Wednesday 21st of October 2020 05:16:59 AM

আ’লীগের ঐতিহাসিক ছয় দফা দাবি প্রসঙ্গে আ’লীগ সভাপতি ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, ছয় দফা প্রণয়নটা অনেকে অনেকভাবে বলতে চায়- এর পরামর্শ ওর পরামর্শ। কিন্তু আমি নিজে জানি, এটা সম্পূর্ণ তার (বঙ্গবন্ধুর) নিজের চিন্তার ফসল।

বুধবার (২৬ আগস্ট) বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মশতবার্ষিকী উদযাপন জাতীয় বাস্তবায়ন কমিটি কর্তৃক আয়োজিত ঐতিহাসিক ছয় দফা দিবস উপলক্ষে অনুষ্ঠিত অনলাইন কুইজ প্রতিযোগিতায় বিজয়ীদের মধ্যে পুরস্কার বিতরণী অনুষ্ঠানে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা এ কথা বলেন।

গণভবন থেকে ভিডিও কনফারেন্সে যুক্ত হয়ে শেখ হাসিনা বলেন, ‘আটান্ন সালে যখন তিনি (বঙ্গবন্ধু) গ্রেফতার হন সেই সময় থেকেই তিনি প্রস্তুতি নিলেন কীভাবে এই ভূখণ্ডের মানুষকে স্বাধিকার এনে দেবেন। বাষট্টি সালে তার একটা উদ্যোগ ছিল পুরো বাংলাদেশ প্রত্যেকটা এলাকায় নিউক্লিয়াস ফার্ম করে এদেশের মানুষকে সচেতন করা। এরই একটা পর্যায়ে তিনি আবার গ্রেফতার হলেন। ১৯৬৫ সালে যখন ভারত পাকিস্তান যুদ্ধ হলো তখন আমরা একেবারেই অরক্ষিত ছিলাম। তখনই বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান সিদ্ধান্ত নিলেন এবং তিনি এই ছয় দফা প্রণয়ন করেন।

হাসিনা বলেন, ‘বঙ্গবন্ধু সবসময় নিজে বসে বসে চিন্তা করতেন, নিজেই লিখতেন এবং তার সেসময়কার ব্যক্তিগত সহকারী মোহাম্মদ হানিফকে দিয়ে এটা টাইপ করাতেন। এখানে শুধু হানিফ জানত, সেই টাইপ করেছিল। এছাড়া কিন্তু আর কারো জানার ছিল না। কাজেই এটা (ছয় দফা) সম্পূর্ণ তার নিজের চিন্তা থেকে করা।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘তিনি যখন লাহোরে যান, লাহোরে গিয়ে এটা পেশ করার চেষ্টা করেন, সেখানে প্রচণ্ড বাধা আসে। বাধা পাওয়ার পর তিনি ওখানেই একটা সংবাদ সম্মেলন করে তাদের কাছে এটা তুলে ধরেন।

বঙ্গবন্ধুর ছয় দফা স্বাধীন বাংলাদেশ প্রতিষ্ঠায় তার বিভিন্ন উদ্যোগের একটি পর্যায় উল্লেখ করে শেখ হাসিনা বলেন, ‘আমরা যে আজকে স্বাধীন দেশ, স্বাধীন রাষ্ট্র পেয়েছি, আমাদের আত্মপরিচয় সুযোগ হয়েছে, আত্মমর্যাদার সুযোগ হয়েছে, এ সুযোগটা যিনি এনে দিয়েছিলেন এবং কীভাবে তিনি দিয়েছিলেন তারই একটি পর্যায় হচ্ছে এই ছয় দফা।

অনুষ্ঠানে করোনাভাইরাসের কারণে সশরীরে উপস্থিত থেকে বিজয়ীদের হাতে পুরস্কার তুলে দিতে না পারার আক্ষেপ প্রকাশ করেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। তিনি বলেন,দুর্ভাগ্য এটুকু যে যেখানে নিজে উপস্থিত থেকে পুরস্কারটা হাতে তুলে দেয়া যেত আরও খুশি হতে পারতাম। কিন্তু আমাদের দুর্ভাগ্য যে আজকে করোনাভাইরাস নামে এমন একটা ভাইরাস শুধু বাংলাদেশ না, সারাবিশ্বে দেখা গেছে। আমাদের স্বাভাবিক জীবনযাত্রা অনেকটা অস্বাভাবিক হয়ে গেছে। করোনাভাইরাসের কারণে কারও জীবন ক্ষতিগ্রস্ত হোক সেটা আমরা চাইনি।

