Saturday 31st of October 2020 01:32:45 PM

বাংলাদেশ প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয়ের (বুয়েট) শিক্ষার্থী আবরার ফাহাদ হত্যার সঙ্গে জড়িত থাকার কথা স্বীকার করেছে আটক ছাত্রলীগ নেতারা। এ ঘটনায় ১৪ জন জড়িত ছিল বলে জানিয়েছেন ডিএমপির অতিরিক্ত কমিশনার কৃষ্ণপদ রায়।

বুয়েটের তড়িৎ ও ইলেকট্রনিক প্রকৌশল বিভাগের দ্বিতীয় বর্ষের (১৭তম ব্যাচ) ছাত্র ফাহাদ শেরে বাংলা হলের আবাসিক ছাত্র ছিলেন। বাংলাদেশ ও ভারতের মধ্যে সাম্প্রতিক কিছু চুক্তির সমালোচনা করে ফেসবুকে স্ট্যাটাস দেয়ার জেরে রোববার রাতে ফাহাদকে ডেকে নিয়ে অন্য একটি কক্ষে পিটিয়ে হত্যা করে বুয়েট ছাত্রলীগের কয়েকজন নেতা।

এ ঘটনায় সোমবার (৭ অক্টোবর) রাতে আবরারের বাবা বরকত উল্লাহ বাদী হয়ে ১৯ জনের নামে চকবাজার থানায় মামলা দায়ের করেন। মামলার প্রধান আসামি করা হয়েছে বুয়েট শাখা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক মেহেদী হাসান রাসেল এবং দ্বিতীয় আসামি করা হয়েছে বিশ্ববিদ্যালয় শাখা ছাত্রলীগের সহ-সভাপতি মুহতাসিম ফুয়াদকে।

পুলিশের গোয়েন্দা শাখার একজন উর্দতন কর্মকর্তা গণমাধ্যমকে জানিয়েছেন, আটক ছাত্রলীগ নেতারা প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে তাদের জড়িত থাকার কথা স্বীকার করেছে। এর আগে পুলিশ জানিয়েছে, ফাহাদকে পিটিয়ে হত্যার প্রমাণ পাওয়া গেছে। হলের ভিডিও ফুটেজ থেকে চিহ্নিতদের দশজনকে গতকালই আটক করা হয়েছে। মামলা তদন্তের দায়িত্ব দেয়া হয়েছে পুলিশের গোয়েন্দা শাখাকে।

এদিকে, আজ দুপুরে গ্রেফতারকৃত ১০ জন ছাত্রলীগের নেতাকে ঢাকা মহানগর হাকিম আদালতে হাজির করে পুলিশ। এ সময় মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা সুষ্ঠু তদন্তের জন্য ১০ দিনের রিমান্ড আবেদন করেন। শুনানি শেষে ঢাকা মহানগর হাকিম সাদবীর ইয়াসির আহসান চৌধুরী প্রত্যেককে ৫ দিন করে পুলিশ রিমান্ড মঞ্জুর করেন।

ভিসি অধ্যাপক সাইফুল ইসলাম

এদিকে, আবরার ফাহাদ হত্যাকাণ্ডে চলমান আন্দোলন পরিস্থিতি নিয়ে শিক্ষকদের সঙ্গে বৈঠকে বসেছেন উপাচার্য (ভিসি) অধ্যাপক সাইফুল ইসলাম। অপরদিকে নির্ধারিত সময়ের মধ্যে শিক্ষার্থীদের সঙ্গে আলোচনায় না বসায় বৈঠক চলাকালীন ভিসির কার্যালয়ের গেটে তালা লাগিয়ে দেয় আন্দোলনকারীরা।

মঙ্গলবার বিকেল সাড়ে ৪টায় বুয়েটের ভিসির কার্যালয়ে এ বৈঠক শুরু হয় বলে নিশ্চিত করেছেন ভিসির পিএস (একান্ত সচিব) কামরুল ইসলাম।

বিক্ষোভে উত্তাল বুয়েট

বুয়েটের শিক্ষার্থী আবরারের হত্যাকারীদের ফাঁসিসহ আট দফা দাবিতে আজ দ্বিতীয় দিনের মতো আন্দোলন করছেন সাধারণ শিক্ষার্থীরা। কিন্তু হত্যাকাণ্ডের দুই দিন হতে গেলেও বিশ্ববিদ্যালয়ে ভিসির অনুপস্থিতিতে শিক্ষার্থীদের মধ্যে ক্ষোভের সৃষ্টি হয়। তারা ভিসিকে বিকেল ৫টার মধ্যে ক্যাম্পাসে এসে জবাবদিহিতাসহ আট দফা দাবি জানান। পরে ভিসি উপস্থিত না হলে তারা কার্যালয় ঘেরাও করেন।পার্সটুডে

এম ওসমান, বেনাপোল প্রতিনিধি:  যশোরের শার্শা উপজেলার নাভারণ প্রতিবন্ধি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের মাঝে স্কুল ড্রেস, শিক্ষা উপকরণ এবং ফলজ গাছের চারা বিতরণ করেছেন বুরুজ বাগান মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের এসএসসি ১৯৮৯ ব্যাচ।
বৃহস্পতিবার সকাল সাড়ে ১১ টার সময় প্রতিবন্ধি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সভাপতি আবুবক্কারের সভাপতিত্বে ১০ নং শার্শা ইউনিয়ন পরিষদ চত্তরে এক আনন্দঘন পরিবেশের মধ্যদিয়ে এ অনুষ্ঠান অনুষ্ঠিত হয়েছে। অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসাবে উপস্থিত ছিলেন, এসএসসি ১৯৮৯ ব্যাচের কৃতি শিক্ষার্থী বর্তমান বাংলাদেশ পুলিশের অতিরিক্ত ডিআইজি জনাব মোঃ মনিরুজ্জান।
বিশেষ অতিথি হিসাবে উপস্থিত ছিলেন, শার্শার ইউপি চেয়ারম্যান সোহরাব হোসেন, নিজামপুর ইউপি চেয়ারম্যান আবুল কালাম আজাদ, ইউপি সদস্য জুলফিকর আলী জুলু, ফজিলাতুননেছা মহিলা কলেজের প্রভাষক শহিদলাল লাল্টু, সমাজ সেবক জাহাঙ্গীর আজাদ, মোরাদ হোসেন প্রমুখ। অনুষ্ঠান শেষে ৫২ জন প্রতিবন্ধি কোমল মতি শিক্ষার্থীদের মাঝে স্কুল ড্রেস, শিক্ষা উপকরণ এবং ফলজ চারা বিতরণ করা হয়।
এর আগে অতিরিক্ত ডিআইজি জনাব মনিরুজ্জামান প্রতিবন্ধি স্কুল ঘুরে ঘুরে দেখেন এবং সুবিধা বঞ্চিত সকল শিক্ষার্থীদের খোঁজ খবর নেন।

