Sunday 1st of November 2020 07:14:28 AM

নোয়াখালীর সুবর্ণচর উপজেলার চরজব্বার ইউনিয়নের জাহাজমারা গ্রামে ধানক্ষেত থেকে নুরজাহান নামে এক নারীর মরদেহের পাঁচ টুকরা উদ্ধারের ঘটনার রহস্য উদ্ঘাটন করেছে পুলিশ। নৃশংস এ হত্যাকাণ্ডের মূল পরিকল্পনাকারী মামলার বাদী ওই নারীর ছেলে হুমায়ুন কবির। তাকে সহযোগিতা করেছেন তার দুই আত্মীয়, এক কসাই বন্ধুসহ সাতজন।

মায়ের জিম্মায় আনা সুদের টাকা পাওনাদারদের না দিয়ে বাঁচতে এবং পৈতৃক সম্পত্তি আত্মসাৎ করতেই মাকে হত্যার পরিকল্পনা নেন হুমায়ুন।বৃহস্পতিবার (২২ অক্টোবর) দুপুরে জেলা পুলিশ সুপারের কার্যালয়ে সংবাদ সম্মেলনে এসব তথ্য জানান চট্টগ্রাম রেঞ্জের ডিআইজি মোহাম্মদ আনোয়ার হোসেন।

৭ অক্টোবর জাহাজমারা গ্রামের আমীর হোসেনের ধানক্ষেত থেকে পুলিশ ওই নারীর মাথা ও দেহের একটি অংশ এবং পরদিন দুপুরে আরও তিনটি অংশ উদ্ধার করে। ওই ঘটনায় নিহত নুরজাহান বেগমের ছেলে হুমায়ুন কবির বাদী হয়ে চরজব্বার থানায় মামলা করেন। ঘটনার ১৫ দিন পর বেরিয়ে এলো হত্যার মূল পরিকল্পনাকারী ছেলে হুমায়ুনই। হুমায়ুনসহ পাঁচজনকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। এখনও দু’জন পলাতক রয়েছে। গ্রেপ্তারকৃত দু’জন দোষ স্বীকার করে আগেই আদালতে ১৬৪ ধারায় জবানবন্দি দিয়েছেন। বৃহস্পতিবার হুমায়ুর কবিরও আদালতে স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দেন।
সংবাদ সম্মেলনে জেলা পুলিশ সুপার আলমগীর হোসেন জানান, হুমায়ুন কবিরের সৎভাই বেলাল দেড় বছর আগে মারা যান। বেলাল গরু পালন, মাছ চাষ ও ব্যবসা করার জন্য বেসরকারি সংস্থাসহ (এনজিও) মহাজনদের কাছ থেকে চার লাখ টাকা সুদে ঋণ নেন। বেলাল মারা যাওয়ায় ওই কিস্তির দায় এসে পড়ে তার মা নুরজাহান বেগমের ওপর। কিস্তি পরিশোধের জন্য মহাজন ও এনজিওকর্মীরা হুমায়ুন এবং তার মাকে চাপ দিতে থাকেন। এ জন্য হুমায়ুন তার মাকে সৎভাই বেলালের নামে থাকা জমি বিক্রির অনুরোধ করেন। এতে নুর জাহান রাজি হননি। এ নিয়ে মা-ছেলের মধ্যে দ্বন্দ্ব শুরু হয়। এর জেরেই হুমায়ুন মাকে হত্যার পরিকল্পনা করেন।

পুলিশ সুপার আরও জানান, পূর্বপরিকল্পনা অনুযায়ী হুমায়ুন তার মামাতো ভাই কালাম ওরফে মামুন, মামাতো বোনের স্বামীসহ সাতজনকে নিয়ে ৬ অক্টোবর রাতে বৈঠক করেন। সেই বৈঠকে নেওয়া পরিকল্পনা অনুযায়ী গভীর রাতে তারা নুরজাহান বেগমকে ঘুমের মধ্যে বালিশচাপা দিয়ে হত্যা করেন। পরে পেশাদার কসাই নুর ইসলাম লাশ পাঁচ টুকরা করে রাতেই পাওনাদার একই গ্রামের আমীর হোসেনের ধানক্ষেতে ছিটিয়ে দেন।

মিনহাজ তানভীরঃ  বাংলাদেশের সর্ববৃহৎ ও সর্বোচ্চ সংখ্যক প্রেসিডেন্ট’স্ রোভার স্কাউট অ্যাওয়ার্ড অর্জনকারী জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয় রোভার স্কাউট গ্রুপের সেবা স্তরের নিম্নোক্ত পাঁচ জন রোভার, রোভার স্কাউটস্ এর সর্বোচ্চ সম্মান প্রেসিডেন্ট’স্ রোভার স্কাউট অ্যাওয়ার্ড প্রাপ্তির লক্ষ্যে শ্রীমঙ্গল থেকে জাফলং পর্যন্ত ১৫০ কিলোমিটার পথ পায়ে হেঁটে পরিভ্রমণের উদ্দেশ্যে গত ২৭ সেপ্টেম্বর ২০২০ ইং তারিখ শ্রীমঙ্গলের দায়িত্বপ্রাপ্ত উপজেলা নির্বাহী অফিসার জনাব নজরুল ইসলামের সাথে সৌজন্য সাক্ষাতের মাধ্যমে শ্রীমঙ্গল শহরের চৌমোহনা চত্বর থেকে সকালে যাত্রা শুরু করে।