এটিএম বুথে জালিয়াতির মাধ্যমে টাকা উত্তোলনের ঘটনায় গ্রেফতার ছয় বিদেশিকে রিমান্ডে নিয়েছে গোয়েন্দা পুলিশ। তারা হচ্ছেন দেনিস ভিতোমস্কি (২০), নাজারি ভজনোক (১৯), ভালেনতিন সোকোলোভস্কি (৩৭), সের্গেই উইক্রাইনেৎস (৩৩), শেভচুক আলেগ (৪৬) ও ভালোদিমির ত্রিশেনস্কি (৩৭)। জালিয়াতিতে জড়িতরা ইউক্রেনের নাগরিক। ঢাকা মহানগর পুলিশের গোয়েন্দা বিভাগের (পূর্ব) উপ-কমিশনার (ডিসি) মো. নূরনবী এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

তিনি বলেন, ‘ডিজিটাল জালিয়াতির মাধ্যমে এটিএম বুথের সিস্টেম হ্যাকিং করে টাকা তোলার মামলায় গ্রেফতার ছয় বিদেশি নাগরিকের তিন দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেছেন আদালত। পুলিশের আবেদনের প্রেক্ষিতে ঢাকার মুখ্য মহানগর হাকিম আজ সোমবার এই আদেশ দেন।’

গোয়েন্দা পুলিশ কর্মকর্তারা জানিয়েছেন, সংঘবদ্ধ ডিজিটাল জালিয়াত চক্রের সদস্যরা গতকাল রাতে খিলগাঁওয়ের তালতলা মার্কেটের সামনের ডাচ্-বাংলা ব্যাংকের এটিএম বুথের সিস্টেম হ্যাক করেন। জালিয়াতির মাধ্যমে ওই বুথ থেকে টাকা তোলার সময় জনসাধারণের সহযোগিতায় দেনিস ভিতোমস্কিকে গ্রেফতার করা হয়। পরে ভিতোমস্কিকে সঙ্গে নিয়ে হোটেল ওলিও ড্রিম হ্যাভেন থেকে বাকি পাঁচজনকে গ্রেফতার করা হয়।

এই ছয় আসামি সংঘবদ্ধ আন্তর্জাতিক জালিয়াত চক্রের সদস্য। তাঁরা অভিনব পদ্ধতি অবলম্বন করে ডাচ্-বাংলা ব্যাংকের এটিএম বুথের সিস্টেম হ্যাক করেন। ডিজিটাল জালিয়াতির মাধ্যমে টাকা তোলার জন্য এই আসামিরা বাংলাদেশে এসেছেন বলে পুলিশ কর্মকর্তারা জানান।

জালিয়াতির মূল রহস্য উদঘাটনের জন্য আসামিদের আট দিন রিমান্ডে নিয়ে জিজ্ঞাসাবাদ করার জন্য আবেদন জানায় ডিবি।সুত্রঃ বাসস

সুনামগঞ্জ প্রতিনিধিঃ সুনামগঞ্জ জেলার দক্ষিণ সুনামগঞ্জ থানার পাথারিয়া এলাকায় বাসের ধাক্কায় লেগুনার ছয় যাত্রী নিহত হয়েছেন। এ ঘটনায় আরো ৬জন আহত হয়েছে।আজ রোববার ২ মে সকাল ৭টায় এই মর্মান্তিক  ঘটনাটি ঘটে।

স্থানীয় নাইম আহমেদ নামের একজন জানান,জেলার দিরাই উপজেলা থেকে লিমন নামের একটি বাস সুনামগঞ্জ যাওয়ার পথে অপরদিকে দিরাই রাস্তা মদনপুর থেকে একটি লেগুনা দিরাই আসার পথে দুর্ঘটনা ঘটে। এসময় লেগুনায় থাকা ১০-১৫জন যাত্রীর মধ্যে ঘটনাস্থলেই ৬জন নিহত হয় এবং আহত হন আরও ছয় জন। আহতদেযকে উদ্ধার করে সুনামগঞ্জ সদর হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে।

