Saturday 24th of October 2020 09:22:06 AM

জৈন্তাপুর প্রতিনিধিঃ  ৯ অক্টোবর শুক্রবার রাত সাড়ে ১০টায় জৈন্তাপুর উপজেলা নির্বাহী ম্যাজিষ্ট্যাট মোবাইল কোর্ট পরিচালনা করে নিজপাট লামাপাড়া এলাকা হতে বিপুল পরিমান মটরশুটি ও মটর ডাল আটক করেন ৷ এসব মটর ডাল ভারতে পাচারের উদ্দেশ্যে দেশের বিভিন্ন প্রান্ত থেকে এনে জৈন্তাপুর এলাকায়  মজুদ করা হয়৷ যার কারনে দেশের অভ্যন্তরে কৃত্রিম সংকট সৃষ্টির সম্ভাবনা সৃষ্টি হচ্ছে ।
এ অপরাধের জন্য মোবাইল কোর্ট পরিচালনা করে কৃষি বিপনন আইন ২০১৮ এর ১৯ ধারায় মোবাইল কোর্ট পরিচালনা করা হয়। মোবাইল কোর্ট অভিযান করে ২টি মামলায় ১ লক্ষ ১০ হাজার টাকা জরিমানা করা হয় এবং তা আদায় করা হয়।
উপজেলা জুড়ে এ অভিযান অব্যাহত থাকবে বলে জানানো হয়। দেশকে ভাল বেশে, দেশের সম্পদ বিদেশে পাচার করা থেকে বিরত থাকার অাহবান জানান। নির্বাহী ম্যাজিষ্ট্যাট ও উপজেলা সহকারী কমিশনার ভূমি মোঃ ওমর ফারুক এর নেতৃত্বে অভিযান পরিচালনার সময় অারও উপস্থিত ছিলেন জৈন্তাপুর মডেল থানার অফিসার ইনচার্জ তদন্ত ওমর ফারুক, এস অাই জাকির হোসেন, জৈন্তাপুর ষ্টেশন বাজার ব্যবসায়ী সমিতির সাধারণ সম্পাদক সিরাজুল ইসলাম সহ পুলিশের বিশেষ টিম ৷
এবিষয়ে উপজেলা নির্বাহী ম্যাজিষ্ট্যাট মোঃ ওমর ফারুক জানান, গোপন সংবাদের ভিত্তিত্বে খবর পেয়ে মোবাইল কোর্ট পরিচালনা করে ২টি মামলায় জরিমানা করি৷ কৃত্রিম সংকট তৈরী করে অবৈধ মজুদ কারীদের বিরুদ্ধে মোবাইল কোর্টের অভিযান উপজেলা জুড়ে অব্যাহত থাকবে বলে জানান ৷

নবীগঞ্জ (হবিগঞ্জ) প্রতিনিধি: হবিগঞ্জের নবীগঞ্জ উপজেলার কালিয়ারভাঙ্গা ইউনিয়নের খড়িয়া বিল থেকে ড্রেজার মেশিন দিয়ে অবৈধভাবে বালু উত্তোলন করার দায় দুই ব্যক্তিকে এক লক্ষ টাকা অর্থদণ্ড প্রদান করা হয়েছে। মঙ্গলবার (২৯ সেপ্টেম্বর) দুপুরে ভ্রাম্যমান আদালতের মাধ্যমে ওই অর্থদণ্ড প্রদান করেন উপজেলা নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট ও সহকারী কমিশনার (ভূমি) সুমাইয়া মুমিন। এ সময় বালু উত্তোলনের সরঞ্জামসহ ড্রেজার মেশিন ঘটনাস্থলে ধ্বংস করা হয়।
সূত্রে জানায়, বালু মহাল ও মাটি ব্যবস্থাপনা আইন ২০১০ এর আওতায় মোবাইল কোর্ট পরিচালনা করা হয়। মোবাইল কোর্ট পরিচালনা করেন, উপজেলা ভ্রাম্যমাণ আদালতের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট সহকারী কমিশনার (ভূমি) সুমাইয়া মুমিন, তফশিলদার বিষ্ণুপদ চক্রবর্তী, আবিদ আলীসহ অন্যান্য কর্মকর্তাবৃন্দ। এ সময় সার্বিকভাবে সহায়তা করেন নবীগঞ্জ থানা পুলিশ।
এ ব্যাপারে উপজেলা ভ্রাম্যমাণ আদালতের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট সুমাইয়া মুমিন বলেন, জনকল্যাণে ও জনস্বার্থে মোবাইল কোর্টের মাধ্যমে আমাদের এমন অভিযান অব্যাহত থাকবে।

