ্টিত হয়। সভায় সভাপতিত্ব করেন, বাংলাদেশ ভূমিজ সমাজের সভাপতি শ্রী করুন সিং ভূমিজ।

আমুরোড হাইস্কুল এন্ড কলেজের শিক্ষক রামেশর ভূমিজ এর পরিচালনায় সভায় প্রধান অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন, চুনারুঘাট-মাধবপুর নির্বাচনী এলাকার সংসদ সদস্য এডভোকেট মাহবুব আলী, বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন চুনারুঘাট উপজেলা সেচ্ছাসেবকলীগের সাধারন সম্পাদক ও আহম্মদাবাদ ইউপি চেয়ারম্যান আলহাজ্ব আবেদ হাসনাত চৌধুরী সনজু, প্রক্তন চেয়ারম্যান আওয়ামীলীগ নেতা আলহাজ্ব আব্দুল লতিফ, ইউনিয়ন আওয়ামীলীগ সভাপতি অধ্যক্ষ আলাউদ্দিন, সাবেক উপজেলা মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডার আলহাজ্ব আব্দুর রহমান আজাদ, চুনারুঘাট পৌর আওয়ামীলীগ সভাপতি আবু তাহের মহালদার, উপজেলা কৃষকলীগ সেক্রেটারী মুজিবুর রহমান, মিজানুর রহমান বাবুল, জাকির হোসেন পলাশ,নালুয়া চা বাগানের বড় বাবু আলহাজ্ব আবুল বাশার তালুকদার, ইউনিয়ন আওয়ামীলীগ সহ-সভাপতি নব কুমার সিংহ, সাংগঠনিক সম্পাদক মিজানুর রহমান মিজান, স্থানীয় ইউপি সদস্য নটবর রুদ্রপাল, আলহাজ্ব আ: রউফ, শফিকুর রহমান সাফু, মাখন গোস্বামী, শামসুল আলম ফুল মিয়া, উপজেলা সেচ্ছা সেবকলীগের যুগ্ন-সাধারন সম্পাদক আব্দুল্লাহ আল মামুন, সাবেক ছাত্রলীগ নেতা আব্দুল হাই প্রিন্স, ছাত্রলীগ সাধারন সম্পাদক ওয়াহিদুল ইসলাম ওয়াহিদ, চন্দ্র-মল্লিকা স্কুলের প্রতিষ্ঠাতা উসমান গণি কাজল। ।

নালুয়া চা বাগানের উপদেষ্টা মন্ডলী নিমাই ভূমিজ, মহিপাল ভূমিজ, বিপিন ভূমিজ, জিতেন্দ্র ভূমিজ, স্বর্ণ ভূমিজ, রতিশিং ভূমিজ, সনকা ভূমিজ, পুষ্প ভূমিজ ও মেনকা ভূমিজ। নালুয়া চা বাগানের ভূমি সমাজের  সভাপতি চুনু ভূমিজ, সহ-সভাপতি পরেশ ভূমিজ, মাখন ভূমিজ, সজল ভূমিজ, সাধারণ সম্পাদক রামেশ্বর ভূমিজ, সহ সাধারণ সম্পাদক কমল ভূমিজ, সবুজ ভূমিজ, কোষাধ্যক্ষ বাসুদেব ভূমিজ, সহ-কোষাধ্যক্ষ জগদিশ ভূমিজ, মিঠুন ভূমিজ,, প্রচার সম্পাদক জয়দেব ভূমিজ, সহ-প্রচার সম্পাদক সুকুমার ভূমিজ। নির্বাহী সদস্য প্রসন্ন ভূমিজ, সয়ন ভূমিজ, দ্বৈতু ভূমিজ, কালিদাস ভূমিজ, রবিন ভূমিজ, জিৎ ভূমিজ, লিটন ভূমিজ, শুভজিৎ ভূমিজ, জয়ন ভূমিজ, রাসেল ভূমিজ, উত্তম ভূমিজ, উপেশ ভূমিজ,, নয়ন ভূমিজ, সঞ্জয় ভূমিজ, সুপ্ত ভূমিজ, শীকান্ত ভূমিজ, গোপাল ভূমিজ, রবেন ভূমিজ, সমাকান্ত ভূমিজ, সঞ্জু ভূমিজ, সহ সারা বাংলাদেশের প্রায় ১৪ হাজার প্রতিনিধি উপস্থি ছিলন।

সভায়, ভূমিজ সমাজের বক্তারা ভূমিজ সমাজকে আদিবাসী কৌটার সুবিধা দানের জন্য সংসদ সদস্য এডঃ মাহবুব আলীর মাধ্যমে প্রধান অনুরোধ জানান। এবং ইউপি চেয়ারম্যান সনজু চৌধুরী পূর্বটিলা (নালুয়া) থেকে গনকির পাড় পর্যন্ত কাঁচা রাস্তাকে পাকা করনের দাবীও জানান সংসদ সদস্যের কাছে। সংসদ সদস্য এডঃ মাহবুব আলী বলেন, চা-শ্রমিকদের অধিকার আদায়ের জন্য তিনি সামনে থেকে নেতৃত্ব দেবেন। তিনি চা-শ্রমিকদের নেতা হতে পেরে নিজেকে গর্বিত মনে করেন। চা-শ্রমিকদের বঙ্গবন্ধু সম্মান দিয়েছিলেন।

প্রধান মন্ত্রীও চা-শ্রমিকদের  ব্যাপারে আন্তরিক। তিনি গনকিরপাড় থেকে পূর্বটিলা পর্যন্ত কাঁচা রাস্তাটি পাকা করবেন বলেও ঘোষণা দেন। উল্লেখ্য, প্রতি বছরই ভূমিজ সমাজ বাৎসরিক সম্মেলন (রংসভা) তাদের সামাজিক ব্যবস্থার ভাল-মন্দ নিয়ে আলোচনা ও বিভিন্ন বিনোদন মূলক অনুষ্ঠান করে থাকেন।

  

এডিটর: আনিছুল ইসলাম আশরাফী, এনিমেটরস্ বাংলা মিডিয়া গ্রুপ কর্তৃক প্রকাশিত
সম্পাদকীয় কার্যালয়: কলেজ রোড, শ্রীমঙ্গল, মৌলভীবাজার।
Email: news.amarsylhet24@gmail.com Mobile: 01772 968 710

Developed By : i-Tech Sreemangal
Email : itech.official@hotmail.com
Facebook : http://facebook.com/itech.ctc