Saturday 31st of October 2020 02:04:44 PM

কে এস এস আরিফুল ইসলাম, শ্রীমঙ্গল থেকে: মৌলভীবাজার জেলার শ্রীমঙ্গল উপজেলায় ফ্রান্সে হযরত মুহাম্মদ (দঃ)কে নিয়ে ব্যঙ্গচিত্র প্রকাশের প্রতিবাদে উলামা পরিষদ শ্রীমঙ্গলের আয়োজনে শহরজুড়ে বিক্ষোভ মিছিল ও সমাবেশ সম্পন্ন হয়েছে।

শুক্রবার (৩০শে অক্টোবর) বাদ জুম্মা উপজেলার বিভিন্ন মসজিদের মুছল্লী ও সর্বস্তরের তৌহিদি জনসাধারণের বিক্ষোভ মিছিলটি শহরের রেল‌ওয়ে স্টেশন মসজিদ চত্তর থেকে শুরু করে শহরের প্রধান প্রধান সড়ক প্রদক্ষিণ করে চৌমুহনয় এসে বিক্ষোভ সমাবেশের মাধ্যমে শেষ হয়।

এতে সভাপতিত্ব করেন জামেয়া ইসলামিয়া মাদ্রাসার মুহতামিম আব্দুর শাকুর ও সঞ্চালনা করেন দারুল আজহার ইনস্টিটিউট এর প্রিন্সিপাল আহমদ সোহাইল। এতে বক্তব্য রাখেন পরিষদের বিভিন্ন দায়িত্বশীল নেতৃবৃন্দ ও বিভিন্ন মসজিদ এবং মাদ্রাসার থেকে আগত ওলামায়ে কেরামগণ।

উক্ত বিক্ষোভ সমাবেশে বক্তারা বলেন, সম্প্রতি সময়ে ফ্রান্সে হযরত মুহাম্মদ (দঃ)কে নিয়ে ব্যঙ্গচিত্র প্রকাশ ইসলাম ধর্মের প্রতি চরম অবমাননা এবং মুসলমানদের হৃদয়ে ছুরিকাঘাতের শামিল। এর মাধ্যমে মূলত বিশ্বব্যাপী ধর্মীয় সহিংসতা ও উগ্রবাদকে উসকে দেয়ার চেষ্টা করা হচ্ছে। এই ব্যঙ্গচিত্র প্রদর্শনে মহানবী (দঃ) কে অবমাননার তীব্রনিন্দা জানায় ও অবিলম্বে ফরাসি প্রেসিডেন্ট ইমানুয়েল ম্যাক্রোকে বিশ্ব মুসলিমের কাছে ক্ষমা চাইতে হবে। আর যদি ক্ষমা না চান তাহলে সরকারের প্রতি আহবান জানানব যাতে করে অনতিবিলম্বে ফ্রান্সের কর্তিক আমদানিকৃত সকল প্রকার পণ্য বয়কোট, কুটনৈতিক সম্পর্ক বিচ্ছিন্ন করা সহ ফ্রান্সের দূতাবাস বন্ধ করে দেওয়া জন্য।

উল্লেখ্য যে, সম্প্রতি ফ্রান্সের একটি বিদ্যালয়ে শিক্ষার্থীদের উদ্দেশে মহানবী হজরত মোহাম্মদ (দঃ)-এর কার্টুন প্রদর্শনের কারণে দেশটির এক শিক্ষককে চেচেন বংশোদ্ভূত এক কিশোর গলা গেটে হত্যা করে। ওই ঘটনাকে কেন্দ্র করে দেশটিতে ব্যাপক উত্তেজনা তৈরি হয়েছে।

হত্যাকাণ্ডের তদন্তে সংশ্লিষ্ট একটি সূত্র বলছে, শিক্ষক স্যামুয়েল প্যাটি তার ক্লাসে শিক্ষার্থীদের মহানবীর (দঃ) কার্টুন দেখিয়েছিলেন। ওই ব্যঙ্গচিত্র নিয়ে বিতর্ক আয়োজনের পর থেকেই হত্যার হুমকি পাচ্ছিলেন তিনি। গত শুক্রবার নিজ কর্মস্থল মিডল স্কুলটির সামনের সড়কেই হামলার শিকার হন ওই শিক্ষক। এ ঘটনার পর ইসলামিক বিচ্ছিন্নতাবাদের বিরুদ্ধে লড়াই চালিয়ে যাওয়ার প্রতিশ্রুতি দিয়েছেন প্রেসিডেন্ট ম্যাক্রোঁ।