নূরুজ্জামান ফারুকী নবীগঞ্জ: নবীগঞ্জ উপজেলায় অভিযান চালিয়ে ৬ হাজার কেজি নিষিদ্ধ পলিথিন জব্দ করেছেন প্রশাসন। একই সাথে ১লাখ টাকা জরিমানা করা হয়েছে। গতকাল বৃহস্পতিবার বিকেলে নবীগঞ্জ উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) সুমাইয়া মুমিমের নেতৃত্বে উপজেলার ইনাতগঞ্জ বাজারে অভিযান পরিচালনা করে এসব নিষিদ্ধ পলিথিন জব্দ করা হয়।

সুত্রে জানা গেছে- গতকাল বৃহস্পতিবার বিকেলে গোপন সংবাদের ভিত্তিতে নবীগঞ্জ উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) সুমাইয়া মুমিন এর নেতৃত্বে ও র‍্যাব-৯ এর কমান্ডার আহমেদ নোমান জাকির ও পরিবেশ অধিদপ্তর সিলেটের সহকারী বায়োকেমিস্ট মোঃ ছানোয়ার হোসেনের সহযোগিতায় ইনাতগঞ্জ বাজারে অভিযান পরিচালনা করা হয়। অভিযানে ওই বাজারের ফজর স্টোরের দোকান ও বাসা থেকে ৬ হাজার কেজি নিষিদ্ধ পলিথিন জব্দ করা হয়।

এসময় বাংলাদেশ পরিবেশ সংরক্ষণ আইন -১৯৯৫ এর ৬(ক) ধারা লঙ্ঘনের দায়ে ১ লক্ষ টাকা অর্থদন্ড করা হয় এবং আনুমানিক ৬০০০ ছয় হাজার কেজি নিষিদ্ধ পলিথিন জব্দ করা হয়। জব্দকৃত নিষিদ্ধ পলিথিন পরিবেশ অধিদপ্তর সিলেটের প্রতিনিধির জিম্মায় দেয়া হয়েছে। নবীগঞ্জ উপজেলা সহকারী কমিশনার ভূমি সুমাইয়া মুমিন ভ্রাম্যমাণ আদালতের সত্যতা নিশ্চিত করেছেন।

হবিগঞ্জ প্রতিনিধিঃ  প্লাস্টিকের বস্তা ব্যবহারের দায়ে হবিগঞ্জের চুনারুঘাট নয়ানী গ্রামে মকসুদ আলী অটো রাইস মিলকে ৩০ হাজার টাকা জরিমানা করেছে ভ্রাম্যমাণ আদালত।
বুধবার (২৩ সেপ্টেম্বর) বিকেলে চুনারুঘাট সহকারী কমিশনার (ভূমি) মিল্টন চন্দ্র পাল চুনারুঘাটের বিভিন্ন অটো রাইস মিলে ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনা করেন।
এ সময় উপস্থিত ছিলেন – চুনারুঘাটের খাদ্য কর্মকর্তা আবুল হোসেন। সহকারী কমিশনার (ভূমি) মিল্টন চন্দ্র পাল বলেন, ধান, চাল প্যাকেট করতে পাটের বস্তা বাধ্যতা মূলক করেছে সরকার। কিন্তু মিল মালিকরা আইন অমান্য করে পাটের বস্তা ব্যবহার না করে প্লাস্টিকের বস্তা ব্যবহার করে আইন অমান্য করছে।
তিনি আরও বলেন, চুনারুঘাট থানা পুলিশের সহায়তায় উপজেলার আমতলি বাজার ও নয়ানী গ্রামের অটো রাইস মিলে অভিযান পরিচালনা করা হয়। এ সময় মকসুদ আলী অটো রাইস মিলকে ৩০ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়।

