Wednesday 2nd of December 2020 09:10:05 AM

নাজমুল হক নাহিদ, আত্রাই (নওগাঁ) প্রতিনিধি: নওগাঁর আত্রাইয়ে ভ’মি ও গৃহহীনদের জন্য মুজিববর্ষের উপহার হিসেবে নির্মিত হচ্ছে ‘স্বপ্ননীর’। ভূমি ও গৃহহীনদের জন্য আশ্রয়ণ-২ প্রকল্পের অধীনে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মো. ছানাউল ইসলাম এর তত্তাবধানে একযোগে উপজেলার ৫টি স্থানে ১৭৫টি ঘড়ের নির্মাণ কাজ চলছে। প্রতিটি ভ’মি ও গৃহহীন পরিবারের জন্য থাকছে দ্বি-কক্ষ বিশিষ্ট আধুনিক সুযোগ সুবিধা সম্বলিত এ ঘর। নিদিষ্ট সময়ের মধ্যে নির্মাণকাজ সম্পন্ন হবে বলে আশা করছেন উপজেলা নির্বাহী অফিসার মো. ছানাউল ইসলাম।

ইতোপূর্বে জনপ্রতিনিধি, ভূমি এবং প্রকল্প অফিসের সমন্বয়ে আশ্রয়ন প্রকল্পের স্থান নির্বাচন করা হয়। ঘড়গুলো আবেদনের প্রেক্ষিতে উপজেলার স্থায়ী বাসিন্দা ভূমি এবং গৃহহীনদের মাঝে দেওয়া হবে।

ইউএনও অফিসসূত্রে জানাযায়, মুজিববর্ষ উপলক্ষে ২০২০-২১ অর্থ বছরে আশ্রয়ণ-২ প্রকল্পে ভূমি ও গৃহহীনদের মর্যাদার সাথে বসবাসের লক্ষে সরকারের ‘ক’ শ্রেণিভুক্ত জমিতে ঘড় নির্মাণের সিদ্ধান্ত হয়। সিদ্ধান্ত অনুযায়ী সারা দেশের ন্যায় নওগাঁর আত্রাই উপজেলার মদনডাঙ্গা, মধুগুড়নই, তিলাবদুরী, হাটমোজাহারগঞ্জ এবং রসুলপুর নামক স্থানে ঘড় নির্মাণের কাজ দ্রুত এগিয়ে চলছে । এতে প্রতি পরিবারের জন্য দুই শতক জমির উপর দুটি চৌচালা বিশিষ্ট রঙ্গিন টিনের ঘড় তাতে দুটি করে প্লেন শীটের জানালা ও দরজা, ইটের দেয়াল এবং পাকা মেঝে রয়েছে। এছাড়া বারান্দা এবং আলাদা স্থানে রান্না ঘড় ও টয়লেটের ব্যবস্থা রয়েছে। প্রতি বাসগৃহে একলক্ষ একাত্তর হাজার টাকা বরাদ্দ ধরা হয়েছে।

এ বিষয়ে উপজেলা নির্বাহী অফিসার মো. ছানাউল ইসলাম বলেন, ভূমি ও গৃহহীনদের জন্য সামাজিক নিরাপত্তা বেষ্টনি সম্পন্ন বাসগৃহ নির্মাণ মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার অভিনব ও চমকপ্রদ একটি গুরুত্বপূর্ণ কর্মসূচী। মূলত প্রান্তিক জনগোষ্ঠীর বিভিন্ন নিরাপত্তা দেয়ার লক্ষ্যেই গ্রহণ করা হয়েছে এ প্রকল্প।

নির্দিষ্ট সময়ের মধ্যেই বাসগৃহগুলোর নির্মাণ কাজ সমাপ্ত করে ভ’মি ও গৃহহীনদের মাধে এ ঘরগুলো হস্তান্তর করা হবে বলে আশাবাদ ব্যক্ত করেন।

এম ওসমান : যশোরের শার্শায় জমি আছে ঘর নাই ও দূর্যোগ সহনীয় বাসগৃহ নির্মাণ প্রকল্পের আওতায় প্রধান মন্ত্রীর কার্যালয় এবং দূর্যোগ ব্যস্থাপনা মন্ত্রণালয় অতি দরিদ্র পরিবারে মাঝে ১টি করে বাসগৃহ নির্মাণ করে দিয়েছেন। বঙ্গবন্ধুর জন্ম শতবার্ষিকী উপলক্ষে ৩৬৬ পরিবারের মাঝে মঙ্গলবার দুপুরে এসব ঘর প্রদান অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসাবে উপস্থিত ছিলেন স্থানীয় সংসদ সদস্য আলহাজ্ব শেখ আফিল উদ্দিন।
পাকা ঘর পেয়ে খুশি হত দরিদ্র এসব পরিবার। তাই সরকারের এমন উদ্যেগকে স্বাগত জানিয়েছেন তারা।
যশোরের শার্শা উপজেলার ১১টি ইউনিয়নে হত দরিদ্রদের দুর্দশা লাঘবে জমি আছে ঘর নাই ও দূর্যোগ সহনীয় বাসগৃহ নির্মাণ প্রকল্পের আওতায় এসব পাকা বাড়ি তৈরি করে দিয়েছেন সরকার। জমি আছে ঘর নাই প্রকল্পে ৩ শত ৩৩টি ও দূর্যোগ সহনীয় প্রকল্পে আওতায় ৩৩টি পরিবারকে ঘর দেওয়া হয়েছে।
রোদ বৃষ্টি ঝড়ে ভাঙ্গা চুড়া ঘরে অনেক কষ্টে দিন যাপন করা মানুষ গুলো কখনো কল্পনা করতে পারেনি এমন বাড়িতে তারা বসবাস করতে পারবেন। এমন পরিস্থিতিতে নতুন বাড়ি পেয়ে খুশি তারা।
এসময় অন্যান্যদের মধ্যে আরও উপস্থিত ছিলেন, উপজেলা চেয়ারম্যান মুক্তিযোদ্ধা সিরাজুল হক মঞ্জু, উপজেলা আ’লীগের সাধারণ সম্পাদক আলহাজ্ব নুরুজ্জামান, জেলা পরিষদের সদস্য অধ্যক্ষ ইব্রাহিম খলিল, ভাইস চেয়ারম্যান মেহেদি হাসান, মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান আলেয়া ফেরদৌস, নাভারণ সার্কেল সহকারী পুলিশ সুপার জুয়েল ইমরান, উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা পুলক কুমার মন্ডল, উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভুমি) খোরশেদ আলম চৌধুরী, শার্শা থানার ভাপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি, তদন্ত) মাহমুদ আল্ ফরিদ ভুইয়া,  উপজেলা ছাত্রলীগের সভাপতি আব্দুর রহিম সরদার ও সাংবাদিকবৃন্দ প্রমূখ।

  

এডিটর: আনিছুল ইসলাম আশরাফী, এনিমেটরস্ বাংলা মিডিয়া গ্রুপ কর্তৃক প্রকাশিত
সম্পাদকীয় কার্যালয়: কলেজ রোড, শ্রীমঙ্গল, মৌলভীবাজার।
Email: news.amarsylhet24@gmail.com Mobile: 01772 968 710

Developed By : i-Tech Sreemangal
Email : itech.official@hotmail.com
Facebook : http://facebook.com/itech.ctc