Friday 23rd of October 2020 06:08:28 AM

খায়রুল আলম লিংখন: বিনম্র শ্রদ্ধা, যথাযথ মর্যাদা ও পূর্ণ ভাবগাম্ভীর্য পরিবেশে প্রচন্ড শীতকে উপেক্ষা করে একুশে ফেব্রুয়ারির প্রথম প্রহরে ৫২ এর ভাষা শহীদানদের অমর স্মৃতির প্রতি পুষ্পস্তবক অর্পণের মাধ্যমে কার্ডিফ ইন্টারন্যাশনাল ম্যাদার ল্যাংগুয়েজ মনুমেন্টে দুদিনব্যাপী অনুষ্ঠানের মাধ্যমে মহান শহীদ ও আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস’ পালন করেছে ওয়েলস বাংলাদেশ কমিউনিটি ইন ইউকে।
বৃটেনের কার্ডিফ ইন্টারন্যাশনাল ম্যাদার ল্যাংগুয়েজ মনুমেন্ট ফাউন্ডার্স ট্রাষ্ট তথা শহীদ মিনার কমিটির সেক্রেটারি বিশিষ্ট কমিউনিটি লিডার ও সাংবাদিক মোহাম্মদ মকিস মনসুর এর পরিচালনায় অনুষ্ঠিত পোগ্রমে বৃটেনের বাংলাদেশের হাইকমিশন ও মহামান্য রানীর প্রতিনিধি ছাড়া ও কার্ডিফ সিটির লড মেয়র. বৃটিশ এমপি ওয়েলস এসেম্বলি মিনিষ্টার কাউন্সিলারবৃন্দ ওয়েলস ল্যাগুয়েজ কমিশনার বৃটিশ আরমি, রয়েল এয়ারফোর্স, ফায়ার সাভিস ও পুলিশের প্রতিনিধি সহ ওয়েলস আওয়ামীলীগ নিউপোট আওয়ামীলীগ ওয়েলস যুবলীগ, নিউপোট যুবলীগ শ্রমিকলীগ কৃষকলীগ ছাত্রলীগ তাতীলীগ ও জাস্টিস ফর বাংলাদেশ জেনোসাইড ১৯৭১ ইন ইউকে, বঙ্গবন্ধু সাংস্কৃতিক ফোরাম নিউপোট শাখা.হৃদয়ে বঙ্গবন্ধু মেমোরিয়াল ফাউন্ডেশন ইন ইউকেসহ অন্যান্য রাজনৈতিক সহযোগী সংগঠনবৃন্দ ছাড়াও গ্রেটার সিলেট ডেভেলপমেন্ট এন্ড ওয়েলফেয়ার কাউন্সিল, ওয়েলস বাংলাদেশ চেম্বার অব কমাস, ওয়েলস কুলাউড়া সোসাইটি ইন ইউকে.কার্ডিফ শাহ জালাল বাংলা স্কুল, ওয়েলস বাংলাদেশ ইয়ুথ সোসাইটি ইন ইউকে ওয়েলস বাংলা নিউজ শহীদ মিনার প্রতিষ্ঠাতা ট্রাষ্টি লাইফ মেম্বার ফ্রেন্ডস অব মনুমেন্ট সহ সামাজিক সাংস্কৃতিক সংগঠন ব্যাবসায়ী ও কমিউনিটি সংগঠনের নেতৃবৃন্দ ও বিপুল সংখ্যক মানুষের উপস্থিতিতে ৫২ এর ভাষা শহীদানদের অমর স্মৃতির প্রতি পুষ্পস্তবক অর্পণের মাধ্যমে সমবেত কন্ঠে উচ্চারিত হয় অমর একুশের কালজয়ী গান ‘আমার ভাইয়ের রক্তে রাঙানো একুশে ফেব্রুয়ারি; আমি কি ভূলিতে পারি।
অনুষ্ঠানে এক মিনিট দাড়িয়ে নিরপতা পালন ও জাতীয় সংগীত পরিবেশন করা হয়েছে।

দ্বিতীয় দিনে নবপ্রজন্মের বাঙ্গালীর সন্তান নাদিয়া ইসলাম ও ইউনিভার্সিটির ছাত্রী মাসুদা আলীর যৌথ পরিচালনায় অনুষ্ঠিত উভয় অনুষ্ঠানে বৃটেনের বামিংহাম হাইকমিশনের ফাস্ট সেক্রেটারি মোহাম্মদ রেজাউল করিম. কার্ডিফ সিটির লড মেয়র রাইট অনারেবল ডান ডিয়েথ. ওয়েলস এসেম্বলির ডেপুটি মিনিষ্টা জুলি মরগান.ওয়েলস আওয়ামী লীগের প্রতিষ্ঠাতা কেন্দ্রীয় জাতীয় পরিষদের সদস্য বিশিষ্ট রাজনীতিবিদ মোহাম্মদ ফিরুজ আহমদ, কার্ডিফ কাউন্টি কাউন্সিলের সাবেক ডেপুটি লড মেয়র কাউন্সিলার দিলওয়ার আলী, নিউপোট আওয়ামীলীগ সভাপতি মনুমেন্ট ফাউন্ডার ট্রাষ্টি শেখ মোহাম্মদ তাহির উল্লাহ, কার্ডিফ ইন্টারন্যাশনাল ম্যাদার ল্যাংগুয়েজ মনুমেন্ট ফাউন্ডার্স ট্রাষ্ট কমিটির সেক্রেটারি মোহাম্মদ মকিস মনসুর, কাউন্সিলার মাইক জনস প্রিসাড, ডেপুটি লিউট্যেনাটে রাজ আগুয়াল ওবিই, মনুমেন্ট ফাউন্ডার ট্রাষ্টি আলহাজ্ব আাসাদ মিয়া, মনুমেন্ট ফাউন্ডার ট্রাষ্টি আব্দুস সালাম বুলবুল, লাইফ মেম্বার আফজল খান মিতু. লাইফ মেম্বার আব্দুল হান্নান. লাইফ মেম্বার সেলিম আহমদ, লাইফ মেম্বার শাহ শাফি কাদির, লাইফ মেম্বার আবুল কালাম মুমিন, লাইফ মেম্বার নুরুল আলম চুনু, লাইফ মেম্বার মফিকুল ইসলাম, লাইফ মেম্বার বদর উদ্দিন চৌধুরী বাবর, মেম্বার মুহিবুর রহমান মুহিব, মেম্বার আব্দুর রুউফ তালুকদার, ফখরুল ইসলাম, ফেন্ডস অব মনুমেন্ট আলহাজ্ব লিয়াকত আলী, ফেন্ডস অব মনুমেন্ট আব্দুল মোত্তালিব ফেন্ডস অব মনুমেন্ট ইকবাল আহমদ ফেন্ডস অব মনুমেন্ট মাহমুদ হোসেন সহ বৃটেনের লন্ডন বামিংহাম, কার্ডিফ নিউপোট সোয়ানসী, ব্রিজেন্ড বৃস্টল মোনবাউথ ও পটালবাট থেকে আগত প্রমুখ নেতৃবৃন্দ বক্তব্য রাখেন। সকল শহীদানদের প্রতি গভীর স্রদ্ধা জানিয়ে বক্তারা ভাষার গ্রুরুত্ত ও ইউনেস্কো কতৃক আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবসের সীকৃতি প্রদান সহ নানা ইতিকথা তুলে ধরেন।

