Thursday 3rd of December 2020 04:39:03 PM

নূরুজ্জামান ফারুকী , নবীগঞ্জ: নবীগঞ্জে মোবাইল ফোনে বাড়ি থেকে ডেকে নিয়ে গৃহবধূকে গণধর্ষণের অভিযোগ পাওয়া গেছে। ঘটনাটি ঘটেছে নবীগঞ্জ উপজেলার করগাঁও ইউনিয়নের পাঞ্জারাই গ্রামের কলংকা বিলের পাশে। এ ঘটনায় গত (৩০ অক্টোবর) গৃহবধূ বাদী হয়ে নবীগঞ্জ থানায় ৩ জনের বিরুদ্ধে গণধর্ষণের অভিযোগে মামলা দায়ের করেছেন। এরই প্রেক্ষিতে ২ আসামীকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। গ্রেফতারকৃতরা হলো- উপজেলার করগাঁও ইউনিয়নের পাঞ্জারাই গ্রামের সাদিক মিয়া (৩৫) ও তুয়েল মিয়া (৩০)। অপর আসামী মনর মিয়া (৪০) পলাতক রয়েছে।
জানা যায়, গত (২৬ অক্টোবর) সোমবার সন্ধ্যায় একটি নাম্বার থেকে ফোন আসে ওই গৃহবধূর কাছে। ফোনের অপর প্রান্ত থেকে এক যুবক গৃহবধূকে বলে- ‘আপনার স্বামী হঠাৎ অসুস্থ হয়ে অজ্ঞান অবস্থায় রাস্তায় পড়ে আছে’ মোবাইল ফোনে স্বামীর অসুস্থ এ খবরে হতাশ হয়ে যান গৃহবধূ। জানতে চান কোথায় অজ্ঞান হয়ে পড়ে আছে, অপর প্রান্ত থেকে জানায় কলংকা বিলের পাড়ে। পরে দ্রুত গৃহবধূ একাই চলে যান কলংকা বিলের পাড়ে। সরল মনে বিশ্বাস করে প্রতারকদের  ধোকায় পড়ে বোকা বনে যান ওই গৃহবধূ। সেখানে যাওয়ার পর ৩ জন মিলে তাকে জোরপূর্বক ধর্ষণ করে।
গৃহবধূ উল্লেখ করেন, তার স্বামী সত্যিই অসুস্থ তাই প্রতারকদের মোবাইল কলে বিশ্বাস করেছেন। তিনি সরল মনে বিশ্বাস করে প্রতারকদের কলে ধোকায় পড়ে বোকা বনে যান। সেখানে যাওয়ারাম ৩ জন মিলে তাকে জোরপূর্বক ধর্ষণ করেন। এ ঘটনায় ধর্ষণের শিকার গৃহবধূ বাদী হয়ে ৩ জনকে আসামী করে মামলা দায়ের করলে গত ৩০ অক্টোবর ধর্ষণকারী ২ জনকে গ্রেফতার করে পুলিশ। নবীগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মোঃ আজিজুর রহমান বলেন, ধর্ষনের ঘটনায় মামলা হয়েছে। তাৎণিক অভিযান চালিয়ে অভিযুক্ত ৩ জনের মধ্যে ২ জনকে গ্রেফতার করা হয়।

নাজমুল হক নাহিদ, আত্রাই (নওগাঁ) প্রতিনিধি: নওগাঁর আত্রাইয়ে ট্রেনের নিচে কাটা পড়ে রাহেলা বেগম (৪৫) নামে এক গৃহবধূর মৃত্যু হয়েছে। রোববার (১ নভেম্বর) সকাল ১০টার দিকে এ ঘটনাটি ঘটে।

