Thursday 3rd of December 2020 05:20:34 PM

নিজস্ব প্রতিনিধিঃ  অবশেষে ধরা পড়লেন শ্রীমঙ্গল আবাসিক হোটেলে ধর্ষণের অভিযোগে ধর্ষক হাসান মিয়া (২১) পিতা মোঃ হাকিম মিয়া গ্রাম দিলবরনগর।মৌলভীবাজার জেলার শ্রীমঙ্গল উপজেলার রাধানগরের হাসান ট্রেইলারের মালিক মোঃ হাসান মিয়া নামের এই ব্যক্তি তার প্রেমিকাকে বিয়ের আশ্বাস দিয়ে গাজীপুর থেকে নিয়ে আসা খুলনার বিশোর্ধ এক নারী জেমির (ছদ্মনাম) অভিযোগের ভিত্তিতে বারবার অভিযান চালানোর এক পর্যায়ে মোবাইল ট্রাকিং এর মাধ্যমে ১৬ নভেম্বর সোমবার দিবাগত গভীররাতে তাকে গ্রেফতার করে স্থানীয় থানার পুলিশ।

পুলিশের সূত্রে জানা গেছে, আটকের পর জিজ্ঞাসাবাদে স্বীকারোক্তির পরে বিজ্ঞ আদালতের মাধ্যমে জেলহাজতে প্রেরণ করা হয়েছে আসামী হাসান মিয়াকে।
জানা যায়, গতরাতে শ্রীমঙ্গল থানার ওসি আব্দুল ছালিক দুলাল এর নির্দেশনায় এসআই রুকন,এসআই আলামিন ও এসআই তিথঙ্করসহ পুলিশের একটি টিম অভিযান চালিয়ে রাধানগর এলাকার একটি পাহাড়ি ঢিলা থেকে তাকে আটক করে থানায় নিয়ে আসেন।

ঘটনার বিবরণে জানা যায়,খুলনা জেলার লবণচোরা জিন্নাপাড়া এলাকার স্থায়ী বাসিন্দা ওই নারী (ছদ্মনাম জেমি) গাজীপুরে থাকতেন। শ্রীমঙ্গল উপজেলার দিল্বরনগর গ্রামে বসবাস কারী ও রাধানগর এলাকায় দর্জির দোকানদার প্রেমিক হাসানের বিয়ের আশ্বাসে “শ্রীমঙ্গলে শহরের মৌলভীবাজার রোডস্থ আবাসিক একটি হোটেলে নিয়ে এসে এখানে কয়েকদিন থাকার কথা বলে প্রেমিক হাসান।এ সময় হোটেল রেজিস্টারে নাম উঠানো লাগবেনা বলে হোটেলে কর্মরত এক মহিলা কর্মী জানান বলে ভিকটিম জেমি (ছদ্মনাম) এ প্রতিনিধিকে জানান। জেমি আরও জানান, দু দিনে কমপক্ষে ৮ থেকে ১০ বার থাকে অনৈতিক কাজ করতে বাধ্য করা হয়েছে। একপর্যায়ে “অন্য পুরুষের হাতে তুলে দিতে চেষ্টা করলে আমি আপত্তি জানাই পরে আমাকে একা রেখে হোটেল থেকে পালিয়ে যায় হাসান।তাকে খুঁজে না পেয়ে তার এলাকায় গিয়ে স্থানীয়দের কাছে অভিযোগ করলে কয়েকজন আমাকে থানায় নিয়ে আসে এবং এক পর্যায়ে থানায় আমাকে রেখে ওরাও চলে যায়।” কথা বলার সময় ওই নারীকে কিছুটা অস্বাভাবিক অবস্থায় দেখা যায়। এ প্রতিনিধির সাথে ঘটনার দিন তারিখ এমনকি যেদিন মামলা করতে এসেছে ওই দিনটিতে কি বার ছিল তাও সে বলতে পারেনি।

তিনি এ প্রতিনিধিকে আরও বলেন, “নিরুপায় হয়ে হাসানকে খুঁজতে অটোরিকশা নিয়ে আবারও তার দোকানে (হাসান ট্রেইলারস) যাওয়ার সময় শ্রীমঙ্গলের ভানুগাছ রোডের রাবার বাগানের পাশে আমাকে আটকিয়ে মারপিঠ করে নির্যাতন করে গুরুতর আহত করে প্রায় ১৬ হাজার টাকা,মোবাইল,ভ্যানিটি ব্যাগ,কাপর চোপর সব নিয়ে যায়। পরে আহতাবস্থায় পথচারীদের সহযোগিতায় শ্রীমঙ্গল উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে গত শনিবার সন্ধ্যায় ভর্তি হয়ে চিকিৎসারত ছিলাম রোববার (১৫ নভেম্বর) দুপুরে সশরীরে এসে শ্রীমঙ্গল থানায় অভিযোগ দ্বায়ের করেন ধর্ষিত নারী জেমি (ছদ্মনাম)। কথা বলার সময় জেমি বারবার সিসিটিভি চেক করে তার বিচারের ব্যবস্থা করার জন্য কাঁদতে থাকেন এবং বলতে থাকে হোটেল রেজিস্টারে তার কোন দস্তখত নেওয়া হয়নি সিসিটিভি দেখলেই সব পাওয়া যাবে, সিসিটিভি কেউ দেখতে চাইনা” বলে বারবার অভিযোগ করেন।