কমলগঞ্জ প্রতিনিধিঃ  মৌলভীবাজারের কমলগঞ্জে  প্রাথমিক শিক্ষা  সমাপনী  পরীক্ষায় জিপিএ ফাইভ  প্রাপ্ত  কৃতি  শিক্ষার্থীদের  সংবর্ধনা  দেওয়া হয়েছে ।শনিবার  সকাল  সাড়ে এগারোটায়  আদমপুর পাইওনিয়ার কিন্ডারগার্টেন  স্কুলে  এস এম  সি  সভাপতি  সমীজ মিয়ার  সভাপতিত্বে ও  শিক্ষিকা  মুসলিমা সুলতানার  সঞ্চালনায়  সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে  প্রধান অতিথি ছিলেন  মৌলভীবাজার জেলা  পরিষদের  প্যানেল  চেয়ারম্যান -1 তফাদার রিজুয়ানা ইয়াসমিন  সুমি ।

বিশেষ  অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন  বি এন  ভূঁইয়া  বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের  প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি  সাব্বির  আহমেদ  ভূঁইয়া,  কমলগঞ্জ  কিন্ডারগার্টেন  এসোসিয়েশনের  আহবায়ক  সাংবাদিক  মুজিবুর রহমান  রঞ্জু ,  কমলগঞ্জ  প্রেস ক্লাবের  সহ সভাপতি  শাব্বির  এলাহী, সাংবাদিক  জয়নাল  আবেদীন,  এম , এ , ওহাব  উচ্চ  বিদ্যালয়ে  প্রধান শিক্ষক  পদ্মমোহন সিংহ,  তেতই গাঁও সরকারি  প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক  নুর  উদ্দিন আহমেদ ও আধকানী সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সহ  শিক্ষক  আব্দুল গণি  দুলাল। অন্যান্যদের মধ্যে  বক্তব্য রাখেন  স্কুলের  প্রতিষ্ঠাতা  পরিচালক  সালিক আহমেদ  ভূঁইয়া,  অধ্যক্ষ  শেখ  লতিফুর রহমান,  এস এম সি  সদস্য  রঞ্জিত  অধিকারী, শিক্ষক   মনজুর  আহমেদ  জুবেল ,  রাহেল আহমেদ  প্রমুখ ।

অনুষ্ঠান  পাইওনিয়ার  কিন্ডারগার্টেন  থেকে  এ  বছর প্রাথমিক শিক্ষা  সমাপনী  পরীক্ষায়  জিপিএ ফাইভ  প্রাপ্ত  দশ জন  শিক্ষার্থীকে  সম্মাননা  স্মারক  ও উপহার  সামগ্রী  প্রদান করা হয় । উল্লেখ্য 1999 ইং  সালে  প্রতিষ্ঠার  পর থেকেই  পাইওনিয়ার  কিন্ডারগার্টেন  প্রত্যেক  পাবলিক  পরীক্ষায় সাফল্যের  স্বাক্ষর  রাখছে ।

রানীশংকৈল, ঠাকুুরগাঁও সংবাদদাতাঃ ঠাকুুরগাঁওয়ের রানীশংকৈল উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মৌসুমী আফরিদা’র সভাপতিত্বে ১৬ মে বৃহস্পতিবার উপজেলা হল রুমে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন জেলা প্রশাসক ড.কে এম কামরুজ্জামান সেলিম।এ সময় তিনি আদিবাসী সম্প্রদায়ের ৯৩৪ জন শিক্ষার্থীদের মাঝে ৩ লক্ষ টাকার উপবৃত্তি ও শিক্ষা উপকরণ বিতরন করেন।

জানা গেছে, প্রধানমন্ত্রীর তহবীল থেকে ৯ লক্ষ ৬০ হাজার টাকা আদিবাসী ছাত্র-ছাত্রীদের মাঝে নগদ অর্থ ও শিক্ষা উপকরণ বাবদ (স্কুলবেগ, রং-পেনসিল, ওয়াটার পট,খাতা কলম ) ইত্যাদি বিতরন করা হয়।

এ সময় অনুষ্ঠানে উপজেলা চেয়ারম্যান শাহয়িার আজম মুন্না, ওসি আব্দুল মান্নান, ভাইস চেয়ারম্যান সোহের রানা ও মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান শেফালী বেগম , এসিল্যান্ট সোহাগ চন্দ্র সাহা , ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষ তাজুল ইসলাম, ইউপি চেয়ারম্যানবৃন্দ , আদিবাসী সংগঠনের সভাপতি সূগামুর্মু ও সাংবাদিকবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।

হবিগঞ্জ প্রতিনিধিঃ আফ্রিকার তিউনিসিয়া উপকূলের ভূমধ্যসাগরে নৌকাডুবির ঘটনায় হবিগঞ্জের দুই শিক্ষার্থী নিখোঁজ হয়েছেন।সোমবার দুপুরে নিখোঁজ শিক্ষার্থীদের স্বজনরা এ তথ্যটি নিশ্চিত করেছেন। নিখোঁজরা হলেন- হবিগঞ্জ সদরের লোকড়া গ্রামের আলাউদ্দিনের ছেলে আব্দুল কাইয়ুম ও আব্দুল জলিলের ছেলে আব্দুল মোক্তাদির। তারা হবিগঞ্জ সরকারি বৃন্দাবন কলেজে সম্মানে অধ্যয়ন করতেন।
আব্দুল কাইয়ুমের বাবা আলাউদ্দিন বলেন, বুধবার ইতালিতে যাওয়ার কথা জানায় কাইয়ুম। এরপর সহপাঠী মামুন নৌকাডুবির ঘটনায় কাইয়ুমের নিখোঁজের বিষয়টি জানিয়েছে।
মুক্তাদিরের চাচা আব্দুল খালেক বলেন, ইতালির উদ্দেশ্যে যাওয়ার আগে বাড়িতে ফোন দেয় মুক্তাদির। এরপর তার খোঁজ পাওয়া যাচ্ছে না।