নিহত রাহেলা উপজেলার কয়শা গ্রামের বাসিন্দা।

এ বিষয়ে আত্রাই থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মোসলেম উদ্দিন ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে জানান, সকালে রাহেলা বেগম উপজেলার শাহাগোলা এলাকায় ট্রেন লাইনের উপর দিয়ে হাঁটছিলেন। এসময় একটি ট্রেন ধাক্কা দিলে ঘটনাস্থলেই সে গুরুত্বর আহত হয়। পরে তাকে স্থানীয়রা উদ্ধার করে রাজশাহী মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে যাওয়ার সময় পথ মধ্যেই তার মৃত্যু হয়।

ক্ষমতার অপব্যবহার করে অবৈধ সম্পদ অর্জনের অভিযোগে ২১ জন সাবেক ও বর্তমান সংসদ সদস্যের বিরুদ্ধে অনুসন্ধান করছে দুর্নীতি দমন কমিশন (দুদক)। তাদের বিরুদ্ধে বিদেশে অর্থ পাচার ও সরকারের বিভিন্ন সামাজিক উন্নয়ন কর্মসূচি বাস্তবায়নে দুর্নীতির অভিযোগ রয়েছে। এদের কারো কারো নাম ক্যাসিনোকাণ্ডেও আলোচিত। গত বছরের সেপ্টেম্বরে ক্যাসিনো বিরোধী অভিযানের পর দুর্নীতি দমন কমিশন প্রায় দুই শতাধিক প্রভাবশালী ব্যক্তির তালিকা করে অবৈধ সম্পদের খোঁজে নামে। এই তালিকায় ছিল বর্তমান সংসদের ৫জন সদস্যের নাম। যাদের কারও কারও বিরুদ্ধে ক্যাসিনোকাণ্ডে পরোক্ষভাবে জড়িত থাকার অভিযোগ রয়েছে। দেশত্যাগেও কয়েকজনকে নিষেধাজ্ঞা দেওয়া হয়েছে।

এছাড়া বর্তমান জাতীয় সংসদের আরও ৬ জন সদস্যের অবৈধ সম্পদের খোঁজ করছে দুদক। তাদের বিরুদ্ধে ক্ষমতার অপব্যবহার করে- সরকারি সম্পদ লোপাট, খাস পুকুর ইজারায় দুর্নীতি, সারের ডিলার নিয়োগে অনিয়ম, স্কুল কলেজে শিক্ষক নিয়োগে দুর্নীতি, ঘুষ নিয়ে ঠিকাদার নিয়োগ, স্বজনপ্রীতিসহ নানা অভিযোগ রয়েছে। প্রাথমিক অনুসন্ধানে তাদের নামে-বেনামে বিপুল পরিমাণ স্থাবর-অস্থাবর সম্পদের তথ্য পেয়েছে দুদক। এসব যাচাই করতে বাংলাদেশ ব্যাংকেসহ সরকারি বিভিন্ন দপ্তরে চিঠি দিয়েছে সংস্থাটি।

দুদকের এই উদ্যোগকে ইতিবাচক বলছে টিআইবি। তবে প্রভাবশালীদের বিরুদ্ধে চূড়ান্তভাবে পদক্ষেপ নিতে দুদকের আন্তরিকতার ঘাটতি দেখছে দুর্নীতি বিরোধী আন্তর্জাতিক এই সংস্থা।  আওয়ামী লীগ- ও বিএনপি দলীয় ১০ জন সাবেক সংসদ সদস্যের বিরুদ্ধে অবৈধ সম্পদ অর্জনের অভিযোগ খাতিয়ে দেখছে দুদক।

শ্রীমঙ্গল প্রতিনিধি: মৌলভীবাজার জেলার শ্রীমঙ্গল উপজেলার লাউয়াছড়া জাতীয় উদ্যানে গত রাতে আটককৃত বিরল প্রজাতির তক্ষকটি বিজ্ঞ আদালতের (মৌলভীবাজার আমলী আদালত-২) অনুমতিতে আজ শনিবার (১ নভেম্বর) সন্ধ্যায়  গভীর জঙ্গলে অবমুক্ত করা হয়। এর আগে বিরল প্রজাতির তক্ষকটি হবিগঞ্জ রোডস্থ ভূমি অফিসের সামনে থেকে আটক করা হয়েছিল।