পরে হাসপাতাল থেকে থানায় এসে ওই নারী বিয়ের প্রলোভনে প্রতারণা করে ধর্ষণ, নির্যাতন, টাকা-পয়সা (প্রায় ১৬ হাজার টাকা ) ও এন্ডড্রইয়েট মোবাইল ছিনিয়ে নেওয়ার অভিযোগ করেন।

অভিযোগের ভিত্তিতে শ্রীমঙ্গল থানার কর্মকর্তা ওসি আব্দুস ছালিকের নির্দেশক্রমে এস আই তিথঙ্কর দাস পুলিশ সদস্যদের সহযোগিতায় আহত নারীকে মৌলভীবাজার ২৫০ শয্যা বিশিষ্ট হাসপাতালে শারীরিক পরীক্ষা-নিরীক্ষা ও চিকিৎসার জন্য প্রেরণ করেন। এখনো তিনি পুলিশ প্রহরায় চিকিৎসাধীন রয়েছে।

এ ব্যাপারে মামলার আইও তিথংকর দাসের সাথে কথা হলে তিনি বলেন “আমরা মেয়েটিকে হাসপাতালে চিকিৎসার জন্য পাঠিয়েছি।পরীক্ষা-নিরীক্ষার পর জানা যাবে। অপরদিকে ঘটনার বর্ণনায় যে তারিখ মামলায় ব্যবহার করেছে সে তারিখ অনুযায়ী সিসিটিভি চেক করা হয়েছে তাতে তার উপস্থিতি পাওয়া যায়নি যতটুকু পাওয়া গেছে ঘটনার পরবর্তীর ফুটেজ।”

ধর্ষণ ও নির্যাতনের অভিযোগের ব্যাপারে জানতে চাইলে ওসি আব্দুস ছালিক দুলাল বলেন, “মেয়েটির অভিযোগের ভিত্তিতে তাকে চিকিৎসা ও পরীক্ষার জন্য মৌলভীবাজার সদর হাসপাতালে প্রেরণ করা হয়েছে,অভিযোগের পর থেকে আমরা বিভিন্ন জায়গায় অভিযান পরিচালনা করে শেষ পর্যায়ে রাধা নগর এলাকার একটি পাহাড়ের চূড়া থেকে তাকে বিশেষ কৌশলে আটক করতে সক্ষম হয়েছি, এবং বিজ্ঞ আদালতের মাধ্যমে কারাগারে প্রেরণ করা হয়েছে।পরবর্তীতে সেক্সুয়াল অ্যাসল্ট এর রিপোর্ট ও বিজ্ঞ আদালতের দেওয়া নির্দেশ মতে আইনানুগ ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

পূর্বের নিউজ এর লিঙ্ক

বিয়ের প্রলোভনে শ্রীমঙ্গল আবাসিক হোটেলে ধর্ষণের অভিযোগ

সিলেটের কুমারগাঁও গ্রিড লাইনের আগুন নিয়ন্ত্রণে

নূরুজ্জামান ফারুকী বিশেষ প্রতিনিধি: সিলেটের কুমারগাঁও পল্লী বিদ্যুতের গ্রিড লাইনের আগুন নিয়ন্ত্রণে এসেছে। ট্রান্সমিটারের জ্বালানি তেল থেকে আগুন ছড়িয়ে পড়ায় নিভতে সময় লাগবে বলে ফায়ার সার্ভিসের কন্ট্রোলরুম থেকে জানানো হয়েছে।

অপরদিকে সিলেট পল্লী বিদ্যুৎ উন্নয়ন ও বিতরণ বিভাগের প্রধান প্রকৌশলী মোকাম্মেল হোসেন বলেছেন, কখন বিদ্যুৎ সরবরাহ কখন স্বাভাবিক হবে নিশ্চিত করে বলা যাচ্ছে না।

মঙ্গলবার (১৭ নভেম্বর) সকাল সাড়ে ১১টার দিকে কুমারগাঁও পল্লী বিদ্যুতের ১২০ মেগাওয়াট বিদ্যুৎ কেন্দ্রে (গ্রিডে) আগুনের সূত্রপাত হয়। ফলে পুরো সিলেটের বিদ্যুৎ সরবরাহ বিচ্ছিন্ন হয়ে পড়ে। আগুন নিয়ন্ত্রণে ফায়ার সার্ভিসের ৪টি ইউনিট কাজ করছে।

অন্যদিকে আগুন নিয়ন্ত্রণ করতে গিয়ে ফায়ার সার্ভিসের জয়ন্ত কুমার নামের এক সদস্য আহত হন। তাকে সিলেট ওসমানী মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে বলে জানা গেছে।

নূরুজ্জামান ফারুকী বিশেষ প্রতিনিধি : ভারতের  কলকাতায় হিন্দু ধর্মাবলম্বীদের কালী পূজার একটি অনুষ্ঠানে অংশ নেওয়ায় সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে লাইভ ভিডিওতে দা উঁচিয়ে ক্রিকেটার সাকিব আল হাসানকে হত্যার হুমকিদাতা মহসিন তালুকদারকে গ্রেফতার করেছে র‌্যাব।

