Tuesday 24th of November 2020 08:24:29 PM

আমার সিলেট ডেস্কঃ মহামারী করোনা আর বন্যার কারণে আজ ঈদুল আদহা পালিত হয়েছে এক ভিন্ন পরিস্থিতিতে। দেশের কোটি মানুষ করোনা ভীতিতে । আক্রান্ত হাজারো মানুষ। অনেকে হারিয়েছেন তাদের প্রিয়জন। অনেকের স্বজন বাড়িতে বা হাসপাতালে কাতরাচ্ছেন মৃত্যু যন্ত্রণায়। অর্থনৈতিক বিপর্যয়ে পরাস্ত লক্ষ লক্ষ পরিবার এবার পশু কুরবানি করতে পারছেন না যথেষ্ট সম্পদশালিরা। এসব কারণে ধর্মীয় বাধ্যবাধকতার বাইরে সত্যিকার অর্থে আনন্দটা চুপসে গেছে তবুও যেন এক চিলতে রোধের ঝিলিক দিয়ে উঠেছে এবারের ঈদ।

এ অবস্থার মাঝে করোনাকালীন স্বাস্থ্যবিধি মেনে সামাজিক দূরত্ব বজায় রেখে কম সংখ্যক মুসল্লির উপস্থিতিতে দেশের মসজিদগুলিতে অনুষ্ঠিত হয়েছে ঈদের জামায়াত। ধর্ম মন্ত্রণালয়ের পরামর্শ মেনে এবারেও জাতীয় ঈদগাহসহ দেশের প্রধান প্রধান ঈদগাহে এবং উন্মুক্ত স্থানে বড় জামাত আয়োজন করা থেকে বিরত থেকেছেন স্থানীয় কর্তৃপক্ষ। বন্যাকবলিত এলাকায় মসজিদের সামনে নৌকায় বসেই ঈদের দু’রাকাত নামাজ আদায় করেছে বলে খবর পাওয়া গেছে, যদিও এভাবে ঈদের নামাজ আদায়ের কতটা জরুরী তা মাসালার বিষয়।

এছাড়া, রাজধানী ও সিলেটসহ সারা দেশেই সকাল থেকে থেমে থেমে বৃষ্টির প্রকোপে আর জলমগ্ন পরিস্থিতির মাঝে প্রত্যেক মসজিতে বা মাদ্রাসা চত্বরে আয়োজিত জামায়াত শেষে মুনাজাতে করোনাভাইরাস মহামারিসহ সব ধরনের দুর্যোগ দুর্বিপাক থেকে মানবজাতিকে হেফাজতের জন্য মহান আল্লাহ রাব্বুল আলামীনের দরবারে ফরিয়াদ জানানো হয়েছে। একই সাথে দেশ জাতি ও জনগণের কল্যাণ ও বিশেষ করে মুসলিম উম্মাহর ঐক্য ও সমৃদ্ধি কামনায় দোয়া করা হয়েছে। নামাজ শেষে মাস্ক পরিহিত মুসল্লিরা পরস্পরে ঈদের শুভেচ্ছা বিনিময় করলেও করোনা সতর্কতার কারণে কোলাকুলি থেকে বিরত থাকেন অনেকে।

সারা দেশে ঈদের নামাজ শেষে সামর্থ্য অনুযায়ী পশু কোরবানি এবং অংশবিশেষ গোশত গরীব ও দুস্থদের মাঝে বিতরণ করা হয়েছে।

ফরিদপুরের পদ্মা নদীর পাড়ে বন্যার্তদের মাঝে ঈদ উপহার বিতরণ করেছে সেনাবাহিনী। শনিবার নবম পদাতিক ডিভিশনের ব্যবস্থাপনায় ৮১ পদাতিক ব্রিগেডের অধীনস্থ ২৮ বীর ফরিদপুর অঞ্চলে ঈদ উপহার বিতরণ করেছে।