পাঁচ দিন ব্যাপী এই প্রোগ্রামে তারা রাজনগর, ফেঞ্চুগঞ্জ, সিলেট, জৈন্তাপুর ও জাফলং পায়ে হেঁটে পরিভ্রমণ করেন। এই সময় তারা সমাজ সচেতনতামূলক পাচঁটি স্লোগান বহন করেন- “Scouts for creating a better world”; “স্বাস্থ্য বিধি মেনে চলুন, কোভিড-১৯ মুক্ত থাকুন”; ” মুজিববর্ষের আহ্বান, বেশী বেশী গাছ লাগান”; “স্বেচ্ছায় করবো রক্তদান, আমার রক্তে বাঁচবে প্রাণ”; “করবো মোরা ধূমপান-মাদক বর্জন, গড়বো মোরা সুখের জীবন”।
পরিভ্রমণ পথে তারা বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ দর্শনীয় স্থান, শিক্ষা প্রতিষ্ঠান, সরকারি ও বেসরকারি গুরুত্বপূর্ণ অফিস ইত্যাদি পরিদর্শন করে এবং গণ্যমান্য ব্যক্তিবর্গের সাথে সৌজন্য সাক্ষাৎ করেন।

পরিভ্রমণ শেষে গোয়াইনঘাট উপজেলা নির্বাহী অফিসার জনাব মোঃ নাজমুস সাকিব এর সাথে সৌজন্য সাক্ষাৎ করে পরিভ্রমণ সম্পন্ন করেন।

পায়ে হেঁটে ১৫০ কি. পথ পরিভ্রমণকারী রোভারদের সাথে শ্রীমঙ্গলে সৌজন্য

পরিভ্রমণ দলের সদস্যরা হলেন-
১। রোভার মোঃ ইমতিয়াজ মাহমুদ (দলনেতা)
২। রোভার মোল্লা মামুন হাসান (সদস্য)
৩। রোভার আলমগীর হোসেন (সদস্য)
৪। রোভার আনোয়ার হোসেন (সদস্য)
৫। রোভার নামজুল হাসান মুন্না (সহকারী দলনেতা)

পরিভ্রমণ দলের সদস্যবৃন্দ পাচঁ দিনের পরিভ্রমণে নানা অভিজ্ঞতার কথা বর্ণনা করে বলেন, আমাদের এ যাত্রার শুরু থেকেই বিনোদন আর অভিজ্ঞতা অর্জনের মধ্য দিয়ে অতিবাহিত হয়েছে।

উল্লেখ্য, শ্রীমঙ্গল উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা নজরুল ইসলামের উদ্বোধনের মধ্য দিয়ে তাদের ১৫০ কিমি পথ পায়ে হাটার অভিযান উপজেলার চৌমুহনা থেকে শুরু হয়। এর আগে শ্রীমঙ্গল অনলাইন প্রেসক্লাবের নেতৃবৃন্দের সাথে সাক্ষাত হলে সভাপতি আনিছুল ইসলাম আশরাফী তাদের এই অভিযানের সফলতা কামনা করেন।

পূর্বের সংবাদের লিঙ্ক

১৫০ কি.পরিভ্রমণ উদ্বোধন করলেন শ্রীমঙ্গলের ইউএনও নজরুল ইসলাম

বিশেষ প্রতিনিধিঃ রাজধানী ঢাকার পল্লবী থানার ভেতরে আজ বুধবার(২৯ জুলাই ২০২০) সকালে বিস্ফোরণে চার পুলিশ সদস্যসহ পাঁচ জন আহত হয়েছেন।

ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশের উপ-কমিশনার (মিডিয়া) মো. ওয়ালিদ হোসেন সংবাদ মাধ্যমকে জানান, সকাল ৭টার দিকে পল্লবী থানায় ওজন মাপার মেশিনের মতো একটা যন্ত্র বিস্ফোরিত হয়।

মো. ওয়ালিদ হোসেন আরও জানান, আহত দুই পুলিশ সদস্যকে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে এবং অন্য একজনকে চক্ষু হাসপাতালে নেয়া হয়েছে। এছাড়া ইন্সপেক্টর (অপারেশন) ইমরানসহ দুজনকে প্রাথমিক চিকিৎসা দেয়া হয়েছে।

এর আগে, মঙ্গলবার রাতে পল্লবী থানা পুলিশের একটি দল দুটি পিস্তল ও ওজন মাপা মেশিনের মতো বস্তুসহ তিনজনকে গ্রেপ্তার করে। পরে তাদের থানায় নিয়ে আসা হয়।

ওজন মাপা মেশিনের মতো ওই বস্তু থেকে বিস্ফোরণটি ঘটেছে বলে জানিয়েছে পুলিশ।

অপরদিকে এ ঘটনাকে ভাড়াটে সন্ত্রাসীদের কাজ বলেছে পুলিশ এটি জঙ্গি কাজের অংশ নয়।

করোনা ভাইরাসের কারণে সৃষ্ট বর্তমান সংকটময় পরিস্থিতি মোকাবিলায় পাঁচটি বিষয়ে সবাইকে মনোযোগী হওয়ার আহ্বান জানিয়েছেন বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। আজ (বৃহস্পতিবার) সন্ধ্যায় দক্ষিণ এশিয়ার অর্থনীতিতে কোভিড-১৯ এর প্রাদুর্ভাব মোকাবিলায় আঞ্চলিক সহযোগিতা জোরদার বিষয়ক এক ভার্চুয়াল সম্মেলনে তিনি এ আহ্বান।

‘এনহ্যান্সিং রিজিওন্যাল কো-অপারেশন ইন সাউথ এশিয়া টু কমব্যাট কোভিড-১৯ রিলেটেড ইমপ্যাক্ট অন ইটস ইকোনোমিকস’ শীর্ষক এ ভার্চুয়াল সম্মেলনের আয়োজন করে বিশ্ব অর্থনৈতিক ফোরাম (ডব্লিউইএফ)।