এম ওসমান,বেনাপোল প্রতিনিধিঃ যশোরের শার্শায় বিদেশ থেকে পাঠানো টাকা স্ত্রী কর্তৃক আত্মসাৎ করায় স্ত্রীর ওপর অভিমান করে ফেইসবুক লাইভে ঘোষণা দিয়ে আত্মহত্যার পথ ধরেছেন সদ্য বিদেশ ফেরত রফিকুল ইসলাম নামে এক যুবক।
বৃহস্পতিবার যশোর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তার মৃত্যু হয়েছে বলে জানা যায়।
নিহত রফিকুল ইসলাম শার্শা উপজেলার নাভারন কাজিরবেড় গ্রামের দিদার হোসেনের ছেলে।
শার্শা থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) বদরুল আলম খান বলেন, গত বুধবার সন্ধ্যায় ফেইসবুক লাইভে আত্মহত্যার ঘোষণা দিয়ে বিষ পান করেন রফিকুল।
পরে তার স্বজনরা উন্নত চিকিৎসার জন্য তাকে যশোর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করেন। সেখানে চিকিৎসাধীন অবস্থায় বৃহস্পতিবার সকালে তার মৃত্যু হয়।
যশোরের নাভারন সার্কেলের সহকারী পুলিশ সুপার জুয়েল ইমরান বলেন, রফিকুল ইসলাম নামের ওই যুবক দীর্ঘদিন মালয়েশিয়ায় ছিলেন। ১৩দিন আগে তিনি দেশে ফিরে আসেন। মালয়েশিয়ায় থাকাকালীন উপার্জিত সব টাকা তিনি তার স্ত্রীর নামে দেশে পাঠাতেন। রফিকুল দেশে ফেরার পর তার স্ত্রী স্বামীর পাঠানো টাকা আত্মসাৎ করে রফিকুলের সাথে যোগাযোগ বন্ধ করে দেন।
“এতে দেশে ফিরে তিনি মানসিক ভাবে ভেঙে পড়েন এবং দুশ্চিন্তাগ্রস্ত হয়ে আত্মহত্যার পথ বেছে নেন।”
আত্মহত্যার আগে রফিকুল ফেইসবুক লাইভে ঘটনাটি বলে যান এবং ১০০ টাকার একটি ননজুডিশিয়াল স্টাম্পে তার স্ত্রীর সহযোগীদের নাম লিখে গেছেন বলেও জানান তিনি।
সহকারী পুলিশ সুপার জুয়েল বলেন, “লাশ ও সব আলামত আমরা সংগ্রহ করেছি।” নিহতের স্ত্রী মনিরা খাতুনকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য পুলিশ হেফাজতে নেওয়া হয়েছে।

জুড়ী প্রতিনিধিঃ মৌলভীবাজার জেলার জুড়ী-ফুলতলা সড়কের কাজে ব্যবহারের জন্য টিলা কেটে মাটি নিয়ে যাচ্ছিলেন ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠানের দায়িত্বরতরা।
এমন সংবাদে ঘটনাস্থলে যান ভ্রাম্যমাণ আদালত। সরেজমিনে টিলা কাটার অপরাধের দায়ে দুই লাখ টাকা জরিমানা আরোপ করেন সংশ্লিষ্টদের।
পুলিশ সূত্রে জানা যায়, আজ মঙ্গলবার বিকেলে উপজেলার সাগরনাল ইউনিয়নের উত্তর বড়ডহর গ্রামে টিলা কাটছিলেন জুড়ী-ফুলতলা সড়কের কাজে নিয়োজিত ওয়াহিদ কনস্ট্রাকশনের দায়িত্বরতরা। সংবাদ পেয়ে উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মো. মোস্তাফিজুর রহমান সেখানে ভ্রাম্যমাণ আদালতের মাধ্যমে কনস্ট্রাকশনের সাইট ইঞ্জিনিয়ার মতিয়ার রহমানকে দুই লাখ টাকা জরিমানা অনাদায়ে তিন মাসের বিনাশ্রম কারাদণ্ড প্রদান করেন। এসময় টিলা কাটার কাজে ব্যবহৃত একটি ট্রাক ও একটি এক্সেভেটর জব্দ করা হয়। পরে অর্থদণ্ড প্রদান করেন মতিয়ার। জুড়ী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) সঞ্জয় চক্রবর্তীর নেতৃত্বে একদল পুলিশ ভ্রাম্যমাণ আদালতে সহযোগিতা করেন।
উপজেলা সহকারী কমিশনার মো. মোস্তাফিজুর রহমান ভ্রাম্যমাণ আদালতের অভিযান ও অর্থদণ্ড আরোপ এবং আদায়ের বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

