Wednesday 28th of October 2020 08:22:36 AM

নড়াইল প্রতিনিধিঃ জাতির পিতার বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ৪৫ তম শাহাদাত বার্ষিকীতে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার পক্ষে নড়াইল সদরের ৭শ এতিমের জন্য  নড়াইল আসনের সংসদ সদস্য মাশরাফি বিন মুর্তজার সৌজন্যে  দুপুরের খাবার বিতরণ করা হয়েছে। বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানসহ ১৫ আগষ্টের সমস্ত শহীদদের স্মৃতির প্রতি শ্রদ্ধা জ্ঞাপন এবং আত্মার  মাগফিরাত কামনা করে খাবারের ব্যবস্থা করা হয়। 

জেলা আওয়ামী লীগ নেতা হাফিজ খান মিলন জানান, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার পক্ষে মাশরাফির সৌজন্যে জেলা আওয়ামী লীগের সাধারন সম্পাদক নিজাম উদ্দিন খান নিলর তত্বাবধানে সদরের ২৫টি এতিমখানায় ৭শ জনের মাঝে মধ্যাহ্নভোজ পরিবেশন করা হয়। বিভিন্ন ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি   সাধারণ সম্পাদকদের উপস্থিতিতে এসব খাবার পরিবেশন করা হয়।  জাতীর পিতার মৃত্যুবার্ষিকীতে প্রকৃত অসহায় শিশুদের মাঝে খাবার দিয়ে তিনি আবারো মানবিকতার অনন্য দৃষ্টান্ত স্থাপন করলেন।

জেলা স্বেচ্ছাসেবক লীগের সাধারণ সম্পাদক এস এম পলাশ জানান, জননেত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন,আমি এতিমদের সবচেয়ে বেশি ভালোবাসি। এতিমদের ব্যথা আমি বুঝতে পারি। জননেত্রী শেখ হাসিনা যাদের সবচেয়ে বেশি ভালোবাসেন জননেত্রী শেখ হাসিনার স্নেহধন্য মাশরাফি বিন মর্তুজাও তাদের ভালোবাসেন,তাইতো আজ এমন ব্যতিক্রমী আয়োজন।

জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক সদর উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান নিজাম উদ্দিন খান নিলু জানান, জননেত্রী শেখ হাসিনার পক্ষ থেকে মানবিক সাংসদ সদস্য মাশরাফি বিন মর্তুজার সৌজন্যে মধ্যাহ্নভোজ এতিমখানায় এতিমখানায় পৌঁছে দিতে পেরে সত্যি খুব ভালো লাগছে।

এই নিষ্পাপ শিশুরা মন খুলে আমাদের জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান ১৫ আগস্টের শহীদদের জন্য দুই হাত তুলে মহান আল্লাহর কাছে দোয়া করেছে, এটাই আজকের দিনে আমাদের বড় প্রাপ্তি। এসময় উপজেলা চেয়ারম্যন এই কাজে সহযোগিতার জন্য বিভিন্ন পর্যায়ের নেতাকর্মীদের ধন্যবাদ জানান তিনি।

সংসদ সদস্য মাশরাফি বিন মর্তুজার অনুরোধে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান, বঙ্গমাতা বেগম ফজিলাতুন্নেছা মুজিবসহ ১৫ আগস্টের সকল শহীদদের রুহের মাগফেরাত কামনা জননেত্রী শেখ হাসিনা এবং শেখ রেহানার সুস্থতা দীর্ঘায়ুু কামনা করে নড়াইলের এতিমখানায় এতিমখানায় বিশেষ দোয়া অনুষ্ঠিত হয়।

এদিকে গতরাতে ১৫ আগস্ট জাতীয় শোক দিবস উপলক্ষে এক শোকবার্তায় সাংসদ সদস্য মাশরাফি বিন মর্তুজা বলেন, “আজ শোকাবহ ১৫ আগস্ট। জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান এর ৪৫ তম শাহাদতবার্ষিকী জাতীয় শোক দিবস ২০২০।

জাতীয় শোক দিবস আমি সশ্রদ্ধচিত্তে স্মরণ করছি সর্বকালের সর্বশ্রেষ্ঠ বাঙালি, মহান স্বাধীনতার স্থপতি জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানকে। স্মরণ করছি মহীয়সী নারী বঙ্গমাতা বেগম ফজিলাতুন্নেছা মুজিবকে, স্মরণ করছি শহিদ শেখ কামাল, শহিদ শেখ জামাল,শহিদ শেখ রাসেলসহ ১৫ আগস্টের সকল শহিদদের।

অন্যায়ের বিরুদ্ধে আমৃত্যু আপোসহীন, আজীবন লড়াইসংগ্রাম করা জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান কোটি কোটি মানুষের হৃদয়ে পরম শ্রদ্ধায় চিরদিন বেঁচে থাকবেন তাঁর তর্জনীর হেলনে,তাঁর দরাজ কন্ঠের বক্তৃতায় আর এদেশের মাটি মানুষকে জীবন দিয়ে ভালোবাসার জন্য।

আজকের দিনে আমাদের অঙ্গিকার হোক,আগস্টের শোককে শক্তিতে পরিণত করে জাতির পিতার স্বপ্ন পূরণে জননেত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে সমৃদ্ধ বাংলাদেশ বিনির্মাণে কাজ করা।জয় বাংলা, জয় বঙ্গবন্ধু।

নড়াইল প্রতিনিধিঃ নড়াইল জেলা শিক্ষা অফিসারের বিরুদ্ধে গণমাধ্যমে মিথ্যা সংবাদ প্রকাশের প্রতিবাদে জেলা শিক্ষক সমিতি জেলা শিক্ষা কর্মকর্তার পক্ষে মানববন্ধন ও সংবাদ সম্মেলন করেছে। শুক্রবার (২২ নভেম্বর) সকাল সাড়ে ১০টায় নড়াইল প্রেসক্লাবের সামনে মানববন্ধন শেষে প্রেসক্লাবের কনফারেন্স কক্ষে এ সংবাদ সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়। সংবাদ লিখিত বক্তব্য পাঠ করেন জেলা শিক্ষক সমিতির সাধারন সম্পাদক ধ্রুব কুমার ভদ্র প্রমুখ।

এ সময় জেলা শিক্ষক কমিটির সভাপতি ওহায়িদুজ্জামান ঠান্ডু,সহ- সভাপতি নিমাই চন্দ্র পাল, সদর উপজেলা কমিটির সভাপতি মোঃ হায়দার আলী ও মোঃ আব্দুর রশীদ, সাধারন সম্পাদক রবীন্দ্র নাথ মন্ডল ও মোঃ ফরিদুর জ্জামান,বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের প্রধান শিক্ষকসহ অনেকে উপস্থিত ছিলেন ।

