Friday 30th of October 2020 07:28:21 PM

আমার সিলেট টুয়েন্টিফোর ডটকম,০৮মার্চ,ডেস্ক নিউজঃ সিলেটে বহুল সমালোচিত  ঘটনা কলেজছাত্রী খাদিজা আক্তার নার্গিস হত্যাচেষ্টার মামলায় একমাত্র আসামি বদরুল আলমের যাবজ্জীবন কারাদণ্ডাদেশ দিয়েছেন আদালত।

বুধবার সিলেট মহানগর দায়রা জজ আদালতের বিচারক আকবর হোসেন মৃধা এই দণ্ডাদেশ দেন।

জেলা দায়রা জজ আদালতের সরকার পক্ষের কৌঁসুলি (পিপি) মিসবাহ উদ্দিন সিরাজ জানান, রোববার মামলার যুক্তিতর্ক উপস্থাপন শেষে আদালত রায়ের তারিখ ধার্য করেন। বুধবার আদালত বদরুলকে যাবজ্জীবন কারাদণ্ডাদেশ দেন।

পিপি আরো জানান, মামলায় ৩৭ সাক্ষীর মধ্যে ৩৪ জনের সাক্ষ্য গ্রহণ করেন আদালত। সাক্ষ্যপ্রমাণের মাধ্যমে বদরুল আলমের অপরাধ প্রমাণ করা সম্ভব হয়েছে।

গত ১ মার্চ সিলেটের মুখ্য মহানগর হাকিম সাইফুজ্জামান হিরোর আদালত থেকে মামলাটি মহানগর দায়রা জজ আদালতে স্থানান্তর করা হয়। ওই আদালতে আসামির সর্বোচ্চ শাস্তি প্রদানে সীমাবদ্ধতা থাকায় দায়রা জজ আদালতে আসে মামলাটি।

২০১৬ সালের ৩ অক্টোবর এমসি কলেজের পুকুরপাড়ে সিলেট সরকারি মহিলা কলেজের স্নাতক দ্বিতীয় বর্ষের ছাত্রী খাদিজা আক্তার নার্গিসকে জন সম্মুখে চাপাতি দিয়ে কুপিয়ে গুরুতর আহত করেন শাহজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের (শাবি) অর্থনীতি বিভাগের ছাত্র ও বিশ্ববিদ্যালয় শাখা ছাত্রলীগের সহসম্পাদক বদরুল আলম। ঘটনার পর পরই শিক্ষার্থীরা বদরুলকে আটক করে পুলিশের হাতে তুলে দেন।

পরে হামলার ঘটনায় খাদিজার চাচা আবদুল কুদ্দুস বাদী হয়ে বদরুলকে একমাত্র আসামি করে মামলা করেন। এ মামলায় গত বছরের ৫ অক্টোবর বদরুল আদালতে স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দেন। পরে তাকে কারাগারে পাঠান আদালত।

ঘটনার পর শাবি ও ছাত্রলীগ থেকে বহিষ্কার করা হয় বদরুলকে। আর তার কোপে আহত খাদিজা ঢাকার স্কয়ার হাসপাতালে ও সাভারে অবস্থিত পক্ষাঘাত গ্রস্তদের পুনর্বাসন কেন্দ্রে (সিআরপি) দীর্ঘদিন চিকিৎসা নেন। অতি সম্প্রতি সেখান থেকে বাড়ি ফিরেছেন তিনি।

আমারসিলেট টুয়েন্টিফোর ডটকম,ফেব্রুয়ারী,সিলেট প্রতিনিধিঃ   সিলেটে বকাটে বদরুল আলমের বিরুদ্ধে সাক্ষ্য দিতে আদালতে হাজির হয়েছেন মারাক্তক আহত বর্তমানে অনেকটা সুস্থ খাদিজা বেগম নার্গিস।

আজ রবিবার বেলা পৌনে ১১টার দিকে তিনি আদালতে পৌঁছেন। সিলেট মুখ্য মহানগর হাকিম সাইফুজ্জামান হিরোর আদালতে তিনি সাক্ষ্য দেবেন। খাদিজার সঙ্গে তার বাবা মাসুক মিয়াসহ অন্যরা আছেন।
আদালতের এপিপি মাহফুজুর রহমান জানান, খাদিজা হত্যাচেষ্টা মামলায় ৩৩ জন সাক্ষ্য দিয়েছেন। খাদিজার সাক্ষ্য প্রদানের মধ্য দিয়ে এ মামলায় সাক্ষ্য গ্রহণ শেষ হতে পারে।
উল্লেখ্য, গত বছরের ৩ অক্টোবর বিকালে সিলেট এমসি কলেজের পরীক্ষার হল থেকে বের হওয়ার পর খাদিজাকে হত্যার উদ্দেশ্যে কুপিয়ে গুরুতর আহত করেন বদরুল। খাদিজার সহপাঠীসহ স্থানীয় জনতা বদরুলকে পুলিশে দেন। বদরুলের বাড়ি সুনামগঞ্জের ছাতকে। বদরুল শাহজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের অর্থনীতি বিভাগের চতুর্থ বর্ষের দ্বিতীয় সেমিস্টারের শিক্ষার্থী। এ ঘটনায় ৪ অক্টোবর বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ তাকে সাময়িক বহিষ্কার করে।

  

এডিটর: আনিছুল ইসলাম আশরাফী, এনিমেটরস্ বাংলা মিডিয়া গ্রুপ কর্তৃক প্রকাশিত
সম্পাদকীয় কার্যালয়: কলেজ রোড, শ্রীমঙ্গল, মৌলভীবাজার।
Email: news.amarsylhet24@gmail.com Mobile: 01772 968 710

Developed By : i-Tech Sreemangal
Email : itech.official@hotmail.com
Facebook : http://facebook.com/itech.ctc