Saturday 31st of October 2020 01:52:07 PM

আমার সিলেট টুয়েন্টিফোর ডটকম,০১এপ্রিল,হৃদয় দাশ শুভ,নিজস্ব প্রতিবেদক, বড়হাট মৌলভীবাজার থেকে: মৌলভীবাজার শহরের বড়হাটের জঙ্গি আস্তানায় পরিচালিত অপারেশন ম্যাক্সিমাসে নারীসহ তিনজন নিহত হয়েছে বলে জানিয়েছেন পুলিশের কাউন্টার টেরোরিজম ইউনিটের প্রধান মনিরুল ইসলাম।
শনিবার ( এপ্রিল ১) অভিযান শেষে ঘটনাস্থলে আয়োজিত এক প্রেসব্রিফিংয়ে এ কথা বলেন মনিরুল ইসলাম।

দীর্ঘ অভিযান শেষে শনিবার বেলা ১২ টার দিকে সংবাদ সম্মেলনে ঢাকা মহানগর পুলিশের (ডিএমপি) কাউন্টার টেররিজম ইউনিটের প্রধান মনিরুল ইসলাম বলেন, ‘‘আতিয়া মহলসহ বিভিন্ন জঙ্গি বিরোধী অভিযানে যেসব দক্ষ পুলিশ অফিসার হারিয়েছি, তাদের হত্যার মূল পরিকল্পনাকারী ছিল এই ‘আস্তানায়’। এখানে নিহত একজন পুরুষ জঙ্গি বিস্ফোরক বিশেষজ্ঞ ছিল। তাই অভিযান বিলম্বিত হয়েছে।’’

এই জঙ্গির বিস্তারিত পরিচয় জানলে চাইলে তিনি সাংবাদিকদের বলেন, আমরা এ বিষয়ে কাজ করছি। আপনারা পরে জানতে পারবেন।

এর আগে শুক্রবার সন্ধ্যায় আলোকস্বল্পতার কারণে অভিযান স্থগিত করা হয়েছিল। পরে শনিবার সকালে পুনরায় অভিযান শুরু করে আইনশৃঙ্খলা বাহিনী। অভিযান সম্পর্কে জেলা পুলিশ সুপার মো. শাহজালাল জানান, ওই আস্তানায় আটটা ৪৫ মিনিটে প্রথমে সোয়াট প্রবেশ করে। এরপর ১০টা ৮ মিনিটে ডিআইজি কামরুল আহসান, ১০টা ১০ মিনিটে বোম ডিসপোজাল টিম ও ১০টা ১৪ মিনিটে কাউন্টার টেররিজম ইউনিটের প্রধান মনিরুল ইসলাম ঘটনাস্থলে প্রবেশ করেন।

শুক্রবার দিনভর সোয়াটের অভিযানের সময় মুহুর্মুহু গুলি ও বিস্ফোরণের শব্দ পাওয়া যায়। ওই সময় আহত হন পুলিশের একজন সদস্য। তখন মনিরুল ইসলাম জানিয়েছিলেন, বড়হাটের জঙ্গি আস্তানায় বোমা বিশেষজ্ঞ রয়েছে, এছাড়া বাড়িতে রয়েছে প্রচুর বিস্ফোরক।

আমার সিলেট টুয়েন্টিফোর ডটকম,০১এপ্রিল,হাবিবুর রহমানঃ   বড়হাটে  সোয়াতের  অভিজানে নিহত হয়েছে ৩ জঙ্গি এর মধ্যে দুই জন পুরুষ ও এক জন  নারি  রয়েছে বলে  প্রেস ব্রিফিং এ  সিটিটিসি প্রধান মনিরুল ইসলাম জানিয়েছেন। নিহত জঙ্গিদের মধ্যে একজন সিলেটের আতিয়া মহলের পাশে বোমা বিস্ফোরণ ঘটিয়ে মৌলভীবাজারে চলে আসে বলে ও জানান তিনি।আজ শনিবার দুপুরে মৌলভীবাজারের বড়হাটের ঘটনাস্থলে প্রেস ব্রিফিংকালে তিনি এ তথ্য জানান।

