Friday 30th of October 2020 04:36:50 AM

নুরুজ্জামান ফারুকী নবীগঞ্জঃ নবীগঞ্জে চাকুরির প্রলোভন দেখিয়ে ১ সন্তানের জননীকে ৪ দিন আটকে রেখে ধর্ষন করার অভিযোগ পাওয়া গেছে। ধর্ষণের পর ঢাকা গার্মেন্টেসে পাঠানোর কথা বলে ঢাকা- সিলেট মহা সড়কের আউশকান্দিস্থ আরিফ হোটেলে রেখে কৌশলে চলে যায় ধর্ষকরা। পরে ঐ গৃহবধূ অন্য একজনের ফোন থেকে স্বামীকে কল দেয় । এ সময় স্বামী ঘটনাস্থলে এসে তার স্ত্রী ও ৪ বছরের শিশু সন্তানকে উদ্ধার করেন।

ধর্ষণের শিকার ওই নারী বর্তমানে হবিগঞ্জ সদর আধুনিক হাসপাতালে চিকিৎসাধীন।

জানা যায়, গত ৮ অক্টোবর কুর্শি ইউনিয়নের গোলডুবা গ্রামের জনৈক কাচা মিয়ার পুত্র সেবুল মিয়া (২৫) ও ফিরোজ মিয়ার পুত্র জিবু মিয়া (২৫)  মোবাইল ফোনের সূত্র ধরে চাকুরী দিবার কথা বলে উপজেলার আউশকান্দি ইউনিয়নের নির্যাতিতা গৃহবধুকে ৪ বছরের কন্যা সন্তানসহ  একটি সিএনজি যোগে কুর্শি ইউনিয়নে গোলডুবা গ্রামে সেবুল মিয়ার  ভাড়াটিয়া বাসায় নিয়া যায়। সেখানে নিয়ে দিন রাত ধর্ষন করে সেবুল ও জিবু মিয়া।

এদিকে গৃহবধুকে  বাড়িতে এসে না পেয়ে তার স্বামী বিভিন্ন স্থানে খুজাখুজি করতে তাকেন।  কোথায়ও না পেয়ে গত ১১/১০/২০২০ তারিখে নবীগঞ্জ থানায় একটি জিডি ( সাধারন  ডায়রী) করেন।

পরদিন সোমবার দুপুরে সেবুল ঐ গৃহবধূকে ঢাকায় চাকুরী দেওয়ার কথা বলে ঢাকা- সিলেট মহা সড়কের আউশকান্দি হীরাগঞ্জ মধ্য বাজার আরিফ হোটেলে নিয়ে আসে। পরে তাকে সেখানে রেখে কৌশলে ধর্ষকরা পালিয়ে যায়।

প্রায় ঘন্টাখানেক অপেক্ষা করে তাদের না পেয়ে ঐ গৃহবধু অন্য একজনের মোবাইল ফোন দিয়ে কল দিয়ে সব খুলে বলে তার স্বামীকে। এ সময় তার স্বামী ঘটনাস্থলে এসে তার স্ত্রী ও সন্তানকে উদ্ধার করে গোলডুবা গ্রামে নিয়ে যায়। সেখানে গিয়ে বাড়ি-ঘর ও যে বিচানায় তাকে ধর্ষন করা হয়েছে তা তার স্বামীকে দেখায়।

এ সময় ধর্ষক কাউকে পাওয়া যায়নি। নির্যাতিতা নারী জানান,ধর্ষকদের  সহযোগীতা করেছেন জনৈক এক মহিলা।

পরে স্বামী তার স্ত্রীকে নবীগঞ্জ থানায় নিয়ে গেলে পুলিশ তাকে হাসপাতালে ভর্তি করার পরামর্শ দেন। পরে নির্যাতিতা নারীকে নবীগঞ্জ স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে গেলে  চিকিৎসক তাকে হবিগঞ্জ সদর হাসপাতালে রেফার্ড   করেন।

নবীগঞ্জ থানার  ওসি আজিজুর রহমান জানান, এ ঘটনার কোন অভিযোগ পাইনি। অভিযোগ পেলে আমরা আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণ করবো।

