Saturday 6th of March 2021 02:16:22 PM

নূরুজ্জামান ফারুকী বিশেষ প্রতিনিধি: মাধবপুর উপজেলার ভারতীয় সীমান্তবর্তী ১৯৯৪-৪/এস পিলার মোহনপুর এলাকার নিকট ভারতীয় জনতা পার্টি (বিজেপি) অফিস নির্মাণের চেষ্টা চালানোর খবর পাওয়া গেছে। এ অবস্থায় বর্ডারগার্ড বাংলাদেশের (বিজিবি) পক্ষে ধর্মঘর কোম্পানি কমান্ডার আবু বক্কর বাধা প্রদান করেন। এনিয়ে সীমান্ত এলাকায় উত্তেজনার সৃষ্টি হয়।

অফিস নির্মাণের চেষ্টার খবর পেয়ে আজ বৃহস্পতিবার (৩১ ডিসেম্বর) বিকেলে হবিগঞ্জ ৫৫ ব্যাটালিয়ানের (বিজিবি) অধিনায়ক লে.কর্ণেল সামিউন্নবী চৌধুরী ও এডি নাছির চৌধুরী সীমান্ত এলাকা পরিদর্শন করেন। ঘটনার পর থেকে সীমান্ত এলাকায় অতিরিক্ত সৈনিক মজুদ রাখা হয়েছে।

হবিগঞ্জ ৫৫ বিজিবি’র অধিনায়ক লে.কর্ণেল সামিউন্নবী চৌধুরীর সঙ্গে মুঠোফোনে যোগাযোগ করা হলে তিনি জানান, সীমান্ত এলাকার ৫০ গজের মধ্যে পাকা করে এই পার্টি অফিস নির্মাণ করা হচ্ছে। এতে বাধা দেওয়া হয়েছে। আগামীকাল শুক্রবার দুই দেশের উচ্চ পর্যায়ের সৈনিকদের মধ্যে পতাকা বৈঠক হবার কথা রয়েছে।

নূরুজ্জামান ফারুকী নবীগঞ্জ:  নবীগঞ্জে ফুটবল খেলার সময় লাল কার্ড দেখানোকে কেন্দ্র করে দুই দলের মধ্যে সংঘর্ষের ঘটনা ঘটেছে। এ ঘটনায় জাতীয় দলের ফুটবলার আকাশসহ অন্তত ৪ জন আহত হয়েছেন। গুরুত্বর আহত অবস্থায় তাদেরকে সিলেট ওসমানি মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

গতকাল বুধবার বিকেলে উপজেলার ইনাতগঞ্জ ইউনিয়নের বান্দের বাজারে (বক্তারপুর) এ ঘটনাটি ঘটে। পুলিশ জানায়, বক্তারপুর গ্রামবাসীর উদ্যোগে বান্দের বাজার ফুটবল মাঠে এক টুর্নামেন্টের আয়োজন করা হয়। বুধবার ছিল এই টুর্নামেন্টের ফাইনাল খেলা। ফাইনাল খেলায় অংশ নেয় ‘ইউনাইটেড নবীগঞ্জ’ ও ‘বান্দের বাজার বক্তারপুর’ টিম। খেলায় অতিতি হিসাবে সেখানে উপস্থিত ছিলেন, স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যান বজলুর রশিদ চৌধুরী।

খেলার এক পর্যায়ে দুই দলের দুই খেলোয়াড়ের মধ্যে হাতাহাতির ঘটনা ঘটে। এসময় খেলার রেফারি দুজনকেই লাল কার্ড প্রদর্শন করে মাঠ থেকে বের করে দেন। এ নিয়ে দুই দলের খেলোয়াড় ও সমর্থকদের মধ্যে সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে। পরে স্থানীয়রা ময়-মুরব্বিরা ঘটনাটির সামাল দেন।

ইনাতগঞ্জ পুলিশ ফাঁড়ির ইনচার্জ এসআই শামছুদ্দিন খান বলেন, ‘ঘটনার সময় পুলিশ উপস্থিত ছিল না। তবে স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যান উপস্থিত ছিলেন। লাল কার্ড দেখানোর ঘটনাকে কেন্দ্র করে সংঘর্ষ হয়েছে।’

এ ব্যাপারে ইউপি চেয়ারম্যান বজলুর রশিদ বলেন, ‘দর্শক বিছিন্ন হয়ে যাওয়ায় এ হামলা হয়েছে। কাউকে নিয়ন্ত্রণ করা যায়নি।’

নূরুজ্জামান ফারুকী,নবীগঞ্জ: নবীগঞ্জ পৌরসভায় মেয়র পদে ৩ জন ও ১২ জন সংরক্ষিত মহিলা কাউন্সিলর ও ৩৭ জন কাউন্সিলর মিলিয়ে মোট ৫২ জন প্রার্থী ভোটের লড়াই চালিয়ে যাচ্ছেন এবার। গতকাল বুধবার দুপুরে হবিগঞ্জ জেলা রিটার্নিং কর্মকর্তার কার্যালয়ে মেয়র, কাউন্সিলর ও সংরক্ষিত মহিলা কাউন্সিলগণের প্রতীক ঘোষনা হয়েছে। প্রতীক নিশ্চিত হয়ে প্রার্থীদের প্রচার প্রচারণায় নতুন গতির সঞ্চার হয়েছে। শীতের মৌসুমে প্রার্থীদের নির্ঘুম প্রচারণায় শহরে ভোটের আমেজ লক্ষ্য করা যাচ্ছে।

নবীগঞ্জ পৌরসভায় মেয়র পদে ৩ প্রার্থীর মধ্যে বিএনপি মনোনীত প্রার্থী বর্তমান মেয়র আলহাজ¦ ছাবির আহমেদ চৌধুরীর ধানের শীষ ও আওয়ামী লীগ মনোনীত গোলাম রসুল চৌধুরী রাহেল-এর নৌকা এবং একমাত্র স্বতন্ত্র প্রার্থী মাহবুবুল আলম সুমনের জগ প্রতীক ইতোপূর্বে নিশ্চিত ছিল। গতকাল মার্কা নিশ্চিত হওয়ার পর প্রত্যেক প্রার্থীর কর্মী সমর্থকদের ব্যপক প্রচার প্রচারনা লক্ষ্য করা গেছে।