আমার সিলেট টুয়েন্টিফোর ডটকম,৩১মার্চ,হৃদয় দাশ শুভ,নিজস্ব প্রতিবেদক,মৌলভীবাজার থেকেঃ মৌলভীবাজারের বড়হাটের জঙ্গি আস্তানায় আবারও বিকট শব্দে তিনটি বিস্ফোরণ ঘটেছে। এর জবাব দিচ্ছেন সোয়াট, সিআরটি ও কাউন্টার টেরেরিজম ইউনিট সদস্যরা।
এর আগে আজ শুক্রবার সন্ধ্যায় আলো স্বল্পতার কথা বলে এদিনের মতো “অপরেশন ম্যাক্সিমাস’ স্থগিতের ঘোষণা দেন কাউন্টার টেরোরিজম ইউনিটের প্রধান মনিরুল ইসলাম।

আমার সিলেট টুয়েন্টিফোর ডটকম,৩১মার্চ,হৃদয় দাশ শুভ,নিজস্ব প্রতিবেদক, মৌলভীবাজার থেকেঃ মৌলভীবাজার পৌরসভার বড়হাটে “জঙ্গি আস্তানায়” অভিযান স্থগিত করা হয়েছে। আজ শুক্রবার সন্ধ্যায় অভিযান স্থগিত করা হয়। পুলিশের কাউন্টার টেরোরিজম ইউনিটের প্রধান মনিরুল ইসলাম প্রেস ব্রিফিংয়ে এ তথ্য জানিয়েছেন।
তিনি বলেন, ‌আজকের জন্য অভিযান স্থগিত। আগামীকাল সকালে আবহাওয়া ভালো থাকলে ফের অভিযান শুরু হবে।
প্রেস ব্রিফিংয়ে তিনি আরো বলেন, বড়হাটের এই বাড়িটিতে অনেকগুলো কামরা আছে। এগুলোতে প্রচুর বিস্ফোরক রয়েছে। ভেতরে বোম্ব এক্সপার্ট রয়েছে বলেও আমরা ধারণা করছি। পরিস্থিতি জটিল। এজন্য অভিযানে সময় লাগছে।
শুক্রবার সকাল ৭টার দিকে বড়হাটের ওই বাড়ির সামনে পুলিশের উপস্থিতি বাড়ানো হয়। পৌনে ৮টার দিকে সিটিটিসি’র সোয়াট টিমের সদস্যরা সেখানে এসে পৌঁছান। রাতে অভিযান চালানো বেশি ঝুঁকিপূর্ণ বলে সকালে অভিযান চালানোর সিদ্দান্ত নেওয়া হয়।
এর আগে বৃহস্পতিবার মৌলভীবাজারের সদর উপজেলার খলিলপুর ইউনিয়নের সরকার বাজার এলাকার নাসিরপুর গ্রামে একটি জঙ্গি আস্তানায় পুলিশের কাউন্টার টেরোরিজম অ্যান্ড ট্রান্সন্যাশনাল ক্রাইম (সিটিটিসি) ইউনিটের সোয়াট টিমের ‘অপারেশন হিট ব্যাক’ শেষ হয়। এই অভিযানে এক পুরুষ, দুই নারী ও চার শিশু মারা যায়।
উল্লেখ্য, জঙ্গি আস্তানা সন্দেহে মঙ্গলবার রাত থেকে মৌলভীবাজার পৌরসভার বড়হাট এলাকায় একটি বাড়ি এবং খলিলপুর ইউনিয়নের সরকার বাজার এলাকার নাসিরপুর গ্রামের একটি বাড়ি ঘিরে রাখে পুলিশ ও সিটিটিসি। বুধবার সন্ধ্যায় নাসিরপুরের আস্তানায় অভিযান শুরু করে সোয়াট। পরে আলোর স্বল্পতার কারণে রাতে অভিযান স্থগিত রাখা হয়। বৃহস্পতিবার সকাল ১০টার পরে আবার অভিযান শুরু করে সোয়াট। বিকালে অভিযান শেষ হয়।