আজ মঙ্গলবার (১৭ নভেম্বর) সকালে সিলেট র‌্যাব-৯ ও সুনামগঞ্জের র‌্যাব-পুলিশ যৌথ অভিযান চালিয়ে তাকে সুনামগঞ্জ জেলার দক্ষিণ সুনামগঞ্জের মাইগাঁও থেকে গ্রেফতার করেছে।

আজ মঙ্গলবার (১৭ নভেম্বর) দুপুরে তাকে সিলেট মহানগর পুলিশের জালালাবাদ থানায় হস্তান্তর করার কথা রয়েছে। এর আগে সোমবার (১৬ নভেম্বর) মহসিন তালুকদারের বিরুদ্ধে ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে জালালাবাদ থানায় এসআই মাহবুব মোর্শেদ বাদী হয়ে মামলা দায়ের করেন। গ্রেফতারকৃত মহসিন তালকুদার জালালাবাদ থানাধীন শাহপুরের তালুকদারপাড়ার আজাদ বক্স তালুকদারের ছেলে।

বিষয়টি নিশ্চিত করে মহানগর পুলিশের উপ-পুলিশ কমিশনার (গণমাধ্যম) আশরাফ উল্লাহ তাহের সংবাদমাধ্যমকে জানান, সুনামগঞ্জ থেকে র‌্যাব-পুলিশ যৌথ অভিযান চালিয়ে মহসিন তালুকদারকে গ্রেফতার করেছে।  ফেসবুক লাইভে এসে দাঁ উচিয়ে ক্রিকেটার সাকিব আল হাসানকে হত্যার হুমকির জন্য পুলিশ বাদী হয়ে থানায় মামলা করেছে।

জানা যায়, রবিবার (১৫ নভেম্বর) দিবাগত রাত ১২টা ৭ মিনিটে ফেসবুক লাইভ ভিডিওতে দা উঁচিয়ে হত্যার হুমকি দেন মহসিন। পূজার অনুষ্ঠানের নিমন্ত্রণ গ্রহণ করে সাকিবের কলকাতায় যাওয়ায় বিক্ষুব্ধ হয়ে তাকে কুপিয়ে টুকরো করে হত্যার কথা বলেন ওই যুবক। এ সময় অকথ্য ভাষায় সাকিবকে গালাগাল করতে থাকেন তিনি। এ ভিডিওতে মহসিন নিজের পরিচয় প্রকাশ করে বলেন, সাকিবকে হত্যা করতে প্রয়োজনে তিনি হেঁটেই ঢাকা যাবেন। পরে একই দিনে ভোর ৬টা ৪ মিনিটে আবারও লাইভ ভিডিওতে হাজির হন তিনি। তবে রাতের উত্তেজিত ভিডিওর জন্য দুঃখ প্রকাশ করে সাকিব আল হাসানকে জাতির কাছে ক্ষমা চাওয়ার আহ্বান জানান ওই যুবক।

জহিরুল ইসলাম.স্টাফ রিপোর্টার: অর্থের অভাবে চিকিৎসা হচ্ছে না রিয়া’র মৌলভীবাজারের শ্রীমঙ্গলে অর্থে অভাবে মা বাবা মেয়ের চিকিৎসার জন্য সমাজের বিত্তবানদের কাছে আবেদন।
বাবা মায়ের চোখের সামনেই সন্তানের জীবন প্রদীপ আজ নিভতে বসেছে। টাকার অভাবে চোখের সামনেই সন্তানকে হারিয়ে ফেলবেন কোন বাবা মায়ের পক্ষেই এটা সহ্য করা সম্ভব নয়। মেয়েকে বাঁচাতে বাবা মো. দেলোয়ার হোসেন কেঁদে কেঁদে বলেন আমা রিয়াকে বাঁচান। নিজের চোখের সামনে মেয়ের এমন অবস্থা সহ্য করার মতো নয় । মৌলভীবাজার জেলার শ্রীমঙ্গল উপজেলার সিন্দুরখাঁন ইউনিয়নের নোয়াগাঁও গ্রামে। রিয়া নোয়াগাঁও সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের ৪র্থ শ্রেনীর ছাত্রী। তার বয়স ১০ বছর।

পরিবার সুত্রে জানা যায়, তার ৫ মাস বয়স থেকে হার্টের সমস্যা ধরা পরে। এর পর থেকে মাঝে মাঝে অসুস্থতা দেখা দিলে চিকিৎসা নিলে কিছু দিন সুস্থ থাকে। এভাবেই দীর্ঘ ১০ টি বছর পার হয়ে যায়। দরিদ্র পরিবারে জন্ম নেওয়ায় অর্থের অভাবে তার স্থায়ী কোন চিকিৎসা করা হয়নি। সম্প্রতি পরীক্ষা নিরীক্ষা পর চিকিৎসক জানান রিয়ার হার্টের মধ্যে ছিদ্র হয়েছে। বর্তমানে সে অসুস্থতায় ভোগছে। তার বাবা একজন ভ্যান চালক। টাকার অভাবে চিকিৎসকের দেওয়া ওষুধ খরচ বহন করার কষ্টসাধ্য হয়ে পড়ছে তার। অন্যদিকে চিকিৎসক বলেছেন তাকে বাঁচাতে হলে সম্পূর্ণ চিকিৎসার খরচ বাবদ ৩লক্ষ ৬০ হাজার টাকার প্রয়োজন। বর্তমানে তার পরিবারের চোখের পানি ফেলা ছাড়া আর কোন পথ নেই।