এদিকে মেয়র প্রার্থীদের তাল মিলিয়ে প্রচারণায় ব্যস্ত সময় পার করছেন কাউন্সিলর ও সংরক্ষিত মহিলা কাউন্সিলরগণ। তারা প্রতিনিয়ত ভোটারদের ধারে ধারে গিয়ে নিজেদের অবস্থান জানান দিচ্ছেন। কাউন্সিলর প্রার্থীরা তাদের নিজ নিজ ওয়ার্ডকে পৌরসভার মধ্যে উন্নত, আদর্শ ওয়ার্ড ও উন্নয়নের রুল মডেল হিসেবে গড়ে তুলার নির্মিত্তে বিভিন্ন ধরণের উন্নয়ন মূলক কর্মকান্ডের প্রতিশ্রুতি দিয়ে যাচ্ছেন। নবীগঞ্জ পৌরসভায় মোট ৯টি ওয়ার্ডে নারী পুরুষ মিলে ১৮ হাজার ৮শ’ ৭৭ জন ভোটার রয়েছেন। এর মধ্যে ১নং ওয়ার্ডে মোটার সংখ্যা হচ্ছেন ২ হাজার ৫৮ জন।

এ ওয়ার্ডে কাউন্সিলর পদে ৩ প্রতিদ্বন্দ্বি নির্বাচন করছেন। তাদের মধ্যে বর্তমান কাউন্সিলর মোঃ জাকির হোসেন (পানির বোতল), সাবেক কাউন্সিলর মোঃ মিজানুর রহমান (উটপাখি) ও মোঃ আক্তার উজ্জামান চৌধুরী রুহেল (টেবিল ল্যাম্প)। এই ওয়ার্ডের একমাত্র ভোট সেন্টার গন্ধা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়।

২নং ওয়ার্ডে ৫ কাউন্সিলরের মধ্যে বর্তমান কাউন্সিলর মোঃ সুন্দর আলী (পাঞ্জাবী), আঃ ছোবহান (পানির বোতল), আকমল হোসেন আজাদ (টেবিল ল্যাম্প), এটি.এম রুবেল মিয়া (উটপাখি) ও মোঃ সাহেদুর রহমান (ডালিম)। এ ওয়ার্ডে মোট ভোটার হচ্ছেন ২ হাজার ১ শত ৯৬ জন। একমাত্র ভোট সেন্টার হিরা মিয়া গার্লস হাই স্কুল। ৩নং ওয়ার্ডে প্রার্থী হচ্ছেন ৩ জন। তারা হলেন সাবেক কাউন্সিলর শাহ মোঃ রিজভী আহমেদ খালেদ (উটপাখি) মোঃ অহি চৌধুরী (টেবিল ল্যাম্প) ও মোঃ নানু মিয়া (পানির বোতল)। এ ওয়ার্ডে মোট ভোটার হচ্ছেন ২ হাজার ৩০ জন। ভোট সেন্টার নবীগঞ্জ জে.কে উচ্চ বিদ্যালয়। সংরক্ষিত মহিলা কাউন্সিলর ১, ২ ও ৩নং ওয়ার্ডে প্রার্থী হচ্ছেন ৪ জন।

তারা হলেন বর্তমান মহিলা কাউন্সিলর ফারজানা মিলন পারুল (আনারস) সাবেক মহিলা কাউন্সিলর জাকিয়া আক্তার লাকী (জবা ফুল), শামেলা বেগম (অটোরিক্সা) ও মোছাঃ স্বপ্না বেগম (চশমা)। ৪নং ওয়ার্ডে প্রার্থী হচ্ছেন ৫ জন। তারা হলেন বর্তমান কাউন্সিলর প্রাণেশ চন্দ্র দেব (টেবিল ল্যাম্প) সাবেক কাউন্সিলর যুবরাজ গোপ (উটপাখি) ও সমীরন দাশ (পাঞ্জাবী)। এ ওয়ার্ডে মোট ভোটার হচ্ছেন ২ হাজার ২ শত ৬৬ জন। ভোট সেন্টার গয়াহরি সাকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়। ৫নং ওয়ার্ডে বর্তমান কাউন্সিলর এটিএম সালাম (টেবিল ল্যাম্প) মোঃ লুৎফুর রহমান (পানির বোতল), মোঃ আমির হোসেন (উটপাখি) মোঃ সুহেলুজ্জামান লিপ্টন (পাঞ্জাবী) ও ইসমত আলী (ডালিম)।

এ ওয়ার্ডে মোট ভোটার হচ্ছেন ১ হাজার ৭ শত ৯৫ জন। ভোট সেন্টার রাজাবাদ কমিউনিটি প্রাথমিক বিদ্যালয়। ৬নং ওয়ার্ডে প্রার্থী হচ্ছেন ৫ জন তারা হলেন বর্তমান কাউন্সিলর জায়েদ চৌধুরী (ডালিম), শেখ মোঃ আবুল কাশেম (পানির বোতল), আল আমিন চৌধুরী  (টেবিল ল্যাম্প), মঈনুল ইসলাম চৌধুরী (পাজ্ঞাবী), মোঃ ইসলাম উদ্দিন চৌধুরী (উটপাখি)। এ ওয়ার্ডে মোট ভোটার হচ্ছেন ১ হাজার ৭ শত ৮২ জন।

একমাত্র ভোট সেন্টার চরগাঁও শেখ আমিনা বিবি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়। ৪, ৫ ও ৬নং ওয়ার্ডে প্রার্থী হচ্ছেন ৫ জন তারা হলেন বর্তমান মহিলা কাউন্সিলর মোছাঃ রুকেয়া বেগম অটোরিক্সা) পূর্ণিমা রানী দাশ (আনারস), মোছাঃ তৈয়মুন্নেছা (জবাফুল), মোর্শেদা আক্তার নিতু (চশমা) ও রওশনারা বেগম (টেলিফোন)। ৭নং ওয়ার্ডে প্রার্থী হচ্ছেন ৩ জন তারা হলেন বর্তমান কাউন্সিলর মোঃ কবির মিয়া (পানির বোতল), সাবেক কাউন্সিলর আলহাজ্ব রুহুল আমিন রফু (উটপাখি) ও ফখরুজ্জামান চৌধুরী বুলবুল (পাজ্ঞাবী)। এ ওয়ার্ডে মোট ভোটার হচ্ছেন ২ হাজার ২ শত ৫৮ জন। ভোট সেন্টার নহরপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়।