আমার সিলেট টুয়েন্টিফোর ডটকম,৩১মার্চ,হাবিবুর রহমান খান,নিজস্ব প্রতিনিধিঃ মৌলভীবাজারের বড়হাট জঙ্গি আস্তানার জঙ্গিরা আত্মঘাতী বোমা বিস্ফোরণে নিহত হয়েছেন বলে ধারণা করছেন পুলিশ।

অভিযানে অংশ গ্রহণকারী পুলিশের একটি সুত্রে জানা যায় শুক্রবার দুপুরে  বড়হাট আস্তানার ভেতর কয়েকটি বিস্ফোরণ হয়। ওই বিস্ফোরণে হয়তো তারা মারা গেছেন। বিকাল সাড়ে ৪ টার দিকে কাউন্টার টেররিজম ইউনিট বড়হাট আস্তানার ভেতর প্রবেশ করে। এ সময় অভিযানকারী টিম মুহুর্মূহু গুলি ছুড়ছে। তবে আস্তানার ভেতর থেকে কোনো জবাব পাওয়া যাচ্ছে না।

অভিযানে সংশ্লিষ্ট পুলিশের অপর এক কর্মকর্তা জানান, আস্তানার ভেতর ড্রোন পাঠিয়ে ভেতরের অবস্থা পর্যবেক্ষণ করা হচ্ছে। ধারণা করা হচ্ছে ভেতরে ৩/৪ জন নারী পুরুষ থাকতে পারে।

আমার সিলেট টুয়েন্টিফোর ডটকম,৩১মার্চ,হৃদয় দাশ শুভ,নিজস্ব প্রতিবেদক,বড়হাট মৌলভীবাজার থেকেঃমৌলভীবাজার পৌরসভার বড়হাটের জঙ্গি আস্তানায় পরিচালিত অভিযানের নাম দেয়া হয়েছে “অপারেশন ম্যাক্সিমাস”।
শুক্রবার বেলা ১১টার দিকে ঘটনাস্থলে এক ব্রিফিংয়ে এ কথা জানান পুলিশের কাউন্টার টেরোরিজম ইউনিটের প্রধান মনিরুল ইসলাম।
তিনি বলেন, ‘বড়হাটের আস্তানায় প্রচুর বিস্ফোরক রয়েছে। আর এর আশপাশে অনেক উঁচু ভবন রয়েছে। ফলে ‘অপারেশন ম্যাক্সিমাস’ শেষ হতে সময় লাগবে।’
মনিরুল ইসলাম বলেন, এখন পর্যন্ত সার্বিক পরিস্থিতি পুলিশের নিয়ন্ত্রণে রয়েছে।
এদিকে, জঙ্গি আস্তানার পার্শ্ববর্তী সিলেট-মৌলভীবাজার আঞ্চলিক মহাসড়কে যান চলাচল সীমিত রয়েছে।
সোয়াত ও বোমা নিষ্ক্রিয়কারী দলের সদস্যরা ঘটনাস্থলে পৌঁছানোর পর শুক্রবার সাড়ে ৯টার দিকে অভিযান শুরু করে সোয়াত। এরপর থেকে ওই এলাকায় থেমে গুলির শব্দ পাওয়া যাচ্ছে।
এর আগে ভোর থেকে আবু শাহ (রহ.) দাখিল মাদ্রাসার পার্শ্ববর্তী জঙ্গি আস্তানা ঘিরে রাখে র্যাব ও পুলিশ সদস্যরা।
উল্লেখ্য, গত বুধবার ভোর সাড়ে ৫টা থেকে মৌলভীবাজার পৌরসভার বড়হাট এলাকার একটি দোতলা বাড়ি এবং সদর উপজেলার খলিলপুর ইউনিয়নের সরকার বাজার এলাকার নাসিরপুরের একতলা একটি বাড়িতে জঙ্গি আস্তানার সন্ধান পায় আইনশৃংখলা বাহিনী।
বৃহস্পতিবার বিকালে মৌলভীবাজারের নাসিরপুরে জঙ্গি আস্তানায় সোয়াতের `অপরাশেন হিটব্যাক’ শেষ হয়। এখানে ৭-৮ জন জঙ্গি নিহত হয়েছে বলে পুলিশের পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে।