ওয়েলসের মাটিতে ইন্টারন্যাশনাল মাদার ল্যাংগুয়েজ মনুমেন্ট তথা প্রথম শহীদ মিনার প্রতিষ্টায় যারা অক্লান্ত পরিস্রম করেছেন ফাউন্ডার ট্রাষ্ট কমিটি সহ সকল অবদানকারীদেরকে আন্তরিক ধন্যবাদ জানিয়ে বক্তারা অনেক ত্যাগ, তিতিক্ষার মধ্য দিয়ে একটি জাতি তার কাংক্ষিত লক্ষ্যে পৌছতে পারে- বাঙালির স্বাধীনতার ইতিহাস ও অমর একুশ তার উজ্জ্বল দৃষ্টান্ত।’ আমাদের এখানকার বেড়ে উটা নব প্রজন্মের সন্তানদের সামনে ও বৃটিশ এবং ওয়েলস নাগরিকবৃন্দকে আমাদের ভাষা. কৃষ্টি. সংস্কৃতি. ঐতিহ্য.সাফল্য সম্ভাবনা ও মুক্তিযুদ্ধের সঠিক ইতিহাস এবং বাংলাদেশের অব্যাহত উন্নয়নের ও সম্ভাবনাময় বিনিয়োগের চিত্র তুলে ধরতে হবে বলে বক্তারা অভিমত ব্যাক্ত করেছেন।

পরিশেষে ইন্টারন্যাশনাল মাদার ল্যাংগুয়েজ মনুমেন্ট তথা শহীদ মিনার ফাউন্ডার ট্রাষ্ট কমিটির সেক্রেটারী মোহাম্মদ মকিস মনসুর শহীদ মিনার প্রতিষ্টায় বাংলাদেশ সরকারের মানণীয় প্রধানমন্ত্রী দেশরত্ন শেখ হাসিনা কার্ডিফ কাউন্টি কাউন্সিল সহ মনুমেন্ট প্রতিষ্ঠায় সহযোগিতাকারী সকল প্রতিষ্ঠাতা ট্রাষ্টি, লাইফ মেম্বার, ফ্রেন্ডস অব মনুমেন্ট ও দু’দিনের এই পোগ্রামে উপস্থিত সহযোগীতাকারী সবাইকে আন্তরিক অভিনন্দন ও কৃতজ্ঞতা জানিয়েছেন।

নাজমুল সুমন: বৃটেনের ওয়েলসের রাজধানী কার্ডিফ শহরে প্রায় ৫০ হাজার লোকের উপস্তিতিতে বিপুল উৎসাহ উদ্দীপনা ও আনন্দঘন পরিবেশে গতকাল রবিবার সকাল থেকে সাড়াদিনব্যপী কার্ডিফ মেলা শাীরনামে মাল্টিকালচারাল ফেষ্টিভ্যাল ২০১৯ সফলভাবে সম্পন্ন হয়েছে. সাউথ এশিয়ান কমিউনিটির সাথে বাংলাদেশ কমিউনিটি সহ বিভিন্ন দেশের কমিউনিটি নেতৃবৃন্দ এই মেলা সফল করতে অক্লান্ত পরিশ্রম করেছেন।

ফেস্টিভ্যালে ওয়েলসের কাডিফ ছাড়াও বৃটেনের বিভিন্ন শহর থেকে ও প্রচুর লোকের সমাঘম ঘটেছে । রকমারি খাবারের স্টলের পাশাপাশি বাচ্ছাদের খেলাধুলার বিনোদন ও শাড়ী গয়নার দোকান. ওয়েলস ও বৃটেনের বিভিন্ন সেবামূলক প্রতিষ্ঠানের স্টল সহ ছিলো বিনোদনের নানা আয়োজন.। সাড়াদিনব্যাপী অনুষ্ঠিত ফেস্টিভ্যালে বৃটেনের ওয়েলসের বিভিন্ন কমিউনিটির নেতৃবৃন্দের সাথে বাংলাদেশ কমিউনিটির অন্যান্য বিশিষ্ট জনেরা উপস্থিত ছিলেন।