আত্রাইয়ে ইউএনওর হস্তক্ষেপে বাল্য বিয়ে বন্ধ

নাজমুল হক নাহিদ, আত্রাই(নওগাঁ) প্রতিনিধি: নওগাঁর আত্রাইয়ে ইউএনওর হস্তক্ষেপে বাল্য বিয়ে বন্ধ হয়েছে। ভ্রাম্যমান আদালতের মাধ্যমে জামাই ও শ্বশুরের সাজা দেওয় হয়েছে। সাজাকৃতরা হলো সাইদুল ইসলাম (৪৯) ও মেহেদী হাসান (২০)।

জানা যায়, সোমবার দিবাগত রাতে উপজেলার মির্জাপুর গ্রামে সাইদুল ইসলামের মেয়ের সাথে মিরাপুর গ্রামের কুদ্দুর হোসেনের ছেলে মেহেদী হাসানের বাল্য বিয়ে অনুষ্ঠিত হচ্ছে। এমন গোপন সংবাদ পেয়ে আত্রাই থানার এস আই মোস্তাফিজুর ও সঙ্গীয় ফোর্সসহ উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মো. ছানাউল ইসলাম উপস্থিত হয়ে তাদের আটক করেন।

পরে ভ্রাম্যমান আদালত বসিয়ে শ্বশুর সাইদুল ইসলামকে ১৫ দিনের সাজা এবং জামাই মেহেদী হাসানকে ৩০ হাজার টাকা জরিমানা করেন।

নূরুজ্জামান ফারুকী নবীগঞ্জ: বাড়ীতে নুন আনতে পান্তা ফুরায়,গরীব রিকশা চালক নাজমুলের।তবুও সততার পথ থেকে সরতে নারাজ এই তরুণ রিকশা চালক।প্রায় আড়াই লক্ষ টাকা ও একটি মোবাইল ফোন হাতে পেয়ে ও ফিরিয়ে দিলেন তিনি। ঘটনাটি ঘটেছে বৃহস্পতিবার (০৩ সেপ্টেম্বর)  নবীগঞ্জ উপজেলার ইনাতগজ্ঞ বাজারে। বৃহস্পতিবার ইনাতগজ্ঞ বাজার থেকে জনৈক ব্যক্তিকে নিয়ে কাজির বাজারে নামিয়ে দিয়ে আসার পথে  তার রিকশার সিটে পড়ে থাকা একটি শপিং  ব্যাগ দেখতে পায় নাজমুল।ব্যাগটি খুলে টাকা ও মোবাইল ফোন দেখতে পেয়ে হতভম্ব হয়ে যায়।তাৎক্ষণিক সে আরেকজন চালকের সহায়তা নিয়ে ইনাতগজ্ঞ বাজারে কেয়া ষ্টোরের মালিক গোলাম জিলানী সাইফুল আলমের কাছে নিয়ে গেলে মোবাইল ফোনের সূএধরে ব্যাগের মালিককে ফোন দেন।টাকার মালিক ফোন পেয়ে আরো দুজনকে ব্যক্তিকে সাথে ইনাতগজ্ঞ বাজারে আসেন।পরে মোবাইল ও দুই লক্ষ সাত চল্লিশ হাজার টাকার ব্যাগটি মালিককে ফেরত দেন।এ সময় ব্যাগের মালিক অনেকের উপস্হিতিতে নিজ টাকা বুঝে পেয়ে আল্লাহর শুকর জানান এবং লোভ লালসাহীন মানবতার সাক্ষী দুই চালককে ২৫০০ টাকা প্রায় জোর করেই তাদের পকেটে দিলেন এবং রিকশাচালক  নাজমুলকে উক্ত টাকার নবীগঞ্জে সততার বিরল দৃষ্টান্ত। আড়াই লক্ষ টাকা ফেরত দিলেন এক রিকশা চালক।