ভূমধ্যসাগরে নৌকাডুবির ঘটনায় হবিগঞ্জের দুই শিক্ষার্থী নিখোঁজ সংবাদে তাদের পরিবারে শোক।

মামুনের বরাত দিয়ে আলাউদ্দিন ও আব্দুল খালেক আরো বলেন, ৯ মে রাতে দালালদের মাধ্যমে আব্দুল কাইয়ুম, আব্দুল মোক্তাদির ও মামুন মিয়া ইতালির উদ্দেশ্যে রওয়ানা হন। ভূমধ্যসাগরে নৌকাডুবি হলে তিন জন পানিতে পড়ে যান। এ সময় স্থানীয় জেলেরা মামুনকে উদ্ধার করলেও কাইয়ুম ও মোক্তাদির নিখোঁজ রয়েছেন।

লোকড়া ইউপি সদস্য মো. জাহির মিয়া বলেন, মামুন সম্পর্কে আমার ভাগিনা। নৌকাডুবির পর মোক্তাদিরের সঙ্গে হাত ধরে সাঁতার কেটেছে সে। তবে হাত ছেড়ে দেয়ার পর সে মোক্তাদিরকে দেখতে পায়নি।
হবিগঞ্জ সদর মডেল থানার ওসি মোহাম্মদ সহিদুর রহমান বলেন, ভূমধ্যসাগরে নৌকাডুবির ঘটনায় দুই শিক্ষার্থী নিখোঁজ হওয়ার খবর শুনেছি। পুলিশ তথ্য-উপাত্ত সংগ্রহ করছে। এতে দালাল চক্রের হাত রয়েছে কি না খতিয়ে দেখা হবে।
৯ মে গভীর রাতে লিবিয়া উপকূল থেকে ৭৫ জন অভিবাসীবাহী একটি বড় নৌকা ইতালির উদ্দেশ্যে পাড়ি জমায়। পরে নৌকাডুবিতে বেশির ভাগ মানুষ মারা যান।

জৈন্তাপুর সিলেট প্রতিনিধি: সিলেটের জাফলং পর্যটকদের জন্য মরণ ফাঁদ হিসাবে পরিচিত সিলেটের জিরো পয়েন্টে আবারো নিখোঁজের ঘটনা ঘটেছে। নিখোঁজ হয়েছেন এমসি কলেজের অনার্স দ্বিতীয় বর্ষের শিক্ষার্থী আতিকুর রহমান অনিক। ডাউকী ও পিয়াইন নদীর উৎসমুখের স্বচ্ছ পানিতে গোসল করতে নেমে ছাত্র নিখোঁজের ঘটনা ঘটে৷ ২৬ এপ্রিল শুক্রবার জুম’আর নামাজের পর নিখোঁজের ঘটনা ঘটে।
এলাকাবাসীসূত্রে জানা যায়- ৮ বন্ধু মিলে প্রকৃতিকন্যা জাফলং বেড়াতে আসে। এরমধ্যে আতিকুর সহ ৩ তিন বন্ধু জিরো পয়েন্টে গোসল করার সময় আতিকুর নদীর পানিতে তলিয়ে যান। কয়েকজন বারকী শ্রমিক তা দেখে  দ্রুত ছুটে আসে এবং দুজন কে উদ্ধার করতে সক্ষম হলেও আতিকুর রহমান অনিক কে উদ্ধার করতে পারেন নি৷ এঘটনার পর হতে সে নিখোঁজ রয়েছে। তার গ্রামের বাড়ি হবিগঞ্জ জেলার নবীগঞ্জ উপজেলায়। বর্তমানে তিনি সিলেট নগরীর আম্বরখানা এলাকার বাসিন্দা।
খবর পেয়ে জৈন্তাপুর ফায়ার স্টেশনের কর্মীরা নিখোঁজ শিক্ষার্থীর সন্ধান শুরু করে। তবে সন্ধ্যা ৭টা পর্যন্ত তার লাশ পাওয়া যায়নি৷ ফায়ার সার্ভিস ও গোয়াইনঘাট থানা প্রশাসনের পক্ষে নিখোঁজের সন্ধান কার্যক্রম স্থগিত ঘোষনা করেছে৷ আগামীকাল ২৭ এপ্রিল পুনরায় সন্ধান চালাবে বলে জানান ফায়ার সার্ভিস স্টেশনের ইনচার্জ ফারুক হোসাইন৷
গোয়াইনঘাট থানার ওসি জলিল জানান- কলেজ ছাত্রটি এখনো নিখোঁজ। ঘটনাস্থলে পুলিশ ও ফায়ার সার্ভিসের কর্মীরা তৎপরতা চালিয়ে সন্ধান পায়নি৷ আপতত অনুসন্ধান স্থগিত করা হয়েছে৷ আগামীকাল পুনরায় নিখোঁজের সন্ধান করা হবে৷

উপমা তোমার কেউ দেখেনি কখনো কখন; তোমার মতো কেউ হয়নি সৃজন”-ঢাবি শিক্ষার্থী ইহসান ফারুকের কণ্ঠে আলা হযরত ইমাম আহমদ রেজা খাঁ বেরেলভি (র.) কর্তৃক নবীজির শানে রচিত এই নাতের মধ্য দিয়ে আজ ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে অনুষ্ঠিত হয় পবিত্র ইদে মিলাদুন্নবী (দ.) উপলক্ষ্যে ‘প্রিয় নবীর আগমন মানব জাতির সমাধান : শান্তি প্রতিষ্ঠায় ও সন্ত্রাস দমনে ইসলামের অবদান’ শীর্ষক সেমিনার। ফাইন্যান্স বিভাগের শিক্ষার্থী ওমর ফারুক শাওন ও মার্কেটিং বিভাগের শিক্ষার্থী আবদুল্লাহ আল নোমানের যৌথ উপস্থাপনায় আজ সকাল ১০টায় সিরাজুল ইসলাম লেকচার থিয়েটার ভবনে মিলাদুন্নবী (দ.) উপলক্ষ্যে অনুষ্ঠিত এই সেমিনার উদ্বোধন করেন বিশ্ববিদ্যালয়ের আরবি বিভাগের সহযোগী অধ্যাপক ড. সাইয়্যেদ আবদুল্লাহ আল মারুফ। উদ্বোধনী বক্তব্যে তিনি বলেন, জন্মের পর নয়; বরং হযরত নবী (দ.) জন্মই নিয়েছিলেন নবী হয়ে। 