দক্ষিণ সুনামগঞ্জ থানার ওসি মোহাম্মদ হারুনুর রশিদ চৌধুরী এ ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করেছেন। তবে হতাহতের পরিচয় তাৎক্ষণিকভাবে জানা যায়নি।

সুনামগঞ্জ ফায়ার সার্ভিস উপসহকারী পরিচালক জাবেদ হোসেন জানান,”আমাদের ফায়ার সার্ভিসের টিম ঘটনাস্থলে কাজ করছে। নিহত লোকজনের নাম পরিচয় পাওয়ার জন্য আমরা পুলিশের সাথে কথা বলছি। একটু সময় লাগবে।”

আমার সিলেট টুয়েন্টিফোর ডটকম,২২জুন,সানিউর রহমান তালুকদার,নবীগঞ্জ প্রতিনিধিঃ ক্যান্সারজনিত রোগে আক্রান্ত হয়ে প্রায় ৬ বছর পূর্বে ইউপি সদস্য আব্দুল হক পঞ্চাশ বৎসর বয়সে শেষ নিশ্বাস ত্যাগ করেন। গত মঙ্গলবার সন্ধ্যায় বৃষ্টি হওয়ায় আব্দুল হকের কবরে দেখা দেয় ভাঙ্গন।  এতে করে বেড়িয়ে আসে ইউপি সদস্যের অক্ষত মৃতদেহ।

অলৌকিক হলেও সত্য ৬ বছর পরও মরদেহ রয়েছে অক্ষত।  আব্দুল হকের অক্ষত মরদেহ এক নজর দেখতে কবরের পাশে ভীড় জমান স্থানীয় লোকজন।  এ ঘটনায় সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমসহ সর্বত্রজুড়ে তোলপাড় শুরু হয়। ঘটনাটি ঘটেছে নবীগঞ্জ উপজেলার কুর্শি ইউনিয়নের দুর্লভপুর গ্রামে।

প্রত্যক্ষদর্শী সূত্রে জানা যায়, উপজেলার কুর্শি ইউনিয়নের দুর্লভপুর গ্রামে ৬ বছর পূর্বে ক্যান্সার রোগে আক্রান্ত হয়ে মৃত্যু বরণ করেন ইউপি সদস্য আব্দুল হক।  পরে তাকে পারিবারিক কবরস্থানে দাফন করা হয়।

মৃত্যুর প্রায় ৬ বছর পর গত মঙ্গলবার সন্ধ্যায় বৃষ্টির পানিতে কবরে ভাঙ্গন দেখা দিলে আব্দুল হকের মরদেহ বেড়িয়ে আসে।  ৬ বছর পরও অক্ষত অবস্থায় মরদেহ থাকায় এলাকাজুড়ে তোলপাড় শুরু হয়েছে।  এক নজর দেখার জন্য কয়েক শতাধিক লোকজন ভীড় করেন।

পরে গতকাল সকালে স্থানীয় দুর্লভপুর মসজিদের ইমামসহ আব্দুল হকের পরিবার ভেঙ্গে যাওয়া কবরস্থান ভরাট করেন।  দুর্লভপুর মসজিদের ইমাম বলেন, আল্লাহর ইচ্ছায় মৃত্যুর এত বছর পরও উনার লাশ অক্ষত রয়েছে।

আমারসিলেট টুয়েন্টিফোর ডটকম,১৪ফেব্রুয়ারি,ডেস্ক নিউজঃ    কারাবন্দি বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার মুক্তির দাবিতে পূর্ব ঘোষিত বিএনপির ছয় ঘণ্টার অনশন কর্মসূচি পুলিশের অনুরোধে তিন ঘণ্টায় শেষ হয়েছে।

আজ বুধবার (১৪ ফেব্রুয়ারি) সকাল ১০টার আগ থেকেই এ প্রতীকী অনশনে যোগ দিতে প্রেসক্লাবের সামনে জড়ো হতে থাকেন বিএনপি ও ২০ দলীয় জোটের নেতাকর্মীরা। কর্মসূচি চলার কথা ছিল বিকাল ৪টা পর্যন্ত।

বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর সাড়ে ১১টার পর এই কর্মসূচিতে যোগ দেন। দুপুর ১টার দিকে তিনি কর্মসূচি সমাপ্ত ঘোষণা করেন।

তিনি বলেন, আমাদের অনশন কর্মসূচি বিকেল ৪টা পর্যন্ত করার কথা থাকলেও প্রশাসনের অনুরোধে তা ১টায় শেষ করতে হলো। এ সময় ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সাবেক উপাচার্য অধ্যাপক এমাজউদ্দিন আহমেদ অনশন ভাঙান।

এ ছাড়া কল্যাণ পার্টির সৈয়দ মুহামদ ইবরাহিম, খেলাফত মজলিসের মওলানা মোহামদ ইসহাক, এনপিপির ড. ফরিদুজ্জামান ফরহাদ, চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা আতাউর রহমান ঢালীও কর্মসূচিতে যোগ দিয়েছিলেন।

এর আগে অনশনে অংশ নেন দলের স্থায়ী কমিটির সদস্য ড. খন্দকার মোশাররফ হোসেন, ব্যারিস্টার মওদুদ আহমদ, আমীর খসরু মাহমুদ চৌধুরী, ভাইস-চেয়ারম্যান ডা. এজেড এম জাহিদ হোসেন, সংগঠনিক সম্পাদক ফজলুল হক মিলন প্রমুখ।

আরো ছিলেন বিএনপি নেতা চৌধুরী কামাল ইবনে ইউসুফ, নিতাই রায় চৌধুরী, ব্যারিস্টার শাহজাহান ওমর, জয়নাল আবেদিন ফারুক, সৈয়দ মোয়াজেম হোসেন আলাল, খায়রুল কবির খোকন, সৈয়দ এমরান সালেহ প্রিন্স, সাখাওয়াত হোসেন জীবন, আমিনুল হক, ওবায়দুল ইসলাম, আবদুস সালাম আজাদ, শহিদুল ইসলাম বাবুল, হাবিবুল ইসলাম হাবীব, হাবীবুর রশিদ হাবীব, কাজী আবুল বাশার, আমিনুল ইসলাম প্রমুখ।

এ ছাড়া অঙ্গ দলের সাইফুল আলম নিরব, সুলতান সালাহ উদ্দিন টুকু, মামুনুর রশিদ মামুন, আফরোজা আব্বাস, সুলতানা আহমেদ, হাফেজ এম এ মালেক, নুরুল ইসলাম নাসিম কর্মসূচিতে অংশ নেন।

২০ দলীয় জোটের নেতাদের মধ্যে অংশ নেন মোস্তফা জামাল হায়দার, শাহাদত হোসেন সেলিম, মোস্তাফিজুর রহমান ইরান, গোলাম মোস্তফা ভুইয়া, হামদুল্লাহ আল মেহেদী, জাতীয় দলের এহসানুল হুদা প্রমুখ।

গত ৮ ফেব্রুয়ারি জিয়া অরফানেজ ট্রাস্ট দুর্নীতি মামলার রায় ঘোষণা করেন বিশেষ আদালতের বিচারক ডা. মো. আখতারুজ্জামান। রায়ে তিনি সাবেক প্রধানমন্ত্রী খালেদা জিয়াকে পাঁচ বছরের কারাদণ্ড দেন। এ ছাড়া বিএনপির সিনিয়র ভাইস চেয়ারম্যান তারেক রহমানসহ পাঁচ আসামিকে ১০ বছর করে কারাদণ্ড এবং দুই কোটি ১০ লাখ টাকা করে জরিমানা করা হয়।

মামলার অন্য আসামিরা হলেন মাগুরার সাবেক সংসদ সদস্য (এমপি) কাজী সলিমুল হক কামাল, ব্যবসায়ী শরফুদ্দিন আহমেদ, প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের সাবেক সচিব কামাল উদ্দিন সিদ্দিকী ও প্রয়াত রাষ্ট্রপতি জিয়াউর রহমানের ভাগ্নে মমিনুর রহমানকে ১০ বছর করে কারাদণ্ড দিয়েছেন আদালত। এদের মধ্যে তারেক রহমান, কামাল উদ্দিন সিদ্দিকী ও মমিনুর রহমান এখনো পলাতক।