শ্রীমঙ্গলে প্রগতি লাইফ ইন্স্যুরেন্স লিমিটেড কর্তৃক গ্রাহকের দশলক্ষ টাকা বীমা দাবি পরিশোধ করা হয়েছে। শ্রীমঙ্গল শাখা কর্তৃক এক প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে জানা যায়, বৃহস্পতিবার (২সেপ্টেম্বর) বিকাল ৪ টায় প্রাইম ব্যাংক লিমিটেড শ্রীমঙ্গল শাখায় এক অনাড়ম্বর অনুষ্ঠানে গ্রাহকের মরণোত্তর দশলাখ টাকা বীমা দাবির চেক হস্তান্তর করেছে কোম্পানি কর্তৃপক্ষ।
শ্রীমঙ্গল পৌরসভার কালীঘাট এলাকার সাবেক ওয়ার্ড কাউন্সিলর মরহুম আব্দুল আহাদের স্ত্রী জামিলা খাতুনের হাতে চেক তুলে দেন প্রাইম ব্যাংক শ্রীমঙ্গল শাখা ব্যবস্থাপক এখলাছুর রহমান,এফ এ ভি পি ও মোহাম্মদ মিছবাহ আহমদ,প্রগতি লাইফ ইন্স্যুরেন্সের পক্ষে উপস্থিত ছিলেন সালাউদ্দিন আকবর উপ-মহাব্যবস্থাপক ও লুৎফুর রহমান সহকারী মহাব্যবস্থাপক ও ইনচার্জ সিলেট সার্ভিস সেন্টার।
উক্ত অনুষ্ঠানে আরো উপস্থিত ছিলেন আলী হোসেন,নুরুন নবী,আরিফুল ইসলাম,সাজ্জাদ হোসাইন,প্রদিপ পাল প্রমূখ।
উল্লেখ্য শ্রীমঙ্গল পৌরসভার ৩ বারের নির্বাচিত ওয়ার্ড কাউন্সিলর আব্দুল আহাদ গত ২৬ মে (২০২০) করোনা আক্রান্ত হয়ে মৃত্যু বরণ করেন।মরহুম কাউন্সিলর আব্দুল আহাদ প্রাইম ব্যাংক লিমিটেডের প্রাইম মিলনিয়ার স্কিম এর একজন গ্রাহক ছিলেন এবং এ স্কিমের সাথে মাসিক দুইশত ত্রিশ টাকা দিয়ে দশ লাখ টাকার একটি জীবন বীমাও নিয়েছিলেন তিনি।

নূরুজ্জামান ফারুকী নবীগঞ্জ থেকেঃ নবীগঞ্জ উপজেলার ১১নং গজনাইপুর ইউনিয়নের মেম্বার তোফাজ্জল হোসেন বকুল এর বিরুদ্ধে কাবিখা ও অতিদরিদ্রদের জন্য কর্মসংস্থান কর্মসূচি প্রকল্পের টাকা আত্মসাতের অভিযোগ পাওয়া গেছে। আব্দুল গনি নামে এক ব্যক্তি নবীগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার নিকট লিখিত ভাবে এ অভিযোগ করেন।
অভিযোগে বলা হয়, কাবিখা প্রকল্পে ২০১৯-২০২০ মামুদপুর মসজিদের সামনে থেকে শ্মশান ঘাট পর্যন্ত রাস্তা পুনঃ নির্মাাোণর জন্য ৫.৬৫০ মেঃটন চাল বরাদ্ধ দেয়া হয়। কিন্তু প্রকল্পের কোন কাজ করা হয়নি। এডিপি উন্নয়ন প্রকল্পের বকুল মেম্বারের বাড়ীর সামন থেকে মামুদপুর তৌফিক মিয়ার বাড়ীর সামন পর্যন্ত রাস্তা ইট সলিং দ্বারা উন্নয়ন এর বরাদ্ধ দেয়া হলেও ওই প্রকল্পের কোন কাজ না করেই সম্পূর্ণ টাকা আত্মসাৎ করা হয়েছে।
অতিদরিদ্রদের জন্য কর্মসংস্থান কর্মসূচি প্রকল্পে ২০১৮-২০১৯ প্রথম পর্যায়ে লৌগাও মাদ্রাসা থেকে গোপালা নদীর পাড় পর্যন্ত রাস্তা পুনঃ নির্মারণর জন্য ২ লক্ষ ৭২ হাজার টাকা বরাদ্দ দেয়া হয়। মেম্বার তোফাজ্জল হোসেন বকুল ওই প্রকল্পের প্রজেক্ট চেয়ারম্যান। ওই প্রকল্পের টাকাও আত্মসাতের অভিযোগ রয়েছে।অভিযোগে মেম্বার তোফাজ্জলের বিরুদ্ধে অনতিবিলম্বে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণের দাবী জানানো হয়।