নড়াইল প্রতিনিধিঃ নড়াইলে সেনাবাহিনীতে চাকুরি দেয়ার প্রলোভনে আক্তার হোসেন (৫৩) নামে একব্যক্তিকে আটক করেছে ডিবি পুলিশ। রোববার (১৫ ডিসেম্বর) বিকেলে পুলিশ সুপারের কার্যালয়ে সাংবাদিকদের এ তথ্য জানিয়েছেন পুলিশ সুপার মোহাম্মদ জসিম উদ্দিন পিপিএম (বার)। আটককৃত আক্তার নড়াইল সদরের মধুরগাতি গ্রামের সুলতান আহমেদ ফকিরের ছেলে।

পুলিশ জানায়, নড়াইল পৌরসভার ভাটিয়া এলাকার তপন মজুমদারের ছেলে জয় মজুমদারকে বাংলাদেশ সেনাবাহিনীতে চাকুরি দেয়ার কথা বলে আক্তার হোসেন প্রতারণার চেষ্টা করছিল। শনিবার গভীর রাতে মধুরগাতি এলাকা থেকে আক্তারকে আটক করে ডিবি পুলিশ। তার কাছ থেকে সেনাবাহিনীতে চাকুরির ভুয়া দু’টি আবেদন, পুলিশ ভেরিফিকেশনের কাগজপত্রসহ বিভিন্ন কাগজপত্র জব্দ করা হয়েছে। পাঁচ লাখ টাকার বিনিময়ে আক্তার হোসেন জয় মজুমদারকে সেনাবাহিনীতে চাকুরি দেয়ার কথা বলে প্রতারণার চেষ্টা করছিল।

আমারসিলেট টুয়েন্টিফোর ডটকম,১২সেপ্টেম্বর,রেজওয়ান করিম সাব্বিরঃ  সিলেটের গোয়াইনঘাটে রিলিফ কার্ডের প্রলোভন দেখিয়ে এক নারীকে ধর্ষণ করেছে ইউপি সদস্য। নারীর দাযের করা মামলায় গোপন সংবাদের ভিত্তিত্বে পুলিশ গোয়াইনঘাট বাজারে অভিযান চালিয়ে ধর্ষনকারী ইউপি সদস্যকে আটক করে। আটককৃত ইউপি সদস্য হলেন পূর্ব জাফলং ইউনিয়নের ২নং ওয়ার্ডের সদস্য নয়াবস্তির কটাই মিয়ার ছেলে আতাউর রহমান ওরফে আতাই (৪০)।

পুলিশ ও মামালা সূত্রে জানা যায়- গত ৯সেপ্টেম্বর জাফলংয়ের কালীনগরের একজন নারী রিলিফ কার্ডের জন্য ইউনিয়ন পরিষদে আতাই মেম্বারের নিকট যান। চতুর নারী লোভী আতাই তাকে মামার দোকানের মেলার মাঠের পাশে তাঁর মালিকানাধীন পাথর মিলে দেখা করতে বলে। রিলিফ কার্ডের জন্য ঐ নারী সরল বিশ্বাসে আতাই মেম্বারের পাথর মিলে দেখা করতে গেলে আতাই মেম্বার মিল ঘরে তাকে জোর পূর্বক ধর্ষণ করে। এঘটনায় ওই ভিকটিম বাদী হয়ে গোয়াইনঘাট থানায় একটি ধর্ষণ মামলা দায়ের করে যাহার নং ১০ (১১-০৯-১৭)।

