Monday 26th of October 2020 10:01:19 AM

“গ্যাসের মূল্য বাড়িয়ে বাজেটে পণ্যমূল্য না বাড়ার যে প্রতিশ্রুতি দেয়া হয়েছে তা ভঙ্গ করা হয়েছে। কেবল তাই নয়, বাজেট অনুমোদনের কয়েক ঘণ্টার মধ্যে গ্যাসের মূল্য বৃদ্ধির ঘোষণা দিয়ে বিইআরসি সংসদকেও অপমান করেছে। সংসদে বাজেট আলোচনায় আমিসহ এ বিষয়ে বাজেট পরবর্তী অধিবেশনের দিনগুলোতে আলোচনা করার প্রস্তাব দিয়েছিলাম। অন্যরাও কথা বলেছিলেন। সে সব কথার যে মূল্য নেই তা বোঝা যাচ্ছে। সংসদে খোলাখুলি আলোচনায় গ্যাসের মূল্য সমন্বয়ের বিষয়টি সম্পর্কে সিদ্ধান্ত নেয়া যেত। এতে না সংসদ, না সরকার, কার কল্যাণ হল।”
আজ ৪ জুলাই বরিশালের বাবুগঞ্জ উপজেলা সদরে বাংলাদেশের ওয়ার্কার্স পার্টির বাবুগঞ্জ উপজেলা কমিটি ও প্রতিটি ইউনিয়নের শাখা সম্পাদকদের এক যৌথসভায় ওয়ার্কার্স পার্টির সভাপতি কমরেড রাশেদ খান মেনন এমপি একথা বলেন। মেনন বলেন, গ্যাসের মূল্য বৃদ্ধিতে কেবল গৃহস্থালী খরচই বাড়বে না, কৃষকের সার, সেচের বিদ্যুত, পোশাক ও সূতাকল শিল্প, পরিবহনসহ অর্থনীতির সকল খাতের ব্যয় বৃদ্ধি পাবে। এতে কতখানি মূল্যস্ফিতি ঘটবে তা নিরূপনের বিষয়। কিন্তু সাধারণ মানুষ একে ভালভাবে নেয়নি।
মেনন বলেন, চৌদ্দ দলের দায়িত্ব হবে সরকার ও তার বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানের এ ধরনের কাজের বিরোধিতা করা। আর শরীক দল হিসেবে এ ধরনের প্রতিটি ক্ষেত্রে ওয়ার্কার্স পার্টি জনগণকে ঐক্যবদ্ধ করে আন্দোলন করবে। তার জন্য পার্টির সক্ষমতা বাড়াতে পার্টি কংগ্রেসকে সামনে রেখে বাবুগঞ্জের প্রতিটি ইউনিয়নে পার্টিকে আরও দৃঢ়ভিত্তির উপর সংগঠিত করবে।
ওয়ার্কার্স পার্টির বাবুগঞ্জ উপজেলা শাখার সাধারণ সম্পাদক কমরেড শাহজাহান তালুকদারের সভাপতিত্বে সভায় আরও বক্তব্য রাখেন কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য বরিশাল জেলা সভাপতি কমরেড অধ্যাপক নজরুল হক নিলু, সাধারণ সম্পাদক সাবেক সংসদ সদস্য কমরেড এ্যাড. টিপু সুলতান, উপজেলা কমিটির সদস্য কমরেড অধ্যাপক গোলাম হোসেন, মতিউর রহমান কালু মাস্টার, খলিলুর রহমান, চেয়ারম্যান আনিসুর রহমান সবুজ, শাহীন হোসেন, জামাল উদ্দিন ও শাখা সম্পাদকগণ।

আমারসিলেট টুয়েন্টিফোর ডটকম,২৪মে,বেনাপোল প্রতিনিধি: সরকার শুল্কমুক্ত সুবিধায় ভারতীয় পেঁয়াজ আমদানির সুযোগ দিলেও বাজার নিয়ন্ত্রণে ব্যর্থতায় এক সপ্তাহের ব্যবধানে ১৭ টাকার পেঁয়াজ বেড়ে এখন ৩০ টাকায় কিনতে হচ্ছে ক্রেতাদের। অতিরিক্ত মুনাফালোভী বিক্রেতাদের কারসাজির কারণে অস্বাভাবিক হারে মূল্য বৃদ্ধিতে ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন ক্রেতারা। বাজার মূল্য নিয়ন্ত্রণ করতে না পারায় রমজানে পেঁয়াজের মূল্য বেড়েছে অস্বাভাবিক হারে।

