Monday 26th of October 2020 03:16:26 PM

ইমাম আহমদ রেযা শাহ শামছুদ্দীন আখঞ্জী (রহঃ) সুন্নীয়া দাখিল মাদ্রাসার

আমার সিলেট টুয়েন্টিফোর ডটকম,২৪জুন,চুনারুঘাট প্রতিনিধিঃ হবিগঞ্জের চুনারুঘাট উপজেলার আহম্মদাবাদ ইউনিয়নের ঐতিহ্যবাহী সুনামধন্য দ্বীনি শিক্ষা প্রতিষ্ঠান ইমাম আহমদ রেযা শাহ শামছুদ্দীন আখঞ্জী (রহঃ) সুন্নীয়া দাখিল মাদ্রাসায় ইবতেদায়ী সমাপনী পরীক্ষায় ৩টি ট্যালেন্টপুল ও ২টি সাধারণ বৃত্তি পেয়ে উপজেলায় ১ম স্থান অধিকার করেছে। পাশাপাশি জেডিসি ও দাখিল পরীক্ষায় শতভাগ ফলাফল সুনামের সহিত অর্জন করে আসছে প্রতিষ্ঠানটি। ২০১৬ সনে অনুষ্ঠিত ইবতেদায়ী সমাপনী পরীক্ষায় ট্যালেন্টপুলে বৃত্তি পেয়েছে ১. মোছাঃ তায়্যিবা আখঞ্জী, ২. মোছাঃ তানিয়া জান্নাত বিথি, ৩. মোঃ আল-আমিন ও সাধারণ বৃত্তি পেয়েছে ১. রিয়াজ উদ্দিন নয়ন ও ২. মোঃ আবুল খায়ের।

উক্ত ইমাম আহমদ রেযা শাহ শামছুদ্দীন আখঞ্জী (রহঃ) সুন্নীয়া দাখিল মাদ্রাসাটি ২০১২ সালে প্রতিষ্ঠিত হয়। প্রতিষ্ঠার পর থেকেই মাদ্রাসাটি সুনামের সাথে পরিচালিত হয়ে আসছে। উক্ত মাদ্রাসার প্রতিষ্ঠাতা সুপার পীরজাদা আলহাজ্ব মাওলানা শাহজালাল আহমদ আখঞ্জী। মাদ্রাসাটি ১২ জন শিক্ষক/শিক্ষিকা দ্বারা পরিচালিত হয়ে আসছে।

এ ব্যাপারে মাদ্রাসার প্রতিষ্ঠাতা সুপারসহ শিক্ষকবৃন্দরা ও এলাকার সচেতন মহলসহ বর্তমান সরকারের প্রতি, ইসলামী শিক্ষার প্রতিষ্ঠানটির উন্নয়নের জন্য  জোর দাবি জানিয়েছেন।

 

 আমার সিলেট টুয়েন্টি ফোর ডটকম,১৩এপ্রিলঃ সদ্য জঙ্গিদের ফাঁসিতে এক পিতৃহারা সন্তানের ফেইজ বুকের একটি স্ট্যাটাস হুবহু তুলে ধরা হল।   “দিনটি ছিল শুক্রবার ,২১ শে মে ২০০৪। জুম্মার নামাজের পর শাহ জালাল (রহঃ) মাজারে বোমা হামলা হল।অনেকে নিহত হলেন,আহত হলেন বাংলাদেশে নিযুক্ত ব্রিটিস হাই-কমিশনার সহ অনেকে।খবরটি শুনা মাত্রই নারায়নগঞ্জে দফায় দফায় বৈঠক ডাকবেন আব্বা হুজুর আল্লামা বাকী বিল্লাহ (রহঃ)।

আল্লামা বাকী বিল্লাহ (রহঃ)

এর মাত্র দুই/তিনমাস আগেও একবার শাহ জালাল (রহঃ) এর দরবারে বোমা হামলা হয়েছিল, তখনও এর প্রতিবাদে ও হামলাকারীদের গ্রেফতার ও শাস্তির দাবিতে অনেক আন্দোলন সংগ্রাম তিনি করেছেন। হামলা গুলো হচ্ছিল তৎকালীন জোট সরকারের ছত্রছায়ায়।তাইতো তিনি লালদীঘীতে বলেছিলেন “এই বোমা শাহ জালালের দরগায় মারেনি,এই বোমা মেরেছে এদেশের সুন্নী জনতার উপরে,এই বোমার জবার সংসদে যেয়ে ইনশাআল্লাহ আমরা একদিন দেব”।

২১ শে মে ২০০৪ পুনরায় হামলা হলে তার জবাবে সুন্নি মুসলমানদের নিয়ে দুর্বার আন্দোলন গড়ে তুলার যাবতীয় প্রস্তুতি তিনি চুড়ান্ত করেন, যার সূচনা করতে ঐদিনই তিনি কয়েক দফা বৈঠকে বসেন। বৈঠকে সিদ্ধান্ত হয় ২৩ শে মে নারায়নগঞ্জে বিশাল প্রতিবাদ সমাবেশে পরবর্তী কর্মসূচি ঘোষনা হবে এবং এর দোষীদের শাস্তি না হওয়া পর্যন্ত সুন্নিরা ঘরে ফিরে যাবে না।২২ শে মে তিনি রওনা হন তার পূর্ব নির্ধারিত চাদপুরের একটি মাহফিলে,এবং পরের দিনও একই এলাকায় মাহফিল।কিন্তু প্রতিবাদ সমাবেশে যোগদিতে তিনি ঐ রাতেই রওনা করলেন নারায়নগঞ্জের উদ্যেশ্যে।পূর্ব নির্ধারিত সূচি বাতিল করে প্রতিবাদ সমাবেশে অংশ নিতেই তিনি নারায়নগঞ্জে ফিরছিলেন।কিন্তু সেই রাতে কি ঘটেছে তা আজও আমাদের অজানা।

যাদেরকে ফাসির কাষ্টে ঝুলানোর শপথ নিয়ে তিনি ঘর থেকে বেরিয়ে আর ফিরে আসেননি,আজ ১৩ বছর পর তাদের ফাসি হল।সত্য প্রতিষ্ঠার আন্দোলন কখনও বিফলে যায় না,যেটি আমরা তাকে হারানোর ১৩ বছর পরে আজকের এইদিনে সাক্ষী হলাম।” সুত্র-  Abdul Mustafa Rahim

  

এডিটর: আনিছুল ইসলাম আশরাফী, এনিমেটরস্ বাংলা মিডিয়া গ্রুপ কর্তৃক প্রকাশিত
সম্পাদকীয় কার্যালয়: কলেজ রোড, শ্রীমঙ্গল, মৌলভীবাজার।
Email: news.amarsylhet24@gmail.com Mobile: 01772 968 710

Developed By : i-Tech Sreemangal
Email : itech.official@hotmail.com
Facebook : http://facebook.com/itech.ctc