আমারসিলেট টুয়েন্টিফোর ডটকম,২০সেপ্টেম্বর,ডেস্ক নিউজঃ   বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, আমরা রোহিঙ্গাদের ওপর জাতিগত নিধন অভিযানের অবসান দেখতে চাই। আমাদের মুসলমান ভাইদের এই দুর্দশার অবসান চাই। এই সঙ্কটের সূচনা হয়েছে মিয়ানমারে এবং সেখানেই এর সমাধান হতে হবে।

মঙ্গলবার নিউ ইয়র্কে জাতিসংঘ সদর দফতরে ইসলামি সহযোগিতা সংস্থার (ওআইসি) কনট্যাক্ট গ্রুপের বৈঠকে মুসলিম দেশগুলোর নেতাদের সামনে প্রধানমন্ত্রী এসব কথা বলেন। শেখ হাসিনা রোহিঙ্গা মুসলমানদের রক্ষায় নির্যাতন বন্ধ করে ‘সেইফ জোন’ তৈরিসহ ছয়টি সুনির্দিষ্ট পদক্ষেপ নেয়ারও প্রস্তাব দিয়েছেন। বাংলাদেশের পক্ষে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার প্রস্তাবগুলো হল-

১. রোহিঙ্গা মুসলমানদের ওপর সব ধরনের নিপীড়ন এ মুহূর্তে বন্ধ করতে হবে।
২. নিরপরাধ বেসামরিক জনগোষ্ঠী, বিশেষ করে নারী-শিশু ও বৃদ্ধদের জন্য মিয়ানমারের ভেতরে নিরাপদ এলাকা (সেইফ জোন) তৈরি করা যেতে পারে, যেখানে তাদের সুরক্ষা দেয়া হবে।
৩. বলপ্রয়োগের মাধ্যমে বাস্তুচ্যুত সব রোহিঙ্গা যেন নিরাপদে এবং মর্যাদার সঙ্গে মিয়ানমারে তাদের বাড়িতে ফিরতে পারে, সেই ব্যবস্থা করতে হবে।
৪. রোহিঙ্গা সঙ্কট নিরসনে কফি আনান কমিশনের পূর্ণাঙ্গ সুপারিশ অবিলম্বে নিঃশর্তভাবে বাস্তবায়ন করতে হবে।
৫. রোহিঙ্গাদের ‘বাঙালি’ হিসেবে চিহ্নিত করার যে রাষ্ট্রীয় প্রপাগান্ডা মিয়ানমার চালাচ্ছে, তা অবশ্যই বন্ধ করতে হবে।
৬. রোহিঙ্গারা মিয়ানমারে না ফেরা পর্যন্ত তাদের জরুরি মানবিক সহায়তা দেওয়ার ক্ষেত্রে বাংলাদেশকে সহযোগিতা করতে হবে ভ্রাতৃপ্রতিম মুসলিম দেশগুলোকে।

ওআইসি কনট্যাক্ট গ্রুপের বৈঠকে বক্তৃতার শুরুতেই প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেন, মিয়ানমারে আজ মুসলমান ভাইবোনেরা জাতিগত নির্মূল অভিযানের মুখোমুখি হয়েছে। রাখাইন রাজ্যে মিয়ানমার কর্তৃপক্ষের চালানো সামরিক অভিযান বিপর্যয়ের সৃষ্টি করেছে। ফলে গত ২৫ আগস্ট থেকে চার লাখের বেশি মানুষ মিয়ানমার থেকে এসে বাংলাদেশে আশ্রয় নিতে বাধ্য হয়েছে এবং শরণার্থীদের ৬০ শতাংশই শিশু।

শেখ হাসিনা বলেন, এটি এক অবর্ণনীয় মানবিক বিপর্যয়। আমি নিজে তাদের কাছে গেছি, তাদের মুখ থেকে, বিশেষ করে নারী ও শিশুদের ভয়াবহ দুর্ভোগের বিবরণ শুনেছি। আমি বলব, আপনারা সবাই আসুন- এই শরণার্থীদের মুখ থেকে শুনে যান, মিয়ানমারে কী রকম নির্মমতা চলছে।

