Saturday 5th of December 2020 08:47:57 PM

চুনারুঘাট (হবিগঞ্জ) প্রতিনিধি: বেসামরিক বিমান পরিবহন ও পর্যটন প্রতিমন্ত্রী এডভোকেট মাহবুব আলী বলেছেন, সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতি সৃষ্টিতে শেখ হাসিনা দৃষ্টান্ত স্থাপন করেছেন। শারদীয় দুর্গোৎসব ধর্ম-বর্ণ-নির্বিশেষে সবার মধ্যে সম্প্রীতি ও সৌহার্দ্যর বন্ধনকে আরও দৃঢ় ও সুসংহত করবে। কোন অশুভ শক্তি যেন এ সম্প্রীতি ও সৌহার্দ্যকে ধ্বংস করতে না পারে,সেদিকে সবাইকে সজাগ থাকতে হবে।

বুধবার দুপুরে হবিগঞ্জের চুনারুঘাট বীর মুক্তিযোদ্ধা এনামুল হক মোস্তফা শহীদ অডিটরিয়ামে শ্রীশ্রী দুর্গাপূজা উপলক্ষে সার্বজনিন পূজা মন্ডপে প্রধানমন্ত্রীর অনুদান ও সমাজ সেবা অধিদপ্ত কতৃক চা শ্রমিক পরিবার সমূহের মাঝে এককালীন অনুদান বিতর অনুষ্টানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে উপরোক্ত কথা গুলো বলেন প্রতিমন্ত্রী এডভোকেট মাহবুব আলী।
চুনারুঘাট উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা সত্যজিত রায় দাসের সভাপতিত্বে এতে বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন- হবিগঞ্জের অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (সার্বিক) মর্জিনা আক্তার, চুনারুঘাট উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান আলহাজ্ব আব্দুল কাদির লস্কর। বক্তব্য রাখেন- উপজেলা মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান আবিদা খাতুন, সহকারী কমিশনার (ভূমি) মিল্টন চন্দ্র পাল, চুনারুঘাট থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মোঃ আলী আশরাফ, উপজেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি এডভোকেট আকবর হোসেন জিতু,পৌর আওয়ামীলীগের সভাপতি আবু তাহের মিয়া মহালদার প্রমুখ। সভা শেষে চুনারুঘাট শহীদ মিনার চত্বরে জাতীর পিতা বঙ্গবন্ধু ম্যুরাল এর উদ্বোধন করেন প্রতিমন্ত্রী এডভোকেট মাহবুব আলী ।

 

নূরুজ্জামান ফারুকী নবীগঞ্জ: বাড়ীতে নুন আনতে পান্তা ফুরায়,গরীব রিকশা চালক নাজমুলের।তবুও সততার পথ থেকে সরতে নারাজ এই তরুণ রিকশা চালক।প্রায় আড়াই লক্ষ টাকা ও একটি মোবাইল ফোন হাতে পেয়ে ও ফিরিয়ে দিলেন তিনি। ঘটনাটি ঘটেছে বৃহস্পতিবার (০৩ সেপ্টেম্বর)  নবীগঞ্জ উপজেলার ইনাতগজ্ঞ বাজারে। বৃহস্পতিবার ইনাতগজ্ঞ বাজার থেকে জনৈক ব্যক্তিকে নিয়ে কাজির বাজারে নামিয়ে দিয়ে আসার পথে  তার রিকশার সিটে পড়ে থাকা একটি শপিং  ব্যাগ দেখতে পায় নাজমুল।ব্যাগটি খুলে টাকা ও মোবাইল ফোন দেখতে পেয়ে হতভম্ব হয়ে যায়।তাৎক্ষণিক সে আরেকজন চালকের সহায়তা নিয়ে ইনাতগজ্ঞ বাজারে কেয়া ষ্টোরের মালিক গোলাম জিলানী সাইফুল আলমের কাছে নিয়ে গেলে মোবাইল ফোনের সূএধরে ব্যাগের মালিককে ফোন দেন।টাকার মালিক ফোন পেয়ে আরো দুজনকে ব্যক্তিকে সাথে ইনাতগজ্ঞ বাজারে আসেন।পরে মোবাইল ও দুই লক্ষ সাত চল্লিশ হাজার টাকার ব্যাগটি মালিককে ফেরত দেন।এ সময় ব্যাগের মালিক অনেকের উপস্হিতিতে নিজ টাকা বুঝে পেয়ে আল্লাহর শুকর জানান এবং লোভ লালসাহীন মানবতার সাক্ষী দুই চালককে ২৫০০ টাকা প্রায় জোর করেই তাদের পকেটে দিলেন এবং রিকশাচালক  নাজমুলকে উক্ত টাকার নবীগঞ্জে সততার বিরল দৃষ্টান্ত। আড়াই লক্ষ টাকা ফেরত দিলেন এক রিকশা চালক।

