Sunday 28th of February 2021 01:25:43 PM

 অবৈধ ভাবে মাটি উত্তোলনে সরকারের লাখো টাকা রাজস্ব ক্ষতি

নূরুজ্জামান ফারুকী নবীগঞ্জঃ  নবীগঞ্জ উপজেলার করগাওঁ ইউনিয়নের কমলাপুর এলাকায় ছল্লুক মিয়া, হামদু মিয়া ও ইউসুফ মিয়া, আজিদ মিয়াগংরা সরকারের বিপুল পরিমান টাকার ভুমিতে জোরপুর্বক গৃহনির্মাণ করে জবর দখল করেছে। এছাড়া বাড়ি সংলগ্ন খাল থেকে প্রচুর পরিমান মাটি উত্তোলন করায় লাখো  টাকা ক্ষতি সাধিত হচ্ছে।

এছাড়া একই এলাকার রহমত আলীর স্ত্রী শেলিনা বেগম সরকারী জায়গা থেকে মাটি উত্তোলন করে পুকুর করেছেন। এ ব্যাপারে নবীগঞ্জ উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভুমি) বরাবরে লিখিত অভিযোগ দিলে ভুমি অফিসের সহকারী তহশীলদার আবিদ আলী সরজমিনে গিয়ে মাটি কাটা বন্ধ করেন। গত দু’দিন ধরে ফের আবার মাটি কাটা শুরু করেছে হামদু মিয়া ও আজিদ মিয়াগংরা। এতে সরকার বিপুল পরিবার রাজস্ব থেকে বঞ্চিত হচ্ছে।

স্থানীয় সুত্রে জানা যায়, স্থানীয় একটি প্রভাবশালী মহলের চত্রছায়ায় ওই গ্রামের মৃত জাকির হোসেন এর ছেলে ছল্লুক মিয়া, হামদু মিয়া, আজিদ মিয়া ও ইউসিুফ মিয়া সরকারের ১নং খতিয়ানের, জেএলনং-৭৭, দাগ নং ২৭৮৭ এর বিপুল পরিমান সরকারের ভুমি জবর দখলে নেয়। এখানে বাড়িঘর নির্মাণ করায় সরকারের বিপুল পরিমান অর্থের ভুমি বেহাত হচ্ছে। এছাড়া জবরদখলকারীরা বাড়ির পাশের সরকারী খাল থেকে মাটি কেটে বিক্রি করছে। কিছু মাটি তার ভিটে উত্তোলন করেছে। এদিকে সহকারী তহশীলদারের বাধাঁ নিষেধকে উপেক্ষা করে ফের মাটি কাটা শুরু করেছে। এতে সরকারের লাখ লাখ টাকা রাজস্ব হারাচ্ছে। ঘটনার খবর পেয়ে সরজমিন গিয়ে দেখা যায়, ওই এলাকার হামদু মিয়া, আজিদ মিয়া, ইউছুপ মিয়া ও সামছু মিয়াগংরা সরকারের খাস খতিয়ানের বিপুল পরিবার ভুমি জবর দখল করে স্থায়ীভাবে গৃহ নির্মাণ করে বসবাস করে আসছে। সম্প্রতি বাড়ির পাশের খাল থেকে মাটি উত্তোলন এবং খালের একটি অংশে ধান রোপন করেছেন।

অপর একটি অংশে জাহির আলী নামক এক লোক ধান রোপন করেছে। অপর দিকে একই গ্রামের রহমত আলীর স্ত্রী শেলীনা বেগম বাড়ির সামনে সরকারী জায়গা থেকে প্রচুর পরিমান মাটি উত্তোলন করে। এতে সরকার বিপুল পরিমান রাজস্ব হারাচ্ছে। সরকারী জায়গা থেকে মাটি উত্তোলন করলেন কেন এমন প্রশ্নের জবাবে আজিদ মিয়ার স্ত্রী হোসাই বিবি এবং রহমত আলীর স্ত্রী শেলীনা বেগম জানান, স্থানীয় তহশীল অফিসের সহকারী তহশীলদার আবিদ আলী সাহেবকে টাকা দেয়ায় তিনি অনুমতি দিয়েছেন মাটি কাটার। বন্দোবস্ত এর বিষয়ে বলেন, মেম্বার ফনি দাশের নিকট থেকে তারা দখল খরিদ করেছেন। তবে তারা এ ব্যাপারে বৈধ কাগজপত্র দেখাতে পারেন নি। সরজমিনে গিয়ে সহকারী তহশীলদার আবিদ আলীকে ঘটনাস্থলে পাওয়া যায়। তিনি সাংবাদিকদের দেখেই কোন প্রশ্নের না দিয়ে দ্রুত ঘটনাস্থল ত্যাগ করেন।