সেনাপ্রধানের পক্ষ হতে ফরিদপুরে বন্যাদুর্গত প্রায় ৫০০ জনের মধ্যে ঈদ উপহার হিসেবে রান্না করা খাবার বিতরণ করা হয়েছে। বাংলাদেশ সেনাবাহিনীর একটি টিম ফরিদপুরে এই ঈদ উপহার বিতরণ কার্যক্রম বাস্তবায়ন করেছে।

করোনাভাইরাসের সংক্রমণ শুরু হওয়ার পর থেকেই বাংলাদেশ সেনাবাহিনীর নবম পদাতিক ডিভিশনের ৮১ পদাতিক ব্রিগেডের অধীনস্থ ২৮ বীর ফরিদপুর জেলায় জনসাধারণের মধ্যে সচেতনতা বৃদ্ধির জন্য কাজ করে যাচ্ছে।

সাম্প্রতিক সময়ে এই অঞ্চলে বন্যার প্রকোপ দেখা দেয়ায় বাংলাদেশ সেনাবাহিনীর পক্ষ থেকে বন্যাদুর্গত লোকজনকে সহায়তার জন্য সেনাপ্রধানের পক্ষ হতে বন্যার্তদের মাঝে খাবার সামগ্রী সহায়তা প্রদান করা হচ্ছে।

মিজানুর রহমান হবিগঞ্জ থেকেঃ “চলব আমরা একসাথে জয় করব মানবতাকে ” এই স্লোগণকে সামনে রেখে চুনারুঘাট উপজেলার মিরাশী ইউনিয়নের  বন্ধু ফাউন্ডেশনের আয়োজনে ১৫০ টি হত দরিদ্র পরিবারের মাঝে গত ৩১ জুলাই দুপুরে ঈদ সামগ্রী বিতরন করা হয়েছে।
বন্ধু ফাউন্ডেশনের সিনিয়র সহসভাপতি ব্যাংক কর্মকর্তা শেখ লোকমান আহমদ এর সভাপতিত্বে সাধারন সম্পাদক তালুকদার মোঃ সাদেক ও সাংগঠনিক সম্পাদক আনিসুজ্জামান ফজলের মুগ্ধকর পরিচালনায় উক্ত অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন মিরাশী ইউনিয়নের জন নন্দিত চেয়ারম্যান মোঃ রমিজ উদ্দিন, বিশেষ অথিতি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন উপজেলা বিআরডিবির বারবার নির্বাচিত চেয়ারম্যান মোঃ নুরুল ইসলাম ফটিক,এমআর টিভির সম্পাদক মোঃ মিজানুর রহমান, নালমুখ বাজারের বিশিষ্ট ব্যাবসায়ীক মোঃ সাহাব উদ্দিন, বক্তব্য রাখেন বন্ধু ফাউন্ডেশন এর  যুগ্ন সম্পাদক মোঃ সৈয়দ আরমান আহমেদ, যুগ্ন সম্পাদক মোঃ তাজুল ইসলাম, প্রচার সম্পাদক ফজলে রাব্বি সহ সংগঠনের অন্যান্য সদস্য বৃন্দ।
বন্ধু ফাউন্ডেশনের সভাপতি দুবাই প্রবাসী শেখ মোঃ আব্দুস সালাম ফটিক এর মাধ্যমে সংগঠনটিকে আরও বহু দূর এগিয়ে নেয়ার দৃঢ় প্রতিশ্রুতি ব্যাক্ত করলেন সংগঠনের সদস্য বৃন্দ।

নবীগঞ্জ প্রতিনিধি: নবীগঞ্জে ঈদেের দিনে নৌকা থেকে পড়ে পানিতে ডুবে দুই কিশোরীর মৃত্যু হয়েছে। নৌকা যোগে বিল পাড়ি দিতে গিয়ে পানিতে পড়ে পপি (১২) ও মনি (১০) নামে দুই কিশোরীর মর্মান্তিক মৃত্যু হয়েছে। এ ঘটনার এলাকায় শোকের ছায়া নেমে এসেছে। মা,বাবা,ভাইবোন পাড়া প্রতিবেশীসহ চলছে শোকের মাতম।ঘটনাটি ঘটেছে শনিবার (১ আগষ্ট) সদর ইউনিয়নের পশ্চিমতিমির পুর গ্রামে।