সুতরাং, আজ আমরা কোনও সাধারণ মানুষের নয়, একজন জন্মগত নবীর বিলাদত (জন্ম) পালন করছি। যারা ঈদে মিলাদুন্নবী (দঃ) কে ‘ঈদ’ মানতে নারাজ, তাদের কথা উল্লেখ করে তিনি বলেন, “হাদিসে জুমার দিনকে মুসলমানের জন্য ঈদ বলা হয়েছে। সুতরাং, ঈদ শুধু দুইটি নয়; এর বাইরেও ঈদ আছে। আর নবীজীর আগমনকে ‘ঈদ’ হিসেবে পালন করা যথেষ্ট যৌক্তিক, কারণ ওঁনার জন্ম না হলে সমস্ত বিশ্বই সৃষ্টি হতো না” সভাপতির বক্তব্যে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় কেন্দ্রীয় জামে মসজিদের খতিব ড. মুহাম্মদ এমদাদ উদ্দীন বলেন, হযরত মুহাম্মদ (দ.) শুধু মুসলমানদের জন্য নয়; বরং সমস্ত বিশ্ববাসীর জন্য রহমত স্বরূপ। তার এই বেলাদত শরিফ বাংলাদেশে রাষ্ট্রীয় পর্যায়ে পালিত হয়। বঙ্গভবন থেকে শুরু করে একেবারে গরীবের কুটিতে পর্যন্ত সব জায়গাতেই হয়। গুটি কতেক ‘বিভ্রান্ত মুসলমান’ ব্যতিরেকে এই নিয়ে কেউ প্রশ্ন তোলে না। অনুষ্ঠানের প্রধান অতিথি ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ইসলামের ইতিহাস ও সংস্কৃতি বিভাগের প্রফেসর ও চেয়ারম্যান ড. মোহাম্মদ আতাউর রহমান মিয়াজি বলেন, শুধু আল্লাহকে ভালোবাসার মধ্য দিয়ে ঈমানদার হওয়া যায় না; রাসূল (দ.)-কেও ভালোবাসতে হবে। পবিত্র কোরআন শরিফের উদ্বৃতি দিয়ে তিনি আরও বলেন, শুধু ভালোবাসা নয়; বরং সর্বোচ্চ ভালোবাসতে হবে।

মিলাদুন্নবী উদযাপন প্রশ্নে ‘বিদআত’ এর কানাঘুষো প্রসঙ্গে তিনি বলেন, এই মিলাদুন্নবী পালন কোরআন-হাদীস প্রমাণিত শুদ্ধ এবং জায়েজ। এই নিয়ে প্রশ্নের কোনও সুযোগ নাই। হযরত মুহাম্মদ (দ.) মানবতার মুক্তির দূত হিসেবে এসেছেন উল্লেখ করে পবিত্র কোরআনের সূরা আম্বিয়ার ১০৭নং আয়াত-এর কথা উল্লেখ করে তিনি বলেন, যে নবী ইসলাম ধর্ম নিয়ে এসেছেন, বিশ্ববাসীর জন্য রহমত হিসেবে এসেছেন, তিনি তো আরবের জাহেলিয়াত-অনাচার দূর করবার জন্যই এসেছিলেন; সুতরাং তার ইসলাম কখনও জঙ্গিবাদকে প্রশ্রয় দেয় না।

অনুষ্ঠানে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের রসায়ন বিভাগের অধ্যাপক ড. মোহাম্মদ আবুল হোসেন, আরবি বিভাগের সহকারি অধ্যাপক আহমাদ হাসান চৌধুরী, ইসলামিক স্টাডিজ বিভাগের লেকচারার এস এম মাসুম বাকি বিল্লাহ, মোহাম্মদপুর কাদেরিয়া আলিয়া মাদ্রাসার সিনিয়র আরবি প্রভাষক ড. মো: নাসিরুদ্দীন নঈমীসহ প্রমুখ অতিথিবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন। প্রসঙ্গত, ৫৭০ খ্রিষ্টাব্দের ১২ই রবিউল আওয়াল তারিখে জন্মগ্রহণ করেছিলেন মহানবী হযরত মুহাম্মদ (দ.)। একে উপলক্ষ্য করে আজ সারাদেশের সকল শিক্ষা-প্রতিষ্ঠান ও সরকারি অফিস-আদালতে সরকারি ছুটি ঘোষণা করা হয়েছে।দ্যা জবান ডটকম। 

নিরাপদ সড়ক আন্দোলনের নামে ফেসবুক ও ম্যাঞ্জেজারে বিভিন্ন গুজব ছড়িয়ে দেয়াসহ তথ্য প্রযুক্তি আইনে মামলা 

নড়াইল প্রতিনিধিঃ নিরাপদ সড়ক আন্দোলনের নামে ফেসবুক ও ম্যাঞ্জেজারে বিভিন্ন গুজব ছড়িয়ে দেয়াসহ নাশকতা পরিকল্পনার অভিযোগে নড়াইলে ৬ শিক্ষার্থীকে আটক করেছে পুলিশ। সোমবার দুপুরে নড়াইল সরকারি ভিক্টোরিয়া কলেজ এলাকায় অভিযান চালিয়ে তাদের আটক করা হয়। মঙ্গলবার (৭ আগস্ট) দুপুরে পুলিশ সুপারের কার্যালয়ে প্রেসব্রিফিংয়ে এ তথ্য জানিয়েছেন পুলিশ সুপার মোহাম্মদ জসিম উদ্দিন পিপিএম। এদিকে, মঙ্গলবার এই ৬ শিক্ষার্থীর বিরুদ্ধে তথ্য প্রযুক্তি আইনে মামলাসহ তাদের আদালতের মাধ্যমে কারাগারে পাঠানো হয়েছে।
আটককৃত শিক্ষার্থীরা হলেন-যশোরের কোতয়ালী থানার বসুন্দিয়া এলাকার মহিবুল্লাহ গালিব (২০), যশোরের চান্দুটিয়া এলাকার রাকিব হাসান (২২), নড়াইলের নড়াগাতি থানার টোনা গ্রামের মুন্সী সাবের আহম্মেদ (২১) ও মিলন মোল্যা (২০), নড়াগাতি থানার মাউলী গ্রামের রেজা শেখ মিলন (২১) ও কালিয়া উপজেলার চাঁদপুর এলাকার হাসান সরদার (১৯)। আটককৃতরা নড়াইল সরকারি ভিক্টোরিয়া কলেজসহ বিভিন্ন কলেজের শিক্ষার্থী। এদের কাছ থেকে পাঁচটি মোবাইল ফোন জব্দ করা হয়েছে।
পুলিশ সুপার মোহাম্মদ জসিম উদ্দিন পিপিএম জানান, নড়াইল সরকারি ভিক্টোরিয়া কলেজের পাশে সুলতান ম এলাকায় বসে নিরাপদ সড়ক চাই আন্দোলন ভিন্ন খাতে প্রবাহিত করতে ষড়যন্ত্র করছিল এই ৬ শিক্ষার্থী। এছাড়া নিরাপদ সড়ক আন্দোলনের নামে ফেসবুক ও ম্যাঞ্জেজারে বিভিন্ন গুজব ছড়িয়ে দেয়াসহ নাশকতার পরিকল্পনা করছিল তারা। তাদের কাছ থেকে তাদেও ব্যবহৃত মোবাইল ফোন জব্দ করা হয়েছে। আটকৃতদের বিরুদ্ধে তথ্য প্রযুক্তি আইনে মামলা করা হয়েছে এবং তাদের আদালতের মাধ্যমে কারাগারে প্রেরণ করা হয়েছে।