সদা হাসিখুশি থাকা মেয়েটি এখন বিছানায় শুয়ে আছে। পূর্বের মতো খেলাধুলা করতে পারে না। অসুস্থ্যতায় তার বাবা-মা কান্নায় ভেঙে পড়ছেন। তবে চিকিৎসক জানিয়েছেন, যত তারাতারি সম্ভব অপারেশন করতে পারলে সে সুস্থ্য হয়ে উঠবে। তার চিকিৎসার জন্য প্রয়োজন ৩ লক্ষ ৬০ হাজার টাকা। কিন্তু তার পরিবারের পক্ষে এতো টাকা যোগার করা কোন ভাবেই সম্ভব নয়। এখন মা-বাবার চোখের কান্না ছাড়া আর কোন সামর্থ্য নেই। তার বাবা-মা সরকার ও সমাজের বিত্তবানসহ সর্বস্তরের মানুষের কাছে আর্থিক সহযোগীতা চান।

রিয়ার উন্নত চিকিৎসার জন্য তাকে ঢাকায় নিয়ে যাওয়া হয়। জন্য পরামর্শ দেন তিনি। এতে রিয়ার হার্টে ছিদ্র রয়েছে বলে জানান চিকিৎসক। বর্তমানে ঢাকার হার্ট ফাউন্ডেশন হসপিটালের চিকিৎসক ডা. তৌফিক শাহরিয়ার হক’র চিকিৎসাধীন রয়েছে।
রিয়ার বাবা জানান, মেয়ের চিকিৎসার জন্য এতো টাকা খরচ করা আমার পক্ষে সম্ভব নয়। আমার এই দুই চোখে কান্না ছাড়া আর কোন সামর্থ্য নেই। আমার মেয়েটিকে বাঁচাতে সরকার ও সমাজের বিত্তবানসহ সর্বস্তরের মানুষের আর্থিক সহযোগীতা চাচ্ছি।
তিনি বর্তমানে তারাসহ এলাকার মানুষও সাহায্য করছেন। এবং বিভিন্ন সামাজিক সংগঠনও রিয়ার চিকিৎসার টাকা জোগার করতে বিভিন্ন বৃত্তশালীদের নিকট আর্থিক সহযোগীতা চাইছেন।

রিয়ার চিকিৎসার জন্য অর্থ জোগার করতে শহরে মাইকিং করে বিভিন্ন সড়কে গিয়ে বিভিন্ন শ্রেনী পেশার মানুষের কাছ থেকে টাকা তুলছেন ইয়াং সোসাইটি, শ্রীমঙ্গল। সংগঠনের সমন্বয়ক মো. আল আমিন জানান, মানুষ মানুষের জন্য। রিয়াকে বাঁচাতে তার পরিবারকে সহযোগীতা করতে আমরা নিজেদের মানবিক বিবেচনা থেকে এগিয়ে এসেছি। রিয়ার চিকিৎসার জন্য এতো টাকা জোগাড় করা পরিবারটির জন্য একেবারেই অসম্ভব ব্যাপার। মৃত্যুর পথের পথযাত্রী সন্তানকে এখন টাকার অভাবে হারাতে হবে এমন ভাবনাটা যে কোনো বাবা মায়ের জন্যই অত্যন্ত কষ্টদায়ক ব্যাপার। রিয়াকে বাঁচাতে যদি কোন সহৃদয়বান ব্যক্তি সহযোগীতা পাঠাতে চান তাহলে রিয়ার বাবার সাথে (মোবাইল: ০১৬৪৬২৯৪৭৮৪) এই নম্বরে যোগাযোগ করতে পারেন।

নড়াইল প্রতিনিধি: পদবি পরিবর্তনসহ বেতন গ্রেড উন্নীতকরণের দাবিতে নড়াইলে জেলা প্রশাসকের কার্যালয়ের কর্মচারীদের  ২য় দিনের মত চলছে পূর্ণদিবস কর্মবিরতি গতকাল রবিবার সকাল ৯টা থেকে বিকাল ৫টা পর্যন্ত পূর্ণদিবস অফিসের কাজকর্ম বন্ধ করে তারা কর্মবিরতি পালন করে। আজ সোমবারও সকাল থেকেই কর্মবিরতি পালন করছে কর্মচারিরা। 

কর্মবিরতিকালে তাদের দাবিদাওয়া তুলে ধরে বক্তব্য দেন বাংলাদেশ কালেক্টরেট সহকারী সমিতি (বাকাসস) নড়াইল জেলা শাখার সভাপতি তরফদার রেজাউল ইসলাম, সাধারণ সম্পাদক কেএম আব্দুল আলীম, সহসভাপতি মোঃ কামরুল গাজী সহ অনেকে। 

