Monday 30th of November 2020 01:24:25 AM

নড়াইল প্রতিনিধি: সেনাবাহিনীর ডিজিএফআই এবং প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের কর্মকর্তা পরিচয়ে চাকুরীর প্রলোভন দেখিয়ে প্রায় ৩০ লাখ টাকা হাতিয়ে নেওয়া এক প্রতারককে গ্রেফতার করেছে সিআইডি। প্রতারকের নাম খন্দকার ওবায়দুর চুন্নু ওরফে জীবন চৌধুরী (৫০)। তার বাড়ি রাজবাড়ি জেলায়। গ্রেফতারের সময় তার কাছ থেকে একটি অবৈধ ওয়াকিটকি, ডিজিএফআই-এর ভূয়া পরিচয়পত্র, ৫টি মোবাইল সেট এবং বিভিন্ন কোম্পানির ১০টি সিম কার্ড পাওয়া গেছে।

বৃহস্পতিবার বেলা সাড়ে ১১টার দিকে নড়াইল সিআইডির কার্যালয়ে সিআইডির অতিরিক্ত বিশেষ পুলিশ সুপার প্রত্যুষ কুমার মজুমদার এক সংবাদ সম্মেলনে এ তথ্য জানান।
তিনি জানান, গোপন সংবাদের ভিত্তিতে তার নেতৃত্বে নড়াইল সিআইডির একটি টিম বুধবার (১১ নভেম্বর) ভোরে রাজবাড়ি জেলার কালুখালী থানার রুপসা গ্রাম থেকে প্রতারক খন্দকার ওবায়দুর চুন্নু ওরফে জীবন চৌধুরী ও তার মা মরিয়ম বেগম (৬৮)কে গ্রেফতার করে। এ সময় তার কাছ থেকে অবৈধ ওয়াকিটকি, মোবাইল ও ডিজিএফআই-এর ভূয়া পরিচয়পত্র উদ্ধার করা হয়। তবে টাকা উদ্ধার করা সম্ভব হয়নি। তিনি আরও জানান, ওবায়দুর দেশের বিভিন্ন জেলায় ৭টি বিবাহ করে সেসব এলাকায় একটি প্রতারণার ফাঁদ তৈরি করে এবং সেসব এলাকার সহজ-সরল মানুষকে সেনাবাহিনীর বিভিন্ন পদে চাকরি দেবার নামে নিয়োগপত্র প্রদান করে লাখ লাখ টাকা আদায় করে আসছিল।

এরই ধারাবাহিকতায় নড়াইলের ৩টি এলাকার চার জনের কাছ থেকে মোট ২৯ লাখ ৫০ হাজার টাকা হাতিয়ে নেয়। তার বিরুদ্ধে নড়াইলের লোহাগড়াসহ দেশের বিভিন্ন থানায় একাধিক প্রতারণার মামলা রয়েছে।

মামলার বাদি লোহাগড়া উপজেলার লক্ষীপাশা ইউনিয়নের লক্ষীপাশা এলাকার ভ্যান সাইকেলের ম্যাকানিক ফিরোজ মোল্যা এ প্রতিনিধিকে জানান, তার ছেলে মোছা মোল্যার (১৮) সেনাবাহিনীর ইঞ্জিনিয়ারিং সার্ভিসেস অফিসের অফিস সহকারী পদে চাকরির জন্য জমি বিক্রি ও লোন নিয়ে ওবায়দুরকে গত মে ও জুন মাসে দু’কিস্তিতে ৯ লাখ টাকা দেয়।
একই উপজেলার লোহাগড়া ইউনিয়নের কাউড়িখোলা গ্রামের বেকার যুবক বিল্লু মঙ্গল রায় জানান, তিনি তার পৈত্রিক জমি বিক্রি ও সুদে টাকা লোন নিয়ে সেনাবাহিনীর কম্পিউটার অপারেটর পদে চাকরির জন্য গত জুলাই ও আগস্ট মাসে ওবায়দুরকে ১০ লাখ টাকা দেয়।
লোহাগড়া থানার রাজুপুর গ্রামের বেকার তরিকুল ইসলাম জানান, তিনি সেনাবাহিনীতে অফিস সহকারী পদে চাকরির জন্য ওবায়দুরকে গত জুন ও জুলাই মাসে ৪ লাখ টাকা প্রদান করেন।
একইভাবে লোহাগড়া উপজেলার কাশিপুর ইউনিয়নের ইশানগাতি গ্রামের কৃষক সিরাজুল ইসলাম জানান, তার ভাইপো সাজ্জাদ সরদারের চাকরির জন্য গত ১৫ জুলাই ওবায়দুরকে ৬লাখ ৫০ হাজার টাকা প্রদান করেন।