এক টুইটবার্তায় এমানুয়েল ম্যাক্রোঁ বলেন, ‌‘আমরা কখনোই ইসলামি মৌলবাদীদের কাছে নত স্বীকার করব না। এ ছাড়া আমরা বিদ্বেষপূর্ণ বক্তব্য গ্রহণ ও যুক্তিযুক্ত মতামতকে প্রতিহত করি না। এই বিচ্ছিন্নতাবাদ ফ্রান্সের মুসলমান সম্প্রদায়গুলোতে নিয়ন্ত্রণ প্রতিষ্ঠা করতে চাইছে। ফ্রান্সের সরকারি ভবনে মহানবীকে (দঃ) ব্যঙ্গ করে চিত্রপ্রদর্শন বন্ধ হবে না বলেও উল্লেখ করেন তিনি।

তাই এদিকে ম্যাক্রোঁর এমন মন্তব্যের পর তার আচরণের কারণেই মূলত মুসলিম দেশগুলোতে বিক্ষোভ শুরু হয়েছে। মহানবী হজরত মোহাম্মদ (দঃ)- এর ব্যঙ্গাত্মক কার্টুন প্রকাশের পর সম্প্রতি মধ্যপ্রাচ্যের বেশ কয়েকটি দেশে সহ বিশ্বের মুসলিম দেশগুলো ফ্রান্সের পণ্য বয়কটের আহ্বান জানাতে শুরু করে। এর পর দেখা গেছে, মধ্যপ্রাচ্যের বেশ কয়েকটি দেশে সহ বিশ্বের মুসলিম দেশগুলোর দোকান থেকে ফরাসি কোম্পানির পণ্য সরিয়ে ফেলা হচ্ছে।

আর প্রতিটি দেশেই আহ্বান জানানো হচ্ছে যাতে তিনি নিজের ভুল স্বীকার করে মুসলিম বিশ্বের কাছে মাফ চান‌। আর ভবিষ্যতে যাতে তার দেশে এরকমটি পুনরাবৃত্তি না ঘটে সেদিকে গভীরভাবে লক্ষ্য রাখতে সচেষ্ট থাকার জন্য । মুসলিম বিশ্বের দেশগুলো থেকে এ রকমেই আহবান করা হয়েছে।

আমার সিলেট টুয়েন্টি ফোর ডটকম,২৪মে, ডেস্ক নিউজঃ বাংলাদেশে ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগের সমর্থক সংগঠন হিসেবে পরিচিত ওলামা লীগের কার্যক্রম বন্ধ করে নতুন একটি ধর্মভিত্তিক সমর্থক সংগঠন করার প্রস্তাব নিয়ে দলটিতে পক্ষে-বিপক্ষে দু’টি মত দাঁড়িয়েছে।

দলটির নেতারা বলেছেন, একাধিক ভাগে বিভক্ত আওয়ামী ওলামা লীগ নামের সংগঠনটির কট্টরপন্থী অনেক কর্মকান্ড আওয়ামী লীগকেই বিব্রতকর অবস্থায় ফেলেছে।

সেকারণে এর কার্যক্রম বন্ধে আওয়ামী লীগে ঐক্যমত্য হয়েছে।

কিন্তু একই ধরণের আরেকটি সংগঠন করার প্রশ্নে দলটির নেতাদের অনেকে বলেছেন, সব মতের মানুষকে তারা সাথে রাখতে চান।

তবে আওয়ামী লীগের অনেক নেতা মনে করেন, অসাম্প্রদায়িক রাজনীতির অবস্থান থেকে এ ধরণের সংগঠন তৈরি করা সঠিক হবে না।

ওলামা লীগ নিজেদের আওয়ামী লীগের সমর্থক হিসেবে দাবি করলেও বিভিন্ন সময় তাদের কর্মকান্ড প্রশ্নের জন্ম দিয়েছে।

হেফাজতে ইসলামের মতো ওলামা লীগও পাঠ্যপুস্তকে ইসলাম বিরোধী পাঠক্রম আছে বলে দাবি তুলেছিল। বাংলা বর্ষবরণের অনুষ্ঠানের বিরুদ্ধেও সংগঠনটি অবস্থান নিয়েছিল।