সম্মেলনে উদ্বোধনী বক্তব্যে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বিশ্ব সম্প্রদায়ের উদ্দেশে বলেন, ‘বিশ্ব সম্ভবত গত একশ’ বছরের মধ্যে সবচেয়ে বড় সংকটের মুখোমুখি। সুতরাং সবাই একসঙ্গে সঙ্কটের মোকাবিলা করা দরকার। প্রতিটি সমাজ থেকে সমন্বিত দায়িত্বশীলতা এবং অংশীদারিত্বমূলক মনোভাব প্রয়োজন।’

তিনি বলেন, ‘বিশ্ব ইতোমধ্যে জলবায়ু পরিবর্তনের সঙ্গে লড়াই করছে। এখন, করোনা ভাইরাস আমাদের অস্তিত্বকে চ্যালেঞ্জ করছে। বিশ্বায়নের বর্তমান পর্যায়ে একটি দেশকে পুরো বিশ্ব থেকে আলাদা রাখা সম্ভব নয় এবং এখানে বিচ্ছিন্নতার নীতি আর কাজ করবে না।’

প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘আমরা জানি না এই মহামারি কতদিন থাকবে। এটি ইতোমধ্যে অর্থনীতিতে ক্ষতিগ্রস্ত করেছে। অর্থনীতি, ব্যবসা ও সমাজের স্বাভাবিক অবস্থায় ফিরিয়ে আনতে হবে; ভয় ও ট্রমা কাটাতে জনগণকে সহযোগিতা করতে হবে এবং গুরুত্বপূর্ণ সেক্টরগুলোকে পুনরুজ্জীবিত করতে হবে।’

প্রধানমন্ত্রী বলেন, বিশ্ব একটি সংকটময় পরিস্থিতি অতিক্রম করছে। এই সংকট মোকাবিলায় আমাদের যথাযথ পদক্ষেপ গ্রহণ করতে হবে। এসময় তিনি পাঁচটি বিষয়ে সবাইকে মনোযোগী হওয়ার আহ্বান জানান। বিষয়গুলো হচ্ছে-

প্রথমত: সমাজের বিভিন্ন শ্রেণির মধ্যে দারিদ্র্য এবং বৈষম্য দ্রুত বাড়বে। গেলো এক দশকে আমরা আমাদের দরিদ্র জনগোষ্ঠীর অর্ধেক দারিদ্র্যসীমা থেকে বের করে এনেছিলাম। তাদের অনেকে এখন আবার আগের অবস্থানে ফিরে যেতে পারে। সুতরাং, বিশ্বকে মানবকল্যাণ, বৈষম্য দূরীকরণ, দরিদ্র জনগোষ্ঠীকে সহায়তা এবং কোভিড-১৯ এর আগের অর্থনৈতিক অবস্থায় ফিরিয়ে নিতে নতুন করে ভাবতে হবে।

দ্বিতীয়ত: আমাদের প্রয়োজন জি-৭, জি-২০ এবং ওইসিডির মতো সংগঠনগুলো হতে দৃঢ় ও পরিকল্পিত বৈশ্বিক নেতৃত্ব। জাতিসংঘ নেতৃত্বাধীন বহুপাক্ষিক ব্যবস্থাকেও এগিয়ে আসা উচিত। আমি অধ্যাপক সোয়াবকে (বিশ্ব অর্থনৈতিক ফোরোমের প্রতিষ্ঠাতা) প্রশংসা করছি। কারণ তিনি সংক্রামক রোগগুলোকে ২০২০ এর বৈশ্বিক ঝুঁকি সম্পর্কিত প্রতিবেদনে অন্যতম মুখ্য ঝুঁকি হিসেবে চিহ্নিত করেছেন। সুতরাং, ফোরাম ও জাতিসংঘের উচিত সরকার এবং বিশ্ব ব্যবসাকে এ বিষয়ে একত্রিত করা এবং নেতৃত্ব দেওয়া।

তৃতীয়ত: আমরা ইতোমধ্যে বিশ্বব্যাপী ব্যবসা, কাজ ও উৎপাদনে পরিবর্তন প্রত্যক্ষ করেছি। কোভিড পরবর্তী সময়ে, নতুন নীতি, স্ট্যান্ডার্ড ও পদ্ধতি দেখবো। ইতোমধ্যে আমরা দেখছি সরবরাহ চেইনে থাকা বিভিন্ন আন্তর্জাতিক ব্র্যান্ডকে যথাযথ দায়িত্বশীলতার পরিচয় দিচ্ছে না। সুতরাং, আমাদের এমন কৌশল ও বাস্তবমুখী সহায়তা ব্যবস্থা গ্রহণ করতে হবে যেন বাংলাদেশের মতো দেশগুলো টিকে থাকতে পারে।

চতুর্থত: অভিবাসী কর্মীরা বেকারত্বসহ অত্যন্ত কঠিন পরিস্থিতি পার করছেন। এটি দক্ষিণ এশিয়ার অর্থনীতিকে ঝুঁকির মধ্যে ফেলছে। সুতরাং, বোঝা ও দায়িত্ব শেয়ার করার মতো আমাদের এমন একটি অর্থপূর্ণ বৈশ্বিক কৌশল ও পরিকল্পনা গ্রহণ করতে হবে। পঞ্চম: এই মহামারির সময়ে আমরা কার্যকরভাবে বেশকিছু ডিজিটাল প্রযুক্তি ও যন্ত্রপাতির ব্যবহার করেছি। যেমন, কৃত্রিম বুদ্ধিমত্তা ও মোবাইল ফোনের মাধ্যমে সংক্রমণ চিহ্নিত করা। ভবিষ্যতের প্রস্তুতির জন্য আমরা বিভিন্ন সেক্টরে এই রকম উদ্ভাবনীমূলক ব্যবস্থা গ্রহণ করতে পারি।