আমার সিলেট টুয়েন্টিফোর ডটকম,৩০মার্চ,হৃদয় দাশ শুভ,নিজস্ব প্রতিবেদক,বড়হাট মৌলভীবাজার থেকে: নাসিরপুরের বাগানবাড়ি’র জঙ্গি আস্তানায় অভিযান শেষে বড়হাটের আস্তানায় অভিযান চালাবে সোয়াট সদস্যরা।
মৌলভীবাজার শহরের বড়হাটের জঙ্গি আস্তানা পরিদর্শনের সময় ব্রিফিংয়ে সাংবাদিকদের এ কথা বলেন পুলিশের কাউন্টার টেরোরিজম ইউনিটের প্রধান মনিরুল ইসলাম।আজ বৃহস্পতিবার ( মার্চ ৩০) বেলা ১১টা ৫ মিনিটে জঙ্গি আস্তানায় এসে পৌঁছান মনিরুল ইসলাম। তার সঙ্গে আছেন পুলিশের অন্যান্য ঊর্ধ্বতন কর্মর্তারা।
এ সময় বড়হাটের জঙ্গি আস্তানার চারপাশ ঘুরে দেখেন মনিরুল। পাশাপাশি সন্ধ্যা থেকে সেখানে অবস্থানরত ক্রাইম রেসপন্স টিম (সিআরটি) কর্মকর্তাদের সঙ্গে কথা বলেন। এরপর বেরিয়ে এসে সাংবাদিকদের সঙ্গে কথা বলেন তিনি।
মনিরুল সাংবাদিকদের বলেন, আপনারা অবগত আছেন, একই সঙ্গে দুটি জঙ্গি আস্তানায় অভিযান চলছে। একটি আস্তানায় গতকাল অভিযান শুরু হয়েছে। সেখানে অভিযান অব্যাহত আছে। সকালে আজ আমরা অভিযান আবার শুরু করতে পারিনি বৃষ্টির কারণে। সেখানে এখন আবার অভিযান চলছে। ওটা শেষ করেই আমরা এটা শুরু করবো। সে পর্যন্ত আপনাদের অপেক্ষা করতে হবে।
তিনি আরো বলেন, আমরা এই আস্তানাটি ঘুরে দেখলাম, রেকি করেছি। পরিকল্পনা করছি। নাসিরপুর অভিযান সম্পর্কে তিনি বলেন, ওই ভবনটি পুরোপুরি নিয়ন্ত্রণে নেয়ার পর বলা যাবে ওখানে কয়জন আছে এবং কি পরিমাণ বিস্ফোরক আছে। তার আগে কিছু বলা যাবে না।
উল্লেখ্য, বুধবার থেকে মৌলভীবাজারের নাসিরপুর ও বড়হাটের দুই জঙ্গি আস্তানা লক্ষ্য করে পরিচালিত হচ্ছে ‘অপারেশন হিটব্যাক’। আজকে অভিযানের দ্বিতীয় দিন।

  

এডিটর: আনিছুল ইসলাম আশরাফী, এনিমেটরস্ বাংলা মিডিয়া গ্রুপ কর্তৃক প্রকাশিত
সম্পাদকীয় কার্যালয়: কলেজ রোড, শ্রীমঙ্গল, মৌলভীবাজার।
Email: news.amarsylhet24@gmail.com Mobile: 01772 968 710

Developed By : i-Tech Sreemangal
Email : itech.official@hotmail.com
Facebook : http://facebook.com/itech.ctc