৮নং ওয়ার্ডে প্রার্থী হচ্ছেন ৪ জন তারা হলেন বর্তমান কাউন্সিলর বাবুল চন্দ্র দাশ (টেবিল ল্যাম্প) সাবেক কাউন্সিলর সন্তষ দাস (পানির বোতল), দিব্যেন্দু ধর দীপন (উটপাখি) ও ইঞ্জিনিয়ার আলমগীর হোসেন চৌধুরী (ডালিম)। এ ওয়ার্ডে মোট ভোটার হচ্ছেন ২ হাজার ১ শত ৪২ জন। ভোট সেন্টার শিবপাশা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়। ৯নং ওয়ার্ডে কাউন্সিলর পদে প্রতিদ্বন্ধিতা করছেন ৬ প্রার্থী। তাদের মধ্যে বর্তমান কাউন্সিলর মোঃ আলাউদ্দিন (টেবিল ল্যাম্প), শেখ শাহনূর আলম ছানু (ডালিম), মোঃ ফজল আহমদ চৌধুরী (পাঞ্জাবী), শাহ ফজলুল করিম (গাজর), শেখ জগলুল হাসান (পানির বোতল) ও শাফি মিয়া তালুকদার (উটপাখি)। এ ওয়ার্ডে মোট ভোটার হচ্ছেন ২ হাজার ২ শত ৫০ জন। ভোট সেন্টার পূর্ব তিমিরপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় ও জয়নগর পৌর আইডিয়াল স্কুল।

৭, ৮ ও ৯নং ওয়ার্ডে প্রার্থী হচ্ছেন ৩ জন তারা হলেন বর্তমান মহিলা কাউন্সিলর সৈয়দা নাসিমা বেগম (আনারস), মোছাঃ শেলী বেগম (চশমা) ও মোছাঃ রাজিয়া বেগম (অটোরিক্সা)। নির্বাচন কমিশন সূত্রে জানা যায় কাউন্সিলর পদে ২নং ওয়ার্ডে মোঃ আব্দুল হাদী, ৪নং ওয়ার্ডে নিতেন দেব ও বিধান দেব তাদের মনোয়নপত্র প্রত্যাহার করেছেন।

জমি কেনাবেচার ক্ষেত্রে ২০১৭ ও ২০১৮ সালের সরকার নির্ধারিত বিভিন্ন মৌজায় সর্বনিম্ন বাজারমূল্য আগামী ২ বছর (২০২১ ও ২০২২ সাল) বহাল রাখার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। গতকাল বুধবার এ নির্দেশনা দিয়ে নিবন্ধন অধিদপ্তর থেকে পরিপত্র জারি করা হয়েছে।
করোনা সংক্রমণ পরিস্থিতির কারণে এমন সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। নিবন্ধন মহাপরিদর্শক শহীদুল আলম ঝিনুক স্বাক্ষরিত পরিপত্রে বলা হয়েছে, সম্পত্তির সর্বনিম্ন বাজারমূল্য নির্ধারণ বিধিমালা, ২০১০ অনুযায়ী বাজারমূল্য নির্ধারণ পদ্ধতি একটি ক্রমবর্ধমান মূল্য বৃদ্ধি প্রক্রিয়া।
অধিকাংশ মৌজায় সম্পত্তির সর্বনিম্ন বাজারমূল্য নির্ধারণ বিধিমালা অনুযায়ী নির্ধারিত মূল্য বিগত কয়েক বছরে প্রকৃত মূল্যের তুলনায় বৃদ্ধি পেয়েছে। আবার কোনো কোনো ক্ষেত্রে সর্বনিম্ন বাজারমূল্য প্রকৃত বাজারমূল্যের তুলনায় অনেক কম। অর্থাৎ সর্বনিম্ন বাজারমূল্য বিধিমালা অনুযায়ী নির্ধারিত মূল্য তালিকা অনেক ক্ষেত্রেই বাস্তব অবস্থাকে প্রতিফলিত করে না।
এতে আরও বলা হয়, বাস্তব ক্ষেত্রে প্রতিটি মৌজার অন্তর্ভুক্ত জমির অবস্থান বিবেচনায় মূল্যের পার্থক্য পরিলক্ষিত হয়। যেমনÑ কোন মৌজার কোন অংশে বাজার, রাস্তাঘাট অথবা স্কুল-কলেজ বা অন্য কোনো গুরুত্বপূর্ণ স্থাপনা থাকলে তার আশপাশের ভূমির মূল্য একই মৌজার সম-শ্রেণিভুক্ত অন্যান্য জমির তুলনায় অধিক হয়ে থাকে। কিন্তু
বর্তমান ব্যবস্থাপনায় প্রতিটি মৌজার অন্তর্ভুক্ত প্রতিটি শ্রেণির অবস্থান নির্বিশেষে পুরো জমির মূল্য একই হারে নির্ধারিত হয়, যা বাস্তবভিত্তিক নয়। সমস্যাটি সমাধানের লক্ষ্যে প্রতিটি মৌজার অন্তর্ভুক্ত জমিগুলোর অবস্থানগত প্রকৃতি বিবেচনায় নিয়ে মৌজাগুলোকে গুচ্ছ বা ক্লাস্টারে বিভক্ত করে জমির বাস্তবভিত্তিক মূল্য নির্ধারণ করা একান্ত আবশ্যক।
পরিপত্রে আরও বলা হয়েছে বর্তমানে দেশব্যাপী কোভিড-১৯ ভাইরাসজনিত অতিমারী পরিস্থিতি বিদ্যমান থাকায় সামগ্রিক অর্থনীতি সংকুচিত হওয়ায় জনগণের ক্রয় ক্ষমতা কমেছে। অন্যদিকে আবশ্যকতা থাকা সত্ত্বেও কিংবা অতি জরুরি প্রয়োজনেও নাগরিকরা জায়গা জমি বিক্রি করতে বাধার সম্মুখীন হচ্ছেন।
সার্বিক বিষয় বিবেচনায় নিয়ে বর্তমান প্রেক্ষাপটে সম্পত্তির সর্বনিম্ন বাজারমূল্য নির্ধারণ বিধিমালা, ২০১০ অনুযায়ী প্রণীত ২০১৭ ও ২০১৮ সালের জন্য প্রযোজ্য বাজারমূল্য তালিকা পরবর্তী ২ বছরের (২০২১ ও ২০২২ সাল) জন্য বহাল রাখতে নির্দেশ দেওয়া হয়েছে পরিপত্রে।
পাশাপাশি সংশ্লিষ্ট সর্বনিম্ন বাজারমূল্য নির্ধারণ কমিটিকে নিজ নিজ এখতিয়ারাধীন এলাকায় বাস্তবতার নিরিখে স্থানীয় জনপ্রতিনিধি ও সেবা গ্রহণকারী নাগরিকদের সঙ্গে যৌথভাবে মতবিনিময় করে আগামী ৬ মাসের মধ্যে গুচ্ছভিত্তিক সর্বনিম্ন বাজারমূল্য নির্ধারণ করে নিবন্ধন অধিদপ্তরে পাঠানোর জন্য বলা হয়েছে।আমাদের সময়