লিখিত বক্তব্যে তিনি বলেন, সম্প্রতি একটি স্থানীয় গণমাধ্যম এবং ফেসবুকে জেলা শিক্ষা অফিসারকে জড়িয়ে শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের এমপিওভূক্তির জন্য ‘টাকা ছাড়া কাজ করেন না শিক্ষা কর্মকর্তা’ এ ধরনের একটি সংবাদ প্রকাশিত হয়েছে। আমাদের জানা মতে নড়াইল জেলা শিক্ষা অফিসার মোঃ ছায়েদুর রহমানের বিরুদ্ধে যে অভিযোগ আনা হয়েছে তা সম্পূর্ণ মিথ্যা, বানোয়াট ও উদ্দেশ্য প্রণোদিত।

উক্ত সংবাদে আমিসহ বিভিন্ন শিক্ষকদের উদ্ধৃতি দিয়ে যে বক্তব্য প্রকাশিত হয়েছে তা সঠিক নয়, মন গড়া। এ সংবাদে জেলা শিক্ষা অফিসারসহ সকল শিক্ষকদের সুনাম নষ্টের অপকৌশল করা হয়েছে। নতুন নীতিমালা অনুযায়ী শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে এমপিওভূক্তির ক্ষেত্রে জেলা শিক্ষা অফিসারের কোনো ভূমিকা নেই বলে জানান।

তিনি বলেন ছায়েদুর রহমান নড়াইল জেলা শিক্ষা অফিসার হিসেবে যোগদানের পর থেকে তার স্বচ্ছ, সৎ, বিনয়ী কর্মকান্ডের মাধ্যমে জেলার শিক্ষা কার্যক্রম গতিশীল হয়েছে। শিক্ষা প্রতিষ্ঠান মনিটরিং জোরদার করা হয়েছে এবং এমপিওভূক্তির প্রাথমিক কাজ সম্পূর্ণরূপে স্বচ্ছভাবে করা হচ্ছে।

নড়াইল প্রতিনিধি: নড়াইল-২ (নড়াইল সদর ও লোহাগড়া) আসনে ক্রিকেট তারকা মাশরাফী বিন মুর্তজার পক্ষে নির্বাচনী প্রচারণা করতে নড়াইলের নাগরিক সমাজের মত বিনিময় সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে। শুক্রবার (৭ ডিসেম্বর) বিকেলে জেলা পরিষদ মিলনায়তনে ‘নড়াইল সচেতন নাগরিক সমাজ’-এর আয়োজনে এ মত বিনিময় সভা অনুষ্ঠিত হয়।
এ মত বিনিময় সভায় নড়াইল সচেতন নাগরিক সমাজ-এর আহবায়ক ও জেলা মুক্তিযোদ্ধা সংসদের ডেপুটি কমান্ডার অ্যাডঃ এস.এ মতিনের সভাপতিত্বে বক্তব্য রাখেন, জেলা আইনজীবী সমিতির সভাপতি গোলাম নবী, নড়াইল সচেতন নাগরিক সমাজ-এর কর্মকর্তা রেজাউল আলম, কাজী হাফিজুর রহমান, শিক্ষক আসাদুজ্জামান, অধ্যক্ষ বদরুল ইসলাম, অ্যাডঃ মাহবুবুর রহমান রাবু, অধ্যক্ষ ফয়সাল খান, নারী নেত্রী আঞ্জুমান আরা, রওশন আরা কবির লিলিসহ অনেকে।
সভায় বক্তারা বলেন, জেলার উন্নয়নের স্বার্থে সকলকে ঐক্যবদ্ধ করে মাশরাফি’র জন্য কাজ করতে হবে এবং তাকে বিপুল ভোটে বিজয়ী করতে হবে এ জন্য ‘ নড়াইল সচেতন নাগরিক সমাজ’এর ব্যানারে ডোর টু ডোর সকল শ্রেণিপেশার মানুষের নিকট দেশের শ্রেষ্ঠ সম্পদ নড়াইল এক্সপ্রেস মাশরাফির জন্য ভোট ক্যাম্পেইনে নামতে হবে।
সভায় সংসদীয় আসনের নড়াইল ও লোহাগড়া পৌরসভার প্রত্যেকটি ওয়ার্ড এবং প্রতিটি ইউনিয়নে ( ২০টি ইউনিয়ন) নির্বাচনী কমিটি গঠনের সিদ্ধান্ত হয়।
সভাশেষে সুশীল সমাজের প্রতিনিধিদের নিয়ে একটি কমিটি গঠন করা হয়, কমিটিতে জেলা মুক্তিযোদ্ধা সংসদের সাবেক ডেপুটি কমান্ডার অ্যাডঃ এসএ মতিনকে আহবায়ক, ফকির ওয়াহিদুজ্জামান ঠান্ডু, অ্যাডঃ শরীফ মাহাবুবুল করীম, কাজী হাফিজুর রহমান ও রেজাউল আলমকে যুগ্ম আহবায়ক করা হয়েছে। এছাড়া নড়াইল ও লোহাগড়া উপজেলা পর্যায়ের সামাজিক ও সাংস্কৃতিক সংগঠনের প্রতিনিধিরা এই কমিটির সদস্য হিসেবে থাকছেন।

সভায় জেলা আইনজীবী সমিতি, বিভিন্ন সাংস্কৃতিক সংগঠন ও ক্রীড়া সংগঠন, প্রাথমিক ও মাধ্যমিক শিক্ষক সমিতি, এনজিও প্রতিনিধি, অবসরপ্রাপ্ত সরকারি কর্মকর্তা-কর্মচারি কল্যান সমিতি, ইজিবাইক-ইজিভ্যান সমিতি, ইমারত নির্মাণ শ্রমিক, কবি-সাহ্যিতিক সমিতি, বনিক সমিতি, মহিলা সমিতি, নারী সংগঠন ও তরুণ সমাজের প্রতিনিধিবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।