বক্তারা বলেন, বিভাগীয় কমিশনারের কার্যালয়, জেলা প্রশাসকের কার্যালয়, উপজেলা নির্বাহী অফিসারের কার্যালয় সহকারী কমিশনার (ভূমি) এর কার্যালয়ে কর্মরত কর্মচারীরা বর্তশানে ১১১৬তম গ্রেডে বেতন পাচ্ছেন।   আমরা ১০১১তম গ্রেডে বেতন দাবি করেছি। এছাড়া  পদবি পরিবর্তনের দাবি জানাচ্ছি। আমাদের দাবি বাস্তবায়ন না হলে  আজ রবিবার থেকে শুরু হওয়া কর্মবিরতি আগামী ৩০ নভেম্বর পর্যন্ত চলবে। পরবর্তীতে সমিতির সিদ্ধান্ত অনুযায়ী নতুন করে কর্মসূচি ঘোষণা করা হবে।

নড়াইল প্রতিনিধি: অর্থ আত্মসাতের অভিযোগে নড়াইলের লোহাগড়া উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা (পিআইও) এস এম করিম বরখাস্ত হয়েছেন। আজ সোমবার দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা অধিদপ্তর আদেশ দেয়।

বিষয়টি নিশ্চিত করে লোহাগড়া উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা রোসলিনা পারভীন জানান, দুর্নীতি প্রমাণিত হওয়ায় তিনি বরখাস্ত হয়েছেন। বরখাস্ত আদেশটি বিকেলে পেয়েছি। তিনি ঠিকমত অফিস করেন না। তাঁর অসহযোগিতার কারণে দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা সংক্রান্ত যাবতীয় কাজ পিছিয়ে যাচ্ছে। তাঁর আচারআচারণও ভালো নয়।

তিনি আরও জানান, গত অর্থ বছরে সেতু নির্মাণ খাতের ১৬টি প্রকল্পের সিডিউল বিক্রির সংখ্যা কম দেখিয়ে তিনি লাখ ৫১ হাজার ৫০০ টাকা আত্মসাৎ করেছেন। ছাড়া অসদাচারণের কারণে তাঁকে বরখাস্ত করেছে দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা অধিদপ্তর।

পিআইও কার্যালয় সূত্রে জানা গেছে, সিডিউল বিক্রির টাকা আত্মসাতের বিষয়ে পিআইওর বিরুদ্ধে দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা অধিদপ্তরে অভিযোগ হয়। অধিদপ্তর জেলা প্রশাসককে এটি তদন্ত করতে নির্দেশ দেয়। এরপর জেলা প্রশাসক তদন্ত করে অধিদপ্তরে প্রতিবেদন দেন।

ব্যাপারে পিআইও এস এম করিম বলেন, আমি ওই টাকা সরকারি খাতে জমা দিয়ে দিয়েছি। জেলা প্রশাসক তদন্ত না করেই তদন্ত প্রতিবেদন পাঠিয়েছেন।

কমলগঞ্জ প্রতিনিধি: মুজিববর্ষে দেশের কোনো মানুষ ভূমিহীন ও গৃহহীন থাকবে না বলে সরকারের পরিকল্পনা রয়েছে। জাতির জনক বঙ্গবন্ধুর জন্মশতবার্ষিকীতে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা সকল গৃহহীনদের কথা চিন্তা করে গৃহ নির্মাণ কার্যক্রম শুরু করেছেন। সোমবার দুপুরে মৌলভীবাজারের কমলগঞ্জ উপজেলার সীমান্তবর্তী ইসলামপুর ইউনিয়নের রাজকান্দি এলাকায় মুজিব শতবর্ষ উপলক্ষে দেশের সকল ভূমিহীন ও গৃহহীনদের জন্য ‘দূর্যোগ সহনীয় গৃহ নির্মাণ’ প্রকল্পের আওতায় “আশ্রায়ন-২” প্রকল্পের গৃহ নির্মাণ কাজের ভিত্তিপ্রস্তর অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে জাতীয় সংসদের সাবেক চিফ হুইপ, অনুমিত হিসাব সম্পর্কিত স্থায়ী কমিটির সভাপতি, বীর মুক্তিযোদ্ধা উপাধ্যক্ষ ড. মো. আব্দুস শহীদ এমপি উপরোক্ত কথাগুলো বলেন।

কমলগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা আশেকুল হকের সভাপতিত্বে ও যুবলীগ নেতা আং খালিকের স ালনায় এ সময় উপস্থিত ছিলেন কমলগঞ্জ থানার ওসি মো. আরিফুর রহমান, ইসলামপুর ইউপি চেয়ারম্যান মো: আব্দুল হান্নান, উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা মোহাম্মদ আসাদুজ্জামান, আওয়ামীলীগ নেতা আশিদ আলী, ধীরেন্দ্র কুমার সিংহ প্রমুখ।

