Sunday 25th of October 2020 08:32:19 AM

হবিগঞ্জ প্রতিনিধিঃ হবিগঞ্জের চুনারুঘাট উপজেলার লস্করপুর চা বাগানে গত ২৪ জুন চা শ্রমিকদের চা পাতা ওজনের সময় ৪-৬ কেজি চা পাতা কর্তন করার প্রতিবাদে আজ বাগানের অফিস প্রাঙ্গণে প্রতিবাদি ঝড় তুললেন চা শ্রমিকরা।
চা শ্রমিকের সন্তান শ্রী প্রসাদ চৌহান সোমবার দুপুর ১২.৩০ মিনিটে বাগানের ১৭ নম্বর সেড ঘরে ওজন মাপার সময় বিষয়টি প্রত্যক্ষ ভাবে লক্ষ্য করেন এবং সেই কাজে নিয়োজিত থাকা নিপেন বাবুকে প্রশ্ন করেন ৪-৬ কেজি চা পাতা ওজন থেকে কমানোর অনুমতি কোথা থেকে পেয়েছেন,উত্তরে নিপেন বাবু জানান চা বাগানের ম্যানেজার এবং চা শ্রমিকরা বিষয়টা জানেন,কিন্তু চা শ্রমিকদের কাছে জানতে চাইলে চা শ্রমিকরা বিষয়টা অস্বীকার করেন।পরবর্তী সময়ে বাগানের ম্যানেজার কাছে জানতে চাওয়া হবে বলে সেখান থেকে চলে যায় বাড়িতে।

অন্যদিকে ২৫ জুন দুপুরে পাতা ওজনের সময় সেকশনের কাজে নিয়োজিত থাকা নিপেন বাবু প্রত্যক্ষ ভাবে প্রধান ম্যানেজার আরিফ আহমেদের কাছে অভিযোগ করেছে “শ্রী প্রসাদ” নামের এক ছেলে খারাপ ব্যবহার করেছেন। বিষয়টা বোঝে উঠার আগেই চা শ্রমিকদের উপস্থিতিতে ছেলেটা কোন জায়গার ফালতু ছেলে এবং কোন সাহসে সেকশনে এসব কথা বলে,তাকে ধরে চড় থাপ্পর মারা উচিত ছিলো বলেছেন বলে চা শ্রমিকদের কাছে জানা যায়।

তারই ফল স্বরুপ আজ সকল চা শ্রমিকদের ঐক্যবদ্ব ভাবে প্রতিবাদ করার অনুপ্রেরণা জাগিয়ে চা শ্রমিক, শিক্ষার্থী, যুবক যুবতি সহ সবাইকে নিয়ে বাগানের অফিস প্রাঙ্গণে সকাল ৯ টা থেকে ১০ টা পর্যন্ত বাগানের ম্যানেজার আরিফ আহমেদকে প্রশ্ন করে জানতে চাওয়া হয় যে ৪-৬ কেজি চা পাতা কর্তন করার অনুমতি কেনো দিয়েছেন বাবুকে,উত্তরে বড় ম্যানেজার জানান যে ১ কেজি চা পাতা কাটারোও অনুমতি দেওয়া হয় নাই বাবুকে,এবং গালিগালাজ করার জন্য চা শ্রমিকদের কাছে এবং শ্রী প্রসাদের কাছে ক্ষমা প্রার্থনা করলেন জনাব আরিফ আহমেদ।
সকল চা শ্রমিকরা দাবি করেছেন নিপেন বাবু যেনো বাগান থেকে চলে যান এবং চা শ্রমিকের যেনো ডিজিটালে মেশিনে পাতা ওজন করা হয় তাছাড়া বাগানের শিক্ষিত কোন মহিলা চা শ্রমিক যেনো ওজনের বিষয়টা প্রতিদিন খেয়াল করেন। চা শ্রমিকদের এইসব দাবি পুুরন করবেন বলে আশ্বাস দেন প্রধান ম্যানেজার এবং বলেন এর পরবর্তী সময়ে যদি কোন বাবু এক কেজিরও বেশি পাতা কর্তন করে তাহলে তাকে বাগান থেকে বহিঃস্কার করা হবে।
চা শ্রমিকরা বলেন দুইমাসের মধ্যে যদি বাগান থেকে বাবুকে বহিঃস্কার করা না হয় তাহলে বাগানে কাজ কর্ম বন্ধ থাকবে।
অবশেষে চা শ্রমিকরা আবারো তাদের কর্মে ফিরে গেলেন।