শ্রীমঙ্গল থানার এসআই সাইফুল ইসলাম এর নেতৃত্বে পুলিশের একটি টিম বন কর্মকর্তা আনোয়ার হোসেন এর উপস্থিতিতে গভীর জঙ্গলে বিরল প্রজাতির এই প্রাণীটিকে  অবমুক্ত করে দেন।এসময় আরো উপস্থিত ছিলেন,সাদ্দাম হোসেন,নিয়াজ হোসেন ও আরিফুল ইসলাম প্রমুখ।

উল্লেখ্য,শনিবার দিবাগত (১ নভেম্বর) রাত ১টার দিকে র‌্যাপিড এ্যাকশন ব্যাটালিয়ন (র‌্যাব)-৯ এর শ্রীমঙ্গল ক্যাম্পের একটি দল শ্রীমঙ্গল ভূমি অফিসের সামনে থেকে বিরল প্রজাতির প্রাণী তক্ষকসহ মো. সোহেল জয় (৪১) নামের একজনকে আটক করে।

সোহেল জয় বাগেরহাট জেলার মোড়লগঞ্জ থানার বাড়ইখালী গ্রামের জাহাঙ্গীর হোসেন কালুর ছেলে। সে শ্রীমঙ্গলের মুসলিমবাগে ভাড়াটে থাকতো।তক্ষকসহ আটকের পর সোহেলের বিরুদ্ধে র‌্যাব বাদি হয়ে বন্য প্রাণী (সংরক্ষণ ও নিরাপত্তা) আইনে মামলা দায়েরপূর্বক তাকে শ্রীমঙ্গল থানায় হস্তান্তর করেছে।

তক্ষকসহ আটকের পর সোহেলের বিরুদ্ধে র‌্যাব বাদি হয়ে বন্য প্রাণী (সংরক্ষণ ও নিরাপত্তা) আইনে মামলা দায়েরপূর্বক তাকে শ্রীমঙ্গল থানায় হস্তান্তর করলে আইন মাফিক তাকে বিজ্ঞ আদালতের মাধ্যমে কারাগারে প্রেরণ করা হয়।

গোপন সূত্রে জানা যায় আটককৃত সোহেলের সাথে স্থানীয় একটি সিন্ডিকেট কাজ করে যাচ্ছে।

শ্রীমঙ্গলে বিরল প্রজাতির বন্যপ্রাণী তক্ষকসহ আটক-১

নূরুজ্জামান ফারুকী বিশেষ প্রতিনিধি: মৌলভীবাজার জেলার শ্রীমঙ্গলে বিরল প্রজাতির বন্য প্রাণী তক্ষকসহ একজনকে আটক করেছে র‌্যাব-৯। আজ শনিবার (১ নভেম্বর) মধ্য রাতের দিকে র‌্যাপিড এ্যাকশন ব্যাটালিয়ন (র‌্যাব)-৯ এর শ্রীমঙ্গল ক্যাম্পের একটি দল শ্রীমঙ্গল ভূমি অফিসের সামনে থেকে বিরল প্রজাতির প্রাণী তক্ষকসহ মো. সোহেল জয় (৪১) নামের একজনকে আটক করে।

সোহেল জয় বাগেরহাট জেলার মোড়লগঞ্জ থানার বাড়ইখালী গ্রামের জাহাঙ্গীর হোসেন কালুর ছেলে। সে শ্রীমঙ্গলের  মুসলিমবাগে ভাড়াটে থাকতো।

তক্ষকসহ আটকের পর সোহেলের বিরুদ্ধে র‌্যাব বাদি হয়ে বন্য প্রাণী (সংরক্ষণ ও নিরাপত্তা) আইনে মামলা দায়েরপূর্বক শ্রীমঙ্গল থানায় হস্তান্তর করেছে।