বৈঠকে প্রধানমন্ত্রী জানান, গত তিন দশক ধরে বাংলাদেশে চার লাখ রোহিঙ্গা শরণার্থী আশ্রিত রয়েছে। এবার নতুন করে শরণার্থীর ঢল নামায় মোট শরণার্থীর সংখ্যা আট লাখ ছাড়িয়ে গেছে। তবে ভূমি স্বল্পতা আর সম্পদের সীমাবদ্ধতার মধ্যেও বাংলাদেশ শরণার্থীদের আশ্রয়, খাবার ও জরুরি সহায়তা দিয়ে যাচ্ছে বলে জানান তিনি।

রোহিঙ্গাদের ‘বাংলাদেশ থেকে যাওয়া অবৈধ অভিবাসী’ বলে মিয়ানমার কর্তৃপক্ষ যে দাবি করছে তা তাকে অপপ্রচার আখ্যা দিয়ে শেখ হাসিনা বলেন, ঐতিহাসিক নথিপত্র বলছে- রোহিঙ্গারা শত শত বছর ধরে রাখাইন রাজ্যে বসবাস করে আসছে।

রোহিঙ্গাদের পদ্ধতিগত নির্যাতন করার বিবরণ তুলে ধরে প্রধানমন্ত্রী বলেন, মিয়ানমার পরিকল্পিত ও সংগঠিত উপায়ে বলপ্রয়োগের মাধ্যমে রোহিঙ্গা মুসলমানদের বের করে দিচ্ছে। প্রথমত তারা নিবন্ধিত জাতিগোষ্ঠীর তালিকা থেকে রোহিঙ্গাদের বাদ দিয়েছে। তারপর ১৯৮২ সালের আইনে তাদের নাগরিকত্ব দিতে অস্বীকার করা হয়েছে। রোহিঙ্গাদের নিজ দেশেই আইডিপি ক্যাম্পে পাঠিয়েছে তারা।

রোহিঙ্গাদের নিজ ভূমিতে ফেরত পাঠানোর জন্য বাংলাদেশ কূটনৈতিক তৎপরতা চালিয়ে গেলেও মিয়ানমার তাতে সাড়া দিচ্ছে না বলে মুসলিম দেশের নেতাদের জানান শেখ হাসিনা।
তিনি বলেন, আপনারা হয়তো মিডিয়ায় দেখেছেন- রোহিঙ্গারা যাতে তাদের নিজের দেশে ফিরতে না পারে সে জন্য সীমান্তজুড়ে ভূমি মাইন পেতে রাখছে মিয়ানমার।

রোহিঙ্গা সমস্যা মোকাবেলায় ওআইসির সদস্যভুক্ত দেশগুলোকে ঐক্যবদ্ধভাবে কাজ করার আহ্বান জানিয়ে শেখ হাসিনা বলেন, এ বিষয়ে ওআইসির যে কোনো উদ্যোগে অংশ নিতে বাংলাদেশ প্রস্তুত রয়েছে।

উল্লেখ্য, গত ২৫ আগস্ট থেকে মিয়ানমারের নিরাপত্তা বাহিনী রাখাইনে রোহিঙ্গাদের গ্রামগুলোতে অভিযান চালাচ্ছে। তারা বেসামরিক রোহিঙ্গাদের লক্ষ্য করে নির্বিচারে গুলি করছে এবং তাদের গ্রামগুলো আগুনে পুড়িয়ে দিচ্ছে। জাতিসংঘ মিয়ানমার সেনাবাহিনীর বর্বরতাকে জাতিগত নিধন অভিযান বলে আখ্যা দিয়ে বলছে- এ পর্যন্ত তিন হাজারেরও বেশি রোহিঙ্গা নিহত হয়েছে এবং প্রায় চার লাখ ২৬ হাজার মানুষ পালিয়ে বাংলাদেশে আশ্রয় নিয়েছে।পার্সটুডে