আমারসিলেট টুয়েন্টিফোর ডটকম,১৩মার্চঃ   বাংলাদেশি বিমানের ইতিহাসে অভ্যন্তরীণ ও আন্তর্জাতিক রুট মিলিয়ে সবচেয়ে বড় দুর্ঘটনা ঘটেছে নেপালে। নেপালের রাজধানী কাঠমান্ডুতে বিধ্বস্ত হওয়া বাংলাদেশী ইউএস বাংলা বিমানে সিলেটের রাগিব-রাবেয়া মেডিকেলের ১৩ জন প্রবাসী যাত্রী ছিলেন। ঘটনার প্রথম দিকেই তাদের সকলেরই মৃত্যু হয়েছে এমন সংবাদ বিভিন্ন সূত্রের মাধ্যমে পাওয়া যাচ্ছিল।

আহত এবং নিহতদের তালিকা প্রকাশের পর জানা যায় সিলেটের রাগিব রাবেয়া মেডিকেলের ১৩ জন শিক্ষার্থীর মধ্যে ২ জন ছাত্রী বেঁচে আছেন। তারা কাঠমান্ডুর একটি হাসপাতালে চিকিৎসা নিচ্ছেন।

সোমবার দুপুরে এই উড়োজাহাজটি বিধ্বস্তের পর উদ্বেগ-উৎকণ্ঠার মধ্যে রাতে জীবিত ৯ বাংলাদেশিসহ ১৯ যাত্রীকে শনাক্তের কথা জানিয়েছে ইউএস বাংলা বিমান কর্তৃপক্ষ। এ তালিকায় সিলেটের রাগিব-রাবেয়া মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের প্রিন্সি ধামি, সামিরা বায়জানকার নামের দুই শিক্ষার্থী রয়েছেন।

জালালাবাদ মেডিকেল কলেজের উপ-পরিচালক ডা. আরমান আহমদ শিপলু, সিলেটে থাকা দুর্ঘটনা কবলিত শিক্ষার্থীদের সহপাঠি ও নেপালে থাকা তাদের স্বজনদের বরাত দিয়ে এ তথ্যটি সংবাদ মাধ্যমকে জানিয়েছেন। শিপলু বলেছেন- ‘প্রথম দিকে ১৩ শিক্ষার্থীর প্রাণহানির শঙ্কা করা হলেও জানা যাচ্ছে আমাদের কলেজের ২ জন শিক্ষার্থী বেঁচে আছেন। তাদেরকে নেপালের একটি হাসপাতালে চিকিৎসা দেয়া হচ্ছে।’

দুর্ঘটনা কবলিত বিমানে জালালাবাদ রাগিব রাবেয়া মেডিকেল কলেজের ১৩ শিক্ষার্থী থাকার বিষয়টি নিশ্চিত করেন কলেজের অধ্যক্ষ প্রফেসর আবেদ হোসেন। তিনি বলেন তন্মধ্যে ১১ জন মেয়ে শিক্ষার্থী ও ২ জন ছেলে শিক্ষার্থী রয়েছে। তারা সবাই ১৯ তম ব্যাচের ফাইনাল ইয়ারের শিক্ষার্থী। কিছুদিনের মধ্যে তারা এমবিবিএস সনদ প্রাপ্তির কথা ছিল। ফাইনাল পরীক্ষা শেষ করেই তারা নিজেদের দেশে আত্মীয়-স্বজনদের সাথে ছুটি কাটাতে রওয়ানা দিয়েছিল।

আবেদ হোসেন জানান, নিহতরা সবাই ফাইনাল ইয়ারের পরীক্ষা শেষ করে নিজেদের দেশ নেপালে ছুটি কাটাতে গিয়েছিলেন। নেপাল পৌছার পরই এ দুর্ঘটনার স্বীকার হলেন তারা।

উল্লেখ্য, ইউএস বাংলার বিমান বিধ্বস্তের ঘটনায় এ পর্যন্ত ৫০ জন নিহত হয়েছেন। ইউএস বাংলার ওই বিমানে ৬৭ জন যাত্রী এবং ৪জন ক্রু ছিলেন।

