Tuesday 1st of December 2020 06:19:08 PM

প্রবাসী ডেস্কঃ মালয়েশিয়ার বিভিন্ন সেক্টরে অভিবাসী কর্মী সঙ্কট চরমে পৌঁছেছে। কর্মীর অভাবে ফ্যাক্টরীসহ অন্যান্য সেক্টরে উৎপাদন প্রক্রিয়ায় ধস নেমেছে। কর্মী সংকটের দরুণ মধ্যপ্রাচ্য ও ইউরোপের দেশগুলোতে যথাসময়ে পণ্য সরবরাহে হিমসিম খাচ্ছেন মালয়েশিয়ার ফ্যাক্টরীর মালিকরা। বাংলাদেশ থেকে দ্রুত কর্মী পাঠিয়ে দেশটির উৎপাদন প্রক্রিয়ায় গতি ফিরিয়ে আনতে অনুরোধ জানিয়েছেন ফ্যাক্টরীর সংশ্লিষ্ট মালিকরা।

শিগগিরই মালয়েশিয়ায় অনলাইন ও ম্যানুয়াল প্রক্রিয়ায় বাংলাদেশ থেকে অপেক্ষমান প্রায় ৬০ হাজার কর্মী দেশটিতে যাওয়ার সুযোগ পাবে। বায়রার সভাপতি বেনজীর আহমেদের নেতৃত্বে তিন সদস্য বিশিষ্ট একটি প্রতিনিধি দল গত বুধবার মালয়েশিয়ার কুয়ালালামপুরস্থ বাংলাদেশ হাই কমিশনে হাই কমিশনার মোঃ শহিদুল ইসলামের সাথে বৈঠকে এতথ্য অবহিত করা হয়। কুয়ালালামপুর থেকে নির্ভরযোগ্য সূত্র এতথ্য জানিয়েছে। আগামী ১০ অক্টোবর মালয়েশিয়ার মন্ত্রিসভায় বাংলাদেশ থেকে কর্মী নিয়োগের চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত আসতে পারে বলে বায়রার একজন শীর্ষ কর্মকর্তা এ আশাবাদ ব্যক্ত করেছেন।
মালয়েশিয়ার বুকিত তাছর মোয়ার জেলার পিওয়্যর স্টার এসডিএন বিএইচ ডি , ওরা উড এসডিএন বিএইচডি ও সেলিং তাং পাপান এসডিএন বিএইচডির স্বত্বাধিকারী মিঃ পেউচিং হাউ গতকাল শনিবার বাংলাদেশী রিক্রুটিং এজেন্সীর ইয়াম্বু ট্রেড ইন্টারন্যাশনালের ওভারসীজ নির্বাহী মোঃ দেলোয়ার হোসাইনের কাছে ১শ’ ৭০ জন কর্মী দ্রুত নিয়োগের জন্য ওয়ার্ক অর্ডার হস্তান্তর করেন। মিঃ পেউচিং হাউ তার পরিচালিত ৭টি ফ্যাক্টরীর কর্মী সঙ্কটের চিত্র তুলে ধরে বলেন, অভিবাসী কর্মীর অভাবে বিদেশী ক্রেতার কাছে যথাসময়ে উৎপাদিত পণ্যসামগ্রী সরবরাহ করতে পারছেন না।