আমার সিলেট টুয়েন্টিফোর ডটকম,০৭জুলাই,কমলগঞ্জ প্রতিনিধি:মৌলভীবাজারের কমলগঞ্জ উপজেলার মুন্সীবাজার ইউনিয়নের মইদাইল গ্রামের বীরেন্দ্র দেবনাথের মেয়ে হেপী রানী দেবনাথ (১৮) নামে এক কলেজ ছাত্রী গত ১ জুলাই সকাল ৯টায়  বৃন্দাবনপুর হুরুন্নেচ্ছা খাতুন চৌধুরী কলেজে ভর্তি হওয়ার কথা বলে আর বাড়ী ফিরেনি। তার পিতা বীরেন্দ্র দেবনাথ সকল আত্মীয়-স্বজনের বাড়ী ও আশেপাশের সকল গ্রামে এবং কলেজে খোঁজাখুঁজি করে ছয়দিন পার হয়ে গেলেও তার কোন সন্ধান পাওয়া যায়নি।

নিখোজ হওয়ার সময় তার পরনে ছিলো নীল রঙ্গের সেলোয়ার কামিজ, তার উচ্চতা আনুমানিক ৫ ফুট, গায়ের রং শ্যামলা, শারিরীক গঠন মাঝারি, মুখমন্ডল গোলাকৃতি, চোখে চশমা,সে সিলেটের আঞ্চলিক ভাষায় কথা বলে।

এদিকে গত ছয় দিনে অনেক খোঁজাখুঁজি করে কলেজ ছাত্রীর সন্ধ্যান না পেয়ে বৃহস্পতিবার সকালে নিখোঁজ ছাত্রীর মা মীরা রানী দেবনাথ কমলগঞ্জ থানায় একটি সাধারণ ডায়েরী করেন। কোন সুহৃদয় বান ব্যক্তি তার খোঁজ পেয়ে থাকলে ০১৭৪৯-০১৪৮৪১ এই নাম্বারে যোগাযোগ করার জন্য বিশেষভাবে অনুরোধ জানিয়েছেন তিনি।

আমার সিলেট টুয়েন্টি ফোর ডটকম,০৩এপ্রিল,হৃদয় দাশ শুভ,নিজস্ব প্রতিবেদক:মধ্যরাতে ছয় ঘণ্টা ফেসবুক বন্ধ রাখার কথা ভাবছে সরকার। ইতিমধ্যে সরকারের পক্ষ থেকে এ বিষয়ে টেলিযোগাযোগ খাতের নিয়ন্ত্রক সংস্থা বিটিআরসির মতামত চাওয়া হয়েছে।
টেলিযোগাযোগ বিভাগ থেকে বিটিআরসির মতামত চেয়ে চিঠি পাঠানোর বিষয়টি প্রথম আলোকে নিশ্চিত করেছেন সংস্থাটির সচিব সারওয়ার আলম।
জানা গেছে, গত বছর জেলা প্রশাসক (ডিসি) সম্মেলনে ফেসবুকের বিষয়টি আলোচনায় আসে। সেখানে আলোচনা হয়, রাত জেগে সামাজিক যোগাযোগের এ মাধ্যমটি ব্যবহারের কারণে শিক্ষার্থী ও তরুণদের কর্মক্ষমতা কমে যাচ্ছে। নেশার মতোই তারা মাধ্যমটি ব্যবহার করছে। সে কারণে রাতে ফেসবুক বন্ধ রাখার সুপারিশ আসে।
ওই সুপারিশের পরিপ্রেক্ষিতে সম্প্রতি মন্ত্রিপরিষদ বিভাগ টেলিযোগাযোগ বিভাগকে চিঠি দেয়। ওই চিঠিতে রাত বারটা থেকে ছয় ঘণ্টা ফেসবুক বন্ধ রাখার বিষয়টি উঠে এসেছে।
মন্ত্রিপরিষদ বিভাগের চিঠি পাওয়ার পর টেলিযোগাযোগ বিভাগ ওই বিষয়ে বিটিআরসির মতামত চেয়েছে। মতামত পাওয়ার পরই এ বিষয়ে চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে বলে সূত্র জানিয়েছে।

  

এডিটর: আনিছুল ইসলাম আশরাফী, এনিমেটরস্ বাংলা মিডিয়া গ্রুপ কর্তৃক প্রকাশিত
সম্পাদকীয় কার্যালয়: কলেজ রোড, শ্রীমঙ্গল, মৌলভীবাজার।
Email: news.amarsylhet24@gmail.com Mobile: 01772 968 710

Developed By : i-Tech Sreemangal
Email : itech.official@hotmail.com
Facebook : http://facebook.com/itech.ctc