Saturday 5th of December 2020 02:27:18 AM

নিজস্ব প্রতিনিধিঃ করোনা পজিটিভ সিলেটের সাবেক মেয়র ও আ’লীগের কেন্দ্রীয় কার্যনির্বাহী কমিটির সদস্য বদর উদ্দিন আহমদকে ঢাকায় সম্মিলিত সামরিক হাসপাতালে (সিএমএইচ) ভর্তি করা হয়েছে। সেখানে ভর্তির পর প্রাথমিকভাবে পরীক্ষা-নিরীক্ষা করে চিকিৎসকরা তাকে প্লাজমা থেরাপি দেওয়ার পরিকল্পনা করেছেন। এ অবস্থায় কামরানের চিকিৎসার জন্য এ পজেটিভ গ্রুপের রক্তের প্লাজমা দাতার সন্ধান করা হচ্ছে।

রোববার রাতে সিলেট মহানগর যুবলীগের সাবেক দপ্তর সম্পাদক মেহেদী কাবুল সাংবাদিকদের এ সব তথ্য জানান। তিনি জানান, করোনায় আক্রান্ত হয়ে সুস্থ এমন প্লাজমা দাতার সন্ধান চেয়ে ‘জনতার কামরান’ আবারও জনতার কাছে হাত বাড়িয়েছেন;লেখা খুদে বার্তা বিভিন্ন জনের কাছে পাঠানো হচ্ছে।

মেহেদী কাবুল আরও জানান, রাত পৌনে ৭টার দিকে ওসমানী আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর থেকে ঢাকার উদ্দেশ্যে রওয়ানা হন কামরান।

এর আগে সন্ধ্যা পৌনে ৬টার দিকে তিনি সিলেটের শহীদ শামসুদ্দিন আহমদ হাসপাতাল থেকে বের হন। এয়ার অ্যাম্বুলেন্সে করে তাকে ঢাকায় আনা হয়।

গত শুক্রবার ওসমানী মেডিকেল কলেজের পিসিআর ল্যাবে কামরানের নমুনা পরীক্ষায় করোনা শনাক্ত হয়। এরপর শনিবার তীব্র জ্বর ও বমিটিংয়ের জন্য নগরীর শহীদ শামসুদ্দিন হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। এর আগে গত ২৮ মে আসমা কামরানেরও করোনা শনাক্ত হয়।

আগের সংবাদ দেখুন,

করোনা পজিটিভ সিলেটের আ’লীগ নেতা কামরান ঢাকায়

করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত দুই রোগীর শরীরে পরীক্ষামূলকভাবে প্লাজমা প্রয়োগ করেছেন রাজারবাগের কেন্দ্রীয় পুলিশ হাসপাতালের চিকিৎসকেরা। হাসপাতালটির চিকিৎসকরা বলছেন, প্লাজমা থেরাপি দেওয়া দুইজনের একজন মুমূর্ষু রোগীর বিস্ময়কর উন্নতি লক্ষ্য করা গেছে। অক্সিজেন গ্রহণের ক্ষমতা একদিনেই বেড়েছে ৩০ থেকে ৬০ শতাংশ পর্যন্ত। আর অন্যজনের অবস্থা আগে থেকেই খারাপ ছিল।

সোমবার রাতে রাজারবাগ কেন্দ্রীয় পুলিশ হাসপাতালের তত্ত্বাবধায়ক ডা. মনোয়ার হাসানাত খান বলেন, ‘আমরা গত দু’দিন আগে দুই রোগীর জন্য প্লাজমা থেরাপির ব্যবস্থা করি। এর মধ্যে করোনা ছাড়াও অন্যান্য রোগের কারণে খুবই ক্রিটিকাল স্টেজে থাকা এক এসবি সদস্য ছিলেন। প্লাজমা থেরাপিতে তার অবস্থার কিছুটা উন্নতি হয়ে আবার ফল করে। তার কার্ডিয়াক ও পেডিয়াট্রিক সমস্যা ছিল। পরে গতকাল মারা যান তিনি। কিন্তু অন্য এক রোগীর ক্ষেত্রে বিস্ময়কর সাফল্য পাচ্ছি।