নূরুজ্জামান ফারুকী,বিশেষ প্রতিনিধিঃ  নরসিংদীর পলাশে দুই কবরস্থান থেকে রাতের আধারে সাতটি কঙ্কাল চুরির ঘটনা ঘটেছে। মঙ্গলবার (২৯ ডিসেম্বর) মধ্যরাতে উপজেলার ডাঙ্গা ইউনিয়নের কাজিরচর গ্রামের সামাজিক কবরস্থান ও ইসলামপাড়া কবরস্থান থেকে কঙ্কাল চুরির ঘটনা ঘটে।

পুলিশ ও স্থানীয়রা জানান, ডাঙ্গা ইউনিয়নের ৫-৬ গ্রামের লোকজন মারা গেলে তাদের কাজিরচর গ্রামের সামাজিক কবরস্থানে দাফন করা হয়। কবরস্থানটি গ্রামের একপাশে নির্জন স্থানে হওয়ায় আলোর ব্যবস্থা থাকলেও ছিল না পাহারাদার।

বুধবার (৩০ ডিসেম্বর) সকালে স্থানীয়রা কবরস্থানে গিয়ে দেখতে পায় কয়েকটি কবরের মাটি খোড়া। পরে তারা কবরস্থান কমিটির লোকদের খবর দিলে তারা এসে ছয়টি কবর খোড়া অবস্থায় দেখতে পান। কবরগুলোতে কোনো মরদেহের কঙ্কাল ছিল না। এদিকে ইসলামপাড়া কবরস্থানেও স্থানীয়রা সকালে কবর খোড়া অবস্থায় দেখতে পায়। সেখান থেকেও রাতে কঙ্কাল চুরি করেছে দুর্বৃত্তরা।

পলাশ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) শেখ মো. নাসির উদ্দিন বলেন, রাতে দুই কবরস্থান থেকে সাতটি কঙ্কাল চুরির ঘটনা ঘটেছে। কোনো কঙ্কালের মাথা আবার কোনোটার পা নিয়ে গেছে। আবার কোনটার পুরো কঙ্কাল নিয়ে গেছে। এ ঘটনায় মামলা প্রস্তুতি চলছে। তদন্ত সাপেক্ষে ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

শ্রীমঙ্গল প্রতিনিধিঃ কিশোরগঞ্জ জেলার ঐতিহাসিক শোলাকিয়া ঈদগাহ ময়দানের গ্র্যান্ড ইমাম, ইকরা বাংলাদেশ বোর্ডের প্রতিষ্ঠাতা চেয়ারম্যান, বেফাকুল মাদারিসিদ্দীনিয়া বাংলাদেশের প্রতিষ্ঠাতা চেয়ারম্যান মাওলানা ফরিদ উদ্দিন মাসউদ শ্রীমঙ্গল সফরে আসলে জামেয়া ইসলামিয়া শ্রীমঙ্গলের হিফয বিভাগ ও ইকরা বাংলাদেশ শ্রীমঙ্গল ২০২০ এর ৫ম শ্রেণির ছাত্রদের মেধা মুল্যায়ন পরীক্ষায় উত্তীর্ণ মেধাবীদের মাঝে পুরস্কার বিতরণ করেন।

মাওলানা ফরিদ উদ্দিন মাসউদ এর আগমন উপলক্ষে দু’আ ও ইসলাহী মাহফিলের আয়োজন করে অত্র মাদ্রাসা, বুধবার (৩০ ডিসেম্বর) দুপুরে পবিত্র কোরআন তেলাওয়াতের মাধ্যমে জামেয়ার মসজিদে অনুষ্ঠানের কার্যক্রম শুরু হয়। প্রধান অতিথির বক্তব্যে শিক্ষার্থীও সাধারণ মানুষসহ উলামায়ে কেরামের উদ্দেশ্যে আল্লামা ফরিদ উদ্দিন মাসউদ সংক্ষিপ্ত নসিহাত প্রদান করে ইকরা বাংলাদেশ শ্রীমঙ্গল ও জামেয়া ইসলামিয়ার সার্বিক পরিস্থিতি,  লেখাপড়ার মান ও ফলাফল নিয়ে ভূয়সী প্রশংসা করেন।

এ সময় উপস্থিত ছিলেন শ্রীমঙ্গল পৌরসভার ৭ নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর মীর এম এ সালাম, মাওলানা মুহাম্মদ আব্দুশ শাকুর, মুফতি মনির উদ্দিন, মাওলানা আবুল ফজল, মাওলানা শাহিদুর রহমান সালেহ, মাওলানা হাম্মাদ রাগিব, মাওলানা রফি উদ্দিন মাহমুদ চৌধুরী, হাফিজ মাওলানা ওয়ালি উল্লাহ, মাওলানা আযাদ আবুল কালাম, মাওলানা নুরুল আনোয়ার, মাওলানা তাওহিদুল ইসলাম মেনন, মাওলানা মঈনুল ইসলাম, মাওলানা সুফিয়ান আহমদ, হাফিজ জাহিদ হাসান, হাফিজ আব্দুল গফফার সাজু প্রমুখ। মাওলানা ফরিদ উদ্দিন মাসউদ এর দু’আর মাধ্যমে মাহফিলের সমাপ্তি হয়।

