Thursday 24th of September 2020 11:20:01 AM

মিনহাজ তানভীরঃ  মৌলভীবাজার জেলার শ্রীমঙ্গল উপজেলার চা বাগান অধ্যুষিত এলাকা রাজঘাট ইউনিয়ন পরিষদে চা-শ্রমিকদের জীবনমান উন্নয়ন কর্মসুচির আওতায় ১২টি চা-বাগানের ২ হাজার ৪২৯ জন চা-শ্রমিকের মাঝে এককালীন অর্থ সহায়তার প্রায় ১ কোটি সাড়ে ২১ লাখ টাকার চেক বিতরণ করেন।

আজ ১৬ই সেপ্টেম্বর (বুধবার) সকাল ১১টায় ইউনিয়ন পরিষদে সমাজসেবা অধিদপ্তর কর্তৃক বাস্তবায়িত সামাজিক নিরাপত্তা বেষ্টনীর অন্তর্গত চা শ্রমিকের জীবনমান উন্নয়ন কর্মসূচীর আওতায় প্রতিজনে ৫ হাজার টাকা করে ২ হাজার ৪২৯ জনকে ১ কোটি ২১ লাখ ৪৫ হাজার টাকার এককালীন আর্থিক অনুদানের চেক প্রদান করা হয়।

অনু্ষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন শ্রীমঙ্গল উপজেলা নির্বাহী অফিসার নজরুল ইসলাম। প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্হিত থেকে অনুদানের চেক চা-শ্রমিকদের মাঝে বিতরণ করেন বাংলাদেশ জাতীয় সংসদের অনুমিত হিসাব সম্পর্কিত সংসদীয় স্হায়ী কমিটির সভাপতি ও স্থানীয় সাংসদ বীর মুক্তিযোদ্ধা উপাধ্যক্ষ ড. মোঃ আব্দুস শহীদ। বিশেষ অতিথি ছিলেন শ্রীমঙ্গল উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান রনধীর কুমার দেব।

আরও উপস্থিত ছিলেন, রাজঘাট চা-বাগানের জেনারেল ম্যানেজার মাইনুল হাসান, রাজঘাট ইউপি চেয়ারম্যান বিজয় বুনার্জি।শ্রীমঙ্গল উপজেলা আওয়ামী লীগের সহ সাধারণ সম্পাদক এনাম হোসেন চৌধুরী মামুন, সাংগঠনিক সম্পাদক ছালিক আহমদ, উপজেলা যুবলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক আবু তালেব বাদশা, পৌর যুবলীগের সভাপতি আকবর হোসেন শাহিন, ইউনিয়ন আওয়ামী লীগ, যুবলীগসহ ছাত্রলীগের নেতৃবৃন্দ ও উপস্থিত ছিলেন।

জানা গেছে,পর্যায়ক্রমে শ্রীমঙ্গল উপজেলায় ৭ হাজার ৪৮৫ চা-শ্রমিকের মাঝে প্রতি জনকে ৫ হাজার টাকা করে মোট ৩ কোটি ৭৪ লাখ ২৫ হাজার টাকা বিতরন হবে।

শ্রীমঙ্গল (মৌলভীবাজার) প্রতিনিধি: মৌলভীবাজার জেলার শ্রীমঙ্গল উপজেলার আশীদ্রোন ইউনিয়নের ২,৩,৪,৭ ও ৮ নং ওয়ার্ড যুবলীগের কমিটি গঠন করা হয়েছে।

৬নং আশীদ্রোন ইউনিয়ন ওয়ার্ডে গঠিত কমিটি গুলোর আয়োজনে শহরের কলেজ রোডস্থ একটি অফিসে আজ (১৬সেপ্টেম্বর)রোজ বুধবার বিকাল ৪ টায় এক মতবিনিয় ও সংবর্ধনা সভা অনুষ্ঠিত হয়।