প্রধান অতিথির বক্তব্যে সাবেক চিফ হুইপ, অনুমিত হিসাব সম্পর্কিত স্থায়ী কমিটির সভাপতি, বীর মুক্তিযোদ্ধা উপাধ্যক্ষ ড. মো. আব্দুস শহীদ এমপি আরো বলেন, খাসজমি দখল করে ঘর নির্মাণ করে যারা দীর্ঘদিন যাবত বসবাস করে আসছেন তাদেরকে উচ্ছেদ করা হবে না। পতিত খাস জমি জায়গা যারা দখল করে আসছেন সেখানেই ভূমিহীনদের জন্য গৃহ নির্মাণ করা হবে। প্রধানমন্ত্রী পর্যায়ক্রমে বাংলাদেশের সকল গৃহহীনদের গৃহ নির্মাণের সিদ্ধান্ত নিয়ে কার্যক্রম শুরু করেছেন। এর মধ্যে অধিকাংশই পূরণ করা হবে মুজিববর্ষে। যিনি মাদার অফ হিউম্যানিটি খেতাবে ভূষিত হয়েছেন সেই মানবতার নেত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনরা বাংলাদেশে কাউকে আর গৃহহীন থাকতে হবে না। বাংলাদেশের সকল আশ্রয়হীনকে আশ্রয় দেওয়ার মহান ব্রত নিয়ে জননেত্রী শেখ হাসিনা নিরলসভাবে কাজ করছেন।

উল্লেখ্য, আশ্রায়ন-২ প্রকল্পের আওতায় সোমবার রাজকান্দি এলাকায় ২০ টি গৃহনির্মাণের ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন করা হয়।

নাজমুল হক নাহিদ,আত্রাই (নওগাঁ) প্রতিনিধি: শষ্য ভান্ডার খ্যাত নওগাঁর আত্রাইয়ে এবারের স্মরণকালের ভয়াবহ বন্যায় ভেসে আসা কচুরিপানার প্রাদুর্ভাবের কারণে থমকে গেছে কৃষকের স্বপ্ন। এসব কচুরিপানা পরিস্কার করতে কৃষকরা হিমশিম খাচ্ছে। আসন্ন বোরো মৌসুমে ধানচাষ নিয়ে তারা দিশেহারা হয়ে পড়েছেন।

জানা যায়, এবারে আত্রাইয়ে স্মরণকালের ভয়াবহ বন্যায় কৃষকের সকল স্বপ্ন ম্লান হয়ে যায়। একাধিকবার তারা আমন চাষের প্রস্তুতি নিয়েও ব্যর্থ হন। পরপর দু’বারের বন্যায় তাদের সকল স্বপ্ন তছনছ হয়ে যায়। উপরোন্ত এ বন্যায় নদীর বিভিন্ন বাঁধের ভাঙন দিয়ে প্রচুর পরিমান কচুরিপানা প্রবেশ করে মাঠে। মাঠে এসব কচুরিপানা প্রবেশের পর তা আর বের হয়নি। ফলে এ কচুরিপানাগুলো আবদি জমিতে আটকা পড়ে যায়। উপজেলার কাঁন্দওলমা, বাঁকিওলমা, বিপ্রবোয়ালিয়া, পবনডাঙ্গা, নবাবেরতাম্বু, খনজোর, মধুগুড়নই, ভোঁপাড়াসহ বেশ কয়েকটি গ্রামের মাঠ ঘুরে দেখা যায় ওই মাঠগুলোতে প্রচুর পরিমান কচুরিপানা আবাদি জমিতে আটকে পড়েছে। ফলে এসব কচুরিপানা পরিষ্কার করে জমিগুলো বোরো চাষের উপযোগী করতে কৃষকরা দিশেহারা হয়ে পড়েছে। কাঁন্দওলমা গ্রামের কৃষক ওহিদুর রহমান বলেন, আমাদের অনেক জমিতে কচুরিপানা আটকে পড়েছে। বিশেষ করে যে জমিগুলোতে আমরা বোরো বীজতলা তৈরি করতাম এ জমিগুলোও এখন কচুরিপানার নিচে পড়ে রয়েছে। এ কচুরিপানা পরিষ্কার করতে আমাদের অতিরিক্ত অনেক অর্থ ব্যয় করতে হচ্ছে।

এ ব্যাপারে উপজেলার ভবানীপুর গ্রামের কৃষক মো. আজাদ প্রামানিক বলেন, আমাদের মাঠে যেমন কচুরিপানা, তেমনি ঘাস জন্মেছে। কচুরিপানা ও ঘাস মারা ওষুধ দিয়ে কোন কাজ হচ্ছে না। এখন বোরো চাষের উপযোগী করতে আমাদের প্রতি বিঘা জমিতে প্রায় ৩ হাজার টাকা অতিরিক্ত ব্যয় করতে হচ্ছে। এভাবে অতিরিক্ত টাকা ব্যয় করে আমরা আবাদ করি। কিন্তু সময়মত আমাদের উৎপাদিত ফসলের ন্যায্য মূল্য না পাওয়ায় আমরা লোকসানের শিকার হই।

এ ব্ষিয়ে উপজেলা কৃষি অফিসার কৃষিবিদ কেএম কাউছার হোসেন বলেন, আত্রাই বোরো ধানের জন্য বিখ্যাত একটি এলাকা। এ উপজেলায় প্রায় ২০ হাজার হেক্টর জমিতে বোরো চাষ হয়। এবারে বন্যায় কৃষকের অপূরনীয় ক্ষতি হয়েছে। সেই সাথে আবাদি জমিগুলোতে কচুরিপানা আটকে থাকায় আরও তাদের জন্য আর্থিক ক্ষতিকর। তবে তাদের সরকারীভাবে কিছুটা সহযোগিতা করা হচ্ছে। ইতোমধ্যেই প্রান্তিক ও ক্ষুদ্র কৃষকদের প্রণোদনা সহায়তার আওতায় নেয়া হয়েছে।