নড়াইল প্রতিনিধি:  আসন্ন নড়াইল পৌরসভা নির্বাচনে নড়াইল পৌরসভার আওয়ামীলীগের মনোনীত মেয়র পদপ্রার্থী নারীনেত্রী আঞ্জুমান আরা মনোনয়ন পত্র দাখিল করেছেন। আজ বুধবার জেলা নির্বাচন অফিসার মো ওয়ালিউল্লাহ এর নিকট আঞ্জুমান আরা মনোনয়ন পত্র জমা দেন।

জেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি অ্যাডঃ সুবাস চন্দ্র বোস, সাধারন সম্পাদক ও সদও উপজেলা চেয়ারম্যান মোঃ নিজাম উদ্দিন খান নিলু, সদর উপজেলা আওয়ামীরীগের সভাপতি অ্যাডঃ অচিন কুমার চক্রবর্তী,জেলা মহিলা আওয়ামীলীগের সভাপতি রাবেয়া ইউসুফ, সহ-সভাপতি গুলশান আরা, সাধারন সম্পাদক ইসমত আরা, আওয়ামীলীগ,মহিলা আওয়ামীলীগ, স্বেচ্ছা সেবকলীগ,যুবলীগ, ছাত্রলীগরসহ বিভিন্ন সংগঠনের নেতা কর্মিরা এ সময় উপস্থিত ছিলেন।

আসন্ন নড়াইল পৌরসভা নির্বাচনে মনোনয়ন পত্র জমাদানের শেষ তারিখ ৩১ ডিসেম্বর, বাছাই ৩ জানুয়ারি -২০২১, প্রত্যাহার ১০ জানুয়ারী , প্রতীক বরাদ্দ ১১ জানুয়ারী এবং নির্বাচন ৩০ জানুয়ারী-২০২১ অনুষ্ঠিত হবে।

আলী হোসেন রাজন,মৌলভীবাজারঃ গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকার ইউরোপিয়ান ইউনিয়ন ও ইউএনডিপি এর সহযোগিতায় বাংলাদেশ গ্রাম আদালত সক্রিয় করণ (২য় পর্যায়) প্রকল্পের আওতায় এবং জেলা প্রশাসনের আয়োজনে মৌলভীবাজারে গ্রাম আদালত পরিচালনায় হিসাব সহকারী কাম কম্পিউটার অপারেটরদের সম্পৃক্তকরণ শীর্ষক জেলা পর্যায় কর্মশালা দিনব্যাপি আনুষ্টিত হয়েছে। বুধবার (৩০ ডিসেম্বর) সকাল সাড়ে ১০টায় সার্কিট হাউজের মুনহলে দিনব্যাপি এই কর্মশালার শুভ উদ্বোধন করেন প্রধান অতিথি জেলা প্রশাসক মীর নাহিদ আহসান। মৌলভীবাজার স্থানীয় সরকার এর উপ-পরিচালক (অতি.দায়িত্ব) ও অতিরিক্ত জেলা মেজিস্ট্রেট তানিয়া সুলতানার সভাপতিত্বে গ্রামআদালত পরিচালনায় করণীয় নানা বিষয় তুলেধরে বক্তব্য রাখেন কমলগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা আশেকুল হক, শ্রীমঙ্গল উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা নজরুল ইসলাম, ইউএনডিপির ডিস্ট্রিক ফেসিলিটেটর মো. মাহাবুব উল আলম, জেলা প্রশাসক কার্যালয়ের সহকারী কমিশনার মো: রুহুল আমিন, ব্লাস্ট মৌলভীবাজার জেলা সমন্বয়কারী মো. কামাল হোসেন।
কর্মশালায় বলা হয়, মৌলভীবাজার জেলার ৪টি উপজেলা বড়লেখা,কমলগঞ্জ, শ্রীমঙ্গল ও কুলাউড়ায় গ্রাম-আদালতে জুলাই ২০১৭ থেকে নভেম্বর ২০২০ পর্যন্ত মোট ৭,৩৩৩টি মামলা দায়ের হয়েছে, যার মধ্যে নিস্পওি হয়েছে ৭,১৩৫টি। এসব মামলার মধ্যে সরাসরি ইউপিতে দায়ের হয়েছে ৭,০১০১ টি আর জেলা আদালত থেকে প্রেরিত হয়েছে ২৩২ টি। এ জেলায় গ্রাম আদালতে মামলা নিষ্পওির হার ৯৭ পার্সেন্ট। দায়েরকৃত মামলার মধ্যে পুরুষ আবেদনকারীর হার ৬৫ পার্সেন্ট আর নারী আবেদনকারীর হার হচ্ছে ৩৫ পার্সেন্ট। গ্রাম আদালতের মাধ্যমে ৩২,৭৬৮,৮০০,০০ টাকা ক্ষতিপূরণ হিসেবে আদায় করে ক্ষতিগ্রস্থ পক্ষকে প্রদান করা হয়েছে । কর্মশালায় উপস্থিত ছিলেন জেলার বিভিন্ন ইউনিয়নের চেয়ারম্যানবৃন্দ, সাংবাদিক ও হিসাব সহকারী কাম কম্পিউটার অপারেটররা।

আমার সিলেট ডেস্কঃ  দক্ষিণ এশিয়ার বৃহত্তম মানবাধিকার সংগঠন সার্ক মানবাধিকার ফাউন্ডেশন এর কেন্দ্রীয় উপদেষ্টা মন্ডলীর চেয়ারম্যান র.আ.ম উবায়দুল মোকতাদির চৌধুরী এমপির সম্মতিতে কার্যনির্বাহী কমিটির বোর্ড সভার সিদ্ধান্তক্রমে সুপ্রীম কোর্টের আপিল বিভাগের প্রাক্তন বিচারপতি, ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জের (ডিএসই) সাবেক চেয়ারম্যান, ইসলামিক ফাউন্ডেশনের গভর্নর বিচারপতি ছিদ্দিকুর রহমান মিয়াকে সার্ক মানবাধিকার ফাউন্ডেশন এর সভাপতি হিসেবে মনোনীত করা হয়।