স্থানীয় যুবলীগ নেতাদের সুত্রে জানা গেছে  ২নং ওয়ার্ড এর মোহাম্মদ নুর ইসলামকে সভাপতি ও কৃষ্ণ পালকে সাধারণ সম্পাদক করে ৪১ সদস্য বিশিষ্ট কমিটি গঠন করা হয়।

৩নং ওয়ার্ড এর জনি রায়কে সভাপতি ও মিজানুর রহমানকে সাধারণ সম্পাদক করে ৪১ সদস্য বিশিষ্ট কমিটি গঠন করা হয়।

৪নং ওয়ার্ড এর এইচ এম ইমন আহমেদকে সভাপতি ও লুৎফুর রহমান পান্নাকে সাধারণ সম্পাদক করে ৪১ সদস্য বিশিষ্ট কমিটি গঠন করা হয়।

৭নং ওয়ার্ড এর শেখ মোঃ দুলাল আহমদকে সভাপতি ও  মোঃ আল আমিনকে সাধারণ সম্পাদক করে ৪১ সদস্য বিশিষ্ট কমিটি গঠন করা হয়।

৮নং ওয়ার্ড এর মোঃ রাসেল মিয়াকে সভাপতি ও মনোমোহন চক্রবর্তীকে সাধারণ সম্পাদক করে ৪১ সদস্য বিশিষ্ট কমিটি গঠন করা হয়।

নব গঠিত কমিটির ওয়ার্ড যুবলীগ কর্মিরা ফুল দিয়ে উপজেলা নেতাদের সাথে মতবিনিময় করেন।

মতবিনিয় সভায় অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন, শ্রীমঙ্গল উপজেলা আওয়ামীলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক ও শ্রীমঙ্গল উপজেলা যুবলীগের সভাপতি বেলায়েত হোসেন,শ্রীমঙ্গল উপজেলা আওয়ামীলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক ও শ্রীমঙ্গল উপজেলা যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক মো. ছালিক আহমেদ, উপজেলা যুবলীগ,ছাত্রলীগ নেতৃবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।

নব গঠিত কমিটির ওয়ার্ড যুবলীগ কর্মিরা ফুল দিয়ে উপজেলা নেতাদের সাথে মতবিনিময় করেন। এ সময় যুবলীগের সভাপতি বেলায়েত হোসেন বলেন,আগামী শুক্রবারে বাকী ওয়ার্ড গুলোর কমটি গঠন করা হবে এবং পর্যায় ক্রমে উপজেলার অন্যান্য ওয়ার্ডের কমিটিও গঠন করা হবে।

নুরুজ্জামান ফারুকী,নবীগঞ্জঃ  গ্রিসের আসপোপিরগো নামক স্থান থেকে দুই বাংলাদেশির গুলিবিদ্ধ লাশ উদ্ধার করেছে দেশটির পুলিশ। নিহতদের একজনের নাম আব্দুল মমিন। তার বাবার নাম আব্দুর রাজ্জাক,মা গুলেসা বেগম। অপরজনের নাম মোহাম্মদ শাহীন। তার বাবার নাম নুর হোসেন, মা আমিনা খাতুন। নিহত দুইজনেরই বাড়ি হবিগঞ্জ জেলার নবীগঞ্জ উপজেলার বড়ভাকৈর পূর্ব ইউনিয়নের কামড়াখাই গ্রামে।

পুলিশ জানিয়েছে, কে বা কারা তাদের হত্যা করে পরিত্যক্ত দুটি কনটেইনারের পৃথক পৃথক রুমে রেখে যায়। তাদের একজনের মাথায় ও আরেকজন গলায় গুলিবিদ্ধ ছিলেন। গ্রিসের প্রচলিত আইনে এই হত্যাকাণ্ডের সুষ্ঠু বিচারের জন্য বাংলাদেশ কমিউনিটি ইন গ্রিসের সভাপতি হাজী আব্দুল কুদ্দুস, গ্রিস আওয়ামী লীগের সভাপতি মান্নান মাতুব্বর জোর দাবি জানিয়েছেন। ইতোমধ্যে গ্রিক পুলিশের সঙ্গে যোগাযোগ করেছে বাংলাদেশ দূতাবাস ও বাংলাদেশ কমিউনিটি ইন গ্রিস।
জানা গেছে, আইনি প্রক্রিয়া শেষে তাদের লাশ দেশে পাঠানো হবে।