ফেস্টিভ্যালে আসা ওয়েলসের প্রথম বাংগালী সাংবাদিক কমিউনিটি ব্যাক্তিত্ত মোহাম্মদ মকিস মনসুর তার প্রতিক্রিয়া বলেন ওয়েলসের মাটিতে প্রায় ৫০ হাজার লোকের উপস্তিতিতে কার্ডিফ মেলা শাীরনামে মাল্টিকালচারাল ফেষ্টিভ্যাল ২০১৯ সফলভাবে সম্পন্ন হওয়ায় এই সুন্দর আয়োজনের জন্য ফেস্টিভ্যালের মূল আয়োজক ইমরান ইকবাল এর টিমকে অক্লান্ত পরিস্রমের জন্য ধন্যবাদ জানিয়ে মেলায় অংশগ্রহণকারী সবাই খউব ইনজয় করেছেন বলে উল্লেখ করে আগামী বছর এই আয়োজন আর ও বৃহত্তর পরিসরে হবে বলে তিনি আশাবাদ ব্যাক্ত করেছেন।

ফেস্টিভ্যালের মূল সংগঠক ইমরান ইকবাল মেলা সফল করতে স্পোনসার প্রদান করা সহ নানাভাবে যারা সহযোগিতা করেছেন সবার প্রতি আন্তরিক কৃতজ্ঞতা জানিয়ে প্রতিবছর এই আয়োজন অব্যাহত রাখার প্রতিস্রতি ব্যাক্ত করেছেন।

এখানে উল্লেখ্য যে ২০০৬’ সালে এই মেলা প্রথম শুরু হয়.। ২০১২ সালের মেলায় ২৫ হাজার লোকের সমাঘম হয়েছিলো যদিও পরবর্তীতে ধারাবাহিকতা বজায় রাখা সম্ভব না হলেও এবছর প্রায় ৫০ হাজার লোকের উপস্তিতিতে এই মেলা সফলভাবে সম্পন্ন হওয়ায় আগতরা খুবই আনন্দ উপভোগ করেছেন বলে অভিমত ব্যাক্ত করেছেন।

লিমন ইসলাম: বিপুল উৎসাহ উদ্দীপনা ও আনন্দঘন পরিবেশে বৃটেনের ওয়েলসের রাজধানী কার্ডিফ শহরে প্রথমবারের মত আয়োজিত বিগ হালাল ফুড ফেস্টিভ্যাল ২০১৯ সফল ভাবে সম্পন্ন হয়েছে।
গত শনি ও রবিবার দু’দিন ব্যাপী অনুষ্ঠিত এই ফেস্টিভ্যালে ওয়েলসের কাডিফ ছাড়াও বৃটেনের বিভিন্ন শহর থেকে ও প্রচুর লোকের সমাঘম ঘটেছে । রকমারি খাবারের স্টলের পাশাপাশি বাচ্ছাদের খেলাধুলার বিনোদন ও শাড়ী গয়নার দোকান সহ ছিলো নানা আয়োজন।
ওয়েলস বাংলাদেশ ইয়ুথ সোসাইটির অন্যতম কোডিনেটর ও ফেস্টিভ্যালের আয়োজক সাজ হারিছ এর পরিচালনায় দু’দিন ব্যাপী আয়োজিত বিগ হালাল ফুড ফেস্টিভ্যালের সমাপনী অনুষ্ঠানে মুসলিম কমিউনিটির অন্যান্য নেতৃবৃন্দের সাথে লন্ডন থেকে আগত কমিউনিটি লিডার শেখ মোহাম্মদ ইয়াওর. ওয়েলসের প্রথম বাঙালী সাংবাদিক ও কমিউনিটি সংগঠক মোহাম্মদ মকিস মনসুর. বিশিষ্ট ব্যাবসায়ী শরিফুল ইসলাম. বিশিষ্ট ব্যাবসায়ী নজরুল ইসলাম নাজ. বিশিষ্ট ব্যাবসায়ী আলহাজ্ব সুহেল আহমদ রাজা. সৈয়দ জুয়েল রহমান.বদর উদ্দিন চৌধুরী বাবর. আব্দুল মোত্তালিব. মহিলা নেত্রী শামসুন্নেহার আলী ও বদরুল মনসুর সহ বাংলাদেশ কমিউনিটির অন্যান্য বিশিষ্ট জনেরা উপস্থিত ছিলেন।
ওয়েলস বাংলাদেশ কমিউনিটি লিডার মোহাম্মদ মকিস মনসুর সমাপনী দিনে তার প্রতিক্রিয়া বলেন ফেস্টিভ্যালের মূল আয়োজক সাজ হারিছ এর অক্লান্ত পরিস্রমের কারনে ওয়েলসের মাটিতে এই প্রথমবারের মত আয়োজিত এই ফেস্টিভ্যালে অংশগ্রহণকারী সবাই খউব ইনজয় করেছেন বলে উল্লেখ করে এই সুন্দর আয়োজনের জন্য উদ্যোক্তাদের ধন্যবাদ জানানো সহ আগামী বছর এই আয়োজন আরও বৃহত্তর পরিসরে হবে বলে তিনি আশাবাদ ব্যাক্ত করেছেন।
ফেস্টিভ্যালের মূল আয়োজক যুব সংগঠক সাজ হারিছ ফেস্টিভ্যাল সফল করতে স্পোনসার প্রদান করা সহ নানাভাবে যারা সহযোগিতা করেছেন সবার প্রতি কৃতজ্ঞতা জানিয়ে প্রতিবছর এই আয়োজন অব্যাহত রাখার প্রতিশ্রুতি ব্যক্ত করেন।