আমারসিলেট টুয়েন্টিফোর ডটকম,২০ডিসেম্বর,আলী হোসেন রাজনঃ   মৌলভীবাজারে দুই শিক্ষার্থী কলেজ ছাত্র সাবাব ও স্কুল ছাত্র মাহী হত্যার প্রতিবাদে এবং হত্যাকারীদের গ্রেফতারের দাবীতে মানববন্ধন ও প্রতিবাদ সমাবেশ করেছে শিক্ষার্থী,অভিভাবকসহ বিভিন্ন শ্রেণী পেশার মানুষ।
আজ দুপুরে মৌলভীবাজার প্রেসক্লাব প্রাঙ্গনে খালেদ চৌধুরীর সভাপতিত্বে ঘন্টাব্যাপী মানববন্ধন অনুষ্টিত হয়েছে। এতে নিহতদের পরিবার, সহপাটি,অভিভাবক,জনপ্রতিনিধি,বিভিন্ন রাজনৈতিক,সামাজিক সংগঠনের নেতৃবৃন্দ অংশ গ্রহন করেন। কয়ছর আহমদের পরিচালনায় সমাবেশে বক্তব্য রাখেন পৌর মেয়র ফজলুর রহমান, যুবলীগ সভাপতি নাহিদ আহমদ, পৌর বিএনপির সভাপতি আনোয়ার আক্তার শিউলি, অভিভাবক প্রতিনিধি এমদাদুল হক , সহপাঠি ও নিহতদের স্বজনরা।
এ সময় বক্তারা দুই শিক্ষার্থীর নিহতের ঘটনার তীব্র নিন্দা ও উদ্বেগ প্রকাশ করেন। হত্যার ১৩ দিন অতিবাহিত হওয়ার পরও প্রকৃত হত্যাকারীরা গ্রেফতার না হওয়ায় ক্ষোভ প্রকাশ করেন তারা। অবিলম্বে হত্যাকারীদের গ্রেফতার করে শান্তির আওতায় নিয়ে আসার জোড় দাবী জানান বক্তারা।
গত ০৭ ডিসেম্বর সন্ধ্যা ৭টায় মৌলভীবাজার সরকারি উচ্চ বিদ্যালয় ছাত্রাবাসের সম্মুখে নির্মমভাবে নিহত হন কলেজ ছাত্র শাবাব ও স্কুল ছাত্র মাহী।এ ঘটনায় সাবাবের পরিবারের পক্ষ থেকে ১২ জনকে আসামী করে মামলা করা হয়েছে। এজাহার ভুক্ত ৩জনকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। তবে প্রধান আসামীরা এখনো ধরাছোয়ার বাইওে রয়েছে।

আমারসিলেট টুয়েন্টিফোর ডটকম,০১নভেম্বর,শাব্বির এলাহীঃ  মৌলভীবাজারের কমলগঞ্জে মাদ্রাসা কর্তৃপক্ষের ভুলের কারণে বুধবার জুনিয়র দাখিল সার্টিফিকেট (জেডিসি) পরীক্ষায় অংশ নিতে পারেনি এক শিক্ষার্থী। কমলগঞ্জ উপজেলার মির্জাপুর দাখিল মাদ্রাসার জেডিসি পরীক্ষার্থী মির্জাপুর গ্রামের মৃত আশিক মিয়ার ছেলে ইমরান উদ্দীন সাকেল প্রবেশ পত্র না পাওয়ায়  বুধবার শুরু হওয়া জেডিসি পরীক্ষায় অংশ নিতে পারেনি। ইমরান উদ্দীন সাকেলের মা অজিবা বেগম সাবিনা বলেন, পরীক্ষার এক দিন আগে প্রবেশপত্র না আসার কথা শুনে ছেলেটি কিছুই খাচ্ছে না। সারাক্ষণ শুধু কাঁদছে। মাদ্রাসা কর্তৃপক্ষের অবহেলার কারণে সাকেল এবারের জেডিসি পরীক্ষা দিতে পারল না। শিক্ষাজীবন থেতে এক বছর ঝরে গেল তার।

এ ব্যাপারে জানতে চাইলে মির্জাপুর দাখিল মাদ্রাসার মাদ্রাসার সুপার মাও: আব্দুল মোহিত হাসানী বিষয়টি দুঃখজনক উল্লেখ করে বলেন, আমাদের মাদ্রাসার রেজিষ্ট্রেশন না থাকায় শমশেরনগর বড়চেগ দাখিল মাদ্রাসা থেকে ইমরান উদ্দীন সাকেলের জেডিসির রেজিষ্ট্রেশন করা হয়ছিল।মানুষ মাত্রইতো ভূল হয়। আমাদেরও ভূল হতে পারে। বিষয়টি নিয়ে আমরাও দু:খিত। আগামীতে বিনামূল্যে তাকে এই মাদ্রাসায় লেখাপড়ার ব্যবস্থা করব।

এ ব্যাপারে জানতে চাইলে কমলগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোহাম্মদ মাহমুদুল হক বলেন, মঙ্গলবার রাতে বিষয়টি আমি জেনেছি। তখনতো কিছু করার ছিল না। মাদ্রাসা কর্তৃপক্ষের ভূলের কারণে এটি হয়েছে। ওই শিক্ষার্থীর প্রবেশপত্র না আসার ব্যাপারে লিখিত অভিযোগ পেলে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

আমার সিলেট টুয়েন্টিফোর ডটকম,১১জুলাই,নড়াইল প্রতিনিধিঃ নড়াইল সদরের বাশঁগ্রামের বগুড়া গ্রামে বজ্রপাতের ঘটনায় ২ কলেজ শিক্ষার্থী গুরুতর অসুস্থ হয়েছে। তাদের সঙ্গাহিন অবস্থায় নড়াইল সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

পারিবারিক সূত্রে জানা গেছে, মঙ্গলবার  সকাল ৯ টার দিকে নড়াইলসহ আশপাশের এলাকায় প্রচন্ড বৃষ্টিসহ বজ্রপাতের ঘটনা ঘটে, এসময় বগুড়া গ্রামের মোঃ মিঠু শেখের মেয়ে রনি (১৭ ) এবং একই গ্রামের মোঃ মিলন মোল্যার ছেলে সোহাগ মোল্যা (১৯) কলেজে যাবার জন্য বাড়ী থেকে বের হয়ে বাসের অপেক্ষায় বাস স্ট্যান্ডে দাড়িয়ে ছিল। এ সময় বজ্রপাত হলে তারা দুজনই সঙ্গা হারিয়ে ফেলে ।

পরে তাদেরকে উদ্ধার করে স্থানীয়রা নড়াইল সদর হাসপাতালে নিয়ে আসলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাদের হাসপাতালে ভর্তি করেন।  এরা দুজনই কালিয়ার চাচুড়ি-পুরুলিয়া মনোরঞ্জন কাপুড়িয়া কলেজের ১শ বর্ষের শিক্ষার্থী।