শ্রীমঙ্গল প্রতিনিধি,মৌলভীবাজার: মৌলভীবাজারের শ্রীমঙ্গলে পুকুরের পানিতে গোসল করতে নেমে নিখোঁজ হওয়ার প্রায় ৫ ঘন্টা পর হাসান (১২ বছর বয়স) নামে একটি শিশুর লাশ উদ্ধার করেছে স্থানীয় প্রশাসনের সহযোগিতায় ফায়ার সার্ভিসের ডুবুরী দল।আজ বৃহস্পতিবার শহরতলীর ডাকবাংলো পুকুরে এই ঘটনাটি ঘটে।

স্থানীয় বাসিন্দা সুশীল শীল বলেন, বৃহস্পতিবার বিকাল ৩টার দিকে কয়েকটি ছিন্নমুল শিশু পুকুরের পানিতে গোছল করতে নামে। সেখানে পুকুরের ঘাটের সিঁড়ির নিচ দিকে যাওয়া আসা করছিলো তারা। এসময় পুকুরের সিঁড়ির নিচে শিশুটি আটকে যায়। পরে তিনি লোকমুখে ঘটনাটি শুনে ফায়ার সার্ভিসে খবর দিলে ফায়ার সার্ভিস ঘটনাস্থলে এসে উদ্ধার তৎপরতা চালায়। রাত সাড়ে আটটায় তাকে উদ্ধার করা হয়।

জানা যায় শিশুটির বাবা মা দু’জন দুই জায়গায় থাকে। বাবা আখাউড়া, মা কুমিল্লা, শিশুটি শ্রীমঙ্গল রেলওয়ে স্টেশনের প্লাটফর্মে ঘুমায়।

শ্রীমঙ্গল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) কে এম নজরুল ইসলাম বলেন, শিশুটির লাশ এখন শ্রীমঙ্গল থানায় রয়েছে। তার পুরো ঠিকানা এখনো জানা যায় নি। পরিবারের কেউ আসেনি। জানা গেছে শিশুটি স্টেশন সংলগ্ন একটি কলোনীতে থাকে। মাঝে মাঝে শ্রীমঙ্গল রেলওয়ে স্টেশনের প্লাটফর্মে ঘুমায়।তার বাবা মানসিক রোগী। তিনি আখাউড়া রেলওয়ে স্টেশনে থাকেন।

উদ্ধার তৎপরতা সংক্রান্ত বিষয়ে স্থানীয় এক হোমিওপ্যাথিক ডাক্তার বলেন,অভিভাবকহীন এক সন্তানকে উদ্ধার করার জন্য পুলিশ প্রশাসনের চেষ্টা খুব প্রশংসার দাবী রাখে,শত শত উৎসুক জনতাকে  বিকাল ৩টা থেকে পুলিশের একটি দল সার্বক্ষনিক নিয়ন্ত্রণ করেছে, সর্বশেষ পর্যন্ত উদ্ধার কাজ শেষ করে তারা ফিরে গেছে এ সময় স্থানিয়রাও সহযোগিতা করেছে যা আমাদের জন্য উদাহরণ  হয়ে থাকবে।

আমার সিলেট টুয়েন্টিফোর ডটকম,০৮জুন,আলী হোসেন রাজন,মৌলভীবাজার প্রতিনিধিঃ    মৌলভীবাজার পৌর কমিউনিটি সেন্টারে ৭ জুন বৃহস্পতিবার ইফতার মাহফিলের আয়োজন করেছিলেন জেলা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক মিজানুর রহমান। সব প্রস্তুতি চলছিল ইফতার মাহফিলের। দুপুরে মিজানুর রহমান অভিযোগ করেছেন নিরাপত্তার অজুহাত দেখিয়ে পুলিশ সেখানে তাকে অনুষ্টান করতে দেয়নি। অন্যদিকে পুলিশ বলেছে বিএনপি’র দুই পক্ষের মধ্যে উত্তেজনা দেখা দিলে এক পক্ষ নিজেরাই স্থান ছেড়ে যায়।