বদরুল মনসুর: সবুজে ঘেরা প্রাকৃতিক সৌন্দর্যে ভরপুর বৃটেনের ওয়েোলসের রাজধানী কার্ডিফ শহরের নব নব-নির্মিত ইন্টারন্যাশনাল মাদার ল্যাংগুয়েজ মনুমেন্ট তথা শহীদ মিনার পরিদর্শন করেছেন যুক্তরাজ্য ইয়ুথ বাংলা কালচারাল ফোরামের নেতৃবৃন্দ।
যুক্তরাজ্য ইয়ুথ বাংলা কালচারাল ফোরামের আহব্বায়ক ও চ্যানেল এস এর প্রতিনিধি বিশিষ্ট সাংবাদিক সৈয়দ ছাদেক আহমেদ এর নেতৃত্বে আগত প্রতিনিধি দলকে সাগত জানান কার্ডিফ ইন্টারন্যাশনাল মাদার ল্যাংগুয়েজ মনুমেন্ট তথা শহীদ মিনার ফাউন্ডার ট্রাষ্ট কমিটির জেনারেল সেক্রেটারী ও ওয়েলস বাংলা নিউজের এডিটর মোহাম্মদ মকিস মনসুর. শহীদ মিনার ফাউন্ডার ট্রাষ্টি কমিউনিটি লিডার শেখ মোহাম্মদ তাহির উল্লাহ. শহীদ মিনার এর লাইফ মেম্বার যুবনেতা শাহ শাফি কাদির ও শহীদ মিনার এর লাইফ মেম্বার বিশিষ্ট ব্যাবসায়ী মোহাম্মদ শাহজাহান। প্রতিনিধিদলের মধ্যে অন্যান্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন যুক্তরাজ্য ইয়ুথ বাংলা কালচারাল ফোরাম এর যুগ্ম আহব্বায়ক দুলাল মিয়া. ইয়ুথ বাংলা কালচারাল ফোরাম এর উপদেষ্টা শাহ্জানুর রাজা ও যুক্তরাজ্য ইয়ুথ বাংলা কালচারাল ফোরাম এর নর্থ ওয়েলসের আহব্বায়ক রোকসানা রাজা।
যুক্তরাজ্য ইয়ুথ বাংলা কালচারাল ফোরাম এর নেতৃবৃন্দ ওয়েলস তথা কার্ডিফবাসীকে এত সুন্দর শহীদ মিনার প্রতিষ্টা করায় ইন্টারন্যাশনাল মাদার ল্যাংগুয়েজ মনুমেন্ট তথা শহীদ মিনার ফাউন্ডার ট্রাষ্ট কমিটির নেতৃবৃন্দ সহ অনুদান প্রদানকারী সবাইকে ধন্যবাদ ও অভিনন্দন জানিয়েছেন।

বদরুল মনসুর: লন্ডনে সফররত প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার প্রটোকল অফিসার-২ কুলাউড়ার সাবেক এমপি মরহুম জননেতা আব্দুল জব্বার সাহেবের সুযোগ্য সন্তান আবু জাফর রাজু গতকাল বৃটেনের ওয়েলসের রাজধানী কাডিফ শহরের শহীদ মিনার পরিদর্শন করে ফুলেল শ্রদ্ধাঞ্জলি প্রদান করেছেন।
কার্ডিফ ইন্টারন্যাশনাল মাদার ল্যাংগুয়েজ মনুমেন্ট তথা শহীদ মিনার ফাউন্ডার ট্রাষ্ট কমিটির চেয়ারম্যান আলহাজ্জ্ব আনোয়ার আলীর সভাপতিত্বে এবং কার্ডিফ ইন্টারন্যাশনাল মাদার ল্যাংগুয়েজ মনুমেন্ট তথা শহীদ মিনার ফাউন্ডার ট্রাষ্ট কমিটির জেনারেল সেক্রেটারী সাংবাদিক মোহাম্মদ মকিস মনসুর এর ব্যাবস্থাপনায় ও পরিচালনায় শহীদ মিনার প্রাংগনে অনুষ্ঠিত মতবিনিময় সভায় অন্যান্যদের মধ্যে বক্তব্য রাখেন কাডিফ কাউন্টি কাউন্সিলার দিলওয়ার আলী, কমিটির ট্রেজারার আনহার মিয়া. ট্রাস্টি শেখ তাহির উল্লাহ, ট্রাস্টি মোহাম্মদ মুজিব, ট্রাস্টি আসাদ মিয়া, ট্রাস্টি শফিক মিয়া. ট্রাস্টি আব্দুস সালাম বুলবুল. লাইফ মেম্বার সেলিম আহমদ. আলহাজ্ব লিয়াকত আলী. লাইফ মেম্বার শাহ শাফি কাদির. লাইফ মেম্বার আবুল কালাম মুমিন. লাইফ মেম্বার নুরুল আলম চুনু. বদর উদ্দিন চৌধুরী বাবর. আব্দুর রুউফ তালুকদার. আলতাফ হোসেন. আব্দুল আহাদ. গোলাপ মিয়া. আব্দুল মোত্তালিব. আব্দুর রুউফ. জাহির উল্লাহ আনা মিয়া.প্রফেসর তজমল খান সহ অন্যান্য নেতৃবৃন্দ।ওয়েলস বাংলা নিউজের এডিটর ও দৈনিক মৌলভীবাজার ডট কমের সম্পাদক মোহাম্মদ মকিস মনসুর শহীদ মিনার উদ্ভোধনের জন্য ওয়েলসবাসী অতি আগ্রহে অপেক্ষায় রয়েছেন এমন প্রশ্নের জবাবে প্রধানমন্ত্রীর প্রটোকল অফিসার-২ আবু জাফর রাজু বলেন আমি গিয়ে মানণীয় প্রধানমন্ত্রীকে আপনাদের এই চমৎকার প্রজেক্ট এর বিস্তারিত বিবরণ তুলে ধরবো. এইবার না পারলেও আগামীতে মানণীয় প্রধানমন্ত্রী এসে শহীদ মিনার উদ্ভোধন করার সম্ভাবনা রয়েছে বলে তিনি আসস্থ করেছেন। প্রধানমন্ত্রীর প্রটোকল অফিসার ওয়েলসবাসীকে এই মনুমেন্ট তথা শহীদ মিনার নিমান করায় ফাউন্ডার ট্রাষ্ট কমিটি সহ সংশ্লিষ্ট সবাইকে অভিনন্দন জানান।
ফাউন্ডার ট্রাষ্ট কমিটির চেয়ারম্যান আলহাজ্জ্ব আনোয়ার আলী ও ফাউন্ডার ট্রাষ্ট কমিটির জেনারেল সেক্রেটারী মোহাম্মদ মকিস মনসুর সহ সকল বক্তারা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সরকারকে এই মহতি প্রজেক্ট বাস্তবায়নে প্রায় ৬৬ হাজার পাউন্ড অনুদান দিয়ে সহযোগীতা করার জন্য প্রধানমন্ত্রী দেশরত্ন শেখ হাসিনা ও জাতির জনকের কন্যা শেখ রেহেনা.বৃটেনের বাংলাদেশের হাইকমিশনার হ্যার এক্সেলেন্সি সাইদা মুনা তাসনিম সহ বাংলাদেশের পররাষ্ট্রমন্ত্রণালয়ের প্রতি কৃতজ্ঞতা ও অভিনন্দন জানিয়েছেন।
পরিশেষে আবু জাফর ওয়েলস এসেম্বলি ভবন পরিদর্শন শেষে ওয়েলস কুলাউড়া সোসাইটির সেক্রেটারী বদর উদ্দিন চৌধুরী সৌজন্যে মধ্যাহ্ন ভোজনে অতিথিরা অংশগ্রহণ করেন।