বিশ্ব অর্থনৈতিক ফোরামের (ডব্লিউইএফ) প্রেসিডেন্ট বর্জ ব্র্যান্ডের স্বাগত ভাষণের মাধ্যমে বৃহস্পতিবার সন্ধ্যা ৭টায় শুরু হয় সম্মেলন। পরে কোভিড-১৯ পরিস্থিতি নিয়ে সবাইকে ব্রিফ করেন বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার (ডব্লিউএইচও) দক্ষিণ-পূর্ব এশিয়ার আঞ্চলিক পরিচালক ডা. পুনম খেত্রপাল সিং।পার্সটুডে

হাবিবুর রহমান খান,জুড়ী প্রতিনিধিঃ মৌলভীবাজারের জুড়ী উপজেলার গোয়ালবাড়ী ইউপির মাগুরা গ্রামের মৃত্যু হাজী হাসন খান এর ছেলে রুমান খাঁন(২৮) বেশ কিছুদিন ধরে নিখোঁজ রয়েছেন।

পারিবারিক সূত্রে জানা যায়, কাতার প্রবাসী রুমান খান গত রমজানের ঈদের ছুটি কাটাতে বাড়ি আসেন।ছুটি শেষের দিকে হওয়ায় আমার ছোট ভাই রুমান খান বড়লেখা উপজেলার দর্গাবাজার গ্রামে আমার বোনের সাথে দেখা করার জন্য গত ১৩/১০/২০১৯ তারিখে বোনের বাড়ীতে জায়।

সেকান থেকে ১৫/১০/২০১৯ তারিখে বিকালে অনুমান ৪ ঘটিকায় দর্গাবাজার হইতে নিজ বাড়ী জুড়ীর উদ্দেশ্যে রওয়ানা করিয়া আর বাড়ীতে যায় নাই।তার ব্যবহিত মোবাইল নাম্বার নং ০১৭৬৮৭৭৫২০ তে ফোন করিলে ফোনটি বন্ধ পাওয়া যায়।
আমরা আমাদের সকল আত্বীয় স্বজনের সাথে যোগাযোগ করলেও কোথাও তার খোঁজ পাওয়া যায়নি,নিখোঁজ হওয়ার পর থেকে উনার ব্যবহ্নত মোবাইল ফোনটিও বন্ধ পাওয়া যাচ্ছে।

যদি কোনো সহৃদয়বান ব্যাক্তি তার সন্ধান পেয়ে থাকেন তবে তার পরিবারের সাথে যোগাযোগ করার অনুরোধ রইল।
বড় ভাই হারুন খাঁন- 01759286591
ভাগিনা তালিম – 01868776445

উনার নিখোঁজের বিষয়ে বড়লেখা থানায় সাধারণ ডায়রি করা হয়েছে। ডায়রি নং ৮৬৩,তারিখ ১৯/১০/২০১৯ ইং।

এইচএসসি ও সমমান পরীক্ষার পাঁচ দিনের সূচির বদল হয়েছে। দেশের আন্তঃশিক্ষা বোর্ড সমন্বয় সাব-কমিটি এ তথ্য জানায়। মাধ্যমিক ও উচ্চমাধ্যমিক শিক্ষা বোর্ডের ওয়েবসাইটে জানানো হয়েছে, ২০১৯ সালের এইচএসসি পরীক্ষার প্রকাশিত সময়সূচির আংশিক পরিবর্তন করা হয়েছে।

উল্লেখ করা হয়েছে, ১৭ এপ্রিলের পরীক্ষাগুলো ৯ মে বিকালে, ১৮ এপ্রিলের পরীক্ষা ১১ মে বিকালে এবং ২২ এপ্রিলের পরীক্ষা ১২ মে বিকালে নেওয়া হবে। এছাড়া ৪ মে এবং ৬ মের পরীক্ষা একই দিন সকালের পরিবর্তে বিকালে নেওয়া হবে।

শবে বরাতের কারণে এক দিনের এবং পরীক্ষাগুলো পাশাপাশি পড়ে যাওয়ায় শিক্ষার্থীদের সুবিধার দিক হিসেব করে অন্য চারদিনের পরীক্ষা সূচি বদলে দেওয়া হয়েছে।

গত ১ এপ্রিল থেকে শুরু এইচএসসি ও সমমানের পরীক্ষায় এবার ১৩ লাখ ৫১ হাজার ৫০৫ জন শিক্ষার্থী অংশ নিচ্ছে।