মৌলভীবাজার জেলা বিএনপি দীর্ঘদিন ধরে দুই ধারায় বিভক্ত। গত বছরে জেলা বিএনপির কমিটি ঘোষনা করে কেন্দ্র। সাবেক এমপি এম নাসের রহমান কে সভাপতি এবং মৌলভীবাজার সদর উপজেলা চেয়ারম্যান মিজানুর রহমানকে সাধারণ সম্পাদক করে ৪৮ সদস্যের কমিটি ঘোষনার প্রায় এক বছর পার হলেও সভাপতি সম্পাদক মিলে আনুষ্টানিক কোন সভা করতে পারেননি। কেন্দ্রীয় কর্মসূচি প্রায়ই আলাদা-আলাদা ব্যনারে করা হয়।

এবার জেলা বিএনপির নামে ইফতার পার্টিও আয়োজন করা হয়েছে আলাদা ব্যনারে। গত ১৪ রমজান জেলা বিএনপির পক্ষে সভাপতি এম নাসের রহমান ইফতার পার্টির আয়োজন করেন রুমেল কমিউনিটি সেন্টারে। এই অনুষ্টানে যোগ দেননি সাধারণ সম্পাদক ও তার সমর্থকরা। এ দিকে গতকাল (৭ জুন) মৌলভীবাজার পৌর কমিউনিটি সেন্টারে জেলা বিএনপির নামে ইফতার পার্টিও আয়োজন করেন সাধারণ সম্পাদক মিজানুর রহমান ও তার সমর্থকরা।

মিজানুর রহমান গতকাল দুপুরে অভিযোগ করেন হঠাৎ পুলিশ উপস্থিত হয়ে জানায় এখানে ইফতার অনুষ্টানের আয়োজন করা যাবে না।কারণ হিসাবে তারা বলেন এই অনুষ্টান স্থলের পাশেই আছে জেলা প্রশাসকসহ গুরুত্বপূর্ণ স্থাপনা। তাই নিরাপত্তাজনিত কারণে এখানে অনুষ্টান করা যাবে না। পরে বাধ্য হয়ে অর্ধ-রান্না করা মালামাল ট্রাকে করে শহরের বাহিরে চাদনি ঘাটের অবস্থিত সম্্রাট কমিউনিটি সেন্টারে স্থানান্তর করা হয়। মিজানুর রহমান বলেন দিন-রাত পরিশ্রম করে একটি অনুষ্টান করতে গিয়ে এখন বিরম্বনায় পরতে হলো। যাদের দাওয়াত করা হয়েছে তাদের এখন মুঠোফোনে নতুন স্থানের কথা বলতে হচ্ছে।

গতকাল (৭ জুন) বিএনপির সাধারণ সম্পাদক মিজানুর রহমানের অভিযোগের জবাবে মৌলভীবাজার মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা সুহেল আহম্মদ মুঠোফোনে বলেন দুপুরে আমরা খবর পাই সেখানে বিএনপি’র দুই পক্ষের মধ্যে উত্তেজনা চলছে। পুলিশ সেখানে উপস্থিত হয়। এই সময় একপক্ষ নিজেরাই স্থান ত্যাগ করে।

হবিগঞ্জের শায়েস্তাগঞ্জে পুলিশ-সিএনজি শ্রমিক সংঘর্ষ,পুলিশসহ আহত শতাধিক

আমারসিলেট টুয়েন্টিফোর ডটকম,২৬এপ্রিল,হবিগঞ্জ প্রতিনিধিঃ মহাসড়কে সিএনজি চলাচলে নিষেধাজ্ঞা অমান্যকরে হবিগঞ্জের শায়েস্তাগঞ্জ উপজেলার নসরতপুরে সিএনজি শ্রমিক ও পুলিশের মাঝে সংঘর্ষে পুলিশসহ অন্তত শতাধিক আহত হয়।
শুক্রবার (২৭ এপ্রিল) বেলা ১০টার দিকে এই সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে।

