Thursday 3rd of December 2020 09:24:31 AM

সুনামগঞ্জ প্রতিনিধি: সুনামগঞ্জের তাহিরপুর উপজেলায় পটেটো,সিংঙ্গারা খাইয়ে ৮বছরের শিশুকে জোড় করে ধর্ষন করার অভিযোগে জহিরুল মিয়া(৩৫)নামে তিন সন্তানের জনকে আটক করেছে পুলিশ। সে উপজেলার বাদাঘাট ইউনিয়নের পুরান লাউড় গ্রামের গ্রামের হাসেন আলী ছেলে। ধর্ষণের শিকার শিশুটি একেই গ্রামের মৃত তুতা মিয়া মেয়ে।
এঘটনায় শিশুটির মা বাদী হয়ে ২৫আগষ্ট রাতে তাহিরপুর থানায় মামলা দায়ের করে। মামলা নং ১৮,তারিখ ২৬,০৮,২০২০,ধারা নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইন ২০০০ইং(সাং ২০০৩)এর ৯এর ৪ এর (খ)।
এর পর বুধবার অভিযান চালিয়ে পাশ্ববর্তি বিশ্বম্ভরপুর উপজেলার গামাইতলা থেকে জহিরুলকে আটক করে বৃহস্পতিবার সকালে আদালতে পাঠিয়েছে তাহিরপুর থানা পুলিশ।
মামলা দায়ের পর থেকে প্রভাবশালী জহিরুলের লোকজন বাদীকে নানান ভাবে হুমকি ও ভয় দেখাচ্ছে।
শিশুটির পরিবার ও তাহিরপুর থানায় লিখিত অভিযোগ সুত্রে জানাযায়,উপজেলার বাদাঘাট ইউনিয়নের পুরান লাউড় গ্রামের মৃত তুতা মিয়ার ২মেয়ে ২ছেলের মধ্যে ধর্ষনের শিকার শিশু(৮)সবার ছোট। অভিযুক্ত জহিরুলের বাড়ি শিশুটির বাড়ির পাশেই। জহিরুলের পরিবারের সছলতার জন্য তার স্ত্রী কাজের সন্ধানে সৌদি প্রবাসী আর তার রয়েছে ২ছেলে ও এক মেয়ে রয়েছে। তার স্ত্রী প্রবাসী হওয়ায় চলতি বছরের কোরবানী ঈদের পূর্বে ঐ শিশুটিকে কৌশলে বাড়িতে ডেকে নিয়ে পটেটো আর সিংঙ্গারা খাইয়ে জোড় করে মেরে ফেলার হুমকি দেয় ভয় দেখিয়ে ২বার ও এর পূর্বে একবার ধর্ষন করে। সম্প্রতি শিশুটি তার শরীলে ও গোপনাঙ্গে ব্যাথা অনুভব হলে তার খেলার সাথীদের জানানোর পর শিশুটির মায়ের কানে এই সব কথা পৌছায়।
এরপর গত ১৬ই আগষ্ট শিশুটির মা কৌশলে জানতে চাইলে সে জানায়,জহিরুল তার সাথে তিন দিন সিঙ্গারা ও পটেটোর খাইয়ে জোড় করে শারীরিক সম্পর্ক করেছে। আর এই বিষয়টি কাউকে বললে তাকে মেরে ফেলবে। এই ভয়ে কাউকে কোন কথা না বলে গোপন রাখে। এই বিষয়টি শিশুটির মা জানার পর নিজ পরিবারের সদস্যদের কাছে জানায় আর এলাকায় গন্যমান্য ব্যক্তিদের জানালে অভিযুক্ত জহিরুল স্থানীয় প্রভাবশালী হওয়ায় একটি পক্ষ এই বিষয়টি দামাচাপা দেওয়ার জন্য বিচার শালিশে সমাধানের জন্য চেষ্টা করে। কিন্তু শিশুটির মা আইনের মাধ্যমে বিচার পেতে বাদী হয়ে গত ২৫আগষ্ট রাতে তাহিরপুর থানায় নারী ও শিশু নির্যাতন আইনে মামলা দায়ের করে। এর পর বুধবার অভিযান চালিয়ে পাশ্ববর্তি বিশ্বম্ভরপুর উপজেলার গামাই তলা থেকে আটক করে তাহিরপুর পুলিশ।
শিশুটির মামা হারুন মোল্লা জানান,মামলা দায়ের পর থেকে মঞ্জুর মিয়া,ইব্রাহিম,নুরুল আমিন গং প্রভাবশালী জহিরুলের লোকজন আমাকে মামলা দিয়ে এলাকা ছাড়া করার জন্য নানান ভাবে হুমকি ও ভয় দেখাচ্ছে। আমি কেন মামলা করার সহায়তা করেছি এই কারনে। আমি আমার ভাগনির সাথে এমন জগন্য কাজের বিচার চাই।
তাহিরপুর থানা ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা ওসি আতিকুর রহমান জানান,শিশু ধর্ষনরে ঘটনায় শিশুটির মা বাদী হয়ে মামলা দায়ের করেছে। অভিযুক্ত জহিরুলকে অভিযান চালিয়ে আটক করা হয়েছে।

বৃহস্পতিবার (২৭,০৮,২০২০) সকালে ধর্ষণের শিকার শিশুকে ও অভিযুক্ত আসামীকে আদালতে পাঠানো হয়েছে।

  

এডিটর: আনিছুল ইসলাম আশরাফী, এনিমেটরস্ বাংলা মিডিয়া গ্রুপ কর্তৃক প্রকাশিত
সম্পাদকীয় কার্যালয়: কলেজ রোড, শ্রীমঙ্গল, মৌলভীবাজার।
Email: news.amarsylhet24@gmail.com Mobile: 01772 968 710

Developed By : i-Tech Sreemangal
Email : itech.official@hotmail.com
Facebook : http://facebook.com/itech.ctc