সাবেক ডেপুটি স্পিকার, ছয় বারের সংসদ সদস্য, বীর মুক্তিযোদ্ধা, আগরতলা মামলার অন্যতম অভিযুক্ত কর্নেল (অবঃ) শওকত আলী সোমবার (১৬ নভেম্বর) সকাল ৯টা ৩০ মিনিটে ঢাকার সম্মিলিত সামরিক হাসপাতালে ইন্তেকাল করেছেন ( ইন্না লিল্লাহি ওয়া ইন্না ইলাইহি রাজিউন) ।
মুক্তিযোদ্ধা সংহতি পরিষদের প্রতিষ্ঠাতা চেয়ারম্যান ও ৭১ ফাউন্ডেশনের প্রধান উপদেষ্টা সাবেক এ ডেপুটি স্পিকার ঢাকা সম্মিলিত সামরিক হাসপাতালে (সিএমএইচ) লাইফ সাপোর্টে ছিলেন।
৮৪ বছর বয়সী, কর্নেল (অব.) শওকত আলীর মৃত্যুতে গভীর শোক ও দুঃখ প্রকাশ করেছেন বাংলাদেশ জাতীয় সংসদের অনুমিত হিসাব সম্পর্কিত কমিটির সভাপতি উপাধ্যক্ষ ড. মোঃ আব্দুস শহীদ এমপি। শোক বার্তায় তারা মরহুমের পরিবার-পরিজন, সন্তানসহ সবাইকে গভীর সমবেদনা জানান।
 সভাপতি বলেন, কর্নেল (অব.) শওকত আলী মহান মুক্তিযুদ্ধে অংশগ্রহণকালে ২নং সেক্টরের সাব – সেক্টরের কমান্ডার ও প্রশিক্ষণ কর্মকর্তা ছিলেন। আমরা একই সময়ে বিভিন্ন আন্দোলন সংগ্রামের স্বাক্ষী। বর্ষীয়ান এ রাজনীতিবিদের মৃত্যুতে যে শূণ্যতার সৃষ্টি হয়েছে, তা সহসাই পূরণ হবার নয়।
আজ বাদ মাগরিব তাঁর নামাজে জানাজা বায়তুল মোকাররম জাতীয় মসজিদে অনুষ্ঠিত হবে। এর পূর্বে বিকাল ৩টায় শ্রদ্ধা নিবেদনের জন্য তাঁর মরদেহ জাতীয় শহীদ মিনারে রাখা হবে। আগামীকাল ১৭ নভেম্বর ২০২০ সশস্ত্র বাহিনীর হেলিকপ্টারে সকাল ১০ টায় তাঁর মরদেহ শরীয়তপুর জেলার নড়িয়ায় নেওয়া হবে।
১৯৬৯ সালে বঙ্গবন্ধুসহ ৩৫ জনের বিরুদ্ধে আগরতলা মামলা হয়েছিল, তাদেঁর মধ্যে শওকত আলীকে অন্যতম আসামি করা হয়। রেড ক্রিসেন্ট সোসাইটি ও বাংলা একাডেমির আজীন সদস্য ছিলেন কর্নেল শওকত। কয়েকটি অসাধারণ বইয়ের রচয়িতা তিনি। এর মধ্যে উল্লেখযোগ্য ‘সত্য মামলা আগরতলা’, ‘কারাগারের ডায়েরি’ এবং ‘গণপরিষদ থেকে নবম সংসদ’। সূত্র: বাসস

করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে মারা গেছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার চাচী ও সংসদ সদস্য শেখ হেলাল উদ্দীনের মা শেখ রাজিয়া নাসের (ইন্নালিল্লাহি ওয়া ইন্না ইলাইহি রাজিউন)।

সোমবার (১৬ নভেম্বর) রাত ৯টায় রাজধানীর একটি বেসরকারি হাসপাতালে তিনি মারা যান। মৃত্যুকালে তার বয়স হয়েছিল ৮৩ বছর। শেখ রাজিয়া নাসেরের মৃত্যুতে গভীর শোক প্রকাশ করেছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।
উল্লেখ্য, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার চাচী রাজিয়া নাসের করোনা আক্রান্ত হয়ে এভারকেয়ার হসপিটালে লাইফ সাপোর্টে ছিলেন। রাজিয়া নাসের সংসদ সদস্য শেখ তন্ময়ের দাদী।
সোমবার (১৬ নভেম্বর) দুপুরে শারীরিক অবস্থার অবনতি হতে থাকলে তাকে রাজধানীর এভারকেয়ার হসপিটালে লাইফ সাপোর্টে নেয়া হয়।
এর আগে, ৫ নভেম্বর বার্ধক্যজনিত কারণে রাজিয়া নাসেরকে এভারকেয়ার হসপিটালে ভর্তি করা হয়। এসময় বাগেরহাট-২ আসনের সাংসদ শেখ তন্ময় তার দাদীর জন্য দেশবাসীর কাছে দোয়া প্রার্থনা করেন।