তিনি ইতিপূর্বে রাষ্ট্রের গুরুত্বপূর্ণ দায়িত্বে থেকে দেশের উন্নয়ন অগ্রগতি ও মানবতার কল্যাণে কাজ করেছেন। বিচার বিভাগে সুনামের সাথে দীর্ঘদিন দক্ষতা ও বিচক্ষণতার পরিচয় দিয়ে দায়িত্ব পালন করেছেন। ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জের (ডিএসই) চেয়ারম্যান হিসেবে দায়িত্ব পালনকালে দক্ষতা, নিষ্ঠা ও সততার পরিচয় দিয়েছেন। তিনি বর্তমানে ইসলামিক ফাউন্ডেশন এর বোর্ড অফ গভর্নর এর সদস্য হিসেবে সম্প্রতি মনোনীত হয়েছেন।

উল্লেখ্য, বিচারপতি ছিদ্দিকুর রহমান মিয়ার জন্ম ১৯৪৬ সালের ২জুন। তিনি ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের রাজনীতি বিজ্ঞান বিভাগ থেকে বি এ, এম এ, লোক প্রশাসন বিভাগ থেকে এম এ এবং আইন বিভাগ থেকে এলএলবি ডিগ্রি অর্জন করেন। ১৯৭৬ সালের ১ জানুয়ারি মুন্সেফ হিসেবে যোগদান করেন এবং পরে জেলা ও দায়রা জজ হিসেবে পদোন্নতি পান। ২০০২ সালের ২৯ জুলাই তিনি হাইকোর্টের অতিরিক্ত বিচারপতি হিসেবে নিয়োগ পান। ২০০৪ সালের ২৯ জুলাই স্থায়ী বিচারপতি এবং পরবর্তীতে সুপ্রীমকোর্টের আপিল বিভাগের বিচারপতি হিসেবে কর্মজীবন শেষ করেন।

সার্ক মানবাধিকার ফাউন্ডেশন এর প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি বিচারপতি আবদুস সালাম এর মৃত্যুতে সভাপতি পদ শূন্য হলে সংগঠনের নীতিনির্ধারণী সভায় ২০২১-২০২৩ সালের জন্য বিচারপতি ছিদ্দিকুর রহমান মিয়াকে সভাপতি হিসেবে মনোনীত করা হয়।

নূরুজ্জামান ফারুকী বিশেষ প্রতিনিধি: গোলাপগঞ্জের হেতিমগঞ্জে সিলেট-বিয়ানীবাজার সড়কে ট্রাকের পেছনে প্রাইভেট কারের ধাক্কায় কারের গ্যাস সিলিন্ডার বিস্ফোরণে ৩ জনের মৃত্যুহেয়েছে।

আজ বুধবার (৩০ ডিসেম্বর) ভোর সাড়ে ৫টার দিকে হেতিমগঞ্জ পশ্চিম বাজার এলাকার মোল্লাগ্রাম সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সামনে ঘটেছে। খবর পেয়ে ফায়ার সার্ভিসের একটি দল ঘটনাস্থলে পৌঁছে আধাঘণ্টা চেষ্টা চালিয়ে আগুন নিয়ন্ত্রণে আনে এবং তিনজনের মৃতদেহ প্রাইভেট কার থেকে উদ্ধার করে।
জানা যায় প্রাইভেট কারটি ট্রাকের পেছনে ধাক্কা দিলে কারের গ্যাস সিলিন্ডারে বিস্ফোরণ ঘটে এবং গাড়িতে আগুন ধরে যায়।

গোলাপগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মোহাম্মদ হারুনুর রশীদ চৌধুরী তিনজনের মৃত্যুর খবর নিশ্চিত করলেও তাৎক্ষনিকভাবে তাদের নাম এবং পরিচয় জানাতে পারেননি।
তিনি বলেন, ঘটনাস্থলে পুলিশ রয়েছে। তিনজনের মৃতদেহ উদ্ধার শেষে সিলেট এমএজি ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে প্রেরণ করা হয়েছে।

পিন্টু অধিকারী মাধবপুর:  মুজিববর্ষে কোভিড ১৯ এর স্বাস্থ্যবিধি অনুসরন করে উপজেলা পর্যায়ে জনসচেতনতা সৃষ্টির লক্ষ্যে হবিগঞ্জের “মাধবপুরে খাদ্যের নিরাপত্তা শীর্ষক সেমিনার ” অনুষ্টিত হয়েছে সোমবার (২৮ ডিসেম্বর) সকাল থেকে দুপুর পর্যন্ত উপজেলা পরিষদের কনফারেন্স রুমে।বাংলাদেশ নিরাপদ খাদ্য কতৃপক্ষের আয়োজনে ও উপজেলা প্রশাসনের সহযোগীতায় উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা তাসনূভা নাশতারানের সভাপতিত্বে ও জেলা নিরাপদ খাদ্য অফিসার হাবিবুর রহমানের সঞ্চালনায় অনুষ্টিত সেমিনারে বক্তব্য রাখেন মুক্তিযোদ্ধা সুকোমল রায়, মাধবপুর থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মোঃ ইকবাল হোসেন,সহকারী শিক্ষা কর্মকর্তা রফিকুল নাজিম, প্রেসক্লাব সেক্রেটারী সাব্বির হাসান, সাংবাদিক আইয়ুব খান। সেমিনারে জনপ্রতিনিধি, উপজেলার বিভিন্ন কর্মকর্তা,কর্মচারি ও বিশিষ্ট ব্যাক্তিবর্গ উপস্থিত ছিলেন।