নড়াইল প্রতিনিধি: নড়াইলে সদর উপজেলার আউড়িয়া ইউনিয়নের ১ ও ২ নং ওয়ার্ড স্বেচ্ছাসেবক লীগের ত্রি-বার্ষিক সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়েছে। শুক্রবার বিকেলে আউড়িয়া বাজার চত্বরে ময়নুল ইসলাম বাবুর সভাপতিত্বে সম্মেলনের উদ্বোধন করেন জেলা স্বেচ্ছাসেবক লীগের সাধারন সম্পাদক এস এম পলাশ।

অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখেন জেলা স্বেচ্ছাসেবক লীগের সভাপতি তারিকুল ইসলাম উজ্জ্বল। এসময় আরও বক্তব্য রাখেন জেলা আওয়ামীলীগের সাবেক বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিষয়ক সম্পাদক হাফিজ খান মিলন, জেলা কৃষকলীগের সভাপতি মাহাবুবুর রহমান, নড়াইল পৌর আওয়ামীলীগের সহ-সভাপতি মেশকাতুল ওয়ায়েজিন লিটু, জেলা যুবলীগের যুগ্ম-আহ্বায়ক গাউসুল আযম মাসুম, জেলা ছাত্রলীগের সভাপতি চ ল শাহারিয়ার মিম, সদর উপজেলা স্বেচ্ছাসেবক লীগের সদস্য সচিব শেখ নুরুজ্জামান নান্নু, সাবেক ছাত্রলীগ নেতা আবু সুফিয়ান বাহার, জাহাঙ্গীর সিকদার প্রমূখ। এসময় দলীয় নেতৃবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।

এম ওসমান,বেনাপোল প্রতিনিধিঃ  বিভিন্ন সময় ভাল কাজের প্রলোভনে ভারতে পাচারের হওয়া শিশুসহ ৩০ বাংলাদেশী নারী-পুরুষকে ফেরত পাঠিয়েছে ভারত সরকার। ভারতে নিযুক্ত বাংলাদেশ উপ-হাইকমিশনারের সহযোগীতায় এরা দেশে ফেরার সুযোগ পায়।
শুক্রবার (১৩ নভেম্বর) বিকাল ৫ টার সময় ভারতের পেট্রাপোল ইমিগ্রেশন পুলিশ বিশেষ ট্রাভেল পারমিটের মাধ্যে বেনাপোল চেকপোস্ট ইমিগ্রেশন পুলিশের কাছে হস্তান্তর করে।
ফেরত আসা বাংলাদেশিদের চাপাইনবাবঞ্জ, কক্সবাজার, মাগুরা, খুলনাসহ বিভিন্নজেলার বাসিন্দা।ফেরত আসাদের বেনাপোল থেকে যশোর রাইটস এর পরিচালক বিনয় কৃষ্ণ মল্লিক জানান, আমরা ও মহিলা আইনজীবি সমিতিসহ কয়েকটি এনজিও সংস্থা তাদেরকে গ্রহন করেন। এবং তাদেরকে যশোর নিয়ে পরিবারের কাছে হস্তান্তর করা হবে।তিনি আরো জানান, ভুক্তভোগীরা বিভিন্ন সময় দালালের প্রোলভনে পড়ে দেশের বিভিন্ন সীমান্ত দিয়ে ভারতে পাচার হয়। এরা ৩ থেকে ৫ বছর পর্যন্ত ভারতের জেলে ছিলো। পরবর্তীতে সে দেশের বিভিন্ন বেসরকারী এনজিও সংস্থা তাদের কে জেল থেকে ছাড়িয়ে নিজেদের শেল্টার হোমে রাখে। এরপর দুই দেশের স্বরাষ্ট্র মন্ত্রনালয়ে চিঠি চালাচালির মাধ্যমে এদেরকে ট্রাভেল পারমিটের আজ দেশে ফেরত ফেরত পাঠিয়েছে।
বেনাপোল ইমিগ্রেশন ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আহসান হাবিব জানান, বিভিন্ন প্রলোভনে পড়ে এসব নারী, শিশুরা পাচারের শিকার হয়েছিল। তাদেরকে ভারতের পেট্রাপোল ইমিগ্রেশন পুলিশ ট্রাভেল পারমিটে মাধ্যমে আমাদের কাছে হস্তান্তর করেছে। কাগজ পত্রের আনুষ্ঠানিকতা শেষে এদেরকে বিভিন্ন এনজিও সংস্থা গ্রহন করেছে।