ফাউন্ডার ট্রাষ্ট কমিটির পক্ষ থেকে প্রধানমন্ত্রীকে অভিনন্দন ও কৃতজ্ঞতা

বদরুল মনসুর: বৃটেনের ওয়েলসের রাজধানী কার্ডিফ শহরের বে এলাকার ঐতিহ্যবাহী গ্রেইঞ্জমোর পাকে এখানকার বেড়ে উটা নব প্রজন্মের সন্তানদের সামনে আমাদের ভাষা. কৃষ্টি. সংস্কৃতি. ঐতিহ্য.সাফল্য সম্ভাবনা ও মুক্তিযুদ্ধের সঠিক ইতিহাস তুলে ধরা সহ বাংলাদেশের বিভিন্ন জাতীয় দিবস উদযাপনে বৃটেনের কাডিফে ইন্টারন্যাশনাল মাদার ল্যাংগুয়েজ মনুমেন্ট তথা শহীদ মিনার প্রতিষ্ঠার যে উদ্দোগ নেওয়া হয়েছিলো তাহা আজ সফলভাবে সম্পন্ন হয়েছে।

ফাউন্ডার ট্রাষ্টি. লাইফ ও সাধারন মেম্বার এবং ফ্রেন্ডস অব মনুমেন্ট এর মাধ্যমে সংগ্রহকৃত কালেকশন সহ বাংলাদেশ সরকার ও কার্ডিফ কাউন্টি কাউন্সিল এর সাবিক সহযোগীতায় আজ শহীদ মিনার পুরাপুরি দৃশ্যমান।

ওয়েলসের মাটিতে প্রথম এই শহীদ মিনার প্রজেক্ট বাস্তবায়নের মাধ্যমে ওয়েলসবাসী এক নব ইতিহাসের সূচনা করেছে। ওয়েলসের এই মহতি কাজে বাংলাদেশ সরকারের পক্ষ থেকে প্রায় ৬৬ হাজার পাউন্ড অনুদান প্রদান করে এক উজ্জ্বল দৃষ্টান্ত স্থাপন করা হয়েছে। বৃটেন কমিউনিটির জন্য এটি একটি আনন্দের সংবাদ। বৃটেনের কার্ডিফের ইন্টারন্যাশনাল মাদার ল্যাংগুয়েজ মনুমেন্ট তথা শহীদ মিনার এর জন্য মানণীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সরকারের পক্ষ থেকে ৬৫ হাজার ৯ শত একাশি পাউন্ড ছিয়াত্তর প্রেন্সের একটি চেক গত ২১ মে বেলা ৩ ঘটিকায় সেন্ট্রাল লন্ডনের তাজ হোটেলের কনফারেন্স রুমে আনুষ্ঠানিকভাবে বৃটেনে বাংলাদেশের রাষ্ট্রদূত হ্যার এক্সেলেন্সি সাইদা তাসনিম মুনার মাধ্যমে প্রদান করা হয়েছে।

কার্ডিফ ইন্টারন্যাশনাল মাদার ল্যাংগুয়েজ মনুমেন্ট তথা শহীদ মিনার কমিটির জেনারেল সেক্রেটারী ও মনুমেন্টের ফাউন্ডার ট্রাষ্টি মোহাম্মদ মকিস মনসুর এর পরিচালনায় অনুষ্ঠিত চেক হস্তান্তর অনুষ্ঠানে যুক্তরাজ্য আওয়ামীলীগের সভাপতি মনুমেন্টের লাইফ মেম্বার সুলতান মাহমুদ শরীফ. যুক্তরাজ্য আওয়ামীলীগের ভারপ্রাপ্ত সেক্রেটারি নইম উদ্দিন রিয়াজ. যুক্তরাজ্য আওয়ামীলীগের যুগ্ম সাধারন সম্পাদক ও মনুমেন্ট ফাউন্ডার ট্রাষ্টি আনোয়ারুজ্জামান চৌধুরী. বৃটেনের ডেপুটি হাইকমিশনার জুলকার নাহেন. প্রেস মিনিষ্টার আসেকুন্নবী চৌধুরী. কার্ডিফ কাউন্টি কাউন্সিলার দিলওয়ার আলী. মনুমেন্ট তথা শহীদ মিনার কমিটির ডেপুটি চেয়ার ও মনুমেন্ট ফাউন্ডার ট্রাষ্টি মোহাম্মদ সেরুল ইসলাম. শহীদ মিনার কমিটির ট্রেজারার ও মনুমেন্ট ফাউন্ডার ট্রাষ্টি আনহার মিয়া. মনুমেন্টের ফাউন্ডার ট্রাষ্টি শেখ মোহাম্মদ তাহির উল্লাহ.মনুমেন্টের ফাউন্ডার ট্রাষ্টি মোহাম্মদ মুজিব. মনুমেন্টের ফাউন্ডার ট্রাষ্টি আব্দুল লতিফ কয়সর. মনুমেন্টের ফাউন্ডার ট্রাষ্টি আলহাজ্ব আসাদ মিয়া. মনুমেন্টের ফাউন্ডার ট্রাষ্টি আব্দুস সালাম বুলবুল. মনুমেন্টের ফাউন্ডার ট্রাষ্টি শামীম আহমদ.ও মনুমেন্টের ফাউন্ডার ট্রাষ্টি শফিক মিয়া সহ হাইকমিশনের অনান্য কমকর্তাবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।