স্থানীয়রা জানান, নিষেধাজ্ঞা অমান্য করে ঢাকা-সিলেটে মহাসড়কে সিএনজি চলাচল করলে বন্ধ রাখার নির্দেশ দেয় পুলিশ। এর প্রতিবাদে শুক্রবার সিএনজি সংগঠনের শ্রমিকরা ব্যানার-ফেস্টুন নিয়ে শায়েস্তাগঞ্জের  নছরতপুর এলাকায় মহাসড়ক অবরোধ করে। খবর পেয়ে শায়েস্তাগঞ্জ থানা পুলিশ ঘটনাস্থলে শ্রমিকদের সড়িয়ে দিতে চাইলে পুলিশ ও সিএনজি (অটো রিক্সা) শ্রমিকদের মধ্যে ধাওয়া-পাল্টা ধাওয়া ও সংঘর্ষ বাধেঁ।

সংঘর্ষে পুলিশ কয়েক রাউন্ড রাবার বুলেট নিক্ষেপ করে। শ্রমিকরা ইট-পাটকেল ও লাঠি দিয়ে পুলিশের উপর আক্রমন চালায়। এতে শায়েস্তাগঞ্জ থানার অফিসার ইনচার্জ আনিছুর রহমানসহ অন্তত শতাধিক আহত হয়। এর মধে ১৫ জন পুলিশ কর্মকর্তা রয়েছে। গুরুতর আহতদের হবিগঞ্জে সদর হাসপাতলে ভর্তি করা হয়। সংঘর্ষের সময় সিএনজি শ্রমিকরা মহাসড়কে কয়েকটি যাত্রীবাহী গাড়ী ভাংচুর করে।

এ সময় মহাসড়কের উভয় পার্শ্বে শত শত যানবাহন আটকা পড়ে। মহাসড়কে ২ঘন্টা যান চলাচল বন্ধ ছিল। শায়েস্তাগঞ্জ হাইওয়ে থানা খবর পেয়ে ঘটনা স্থলে পৌছলে শ্রমিকরা তাদের উপড়ও হামলা চালায়। পরে হবিগঞ্জ থেকে একদল ধাঙ্গা পুলিশ এসে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রন করে।

এ ব্যাপারে শায়েস্তাগঞ্জ হাইওয়ে থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মোঃ জসিম উদ্দিন  খন্দকার এ প্রতিনিধিকে জানান, হাইকোর্টের নির্দেশ অমান্য করে মহাসড়কে সিএনজি অটোরিক্সা চলাচল করলে গত বৃহস্পতিবার (২৬ এপ্রিল) ৫টি গাড়ি আটক করে পুলিশ। পরে সিএনজি শ্রমিক ও মালিকদের পক্ষ থেকে (অটোরিক্সা) সিএনজিগুলো ছেড়ে দেয়ার জন্য দাবি করা হয়।

পুলিশ সিএনজি ছেড়ে না দেয়ায় গতকাল শুক্রবার সকালে এর জের ধরে সিএনজি শ্রমিকরা মহাসড়কের শায়েস্তাগঞ্জ দেউন্দি মোড় ও নসরতপুর নামক স্থানে মহাসড়ক অবরোধ করে। এতে পুলিশ বাধা দেয়ায় সিএনজি শ্রমিকরা পুলিশের উপর হামলা করে। এতে ১৫জন পুলিশ আহত হয়েছেন বলেও জানান তিনি।

আমারসিলেট টুয়েন্টিফোর ডটকম,২৩ফেব্রুয়ারি,স্টাফ রিপোর্টার,জহিরুল ইসলাম:  দুর্ঘটনা কবলিত বগি উদ্ধারের পর লাইন মেরামত করার ১৫ ঘন্টা পর সিলেটের সাথে সারা দেশের ট্রেন চলাচল স্বাভাবিক হয়েছে। আখাউড়া সিলেট রেলপথের সাতগাঁও স্টেশন এলাকায় ঢাকাগামী রাতের আন্তনগর ৭৪০ নং ডাউন উপবন এক্সপ্রেস ট্রেনের ১১টি বগি লাইনচ্যুত হওয়ার টর বৃহস্পতিবার রাত ১টা থেকে শুক্রবার বিকাল ৪টা পর্যন্ত সিলেটের সাথে ট্রেন চলাচল বন্ধ ছিল।