ওলামা লীগের দু’টি অংশ একে অপরের সাথে পাল্লা দিয়ে কট্টরপন্থী অবস্থান নেয়ায় আওয়ামী লীগের নেতাদের অনেকে এর সাথে তাদের দলের সম্পৃক্ততা অস্বীকার করে আসছিলেন।

শেষ পর্যন্ত আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদেরের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত দলটির সম্পাদক মন্ডলীর এক বৈঠকে ওলামা লীগের কর্মকাণ্ড বন্ধের ব্যাপারে আনুষ্ঠানিক আলোচনা হয়।

আওয়ামী লীগের ধর্ম বিষয়ক সম্পাদক শেখ মো: আব্দুল্লাহ বলেছেন, গ্রুপিং এবং দলের আদর্শ ও শৃংখলাবিরোধী কর্মকাণ্ডের জন্য ওলামা লীগের কার্যক্রম প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশে স্থগিত করা হয়েছে।

এখন স্বাধীনতার পক্ষের ওলামাদের সংগঠিত করে নতুন একটি সংগঠন করার বিষয়ও সম্পাদকমন্ডলীর বৈঠকে আলোচনা হয়েছে বলে তিনি জানিয়েছেন।

তিনি একই আদলে নতুন একটি সংগঠন দাঁড় করানোর এই প্রস্তাব এনেছেন। এনিয়ে সম্পাদকমন্ডলীতেই পক্ষে-বিপক্ষে মত আসে।

দলটির সিনিয়র নেতাদের মধ্যেও ভিন্ন ভিন্ন মত রয়েছে। আওয়ামী লীগের প্রেসিডিয়াম সদস্য এবং মন্ত্রী মতিয়া চৌধুরী বলেছেন, “এটা একটা প্রস্তাব হিসেবে এসেছে। আর এ ধরণের বিভিন্ন শ্রেণি পেশা বা বিভিন্ন মতকে ঐক্যবদ্ধ করার ব্যাপারটা অতীতেও ছিল। আওয়ামী লীগ করেন এমন অনেকে তো বৌদ্ধ-খৃস্টান ঐক্য পরিষদে আছেন। তাতেতো কোন অসুবিধা হচ্ছে না। সবটাই প্রস্তাবনার পর্যায়ে আছে। এটা বাঁকা চোখে দেখার কী আছে?”

তবে আওয়ামী লীগের নেতাদের অনেকে বলেছেন, তাদের দলে প্রতিষ্ঠার পর থেকে এখনও পর্যন্ত দলীয় গঠনতন্ত্রে ধর্মভিত্তিক কোন সমর্থক বা সহযোগী সংগঠন করার কোন নিয়ম নেই।

১৯৯৬ সালে ওলামা লীগ প্রতিষ্ঠার পর থেকেই সংগঠনটি নিজেদের আওয়ামী লীগের সমর্থক সংগঠন হিসেবে দাবি করলেও আওয়ামী লীগ কখনও তাদের আনুষ্ঠানিকভাবে স্বীকৃতি দেয়নি।

আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মাহবুব উল আলম হানিফ বলেছেন, “আওয়ামী লীগে সুনির্দিষ্ট কয়েকটি সহযোগী সংগঠন আছে, যেগুলোর বিষয় গঠনতন্ত্রে উল্লেখ আছে। এর বাইরে নাম ব্যবহার করে বা লীগ জুড়ে দিয়ে সংগঠন তৈরি করে, এমন সংগঠনের সাথে আওয়ামী লীগের কোন সম্পর্ক নেই। ওলামা লীগ এরকম একটি। আমাদের নেতা-কর্মী অনেকে বিভিন্ন সময় বিভ্রান্ত হয়ে ওলামা লীগের অনুষ্ঠানে গেছেন। কিন্তু দল থেকে নিষেধ করার পর তাঁরা আর যাননি।”

কিন্তু ধর্মীয় ব্যক্তিদের নিয়ে আরেকটি সংগঠন দাঁড় করানোর প্রস্তাবের ব্যাপারে মাহবুব উল আলম হানিফ বলেছেন, “এর পক্ষে বিপক্ষে অনেক কথাই এসেছে। কিন্তু সবশেষ কথা যেটা, সেটা হচ্ছে, ধর্মীয় ব্যানারে আওয়ামী লীগ কোন রাজনীতি করতে চায় না।”