জেলা প্রতিনিধি, হবিগঞ্জ: “সেবা, শান্তি, প্রগতি” এই শ্লোগানকে সামনে রেখে বাংলাদেশ আওয়ামী স্বেচ্ছাসেবক লীগের চুনারুঘাট উপজেলা শাখার উদ্যোগে কর্মী সমাবেশ ও সংবর্ধনা অনুষ্ঠান অনুষ্ঠিত হয়েছে।

শুক্রবার (১৩নভেম্বর) বিকাল ৫টায় বীর মুক্তিযোদ্ধা এনামুল হক মোস্তফা শহীদ মিলনায়তনে উপজেলা স্বেচ্ছাসেবকলীগের সভাপতি মানিক সরকারের সভাপতিত্বে ও সাধারণ সম্পাদক ও আহম্মদাবাদ ইউপি চেয়ারম্যান আবেদ হাসনাত চৌধুরী সনজু’র পরিচালনায় এতে প্রধান অতিথি হিসাবে উপস্থিত ছিলেন -স্বেচ্ছাসেবকলীগের কেন্দ্রীয় কমিটির সহ-সভাপতি সুব্রত পুরকায়স্থ।

বিশেষ অতিথি হিসাবে উপস্থিত ছিলেন – হবিগঞ্জ জেলা স্বেচ্ছাসেবকলীগের সভাপতি সৈয়দ কামরুল হাসান, সাধারণ সম্পাদক ইয়াহিয়া চৌধুরী, যুগ্ন সাধারণ সম্পাদক অমল কুমার দাস, এড. সুজন চৌধুরী, চুনারুঘাট স্বেচ্ছাসেবকলীগের সিনিয়র সহ-সভাপতি ও চুনারুঘাট প্রেসক্লাব সাধারণ সম্পাদক মোঃ জামাল হোসেন লিটন, সহ-সভাপতি মাসুদ আহমেদ, দুলাল ভূঁইয়া মেম্বার, যুগ্ন সাধারণ সম্পাদক আব্দুল আল মামুন, ধর্ম বিষয়ক সম্পাদক আব্দুল হাই প্রিন্স, সদর ইউপি সাধারণ সম্পাদক কাউছার আহমেদ প্রমুখ। এছাড়াও উপজেলা ও ইউনিয়ন স্বেচ্ছাসেবকলীগের কর্মীবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।

প্রসঙ্গত, চুনারুঘাট পৌরসভাসহ উপজেলার প্রতিটি ইউনিয়ন ও ওয়ার্ড পর্যায়ে স্বেচ্ছাসেবকলীগের কমিটির অনুমোদন দেওয়া হয়েছে।