নূর মোহাম্মদ সাগর,বিশেষ প্রতিনিধি:আজ রোববার মৌলভীবাজারের শ্রীমঙ্গলে নিসচা শ্রীমঙ্গল উপজেলা শাখার উদ্যোগে কলেজ রোডস্থ শ্রীমঙ্গল প্রেসক্লাবে সংবাদ সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়।

জনগণের প্রত্যাশিত সড়ক পরিবহন আইন ২০১৮ এর পূর্ণ বাস্তবায়নের দাবিতে নিরাপদ সড়ক চাই, পথ যেন হয় শক্তির, মৃত্যুর নয়। এই শ্লোগানকে সামনে রেখে শ্রীমঙ্গল উপজেলা শাখার উদ্যোগে সংবাদ সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়েছে।

লিখিত বক্তব্য পাঠ করেন, নিসচা শ্রীমঙ্গল উপজেলা শাখার সম্পাদক গোলামুর রহমান মামুন ,এসময়ে অন্যান্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন, নিসচা শ্রীমঙ্গল উপজেলা শাখার সহ-সভাপতি মো. ছালেক আহমেদ , সাহ সম্পাদক ফখরুল ইসলাম সাংগঠনিক সম্পাদক আহাম্মদ হোসেন এতে উপস্থিত ছিলেন উত্তর সংগঠনের সদস্যবৃন্দ ও সাংবাদিকবৃন্দ। লিখিত বক্তব্যে বলা হয়। ‘পথ যেন হয় শান্তির, মৃত্যুর নয়-এ স্লোগানে সামাজিক আন্দোলন নিরাপদ সড়ক
চাই (নিসচা)’র জন্ম আজ থেকে ২৭ বছর আগে, ১৯৯৩ সালের ২২ অক্টোবর। এদিন সড়ক দুর্ঘটনায় স্ত্রী জাহানারা কাঞ্চনকে হারিয়ে আমি এ আন্দোলন গড়ে তুলি। স্ত্রীকে আর ফিরে পাবাে না এটা জানি, কিন্তু আর কারও স্ত্রী, বান, ভাই, বাবা-মা এভাবে পৃথিবী থেকে বিদায় নিক তা চাইনি। এ কারণে নিজের চলচ্চিত্র জগতের ক্যারিয়ার ছেড়ে দেশের মানুষকে সড়ক দুর্ঘটনার হাত থেকে রক্ষা করার জন্য নিরলস ভাবে কাজ করে যাচ্ছি।দীর্ঘ এ আন্দোলনে নিসচার পালকে অনেক অর্জন এসেছে। নিঃসন্দেহে এসব সাফল্য আমাদের
অনুপ্রাণিত করে। তবে কোনাে প্রাপ্তিতেই আমরা থেমে থাকিনি। সড়কে শৃঙ্খলা ফিরিয়ে আনতে
আমরা শুরু থেকে একটি সমযােপযােগী আইনের দাবি জানিয়ে আসছিলাম। পাশাপাশি আইন পাস করলে হবে না সড়কে আইন মানতে মানুষকে সচেতন করার ওপর জোর দিই। এজন্য ২২ অক্টোবরকে জাতীয় নিরাপদ সড়ক দিবস হিসেবে ঘােষণার দাবি জানাই। আমাদের লক্ষ্য ছিল,নিরাপদ সড়কের জন্য একটি দিবসকে যদি রাষ্ট্রীয়ভাবে পালন করা যায় তা হলে জনগণের মাঝে এ বিষয়ে একটি সচেতনতা তৈরি হবে। সরকার আমাদের দাবিকে সম্মান জানিযে ২০১৭ সাল
থেকে দিবসটির জাতীয় স্বীকৃতি দিয়েছে এবং দিনটি যথাযােগ্য মর্যাদায় সরকারিভাবে পালিত
হচ্ছে। আমরা বিশ্বাস করি, এতে নিরাপদ সড়ক আন্দোলন আরও জোরালাে হয়েছে। আমাদের