এতে উল্লেখিত ফ্যাক্টরীগুলো বৈদেশিক মূদ্রা অর্জনে মারাত্মকভাবে ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছে। কুয়ালালামপুর থেকে ইয়াম্বু ট্রেডের ওভারসীজ নির্বাহী দেলোয়ার হোসাইন বলেন, মালয়েশিয়ার বিভিন্ন সেক্টরে অভিবাসী কর্মীর অভাবে হাহাকার চলছে। তিনি বলেন, জনপ্রতি ১ হাজার রিংগিত বেসিকে কর্মী নিয়োগের ওয়ার্ক অর্ডার হাতে পেয়েছি। এসব কর্মীরা প্রতিদিন ৪ ঘন্টা করে ওভার টাইম করতে পারবে।
বিগত ২০১৭ সালের ১০ মার্চ থেকে সেপ্টেম্বর মাস পর্যন্ত জি-টু-জি প্লাসে দশ সিন্ডিকেট অনলাইনে নিবন্ধনের মাধ্যমে দেশটিতে দুই লক্ষাধিক কর্মী পাঠিয়েছে। বাংলাদেশের দশ সিন্ডিকেট একতরফা ও অনৈতিকভাবে ব্যবসা পরিচালনার মাধ্যমে মালয়েশিয়ায় শ্রমবাজার নিয়ন্ত্রণের অভিযোগ ওঠার পর দেশটির প্রধানমন্ত্রী ড. মাহথির মোহাম্মদ গত ১ সেপ্টেম্বরের পর বাংলাদেশ থেকে কর্মী নিয়োগ বাতিল করেন। কিন্তু ১ সেপ্টেম্বরের আগে কাজের অনুমতি পাওয়া প্রায় ৬০ হাজার কর্মীর মালয়েশিয়া যাওয়া নিয়ে অনিশ্চয়তা দেখা দেয়। অনলাইনে নিয়োগের প্রক্রিয়া বাতিল ঘোষণা করার পর থেকে বাংলাদেশি কোনো কর্মীকে আর কাজের অনুমতিপত্র দেয়নি মালয়েশিয়া।
ব্যাপক কূটনৈতিক তৎপরতায় ২৫ সেপ্টেম্বর দুই দেশের কর্মকর্তারা পুত্রাজায়ায় জয়েন্ট ওয়ার্কিং গ্রুপের বৈঠক করেন। মন্ত্রী পর্যায়ের অনুষ্ঠিত উল্লেখিত বৈঠকে বাংলাদেশ থেকে সকল বৈধ রিক্রুটিং এজেন্সির মাধ্যমে কর্মী নিতে দেশটির মানব সম্পদ মন্ত্রী এম কুলাসাগার সম্মত হন। বৈঠকে আটকেপড়া প্রায় ৬০ হাজার কর্মীকে মালয়েশিয়ায় নেয়ার বিষয়টিও নীতিগতভাবে সিদ্ধান্ত হয়। এছাড়া অবৈধ প্রবাসী বাংলাদেশী কর্মীদের বৈধতা দেয়ার সুযোগ দেয়ার বিষয়টি সিদ্ধান্ত নেয়া হয়।
গত ৩০ আগষ্টের আগে যেসব বাংলাদেশি কাজের অনুমতিপত্র পেয়েছে, তাদের সবাই আগামী ৩০ নভেম্বরের মধ্যে মালয়েশিয়ায় যাওয়ার সুযোগ পাবে । বাংলাদেশকে এ বিষয়ে আশ্বস্ত করেছে মালয়েশিয়া কর্র্তৃপক্ষ। বাংলাদেশী হাই কমিশনার মোঃ শহিদুল ইসলাম সম্প্রতি পুত্রাজায়ায় দেশটি সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের সাথে বৈঠকে বসলে তারা অপেক্ষমান বাংলাদেশী কর্মীদের অনলাইন ও ম্যানুয়াল প্রক্রিয়ায় নেয়ার আশ্বাস দেন। বায়রার সিনিয়র সহ-সভাপতি শফিকুল আলম ফিরোজ গতকাল বলেন, বায়রার সভাপতি বেনজীর আহমেদ ও বায়রার সাবেক মালয়েশিয়া স্ট্যান্ডিং কমিটির চেয়ারম্যান আলহাজ এমডি গিয়াস উদ্দিন বাবুলসহ আমরা হাই কমিশনার শহিদুল ইসলামের সাথে সম্প্রতি কুয়ালালামপুরে বৈঠকে বসেছিলাম।

বৈঠকে সকল বৈধ রিক্রুটিং এজেন্সি যাতে মালয়েশিয়ায় কর্মী পাঠানোর সুযোগ পায় সে বিষয়টি তুলে ধরেছি। হাই কমিশনার জানিয়েছেন, মালয়েশিয়া কর্তৃপক্ষ এখনো কোনো লিখিতভাবে কর্মী নেয়ার বিষয়টি অবহিত করেনি। তবে তারা আশ্বস্ত করেছেন, অপেক্ষমান সকল কর্মীকে নেয়ার সুযোগ দিবে। আগামী ১০ অক্টোবর মালয়েশিয়ার মন্ত্রিসভায় বাংলাদেশ থেকে কর্মী নেয়ার বিষয়টি চূড়ান্তভাবে অনুমোদন লাভ করতে পারে বলেও বায়রা নেতা ফিরোজ আশাবাদ ব্যক্ত করেন।
এদিকে, ঢাকাস্থ মালয়েশিয়ান হাই কমিশন কর্তৃপক্ষ গত বুধবার থেকে অপেক্ষমান বাংলাদেশী কর্মীর পাসপোর্ট জমা নেয়া শুরু করেছে। ইস্টার্ন বে-বাংলাদেশ-এর অপেক্ষমান শতাধিক কর্মীর পাসপোর্ট বুধবার মালয়েশিয়ান হাই কমিশনে জমা হয়েছে।

এছাড়া, বিভিন্ন রিক্রুটিং এজেন্সি অপেক্ষমান কর্মীদের ভিসা পাওয়ার জন্য প্রতিদিন হাই কমিশনে পাসপোর্ট জমা দিতে ভিড় জমাচ্ছে।ইনকিলাব