সেনা গোয়েন্দা সংস্থা ডিজিএফআই সদস্যদের সততা ও নিষ্ঠার সঙ্গে দেশপ্রেমে উদ্বুদ্ধ হয়ে দেশের প্রতি, দেশের মানুষের প্রতি কর্তব্য পালন করার আহ্বান জানিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। তিনি বলেন, ‘জঙ্গিবাদ, সন্ত্রাস, দুর্নীতি, মাদক—এগুলোর হাত থেকে সমাজকে রক্ষা করতে হবে। সমাজকে এখান থেকে বাঁচাতে হবে। তাহলেই আমরা দেশ গড়ে তুলতে পারবো।’
বৃহস্পতিবার (১২ নভেম্বর) ডিজিএফআইয়ে কর্মরত অফিসার এবং অন্যান্য পদবির সদস্যদের জন্য নবনির্মিত বাসস্থানের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে তিনি এসব কথা বলেন। প্রধানমন্ত্রী গণভবন থেকে ভার্চুয়ালি ডিজিএফআই অফিসার্স মেস ঢাকা ক্যান্টনমেন্টে যুক্ত হয়ে বক্তব্য রাখেন। পরে প্রধানমন্ত্রীর প্রেস সচিব ইহসানুল করিম সাংবাদিকদের কাছে প্রধানমন্ত্রীর বক্তব্য তুলে ধরেন।
প্রেস সচিবের বর্ণনা অনুযায়ী, অনুষ্ঠানে সরকার প্রধান বলেন, ‘দেশের যুবসমাজকে জঙ্গিবাদ, মাদক ও সন্ত্রাস থেকে দূরে রাখতে পারলে তাদের মেধা কাজে লাগাতে পারবো। দেশের মানুষের শক্তিটাকে উন্নয়নের জন্য কাজে লাগাতে পারবো। সেভাবেই আমাদের দেশকে গড়তে হবে।’
প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘সবাইকে দেশটাকে জানতে হবে। দেশকে ভালোবাসতে হবে। দেশের জন্য কাজ করতে হবে। দেশের সাধারণ মানুষের জন্য কাজ করতে হবে। যেটা আমি আমার বাবার কাছ থেকে, মায়ের কাছ থেকে শিখেছি। সেটাই আমি সবসময় চাই। দেশের প্রতি যদি ভালোবাসা না থাকে, মানুষের প্রতি যদি দায়িত্ববোধ ও কর্তব্যবোধ না থাকে, তাহলে যেকোনও দায়িত্ব সুষ্ঠুভাবে পালন করা যায় না।’
স্বাধীনতা ও সার্বভৌমত্ব রক্ষার জন্য সশস্ত্র বাহিনী একান্তভাবে অপরিহার্য উল্লেখ করে তিনি বলেন, ‘জাতির পিতা একদিকে যুদ্ধবিধ্বস্ত দেশ গড়ে তুলছিলেন। অপরদিকে এই সশস্ত্র বাহিনীকেও যথাযথভাবে তিনি গড়ে তুলেছেন। তার যে ভবিষ্যৎবাণীগুলো, তিনি যে আমাদের একটা নীতিমালা দিয়ে গেছেন, প্রতিরক্ষা নীতিমালা, আওয়ামী লীগ সরকারে আসার পর থেকে সেটা মেনেই আমরা দেশকে এগিয়ে নিয়ে যাচ্ছি।’
তিনি বলেন, ‘আমাদের প্রচেষ্টা হচ্ছে আমরা চাই দেশটাকে তার (বঙ্গবন্ধুর) আকাঙ্ক্ষা অনুযায়ী ক্ষুধামুক্ত-দারিদ্র্যমুক্ত দেশ, উন্নত সমৃদ্ধ দেশ হিসেবে গড়তে। দেশের প্রতিটি মানুষ পেট ভরে খাবে, হেসে-খেলে বাঁচবে, ?সুন্দরভাবে বাঁচবে। সেটাই আমাদের লক্ষ্য, সেটাই করতে চাই।’ তাই দেশের শান্তি বজায় রাখা একান্তভাবে দরকার বলে মতামত তুলে ধরেন প্রধানমন্ত্রী।
কাজেই এসব দিকে আমাদের প্রত্যেকের কিন্তু স্ব-স্ব কর্মস্থলে দায়িত্ব রয়েছে। সেই দায়িত্বটা সবাইকে যথাযথভাবে পালন করার আহ্বান জানান প্রধানমন্ত্রী। এ সময় গণভবন প্রান্তে প্রধানমন্ত্রীর নিরাপত্তা বিষয়ক উপদেষ্টা মেজর জেনারেল (অব.) তারিক আহমেদ সিদ্দিক, প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয়ের সচিব আবু হেনা মোস্তফা কামাল, প্রধানমন্ত্রী কার্যালয়ের সচিব মো. তোফাজ্জল হোসেন মিয়া, প্রধানমন্ত্রীর প্রেস সচিব ইহসানুল করিম প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