বিশ্লেষকদের অনেকে বলেছেন, ভোটের রাজনীতির কারণে আওয়ামী লীগ ধর্মীয় সংগঠনগুলোকে অনেক ছাড় দিচ্ছে। বিশ্লেষক কামাল লোহানী মনে করেন, আওয়ামী লীগের এই ছাড় দেয়ার বিষয়গুলো তাদের অসাম্প্রদায়িক রাজনীতির জায়গায় আঘাত করছে।বিবিসি

আমার সিলেট টুয়েন্টি ফোর ডটকম,০৬এপ্রিল,জি এম সাইফুলঃ ওলামা-মাশায়েখ মহাসম্মেলনে যোগ দলে দলে দেশের বিভিন্ন প্রান্ত থেকে মানুষ রাজধানীর সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে জড়ো হচ্ছেন। বৃহস্পতিবার ভোর থেকে সোহরাওয়ার্দী উদ্যানের চারপাশে পাঞ্জাবি-টুঁপি পরে সমবেত হতে শুরু করেন মানুষ। এরপর সকাল ১০টায় খুলে দেওয়া হয় সোহরাওয়ার্দী উদ্যানের প্রবেশপথ।
ইসলামিক ফাউন্ডেশনের (ইফা) ৪২তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উপলক্ষে আয়োজিত এই সম্মেলন বিকাল ৩টায় শুরু হবে। প্রধান অতিথি হিসেবে এ সম্মেলনের উদ্বোধন করবেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।
ধর্মমন্ত্রী অধ্যক্ষ মতিউর রহমানের সভাপতিত্বে মহাসম্মেলনে বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত থাকবেন পবিত্র মক্কার সিনিয়র ইমাম শায়খ মুহাম্মদ বিন নাসির আল খুজাইম ও মদিনার মসজিদে নববির ইমাম ড. আবদুল মহসিন বিন কাসেম।
সম্মেলনকে কেন্দ্র করে কড়া নিরাপত্তাব্যবস্থা গ্রহণ করেছে ঢাকা মহানগর পুলিশ (ডিএমপি)। ডিএমপি কমিশনার মো. আছাদুজ্জামান মিয়া বুধবার দুপুরে ডিএমপি মিডিয়া সেন্টারে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে জানিয়েছেন, সম্মেলনের দিন দুটি রাস্তা বন্ধ রাখার পাশাপাশি ২৫টি স্থানে যানবাহন চলাচল নিয়ন্ত্রণ করা হবে। অনুষ্ঠানস্থল ও আশপাশের এলাকায় কঠোর নিরাপত্তাবলয় গড়ে তোলা হয়েছে। সোহরাওয়ার্দী উদ্যান সিসিটিভির আওতায় আনা হয়েছে এবং তিনটি কন্ট্রোল রুমের মাধ্যমে পরিস্থিতি পর্যবেক্ষণ করা হবে। সম্মেলনে সোয়াত, বোমা ডিস্পোজাল ইউনিট ও অন্যান্য গোয়েন্দা টিমের সদস্যরাও থাকবেন।
সম্মেলনে উপলক্ষে সোহরাওয়ার্দী উদ্যানের বিভিন্ন প্রবেশপথে বিলবোর্ড স্থাপন করে কোন জেলার কতজন ওলামা কোন গেট দিয়ে প্রবেশ করবেন তা লেখা রয়েছে। চারুকলার বিপরীতে ছবির হাট সংলগ্ন ফুটপাত থেকে দোয়েল চত্বর পর্যন্ত খাবার পানির ট্যাংকি বসানো হয়েছে। নিরাপত্তা রক্ষায় রাস্তায় টহল দিচ্ছে পুলিশ। ভোরে বাস ঢাকায় পৌঁছানোর কারণে ঢাকার বাইরে থাকা আসা অনেকেই ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় এলাকার বিভিন্ন দর্শনীয় স্থান ঘুরে বেড়াচ্ছেন।

  

এডিটর: আনিছুল ইসলাম আশরাফী, এনিমেটরস্ বাংলা মিডিয়া গ্রুপ কর্তৃক প্রকাশিত
সম্পাদকীয় কার্যালয়: কলেজ রোড, শ্রীমঙ্গল, মৌলভীবাজার।
Email: news.amarsylhet24@gmail.com Mobile: 01772 968 710

Developed By : i-Tech Sreemangal
Email : itech.official@hotmail.com
Facebook : http://facebook.com/itech.ctc