নিশাত আনজুমান,আক্কেলপুর (জয়পুরহাট) প্রতিনিধি:    জয়পুরহাটের আক্কেলপুরে হঠাৎ করে পিঁয়াজের বাজার অস্থিতিশীল হয়ে পড়ায় বাজার নিয়ন্ত্রণে পদক্ষেপ নেয় উপজেলা প্রশাসনের। একলাফে দাম কমলো অর্ধেকে।
মঙ্গলবার সকালে আক্কেলপুর কলেজ বাজারের পৌর হাটে নিত্যপণ্য পিঁয়াজ ৮০ টাকা থেকে ১৩০ টাকা কেজি দরে বিক্রি করতে থাকে ব্যবসায়ীরা।
মঙ্গলবার পিঁয়াজের বাজার নিয়ন্ত্রণে উপজেলা নির্বাহী অফিসার এসএম হাবিবুল হাসান ও সহকারী কমিশনার (ভুমি) মিজানুর রহমান অভিযান পরিচালনা করেন হাট বাজার সমুহে।
এ সময় কলেজ বাজারের ভাই ভাই আড়ৎ-এ মুল্য তালিকা না থাকায় ৫ হাজার টাকা, ভ্রাম্যমান আদালতকে অবমাননার দায়ে এক হোটেল মালিককে ৫’শ টাকা জড়িমানা করেছেন।
একই সাথে বাজার নিয়ন্ত্রণে পাইকারী পিঁয়াজ বাজারে স্বাস্থ্যবিধি মেনে টিসিবি-র মাধ্যমে ন্যয্যমুল্য পিঁয়াজ, চিনি, তেলও ডাল বিক্রীর উদ্বোধন করেছেন ইউএনও।
উপজেলা প্রশাসের অভিযানের পর আক্কেলপুর কলেজ বাজারে দেশী পিঁয়াজ ৫০-৫৫ টাকা দরে বিক্রয় হচ্ছে।
উপজেলা নির্বাহী অফিসার এ্স এম হাবিবুল হাসান বলেন, সিন্ডিকেটের মাধ্যমে পিঁয়াজের বাজারে কৃত্তিম সংকট করে বাজার অস্থির করেছে একটি অসধু ব্যবসায়ী চক্র, এমন অভিযোগের ভিত্তিতে সহকারী কমিশনার (ভুমি) মিজানুর রহমানকে সাথে নিয়ে বাজারে ভ্রাম্যমাান আদালত পরিচালনা করা হয়েছে। বাজার নিয়ন্ত্রণে এই অভিযান অব্যহত থাকবে।

জুড়ী প্রতিনিধিঃ মৌলভীবাজার জেলার জুড়ী-ফুলতলা সড়কের কাজে ব্যবহারের জন্য টিলা কেটে মাটি নিয়ে যাচ্ছিলেন ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠানের দায়িত্বরতরা।
এমন সংবাদে ঘটনাস্থলে যান ভ্রাম্যমাণ আদালত। সরেজমিনে টিলা কাটার অপরাধের দায়ে দুই লাখ টাকা জরিমানা আরোপ করেন সংশ্লিষ্টদের।
পুলিশ সূত্রে জানা যায়, আজ মঙ্গলবার বিকেলে উপজেলার সাগরনাল ইউনিয়নের উত্তর বড়ডহর গ্রামে টিলা কাটছিলেন জুড়ী-ফুলতলা সড়কের কাজে নিয়োজিত ওয়াহিদ কনস্ট্রাকশনের দায়িত্বরতরা। সংবাদ পেয়ে উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মো. মোস্তাফিজুর রহমান সেখানে ভ্রাম্যমাণ আদালতের মাধ্যমে কনস্ট্রাকশনের সাইট ইঞ্জিনিয়ার মতিয়ার রহমানকে দুই লাখ টাকা জরিমানা অনাদায়ে তিন মাসের বিনাশ্রম কারাদণ্ড প্রদান করেন। এসময় টিলা কাটার কাজে ব্যবহৃত একটি ট্রাক ও একটি এক্সেভেটর জব্দ করা হয়। পরে অর্থদণ্ড প্রদান করেন মতিয়ার। জুড়ী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) সঞ্জয় চক্রবর্তীর নেতৃত্বে একদল পুলিশ ভ্রাম্যমাণ আদালতে সহযোগিতা করেন।
উপজেলা সহকারী কমিশনার মো. মোস্তাফিজুর রহমান ভ্রাম্যমাণ আদালতের অভিযান ও অর্থদণ্ড আরোপ এবং আদায়ের বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