জানা যায়,উপেজলার সদর ইউনিয়নের পশ্চিমতিমির পুর গ্রামের মনাই  মিয়ার মেয়ে মনিসহ তারা পাঁচ ভাইবোন মিলে পাশ্ববর্তী নানার বাড়ী যাওয়ার সময় একটি নৌকায় উঠে। তাদের বাড়ী থেকে প্রায় ১ কিলোমিটারের একটি বিল পাড়ি দিয়ে নানার বাড়ী যেতে রওয়ানা দেয় সবাই।পথিমধ্যে নৌকা থেকে পড়ে যায় পপি ও মনি।তাদের সাথে থাকা অন্য ভাইবোন শিশু হওয়ায় বিষয়টি আচ করতে পারেনি। হঠাৎ একজন জেলে পপির ছোট ভাইকে পানির উপর দেখতে পান।এসময় সে জানায়,তার বোন পপি ও চাচাতো বোন মনি নৌকা থেকে পানিতে পড়েছে।

পরে স্হানীয়রা পপি ও মনিকে অনক খোঁজাখুঁজি করে পানি থেকে মৃত অবস্হায় উদ্ধার করেন।পপি এবং মনির চাচাতো ভাই কামাল মিয়া জানান,আজ ঈদেের দিন এমন দূংসংবাদ আমাদের আকাশ ভেঙ্গে  মাথায় পড়েছে। মেনে নিতে খুবই কষ্ট হচ্ছে। পপি ও মনির পিতা কৃষক বলেও জানান তিনি।

ক্লাইমেট জাস্টিসের দাবিতে সিইএইচআরডিএফ এর “গ্লোবাল সু স্ট্রাইক”

২৯ জুলাই ফ্রাইডে ফর ফিউচার আয়োজিত জলবায়ু পরিবর্তন বিরোধী গ্লোবাল সু স্ট্রাইকে অংশগ্রহণ করেছে সেন্টার ফর এনভায়রনমেন্ট, হিউম্যান রাইটস এন্ড ডেভেলপমেন্ট ফোরাম।
আজ কক্সবাজার সমুদ্র সৈকতের কলাতলী পয়েন্টে সিইএইচআরডিএফ আয়োজিত ক্যাম্পেইনে সভাপতিত্ব করেন সিইএইচআরডিএফ এর প্রধান নির্বাহী মোঃ ইলিয়াছ মিয়া।
এসময় বক্তারা বলেন, বিশ্বব্যাপী জলবায়ু পরিবর্তন একটি সংকট হিসেবে উপস্থিত হয়েছে।  এটি শুধু যে দরিদ্র ও উন্নয়নশীল রাষ্ট্রগুলোকে ক্ষতিগ্রস্ত করছে তা নয় বরং উন্নত রাষ্ট্রগুলোর উপরও ব্যাপক প্রভাব ফেলছে।
তারা বলেন, বাংলাদেশ জলবায়ু সংকটে ক্ষতিগ্রস্ত দেশগুলোর মধ্যে অন্যতম্ বাংলাদেশকে ক্ষতিগ্রস্ত দেশ হিসেবে যে ক্ষতিপূরণ পাওয়ার কথা তা পাচ্ছে না।
সভাপতির বক্তব্যে সংগঠনটির প্রধান নির্বাহী মোঃ ইলিয়াছ মিয়া বলেন, বিশ্বব্যাপী জলবায়ু পরিবর্তনের প্রভাব বাড়ছে। বাংলাদেশে পুনঃপুন প্রাকৃতিক দূর্যোগ যেমন ঘূর্ণিঝড়, বন্যা, খরা, নদীভাঙ্গণ বাড়ছে। বাংলাদেশ জলবায়ু পরিবর্তনের জন্য দায়ী নয় এমন একটি দেশ৷ কিনৃতু শিল্পোন্নত দেশগুলোর কার্বন নিঃসরণ বাংলাদেশকে দিনদিন ভালনারেবল করে ফেলছে।
তিনি আরো বলেন, এমতাবস্থায় বাংলাদেশ কে জলবায়ু সংকট মোকাবেলায় ক্ষয়ক্ষতির উপর ভিত্তি করে প্রয়োজনীয় তহবিল বিনা শর্তে যেন দেয়।  সেজন্য তিনি বিশ্বনেতাদের সুদৃষ্টি কামনা করেন।
চলমান বন্যা মোকাবেলায় সরকার ও বিশ্বনেতাদের তিনি স্থায়ী সমাধান নিতে আহবান জানান।
এতে অন্যান্যের মধ্যে অংশগ্রহণ করেন সিইএইচআরডিএফ এর পরিচালক(প্রোগ্রাম) রুহুল আমিন, পরিচালক(ট্রেজারী ও উদ্যোগ) শামসুল ইসলাম, সম্পাদক(অর্থ) রেজাউল হায়াত রেজা, সহযোগী সম্পাদক(সংগঠন) মোহাম্মদ ইমরান, সহকারী সম্পাদক (দপ্তর) লোকমান হাকিম,সহকারী সম্পাদক(জনসংখ্যা ও জনস্বাস্থ্য) মোঃ ইলিয়াছ রিয়াদ, প্রাইম এসিস্ট্যান্ট সুলতানা জেসমিন, কক্সবাজার সদর ফোরামের সদস্য মোঃ আরিফ, এসকে কাউছার, শিক্ষক নেজাম উদ্দিন প্রমূখ।প্রেস বিজ্ঞপ্তি