নড়াইল প্রতিনিধি: সাংস্কৃতিক অঙ্গনে বিভিন্ন ক্ষেত্রে অবদানের জন্য নড়াইলে পাঁচ গুণি শিল্পীকে সংবর্ধনা দেয়া হয়েছে। জেলা শিল্পকলা একাডেমীর আয়োজনে এ সংবর্ধনা দেয়া হয়।
সংবর্ধিত শিল্পীরা হলেন লোক সঙ্গীতে মোঃ ইউনুছ শেখ, যন্ত্রসংগীতে এনামুল কবির, চারুকলায় ধীমান বিশ^াস, সঙ্গীতে নিরঞ্জন সিংহ ও নাট্যকলায় প্রদ্যোৎ ভট্টাচার্য্য।
শুক্রবার(২৬ অক্টোবর) সন্ধ্যায় জেলা শিল্পকলা একাডেমী হলরুমে আয়োজিত সংবর্ধনা সভায় নড়াইলের জেলা প্রশাসক আনজুমান আরার সভাপতিত্বে বক্তৃতা করেন প্রধান অতিথি নড়াইল-২ আসনের সংসদ সদস্য অ্যাডঃ শেখ হাফিজুর রহমান, বিশেষ অতিথি নড়াইলের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (সদর সার্কেল) মো: শরফুদ্দিন, অবসরপ্রাপ্ত অধ্যক্ষ প্রফেসর মুন্সী হাফিজুর রহমান, জেলা শিল্পকলা একাডেমির সাধারণ সম্পাদক মলয় কুমার কুন্ডু, জেলা কালচারাল অফিসার মোঃ হায়দার আলী, জেলা পরিষদের সদস্য বীরমুক্তিযোদ্ধা সাইফুর রহমান হিলু, নড়াইল প্রেসক্লাবের সভাপতি অ্যাডঃ মোঃ আলমগীর সিদ্দিকী প্রমুখ।
বক্তারা বলেন, ইতিহাস ঐতিহ্য সমৃদ্ধ নড়াইল জেলায় অনেক গুণিমানুষের জন্ম হয়েছে। এসব গুণিশিল্পীরা দেশে-বিদেশে নড়াইল জেলাকে পরিচিত করে তুলেছে। এসব গুণিব্যক্তিজনদের যোগ্য সম্মান জানাতে হবে। গুণিজনসহ নানা শ্রেণীপেশার মানুষকে সঙ্গে নিয়ে ঘুষ, দুর্নীতিমুক্ত একটি উন্নত জেলায় রূপান্তরের জন্য সকলকে ঐক্যবদ্ধভাবে কাজ করার আহবান জানান।
পরে অতিথিবৃন্দ সংবর্ধিত শিল্পীদের হাতে সম্মাননা ক্রেষ্ট ও প্রতিজনকে নগত ১০ হাজার টাকা করে তুলে দেন। পরে এ উপলক্ষে স্থানীয় শিল্পীদের অংশগ্রহণে মনোজ্ঞ সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়।

প্রিতম পাল: ‘ভূনবীর নবজাগরণ ইসলামী যুব সংঘের’ উদ্যোগে মৌলভীবাজারের শ্রীমঙ্গলে অনুষ্ঠিত হয়েছে ফ্রি ব্লাড গ্রুপিং ক্যাম্পেইন ও শিক্ষা উপকরণ বিতরণ।

সোমবার (২২অক্টোবর) দিনব্যাপী উপজেলার ভূনবীর পশ্চিমপাড়া জামে মসজিদ সংলগ্ন মাদ্রাসা ক্যাম্পাসে আয়োজিত এই ফ্রি ব্লাড গ্রুপিং ক্যাম্পেইন ও শিক্ষা উপকরণ বিতরণ অনুষ্ঠানে সংগঠনের সভাপতি লুৎফুর হক লোকমান এর সভাপতিত্বে ও সহ সভাপতি মাওলানা জুনাইদ আহমদ জুনেদ এর পরিচালনায় প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন শ্রীমঙ্গল উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষক সমিতির সভাপতি ঝলক কান্তি চক্রবর্তী।

বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন ভূনবীর সরকারি স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স এর মেডিকেল অফিসার ডাঃ তাহমিদ হাসান, ভূনবীর দশরথ হাই স্কুল এন্ড কলেজের সহকারী অধ্যক্ষ দীপংকর ভট্টাচার্য, ২নং ভূনবীর ইউ.পি’র ৩নং ওয়ার্ডের মেম্বার আব্দুল ওয়াহিদ, সংগঠনের প্রধান উপদেষ্টা আব্দুর রশিদ মহালদার, ভূনবীর সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক সাইফুল ইসলাম সোহেল, সিনিয়র শিক্ষক তারিক হাসান ও জহিরুল ইসলাম মিঠু ও ব্লাডম্যান শ্রীমঙ্গলের নেতৃবৃন্দরা।

এসময় প্রায় পাঁচ শতাধিক জনসাধারণের ফ্রি ব্লাড গ্রুপ নির্ণয় করা হয় এবং একান্নজন শিক্ষার্থীদের মধ্যে শিক্ষা উপকরণ বিতরণ করা হয় ।

ডেস্ক নিউজঃ কারাবন্দি বিএনপি চেয়ারপারসন ও সাবেক প্রধানমন্ত্রী খালেদা জিয়ার চিকিৎসায় পাঁচ সদস্যের নতুন একটি মেডিকেল বোর্ড গঠন করা হয়েছে। শনিবার (৬ অক্টোবর) বিকালে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয় হাসপাতাল প্রশাসন এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

বিএসএমএমইউর মেডিসিন বিভাগের সাবেক চেয়ারম্যান অধ্যাপক ডা. মো আব্দুল জলিল চৌধুরীর নেতৃত্বে এই ৫ সদস্যের বোর্ডে রয়েছেন অধ্যাপক ডা. সৈয়দ আতিকুল হক, অধ্যাপক ডা. সজল কৃষ্ণ ব্যানার্জী, অধ্যাপক ডা. নকুল কুমার দত্ত ও সহযোগী অধ্যাপক ডা. বদরুনেসা।

বিএসএমএমইউ সূত্র জানায়, বিকাল পৌনে চারটায় খালেদাকে হাসপাতালে নেয়া হয়েছে। পরে হাইকোর্টের নির্দেশনা অনুসারে আগের চিকিৎসা বোর্ড পরিবর্তন করে খালেদার জন্য ৫ সদস্যের নতুন বোর্ড প্রস্তুত করা হয়। আগের বোর্ডের বিরুদ্ধে রাজনৈতিক অভিযোগ থাকায় নতুন বোর্ড গঠন করা হয়েছে। আর এই বোর্ডে যারা আছেন তারা দেশের সেরা চিকিৎসক।