বাংলাদেশ রেলওয়ের সিলেট বিভাগের সহকারী প্রকৌশলী মুজিবুর রহমান বলেন লাইনচ্যুত হওয়া যাত্রীবাহী ১১টি বগি উদ্ধারের পর শায়েস্তাগঞ্জ স্টেশনে নিয়ে যাওয়া হচ্ছে। অন্যদিকে ক্ষতিগ্রস্ত রেলপথ সংস্কার করে বিকাল ৪টা থেকে দুই দিকের বিভিন্ন স্টেশনে আটকা পড়া ট্রেন একে একে পারাপার করা হচ্ছে।
এদিকে, ট্রেন লাইনচ্যুত হওয়ার খবর পেয়ে গতকাল দুপুরে স্থানীয় সংসদ সদস্য মো. আব্দুস শহীদ, মৌলভীবাজার জেলা প্রশাসক ও মৌলভীবাজার জেলা পুলিশ সুপার দুর্ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন।
ঢাকা রেলওয়ের বিভাগীয় ব্যবস্থাপক গাউসুল মুনীর সাংবাদিকদের জানান, এ ঘটনায় বিভাগীয় বাণিজ্য কর্মকর্তা মো. শফিকুর রহমানকে প্রধান করে ৫ সদস্যবিশিষ্ট তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছে এবং ৩ কার্যদিবসের মধ্যে তদন্ত প্রতিবেদন জমা দিতে বলা হয়েছে।

সর্বশেষ,আজ বিকাল ৬ টায় এ রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত সাতগাঁও স্টেশনের ষ্টেশন মাস্টার মো, তফিজউদ্দিন জানান, লাইনচ্যুত ১১ টি বগি লাইনে তোলা হয়েছে। বিকাল থেকে এ রুটে ট্রেন চলাচল করতে আর অসুবিধা নেই।

আমারসিলেট টুয়েন্টিফোর ডটকম,১৪অক্টোবর,ডেস্ক নিউজঃ  শুক্রবার রাতে পশ্চিম দিল্লিতে ৩৬ বছরের  নির্মাণ শ্রমিকের দ্বারা ১১ মাস বয়সী এক শিশুকে দুই ঘন্টার পর্যন্ত ধর্ষণ করা হয়।

পরে অপরাধী শিশুটিকে ঝোপে ফেলে দেয়।

খবর অনুযায়ী শিশুটি তার মায়ের সাথে ঘুমাচ্ছিল, যখন একজন নির্মাণকর্মী, যিনি বিহার থেকে এসেছেন এবং নিয়মিতভাবে কাজ করার জন্য দিল্লিতে আসেন, শিশুটিকে সকাল ১০ টায় নিয়ে যায়।

১১ টা ১১ মিনিটে তার মা কর্তৃপক্ষকে সতর্ক করে দেয়, পরে স্থানীয় পুলিশ তাকে অজ্ঞান অবস্থায় দেখতে পায় এবং দীন দয়াল উপাধ্যায় হাসপাতালে নিয়ে যায়, যেখানে তিনি ইন্টেন্সিভ কেয়ার ইউনিটে রয়েছেন।

“মেয়েটির ধীরে ধীরে রক্তপাত হচ্ছে। হাসপাতালের চিকিৎসকরা জানিয়েছেন যে তার অবস্থা গুরুতর। “একজন সিনিয়র বলেন।

পুলিশ ঘটনাস্থলটিতে নির্মাণ শ্রমিকের সেলফোনের সন্ধান পেয়েছে এবং শ্রমিকদের কাছে তার নিকটবর্তী একটি বাসভবনে নজর রাখছে। অপরাধী অপরাধ স্বীকার করেছে

এবং বলেন, প্রায় দুই ঘন্টা তাকে ধর্ষণ করে অজ্ঞান হয়ে গেলে তিনি মারা গেছে মনে করে  ড্রেনের পাশের  ঝোপে  ফেলে দেন।পিটিসি নিউজ

ফুঁসে উঠেছে স্থানীয় শিক্ষার্থীরা, টায়ার জালিয়ে  সড়ক অবরোধ

আমার সিলেট টুয়েন্টি ফোর ডটকম,২৬এপ্রিল,মতিউর রহমান মুন্না, নবীগঞ্জ থেকেঃ   নবীগঞ্জে স্কুল ছাত্রীকে উক্ত্যক্ত করার প্রতিবাদ করায় ১০ম শ্রেণীর স্কুল ছাত্রকে পিঠিয়ে আহত করার ঘটনায় ফুঁেস উঠেছে শিক্ষার্থীরা।