আমারসিলেট টুয়েন্টিফোর ডটকম,১২মে,ডেস্ক নিউজঃ মালয়েশিয়ার বহুল আলোচিত রাজনীতিক আনোয়ার ইব্রাহিম আগামী কয়েকদিনের মধ্যেই জেল থেকে ছাড়া পাবেন বলে ধারণা করা হচ্ছে। তিন বছর আগে সমকামিতার জন্য কারাদন্ডে দন্ডিত ইব্রাহিমকে সম্পূর্ণ ক্ষমা করে দিতে রাজি হয়েছেন দেশটির রাজা।

মালয়েশিয়ার নবনির্বাচিত প্রধানমন্ত্রী মাহাথির মোহাম্মদ তার অতীত ঘনিষ্ঠ মিত্র আনোয়ার ইব্রাহিমকে মুক্ত করার প্রতিশ্রুতি দিয়েছেন।

এক সংবাদ সম্মেলনে মাহাথির মোহাম্মদ বলেছেন, তার রাজনৈতিক মিত্র আনোয়ার ইব্রাহিম তিন বছর আগে সমকামিতার জন্য কারাদন্ডে দন্ডিত হয়েছিলেন। তাকে সম্পূর্ণ ক্ষমা করে দিতে রাজি হয়েছেন দেশটির রাজা।

মাহাথির মোহাম্মদ আরো বলেছেন, তিনি আগামি দুই বছরের মধ্যে পদ ছেড়ে দেবেন এবং তখন আনোয়ার ইব্রাহিমই পরবর্তী প্রধানমন্ত্রী হবেন।

আনোয়ার ইব্রাহিমের স্ত্রী ইতিমধ্যেই কারাগারে গিয়ে তার সাথে দেখা করেছেন বলে জানা গেছে।

সমকামিতার অভিযোগে আনোয়ার ইব্রাহিমকে দুবার জেলে যেতে হয় এবং প্রথমবার তার কারাদন্ড হয়েছিল মাহাথির মোহাম্মদ প্রধানমন্ত্রী থাকার সময়ই।

আনোয়ার ইব্রাহিম বরাবরই তার বিরুদ্ধে আনা অভিযোগ অস্বীকার করে বলেছেন, এগুলো রাজনৈতিক উদ্দেশ্যপ্রণোদিত।

তবে এবার মাহাথির মোহাম্মদের একটি নির্বাচনী অঙ্গীকারই ছিল যে তিনি আনোয়ার ইব্রাহিমকে মুক্ত করবেন।

নির্বাচনে ঐতিহাসিক বিজয়ের পর শুক্রবার এক সংবাদ সম্মেলনে তিনি বলেন, রাজা আভাস দিয়েছেন যে তিনি অবিলম্বে ইব্রাহিমকে ক্ষমা করে দেবেন।

মাহাথির মোহাম্মদ বলেন, এটা হবে সম্পূর্ণ ক্ষমা- যার অর্থ, তিনি যে শুধু ক্ষমা পাবেন তাই নয়, সঙ্গে সঙ্গেই তিনি মুক্তি পাবেন এবং তার রাজনীতি করার ওপরও কোন বাধা থাকবে না।

মালয়েশিয়ার নির্বাচনে জয়লাভ করে দেশটির প্রধানমন্ত্রী হয়েছেন ৯২ বছর বয়সী মাহাথির মোহাম্মদ। আগামী দুই বছরের মধ্যেই মাহাথির ক্ষমতা আনোয়ার ইবাহিমকে হস্তান্তর করবেন বললেও এখনই তাকে মন্ত্রিসভায় নেয়া হবে কিনা তা তিনি স্পষ্ট করে বলেন নি।

গত বুধবারের নির্বাচনের মধ্যে দিয়ে মালয়েশিয়ায় ছয় দশক ধরে ক্ষমতাসীন বারিসান নাসিওনাল কোয়ালিশনের পতন ঘটেছে।

মাহাথির মোহাম্মদ এবং আনোয়র ইব্রাহিম দুজনেই এক সময় এ জোটের সরকারের প্রধানমন্ত্রী এবং উপ প্রধানমন্ত্রী ছিলেন।

তবে বিদায়ী প্রধানমন্ত্রী নাজিব রাজাকের সময়কার ব্যাপক দুর্নীতির অভিযোগ ৯২ বছর বয়েসে মাহাথির মোহাম্মদকে অবসর থেকে আবার রাজনীতিতে ফিরিয়ে এনেছে।