সোমবার বিকেলে আতাই মেম্বার থানার সামনে ঘোরাঘুরি করার প্রক্কালে গোয়াইনঘাট থানার এস.আই মতিউর রহমান তাকে আটক করে। অপরদিকে আতাই প্রভাবশালী নেতার ইশারায় পর্যটন খ্যাত জাফলং পাথর কোয়ারীতে ও পিয়াইন নদীতে অবৈধ বোমা মেশিন, বিলাই বোমা পরিচালনা করে আসছে। প্রভাবের কারনে কেউ তার বিরুদ্ধে মুখ খুলে কথা বলতে সাহস পায় না। গ্রেফতারের পর হতে এলাকার সচেতন মহল নারী ধর্ষনের ঘটনার সুষ্ট তদন্ত সাপেক্ষে দৃষ্টান্ত মুলক শাস্তি দাবী করেন। যাতে আর কোন ইউপি সদস্য এমন নেক্কার জনক ঘটনার জন্ম দিতে না পারে।

এব্যাপারে গোয়াইনঘাট থানার ওসি তদন্ত হিল্লোল রায় জানান- ধর্ষণের মামলায় আতাই মেম্বারকে পুলিশ আটক করেছে। ধর্ষন মামলায় গ্রেফতার দেখিয়ে কোর্ট হাজতে প্রেরণ করা হবে।

“ভোট মৌসুমে কালভার্ট নির্মাণের প্রলোভন দিলেও কাজ করছেন না জনপ্রতিনিধিরা”

আমার সিলেট টুয়েন্টি ফোর ডটকম,১৮এপ্রিল,আব্দুর রহমান শাহীনঃ মৌলভীবাজারের জুড়ী উপজেলার পূর্বজুড়ী ইউনিয়নের পূর্ব বড়ধামাই গ্রামের বীর মুক্তিযোদ্ধা ফয়জুর রহমানের বাড়ির পাশ্ববর্তী রাস্তার ঝুঁকিপূর্ণ ও নড়বড়ে বাঁশের সাঁকোই তিন শতাধিক জনসাধরণ ও কোমলমতি শিক্ষার্থীদের একমাত্র ভরসা।

এলাকাবাসী সূত্রে জানা যায়, ওই রাস্তা দিয়ে প্রতিনিয়ত মাদরাসা,স্কুল ও কলেজের শতাধিক কোমলমতি শিক্ষার্থীসহ পূর্ব বড়ধামাই ও সাঁওতাল বস্তির ৩শতাধিক জনসাধারণ স্বাধীনতার পর থেকে এখন পর্যন্ত জীবনের ঝুঁকি নিয়ে ওই  বাঁশের সাঁকোতে পারাপার করতে হচ্ছে।

ইতিমধ্যে ওই গ্রামের অনেকেই ওই সাঁকো পারাপার হতে পড়ে গিয়ে মারাত্মক আহত হয়েছেন।  এমনকি অত্রাঞ্চলে কোনো ব্যাক্তি মারা গেলে, মৃত ব্যাক্তির কবর খনন ও লাশ কাঁধে নিয়ে কবরস্থানে যাতায়াত করা ও অসম্ভব হয়ে পড়েছে।

প্রতিবছর বর্ষা মৌসুমে দু’তিন বার ওই সাঁকোতে গ্রামবাসীরা সবাই মিলে চাঁদা দিয়ে ভাঙ্গা-গড়ার কাজ করতে হয়। ভোট মৌসুমে কালভার্ট নির্মাণের প্রলোভন দিলেও কাজ করছেন না জনপ্রতিনিধিরা। এলাকাবাসী অভিযোগ করে বলেন, নির্বাচন  এলেই জনপ্রতিনিধিরা প্রতিবারই আশার বাণী শোনান।

নির্বাচিত হলে আর আমাদের (জনগণের) কথা মনে থাকে না তাঁদের। এলাকাবাসী ওই খালের উপর কালভার্ট নির্মাণ করার জন্য সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের কাছে জোর দাবী জানিয়েছেন।

  

এডিটর: আনিছুল ইসলাম আশরাফী, এনিমেটরস্ বাংলা মিডিয়া গ্রুপ কর্তৃক প্রকাশিত
সম্পাদকীয় কার্যালয়: কলেজ রোড, শ্রীমঙ্গল, মৌলভীবাজার।
Email: news.amarsylhet24@gmail.com Mobile: 01772 968 710

Developed By : i-Tech Sreemangal
Email : itech.official@hotmail.com
Facebook : http://facebook.com/itech.ctc