পিন্টু অধিকারী মাধবপুর (হবিগঞ্জ) প্রতিনিধি: হবিগঞ্জের মাধবপুরে অবৈধভাবে বালু উত্তোলন ও পরিবহন করায় ভ্রাম্যমাণ আদালত ১ জনকে ৫০ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়।

শনিবার (১৮ জুলাই) দুপুরে দিকে উপজেলার বুল্লা ইউনিয়নের বানেশ্বরে অভিযান চালিয়ে উপজেলা নির্বাহী অফিসার ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট তাসনূভা নাশতারান বালু অবৈধভাবে পরিবহন ও উত্তোলন করার দায়ে আম্বর আলীকে আটক করে ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনা করে ৫০ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়।

আম্বর আলী বুল্লা ইউনিয়নের ধনকুড়া গ্রামের আঃ ছাত্তারের ছেলে। উপজেলা নির্বাহী অফিসার তাসনূভা নাশতারান জানান, মাধবপুরে বালু মহলের কোন ইজারাদার নাই, তিনি আরো বলেন এধরনের অভিযান অব্যাহত থাকবে। অবৈধভাবে বালু বা মাটি উত্তোলন করলে কাউকে ছাড় দেওয়া হবে না।

পিন্টু অধিকারী মাধবপুর প্রতিনিধি: হবিগঞ্জের মাধবপুর উপজেলার চৌমুহনী ইউনিয়নের কাসিমপুর গ্রামে পাল পাড়াতে এক কৃষকের ২টি গরু চুরি হয়েছে। উপজেলার কাসিমপুর গ্রামে রোববার (১২ জুলাই) রাতে এ ঘটনা ঘটে।

স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, ওই গ্রামের বাসিন্দা চৌমুহনী ইউনিয়ন পরিষদের সাবেক সদস্য প্রয়াত বজেন্দ্র পাল এর ছেলে মলয় কান্তি পাল (কাজল) এর গোয়ালঘরে তাঁদের গরু তুলে ঘুমিয়ে পড়েন। পরদিন সকালে ঘুম থেকে উঠে দেখেন দুটি গোয়ালঘর থেকে টিন কেটে প্রায় ২ লাখ টাকা মূল্যের ২টি গরু (গাভী) চুরি হয়ে যায়।

রোববার (১২ জুলাই) সকালে খবর পেয়ে কাসিমনগর পুলিশ ফাঁড়ির এসআই মোজাম্মেল হক ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন। তিনি জানান এ ব্যাপারে এখনও লিখিত অভিযোগ পাইনি তবে আমরা খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে গিয়েছি এবং বিষয়টি তদন্ত করে দেখছি।