নড়াইল প্রতিনিধি: মনোনয়ন পত্র জমা দানের শেষ দিনে নড়াইল-২ আসনে আওয়ামী লীগের প্রার্থী হিসেবে জাতীয় ওয়ানডে ক্রিকেট দলের অধিনায়ক বিশ্ব নন্দিত ক্রিকেটার মাশরাফি বিন মর্তুজার পক্ষে মনোনয়ন পত্র জমা দিলেন নড়াইল জেলা আওয়ামীলীগ ,সহযোগী সংগঠনের নেতৃবৃন্দসহ নড়াইল এক্সপ্রেস ফাউন্ডেশনের নেতৃবৃন্দ ।
বুধবার (২৮ নভেম্বর) বেলা ১টার দিকে জেলা রিটার্নিং অফিসার ও জেলা প্রশাসক আনজুমান আরার নিকট মনোনয়নপত্র জমা দেন জেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি অ্যাডঃ সুবাস চন্দ্র বোস, সাধারণ সম্পাদক নিজাম উদ্দিন খান নিলু, সহসভাপতি অ্যাডঃ ফজলুর রহমান জিন্নাহ, সাবেক সাধারণ সম্পাদক অ্যাডঃ সিদ্দিক আহম্মেদ, অ্যাডঃ সৈয়দ মোহাম্মদ আলী, নড়াইল পৌরসভার মেয়র ও জেলা আওয়ামীলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক মোঃ জাহাঙ্গীর হোসেন বিশ^াস. সদর উপজেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি অ্যাডঃ অচীন কুমার চক্রবর্তী ও সাবেক উপজেলা চেয়ারম্যান অ্যাডঃ গোলাম নবী।

জেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি অ্যাডঃ সুবাস চন্দ্র বোস বলেন, আওয়ামীলীগ সভানেত্রী শেখ হাসিনা ক্রিকেট তারকা মাশরাফি বিন মর্তুজাকে নড়াইল-২ আসনে নৌকা প্রতীক দিয়েছেন। আমরা জেলা আওয়ামীলীগসহ শরীকদল মিলে মিশে নৌকা প্রতীকে মাশরাফিকে বিপুল ভোটে নির্বাচিত করবো। দেশের উন্নয়নের ধারা অব্যাহত রাখতে মুক্তিযুদ্ধের চেনতায় বিশ^াসী আওয়ামীলীগের দলীয় প্রতীক নৌকা মার্কায় ভোটদানের আহবান জানান।

এছাড়া জেলা রিটার্ণিং অফিসারের নিকট মনোনয়নপত্র জমা দিয়েছেন কালিয়া-১ আসনে আওয়ামীলীগের মনোনীত শরীক দল জাসদের শরীফ নূরুল আম্বিয়া, নড়াইল-২ আসনে বিএনপি সমর্থিত শরীফ কাসাফুদ্দোজা কাফী ও এনপিপির চেয়ারম্যান ডঃ ফরিদদুর জামান ফরহাদ,নড়াইল-২ জেলা জাতীয় পার্টির সভাপতি এ্যাডঃ ফায়েকুর জামান ফিরোজ, নড়াইল-১ আসনে জেলা জাতীয় পার্টির সাধারণ সম্পাদক মিল্টন মোল্যা সহ বিভিন্ন রাজনৈতিক ও স্বতন্ত্র প্রার্থীরা।

এছাড়া কালিয়ায় সহকারী জেলা রিটার্ণিং অফিসার ও কালিয়া উপজেলা নির্বাহী অফিসার মো: নাজমুল হুদার নিকট মনোনয়নপত্র জমা দিয়েছেন নড়াইল-১ আসনে আওয়ামীলীগের বর্তমান সংসদ সদস্য কবিরুল হক মুক্তি ও বিএনপি মনোনীত জেলা বিএনপির সভাপতি বিশ^াস জাহাঙ্গীর আলম।

মনোনয়নপত্র জমাদানকালে রিটার্নিং অফিসারের কার্যালয় চত্বরে জেলা, উপজেলা ও ইউনিয়ন পর্যায়ের আওয়ামীলীগ, মহিলা আওয়ামীলীগ, যুবলীগ, স্বেচ্ছাসেবকলীগ, যুব মহিলা আওয়ামীলীগ, ছাত্রলীগ সহ সহযোগী সংগঠনের বিপুল সংখ্যক নেতা ,কর্মি , নড়াইল এক্সপ্রেস ফাউন্ডেশনের নেতৃবৃন্দসহ বিভিন্ন শ্রেণী পেশার মানুষ জেলা রিটার্নিং অফিসারের কার্যালয়ের সামনে উপস্থিত ছিলেন।
কালিয়া শহরে বর্তমান এমপি কবিরুল হক মুক্তির সমর্থনে কালিয়া ও নড়াইগাতি থেকে আশা বিপুল সংখ্যক আওয়ামীলীগসহ সহযোগী সংগঠনের নেতা কর্মি হাজির হয়।

এছাড়া অন্যান্য রাজনৈতিক দল ও স্বতন্ত্র প্রার্থীর কর্মী সমর্থকরাও এ সময় উপস্থিত ছিলেন।
এদিকে জেলা বিএনপি সভাপতি বিশ্বাস জাহাঙ্গীর বাদে আরও একজন প্রার্থী কর্নেল সাজ্জাদকে ২০ দলীয় জোট থেকে মনোনয়ন দেয়ায় তার মনোনয়ন বাতিলের দাবিতে কালিয়া ও নড়াগাতি বিএনপি ও সহযোগী সংগঠনের নেতৃবৃন্দ বিক্ষোভ মিছিল করেছে। তারা তাকে আওয়ামীলীগের দালাল আখ্যয়িত করে তার মনোনয়ন বাতিলের জন্য কেন্দ্রীয় নেতৃবৃন্দকে অনুরোধ জানান।

নড়াইল প্রতিনিধি: মাশরাফির নৌকা নৌকা বলে নড়াইলে আনন্দ মিছিল করেছে মাশরাফি প্রেমীরা। আসন্ন একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে নড়াইল-২ আসনে বাংলাদেশ জাতীয় ক্রিকেটের ওয়ানডে অধিনায়ক মাশরাফি বিন মর্তুজাকে আওয়ামীলীগ থেকে মনোনয়ন দেয়ায়  হাজারো ভক্তরা বুধবার সন্ধায় নড়াইলে নৌকার পক্ষে আনন্দ মিছিল করে।

নড়াইল চৌরাস্তায় থেকে আনন্দ মিছিল বের হয়ে শহরের বিভিন্ন সড়ক প্রদক্ষিন করে একই স্থানে এসে সমাবেশ করে।  সমাবেশে আওয়ামীলীগের দলীয় প্রার্থী মাশরাফির  পক্ষে কাজ করার আহবান জানিয়ে বক্তব্য দেন নড়াইল পৌরসভার মেয়র জেলা আওয়ামীলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক মোঃ জাহাঙ্গীর বিশ্বাস, পৌর কমিশনার কাজী জহিুরুল হক, অ্যাডঃ কাজী বশিরুল হক, জেলা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক নিলয় রায় বাধন, জেলা স্বেচ্ছাসেবক লীগের সাধারন সম্পাদক এস এম পলাশ, মহিলা যুবলীগের আহ্বায়ক পলি রহমান প্রমুখ।