আজ বুধবার সকাল ১১ টা থেকে দুপুর ১ ঘটিকা পর্যন্ত হবিগঞ্জ-নবীগঞ্জ আ লিক সড়কের নবীগঞ্জের রসুলগঞ্জ বাজারে টায়ারে আগুন লাগিয়ে দফায় দফায় বিক্ষোভ মিছিল, সড়ক অবরোধ ও মানববন্ধন কর্মসূচি পালন করেছে বিক্ষোব্দ শিক্ষার্থীরা। প্রায় ২ ঘন্টা সময় শিক্ষার্থীদের আন্দোলন চলাকালে সড়কের উভয় দিকের কয়েক শতাধীক যানবাহন আটকা পড়ে। এনে নানা ভোগান্তি পোহাতে হয়েছে যাত্রী সাধারনদের।

পরে নবীগঞ্জ থানা পুলিশের হস্তক্ষেপে পরিস্থিতি স্বাভাবিক হয়। ২৪ ঘন্টার ভিতর স্কুল ছাত্রর উপর সকল হামলাকারীদের গ্রেফতার করা না হলে পরবর্তিতে আরো কঠোর আন্দোলন কর্মসূচির ডাক দেয়া হবে বলে ঘোষনা দেন বিক্ষোব্দ শিক্ষার্থীরা।

উল্লেখ্য, নবীগঞ্জের সীমান্তবর্তী বক্তারপুর আবুল খায়ের উচ্চ বিদ্যালয় এন্ড কলেজের ৬ষ্ঠ শ্রেনীর এক ছাত্রীকে মোবাইল ফোনে একই প্রতিষ্টানের ৬ষ্ঠ শ্রেণীর ছাত্র নবীগঞ্জের মুরাদপুর গ্রামের আব্দুর নুরের পুত্র শাহিনুর রহমান ফলক প্রতিদিনই উক্ত্যক্ত করে আসছিল। এ অবস্থায় গত রবিবার দুপুরে ফলক ওই ছাত্রী মোবাইলে ফোন দিয়ে আপত্তিজনক কথা বার্তা বলে।

এ খবর ছাত্রী তার বড় ভাই একই প্রতিষ্টানের ১০ম শ্রেণীর ছাত্র তারেকুর রহমানের কাছে জানালে সে এর প্রতিবাদ করে। এ ঘটনার জের ধরে ফলক তার চাচাত্তো ভাই আব্দুল আওয়াল ও সহপাঠিদের নিয়ে এর প্রতিশোধ নেয়ার জন্য স্কুল ছুটির পর রসুলগঞ্জ নতুন বাজারের হামিদ মার্কেটের নিকট অপেক্ষা করতে তাকে।

বিকেল সাড়ে ৪টার দিকে তারেকুর ও স্থানে আসা মাত্রই কোন কিছু বুজে উটার আগেই বখাটে ফলক ও তার সঙ্গে তাকা ২ সহযোগী তার উপর অতর্কিত ভাবে হামলা করে। এতে সে মাটিতে লুটিয়ে পড়লে হামলাকারীরা পালিয়ে যায়। পরে আশপাশের লোকজন তাকে উদ্বার করে নবীগঞ্জ উপজেলা হাসপাতালে নিয়ে আসলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তার অবস্থা বেগতীক দেখে তাকে সিলেট ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপালে প্রেরন করেন।

এ ঘটনায় এলাকায় টানটান উত্তেজনা বিরাজ করে। পরে ওইদিন সন্ধায়ই হামলার ঘটনার সাথে জড়িত ফলকের চাচাত্তো ভাই আব্দুল আউয়ালকে গ্রেফতার করে জেল হাজতে প্রেরন করে পুলিশ। এদিকে গতকাল বুধবার সকালে হবিগঞ্জ-নবীগঞ্জ আ লিক সড়কের রসুলগঞ্জ বাজারে টায়ারে আগুন লাগিয়ে দফায় দফায় বিক্ষোভ মিছিল, মানববন্ধন কর্মসূচি পালন ও ২ ঘন্টা সময় সড়ক অবরোধ করে রাখে বিক্ষোব্দ শিক্ষার্থীরা। খবর পেয়ে নবীগঞ্জ থানার অফিসার ইনচার্জ এস এম আতাউর রহমানের নেতৃত্বে একদল পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে পরিস্থিতি স্বাভঅবিক করেন।