দীর্ঘদিনের আরেকটি দাবি, সমযােযােগী সড়ক আইন, সেটিও পূরণ হয়ছে। এখন দরকার এ
আইনের সঠিক প্রয়োগ।কিন্তু হতাশার বিষয় হচ্ছে-মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ঘােষণার পরও ২০১৯ সালের ১ নভেম্বর প্রয়োগের দিন থেকেই আইনটি হােঁচট খেল। আইনটির যথাযথ প্রয়োগে বারবার বাঁধা হয়ে দাঁড়িযেছে পরিবহন সেক্টরের একটি অশুভ শক্তি। যদিও জনগণের প্রত্যাশিত সড়ক পরিবহন আইনের সংস্কার আমাদের দাবি ছিল। সরকারও বিভিন্ন সময় ১৯৮৩ সালে প্রণীত আইনটিকে সমযােযােগী করার উদ্যোগও নেয়। অনেকটা সময় পেরিয়ে সড়কের বিশৃঙ্খল অবস্থার বাস্তবচিত্র এবং ২০১৮ সালের ২৯ জুলাই রাজধানীর বিমানবন্দর সড়কে বেপরােযা বাসের চাপায় শহীদ
রমিজ উদ্দিন ক্যান্টনমেন্ট কলেজের কায়েকজন শিক্ষার্থীসহ বাস চাপায বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষার্থী আবরার আহমেদ এবং দুই বাসের রেষারেষিতে হাত হারানাে রাজীবের মর্মান্তিক মৃত্যুসহ বেশ কয়েকটি মর্মান্তিক সড়ক দুর্ঘটনার পরিপ্রেক্ষিতে নিরাপদ সড়কের দাবিতে গড়ে ওঠা ছাত্র আন্দোলন এ আইনটি পাসের প্রক্রিয়াকে তরান্বিত করে। অবশেষে কোনও চাপের মুখে নতি স্বীকার না করে সরকার এ আইনটি জাতীয় সংসদে পাস করে ২০১৮ সালে। এর প্রায় ১৫ মাস পর ২০১৯
সালের ১ নভেম্বর থেকে আইনটি কার্যকর শুরু করে সরকার। প্রথম ১৪ দিন সহনীয় মাত্রায় এর
প্রয়োগ ছিল। পরবর্তীতে পরিবহন মালিক-শ্রমিকদের দাবিতে আইনের কয়কটি বিষয় পরবর্তী ছয়মাস পর্যন্ত কনসিডারের সিদ্ধান্ত নেয় সরকার। পরবর্তীতে করােনার কারণে এই আইন যথাযথ প্রয়োগের সময়সীমা বৃদ্ধি করে এ বছরের ৩১ ডিসেম্বর পর্যন্ত নির্ধারণ করা হয়।
একটা কথা বলতে দ্বিধা নেই সরকার নতুন সড়ক পরিবহন আইন-২০১৮ প্রয়োগে যখনই উদ্যোগ নেয় তখনই পরিবহন সেন্টরের সেইচক্রটি বাঁধা সৃষ্টি করে। তারা নতুন করে নানা ধরনের দাবি দাওয়া তুলে ধরে। শুধু তাই নয়, গণপরিবহন চলাচল বন্ধ করে জনগণকে ভােগান্তিতে ফেলে দেয়।এমনকি আমাদেরকে তাদের প্রতিপক্ষ হিসেবে দাঁড় করানাে হয়। আমাকে অবাস্থিত ঘােষণা করা হয়।
যা সভ্যিই দুঃখজনক। আমি বলবাে নতুন আইনের বিষয়ে তারা কোনও প্রস্তুতি ইচ্ছে করেই নেয়নি এবং নিচ্ছে না। তারা শুধু দোষারােপ করে গেছে তাদের দূর্বলতা ঢাকার জন্য। তারা আরও লিখিত বক্তব্যের মধ্যে আরও বিভিন্ন দিক তুলে ধরেন।