নিজস্ব প্রতিনিধিঃ  মা যখন বাবার হাতে খুন হয় এমন নির্মম স্মৃতি নিয়ে বেঁচে থাকা যে কত কষ্টকর তা কেবল একজন ভুক্তভুগিই অনুধাবন করতে পারে,আর তা যদি শিশুদের জীবনে ঘটে তা হলে ভালো মন্দ বুঝে উঠার আগেই জীবনের মূল্যবান ভালোবাসা ও বিশ্বাস হারিয়ে অজানা গন্তব্যের দিকে পাড়ি জমায় জীবন নামের উত্তাল সমুদ্রগামী নৌকা। এ সময় নিকটাত্মীয় ও দুরবর্তীদের বিশ্বাস বলতে যা থাকে সবই একাকার হয়ে যায়। কিন্তু  এমন পরিস্থিতিতে যে কেবল আইন রক্ষাকারী সংস্থার বিশ্বস্থরাই অসহায়ের সহায় হতে পারে তা মৌলভীবাজার জেলার শ্রীমঙ্গল থানার পুলিশের মানবিক আচরণ থেকেই উজ্জ্বল দৃষ্টান্ত হয়ে থাকবে যুগ যুগ ধরে।

জানা গেছে মৌলভীবাজার জেলা পুলিশের এসপি ফারুক আহমেদ পিপিএম এর নির্দেশনায় শ্রীমঙ্গল-কমলগঞ্জ সার্কেল সিনিয়র এএসপি আশরাফুজ্জামান আশিক এর তত্ত্বাবধানে ও  শ্রীমঙ্গল থানার ওসির সহযোগিতায় ইব্রাহিম (১০) ফাহিম (৫) পিতা-আজগর আলী মাতা-মৃত ইয়াসমিন সাং- বেলতলী, সিন্দুর খান, শ্রীমঙ্গল, শিশু দুইটির পাশে দাঁড়িয়ে আরেকটি মানবিক দৃষ্টান্ত স্থাপন করলেন শ্রীমঙ্গল পুলিশ প্রশাসন।

প্রঙ্গত আশিদ্রোন ইউনিয়নের পূর্ব জামসী গ্রামে গত ৪ জুন বৃহস্পতিবার দিবাগত রাতের গভীর রাতে খুন হওয়া জায়েদা বেগম (৫৫) ও ইয়াসমিন (২৪), শিশু দুটির মা ও নানীকে সকালে স্থানীয়রা তাদের ঘর থেকে মরদেহ উদ্ধার করে থানা পুলিশের সহযোগিতায়। পরে পুলিশের অভিযানে আটক জামাতা আজগর আলীকে নিজ এলাকা সিন্দুরখান ইউনিয়নের তালতলা গ্রাম থেকে গ্রেফতার করে। পরে আদালতে স্বীকারোক্তিমূলক বক্তব্য দেন এবং বিজ্ঞ আদালত তাকে কারাগারে প্রেরণ করেন।

এমতাবস্থায় খুন হওয়া নারী ইয়াসমিন ও ঘাতক খুনি আজগরের কারাগারে থাকার কারণে তাদের দুটি শিশু সন্তান ইব্রাহিম (১০) ফাহিম (৫) অভিবাবকহীন হয়ে পরলে এসপি ফারুক আহমেদ পিপিএম এর নির্দেশনায় শ্রীমঙ্গল-কমলগঞ্জ সার্কেল সিনিয়র এএসপি আশরাফুজ্জামান আশিকের তত্ত্বাবধানে ওসি আব্দুস ছালেকের সহায়তায় এবং ওসি অপারেশন নয়ন কারকুনের উপস্থিতিতে শিশু দু’টিকে সিলেট সমাজসেবা অধিদপ্তরের আওতাধীন সরকারী এতিমখানায় মঙ্গলবার দুপুরে প্রেরণ করেন এবং তাদের ব্যাপারে এক স্ট্যাটাসে এএসপি আশরাফুজ্জামান আশিক লিখেন (হুবহু তুলে ধরা হল)

 “ভালো থাকিস বাবারা,ভালো হয়ে ফিরে আসিস ,সমাজের অন্ধকার থেকে দূরে থাকিস,আলো হয়ে জ্বলে উঠিস।

আপনাদের পরামর্শে, পুলিশ সুপার মৌলভীবাজার এর সার্বিক তত্ত্বাবধানে, শ্রীমঙ্গল সার্কেল ও থানার আন্তরিকতায় হত্যাকারী বাবা এবং খুন হয়ে যাওয়া মায়ের দুটি শিশু সন্তানকে অবশেষে পাঠানো হলো সরকারি এতিমখানায় কিছুদিন আগে এ বিষয়ে একটি পোস্ট দেওয়ায় অনেকেই তাদের এতিমখানায় প্রেরণের জন্য আমাদের পরামর্শ প্রদান করেছিলেন।তাদের প্রতি আমাদের আন্তরিক ধন্যবাদ এবং কৃতজ্ঞতা।”

উপরোক্ত সংবাদের পুর্বের লিঙ্ক দেখতে হলে ক্লিক করুন নিচে

শ্রীমঙ্গলে মা-মেয়ে জোড়া খুনের রহস্য উন্মোচন,আটক-১

  

এডিটর: আনিছুল ইসলাম আশরাফী, এনিমেটরস্ বাংলা মিডিয়া গ্রুপ কর্তৃক প্রকাশিত
সম্পাদকীয় কার্যালয়: কলেজ রোড, শ্রীমঙ্গল, মৌলভীবাজার।
Email: news.amarsylhet24@gmail.com Mobile: 01772 968 710

Developed By : i-Tech Sreemangal
Email : itech.official@hotmail.com
Facebook : http://facebook.com/itech.ctc