আওয়ামীলীগ ,যুবলীগ ,স্বেচ্ছাসেবকলীগ,মহিলা যুবলীগ,ছাত্রলীগসহ আওয়ামীলীগের বিভিন্ন অঙ্গ সংগঠনের বিপুল সংখ্যক নেতাকর্মী এ সময় উপস্থিত ছিলেন।

এর আগে জেলার বিভিন্ন এলাকা থেকে আওয়ামীলীগের দলীয় নেতাকর্মী ও মাশরাফি ভক্তরা নড়াইল চৌরাস্তায় উপস্থিত হন। বিভিন্ন এলাকা থেকে দলে দলে মাশরাফির নৌকার পক্ষে শ্লোগানে শ্লোগানে চৌরাস্তা এলাকা মুখরিত হয়ে ওঠে।

এদিকে  মাশরাফিকে নৌকা প্রতীকে চূড়ান্ত করায় নড়াইল পৌর, উপজেলা এবং জেলা আওয়ামী লীগের বিভিন্ন পর্যায়ের নেতৃবৃন্দ, সামাজিক-সাংস্কৃতিক ব্যক্তিত্ব ও সাধারন মানুষ মাশরাফির নির্বাচনে অংশগ্রহনের বিষয়ে অভিনন্দন জানিয়ে বলেছেন, মাশরাফি নির্বাচন করলে এবং সংসদ সদস্য নিবর্বাচিত হয়ে মন্ত্রী হবেন। ফলে অবহেলিত নড়াইলের সার্বিক উন্নয়ন সংঘটিত হবে।

জাতীয় সংসদ নির্বাচনে নড়াইলের এ আসন থেকে আওয়ামী লীগ বরাবরই ভালো ফলাফল করেছে। ৭৩, ৯১, ৯৬, ২০০৮ এবং ২০১৪ সালের সংসদ নির্বাচনে আওয়ামী লীগের নৌকা প্রতীক জয়লাভ করে তবে ২০১৪ সালে আলীগের নৌকা নিয়ে জয়লাভ করে ওয়ার্কাস পার্টি নেতা বর্তমান সংসদ শেখ হাফিজুর রহমান।  আসনটিতে ৮৬ ও ৮৮ সালে জাতীয় পার্টি এবং ১৯৭৯ এবং ২০০১ উপ-নির্বাচনে বিএনপি জয়লাভ করে।

প্রসঙ্গত, গত ১১ নভেম্বর দুপুরে আওয়ামীলীগের সাধারন সম্পাদক ও সেতু মন্ত্রী ওবায়দুল কাদেরের হাত থেকে মনোনয়ন পত্র সংগ্রহ করেন ক্রিকেট তারকা মাশরাফি।

এদিকে এই আসন থেকে মাশরাফি ছাড়াও নৌকা প্রতিকে  নির্বাচন করার জন্য কেন্দ্রীয় ও জেলা পর্যায়ের আরও ১৬ জন নেতা মনোনয়ন পত্র কিনেছেন।

সুনামগঞ্জ প্রতিনিধিঃ সুনামগঞ্জের তাহিরপুর উপজেলায় বর্তমান সরকারের উন্নয়নের পক্ষে প্রচার মিছিল ও পথ সভা করেছে উপজেলা কৃষকলীগ। মঙ্গলবার (২৫,০৯,১৮সেপ্টেম্ভর) দুপুরে উপজেলা কৃষকলীগের উদ্যোগে দলীয় কার্য্যালয় থেকে একটি র‌্যালী বের হয়।র‌্যালীটি উপজেলার বিভিন্ন সড়ক প্রদক্ষিন করে মধ্য বাজারের দলীয় কার্য্যালয়ে মিলিত হয়।

এসময় তাহিরপুর উপজেলা কৃষকলীগের আহবায়ক জিল্লুর রহমানের সভাপতিত্বে ও সিনিয়র যুগ্ম আহবায়ক ওয়াহিদ চৌধুরী খসরুর স ালনা বক্তব্য রাখেন,বড়দল দক্ষিন কৃষকলীগের আহবায়ক দিলোয়ার হোসেন দুলাল,ডাঃ রহমত আলী,জামালগঞ্জ সেচ্ছা সেবক লীগের সাবেক সভাপতি আবু তাহের,তাহিরপুর উপজেলা কৃষকলীগের যুগ্ম আহবায়ক জুলহাস মল্লিক,রাসেল আহমেদ,বাবলু তালুকদার,হুমায়ুন কবির,সামসুল আলম টিটু,ফেনারবাক ইউনিয়নের কৃষকলীগ আহবায়ক একলিমুর রেজা,জামালগঞ্জ উপজেলা কৃষকলীগ আহবায়ক আলী আমজাদ,সুনামগঞ্জ জেলা ছাত্রলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক মাহমুদুল হাসান তারেক প্রমুখ।
ছাতকে গোবিন্দগঞ্জ উচ্চ বিদালয়ে

“এজেন্টদের কাছ থেকে পাওয়া ফল এবং ঘোষিত ফলের মধ্য পার্থক্য থাকায় রিটার্নিং কর্মকর্তার কাছে ফল স্থগিত রাখার আবেদন সিলেট আ’লীগের”

 

সিলেট ডেস্কঃ সিলেটে ধানের শীষ  প্রতীক নিয়ে  ৪৬২৬ ভোটে এগিয়ে আছেন বিএনপির আরিফুল হক চৌধুরী তিনি পেয়েছেন ৯০৪১৬ ভোট,তার নিকটতম প্রতিদন্ধি নৌকা প্রতীক নিয়ে বদর উদ্দিন আহমেদ কামরান  তিনি পেয়েছেন ৮৫৮৭০ ভোট।

অপরদিকে ফলাফল ঘোষণা স্থগিতের জন্য রিটার্নিং কর্মকর্তার কাছে আবেদন করেছে আওয়ামী লীগ। মেয়র প্রার্থী কামরানের প্রধান নির্বাচনী এজেন্ট ও দলটির কেন্দ্রীয় সাংগঠনিক সম্পাদক মিজবাহ উদ্দিন সিরাজ সোমবার রাতে নগরীর আবুল মাল আবদুল মুহিত ক্রীড়া কমপ্লেক্সে এসে স্বশরীরে রিটার্নিং কর্মকর্তার কাছে ফল স্থগিতের এ আবেদন করেন।