আমার সিলেট টুয়েন্টি ফোর ডটকম,২৪মে,শাব্বির এলাহী,কমলগঞ্জ,মৌলভীবাজারঃ মৌলভীবাজারের কমলগঞ্জে প্রায় ৭ দিন ধরে একজন ভারপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষিকার অনিয়মের কারণে বিদ্যালয়ের ছাত্র ছাত্রী প্রায় শুণ্য হয়ে পড়ছিল। বিভিন্ন অনলাইন মিডিয়া ও সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে খবরটি দেখার পর কমলগঞ্জ পৌরসভার মেয়রের হস্তক্ষেপে উপজেলা প্রাথমিক শিক্ষা প্রশাসন ও অভিভাবকদের নিয়ে জরুরী বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়। বৈঠকে উপজেলা শিক্ষা অফিসার অভিযুক্ত ভারপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষিকার বিরুদ্ধে তড়িৎ প্রশাসনিক ব্যবস্থা গ্রহণের আশ্বাসের প্রেক্ষিতে আবার বিদ্যালয়ের ২১৩ শিক্ষার্থী ক্লাসে যেতে শুরু করেছে। অচলাবস্থা নিরসন হয়ে ফিরে এসেছে শিক্ষার সুষ্ঠু পরিবেশ। ঘটনাটি ঘটেছে পতনঊষার ইউনিয়নের সীমান্তবর্তী গুঞ্জরকান্দি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে।

এলাকাবাসী সূত্রে জানা যায়, পতনঊষার ইউনিয়নের গুঞ্জরকান্দি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে মনোয়ারা বেগমের বিরুদ্ধে নানা অনিয়মের অভিযোগে এলাকাবাসীর পক্ষ থেকে উপজেলা শিক্ষা অফিস ও উপজেলা প্রশাসনের কাছে লিখিত আবেদন করেও অভিযুক্ত শিক্ষিকার বিরুদ্ধে কোন কার্যকর ব্যবস্থা গ্রহণ করায় অভিভাবকরা প্রতিবাদে তাদের সন্তানদের বিদ্যালয়ে যাওয়া বন্ধ করে দেন। এই খবরটি বিভিন্ন অনলাইন মিডিয়া ও সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে প্রচারের পর গত সোমবার (২২ মে) সন্ধ্যায় বিষয়টি কমলগঞ্জ পৌরসভার মেয়র ও উপজেলা যুবলীগের আহবায়ক মো. জুয়েল আহমদের দৃষ্টিগোচর হয়। তিনি বিষয়টি নিয়ে কথা বলেন উপজেলা শিক্ষা অফিসার গকুল চন্দ্র দেবনাথ, গুঞ্জরকান্দি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় এসএমসি ও স্থানীয় সাংবাদিক নেতৃবৃন্দের সাথে। পৌর মেয়রের দেয়া তারিখ অনুযায়ী গত মঙ্গলবার (২৩ মে) বিকেল ৪টায় গুঞ্জরকান্দি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় এসএমসি ও অভিভাবকদের সাথে একটি জরুরী বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়।

বৈঠকে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন কমলগঞ্জ পৌরসভার মেয়র ও উপজেলা যুবলীগের আহবায়ক মো. জুয়েল আহমদ। গুঞ্জরকান্দি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় এসএমসির সভাপতি আরজদ আলীর সভাপতিত্বে ও পতনঊষার ইউনিয়নের প্যানেল চেয়ারম্যান নারায়ণ মল্লিক সাগরের স ালনায় অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি ছিলেন উপজেলা শিক্ষা অফিসার গকুল চন্দ্র দেবনাথ, সহকারী উপজেলা শিক্ষা অফিসার জয় কুমার হাজরা, সাংবাদিক মুজিবুর রহমান রঞ্জু, কমলগঞ্জ প্রেসক্লাবের সিনিয়র সহ সভাপতি প্রনীত রঞ্জন দেবনাথ, কমলগঞ্জ রিপোটার্স ইউনিটির সাধারণ সম্পাদক মোস্তাফিজুর রহমান, সাংবাদিক জয়নাল আবেদীন, সাংবাদিক আসহাবুর ইসলাম শাওন, ইউনিয়ন মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডার মর্তুজ আলী। অন্যান্যের মধ্যে বক্তব্য রাখেন যুবলীগ নেতা আবুল বশর জিল্লুল, সাবেক ইউপি সদস্য জমসেদ আলী, এসএমসি’র সহ সভাপতি ইলিয়াছ আলী, অভিভাবক সদস্য নুরজাহান বেগম প্রমুখ।

কমলগঞ্জ পৌর মেয়রের উদ্যোগে বিদ্যালয়ের অচলাবস্থা নিরসনের লক্ষ্যে উপজেলা প্রাথমিক শিক্ষা প্রশাসন ও অভিভাবকদের নিয়ে জরুরী বৈঠকে উপজেলা শিক্ষা অফিসার অভিযুক্ত ভারপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষিকার বিরুদ্ধে তড়িৎ প্রশাসনিক ব্যবস্থা গ্রহণের আশ্বাসের প্রেক্ষিতে গতকাল বুধবার থেকে আবার বিদ্যালয়ের ২১৩ শিক্ষার্থী ক্লাসে যেতে শুরু করেছে। অচলাবস্থা নিরসন হয়ে ফিরে এসেছে শিক্ষার সুষ্ঠু পরিবেশ।

সভায় প্রধান অতিথি কমলগঞ্জ পৌরসভার মেয়র মো. জুয়েল আহমদ তাঁর ব্যক্তিগত তহবিল থেকে বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের প্রচন্ড গরম থেকে রক্ষার জন্য ৪টি সিলিং ফ্যান বিদ্যালয় কর্তৃপক্ষের হাতে তুলে দেন।

এলাকাবাসী জানান, গুঞ্জরকান্দি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক সাইফুল ইসলাম ২০১৬ সালের ডিসেম্বর মাসে অবসরে চলে গেলে ২০১৭ সালের ১ জানুয়ারী ভারপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষকের দায়িত্বভার গ্রহণ করেন এই বিদ্যালয়ের সহকারি শিক্ষিকা মনোয়ারা বেগম। এর আগে তিনি শ্রীসূর্য্য সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের থাকাকালে শিক্ষিকা সালমা বেগমের সাথে বৈরী আচরণসহ একজন পুরুষ শিক্ষককে শারিরিকভাবে লা না করেন।

এ ঘটনায় জেলা প্রাথমিক শিক্ষা অফিসার এই বিতর্কিত শিক্ষিকাকে শাস্তিমূলক বদলী করেন গুঞ্জরকান্দি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে। এখানে আসার পর থেকেও প্রধান শিক্ষকের সাথে বনিবনা না হওয়ার শুরু দুরত্বের সৃষ্টি হয়। তিনি নিজ ইচ্ছা খুশি মত বিদ্যালয়ে আসা যাওয়া করেন। ক্লাস বাদ দিয়ে বারান্দায় বসে মোবাইলে ফেইসবুক নিয়ে সারক্ষণ ব্যস্ত থাকতেন।  এছাড়া গত ২৪ এপ্রিল তারিখে ১ম সাময়িক পরীক্ষার প্রথম দিনই কোন শিক্ষক উপস্থিত ছিলেন না। পরে দপ্তরী দ্বারাই ১ম থেকে ৫ম শ্রেণির ছাত্র-ছাত্রীদের এক সাথে পরীক্ষা নেওয়া হয়ছিল।

