Wednesday 8th of July 2020 08:16:57 PM

করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন বাংলাদেশ সরকারের তথ্য সচিব কামরুন নাহার। বুধবার তার একান্ত সচিব মোহাম্মদ এনামুল আহসান গণমাধ্যমকে এমন তথ্য জানিয়েছেন। তিনি বলেন, গত রোববার পরীক্ষার জন্য নমুনা দিয়েছিলেন, গতকাল রিপোর্ট পজিটিভ এসেছে।
তবে এমনিতে তার কোনো উপসর্গ ছিল না বলে মন্তব্য করেন মোহাম্মদ এনামুল আহসান।

করোনায় আক্রান্ত হওয়ার পর বাড়িতে আইসোলেশনে আছেন তথ্য সচিব। তবে তার স্বামী মন্ত্রিপরিষদ সচিব খন্দকার আনোয়ারুল ইসলাম এখন পর্যন্ত সুস্থ আছেন বলে জানিয়েছেন তার একান্ত সচিব মাহমুদ ইবনে কাসেম। তিনি বলেন, কিছু দিন আগে স্যারের করোনা পরীক্ষা করা হয়, রিপোর্ট নেগেটিভ এসেছে। ম্যাডামের পজিটিভ রিপোর্ট আসায় আবারও তার পরীক্ষা করানো হবে বলে জানান মাহমুদ।
তথ্য ক্যাডারের কর্মকর্তা কামরুর নাহার এর আগে মহিলা ও শিশুবিষয়ক মন্ত্রণালয়ের সচিব, প্রধান তথ্য কর্মকর্তা ছাড়াও গণযোগাযোগ অধিদফতর, বাংলাদেশ ফিল্ম আর্কাইভ এবং চলচ্চিত্র ও প্রকাশনা অধিদফতরের মহাপরিচালকের দায়িত্ব পালন করেছেন।

চীনের প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয় বলেছে, সম্প্রতি লাদাখ সীমান্তে চীন এবং ভারতের মধ্যে যে সংঘর্ষ হয়েছে তার জন্য ভারত দায়ী। সংঘর্ষে ভারতের অন্তত ২০ জন সেনা নিহত হয়।

চীনা প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয় আজ (বুধবার) সামাজিক গণমাধ্যমে জানিয়েছে, ভারতের উস্কানির কারণে দু’দেশের মধ্যকার সমঝোতা বানচাল হয়েছে এবং ১৫ জুনের ওই সংঘর্ষ হয়।

সংঘর্ষে চীনা সেনাদের মারপিটে ভারতের ২০ জন সেনা নিহত হয়। ভারতের কর্মকর্তারা জানিয়েছেন, সংঘর্ষে লাঠি ও পাথর ব্যবহার করা হয় এবং দুপক্ষের সেনাদের মধ্যে হাতাহাতি ও কিল-ঘুষির ঘটনা ঘটে। তবে সীমান্ত চুক্তির কারণে কোনো পক্ষই গোলাগুলি ব্যবহার করে নি। দু’দেশের মধ্যে এই চুক্তি ৪৫ বছর বহাল থাকবে। চীন বলেছে, সংঘর্ষে তাদের কোনো সেনা নিহত হয় নি।

গতকাল চীনা পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের মুখপাত্র ঝাও লিজিয়ান জানিয়েছেন, বেইজিং ও নয়াদিল্লি সীমান্ত পরিস্থিতি শান্ত করার জন্য একমত হয়েছে।পার্সটুডে