বেনাপোল স্থলবন্দর দিয়ে ভারত থেকে ব্যাপক হারে পেঁয়াজ আমদানি শুরু হয়েছে। বাজার সহনশীল রাখতে এবং পেঁয়াজ আমদানি গতিশীল করতে বেনাপোল বন্দর ২৪ ঘণ্টা খোলা রাখার নির্দেশনা দিয়েছে।

গত সোমবার থেকে এ পর্যন্ত বেনাপোল স্থলবন্দর দিয়ে সাত দিনে ৩০৬টি ট্রাকে ১০২টি চালানের মাধ্যমে ভারত থেকে ১০ হাজার ৭৫ মেট্রিক টন পেঁয়াজ আমদানি হয়েছে। রমজান উপলক্ষে দিন দিন আমদানি আরও বেড়ে চলেছে। ভারত থেকে নাসিক, হাসখালী, বেলেডাঙ্গা ও খড়কপুর জাতের পেঁয়াজ আমদানি হয়ে থাকে। আমাদের দেশে নাসিকের পেঁয়াজের চাহিদা বেশি।

এর আগে ১০ শতাংশ শুল্ক কর দিয়ে পেঁয়াজ আমদানি হতো। তখন কেজিপ্রতি ৪০ থেকে ৫০ টাকা পর্যন্ত খুচরা বাজারে কিনতে হতো সাধারণ ক্রেতাদের। নিত্য প্রয়োজনীয় খাদ্যদ্রব্য পেঁয়াজের বাজার মূল্য ক্রেতাদের ক্রয়ক্ষমতার সাধ্যের মধ্যে রাখতে ১৬ সালের রোজার আগে সরকার পেঁয়াজের উপর আমদানি শুল্ককর প্রত্যাহার করে। তখন থেকে আর শুল্ককর সংযোজন হয়নি। তবে শুল্ককর উঠলেও অতিরিক্ত লাভে বিক্রেতাদের সিন্ডিকেটের কারণে হঠাৎ করে অস্বাভাবিক হারে পেঁয়াজের মূল্য বেড়েছে।

ভারতের রফতানি মূল্যে প্রতি মেট্রিক টন পেঁয়াজ আমদানি হচ্ছে ২০৫ মার্কিন ডলার। যা বাংলাদেশি টাকায় প্রতি টনের মূল্য দাড়ায় ১৭ হাজার ১৫ টাকা। কেজিপ্রতি আমদানি খরচ পড়ছে প্রায় ১৮ টাকা। এলসি খরচসহ অন্যান্য খরচ মিলিয়ে বেনাপোল স্থলবন্দর পর্যন্ত পেঁয়াজ পৌঁছাতে খরচ পড়ছে প্রতিকেজি ১৯ টাকা। আমদানি হওয়া পেঁয়াজ বন্দর থেকে পাইকারি বাজারে বিক্রি হচ্ছে প্রতি কেজি ৩০ টাকা।

বেনাপোল কাস্টমস কমিশনার বেলাল হোসেন চৌধুরী বলেন, বেনাপোল স্থলবন্দর দিয়ে ভারত থেকে ব্যাপক হারে পেঁয়াজ আমদানি শুরু হয়েছে। বাজার সহনশীল রাখতে এবং পেঁয়াজের আমদানি গতিশীল করতে বেনাপোল বন্দর ২৪ ঘণ্টা খোলা রাখার নির্দেশনা দেওয়া হয়েছে।

আমারসিলেট টুয়েন্টিফোর ডটকম,২৩সেপ্টেম্বর,ঠাকুরগাঁও প্রতিনিধিঃ ঠাকুরগাঁওয়ের পীরগঞ্জে শনিবার সকালে বাংলাদেশের কমিউনিস্ট পার্টির পীরগঞ্জ উপজেলা শাখার উদ্যোগে চালের অসহনীয় মূল্য বৃদ্ধি বন্ধ করার লক্ষ্যে বিক্ষোভ মিছিল ও জনসভা অনুষ্ঠিত হয়। চালের মূল্য নিয়ন্ত্রণ করা, ঘুষ দূর্নীতি লুটপাট রুখে দাঁড়াও দাবীতে উপজেলা শাখার উদ্যোগে বিক্ষোভ মিছিল ও জনসমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়েছে।