এদিকে সরজমিনে মাটি উত্তোলন এবং সরকারী জায়গা জবর দখলের বিষয়টি নিয়ে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুক লাইভ করলে দ্রুত ঘটনাস্থলে ছুটে যান সহকারী কমিশনার (ভুমি) সুমাইয়া মুমিন। তিনি পুণঃরায় মাটি উত্তোলন করা থেকে বিরত থাকার নিদের্শ দেন। এলাকাবাসী সরকারী খাল থেকে মাটি উত্তোলনকারীদের বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহনের জন্য দাবী জানিয়েছেন।

এস এম সুলতান খান,চুনারুঘাটঃ  বৃহত্তর সিলেটের কৃতি সন্তান সাবেক বিচারপতি ও বাংলাদেশ শ্রম আপীল ট্রাইব্যুনালের চেয়ারম্যান মোঃ আব্দুল হাই (৭৫) এর নিজ বাড়ী আইতনে গতকাল ২১ ফেব্রুয়ারী বাদ জোহর  চতুর্থ  নামাজে যানাজা শেষে পারিবারিক কবস্তানে দাপন করা হয়।
তিনি গত শনিবার (২০ ফেব্রুয়ারী) সকাল সাড়ে ৮টায় বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মৃত্যু বরণ করেন। ইন্না লিল্লাহি….রাজিউন)। মৃতু কালে তিনি ত্রী,২ ছেলে, নাতী নাতনিসহ অসংখ্য আত্তীয়স্বজন ও গুনগ্রাহী রেখে গেছেন।
নামাজে যানাজায় উপস্থিত ছিলেন, হবিগঞ্জ – ২ এর সাংসদ এডভোকেট আব্দুল মজিদ খান, কেন্দ্রীয় আওয়ামীলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক এডভোকেট মিছবাহ্ উদ্দিন সিরাজ, চুনারুঘাট উপজেলা চেয়ারম্যান আলহাজ্ব আব্দুল কাদির লস্কর, চুনারুঘাট পৌর মেয়র মোঃ সাইফুল আলম রুবেল, মরহুমের পুত্রদ্বয় – ইঞ্জিনিয়ার আরিফুল হাই রাজিব, ব্যারিস্টার ইমরানুল হাই সজিব, ইউপি চেয়ারম্যান মোঃ রমিজ আলীসহ এলাকার গন্যমান্য ব্যাক্তিবর্গ।
আব্দুল হাই এর কর্ম জীবন  গত ২০১৯ সালের ২৫ জুলাই মহামান্য রাষ্ট্রপতি মোঃ আব্দুল হামিদ এর আদেশক্রমে জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়ের উপসচিব আলিয়া মেহের স্বাক্ষরিত প্রজ্ঞাপনে বিচারপতি মোঃ আব্দুল হাইকে পুনঃরায় দুই বছর মেয়াদে চুক্তি ভিত্তিক শ্রম আপীল ট্রাইব্যুনাল এর চেয়ারম্যান হিসেবে নিয়োগ প্রদান করা হয়।
তিনি হবিগঞ্জ জেলার চুনারুঘাট উপজেলার ১০ নং মিরাশী ইউনিয়নের আইতন গ্রামের জজবাড়ীতে জন্ম গ্রহন করেন।
বিচারপতি মোঃ আব্দুল হাই ১৯৮৬ হতে ১৯৯৪ সাল পর্যন্ত তিন জেলার জেলা ও দায়রা জজ ছিলেন। ২০০০-২০০১ সালে আইন সচিবের দায়িত্ব পালন করেন।
উনার মৃত্যুতে গভীর শোক প্রকাশ করেছে  চুনারুঘাট উপজেলাবসী । এক বার্তায় তারা মরহুমের আত্নার মাগফেরাত কামনাসহ শোকসন্তপ্ত পরিবারের প্রতি গভীর শোক ও সমবেদনা প্রকাশ করেন।