মামলা প্রত্যাহারের হুমকিতে আতঙ্কে নিহত পরিবারের সদস্যরা 

কমলগঞ্জ প্রতিনিধি: জমি সংক্রান্ত বিরোধের জের ধরে মৌলভীবাজারের কমলগঞ্জ উপজেলার সীমান্তবর্তী ইসলামপুর ইউনিয়নের কালারায়বিল গ্রামে গত ২৬ নভেম্বর ছোট ভাইয়ের কোদালের আঘাতে গুরুতর আহত কৃষ্ণ কান্ত সিংহ (৭০) সিলেট এম এ জি ওসমানী মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে ৪ দিন মৃত্যুর সাথে লড়ে ৩০ নভেম্বর বিকেলে তিনি মৃত্যুবরণ করেন। আহত বড় ভাইয়ের মৃত্যুর খবর শুনে ঘাতক ছোট ভাই লাল মোহন সিংহ (৫০) স্বপরিবারে পলাতক রয়েছে। এ ঘটনার এক মাসের অধিক সময় পার হলেও পুলিশ আসামীকে গ্রেফতার করতে পারেনি। বরং আসামী পক্ষের লোকজন মামলাটি প্রত্যাহার করে নিতে নিহতের পরিবারের সদস্যদের নানাভাবে হুমকি প্রদান করে যাচ্ছে বলে অভিযোগ করেন নিহত কৃষ্ণকান্ত সিংহের মেয়ে রুমা সিনহা।

ঘাতক ছোট ভাই লাল মোহন সিংহ (৫০) কুলাউড়া উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার অফিসে ডুপ্লিকেটিং অপারেটর পদে চাকুরি করেন। ঘটনার পর থেকে খুনী ছোট ভাই স্ব-পরিবারে পলাতক রয়েছে।

এ ব্যাপারে কমলগঞ্জ থানায় একটি হত্যা মামলা দায়ের করা হয়েছে। কুলাউড়া উপজেলঅ নির্বাহী অফিসার এ, টি, এম ফরহাদ চৌধুরী জানান, গত এক মাস ধরে তাঁর কার্যালয়ের ডুপ্লিকেটিং অপারেটর অনুপস্থিত রয়েছেন, বেতন-ভাতাও বন্ধ রয়েছে। আদালতের নির্দেশনা আসলে তার বিরুদ্ধে যখাযথ ব্যবস্থা নেয়া হবে।

এদিকে নিহত কৃষ্ণকান্ত সিংহের মেয়ে রুমা সিনহা বলেন, দীর্ঘদিন ধরে ছোট কাকা ভাই লাল মোহন সিংহের সাথে জমিজমা নিয়ে বিরোধ চলছিল তার বাবা কৃষ্ণ কান্ত সিংহের। ঘটনার দিন সকালে বাড়ির পার্শ্বের জমিতে সবজি ক্ষেত পরির্চচা করতে জমিতে গেলে কৃষ্ণ কান্ত সিংহকে কোদাল দিয়ে মাথায় কুপ দেয় ছোট কাকা লাল মোহন সিংহ। মাথায় কুপের কারণে কৃষ্ণ কান্ত সিংহকে গুরুত্ব আহতাবস্থায় সিলেট এম এ জি ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। এ রাতেই তার অবস্থার অবনতি হলে নিবির পর্যবেক্ষণ ইউনিটে (আইসিইউতে) নেয়া হয়। সেখানে চিকিৎসাধীন অবস্থায় ৩০ নভেম্বর সন্ধ্যায় তার মৃত্যু হলে ওই রাতেই তিনি বাদি হয়ে কমলগঞ্জ থানায় একটি হত্যা মামলা দায়ের করেন। তিনি আরও বলেন, দীর্ঘ এক মাস অতিবাহিত হলেও পুলিশ হত্যাকারী কাকা লাল মোহন সিংহকে গ্রেফতার করতে পারেনি। উল্টো ঘাতক কাকার লোকজন তাদেরকে নানাভাবে হুমকি প্রদর্শণ করছেন। তাই তারা এখন আতঙ্কে আছেন। হত্যাকারীকে অবিলম্বে গ্রেফতার করে দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি দাবি করি।

মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা কমলগঞ্জ থানার উপ-পরিদর্শক ফজলে এলাহী জানান, ঘটনার পর থেকেই আসামীরা পলাতক রয়েছে। ময়না তদন্ত পাওয়ার জন্য আদালতে আবেদন জানানো হয়েছে।

কমলগঞ্জ থানার অফিসার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. আরিফুর রহমান বলেন, হত্যা মামলার আসামীদের গ্রেফতারের সর্বোচ্চ চেষ্টা করা হচ্ছে। সেইসাথে পরিবারকে হুমকির বিষয়টি পুলিশ খতিয়ে দেখছে।

নিজস্ব প্রতিনিধিঃ আল-আরাফাহ ইসলামী ব্যাংক রুপসপুর শাখা শ্রীমঙ্গল এর উদ্যোগে শিতার্থদের মাঝে মঙ্গলবার (২৯ ডিসেম্বর) বিকাল ৪ টায় আল আরাফাহ ইসলামী ব্যাংক এর শাখা কার্যালয়ে কম্বল বিতরণ অনুষ্ঠিত হয়।

এ সময় আল-আরাফাহ ইসলামী ব্যাংক রুপসপুর শাখার সিনিয়র এক্সিকিউটিভ অফিসার মহসিন উদ্দিন’র সঞ্চালনা ও শাখা ম্যানেজার এভিপি কয়ছর খান’এর সভাপতিত্বে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন শ্রীমঙ্গল পৌর মেয়র মোঃ মহসিন মিয়া মধু। এসময় বক্তব্য রাখেন শাখার অপারেশন ম্যানেজার আব্দুল কাদির কোরেশী,বিশিষ্ট ব্যবসায়ী কদর আলী,সাংবাদিক সরফরাজ আলী বাবুল,শ্রীমঙ্গল পৌর কাউন্সিলর মীর এম এ সালাম।

এসময় উপস্থিত ছিলেন শ্রীমঙ্গল অনলাইন প্রেসক্লাবের সভাপতি আনিছুল ইসলাম আশরাফী ,সাংবাদিক আমজাদ হোসেন ও সৈয়দ আবু জাফর সালাহ উদ্দিনসহ উক্ত শাখার বিভিন্ন শ্রেণীর কর্মকর্তা কর্মচারি,ব্যাংক গ্রাহকসহ প্রমুখ ব্যাক্তিবর্গ।