সেখানেই মিজবাহ উদ্দিন সিরাজ সাংবাদিকদের বলেন, কেন্দ্র থেকে এজেন্টদের কাছ থেকে পাওয়া ফল এবং ঘোষিত ফলের মধ্য পার্থক্য থাকায় রিটার্নিং কর্মকর্তার কাছে ফল স্থগিত রাখার আবেদন করা হয়েছে।

সর্বশেষ পর্যন্ত রিটার্নিং কর্মকর্তার দপ্তর থেকে ঘোষিত বেসরকারি ফলাফলে ১৩৪ ভোটকেন্দ্রের মধ্যে ১৩২ কেন্দ্রে আরিফুল হক চৌধুরী পেয়েছেন ৯০ হাজার ৪৯৬ ভোট। নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী আওয়ামী লীগের মেয়র প্রার্থী বদরউদ্দিন আহমদ কামরান (নৌকা) পেয়েছেন ৮৫ হাজার ৮৭০ ভোট।

ভোট গ্রহণ শেষ হওয়ার পর বিএনপির প্রার্থী আরিফুল হক চৌধুরী নতুন করে নির্বাচন আয়োজনের দাবি তোলেন। দিনভর ভোট গ্রহণে নানা অভিযোগ করেন আরিফ।তবে আজ ফলাফল ঘোষণার শুরু থেকেই চমক দেখা যায়। সিলেট সিটি করপোরেশন নির্বাচনে যে দুটি কেন্দ্রে ইলেকট্রনিক ভোটিং মেশিনে (ইভিএম) গ্রহণ করা হয়েছে, তাতে এগিয়ে যান আরিফুল হক চৌধুরী।
এরপর একটির পর একটি কেন্দ্রের ফল আসতে থাকলে কঠিন লড়াইয়ের চিত্রটি স্পষ্ট হয়। কখনো এগিয়ে থাকেন কামরান, কখনো আরিফুল হক।

সুনামগঞ্জ প্রতিনিধিঃ ২০দলীয় জোট সমর্থিত ও বিএনপি মনোনীত ধানের র্শীষের প্রার্থী জননন্দিত সাবেক মেয়র আরিফুল হক চৌধুরীর সমর্থনে বুধবার (১৮জুলাই) নগরীর মদিনা মার্কেট এবং সুবিদবাজারে গণসংযোগ কেন্দ্রীয় নেতৃবৃন্ধের সাথে অংশ গ্রহন করেছেন সুনামগঞ্জ জেলার শীর্ষ নেতৃবৃন্ধ ছাড়াও একঝাঁক তরুন ছাত্রদল,যুবদল,শ্রমিকদলসহ অঙ্গসংগঠনের সকল পর্যায়ের নেতৃবৃন্দের অংশ গ্রহণ ছাড়াও বিপুল সংখ্যক সাধারণ মানুষ অংশগ্রহণ করেন।

এসময় তারা বিএনপির প্রার্থী তথা জনেরগনের প্রার্থী সিলেট নগরীর উন্নয়নের ধারক আরিফুর হককে ধানের র্শীষ মার্কায় আবার বিপুল ভোটে জয়ী করে সামনে জাতীয় নির্বাচনে এই অবৈধ সরকারের করুন পরিনতি হবে তার দাঁত ভাঙ্গা কঠিন জবাব সিটি করপোরেশন নির্বাচনে দিতে নগর বাসীর প্রতি আবারও আহবান জানান নেতাকর্মীরা।

গণসংযোগে অংশগ্রহণ করেন,বিএনপির কেন্দ্রীয় ভাইস চেয়ারম্যান মোহাম্মদ শাহজাহান,সংসদের সাবেক হুইপ,বিএনপি চেয়ারপার্সনের উপদেষ্টা এডভোকেট ফজলুল হক আসপিয়া,সাংগঠনিক সম্পাদক কেন্দ্রীয় বিএনপি ডাঃ সাখাওয়াত হাসান জীবন,সাবেক এমপি বিএনপির সহ-সাংগঠনিক সম্পাদক দিলাদার হোসেন সেলিম,সুনামগঞ্জ বিএনপির সভাপতি সাবেক সাংসদ কলিম উদ্দিন মিলন, সিলেট জেলা বিএনপির সভাপতি আবুল কাহের চৌধুরী শামীম,মহানগর বিএনপির সভাপতি নাসিম হোসেইন,সাবেক এমপি জমিয়তে উলামায়ে ইসলামের যুগ্ম মহাসচিব মাওলানা এডভোকেট শাহিনুূর পাশা চৌধুরী,বিএনপির কেন্দ্রীয় নেতা মিজানুর রহমান চৌধুরী, খেলাফত মজলিস সিলেট মহানগরের সহ-সভাপতি আব্দুল হান্নান তাপাদার,সুনামগঞ্জ জেলা বিএনপির সাবেক সহ সভাপতি লেঃ কর্নেল (অবঃ) সৈয়দ আলী আহমদ,সহ-সভাপতি ওয়াকিমুল বারী গিলমান,রেজাউল হক,আনসার আহমদ,আবুল কালাম আজাদ,আনিসুল হক,সুনামগঞ্জ জেলা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক নূরুল ইসলাম,সিলেট জেলা বিএনপির যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক ইশতিয়াক সিদ্দিকী,সুনামগঞ্জ জেলা বিএনপির সাংগঠানিক সম্পাদক ও তাহিরপুর উপজেলা চেয়ারম্যান কামরুজ্জামান কামরুল,জেলা বিএনপির সাংগঠনিক সম্পাদক এমরান আহমদ চৌধুরী,চেট্টগ্রাম সিটি যুবদলের সভাপতি মোশাররফ হোসেন দীপ্তি,সিলেট মহানগর বিএনপির সহ-সভাপতি আমির হোসেন,ছাত্রদল কেন্দ্রীয় সহ-সভাপতি মাহবুবুল হক চৌধুরী,সাবেক উপজেলা চেয়ারম্যান আতাউর রহামন,ধর্মপাশা উপজেলা চেয়ারম্যান মোতালেব খান,সুনামগঞ্জ জেলা যুবদলের সাংগঠনিক সম্পাদক রাজু আহমদ,সিলেট মহানগর বিএনপি নেতা সৈয়দ আব্দুল হাদী মাসুম,আফসর খান,উসমান গণী,আজিজ খান সজীব,সুনামগঞ্জ জেলা ছাত্রদলের সভাপতি রায়হান আহমদ,তাহিরপুর উপজেলা ছাত্রদল নেতা জাহাঙ্গীর আলম,তোজাম্মিল হক নাসরুম,আবুল কালাম আজাদ,মিজানুর রাহমান,আবুল হাসান রাসেল,আসাদুজ্জামান মুন্না,জাহানার,আনোয়ার,তুহিন,চাঁন মিয়া সওদাগর প্রমুখ।