সাদিক আহমেদ,নিজস্ব প্রতিনিধি: হাজার বছরের শ্রেষ্ঠ বাঙালি,বাঙালি জাতির পিতা,বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মশতবর্ষ উপলক্ষে,মাননীয় প্রধানমন্ত্রী,কৃষকরত্ন শেখ হাসিনার নির্দেশে,বাংলাদেশ কৃষকলীগ সভাপতি কৃষিবিদ সমীর চন্দ্র ও সাধারণ সম্পাদক এডভোকেট উম্মে কুলসুম স্মৃতির সার্বিক দিক নির্দেশনায় বাংলাদেশ কৃষকলীগ শ্রীমঙ্গল উপজেলা শাখার আয়োজনে বৃক্ষরোপণ কর্মসূচি পালিত হয়েছে।

আজ ১৩ নভেম্বর (শুক্রবার) বিকাল ৩ টায় উপজেলার আশিদ্রোন ইউনিয়নের ৪ নং ওয়ার্ডের রামনগর মনিপুরী পাড়ায় অনুষ্ঠিত হয় কর্মসূচীটি।

বাংলাদেশ কৃষকলীগ শ্রীমঙ্গল উপজেলা শাখার উদ্যোগে,রামনগর নব জাগরণ যুব সংঘের আমন্ত্রণে বৃক্ষরোপণ কর্মসূচিতে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন বাংলাদেশ কৃষকলীগ শ্রীমঙ্গল উপজেলা শাখার সভাপতি,৩ নং শ্রীমঙ্গল ইউনিয়নের সাবেক চেয়ারম্যান মোঃ আফজল হক।

বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন উপজেলা কৃষকলীগের সমবায় সম্পাদক শারপিন আলী,বীর মুক্তিযোদ্ধা মোঃ ফোরকান উদ্দীন (বীর প্রতিক),নবজাগরণ যুব সংঘের সভাপতি মোঃ খায়রু জামান,সাধারণ সম্পাদক মোঃ দেলোয়ার হোসেন, সহঃসাধারণ সম্পাদক মোঃ শওকত হোসেন,সাংগঠনিক সম্পাদক আব্দুল্লাহ আল জুবায়েরসহ প্রমুখ।

অনুষ্ঠানের শুরুতে স্বাধীনতার মহান সর্বাধিনায়ক জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানসহ পরিবারের সকল শহীদদের আত্মার মাগফেরাত কামনা ও মাননীয় প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনার দীর্ঘায়ু কামনা করে মোনাজাত করা হয়।