জেলা প্রতিনিধি,হবিগঞ্জ: হবিগঞ্জের চুনারুঘাটে ৯০০ কেজি চা-পাতাসহ একটি পিকআপ ভ্যান জব্দ করেছে বর্ডার গার্ড বাংলাদেশ (বিজিবি) সদস্যরা। শনিবার (৩১ অক্টোবর) বিকেলে উপজেলার আমতলীতে চা-পাতাসহ পিকআপ ভ্যান যার নং-ঢাকা মেট্রো ২০-২৬৬৮) জব্দ করা হয়। বিজিবি সূত্রে জানা গেছে, গোপন সংবাদের ভিত্তিতে আমতলীতে চিমটিবিল সীমান্তের বিজিবির একটি দল অভিযান চালায়। অভিযানকালে অবৈধভাবে বহন করা ৯০০ কেজি চা-পাতাসহ পিকআপ ভ্যান আটক করা হয়।

এসময় বিজিবির উপস্থিতি টের পেয়ে চোরাকারবারিরা পালিয়ে যায়। অভিযানে নেতৃত্ব দেন বিজিবির সুবেদার মো. আবু তাহের। বিজিবির হবিগঞ্জ ৫৫ ব্যাটালিয়নের অধিনায়ক (সিও) লে. কর্ণেল সামিউন্নবী চৌধুরী বলেন, ‘সীমান্তে চোরাচালান রোধে বিজিবি সতর্ক অবস্থানে আছে। গোপন সংবাদের ভিত্তিতে অভিযান চালিয়ে চা-পাতা উদ্ধার করা হয়। উদ্ধারকৃত চোরাই চা পাতার বাজার মূল্য প্রায় ২ লক্ষ ৭০ হাজার টাকা এবং জব্দকৃত পিকআপ ভ্যানের মূল্য প্রায় ৮ লক্ষাদিক টাকা। সীমান্তের চোরাচালান রোধ করতে বিজিবির অভিযান চলবে।’

নূরুজ্জামান ফারুকী বিশেষ প্রতিনিধি: ঢাকা-সিলেট মহাসড়কের শায়েস্তাগঞ্জ দক্ষিণবড়চর এলাকায় বাস ও পাথরবাহী ট্রাকের মুখোমুখি সংঘর্ষে একজন নিহত হয়েছেন। এ ঘটনায় আহত হয়েছেন কমপক্ষে আরও ২০ জন। শুক্রবার রাত সাড়ে ৮টার দিকে এ দুর্ঘটনা ঘটে।

স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, হবিগঞ্জগামী বিসমিল্লাহ পরিবহনের একটি বাস ও ঢাকাগামী পাথরবাহী ট্রাকের সাথে শায়েস্তাগঞ্জ দক্ষিণবড়চর এলাকায় মুখোমুখি সংঘর্ষ হয়। খবর পেয়ে শায়েস্তাগঞ্জ ফায়ার সার্ভিস ও শায়েস্তাগঞ্জ হাইওয়ে থানার পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌঁছে আহতদেরকে উদ্ধার করে হবিগঞ্জ ২৫০ শয্যা হাসপাতালে পাঠায়। হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় একজন মারা যান।

শায়েস্তাগঞ্জ হাইওয়ে থানার ওসি তফিকুল ইসলাম তৌফিক জানান, আহতদের মধ্যে গুরুতর অবস্থায় তিনজনকে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। নিহত ও আহতদের পরিচয় পাওয়া যায়নি। ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করেছেন শায়েস্তাগঞ্জ হাইওয়ে থানা পুলিশের ওসি তফিকুল ইসলাম তৌফিক।

  

এডিটর: আনিছুল ইসলাম আশরাফী, এনিমেটরস্ বাংলা মিডিয়া গ্রুপ কর্তৃক প্রকাশিত
সম্পাদকীয় কার্যালয়: কলেজ রোড, শ্রীমঙ্গল, মৌলভীবাজার।
Email: news.amarsylhet24@gmail.com Mobile: 01772 968 710

Developed By : i-Tech Sreemangal
Email : itech.official@hotmail.com
Facebook : http://facebook.com/itech.ctc