এছাড়া গণসংযোগে সিলেট বিভাগের বিএনপি,ছাত্রদল,যুবদল,শ্রমিকদলসহ অঙ্গসংগঠনের সকল পর্যায়ের নেতৃবৃন্দের অংশগ্রহণ ছাড়াও বিপুল সংখ্যক সাধারণ মানুষ অংশগ্রহণ করেন।

আমারসিলেট টুয়েন্টিফোর ডটকম,২৪মার্চ,জাহাঙ্গীর আলম ভুইয়া,সুনামগঞ্জ থেকেঃ   আগামী ২৯ মার্চ সুনামগঞ্জ পৌরসভার উপনির্বাচনকে সামনে রেখে নৌকা প্রতীকের পক্ষে গণ সংযোগ করলেন আমরা মুক্তিযোদ্ধার সন্তান সংগঠনের কেন্দ্রীয় সভাপতি ও স্বেচ্ছাসেবক লীগের কেন্দ্রীয় কমিটির মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক সম্পাদক মোঃ হুমায়ুন কবির। গণ সংযোগ উপলক্ষ্যে শুক্রবার বিকেল ৪টায় সুনামগঞ্জ প্রেসক্লাব মিলনায়তনে এক নির্বাচনী সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখেন তিনি।

আয়োজক সংগঠণ আমরা মুক্তিযোদ্ধার সন্তান সুনামগঞ্জ জেলা শাখার সভাপতি সাংবাদিক আল-হেলালের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত সভায় আরো বক্তব্য রাখেন কেন্দ্রীয় কমিটির সাংগঠনিক সম্পাদক কাজী জাহান,জেলা কমিটির সাধারন সম্পাদক ছাদিয়া বখত সুরভী,মুক্তিযোদ্ধার সন্তান আসওয়াদ বখত তালহা,জহীর আহমেদ সোহেল,জুয়েল আহমেদ,নুরুল আমিন,বিল্লাল আহমেদ,নেছার আহমেদ শফিক,শামীম আহমেদ,রুপক রাজ বৈদ্য,ইউপি সদস্য আবুল হোসেন,ইউনুছ মিয়া,ইকবাল হোসেন ও কাজী সিরাজুল ইসলামসহ স্থানীয় নেতৃবৃন্দ।

বক্তারা বলেন,সুনামগঞ্জ পৌরসভার উপনির্বাচনে ৩ প্রতিদ্বন্দ্বি প্রার্থীর মধ্যে সবার চাইতে যোগ্য সুদক্ষ ও সিনিয়র হিসেবেই নয় বরং সকল গুনে গুনান্বিত প্রার্থী হচ্ছেন নাদের বখত। তিনি একজন মুক্তিযোদ্ধার সন্তান,৩ জন মুক্তিযোদ্বার সহোদর এটাই তার যোগ্যতা নয় স্বৈরাচারী এরশাদ জিয়াসহ বিভিন্ন আমলে ছাত্রলীগ ও যুবলীগের রাজনীতি করতে গিয়ে মুজিব আদর্শের প্রকৃত সৈনিক হিসেবে জেল জুলুম খাটা একজন ত্যাগী রাজনৈতিক কর্মী বটে। হোসেন বখত পরিবারের সাবেক পৌর চেয়ারম্যান মনোয়ার বখত নেক ও আয়্যুব বখত জগলুলের চাইতে তিনি আরো বেশী জনপ্রিয়। রাজনৈতিক মাঠে তার কোন শত্রু নেই। তিনি কারো সাথে খারাপ আচরন করেছেন এমন কথা কেউ বলতে পারবেননা।

তাই একজন বেষ্ট প্রার্থী হিসেবে আমরা তাকে পূর্ণ সমর্থন করেছি। ইনশাল্লাহ তিনিই নির্বাচিত হবেন। বক্তারা আরো বলেন,সুনামগঞ্জ পৌরসভায় ১২০ জনের মত কর্মচারী রয়েছে কিন্তু একাধারে দীর্ঘ ১৮ বছর পৌর চেয়ারম্যানের দায়িত্ব পালন করলেও সাবেক জনপ্রিয় চেয়ারম্যান দেওয়ান মমিনুল মউজদীন একজন মুক্তিযোদ্ধার সন্তানকে চাকুরী দেননি। শত শত কর্মচারী নিয়োগ করতে গিয়ে তিনি মুক্তিযোদ্ধার সন্তানদের ৩০% চাকুরীর কোটা সংরক্ষণ করেননি।

প্রয়াত মেয়র জগলুল সাহেব শাহ মোয়াজ্জেম হোসেন নামে একজন মুক্তিযোদ্ধার সন্তানকে চাকুরীতে নিয়োগ করে মুক্তিযোদ্ধার সন্তানদের কোটা লালন করার কাজে যখনই হাত দেন তখনই তিনি মারা যান। তার অসমাপ্ত উন্নয়ন কাজ সমাপ্ত করতে নাদের বখতই একমাত্র যোগ্য মেয়র প্রার্থী বলে আমরা মনে করি।

পরে কেন্দ্রীয় সভাপতি হুমায়ূন কবীর স্থানীয় বাধনপাড়ায় নৌকা প্রতীকের সমর্থনে অনুষ্ঠিত আরেকটি নির্বাচনী সভায় প্রধান বক্তার বক্তব্য রাখেন।

আমারসিলেট টুয়েন্টিফোর ডটকম,১৮ডিসেম্বরঃ   রংপুর সিটি করপোরেশন নির্বাচনে নৌকার পক্ষে রংপুরের উন্নয়ন চাই আমরা সচেতন ছাত্র সমাজ স্লোগানে গণসংযোগ করেন বাংলাদেশ অনলাইন অ্যাক্টিভিষ্ট ফোরাম (বোয়াফ) রংপুর জেলা শাখার নেতৃবৃন্দ।

সোমবার (১৮ ডিসেম্বর) সকাল সাড়ে ৯টায় সংগঠনের সভাপতি জিন্নাত হোসেন লাভলু এবং সাধারণ সম্পাদক এস এম সাব্বির আহমেদের নেতৃত্বে রংপুর জেলা