তারপরে অনুষ্ঠিত হয় কর্মসূচির প্রথম পর্বের আলোচনা সভা।

প্রধান অতিথির বক্তব্যে উপজেলা কৃষকলীগ সভাপতি আফজল হক বলেন,”মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নির্দেশে ও বাংলাদেশ কৃষকলীগ সভাপতি কৃষিবিদ সমীর চন্দ,সাধারণ সম্পাদক এডভোকেট উম্মে কুলসুম স্মৃতির সার্বিক দিক নির্দেশনায় শ্রীমঙ্গল উপজেলা কৃষকলীগ বছরের শুরু থেকে এখন পর্যন্ত বৃক্ষরোপণ কর্মসূচি চালিয়ে যাচ্ছে।কৃষকলীগ সবসময়ই দেশ ও দেশের কৃষির কথা মাথায় রেখে কৃষকের কল্যানে কাজ করে যাচ্ছে।বঙ্গবন্ধুর নিজ হাতে গড়া এই সংগঠনকে আরো এগিয়ে নিতে সবাইকে ঐক্যবদ্ধভাবে কাজ করার আহ্বান জানান তিনি।এসময় তিনি দেশের পরিবেশের জন্য ও বনভূমি বৃদ্ধির লক্ষ্যে বৃক্ষের প্রয়োজনীয়তা উল্লেখ করে সবাইকে অন্তত ৩ টি করে চারা রোপণ করার জন্য আহবান জানান।”

তারপর অনুষ্ঠিত হয় মূল কর্মসূচী বৃক্ষরোপণ।এসময় উপজেলা কৃষকলীগ সভাপতি মোঃ আফজল হক দলীয় নেতাকর্মীদের নিয়ে চারা রোপণের মাধ্যমে কর্মসূচির উদ্বোধন করেন।

পরে উপস্থিত সকলের হাতে ৩ টি করে ভেষজ,ফলদ ও বনজ চারা তুলে দেন তিনি।

অত্র ওয়ার্ডে আজ সর্বমোট ১৬২ টি গাছের চারা বিতরণ করা হয় এবং এখন পর্যন্ত শ্রীমঙ্গল উপজেলা কৃষকলীগ দলীয় এবং ব্যক্তিপর্যায়ে ৪৫০০ চারা বিতরণ করেছেন জানান তিনি।

নূরুজ্জামান ফারুকী বিশেষ প্রতিনিধি: বালাগঞ্জে ছয় দিন যাবত জবলু মিয়া (২৫) নামে এক যুবক নিখোঁজ রয়েছেন। সে উপজেলার দেওয়ান বাজার ইউনিয়নের সুলতানপুর গ্রামের চান্দ আলীর ছেলে এবং দেওয়ান বাজার সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষক ফুজেল আহমদের ছোটভাই। গত শনিবার (৭ নভেম্বর) থেকে সে নিখোঁজ রয়েছে। এ ব্যাপারে বালাগঞ্জ থানায় একটি সাধারণ ডায়রি করা হয়েছে। ডায়রি নং ৪৪৩।

পারিবারিক সূত্রে জানা গেছে, নিখোঁজ জবলু মিয়া গত ৪ নভেম্বর বসতবাড়ি থেকে তার নানা বাড়ি মোগলাবাজার থানার জাহানপুর গমন করেন। সেখানে ৩দিন অবস্থান করার পর গত শনিবার থেকে তার কোন সন্ধান পাওয়া যাচ্ছে না।

তার সন্ধান পেলে মোবাইল নম্বর ০১৭৩২৬৬৪২২৯ (ফুজেল আহমদ) যোগাযোগ করার জন্য অনুরোধ জানানো হয়েছে।

নিজস্ব প্রতিনিধি: মৌলভীবাজার জেলার শ্রীমঙ্গল উপজেলা শহরের মৌলভীবাজার রোডস্থ নজরুল কমিউনিটি সেন্টারে মায়ের সাথে বিবাহ অনুষ্ঠানে এসে প্রাণ হারালেন ৭ বছরের শিশু শাহী হাসান হৃদয় (৭)।
প্রত্যক্ষদর্শী ও হাসপাতাল সূত্রে জানা যায়, উপজেলার ৫ নং কালাপুর ইউনিয়নের উত্তর সিরাজনগর গ্রামের কুয়েত প্রবাসী মোঃ আব্দুল মতিনের ছোট সন্তান আজ শুক্রবার বিকাল সাড়ে তিনটায় সড়ক দুর্ঘটনায় ঘটনাস্থলে নিহত হয়।
জানা যায়, তার মায়ের সাথে একটি বিবাহ অনুষ্ঠানে আসলে খাবার-দাবার শেষে বাড়িতে যাওয়ার জন্য রাস্তা পারাপারের সময় শ্রীমঙ্গল মৌলভীবাজার আঞ্চলিক রোডের সন্নিকটে নজরুল কমিউনিটি সেন্টারের সম্মুখে মায়ের হাতে ধরে থাকা অবস্থায় একটি কোম্পানির কভার্ডভ্যান (চট্টমেট্রো-শ ১১৩১৮৯) গাড়ির চাপায় ঘটনাস্থলেই মৃত্যু বরণ করেন শাহী হাসান হৃদয় নামের এই শিশু। এসময় তার মা ও আহত হয়।