নির্বাচনে পরাজিত জোটের কয়েক জন নেতা পরিবর্তনের ডাক দিয়ে বলেছেন, বিদায়ী প্রধানমন্ত্রী নাজিব রাজাকের পদত্যাগ করা উচিত।

রাজাকের বিরুদ্ধে ইতিমধ্যেই দুর্নীতির মামলা হয়েছে।

আমারসিলেট টুয়েন্টিফোর ডটকম,১১মে,ডেস্ক নিউজঃ ১৪তম সাধারণ নির্বাচনে অবিস্মরণীয় জয় পেয়ে মালয়েশিয়ার সপ্তম প্রধানমন্ত্রী হিসেবে শপথ নিয়েছেন মাহাথির মোহাম্মদ। স্থানীয় সময় আজ বৃহস্পতিবার রাত ৯টা ৩০ মিনিটে শপথ নিয়েছেন তিনি। দেশটির রাজা সুলতান মুহাম্মদ তাঁর বাসভবন ইস্তানা নিগারাতে এই শপথ অনুষ্ঠান পরিচালনা করেন।

দেশটির সংবাদ মাধ্যমে নিউ স্ট্রেইটস টাইমস বলছে, ওই শপথ অনুষ্ঠানে চিফ সেক্রেটারি ড. আলী হামজা, পুলিশের মহাপরিদর্শক (আইজি) মোহাম্মদ ফুজি হারুন এবং সশস্ত্র বাহিনীর প্রধান রাজা মোহাম্মদ আফেন্দি রাজা মোহাম্মদ উপস্থিত ছিলেন।

এদিকে নির্বাচনে মাহাথিরের জয়ে দেশটিতে দু’দিনের সাধারণ ছুটি ঘোষণা করা হয়েছে। মালয়েশিয়ার চিফ সেক্রেটারি আলী হামসা ১০ ও ১১ মে অর্থাৎ বৃহস্পতি ও শুক্রবার সাধারণ ছুটি ঘোষণা করেন। ছুটি আইন-১৯৫১ এর ৮ ধারা অনুযায়ী এই সাধারণ ছুটি ঘোষণা করা হয়।

গতকাল বুধবার অনুষ্ঠিত নির্বাচনে ১৯৫৭ সাল থেকে ক্ষমতায় থাকা ন্যাশনাল ফ্রন্টের পতন হলো। এক সময় এই জোট থেকেই প্রধানমন্ত্রী নির্বাচিত হয়েছিলেন মাহাথির। বর্তমানে ওই জোটের নেতৃত্বে আছেন বিদায়ী প্রধানমন্ত্রী নাজিব রাজাক।

সরকারি ফলাফলে দেখা গেছে, মাহাথিরের নেতৃত্বাধীন জোট ‘অ্যালায়েন্স অব হোপ’ ২২২টির মধ্যে ১১৩টি আসন নিশ্চিত করেছে। আর ৭৯টি আসন পেয়েছে নাজিব রাজাকের জোট।

মাহাথির মোহাম্মদ ১৯৮১ থেকে ২০০৩ সাল পর্যন্ত ২২ বছর প্রধানমন্ত্রী ছিলেন। তাঁর নেতৃত্বে মালয়েশিয়া অন্যতম ‘এশিয়ার টাইগারে’ পরিণত হয়। তবে তাঁর কর্তৃত্ববাদী নীতির অধীনে বিরোধী রাজনৈতিক নেতাদের কারাগারে যেতে হয়।

মাহাথির দেশটির সাবেক উপপ্রধানমন্ত্রী আনোয়ার ইব্রাহিমকে বরখাস্ত করেছিলেন। বিষয়টি বেশ আলোচিত হয়। আনোয়ার ইব্রাহিমের বিরুদ্ধে দুর্নীতি ও সমকামিতার অভিযোগ ওঠে। ১৯৯৮ সালে তিনি অর্থনৈতিক ও রাজনৈতিক সংস্কারের ডাক দিয়েছিলেন। তবে শেষ পর্যন্ত সমকামিতার দায়ে তাঁকে কারাগারে যেতে হয়।

ওই আনোয়ার ইব্রাহিমই এখন মাহাথিরের নেতৃত্বাধীন জোটের অন্যতম নেতা।

  

এডিটর: আনিছুল ইসলাম আশরাফী, এনিমেটরস্ বাংলা মিডিয়া গ্রুপ কর্তৃক প্রকাশিত
সম্পাদকীয় কার্যালয়: কলেজ রোড, শ্রীমঙ্গল, মৌলভীবাজার।
Email: news.amarsylhet24@gmail.com Mobile: 01772 968 710

Developed By : i-Tech Sreemangal
Email : itech.official@hotmail.com
Facebook : http://facebook.com/itech.ctc