প্রেসক্লাব থেকে শুরু করে জাহাজ কোম্পানী, সিটি বাজার, কাচারী বাজার, ডিসির মোড়, লালকুঠি মোড়, ধাপ বাজার, চেকপোষ্ট, মেডিকেল মোড়, ধাপ পুলিশ ফাঁড়ি, ব্যাংকের মোড়, রাধা বল্লভ হয়ে হনুমানতলা বাজারে গণসংযোগ কওে রংপুর বোয়াফ-এর শতাধিক নেতাকর্মী।

সংগঠনের সভাপতি জিন্নাত হোসেন লাভলু বলেন, নতুন প্রজন্মের রংপুর সিটি করপোরেশনের নাগরিক সুযোগ-সুবিধা নিশ্চিত করার জন্য আওয়ামী লীগের মনোনীত প্রার্থী সরফুদ্দিন আহমেদকে নৌকা প্রতীকে ভোট দেওয়া এখন সময়ের দাবি হয়ে উঠেছে।

গণসংযোগের সময় বিশেষ করে উপস্থিত ছিলেন রংপুর বোয়াফ সহ-সভাপতি আশিকুন নাহার টুকটুকি, বিউটি বেগম, আবদুল আজিজ, বেগম রোকেয়া বিশ্ববিদ্যালয়, কারমাইকেল কলেজ, রংপুর সরকারী কলেজ, রংপুর পলিটেকনিক কলেজ এর স্থানীয় নেতৃবৃন্দসহ সংগঠনের বিভিন্ন নেতাকর্মী।

আমার সিলেট টুয়েন্টি ফোর ডটকম,০৩জুন,সুনামগঞ্জ প্রতিনিধিঃ   সুনামগঞ্জ জেলার জামালগঞ্জ উপজেলায় রক্তক্ষয়ী সংঘর্ষে দুই পক্ষে আহত হয়েছে ৩০ জন। শুক্রবার বিকালে জামালগঞ্জ সদর ইউনিয়নের লক্ষীপুর গ্রামের স্কুল মাঠের জি.সি.সি. রাস্তায় অপু মিয়া, লাইম মিয়া ও সদর ইউপির সাবেক মেম্বার কামরুল ইসলামের লোকজনের সাথে এই রক্তক্ষয়ী সংঘর্ষ হয়। জানা যায়, হালির হাওরের ছাতিধরা গ্রুপ জলমহালে মাছ ধরাকে কেন্দ্র করে দুই পক্ষে এই সংঘর্ষ বাধে। বিগত দিনে ছাতিধরা জলমহাল উপজেলা চেয়ারম্যানের নিয়ন্ত্রনাধীন গ্রুপে দীর্ঘ দিন যাবৎ ইজারাপ্রাপ্ত হয়ে মৎস্য চাষ ও  আহরণ করে আসছেন।

বিগত কিছু দিন পূর্বে ইনছানপুর মৎস্যজীবি সমবায় সমিতি লিঃ বিজ্ঞ মহামান্য হাইকোর্ট থেকে ৬ বছরের জন্য বন্ধোবস্তপ্রাপ্ত হয়ে মাছের পোনা ছেড়ে অবমুক্ত করে পাহারাদার নিযুক্ত করে মাছ ফলানোর জন্য ব্যবস্থা নিচ্ছে। অপর পক্ষে অপু মিয়া ও লাইম মিয়া গ্রুপের নেতৃতে গত ৩১ মে শনিবার ছাতিধরা বিলে মাছ মারতে গেলে বন্ধোবস্তপ্রাপ্ত সদর ইউপির সাবেক মেম্বার কামরুল ইসলাম সমর্থিত সমবায় সমিতির সাধারণ সম্পাদক আলী আকবরের লোকেরা বাধা দিলে গত রবিবার ভাসান পানিতে মাছ ধরার দাবীতে বন্ধোবস্তপ্রাপ্ত লোকদের বিরুদ্ধে জামালগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী অফিসার বরাবর অভিযোগ দাখিল করে। এই ঘটনার জের ধরে গতকাল উভয় পক্ষে দেশীয় অস্ত্র সস্ত্র নিয়ে লক্ষীপুর স্কুল মাঠে সংঘর্ষ বাধে।

সংঘর্ষে কামরুল ইসলামের পক্ষে আহতরা হচ্ছে, মাজির হোসেন (৩৫), দবীর হোসেন (৩৪), মুজিব হোসেন, (২২), রেনু মিয়া (৬০), আমিরুল ইসলাম (৪০), কয়েল মিয়া (৩০), ছাব্বির আলম (২৫), আয়না মিয়া (৩২), জুলহাস  উদ্দিন (৩৮), এমারুল হক (৪২),  কালা মিয়া (২২), শফিক মিয়া (৪৫), লিয়াকত আলী (২৮),  আনারুল হক (৪৮), জাহিদুল ইসলাম (১৮), সোহাগ মিয়া (১৭),  কামিল হোসেন (২৮), শাকিল হোসেন (২৮), সেজাব হোসেন (২৩), সাকিরা বেগম (৪০), আলেমা খাতুন (৭৫), ফরিদা বেগম (৩৫) এর মধ্যে প্রথম ১০ জন গুরুতর আহতদের কে সুনামগঞ্জ সদর হাসপাতালে প্রেরণ ও অন্যরা জামালগঞ্জ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন আছে করা হয়েছে।
অপু মিয়া ও লাইম মিয়া গ্রুপের পক্ষে, গোলাম মৌলা (৩০), লাফু মিয়া (৩০), রুহাত হোসেন (১৮), রতন মিয়া (৩০), মো. রুমেল মিয়া (২৪), শুভ মিয়া (১৬) আহত হয়। আহতরা জামালগঞ্জ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন আছে। ইনছানপুর মৎস্যজীবি সমবায় সমিতির সাধারণ সম্পাদক আলী আকবর বলেন, ২৫ বছর যাবৎ ঝুনু মিয়া ছাতিধরা বিল আইন্যা একটা ইছা মাছ মারবার লাগিও কেউরে দেয় নাই।