মিনহাজ তানভীরঃ  মৌলভীবাজার জেলার শ্রীমঙ্গল উপজেলা শহরের সেন্ট্রাল রোড ও মৌলভীবাজার রোডের পাইকারি ও খুচরা বাজার মনিটরিং করা হয় আজ মঙ্গলবার (১৫ সেপ্টেম্বর) সন্ধ্যায়। ২৪ ঘন্টার ব্যবধানে পেঁয়াজের অস্বাভাবিক মূল্যবৃদ্ধির কারণে ব্যবসায়ীদের সতর্ক করা হয়। এ সময় অতিরিক্ত মূল্যে পেঁয়াজ বিক্রির অপরাধে সালাউদ্দিন ট্রেডার্স এর মালিককে ২০ হাজার টাকা অর্থদণ্ড প্রদান ও আদায় করা হয়। দ্রব্যের যোগান স্বাভাবিক ও মূল্য স্থিতিশীল রাখতে উপজেলা প্রশাসনের অভিযান অব্যাহত থাকবে বলে জানা গেছে।
এছাড়া ট্রেড লাইসেন্স হালনাগাদ না থাকায় এক দোকানীকে অত্যাবশ্যকীয় পণ্য নিয়ন্ত্রণ আইনে ৫০০ টাকা এবং সড়ক পরিবহন আইন ২০১৮ এর সংশ্লিষ্ট ধারায় ৫ জন মোটরবাইক চালককে ১৭০০ টাকা অর্থদণ্ড আরোপ ও আদায় করা হয়।
মোবাইল কোর্ট পরিচালনা করেন উপজেলা নির্বাহী অফিসার ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট নজরুল ইসলাম। এসময় আরো উপস্থিত ছিলেন সহকারী কমিশনার (ভূমি) মো. নেছার উদ্দিন এবং শ্রীমঙ্গল থানার ওসি (অপারেশন) নয়ন কারকুনসহ পুলিশের একটি টিম।

অভিযানের আরেকটি চিত্র। ছবি সংগৃহীত

প্রসঙ্গত, বাজারের সিন্ডিকেটকারীরা রাতারাতি পাইকারি ৩৮ থেকে ৬৫ টাকায় পিঁয়াজ বিক্রি করছে যার প্রভাবে খুচরা বাজারে ৮০ থেকে ১০০ টাকা পর্যন্ত হাঁকছে। অপর দিকে পিঁয়াজের বাজার অস্থিতিশীল করতে বিভিন্ন স্থানে গোদামে পিঁয়াজ স্টকে রেখেছে বলে আমার সিলেট প্রতিনিধির গোপন সুত্রে জানা গেছে।

উল্লেখ্য, বাজার নিয়ন্ত্রণে রাখতে এই রকম অভিযান অব্যাহত রাখলে আমাদের হঠাৎ সমস্যায় পরতে হবেনা বলে সাধারণ জনগণ মনে করেন।