পরে গুরুতর আহত মনে করে শ্রীমঙ্গল উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে আসলে কর্তব্যরত ডাক্তার আবু নাহিদ তাকে মৃত বলে ঘোষণা করেন।

ময়নাতদন্ত শেষে নিহতের লাশ দাফনের ব্যবস্থা করা হবে বলে জানালেন তার চাচা আওয়ামী লীগ নেতা কদর আলী। নিহত শাহী হাসান হৃদয় তারা তিন ভাই বোন ছিলেন। সে ছিল মা বাবার তৃতীয় সন্তান।

পুলিশ ও স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, এএসআই নজরুল ইসলামের নেতৃত্বে মৌলভীবাজার রোড ৫ নং  পুল সংলগ্ন এলাকা থেকে কভার্ড ভ্যানটি আটক করে থানায় নিয়ে আসেন। এসময় উত্তেজিত জনতা গাড়িটি ভাঙচুরের চেষ্টা করেছিল। তিনি অক্ষত অবস্থায় গাড়িটি শ্রীমঙ্গল থানায় নিয়ে আসলেও এর চালক পলাতক ছিল। কভার্ডভ্যানটি সিপি বাংলাদেশ লিমিটেড কোম্পানির বলে জানা গেছে।

নিজস্ব প্রতিনিধিঃ দক্ষিণ এশিয়ার বৃহত্তর মানবাধিকার সংগঠন সার্ক মানবাধিকার ফাউন্ডেশনের সাংগঠনিক কার্যক্রমকে আরো গতিশীল করতে, সংক্ষিপ্ত সফরে সংগঠনের মহাসচিব অধ্যাপক মাওলানা মোহাম্মদ আবেদ আলী আগামীকাল ১৩ নভেম্বর সিলেট যাচ্ছেন।

কর্মসূচিতে রয়েছে, ১৩ নভেম্বর সকাল ১০ ঘটিকায় ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলা শাখার কর্মী সম্মেলনে প্রধান অতিথি হিসেবে অংশগ্রহণ। সন্ধ্যা ৬ টায় সিলেট মহানগর কার্যালয় উদ্বোধন ও আলোচনা সভায় অংশগ্রহণ।

১৪ নভেম্বর সকালে পুলিশি নির্যাতনে নিহত রায়হানের পরিবারের সাথে সাক্ষাৎ ও বিকালে সংগঠনের দক্ষিণ সুরমা উপজেলা শাখার আলোচনা সভায় অংশগ্রহণ শেষে ১৫ নভেম্বর সিলেট ত্যাগ করবেন।আমার সিলেট প্রতিনিধিকে সফরের তথ্য নিশ্চিত করেছেন মহাসচিব অধ্যাপক মাওলানা মোহাম্মদ আবেদ আলী।

  

এডিটর: আনিছুল ইসলাম আশরাফী, এনিমেটরস্ বাংলা মিডিয়া গ্রুপ কর্তৃক প্রকাশিত
সম্পাদকীয় কার্যালয়: কলেজ রোড, শ্রীমঙ্গল, মৌলভীবাজার।
Email: news.amarsylhet24@gmail.com Mobile: 01772 968 710

Developed By : i-Tech Sreemangal
Email : itech.official@hotmail.com
Facebook : http://facebook.com/itech.ctc