নড়াইল প্রতিনিধি: নড়াইল জেলায় গত ২৪ ঘন্টায় নতুন করে ৩২ জনের করোনা শনাক্ত হয়েছে। জেলায় মোট শনাক্ত ৭৩২জন।

শুক্রবার বিষয়টি নিশ্চিত করে সিভিল সার্জন ডাঃ মোঃ আবদুল মোমেন জানান, জেলার সদর উপজেলায়  ১৬ জন ,লোহাগড়া উপজেলায় ১৫ জন কালিয়ায় জন নতুন করে করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন। তিনি আরও জানান, আক্রান্ত সবাই নিজ নিজ বাড়ী আইসোলেশনে আছেন এবং সুস্থ আছেন।

জেলা স্বাস্থ্য বিভাগ সূত্রে জানা গেছে, জেলায় পর্যন্ত ৭শত ৩২ জন করোনায় আক্রান্তের  মধ্যে সদরে সদরে ৩৩৪ জন, লোহাগড়ায় ৩৩০জন  কালিয়ায় ৬৮ জনের করোনা পজেটিভ 

১১ জনের মৃত্যু হয়েছে সুস্থ হয়েছে ৪৮৩জন সুস্থ হয়েছে। এখন ২৩৮জন পজেটিভ আছে।

দিনের নমুনা সংগ্রহ  ৫১ । এ পর্যন্ত মোট ৩২৬৯জনের নমুনা সংগ্রহ করা হয়েছে, ৩১২০ টি রির্পোট পাওয়া গেছে,বাতিল হয়েছে ১৮২ টি। ১৮১ টি নমুনা পেন্ডিং রয়েছে।

পযর্ন্ত জেলায় ১৮২৯ জন হোম কোয়ারেন্টাইনে রাখা হয়েছে, ছাড়পত্র পেয়েছে ১৮২৯ জন। আইসুলেশনে রোগীর সংখ্যা ২৮৮ জন। হাসপাতালে ভর্তি রোগীর সংখ্যা ১৩ জন।

  

এডিটর: আনিছুল ইসলাম আশরাফী, এনিমেটরস্ বাংলা মিডিয়া গ্রুপ কর্তৃক প্রকাশিত
সম্পাদকীয় কার্যালয়: কলেজ রোড, শ্রীমঙ্গল, মৌলভীবাজার।
Email: news.amarsylhet24@gmail.com Mobile: 01772 968 710

Developed By : i-Tech Sreemangal
Email : itech.official@hotmail.com
Facebook : http://facebook.com/itech.ctc