এম ওসমান, বেনাপোল প্রতিনিধিঃ   অতিবৃষ্টি ও বন্যায় সরবরাহে ঘাটতি দেখা দেয়ায় নিজ দেশের বাজারে দাম বৃদ্ধি ঠেকাতে ভারত পেঁয়াজ রফতানি বন্ধ করে দিয়েছে বাংলাদেশে। পেট্রাপোল কাস্টমস কর্মকর্তাদের বরাত দিয়ে সিএন্ডএফ এজেন্ট কার্তিক চক্রবর্তী এ তথ্য জানিয়েছেন।

কার্তিক চক্রবর্তী বলেন, সম্প্রতি ভারতের বিভিন্ন প্রদেশে অতিবৃষ্টি ও বন্যা হওয়ায় ভারতের যেসব অঞ্চলে পেঁয়াজ উৎপাদন হতো সেখানে পেঁয়াজের উৎপাদন ব্যাহত হয়েছে। যার কারণে পেঁয়াজের সরবরাহ কমায় ভারতের বাজারেই পেঁয়াজের দাম বাড়ছে। এ অবস্থায় পেঁয়াজের মূল্যবৃদ্ধি রুখতে সোমবার ভারত সরকার পেট্রাপোল কাস্টমসকে এ তথ্য জানিয়েছেন। সে মোতাবেক কাস্টমস কর্তৃপক্ষ তাদের জানিয়েছে, সোমবার থেকে সব ধরনের পেঁয়াজ রফতানি বন্ধ থাকবে পরবর্তী নির্দেশ না দেয়া পর্যন্ত। এ সংক্রান্ত সরকারি প্রজ্ঞাপন এখনও জারি হয়নি, তবে অচিরেই জারি হবে বলে তিনি জানিয়েছেন। একই সঙ্গে পেঁয়াজ আমদানির জন্য যেসব এলসি খোলা রয়েছে এবং টেন্ডার প্রক্রিয়া সম্পন্ন হয়েছে সেগুলোর বিপরীতেও কোনও পেঁয়াজ রফতানি হবে না।

পেঁয়াজ আমদানিকারক সাইফুল ইসলাম বলেন, বিকালে ভারতীয় রফতানিকারক ও সিএন্ডএফ এজেন্ট আমাদের জানিয়েছেন যে ভারত কোনও পেঁয়াজ রফতানি করবে না। ভারত সরকার নাকি কাস্টমসকে নিষেধ করেছেন পেঁয়াজ রফতানি না করতে এবং পেঁয়াজ রফতানি করবে না বলেও বলেছে আমাদের। তাদের এই সিদ্ধান্তের কারণে আমাদের অনেক আমদানিকারকের বিপুল পরিমাণ পেঁয়াজ আমদানির জন্য এলসি খোলা রয়েছে। আমরা তো এখন বিপাকের মধ্যে পড়ে গেছি। আমরা তাদের বলছি আমাদের যেসব এলসি খোলা রয়েছে সেগুলোর পেঁয়াজ রফতানির জন্য। আমাদের অনেক এলসির বিপরীতে অনেক ট্রাক মাল নিয়ে সড়কে দাঁড়িয়ে রয়েছে। এখন যদি তারা পেঁয়াজ না দেয় তাহলে আমাদের এই পেঁয়াজের কী অবস্থা হবে সেই চিন্তায় পড়েছি। এই যে আমাদের ক্ষতি, কার কাছে ক্ষতিপূরণ চাইবো? তাই বিষয়টি অতি সত্বর সরকারি পর্যায়ে বৈঠক করে সিদ্ধান্ত নেয়া প্রয়োজন।

  

এডিটর: আনিছুল ইসলাম আশরাফী, এনিমেটরস্ বাংলা মিডিয়া গ্রুপ কর্তৃক প্রকাশিত
সম্পাদকীয় কার্যালয়: কলেজ রোড, শ্রীমঙ্গল, মৌলভীবাজার।
Email: news.amarsylhet24@gmail.com Mobile: 01772 968 710

Developed By : i-Tech Sreemangal
Email : itech.official@hotmail.com
Facebook : http://facebook.com/itech.ctc