এছাড়া ৩০ এপ্রিল তারিখের সকালের পরীক্ষা না নিয়ে একটি বিদায় সংবর্ধনা অনুষ্টানে চলে যান। খবর পেয়ে উপজেলা শিক্ষা অফিসার বিদ্যালয় পরিদর্শনে গিয়ে কাউকে না পেয়ে লিখিতভাবে শোকজ করেন।

আমার সিলেট টুয়েন্টিফোর ডটকম,২৮মার্চ,হাবিবুর রহমান খান,নিজস্ব প্রতিনিধিঃ বাংলাদেশের ঐতিহ্যবাহী শিক্ষা প্রতিষ্ঠান সিলেটের এমসি কলেজের রাষ্ট্রবিজ্ঞান এর ৩য় বর্ষের মেধাবী ছাত্র মো: জাহিদুল ইসলাম।কলেজের সেরা শিক্ষার্থী হিসেবে নিবার্চিত হয়েছেন। মৌলভীবাজার জেলার জুড়ী উপজেলা সদরের উত্তর ভবানীপুর গ্রামের হাজী আব্দুল হাসিব ও রিনা বেগম দম্পতির ঘরে ১৯৯৫ সালের ৮ জুলাই জন্ম নেয়া এ কৃতী শিক্ষার্থী সাত ভাই-বোনের মধ্যে ৬ষ্ঠ। তার শিক্ষা জীবনে শুরুর দিকে ৩য় শ্রেণীতে থাকাকালীন বিভিন্ন প্রতিযোগিতায় সাফল্যের পাশাপাশি স্কুলসহ বিভিন্ন অনুষ্ঠানাদিতে বক্তৃতায় বাকপটু হওয়া এ কৃতী শিক্ষার্থী সম্প্রতি সিলেট জেলার শ্রেষ্ঠ বিতার্কিকের স্বীকৃতি পেয়েছেন।

উপজেলা পর্যায়ে সৃজনশীল মেধা অন্বেষণ প্রতিযোগিতায় ভাষা ও সাহিত্য বিভাগের চ্যাম্পিয়ন, দুদকের আয়োজনে বিতর্ক প্রতিযোগিতায় শ্রেষ্ঠ বিতার্কিক, ব্রাক, ইসলামী ফাউন্ডেশনের আয়োজনের প্রতিযোগিতাসহ প্রায় অর্ধশতাধিক প্রতিযোগিতায় সাফল্যে দেখিয়েছেন এক সময়ের এ স্কাউট সদস্য।

গত (২৬ মার্চ) দুপুরে কলেজ অডিটরিয়ামে সদ্য সমাপ্ত এমসি কলেজের বিভাগীয় সাহিত্য-সাংস্কৃতিক প্রতিযোগিতা ‘১৭ এর তিনটি ইভেন্টে প্রথম স্থান অর্জন করেন। স্বাধীনতা দিবস উদযাপন ও কৃতী শিক্ষার্থী সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে কলেজের সম্মান ক্যাটাগরিতে সাত পয়েন্ট পেয়ে চ্যাম্পিয়ন জাহিদুল ইসলামের হাতে সনদপত্র তুলে দেন কলেজ অধ্যক্ষ অধ্যাপক নিতাই চন্দ্র চন্দ, সাহিত্য-সাংস্কৃতিক প্রতিযোগিতার আহ্বায়ক অধ্যাপক শামীমা আকতার চৌধুরী, কলেজ শিক্ষক পরিষদ সম্পাদক তোতিউর রহমান সহ অতিথিবৃন্দ।

মৌলভীবাজারের জুড়ী উপজেলার নয়া বাজার আহমদিয়া ফাজিল মাদ্রাসার প্রাক্তন জিএস জাহিদুল ইসলাম একজন প্রফেশনাল মোটিভেশনাল স্পীকার। মৌলভীবাজার জেলার বিভিন্ন স্কুল, কলেজ ও বিভিন্ন সংগঠনের প্রোগ্রামাদিতে প্রায় নিয়মিতই শিক্ষার্থীদের উদ্দীপনামূলক বক্তব্য প্রদানের দায়িত্ব পালন করতে হয় তাকে।

জানা গেছে নিয়মিত বক্তৃতা, বিতর্কের পাশাপাশি প্রবন্ধ, কবিতা লিখা ও আবৃত্তিতে পারদর্শী এ শিক্ষার্থী বিভিন্ন সামাজিক ও সাংস্কৃতিক সংগঠনের সাথে জড়িত। এমসি বিশ্ববিদ্যালয় কলেজ ক্যাম্পাসের প্রিয়মুখ, সদা হাস্যোজ্জল রাষ্ট্রবিজ্ঞান সম্মান তৃতীয় বর্ষের এ ছাত্র প্রথম ও দ্বিতীয় বর্ষে পেয়েছেন প্রথম শ্রেণী। নয়া বাজার আহমদিয়া ফাজিল মাদ্রাসা থেকে দাখিল ও আলিম পরীক্ষায় জিপিএ-৫ পেয়ে উত্তীর্ণ হওয়া ও শিক্ষার্থী পারিবারিক ব্যবসার দিকটিও ভাল করে দেখে থাকেন। মা-বাবার অনুপ্রেরণায় একের পর এক সাফল্যের মুকুট পড়া জাহিদুল ইসলাম ভবিষ্যতে প্রশাসনের গুরুত্বপূর্ণ পদে গিয়ে দেশ ও জনগণের সেবা করতে চান।

  

এডিটর: আনিছুল ইসলাম আশরাফী, এনিমেটরস্ বাংলা মিডিয়া গ্রুপ কর্তৃক প্রকাশিত
সম্পাদকীয় কার্যালয়: কলেজ রোড, শ্রীমঙ্গল, মৌলভীবাজার।
Email: news.amarsylhet24@gmail.com Mobile: 01772 968 710

Developed By : i-Tech Sreemangal
Email : itech.official@hotmail.com
Facebook : http://facebook.com/itech.ctc