চুনারুঘাট (হবিগঞ্জ) প্রতিনিধিঃ হবিগঞ্জের চুনারুঘাটে এক মহিষ ব্যবসায়ীকে মারধর করেছে একদল দূর্বৃত্ত। অভিযোগ থেকে জানা যায়, রবিবার (২৮জুন) রাত সাড়ে ৯টার দিকে শায়েস্তাগঞ্জ নতুন ব্রীজ থেকে বাড়ি ফেরার পথিমধ্যে উবাহাটা গ্রামের মৃত আঃ ছোবাহানের ছেলে মহিষ ব্যবসায়ী নানু মিয়ার গতিরোধ করে একই গ্রামের আরজু মিয়ার ছেলে সাইফুল মিয়া, মুক্তার হোসেনের ছেলে তাজুল ইসলাম, মৃত আঃ বারিকের ছেলে রশিদ মিয়াসহ একদল দূর্বৃত্ত।
দূর্বৃত্তদের হামলায় নানু মিয়া ও মৃত আতর আলীর ছেলে ইউনুস মিয়া গুরুতর আহত হয়। এসময় দূর্বৃত্তরা আহত নানু মিয়ার কাছ থেকে ৮৫ হাজার টাকা লুটপাট করে পালিয়ে যায় বলে অভিযোগ করে।
পরিশেষে আহতদের চুনারুঘাট হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। এ ব্যাপারে সোমবার দুপুরে নানু মিয়া বাদী হয়ে চুনারুঘাট থানায় একটি লিখিত অভিযোগ দায়ের করছেন।

আলী হোসেন রাজন,মৌলভীবাজার: পেঁয়াজ, রসুন, আদা, চাল, তেল, শাক-সবজি, কাচামালসহ নিত্য প্রয়োজনীয় দ্রব্য সামগ্রী ন্যায্য মূল্যে প্রাপ্তি নিশ্চিত করার লক্ষ্যে এবং কেউ খাদ্য মজুত করে যাতে বাজারে কৃত্রিম সঙ্কট তৈরি করতে না পারে, ভোগ্য পণ্য সামগ্রীর দাম যেন কেউ অনৈতিক ভাবে বাড়াতে না পারে সেই লক্ষে মৌলভীবাজারে জাতীয় ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ অধিদপ্তর কর্তৃক প্রতিনিয়ত বাজার মনিটরিং কার্যক্রম চলমান রয়েছে। এরই ধারাবাহিকতায় মৌলভীবাজার শহরের হাট বাজার ও দোকানে জাতীয় ভোক্তা

অধিকার সংরক্ষণ অধিদপ্তর তদারকি অভিযান পরিচালনা করে সরকারি নিয়মনীতি অমান্য ও সাধারন ভোক্তাদের সাথে কারচুপির অভিযোগে ৬টি প্রতিষ্ঠানকে মোট ১ লক্ষ ২ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়। শহরের টিসি মার্কেট, শান্তিবাগ রোড, পুরাতন হাসপাতাল রোড, পশ্চিমবাজার, কোর্ট রোড, শ্রীমঙ্গল রোডের নিত্য প্রয়োজনীয় দ্রব্য সামগ্রীর বিভিন্ন ব্যবসাপ্রতিষ্ঠান ও হাট বাজারে দিনভর এ অভিযান পরিচালনা করা হয়। অভিযানে ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ আইনের ধারায় টিসি মার্কেটের জাকির পোল্ট্রিকে ৪ হাজার টাকা, পুরাতন হাসপাতাল রোডে অবস্থিত নিউ নাগ ব্রাদার্সকে ৪০ হাজার টাকা, পশ্চিমবাজারে অবস্থিত লতিফিয়া এন্টারপ্রাইজকে ২ হাজার টাকা, মেসার্স মদিনা ট্রেডার্সকে ১০ হাজার টাকা, পুরাতন হাসপাতাল রোডে অবস্থিত নাগ ষ্টোরকে ৪০ হাজার টাকা এবং পশ্চিমবাজারে অবস্থিত ভানু ষ্টোরকে ২ হাজার টাকা জরিমানা ও তা আদায় করা হয়।

এ অভিযানে ৩জন অভিযোগকারীর অভিযোগের প্রেক্ষিতে করা জরিমানায় আইন অনুসারে জরিমানার ২৫% টাকা তিন অভিযোগকারীকে তাৎক্ষণিক প্রদান করা হয়।