বৃটেনের হাইকমিশনার হ্যার এক্সেলেন্সি সাইদা মুনা তাসনিম বলেন ওয়েলসের মাটিতে বাংলাদেশের কৃষ্টি সংস্কৃতি ও ঐতিহ্য তুলে ধরার মানসে আপনারা যে কাজ করেছেন আমি অভিভূত. দেশের বাহিরের এধরনের প্রজেক্টের জন্য এত বড় এমাউন্ট এর আগে বাংলাদেশের কোন প্রধানমন্ত্রী দিয়েছেন বলে আমার জানা নেই ; মাল্টি কালচারাল ও মাল্টিন্যাশন্যালের বৃটেনের ওয়েলসের মাটিতে জাতি বন” নিবিশেষে সকল ভাষার মানুষের সামনে বাংলাদেশের কৃষ্টি সংস্কৃতি ও ঐতিহ্য তুলে ধরার জন্য একটি গুরুত্বপূর্ণ প্লাটফর্ম গঠনের লক্ষ্যে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সরকার এই অনুদান প্রদান করেছেন বলে উল্লেখ করে হ্যার এক্সেলেন্সি বলেন হাইকমিশন সব সময় আপনাদের এই প্রজেক্টের সাথে ছিলো এবং আগামীতে ও হাইকমিশনার থেকে সব ধরনের সহযোগীতা অব্যাহত থাকবে। যুক্তরাজ্য আওয়ামী লীগের সভাপতি সুলতান মাহমুদ শরীফ ওয়েলস কমিউনিটির এই মহতি উদ্দ্যোগে আমি শরীক হতে পেরে নিজেকে গৌরবান্বিত মনে করছি আজ প্রধানমন্ত্রীর পক্ষ থেকে অনুদান প্রদান করায় সরকারকে ও অভিনন্দন জানাচ্ছি।

যুক্তরাজ্য আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারন সম্পাদক আনোয়ারুজ্জামান চৌধুরী বলেন এটা একটি ঐতিহাসিক কাজ সম্পাদন করেছে ওয়েলসবাসী. মানণীয় প্রধানমন্ত্রীর সাপোর্টের জন্য আমি ও এই কাজে পাচ হাজার পাউন্ড দিয়ে একজন ফাউন্ডার ট্রাষ্টি হতে পেরেছি এটা অবশ্যই আনন্দের ও গৌরবের।

বৃটেনের কার্ডিফ কাউন্টি কাউন্সিলার দিলওয়ার আলী বলেন আজ ১৩ বছরের অক্লান্ত পরিস্রমে আমাদের সবার প্রানের সপ্নের বাস্তবায়ন হয়েছে। মনুমেন্ট কমিটির ডেপুটি চেয়ার মোহাম্মদ সেরুল ইসলাম ও ফাউন্ডার ট্রাষ্টি শেখ তাহির উল্লাহ ওয়েলসবাসীর সপ্নের শহীদ মিনার দৃশ্যমানে বাংলাদেশ সরকার সহ যারা সহযোগীতা করেছেন সবার প্রতি কৃতজ্ঞতা জানিয়েছেন। শহীদ মিনার কমিটির জেনারেল সেক্রেটারী মোহাম্মদ মকিস মনসুর ফাউন্ডার ট্রাষ্ট কমিটির পক্ষ থেকে বৃটেনের ওয়েলসের কার্ডিফের ইন্টারন্যাশনাল মাদার ল্যাংগুয়েজ মনুমেন্ট তথা শহীদ মিনারের জন্য প্রায় বায়াত্তর লাখ পঞ্চাশ হাজার টাকার এই অনুদান প্রদান করায় মানণীয় প্রধানমন্ত্রী দেশরত্ন শেখ হাসিনা ও জাতির জনক বঙ্গবন্ধু কন্যা শেখ রেহেনা. পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় ও বৃটেনের হাইকমিশন এবং কাডিফ কাউন্টি কাউন্সিল সহ সকল দাতা সদস্যদেরকে আন্তরিক ধন্যবাদ ও কৃতজ্ঞতা জানিয়ে বলেন বৃটেনের ওয়েলসের মাটিতে নিমিত প্রথম এই শহীদ মিনার মানণীয় প্রধানমন্ত্রীর মাধ্যমে উদ্ভোধন করার জন্য আমরা মানণীয় প্রধানমন্ত্রীর নিকট আমন্ত্রণ জানিয়েছি।

ওয়েলসবাসী অতি আগ্রহে প্রধানমন্ত্রীর অনুমতির অপেক্ষায় রয়েছেন বলে তিনি অভিমত ব্যাক্ত করেছেন। চেক গ্রহণের পর বৃটেনের কার্ডিফের ইন্টারন্যাশনাল মাদার ল্যাংগুয়েজ মনুমেন্ট তথা শহীদ মিনার কমিটির নেতৃবৃন্দ তাজ হোটেলে অবস্থানরত বাংলাদেশের মহামান্য রাষ্ট্রপতি এডভোকেট আব্দুল হামিদ মহোদয় এর সাথে সৌজন্য সাক্ষাৎে মিলিত হয়ে শহীদ মিনার প্রতিষ্টার বিভিন্ন পটভূমি তুলে ধরেন এবং মানণীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সরকারকে এই মহতি প্রজেক্ট বাস্তবায়নে সহযোগীতা করার জন্য মহামান্য রাষ্ট্রপতির মাধ্যমে আবার ও কৃতজ্ঞতা অভিনন্দন জানানো হয়েছে।