পীরগঞ্জ পৌর শহরের প্রধান প্রধান সড়কে বিক্ষোভ মিছিল শেষে পূর্ব চৌরাস্তায় সমাবেশে মিলিত হয়। উক্ত সমাবেশে বক্তব্য রাখেন পীরগঞ্জ উপজেলা শাখা কমিউনিস্ট পার্টির সভাপতি মোঃ কমরেড মুনসুরুল আলম ও তার সভাপতিত্বে সভায় বক্তব্য রাখেন বাংলাদেশের কমিউনিস্টি পার্টি পীরগঞ্জ উপজেলার সাধারণ সম্পাদক এ্যাডভোকেট আবু সায়েম, উপজেলা কমিউনিস্ট পার্টির অন্যতম নেতা আজাদ মাষ্টার, সাবেক ছাত্র ইউনিয়নের নেতা ও কৃষক নেতা এস.এম চন্দন, মর্তুজা আলম প্রমূখ।

আমার সিলেট টুয়েন্টি ফোর ডটকম,১৩মে,ডেস্ক নিউজঃ   বিদেশে টাকা পাচার রোধে সরকার জমির মূল্য নির্ধারণ করে দেবে না বলে জানিয়েছেন অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিত।

সচিবালয়ে শনিবার (১৩ মে) অর্থনৈতিক রিপোর্টার্স ফোরামের (ইআরএফ) সঙ্গে প্রাক-বাজেট আলোচনায় এক প্রশ্নের জবাবে অর্থমন্ত্রী এ কথা জানান।

সরকার এলাকাভেদে ন্যূনতম জমির দাম নির্ধারণ করে দেয়। প্রকৃত অনেক বেশি দামে জমির বিক্রি হলেও জমির মালিকরা সরকারি নির্ধারিত ন্যূনতম দাম ধরে কর পরিশোধ করে থাকেন। অতিরিক্ত টাকা কালোটাকা হিসেবে বিদেশে পাচার হয় বলেও অভিযোগ রয়েছে।

অর্থমন্ত্রী বলেন, ‘টাকা পাচার হচ্ছে জানি। টাকা পাচারের বিভিন্ন কারণ রয়েছে। আমরা একটা ল্যান্ড প্রাইস ফিক্সড করে দিই কিন্তু একচুয়াল প্রাইস অনেক বেশি হয়। এই টাকা কী করবে, এটা এ দেশে ব্যবহার করতে পারে না কারণ কালোটাকা। আমরা এখন চিন্তা করছি, কোনো ল্যান্ড প্রাইস রাখব না।  বাজারই দাম নির্ধারণ করবে। এটা টাকা পাচার প্রতিরোধে কাজ করবে।’

অর্থমন্ত্রী সাংবাদিকদের আরো বলেছেন, আমাদের দেশে এখন বিনিয়োগ পরিবেশ ভালো। ২০১৫ ও ২০১৬ দুটি বছর পেয়েছি শান্তিপূর্ণ। দুটি বছরে আমাদের শ্রমিকরা প্রমাণ করেছেন তারা দেশে হরতাল ও অন্যান্য ধরনের শান্তির ব্যাঘাত সহ্য করবে না। এর ফলে একটা আস্তা এসেছে, এর সাড়াও  আমরা দেখতে পাব।’ তবে গতকালই রাজধানীতে এক অনুষ্ঠানে বিআইডিএস মহাপরিচালক কেএএস মুর্শিদ বলেছেন, দেশের ব্যবসায়ীদের মধ্যে আস্থার অভাবে বিনিয়োগ বাড়ছে না। একই কারণে বিদেশে অর্থপাচার হচ্ছে বলেও তিনি  মন্তব্য করেছেন।

এ প্রসংগে ঢাকার একটি রিয়েল এস্টেট কোম্পানীর জেনারেল ম্যানেজার  মফিজ আলম রেডিও তেহরানকে বলেন, সরকারের এ ঊদ্যোগ  টাকা পাচার রোধে তেমন একটা কাজে আসবে না। তিনি মনে করেন জমি বা তৈরী ফ্লাট কেনা বেচার ক্ষেত্রে রেজিষ্টেশেন ফি কমালে সাধারন বা মধ্যম আয়ের ক্রেতারা ঊপকৃত হতে পারে।