অভিযান পরিচালনা করেন জাতীয় ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ অধিদপ্তর, মৌলভীবাজার জেলা কার্যালয় এর সহকারী পরিচালক মো: আল আমিন। অভিযানে সাংবাদিকবৃন্দ, ব্যবসায়ী নেতৃবৃন্দসহ জেলা ভোক্তা অধিকার কমিটির সদস্য বকশি ইকবাল উপস্থিত ছিলেন। জেলা গোয়েন্দা শাখার একটি টিম এ অভিযানে তাকে সহযোগিতা করে। এ সময় করোনা ভাইরাসের প্রদোর্ভাবে অনেকের আয়ের পথ বন্ধ হয়ে গেছে উল্লেখ করে ব্যবসায়ীদেরকে সর্বনিম্ন লাভে পণ্য বিক্রয় করা জন্য অনুরোধ জানান ভোক্তার সহকারী পরিচালক মো: আল আমিন।

বিগত কয়েকদিন ধরেই মৌলভীবাজার জেলার বিভিন্ন স্থানে বাজার তদারকি অভিযান পরিচালনা করছে জাতীয় ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ অধিদপ্তর। তাদের এ অভিযানকে মৌলভীবাজারবাসী সাধুবাদ জানাচ্ছেন, পাশাপাশি এই অভিযান সারাবছরই যেন অব্যাহত থাকে সে বিষয়ে সংশ্লিষ্টদের প্রতি অনুরোধ করেছেন ।

আলী হোসেন রাজন,মৌলভীবাজার: করোনাভাইরাস সঙ্কটের মধ্যে সামাজিক দূরত্ব বজায় না রেখে ১০ টাকা কেজি ধরের বিশেষ ওএমএসের চাল কিনতে দীর্ঘ লাইন। করোনা ভাইরাস বিস্তারের শঙ্কা থাকায় গত ১৩ এপ্রিল এই কার্যক্রম স্থগিত করেছিল খাদ্য মন্ত্রণালয়।
নতুন তালিকা করে খাদ্যবান্ধব কর্মসূচি’র আওতায় সারাদেশে ৫০ লাখ হতদরিদ্র পরিবারকে খাদ্য সহায়তা দিচ্ছে সরকার। এসব পরিবারকে প্রতি মাসে ১০ টাকা কেজি ধরে চাল দেয়া হবে।
এরই অংশ হিসেবে শনিবার (০২ মে) দুপুর ১২টায় মৌলভীবাজার পৌরসভার ৪ নম্বর ওয়ার্ডের শ্রীনাথ সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় মাঠে কাউন্সিলর মনোবীর রায় মঞ্জু ,পৌর মেয়র ফজলুর রহমানকে সাথে নিয়ে মৌলভীবাজার ৩ আসনের সংসদ সদস্য নেছার আহমদ ১০ টাকা কেজি ধরে চাল গ্রহণের কার্ড বিতরণের উদ্বোধন করেন।
এসময় মেয়র ফজলুর রহমান বলেন করোনা ভাইরাস জনিত কারনে নিম্ন আয়ের মানুষের মাঝে মাননীয় প্রধান মন্ত্রীর নির্দেশে মৌলভীবাজার পৌরসভার ৯টি ওয়ার্ডে ৬ হাজার বিশেষ ওএম এস কার্ড বিতরণ করার কার্যক্রম আজ থেকে শুরু হয়েছে। পরবর্তীতে আরো ২ হাজার সহ মোট ৮ হাজার কার্ড বিতরণ করা হবে। একটি কার্ডে একজনে ১০ টাকা ধরে ২০০ টাকায় ২০ কেজি চাল নিতে পারবেন।
এসময় আরো উপস্থিত ছিলেন জেলা খাদ্য নিয়স্ত্রক বিপ্লব চন্দ্র দাস,প্রেসক্লাব সাধারন সম্পাদক পান্না দত্ত সহ পৌরসভার কর্মকতা কর্মচারী বৃন্দ।

  

এডিটর: আনিছুল ইসলাম আশরাফী, এনিমেটরস্ বাংলা মিডিয়া গ্রুপ কর্তৃক প্রকাশিত
সম্পাদকীয় কার্যালয়: কলেজ রোড, শ্রীমঙ্গল, মৌলভীবাজার।
Email: news.amarsylhet24@gmail.com Mobile: 01772 968 710

Developed By : i-Tech Sreemangal
Email : itech.official@hotmail.com
Facebook : http://facebook.com/itech.ctc