কার্ডিফের ইন্টারন্যাশনাল মাদার ল্যাংগুয়েজ মনুমেন্ট তথা শহীদ মিনার কমিটির জেনারেল সেক্রেটারী মোহাম্মদ মকিস মনসুর ফাউন্ডার ট্রাষ্ট কমিটির ওয়েলস থেকে আগত প্রতিনিধিদলকে মহামান্য রাষ্ট্রপতি মহোদয়ের সাথে পরিচয় করিয়ে দেন। পরে নেতৃবৃন্দ মহামান্য রাষ্ট্রপতিকে ফুলেল শুভেচ্ছা ও শহীদ মিনার ছবি সম্মলিত স্মারক এবং ওয়েলস যুবলীগের প্রকাশনা ওয়েলসের ইতিহাসের প্রথম স্মারক গ্রন্থ হৃদয়ে বঙ্গবন্ধু ম্যাগাজিন প্রদান করেছেন। বাংলাদেশের মহামান্য রাষ্ট্রপতি এডভোকেট আব্দুল হামিদ মহোদয় বৃটেনের কার্ডিফে বাঙালীরা এরকম একটি চমৎকার প্রজেক্ট বাস্তবায়ন করায় আনন্দ ও সন্তোষ প্রকাশ সহ প্রজেক্টের সাথে জড়িত সংশ্লিষ্ট সবাইকে ধন্যবাদ জানিয়েছেন..।

এখানে উল্লেখ্য যে দীর্ঘ ১৩ বছরের অক্লান্ত পরিস্রমে ও কমিউনিটির প্রচেষ্টায় বৃটেনের ওয়েলসের ইতিহাসে কার্ডিফ শহরের এই প্রথম শহীদ মিনারটি আজ দৃশ্যমান. গত ২১ শে ফেব্রুয়ারি আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবসের অনুষ্ঠান যথাযোগ্য মর্যাদায় পালন করে ওয়েলসবাসী নব ইতিহাসের সূচনা করেছে।মানণীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার তারিখের উপর আগামীতে ওয়েলসের এই প্রথম শহীদ মিনার আনুষ্ঠানিকভাবে উদ্ভোধন করার হবে বলে মনুমেন্ট ফাউন্ডার ট্রাষ্ট কমিটির পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে ।

আমারসিলেট টুয়েন্টিফোর ডটকম,০৫ মার্চ,মশহুদ বকস নাজমুলঃ   রোববার এই প্রথমবারের মত পুর্ব লন্ডনের ব্রাডি সেন্টারে অনুষ্ঠিত হয়ে গেল মহাসমারোহে “সিলেট উৎসব”। বৃটেনের বিভিন্ন অঞ্চল থেকে দুপুর দুইটা থেকে আগত অতিথিরা ব্রাডি সেন্টারে জড়ো হতে থাকেন। উপছে পড়া ভিড় সামাল দিতে আয়োজকদের রীতিমত হিমশিম খেতে হয়।

বাংলাদেশের হাইকমিশনার টাওয়ার হামলেটের মেয়রসহ গুনী ব্যক্তবর্গ উপস্হিত হয়ে “সিলেট উৎসব”কে প্রানবন্ত করে তুলেন। পুর্ব লন্ডনের ব্রাডি সেন্টার সিলেটিদের মিলন মেলায় পরিনত হয়। মুনিরা পারভিন এর পরিচালনায় পুরো অনুস্টানটি প্রানবন্ত ছিল এবং গান ফ্যাশন শো স্টলও  ছিল।

স্হানীয় শিল্পীরা গান গেয়ে দর্শকদের মাতিয়ে তুলেন। আগত অতিথিরা সিলেট উৎসবে যোগ দিতে পারায় আনন্দিত এবং আয়োজকদের ধন্যবাদ জ্ঞাপন করে এর ধারাবাহিকতা অব্যাহত রাখার অনুরোধ জানান।

আমারসিলেট টুয়েন্টিফোর ডটকম,২৪ফেব্রুয়ারী,বদরুল মনসুর: বৃটেনের কার্ডিফে  ইন্টারন্যাশনাল মাদার  ল্যাংগুয়েজ মনুমেন্ট প্রজেক্ট বাস্তবায়নের  লক্ষে চ্যারিটি অগেনাইজেন নেইড ও মনুমেন্ট প্রজেক্ট কমিটি উইথ পাটনারশীপ হিসাবে গতকাল সিটি হলে মহান শহীদ আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা  দিবস পালন এবং মনুমেন্টের জন্য ফান্ড রেইজিং ডিনারপার্টির আয়োজন করা হয়।

নেইডের চীফ এক্সিকিউটিভ ও প্রজেক্ট কমিটির কনভেনার আনোয়ার আলীর সভাপতিত্বে এবং উপস্থাপিকা উমি মাজহার ও ডা: আহমেদা আলী  নাহিনের  যৌথ পরিচালনায় অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন সাবেক পররাষ্ট্রমন্ত্রী ও কেন্দ্রীয় আওয়ামীলীগের  যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক ডা: দীপু মনি এমপি। বিশেষ অতিথি ছিলেন কালজয়ী  মহাণ একুশে ফেব্রুয়ারির গানের রচয়িতা বিশিষ্ট  কলামিস্ট আব্দুল গাফ্ফার চৌধুরী, বৃটেনর বাংলাদেশের হাইকমিশনার হিজ এক্সেলেন্সি নাজমুল কাইনুন,  বাংলাদেশ থেকে আগত  কাজী নাবিল আহমদ এমপি, কণ্ঠশিল্পী মমতাজ বেগম এম,পি, মেহজাবিন  খালেদ এমপি, ওয়েলস এসেম্বলি মেম্বার জুলি মরগান, এসেম্বলি মেম্বার জেইন হাট, সাবেক ফাষ্ট মিনিষ্টার রাইট অনারেবল রডরি মরগান, এসেম্বলি মেম্বার জেনি রাথবন,  বিমান বাংলাদেশ কান্ট্রি ডিরেক্টর শফিকুল ইসলাম,  সহকারী হাইকমিশনার জুলকার নাহেন, চ্যানেল এস এর চেয়ারম্যান  আহমেদ উস সামাদ চৌধুরী, যুক্তরাজ্য আওয়ামীলীগ সভাপতি সুলতান  মাহমুদ শরীফ, সহ সভাপতি জালাল উদ্দিন,  সহ সভাপতি প্রফেসর আবুল হাসেম, সাধারন সম্পাদক সৈয়দ সাজিদুর রহমান ফারুক ও  যুগ্ম সাধারন সম্পাদক  আনোয়ারুজ্জামান চৌধুরী, কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগের সাবেক  সেক্রেটারি সিদ্দিকী নাজমুল আলম, আ স ম মিসবাহ,  মিসবাউর রহমান সহ অন্যান্য বিশিষ্টজনেরা।