ওদিকে, আবাসন শিল্পের  সঙ্কটাবস্থায় কাটাতে  সরকারের আশু পৃষ্ঠপোষকতা কামনা করেছে আবাসন শিল্পের প্রতিনিধিত্বকারী সংগঠন বাংলাদেশ এস্টেট অ্যান্ড হাউজিং অ্যাসোসিয়েশন (রিহ্যাব)। রিহ্যাব আসন্ন বাজেটে এ সেক্টরে স্বল্প সুদে ২০ হাজার কোটি টাকার একটি তহবিল গঠনের দাবি করেছে। রিহ্যাব একইসাথে এপার্টমেন্টের রেজিস্ট্রেশন ব্যয় কমানোরও আহবান জানায়।

আজ শনিবার সকালে রাজধানীর সিরডাপ মিলনায়তনে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে সংগঠনের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি লিয়াকত আলী ভূঁইয়া  জানান, সার্কভুক্ত দেশগুলোর মধ্যে বাংলাদেশেই সর্বোচ্চ ১৪ শতাংশ রেজিস্ট্রেশন ব্যয়। অন্যান্য দেশে রেজিস্ট্রেশন ব্যয় চার থেকে সাত শতাংশের মধ্যে সীমাবদ্ধ। তিনি বলেন, রেজিস্ট্রেশন ব্যয় বেশি বলে অনেকেই রেজিস্ট্রেশন করতে চাচ্ছেন না। ফলে অপ্রদর্শিত আয়ের সমস্য থেকেই যাচ্ছে।পার্সটুডে

আমার সিলেট টুয়েন্টি ফোর ডটকম,২২এপ্রিলঃ গ্যাস বিদ্যুৎ গ্রাহক কল্যাণ পরিষদের কেন্দ্রীয় সিনিয়র যুগ্ম আহবায়ক নাসির উদ্দিন এডভোকেট, যুগ্ম আহবায়ক ইকবাল হোসেন চৌধুরী, সদস্য সচিব জননেতা মকসুদ হোসেন, আহবায়ক কমিটির সদস্য মুক্তিযোদ্ধা খলিলুর রহমান এক যুক্ত বিবৃতিতে গণমত উপেক্ষা করে গ্যাসের পর এবার বিদ্যুতের মূল্য বৃদ্ধির সংবাদে গভীর উদ্বেগ-উৎকন্ঠা ও তীব্র নিন্দা জানিয়ে বলেন, উৎপাদন ব্যয় বাড়ানোর অজুহাত দেখিয়ে বিদ্যুতের মূল্য বৃদ্ধির উদ্যোগ অগ্রহণযোগ্য। আন্তর্জাতিক বাজারে জ্বালানি তেলের দাম কমার ফলে বিদ্যুৎ উৎপাদন খরচ অনেক কমেছিল তখন সরকার বিদ্যুতের দাম কমানো হলো না কেন? গণমাধ্যমে প্রকাশিত বিদ্যুৎ উৎপাদনের বেশী খরচের যে হিসাব তুলে ধরা হইতেছে তা প্রকৃত সত্য নয়।
নেতৃবৃন্দ বলেন, ২০১০ সালের ১লা মার্চ থেকে ২০১৫ সালের ১লা সেপ্টেম্বর পর্যন্ত সরকার পাইকারী ও খুচরা পর্যায়ের বিদ্যুতের দাম ৭ বার বৃদ্ধি করেছেন। অন্যদিকে গ্রাহকগণ ঐক্যবদ্ধ না থাকার ফলে বার বার গ্যাস ও বিদ্যুতের মূল্য বৃদ্ধির প্রক্রিয়া ক্রমেই বাড়ানো হচ্ছে। অথচ এক শ্রেণীর রাজনৈতিক, ব্যবসায়ী, পীর মাশায়েখ নামধারীরা দেশের এই জনগুরুত্বপূর্ণ নাগরিক সমস্যা সমাধানকল্পে যেমন-দুর্নীতি, বাস ভাড়া, রেল ভাড়া, দ্রব্যমূল্য, যানজট ও গ্যাস-বিদ্যুতের মূল্য বৃদ্ধির ব্যাপারে রাজপথে তাদের দৃশ্যমান কোন কর্মসূচি নেই। নির্বাচন, ভাস্কর্য ও দলীয় গোষ্ঠী ইজম ও পীরবাদ সহ ব্যক্তিতন্ত্র প্রতিষ্ঠার লক্ষ্যে তারা খুবই ব্যতিব্যস্ত এই চক্র থেকে জনগণকে হুশিয়ার থাকার আহবান জানিয়ে তারা বলেন, আল্লাহর ওয়াস্তে আন্তর্জাতিক বাজারের সঙ্গে দেশের জ্বালানি তেলের দামের সমন্বয়ে করা গেলে বিদ্যুৎ উৎপাদনের খরচ কমে আসবে। জনগণ গ্যাস ও বিদ্যুতের আর বাড়তি দাম দিতে অক্ষম।
নেতৃবৃন্দ সরকারকে উদ্দেশ্য করে বলেন, মুষ্টিমেয় দুর্নীতিবাজ গোষ্ঠীর স্বার্থসিদ্ধির জন্য দেশের জনগণের উপর ট্যাক্সের বোঝা কমিয়ে বড় বড় দুর্নীতিবাজদের বিষয় সম্পত্তি বাজেয়াপ্ত করে রাজস্ব ভান্ডার শক্তিশালী করার আহবান জানান।প্রেস বার্তা