নড়াইল প্রতিনিধি:  উপসহকারি কৃষি কর্মকর্তাপদে প্যানেলে নিয়োগের  দাবিতে নড়াইলে মানববন্ধন অনুষ্ঠিত হয়েছে। বুধবার বেলা সাড়ে ১০ টায় নড়াইল প্রেসক্লাব চত্বরে চুড়ান্ত ফলাফলে বৈষম্যের শিকার পদ বঞ্চিত সকল মেধাবি ছাত্র/ছাত্রীদের আয়োজনে মানববন্ধন অনুষ্ঠিত হয়। মানববন্ধন শেষে জেলা প্রশাসক আনজুমান আরার মাধ্রমে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বরাবর স্মারকলিপি প্রদান করা হয়। মানববন্ধনে বক্তব্য রাখেন  প্রশান্ত বসু, সাব্বির আহম্মেদ, রুপা রায়, চিন্ময় রায়, বাপী বিশ্বাস, রমেশ বিশ্বাস, রাজীব ভদ্রসহ অনেকে।

মানববন্ধনে বক্তরা বলেন,১৯১৮ সালে কৃষি সম্প্রসারন অধিদপ্তর উপসহকারিকৃষি কর্মকর্তাপদে ১৬৫০ জন একটি নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করে। এই পদে লিখিত ভায়েভা পরিক্ষার পর  ১৭ জানুয়ারি ২০২০ শুক্রবার সরকারি ছুটির দিন  প্রাথমিক ভাবে উত্তীর্ন ১৬৫০ জনের রোল নম্বর প্রকাশ করা হয়। এই নিয়োগে দেখা যায় জেলঅ কোটা না  পুরণ করেই  কিছুকিছু জেলা থেকে অধিক পরিমানে লোক নিয়োগ দেয়া হয়। এতে করে জেলার মেধাবি ছাত্র/ ছাত্রীরা  পদ বঞ্চিত হয়।

পরে বিভিন্নজেলার মেধাবি ছাত্র/ ছাত্রীরা একত্রিত হয়ে   মহামান্য হাইকোর্টে রিট পিটিশন দাখিল করে। রীটের পক্ষে হাইকোট কৃষি সম্প্রসারন অধিদপ্তরকে রুল জারি করে।  পরে তারা সুপ্রিম কোটের্ এ্যাপিলেট ডিভিশনে আপিল করলে , কোট না খারিজ কওে রুলে জবাব দিতে বলে এবং এই মামলার দ্রুত নিস্পত্তির নির্দেশ দেন। কিন্তু অদ্যবধি কৃষি সম্প্রসারন অধিদপ্তর  রুলে জবাব দেননি।

আমরা তাই উপসহকারি কৃষি কর্মকর্তা নিয়োগ২০১৮ এর লিখিত ভাইভা পরীক্ষায় উত্তীর্ন সকল ছাত্র /ছাত্রীকে প্যানেলে নিয়োগ দেয়ার জন্য মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার  আশু হস্তক্ষেপ কামনা করছি।

নূরুজ্জামান ফারুকী নবীগঞ্জ থেকে :    নবীগঞ্জে খাদ্য বান্ধব কর্মসূচীর আওতায় হত দরিদ্রদের বরাদ্দকৃত ১০ টাকা কেজির চাল আত্মসাতের ঘটনার পর এবার গজনাইপুর ইউপি চেয়ারম্যান ইমদাদুর রহমান মুকুলের বিরুদ্ধে ভিজিডির চাল আত্মসাতের অভিযাগ উঠেছে।

এ ঘটনায় ক্ষতিগ্রস্ত দুই মহিলা হবিগঞ্জ জেলা প্রশাসকের নিকট লিখিত অভিযােগ দায়ের করেন। এ খবর দৈনিক আমার হবিগঞ্জকে নিশ্চিত করেছেন জেলা প্রশাসক কামরুল হাসান। ঘটনা খতিয়ে দেখার জন্য উপজেলা নির্বাহী অফিসারকে নির্দেশ দেয়া হয়েছ। আলােচিত ইউপি চেয়ারম্যান ইমদাদুর রহমান মুকুল নবীগঞ্জ উপজেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি।