সভায় প্রধান ও বিশেষ অতিথিবৃন্দ ছাড়াও অন্যান্যদের মধ্যে বক্তব্য রাখেন মনুমেন্টের পিটিশনার কাউন্সিলার দিলওয়ার আলী, মনুমেন্ট কমিটির জয়েন্ট কনভেনার সাবেক কাউন্সিলার মোহাম্মদ সেরুল ইসলাম,  মনুমেন্ট প্রজেক্ট কমিটির  সেক্রেটারি সাংবাদিক মকিস মনসুর আহমদ, ফাউন্ডার মেম্বার শেখ তাহির উল্লাহ, ফাউন্ডার মেম্বার  আব্দুল লতিফ কয়সর, লেখক ইমরান চৌধুরী, ফয়জুর রহমান চৌধুরী  সহ ওয়েলসের  এসেম্বলি মেম্বার,  কাউন্সিলার    এবং  বিভিন্ন  রাজনৈতিক,  সামাজিক ও কমিউনিটি সংগঠনের নেতৃবৃন্দ।

অনুষ্ঠানে ফোক গানের সম্রাজ্ঞী কণ্ঠশিল্পী মমতাজ বেগম এম,পি,  শিল্পী তানিয়া  রুমেনা মুহিমা ও লেছু মিয়া  সহ অন্যান্যরা সংগীত পরিবেশন করেন।  কবিতা আবৃত্তি করেন মুনিরা চৌধুরী।

প্রধান অতিথির বক্তব্যে  ডা: দীপু মনি   ভাষা অন্দোলনের প্রেক্ষাপট স্মরন করে বলেন,  বাংলা আমার মা, বাংলা আমার ভাষা, একুশ আমাদের অহংকার,  একুশ আমাদের  আত্মপরিচয়, আমরা  গর্বিত জাতি হিসাবে  ইউনিস্কো কর্তৃক  ২১শে ফেব্রুয়ারী আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবসের স্বীকৃতি লাভের পর আজ  সমগ্র দুনিয়া এই দিন পালন করে আসছে বলে উল্লেখ করে  সকল ভাষা শহীদানদের প্রতি শ্রদ্ধা জানিয়ে একুশের চেতনায় উদ্ভোদ্ধ হয়ে দেশের উন্নয়নে প্রবাসীদের ঐক্যবদ্ধভাবে কাজ করে যাওয়ার আহবান জানান।  সুদুর প্রবাসের   কার্ডিফে মনুমেন্ট নির্মাণের সাহসী উদোগ  নেওয়ায়  প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা  ও দেশবাসীর পক্ষ থেকে সকলকে ধন্যবাদ জানান।  প্রজেক্ট কমিটির  সেক্রেটারি মকিস মনসুর এর বক্তবের জবাবে প্রধান অতিথি ডা: দীপু মনি মাননীয় প্রধানমন্ত্রী দেশরত্ন শেখ হাসিনাকে আপনাদের কার্ডিফে আাসার আমন্ত্রণের সংবাদ জানাবো এবং মনুমেন্ট নির্মাণে পর উদ্বোধনীতে না আসতে পারলেও কোন এক সময়ে মনুমেন্ট পরিদর্শনে নিয়ে আসার চেষ্টা করার প্রতিশ্রুতি প্রদান করায় উপস্থিত সকলেই করতালির মাধ্যমে অভিনন্দন জানান।

বিশেষ অতিথি  একুশে ফেব্রুয়ারির গানের রচয়িতা বিশিষ্ট কলামিস্ট আব্দুল গাফ্ফার চৌধুরী সহ সকল বক্তারা এই মহতি উদ্যোগকে স্বাগত জানিয়ে  সহযোগিতার প্রতিশ্রুতি প্রদান করেন।

এখানে উল্লেখ্য যে অনুষ্ঠানে ফাউন্ডার  মেম্বার ও লাইফ মেম্বার এবং ফ্রেন্ডস অফ মনুমেন্ট হিসাবে যারা সম্পৃক্ত হবেন বলে নাম তালিকাভুক্ত করেছেন এই হিসাব অনুযায়ী প্রায় নব্বই হাজার পাউন্ড কালেকশনের  তালিকা পাওয়া গেছে বলে  প্রজেক্ট কমিটির কনভেনার আনোয়ার আলী জানিয়েছেন। প্রজেক্ট কমিটির সকল সদস্যবৃন্দ ছাড়াও ফাউন্ডার মেম্বার ও লাইফ মেম্বার এবং নেইডের সদস্যবৃন্দ অনুষ্ঠানকে সফল করতে সার্বিক সসহযোগিতা করেছেন।

 

  

এডিটর: আনিছুল ইসলাম আশরাফী, এনিমেটরস্ বাংলা মিডিয়া গ্রুপ কর্তৃক প্রকাশিত
সম্পাদকীয় কার্যালয়: কলেজ রোড, শ্রীমঙ্গল, মৌলভীবাজার।
Email: news.amarsylhet24@gmail.com Mobile: 01772 968 710

Developed By : i-Tech Sreemangal
Email : itech.official@hotmail.com
Facebook : http://facebook.com/itech.ctc