বেনাপোল প্রতিনিধি: যশোরের শার্শার বাগআঁচড়ার সাতমাইল নামক স্থানে বাস ও প্রাইভেট কারের মধ্যে মুখোমুখি সংঘর্ষের ঘটনা ঘটেছে। বুধবার দুপুর আড়াইটার সময় দ্রুত গতীর যশোর-জ-১১-০১০৮ নাম্বারের বাস ও ঢাকা মেট্রো-গ- ১২-৬২৭৮ নাম্বারের প্রাইভেট কারের মধ্যে এই সংঘর্ষ ঘটে।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, সাতক্ষীরা থেকে ছেড়ে আসা দ্রুতগামী লোকাল বাসের সাথে যশোর থেকে ছেড়ে আসা একটি প্রাইভেট কারের মুখোমুখি সংঘর্ষের ঘটনা ঘটেছে। এ ঘটনায় পাঁচজন মারাত্মক ভাবে আহত হয়েছে। আহত পাঁচজনকে প্রথমে স্থানীয় হাসপাতাল এবং পরে উন্নত চিকিৎসার যশোর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। আহত ব্যক্তিরা প্রত্যেকেই পাইভেট কারের যাত্রী। তাদের অবস্থা আশঙ্কাজনক।

আহত ব্যক্তিরা হলেন, সাতক্ষীরার কলারোয়া থানার ধান্যতারা গ্রামের আতিয়ার মোল্যার ছেলে শওকত আলী (৫০), প্রাইভেট কার ড্রাইভার চারাবটতলা গ্রামের আইজুল ইসলামের ছেলে কবিরুল (৪০), যশোরের শার্শার রাড়ীপুকুর গ্রামের আবু সরদারের ছেলে কাজল আলী (৩০), একই গ্রামের মৃত হবিবর রহমানের ছেলে আব্দুল হাই (৪৫), বাগআঁচড়া গ্রামের কিতাব আলীর ছেলে কবিরুল (৪৫)।

দূর্ঘটনার সাথে সাথে বাসের ড্রাইভার পালিয়ে যায়। এর মধ্যে ড্রাইভার কবির, আব্দুল হাই এবং শওকত আলীর অবস্থা আশংকাজনক।

ডেস্ক নিউজঃ ট্যুরিস্ট পুলিশের অভিযানে সমুদ্র সৈকত কক্সবাজারে ছিনতাইয়ের নগদ টাকা ও ছুরিসহ পাঁচ ছিনতাইকারীকে আটক করেছে কক্সবাজার ট্যুরিস্ট পুলিশ।

গতকাল বৃহস্পতিবার সন্ধ্যা ৭টায় সমুদ্র সৈকতের শৈবাল পয়েন্টে ঝাউবীথিতে এক পর্যটক দম্পতির কাছ থেকে ছিনতাইকালে পুলিশ আটক করে তাদের।
তাদের কাছ থেকে ৩টি ছুরি ও ছিনতাইয়ের তিন হাজার ২৮০ টাকা উদ্ধার করে ট্যুরিস্ট পুলিশ।

আটক অপরাধীরা হল, রামুর মেরুংলোয়া গ্রামের আকতার মিয়ার ছেলে মো. ইসমাঈল (১৯), রাবার বাগান এলাকার মো. আনোয়ার হোসেন রানার ছেলে আরিফ হোসেন (১৮), চা বাগান গ্রামের  শাকিলের ছেলে  রোমান (১৮), মধ্য মেরুংলোয়া পাড়ার মো. নুরুল হকের ছেলে মো. সেলিম (১৮) এবং একই গ্রামের সালামত উল্লাহর ছেলে  আব্দুল্লাহ (১৮)।

পুলিশ সূত্র জানা যায়, ঘটনার দিন সন্ধ্যা ৭টার দিকে এক পর্যটক দম্পতি শৈবাল পয়েন্ট দিয়ে ফিরছিলেন। ওই সময় তাদের পথরোধ করে ছুরির মুখে জিম্মি করে সবকিছু কেড়ে নেয় আটককৃত ছিনতাইকারীদের একটি চক্র।

শ্রীমঙ্গল প্রতিনিধি,মৌলভীবাজার: মৌলভীবাজারের শ্রীমঙ্গলে পুকুরের পানিতে গোসল করতে নেমে নিখোঁজ হওয়ার প্রায় ৫ ঘন্টা পর হাসান (১২ বছর বয়স) নামে একটি শিশুর লাশ উদ্ধার করেছে স্থানীয় প্রশাসনের সহযোগিতায় ফায়ার সার্ভিসের ডুবুরী দল।আজ বৃহস্পতিবার শহরতলীর ডাকবাংলো পুকুরে এই ঘটনাটি ঘটে।

স্থানীয় বাসিন্দা সুশীল শীল বলেন, বৃহস্পতিবার বিকাল ৩টার দিকে কয়েকটি ছিন্নমুল শিশু পুকুরের পানিতে গোছল করতে নামে। সেখানে পুকুরের ঘাটের সিঁড়ির নিচ দিকে যাওয়া আসা করছিলো তারা। এসময় পুকুরের সিঁড়ির নিচে শিশুটি আটকে যায়। পরে তিনি লোকমুখে ঘটনাটি শুনে ফায়ার সার্ভিসে খবর দিলে ফায়ার সার্ভিস ঘটনাস্থলে এসে উদ্ধার তৎপরতা চালায়। রাত সাড়ে আটটায় তাকে উদ্ধার করা হয়।

জানা যায় শিশুটির বাবা মা দু’জন দুই জায়গায় থাকে। বাবা আখাউড়া, মা কুমিল্লা, শিশুটি শ্রীমঙ্গল রেলওয়ে স্টেশনের প্লাটফর্মে ঘুমায়।