নূরুজ্জামান ফাারুকী, বিশেষ প্রতিনিধি: বাহুবলে সম্পত্তি লিখে দেয়ার জন্য বৃদ্ধ পিতাকে শিকল দিয়ে ৩ দিন বেধে রেখে অমানষিক নির্যতন করেছেন পরিবারের লোকজন। রোববার বিকেলে খবর পেয়ে বাহুবল থানা পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌঁছে নির্যাতনের শিকার বৃদ্ধ আবু মিয়াকে (৭৫) উদ্ধার করে। এ ঘটনায় ১ ছেলে ও এক মেয়েকে আটক করেছে পুলিশ। পরে আবু মিয়া বাদি হয়ে বাহুবল থানায় স্ত্রী, ৪ ছেলে ও ১ মেয়েকে আসামি করে মামলা দয়ের করেছেন। আবু মিয়া বাহুবল উপজেলার সদর ইউনিয়নের দশকাহনিয়া গ্রামের বাসিন্দা। তার ৪ ছেলে ও ৪ মেয়ে রয়েছেন।
বাহুবল থানার উপ-পরিদর্শক (ওসি তদন্ত) আলমগীর কবির জানান, বৃদ্ধ আবু মিয়া ছেলেদের জায়গা জমি না দিয়ে অন্যত্র বিক্র করে দিয়েছেন। বাকি জমি-জামাও বিক্রি করে দেয়ার সিদ্ধান্ত নেন। এতে ক্ষিপ্ত হয়ে উঠেন তার ছেলে-মেয়ে ও স্ত্রী। অনেক বাঁধা নিষেধ দেয়ার সত্বেও আবু মিয়া তা মানেননি। এক পর্যায়ে গত ১৯ ফেব্রুয়ারী রাত থেকে আবু মিয়াকে তার পরিবারের লোকজন শিকল দিয়ে বেধে সম্পত্তি লিখে দেয়ার জন্য অমানষিক নির্যাতন চালায়।

রোববার দুপুরে বাহুবল থানা পুলিশ খবর পেয়ে আবু মিয়াকে উদ্ধার করে। এ সময় ঘটনাস্থল থেকে তার এক ছেলে ও এক মেয়েকে আটক করে। আটকৃতরা হলেন, আবু মিয়ার বড় মেয়ে ঝরনা (৫৫) ও ছোট ছেলে সোহাগ (১৫)। ওসি আরও জানান, বর্তমানে আবু মিয়াকে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়েছে। সেখানে তার চিকিৎসা চলছে।

বিশেষ প্রতিনিধিঃ  নোয়াখালীর কোম্পানীগঞ্জে পেশাগত দায়িত্ব পালনকালে গুলিবিদ্ধ সাংবাদিক বোরহান উদ্দিন মুজাক্কির হত্যায় জড়িতদের গ্রেপ্তার ও বিচারের দাবিতে জেলায় কর্মরত সাংবাদিকরা মানববন্ধন ও সমাবেশ করেছেন। রোববার দুপুর ১২টা থেকে নোয়াখালী প্রেসক্লাবের সামনের সড়কে ঘণ্টাব্যাপী মানববন্ধন করেন সাংবাদিকরা। এ সময় প্রতিবাদ সমাবেশে সাংবাদিক নেতৃবৃন্দ ছাড়াও আইনজীবী, মানবাধিকার কর্মী, উন্নয়নকর্মীসহ বিভিন্ন শ্রেণী পেশার প্রতিনিধিগণ বক্তব্য রাখেন। বক্তাগণ মুজাক্কিরের খুনিদেরকে আগামী ২৪ ঘণ্টার মধ্যে গ্রেপ্তারের জন্য প্রশাসনকে আলটিমেটাম দিয়ে এতে প্রশাসন ব্যর্থ হলে বৃহত্তর আন্দোলনের হুমকি দেন। মুজাক্কিরের খুনিদের গ্রেপ্তারের দাবিতে কোম্পানীগঞ্জ ও চাটখিলসহ জেলার বিভিন্ন স্থানে প্রতিবাদ সমাবেশ ও মানববন্ধ করেন সাংবাদিকরা।

উল্লেখ্য, গত শুক্রবার বিকেলে নোয়াখালীর কোম্পানীগঞ্জ উপজেলার চাপরাশির হাট পূর্ব বাজারে আওয়ামী লীগের দুই পক্ষের সংঘর্ষের সংবাদ সংগ্রহের সময় গুলিবিদ্ধ সাংবাদিক বোরহান উদ্দিন মুজাক্কির গুলিবিদ্ধ হন। শনিবার রাতে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তার মৃত্যু হয়। নিহত বোরহান উদ্দিন মুজাক্কির দৈনিক বাংলাদেশ সমাচার ও অনলাইন পোর্টাল বার্তা বাজারের প্রতিনিধি ছিলেন। তিনি উপজেলার চরফকিরা ইউনিয়নের নোয়াব আলী মাস্টারের ছেলে। নোয়াখালী সরকারি কলেজ থেকে সম্প্রতি রাষ্ট্রবিজ্ঞানে মাস্টার্স শেষ করে সাংবাদিকতায় যুক্ত হন মুজ্জাকির।

  

এডিটর: আনিছুল ইসলাম আশরাফী, এনিমেটরস্ বাংলা মিডিয়া গ্রুপ কর্তৃক প্রকাশিত
সম্পাদকীয় কার্যালয়: কলেজ রোড, শ্রীমঙ্গল, মৌলভীবাজার।
Email: news.amarsylhet24@gmail.com Mobile: 01772 968 710

Developed By : i-Tech Sreemangal
Email : itech.official@hotmail.com
Facebook : http://facebook.com/itech.ctc