বিক্ষোব্দ শিক্ষার্থীরা ২৪ ঘন্টার মধ্যে সকল হামলাকারীকে গ্রেফতার না করলে ফের আন্দোলনে নামবেন বলে জানান। এ সময় এক প্রতিবাদ সভায় উক্ত বিদ্যালয় ম্যানেজিং কমিটির সদস্য জামাল মিয়ার সভাপতিত্বে ও শিক্ষক কামাল হোসেনের পরিচালনায় বক্তব্য রাখেন, বরইউরি ইউপি চেয়ারম্যান হাবিবুর রহমান হাবিব, ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সভাপতি ফরিদ আহমদ, অভিবাবক কমিটির সদস্য কফিল উদ্দিন, হায়দর মিয়া, আতাউর রহমান মামুন, মুহিবুর রহমান, হারুন মিয়া, মেম্বার তোফায়েল, নবীগঞ্জ প্রেসক্লাবের সহ সভাপতি মোঃ সরওয়ার শিকদার, সাবেক সাধারন সম্পাদক উত্তম কুমার হিমেল, থানার সেকেন্ডে অফিসার মোবারক হোসেন, এস আই সুজিত চক্রবর্ত্তী।

আমার সিলেট টুয়েন্টি ফোর ডটকম,০৩এপ্রিল,হৃদয় দাশ শুভ,নিজস্ব প্রতিবেদক:মধ্যরাতে ছয় ঘণ্টা ফেসবুক বন্ধ রাখার কথা ভাবছে সরকার। ইতিমধ্যে সরকারের পক্ষ থেকে এ বিষয়ে টেলিযোগাযোগ খাতের নিয়ন্ত্রক সংস্থা বিটিআরসির মতামত চাওয়া হয়েছে।
টেলিযোগাযোগ বিভাগ থেকে বিটিআরসির মতামত চেয়ে চিঠি পাঠানোর বিষয়টি প্রথম আলোকে নিশ্চিত করেছেন সংস্থাটির সচিব সারওয়ার আলম।
জানা গেছে, গত বছর জেলা প্রশাসক (ডিসি) সম্মেলনে ফেসবুকের বিষয়টি আলোচনায় আসে। সেখানে আলোচনা হয়, রাত জেগে সামাজিক যোগাযোগের এ মাধ্যমটি ব্যবহারের কারণে শিক্ষার্থী ও তরুণদের কর্মক্ষমতা কমে যাচ্ছে। নেশার মতোই তারা মাধ্যমটি ব্যবহার করছে। সে কারণে রাতে ফেসবুক বন্ধ রাখার সুপারিশ আসে।
ওই সুপারিশের পরিপ্রেক্ষিতে সম্প্রতি মন্ত্রিপরিষদ বিভাগ টেলিযোগাযোগ বিভাগকে চিঠি দেয়। ওই চিঠিতে রাত বারটা থেকে ছয় ঘণ্টা ফেসবুক বন্ধ রাখার বিষয়টি উঠে এসেছে।
মন্ত্রিপরিষদ বিভাগের চিঠি পাওয়ার পর টেলিযোগাযোগ বিভাগ ওই বিষয়ে বিটিআরসির মতামত চেয়েছে। মতামত পাওয়ার পরই এ বিষয়ে চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে বলে সূত্র জানিয়েছে।

  

এডিটর: আনিছুল ইসলাম আশরাফী, এনিমেটরস্ বাংলা মিডিয়া গ্রুপ কর্তৃক প্রকাশিত
সম্পাদকীয় কার্যালয়: কলেজ রোড, শ্রীমঙ্গল, মৌলভীবাজার।
Email: news.amarsylhet24@gmail.com Mobile: 01772 968 710

Developed By : i-Tech Sreemangal
Email : itech.official@hotmail.com
Facebook : http://facebook.com/itech.ctc