শ্রীমঙ্গল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) কে এম নজরুল ইসলাম বলেন, শিশুটির লাশ এখন শ্রীমঙ্গল থানায় রয়েছে। তার পুরো ঠিকানা এখনো জানা যায় নি। পরিবারের কেউ আসেনি। জানা গেছে শিশুটি স্টেশন সংলগ্ন একটি কলোনীতে থাকে। মাঝে মাঝে শ্রীমঙ্গল রেলওয়ে স্টেশনের প্লাটফর্মে ঘুমায়।তার বাবা মানসিক রোগী। তিনি আখাউড়া রেলওয়ে স্টেশনে থাকেন।

উদ্ধার তৎপরতা সংক্রান্ত বিষয়ে স্থানীয় এক হোমিওপ্যাথিক ডাক্তার বলেন,অভিভাবকহীন এক সন্তানকে উদ্ধার করার জন্য পুলিশ প্রশাসনের চেষ্টা খুব প্রশংসার দাবী রাখে,শত শত উৎসুক জনতাকে  বিকাল ৩টা থেকে পুলিশের একটি দল সার্বক্ষনিক নিয়ন্ত্রণ করেছে, সর্বশেষ পর্যন্ত উদ্ধার কাজ শেষ করে তারা ফিরে গেছে এ সময় স্থানিয়রাও সহযোগিতা করেছে যা আমাদের জন্য উদাহরণ  হয়ে থাকবে।

আমারসিলেট টুয়েন্টিফোর ডটকম,০২মেঃকমলগঞ্জ প্রতিনিধিঃকমলগঞ্জের ইসলামপুরে দুর্বৃত্তদের আগুনে পুড়ে ছাই হয়ে গেছে গৃহপালিত গরু ছাগল,আসবাবপত্র,কাপড়চোপড়,স্বর্ণালংকার,মুল্যবান কাগজপত্র ও নগদ টাকাসহ বসতঘর। পবিত্র শবেবরাতের দিন মংগলবার (১মে) রাত দেড়টার দিকে ইসলামপুর ইউনিয়নের ছয়ঘরি গ্রামে ছয়ঘরি প্রাইমারী স্কুল সংলগ্ন কাঠমিস্ত্রী মিলন আহমেদের বসতঘর পুড়ে যায়।

বুধবার সকালে সরজমিন গিয়ে ও মিলন আহমেদ (২৬),তার ছোট ভাই হীরক আহমেদ (২৪) ও মা রোকেয়া বেগমের (৫০) সাথে কথা বলে জানা যায়,এ সময় দুই ভাই স্থানীয় নইনারপার বাজারের মসজিদে শবেবরাত উপলক্ষ্যে মিলাদ মাহফিল ও ইবাদত বন্দেগীতে ছিলেন এবং তাদের মা একা ঘরে নামাজ পড়ছিলেন। হঠাৎ ঘরে আগুন লাগলে তিনি চিৎকার দিলে প্রতিবেশী মহিলারা তাকে ঘর থেকে বের করে বাইরে নিয়ে আসেন। খবর পেয়ে মিলন ও হীরক বাড়ীতে ছুটে এসে দেখেন সব কিছু পুড়ে ছাই হয়ে গিয়েছে।

এ প্রতিবেদকের সাথে আলাপকালে তারা দুই ভাই জানান,বাড়ীতে পুরুষ না থাকার সুযোগে সম্ভবত কেউ পেট্রোল বা কেরোসিন দিয়ে আগুন লাগিয়ে দিযেছে। ফলে মুর্হুতেই একটি গাভী, তিনটি ছাগল, বিক্্িরর জন্য তৈরি করা সোফাসেট, খাটসহ অন্যান্য আসবাবাপত্র, স্বর্ণালংকার, পরিধেয় পোষাক, মূল্যবান কাগজপত্রসহ পাচঁ লক্ষাধিক টাকার মালামাল ভস্মিভূত হয় ।

তবে কে বা কারা এ ঘটনা ঘটিয়েছে জানেন না। ইসলামপুর ইউপি চেয়ারম্যান আব্দুল হান্নান, ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে বলেন,এটি একটি অমানবিক ঘটনা। তিনি ভুক্তভোগী পরিবারকে সার্বিক সহযোগীতা করার আশ্বাস দিয়েছেন। কমলগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মোকতাদির হোসেন পিপিএম জানান, পুলিশ ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছে। অভিযোগ পেলে তদন্তক্রমে দোষীদের বিরুদ্ধে আইনী ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

আমারসিলেট টুয়েন্টিফোর ডটকম,২৯মার্চ,ডেস্ক নিউজঃ বাংলা উচ্চারণের সঙ্গে সামঞ্জস্য রেখে দেশের পাঁচ বিভাগের ইংরেজি নামের বানানে পরিবর্তন আনছে সরকার। চট্টগ্রাম, কুমিল্লা, বরিশাল, যশোর ও বগুড়া জেলার ইংরেজি নাম সংশোধনের প্রস্তাব প্রশাসনিক পুনর্বিন্যাস-সংক্রান্ত জাতীয় বাস্তবায়ন কমিটি (নিকার) বৈঠকে উপস্থাপনের জন্য প্রস্তুত করেছে মন্ত্রিপরিষদ বিভাগ। আগামী ২ এপ্রিল বৈঠকটি অনুষ্ঠিত হবে।
প্রস্তাবনায় চট্টগ্রামের ইংরেজি বানান Chittagong সংশোধন করে Chattagram, কুমিল্লা জেলার বানান Comilla পরিবর্তে Kumilla, বরিশালের বানান Barisal থেকে Barishal, যশোরের বানান Jessore এর স্থলে Jashore এবং বগুড়া জেলার ইংরেজি বানান Bogra পরিবর্তে Bagura করার বিষয়ে বলা হয়েছে।
জেলার নামের বানান বাংলা উচ্চারণের সঙ্গে সামঞ্জস্যপূর্ণ করার বিষয়ে সুনির্দিষ্ট কোনো বিধি বা নীতিমালা নেই। তবে নতুন বিভাগ, জেলা, উপজেলা ইত্যাদি সৃজন, নামকরণ ও নাম পরিবর্তনের বিষয়গুলো প্রশাসনিক পুনর্বিন্যাস সংক্রান্ত জাতীয় বাস্তবায়ন কমিটির (নিকা) সভায় অনুমোদন করা হয়ে থাকে।