আর আমরা এহন বিল পাওনে তাইন ভাসান পানির নেতা সাইজ্জা তার লোকজন দিয়া আমাদের বিলে অন্যায়ভাবে মাছ মারার চেষ্টা করে। এ ব্যাপারে সদর ইউপির সাবেক মেম্বার কামরুল ইসলাম বলেন, ছাতিধরা বিল না পেয়ে উপজেলা চেয়ারম্যান শামছুল আলম ঝুনু সাহেব অপু মিয়া ও লাইম মিয়াকে দিয়ে গ্রামের লোকজনকে লেলিয়ে উত্তেজনাকর পরিস্থিতি সৃষ্টি করায় সংঘর্ষে সূত্রপাত ঘটে। আমাদেরকে আপোষের কথা বলে হঠাৎ এলোপাতারি মারামারি করে মহিলা সহ ২২ জন লোককে আহত করে।
জামালগঞ্জ সদর ইউপির চেয়ারম্যান সাজ্জাদ মাহমুদ তালুকদার বলেন, আমি সুনামগঞ্জে ছিলাম, ঘটনা শুনেছি, এই ঘটনার আপোষে মিমাংসা হয়েছে বলে জানি, আমি অপু মিয়া ও লাইম মিয়া কে কোন প্রকার মারামারি না করা জন্য বলেছি।
এ ব্যাপারে জামালগঞ্জ থানার অফিসার ইনচার্জ আবুল হাসেম বলেন, সংঘর্ষের সংবাদ পেয়ে আমি ফোর্স সহ ঘটনাস্থলে পৌছে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রনে আনি, আইন শৃঙ্খলা রক্ষার স্বার্থে আহতদের চিকিৎসার সময়ে জামালগঞ্জ হাসপাতালে উত্তেজনা দেখা দিলে রুবেল মিয়া, শহিদুল, সোফায়েল আহমদ, শুভ হাসান, রুহাত হোসেন, রুমান মিয়াকে গ্রেপ্তার করে থানায় নিয়ে আসা হয়। এখনো কোন পক্ষের অভিযোগ পাইনি পেলে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

আমার সিলেট টুয়েন্টি ফোর ডটকম,০৭এপ্রিল,চান মিয়া,ছাতক (সুনামগঞ্জ):ছাতকস্থ লাফার্জ সুরমা সিমেন্ট লিমিটেডের ভারি যানবাহন শ্রমিকদের চাকুরি স্থায়ীকরনের দাবিতে ২০১২সালের ৯ডিসেম্বর চট্টগ্রাম ২য় শ্রম আদালতে পরিবহন শ্রমিক ২৩টি আইআর মামলা দায়ের করেন। এতে লাফার্জ কর্তৃপক্ষ মামলাগুলো খারিজের আবেদন করলে ২০১৪সালের ২৫ফেব্রুয়ারি ২য় শ্রম আদালত চট্টগ্রাম তা- না মঞ্জুর করেন। পরে ঢাকা শ্রম আপীল ট্রাইব্যুনালে আপীল মামলা দায়ের করলে ২০১৪সালের ১০এপ্রিল লাফার্জের আপীল মামলাও ডিসমিস হয়ে যায়।

এতে নিম্ন আদালতের রায় বহাল রেখে শ্রমিকদের বেতন-ভাতাসহ যাবতীয় সূযোগ-সূবিধা বহাল রাখার আদেশ দেন। এরপরও শ্রমিকদের চাকুরী বহালও স্থায়ী না করে মাননীয় হাইকোর্টে রিট পিটিশন মামলা (নং ৮৬৮৪/২০১৪ইং) দায়ের করেন। দীর্ঘ ৩বছর পর গত ২০১৭সালের ৩০মার্চ উচ্চ আদালত আবারো শ্রমিকদের পক্ষে রায় ঘোষণা করেন। বিচারপতি তরিকুল হাকিমও বিচারপতি এমডি ফারুক (এম ফারুক) সমন্বয়ে গঠিত বেঞ্চ নিম্ন আদালতকে শ্রমিকদের স্থায়ীকরন মামলা নিষ্পত্তি করার আদেশ দেন। এরসাথে তাদের বেতন-ভাতার আদেশ বহাল রাখেন। লাফার্জের পরিবহন শ্রমিক সংগ্রাম কমিটির সভাপতি খালেদ মিয়াও সাধারণ সম্পাদক শাহজাহান আলী জানান, ৩বছর যাবত রায়ের পরও বেতন-ভাতাদি না দিয়ে লাফার্জ কর্তৃপক্ষ শ্রমিকদের চরম হয়রানী করে যাচ্ছেন।

তারা শ্রমিকদের হয়রানি করার সব পথই অবলম্বন করে অবশেষে ব্যর্থ হয়েছে। তাদের এসব হয়রানিতে শ্রমিকরা অসহায়ভাবে মানবেতর জীবন করছে। এনিয়ে বাংলাদেশ সড়ক পরিবহন শ্রমিক ফেডারেশন কয়েকদফা আন্দোলন-সংগ্রাম করেছেন। অবশেষে দীর্ঘ আন্দোলন-সংগ্রামের পর শ্রমিকদের অধিকার প্রতিষ্টিত হয়েছে।

তারা বলেন, এযাবত আদালতের ৩টি রায় পেয়েছেন। তাদের অধিকার আদায়ে আদালতের আশ্রয় নেয়া কি অপরাধ ছিল? যে অজুহাতে তাদের বেতন-ভাতা বন্ধ করা হয়। তারা মামলার আগে লাফার্জকে বার বার লিখিতভাবে অনুরুধ জানিয়েছেন। এতে তারা সাড়া না- দিয়ে উল্টো তাদেরকে বিভিন্নভাবে ভয়ভীতি প্রদর্শনও হুমকিসহ হয়রানী করার পথ বেছে নেয়া হয়। পরিশেষে তারা দেশের দায়িত্বশীল ব্যক্তিবর্গকে অনুরুধ জানিয়ে বলেন, দেশে আর যেন কোন শ্রমিক হয়রানী না- হয়।

এক্ষেত্রে সবার সজাগ দৃষ্টি ও সার্বিক সহযোগিতা কামনা করেন তারা। এছাড়া নেতৃবৃন্দ আদেশের সার্টিফাইড কপি হাতে পেলেই চট্টগ্রাম ২য় শ্রম আদালতে আইনী প্রক্রিয়া সেরে তাদের ন্যায্য অধিকার প্রতিষ্টিত করবেন বলে জানিয়েছেন।

  

এডিটর: আনিছুল ইসলাম আশরাফী, এনিমেটরস্ বাংলা মিডিয়া গ্রুপ কর্তৃক প্রকাশিত
সম্পাদকীয় কার্যালয়: কলেজ রোড, শ্রীমঙ্গল, মৌলভীবাজার।
Email: news.amarsylhet24@gmail.com Mobile: 01772 968 710

Developed By : i-Tech Sreemangal
Email : itech.official@hotmail.com
Facebook : http://facebook.com/itech.ctc