আহলে সুন্নাত ওয়াল জামা’আত বাংলাদেশের মান্যবর চেয়ারম্যান, প্রখ্যাত আলেমেদ্বীন, বিশিষ্ট লেখক ও গবেষক শাইখুল হাদীস আল্লামা কাজী মুহাম্মদ মঈনুদ্দিন আশরাফী (মা: জি: আ:)’র আরোগ্য কামনা করে দেশ ও জাতির নিকট দোয়া কামনা করে বিবৃতি প্রদান করেছেন আহলে সুন্নাত ওয়াল জামা’আত বাংলাদেশের নির্বাহী চেয়ারম্যান পীরে তরিকত অধ্যক্ষ আল্লামা আবদুল বারী জিহাদী মুজাদ্দেদী, কো-চেয়ারম্যান অধ্যক্ষ আল্লামা মুফতি সৈয়দ মোহাম্মদ অছিয়র রহমান আলক্বাদেরী, কো-চেয়ারম্যান আল্লামা সিরাজুল আমিন রেজবী, আল্লামা হাফেয মোহাম্মদ সোলাইমান আনছারী, অধ্যক্ষ ড. আল্লামা আফজাল হোসেন, ড. মুহাম্মদ শফিকুর রহমান, মাওলানা আবদুর রহিম আব্বাসী, প্রেসিডিয়াম সদস্য আল্লামা মুফতি কাজী মুহাম্মদ আব্দুল ওয়াজেদ, উপাধ্যক্ষ আল্লামা ড. মুহাম্মদ লিয়াকত আলী, মুহাদ্দিস হাফেয মোহাম্মদ আশরাফুজ্জামান আলক্বাদেরী, অধ্যক্ষ হাফেজ মুহাম্মদ আবদুল আলীম রজভী, সৈয়দ মুজাফফর আহমদ মুজাদ্দেদী, ড: হাফেজ মাও: মুহাম্মদ হাফিজুর রহমান, আলহাজ্ব সিরাজুল ইসলাম চৌধুরী হারুন, অধ্যক্ষ আহমদ হোসাইন আলকাদেরী, অধ্যক্ষ নূরুল আলম হেজাজী, আলহাজ্ব পেয়ার মোহাম্মদ কমিশনার, উপাধ্যক্ষ আজিজুর রহমান, মহাসচিব পীরে ত্বরিক্বত আলহাজ্ব মাওলানা সৈয়দ মসিহুদ্দৌলা, আন্জুমান রিচার্স সেন্টারের মহাপরিচালক আল্লামা এম এ মান্নান, আহলে সুন্নাত ওয়াল জামা’আতের মুখপাত্র এডভোকেট মোহাম্মদ মোছাহেব উদ্দিন বখতিয়ার, নির্বাহী সচিব উপাধ্যক্ষ মুফতি মাওলানা আবুল কাসেম মোহাম্মদ ফজলুল হক, মাওলানা মুহাম্মদ মাহমুদুল হাসান, মুহাদ্দিস মাওলানা মুহাম্মদ জসিম উদ্দীন আযহারী, কাজী মোবারক হোসেন ফরাজী, সাংগঠনিক সচিব অধ্যক্ষ আল্লামা মুহাম্মদ ইসমাইল নোমানী, অর্থ সচিব এডভোকেট মুখতার আহমদ সিদ্দীকি ও গাউছিয়া ইসলামিক মিশন, কুমিল্লার প্রতিষ্ঠাতা চেয়ারম্যান কলামিস্ট গাজী মুহাম্মদ জাহাঙ্গীর আলম জাবির প্রমূখ।
দপ্তর সচিব মুহাম্মদ মুহাম্মদ হাকিমের স্বাক্ষরিত বিবৃতিতে আহলে সুন্নাত ওয়াল জামা’আতের নেতৃবর্গ বলেন-সংগঠনের দায়িত্বশীল এখন অসুস্থ। তাঁর অসুস্থতা সুন্নী অঙ্গনে হতাশার ছিন্ন ফুটে উঠেছে। তাঁর রোগমুক্তি  সকলেরই প্রত্যাশা। শত কর্মসূচী সফলে কর্মব্যস্ত ব্যক্তির আশুরোগ মুক্তি সকলেরই আন্তরিক চাওয়া। নেতৃবৃন্দ হুজুরের শারীরিক অসুস্থতা থেকে সুস্থতা কামনা করেন মহান আল্লাহ্‌র দরবারে। সুস্থ হয়ে সুন্নীয়তের আন্দোলনকে বেগবান করতে চেয়ারম্যান মহোদয়ের শারীরিক উপস্তিতি নিশ্চিত প্রাণবন্ত করবে বলে সকলের প্রার্থনা।
নেতৃবৃন্দ প্রিয় নবীজীর ওসিলায় তাঁকে যেন মহান আল্লাহ শেফা দান করে সে জন্য দেশবাসীর নিকট আন্তরিক দোয়া ও প্রার্থনা কামনা করেছেন। প্রেস বার্তা

  

এডিটর: আনিছুল ইসলাম আশরাফী, এনিমেটরস্ বাংলা মিডিয়া গ্রুপ কর্তৃক প্রকাশিত
সম্পাদকীয় কার্যালয়: কলেজ রোড, শ্রীমঙ্গল, মৌলভীবাজার।
Email: news.amarsylhet24@gmail.com Mobile: 01772 968 710

Developed By : i-Tech Sreemangal
Email : itech.official@hotmail.com
Facebook : http://facebook.com/itech.ctc