আমারসিলেট টুয়েন্টিফোর ডটকম,১৭নভেম্বর,ডেস্ক নিউজঃ  রাজধানীর অদুরে টঙ্গীর তুরাগ নদের তীরে শুরু হয়েছে ভারতের মেওয়াত এলাকার মৌলভী ইলিয়াস সাহেবের স্বপ্নে প্রাপ্ত ছয় উছুলের ভিত্তিতে পরিচালিত তাবলীগ জামাতের পাঁচ দিনের জোড় ইজতেমা।শুক্রবার ফজর নামাজের পর বয়ানের মধ্য দিয়ে শুরু হয় এই ইজতেমা। বিশ্ব ইজতেমার আগে অনুষ্ঠিত এই বিশেষ ইজতেমায় শুধু যারা তিন চিল্লা (৪০ দিনে এক চিল্লা) দিয়েছেন সাধারণত তারাই অংশ নেন। আগামী মঙ্গলবার মোনাজাতের মাধ্যমে শেষ হবে এই ইজতেমা।

তাবলীগ জামাতের বিশ্ব ইজতেমার আয়োজক কমিটি সূত্রে জানা গেছে, ২০১৮ সালের ১২ জানুয়ারি থেকে ৫৩তম বিশ্ব ইজতেমার প্রথম পর্ব শুরু হবে। প্রথম পর্ব শেষ হওয়ার পর চার দিন বিরতি দিয়ে ১৯ জানুয়ারি থেকে দ্বিতীয় পর্বের তিন দিনব্যাপী বিশ্ব ইজতেমা শুরু হবে। প্রথম পর্বের শেষ দিন ১৪ জানুয়ারি ও দ্বিতীয় পর্বের শেষ দিন ২১ জানুয়ারি সারাবিশ্ব মুসলিম জাহানের সুখ, শান্তি, কল্যাণ, অগ্রগতি, ভ্রাতিত্ববোধ কামনা করে আখেরি মোনাজাত অনুষ্ঠিত হবে। আর এই আখেরি মোনাজাতে দেশি বিদেশি মুসল্লি, তাবলিগ অনুসারী, বাংলাদেশসহ বিশ্বের শতাধিক দেশের প্রায় অর্ধকোটি মানুষ শরিক হবেন বলে ধারণা করছে বিশ্ব ইজতেমার আয়োজক কমিটি।

তাবলীগ জামাতের এই ইজতেমার আয়োজক কমিটির মুরুব্বি মাওলানা গিয়াস উদ্দিন আহমদ জানান, টঙ্গীর তুরাগ তীরে প্রতি বছরের মতো এবারও সুবিশাল চটের সামিয়ানা দিয়ে ঢেকে দেয়া হয়েছে। তুরাগ নদীর পাড়ে পাঁচ দিনের জোড় ইজতেমায় তিন চিল্লাওয়ালা পুরানো সাথীরা অংশগ্রহণ করবেন। প্রতি বছর বিশ্ব ইজতেমা শুরু হওয়ার আগে পাঁচ দিনের এই জোড় ইজতেমা অনুষ্ঠিত হয়ে থাকে। পাঁচ দিনব্যাপী জোড় ইজতেমায় ঢাকা জেলার তবলিগ জামাতের মুসল্লিসহ দেশি-বিদেশি লাখো ধর্মপ্রাণ মুসল্লি অংশগ্রহণ করবেন। পাঁচ দিনব্যাপী এই সম্মেলনে কালেমা, নামাজ, ইমান-আমলসহ ছয় উসুল সম্পর্কে দেশি-বিদেশি শীর্ষ মুরব্বিরা বয়ান করেন। এছাড়া মুসল্লিদের উদ্দেশে ইজতেমার গুরুত্ব ও তাৎপর্য তুলে ধরা হবে। পরবর্তী সময়ে তারা জোড় শেষে আবার ইসলামের দাওয়াতের কাজে বের হবেন এবং আগামী বছর বিশ্ব ইজতেমার মূল পর্বে শরিক হবেন।

টঙ্গী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মো. ফিরোজ তালুকদার সাংবাদিকদের জানান, বৃহস্পতিবার থেকেই চারশ পুলিশ সদস্য ইজতেমা ময়দান ও এর আশপাশের এলাকায় মোতায়েন করা হয়েছে। ইজতেমা ময়দান ও এর আশপাশের এলাকায় পর্যাপ্ত সিসি ক্যামেরা স্থাপনের মাধ্যমে সিসি টিভির আওতায় আনা হয়েছে। ইজতেমায় আগত বিদেশি মুসল্লিদের জন্য পর্যাপ্ত পুলিশ সদস্য ও সাদা পোশাকে গোয়েন্দা পুলিশ নিয়োজিত করার কথাও তিনি জানিয়েছেন।

  

এডিটর: আনিছুল ইসলাম আশরাফী, এনিমেটরস্ বাংলা মিডিয়া গ্রুপ কর্তৃক প্রকাশিত
সম্পাদকীয় কার্যালয়: কলেজ রোড, শ্রীমঙ্গল, মৌলভীবাজার।
Email: news.amarsylhet24@gmail.com Mobile: 01772 968 710

Developed By : i-Tech Sreemangal
Email : itech.official@hotmail.com
Facebook : http://facebook.com/itech.ctc