আমার সিলেট টুয়েন্টিফোর ডটকম,০১মার্চ,শ্রীমঙ্গল প্রতিনিধিঃ  গ্যাসের মূল্য বৃদ্ধির প্রতিবাদে বুধবার সকাল ১১টায় শ্রীমঙ্গল চৌমুহনা চত্তরে এক মানববন্ধন অনুষ্ঠিত হয়। বাংলাদেশ ইসলাম ফ্রন্ট-যুবসেনা,ছাত্রসেনার ব্যানারে মানববন্ধনে সভাপতিত্ব করেন উপজেলা ফ্রন্টের সভাপতি মাওলানা তাজুল ইসলাম।

বক্তব্য রাখেন উপজেলা ফ্রন্টের সাধারন সম্পাদক মাওলানা দেলোয়ার হোসেন আলকাদরি, উপজেলা যুবসেনা সভাপতি ডা. মো: মামুনুর রশিদ, সাংগঠনিক সম্পাদক মনিরুল ইসলাম চৌধুরী মোহন, জেলা ছাত্রসেনার সভাপতি এম এম রাসেল মোস্তফা, সাংগঠনিক সম্পাদক মো: আশরাফুল খান রুহেল, উপজেলা ছাত্রসেনা সাধারণ সম্পাদক, হাফিজুল রহমান জুলহাসের সঞ্চালনায় উপস্থিত ছিলেন শ্রীমঙ্গল উপজেলা পল্লী চিকিৎসক সমিতি সভাপতি ডা.রাধাকান্ত দাশ, মোঃ সাজ্জাদ আল করিমি, শাহ্ মো: বাবুল মিয়া, মো: আছকির মিয়া, ইস্তিয়াক আহমেদ, ইমান আলী, বরুন বোনার্জীসহ প্রিন্টমিডিয়া ও অনলাইন মিডিয়ার সাংবাদিকবৃন্দ, সাংস্কৃতিক কর্মীসহ বিভিন্ন সামাজিক সংগঠনের নেতাকর্মী ও ব্যক্তিবর্গগণ এ সময় উপস্থিত ছিলেন।

উল্লেখ্য,বাংলাদেশ এনার্জি রেগুলেটরি কমিশন দুই ধাপে গ্যাসের দাম বাড়ানোর যে গণবিজ্ঞপ্তি দিয়েছে তার দ্বিতীয় ধাপের কার্যকারিতা ছয় মাসের জন্য স্থগিত করে দিয়েছে হাইকোর্ট। সেই সঙ্গে ‘আইনের ব্যত্যয় ঘটিয়ে’ দেয়া ওই গণবিজ্ঞপ্তি কেন অবৈধ ঘোষণা করা হবে না- তা জানতে চেয়ে রুল জারি  করেছেন।

 

  

এডিটর: আনিছুল ইসলাম আশরাফী, এনিমেটরস্ বাংলা মিডিয়া গ্রুপ কর্তৃক প্রকাশিত
সম্পাদকীয় কার্যালয়: কলেজ রোড, শ্রীমঙ্গল, মৌলভীবাজার।
Email: news.amarsylhet24@gmail.com Mobile: 01772 968 710

Developed By : i-Tech Sreemangal
Email : itech.official@hotmail.com
Facebook : http://facebook.com/itech.ctc