কেন্দ্রীয় পুলিশ হাসপাতালের প্রধান ডিআইজি হাসান উল হায়দার বলেন, এই হাসপাতাল এখন থেকে মুমূর্ষু রোগীদের ক্ষেত্রে প্রয়োজন হলে প্লাজমা থেরাপি প্রয়োগ করবে। এ জন্য দরকারি সরঞ্জাম ও অন্যান্য প্রস্তুতি নেওয়া হয়েছে।

কেন্দ্রীয় পুলিশ হাসপাতালের নিবিড় পরিচর্যা কেন্দ্রের (আইসিইউ) দায়িত্বরত চিকিৎসকেরা জানিয়েছেন, ঢাকা মেডিকেলে বার্ন ইউনিটের ট্রান্সমিশন মেডিসিন বিভাগের সহায়তায় এই প্লাজমা সংগ্রহ করা হয়েছে। তবে পুলিশ হাসপাতাল নিজেও প্লাজমা সংগ্রহের প্রস্তুতি নিচ্ছে।

আইসিইউ’র একজন চিকিৎসক জানান, পুলিশ হাসপাতালের আইসিইউতে থাকা দুজন মুমূর্ষু রোগীর শরীরে গত শনিবার রাতে প্লাজমা প্রয়োগ করা হয়, যাঁদের বাঁচার আশা ছেড়ে দিয়েছিলেন চিকিৎসকেরা। অনেকটা শেষ চেষ্টা হিসেবে প্লাজমা প্রয়োগ করা হয়। এর মধ্যে একজন গতকাল মারা যান। অন্যজনের অবস্থার আর অবনতি হয়নি। তিনি ভেন্টিলেটরে ছিলেন। এখন তার ভেন্টিলেটর খুলে দেওয়ার চিন্তাভাবনা করা হচ্ছে। তবে রোগীর এই উন্নতি শুধু প্লাজমার কারণে না অন্য কিছুতে, তা এখনই বলা যাবে না।

ওই চিকিৎসক বলেন, মাত্র দুজন রোগীর শরীরে প্লাজমা প্রয়োগ করে এর সফলতা বলা ঠিক হবে না। কমপক্ষে ৮ থেকে ১০ রোগীর শরীরে প্রয়োগের পর এর কার্যকারিতা পরিষ্কার হবে। ওই চিকিৎসক আরও বলেন, বাংলাদেশে তারাই প্রথম প্লাজমা প্রয়োগ করছেন না। এর আগে আরও একটি বেসরকারি হাসপাতাল প্লাজমা থেরাপি প্রয়োগ করেছে।

গত ২৮ এপ্রিল বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা (ডব্লিউএইচও) চলমান পরীক্ষামূলক করোনাভাইরাস চিকিৎসার তালিকা দিয়ে একটি প্রতিবেদন প্রকাশ করেছে। সেখানে ৩৩টি সুনির্দিষ্ট ধরনের এবং অন্যান্য ওষুধ ব্যবহার করে চিকিৎসার কথা আছে। সেই তালিকায় প্লাজমা, স্টেম সেলসহ অনেক পরীক্ষামূলক থেরাপির কথাও আছে। স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় এই প্লাজমা থেরাপির সম্ভাবনা খতিয়ে দেখতে ১৮ এপ্রিল একটি কারিগরি উপকমিটি গঠন করে। কমিটি পরীক্ষামূলক গবেষণার জন্য ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের নৈতিক অনুমতি দেয়।

  

এডিটর: আনিছুল ইসলাম আশরাফী, এনিমেটরস্ বাংলা মিডিয়া গ্রুপ কর্তৃক প্রকাশিত
সম্পাদকীয় কার্যালয়: কলেজ রোড, শ্রীমঙ্গল, মৌলভীবাজার।
Email: news.amarsylhet24@gmail.com Mobile: 01772 968 710

Developed By : i-Tech Sreemangal
Email : itech.official@hotmail.com
Facebook : http://facebook.com/itech.ctc