নূরুজ্জামান ফারুকী বিশেষ প্রতিনিধি:  সিলেটের দক্ষিণ সুনামগঞ্জের কুতুবপুর গ্রামে মেয়ের ইটের আঘাতে মা নিহত হয়েছে। সোমবার (২৮ডিসেম্বর) দিবাগত রাত দুইটার দিকে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তার মৃত্যু হয়।  এর আগে রাত ১০ টায় দক্ষিণ সুনামগঞ্জ উপজেলার শিমুলবাক ইউনিয়নের আক্তাপাড়া গ্রামে এ ঘটনা ঘটে। নিহত শফিকুন নেছা আক্তাপাড়া গ্রামের ইস্কন্দর আলীর স্ত্রী এবং ঘাতক মেয়ে হালিমা বেগম (২২) আক্তাপাড়া গ্রামের ইস্কন্দর আলী ও মৃত সফিকুন নেছা দম্পতির মেয়ে হয়। ঘাতক হালিমা বেগম ২ সন্তানের জননী ও ৭ মাসের অন্তঃসত্ত্বা বলে জানা যায়। তবে হালিমা বেগম মানসিক ভারসাম্যহীন বলে জানা যায়।

পারিবারিক সূত্র জানায়,নিহত সফিকুন নেছার মেয়ে হালিমা বেগম (২২) বছরের বেশীর ভাগ সময়ই ভারসাম্যহীন থাকে। বিগত ৩-৪ বছর পূর্বে হালিমা বেগমকে সুনামগঞ্জের জামালগঞ্জ উপজেলার কামলাবাজ গ্রামে আলী নুর এর সাথে বিয়ে দেওয়া হয়। বিয়ের পর বেশীর ভাগ সময়ই মানসিক ভারসাম্যহীন থাকায় হালিমা বেগম তার বাবার বাড়ি আক্তাপাড়া গ্রামে বসবাস করে আসছিল।

সোমবার (২৮ ডিসেম্বর) রাত ১০ টায় তার মা মৃত মোছা. সফিকুন নেছা হালিমা বেগমের রাতের বিছানা গুছিয়ে খাবার দিতে গেলে লোহার শিকলে বাঁধা হালিমা বেগম পাশে থাকা ইট দিয়ে তার মা সফিকুন নেছার মাথায় উপর্যুপরি আঘাত করে। এতে সফিকুন নেছার মাথা থেঁতলে যায়।

তাৎক্ষনিকভাবে পরিবারের লোকজন মোছা. সফিকুন নেছাকে সুনামগঞ্জ সদর হাসপাতালে নিয়ে গেলে মঙ্গলবার রাত ২ টায় কর্তব্যরত ডাক্তার সফিকুন নেছাকে মৃত ঘোষণা করেন।

পরে সুনামগঞ্জ সদর থানা পুলিশ লাশ উদ্ধার করে ময়না তদন্তের জন্য সুনামগঞ্জ সদর হাসপাতালের মর্গে প্রেরণ করেন। এ ঘটনায় দক্ষিণ সুনামগঞ্জ থানায় মামলা দায়েরের প্রস্তুতি চলছে।

দক্ষিণ সুনামগঞ্জ থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) কাজী মোক্তাদির হোসেন ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত  করে ঘটনার সুষ্ঠু তদন্ত সাপেক্ষে আইনি পদক্ষেপ গ্রহণ করবেন জানিয়েছেন।

জাতীয়তাবাদি সামাজিক-সাংস্কৃতিক সংস্থা (জাসাস) এর ৪২তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উপলক্ষে ২৭ ডিসেম্বর রবিবার সিডনি নগরীর লাকাম্বায় এক অনুষ্ঠানে কেক কাটলেন নেতা-কর্মীরা।
জাসাস অস্ট্রেলিয়া শাখার সভাপতি আব্দুস সামাদ শিবলুর সভাপতিত্বে এবং সেক্রেটারি মোঃ জুমান হোসান পরিচালনায় অনুষ্ঠানে আরও বক্তব্যে রাখেন অস্ট্রেলিয়া বিএনপির নেতা ও বিএনপির কেন্দ্রীয় আন্তর্জাতিক বিষয়ক কমিটির সদস্য  রাশেদুল হক,  ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় সাবেক ছাত্রনেতা রুহুল আমিন,যুগ্ম আহবায়ক তাওহিদুল ইসলাম, ফারুক আমিন,যুগ্ম সদস্য সচিব ও জাতীয়তাবাদী আইনজীবী ফোরাম এর জয়েন্ট সেক্রেটারি এডভোকেট শিবলু গাজী,জাসাস অস্ট্রেলিয়া শাখার সিনিয়র সহ সভাপতি ডাঃ শাহজাহান,সাংগঠনিক সম্পাদক (সিডনি) এ কে মানিক  ও মানবাধিকার সম্পাদক অ্যাডভোকেট ফারহানা শারমিন প্রমূখ।
দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়ার আশু আরোগ্য ও সুস্থতার কামনা, দেশবাসী ও দলের নেতাকর্মীদের করোনা ও অন্যান্য রোগে মৃত্যুবরণে তাদের আত্মার মাগফেরাত কামনায় নেতারা দোয়ায় অংশগ্রহণ করেন।
বক্তারা বলেন , জাসাসের ঐতিহাসিক ভূমিকা  রয়েছে বাংলাদেশের গণতান্ত্রিক আন্দোলনে। সে ধারা অটুট রেখে প্রবাসেও কাজ করছে। নব্য স্বৈরাচারের কবলে পড়ে বাংলাদেশের গণতান্ত্রিক প্রতিষ্ঠান আজ ক্ষত-বিক্ষত। এতে রক্ষায় সকলকে বিএনপির পতাকাতলে ঐক্যবদ্ধ হতে হবে। প্রবাস প্রজন্মে বাংলাদেশী সংস্কৃতি বিকাশে আমরা কাজ করবো সর্বস্তরের প্রবাসীকে সাথে নিয়ে।প্রেস বার্তা

  

এডিটর: আনিছুল ইসলাম আশরাফী, এনিমেটরস্ বাংলা মিডিয়া গ্রুপ কর্তৃক প্রকাশিত
সম্পাদকীয় কার্যালয়: কলেজ রোড, শ্রীমঙ্গল, মৌলভীবাজার।
Email: news.amarsylhet24@gmail.com Mobile: 01772 968 710

Developed By : i-Tech Sreemangal
Email : itech.official@hotmail.com
Facebook : http://facebook.com/itech.ctc