লিখিত অভিযাগে স্থানীয় সূত্রে জানায়, নবীগঞ্জ উপজেলার গজনাইপুর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান ইমদাদুর রহমান মুকুল প্রায় দেড় বছর ধরে ভিজিডির সুবিধাভােগী দুই নারীর নাম বরাদ্দকৃত (প্রতিমাস ৩০ কেজি) ভিজিডির চাল আত্মসাত করে আসছেন।

জানা যায়, ওই ইউনিয়নের বনগাঁও গ্রামের শাহেলা আক্তার সালমা ও সালেহা বেগম প্রায় দেড়বছর পূর্বে ভিজিডির চালের তালিকায় নিজেদের নাম অন্তর্ভুক্তির জন্য ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান ইমদাদুর রহমান মুকুলের কাছে ছবি ও ভােটের আইডি কার্ড দেন।

এ সময় চেয়ারম্যান তাদেরকে বলেন, তালিকাটি অনুমােদন হয়ে আসলে তারা চাল পাবে। চেয়ারম্যানের এমন আশ্বাসে আনন্দিত হন দরিদ্র পরিবারের এ দুই নারী। এরপর তালিকাভুক্তদের চাল বিতরণ শুরুর খবর পেয়ে চেয়ারম্যানের নিকট যান। চেয়ারম্যান মুকুল তাদেরকে অপেক্ষা করতে বলেন।

অনেকদিন অতিবাহিত হলে দুই নারী চালের জন্য চেয়ারম্যানর সাথে যােগাযােগ করেন। একপর্যায়ে চেয়ারম্যান মুকুল তাদেরকে বলেন, তাদের নাম তালিকায় উঠেনি, তাদেরকে চাল দেয়া যাবেনা।

সুবিধাবঞ্চিত এই দুই নারী বলেন, সম্প্রতি বিভিন্ন মাধ্যমে তারা জানতে পারে তালিকায় তাদের নাম রয়েছে। তাদের নাম বরাদ্দকৃত চাল উত্তােলন করে আত্মসাৎ করছেন চেয়ারম্যান মুকুল। পরে গজনাইপুর ইউনিয়নের ভিজিডির তালিকা সংগ্রহ করে দেখা যায়, তালিকায় ক্রমিক নং ৫২ শাহেলা আক্তার সালমা ও ৫৬ নম্বর সালেহা বেগম নাম রয়েছে। স্বামীর নাম, গ্রামসহ সব মিলিয়ে দেখা যায় তাদের নাম আসা সরকারী চাল আত্মসাৎ হয়েছে।

বর্তমান করােনা ভাইরাস পরিস্তিতির মধ্যে অসহায় অবস্থায় পরিবার নিয়ে না খেয়ে অনাহারে দিন কাটছে তাদের। এমন অভিযােগ তুলে ভুক্তভােগী দুই নারী মঙ্গলবার (২৩জুন)  বিকেলে হবিগঞ্জ জেলা প্রশাসকের কার্যালয়ে হাজির হয়ে লিখিত অভিযাগ দেন।

উল্লেখ্য, গজনাইপুর ইউনিয়নের খাদ্যবান্ধব কর্মসূচির ১০ টাকা কেজির চাল নিয়ে তেলেসমাতির ঘটনায় ৩ সদস্য বিশিষ্ট কমিটি তদন্ত শুরু করেছে। এরই মধ্যে নতুনভাবে ভিজিডির চাল আত্মসাতের অভিযােগ নিয়ে তুমুল সমালােচনার ঝড় উঠেছে।

এম ওসমানঃ যশোরের শার্শা উপজেলায় ৬ জনের শরীরে কোভিড-১৯ পজেটিভ সনাক্ত হয়েছে। এর মধ্যে বেনাপোলের নারানপুর গ্রামে বাড়ি জাকির হোসেন (৫০) জ্বর ও শ্বাসকষ্ট নিয়ে সোমবার মারা যান।মৃত্যু ব্যক্তির নমুনা সংগ্রহ করে যশোর বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের জেনোম সেন্টারের ল্যাবে পাঠানো হয়। বুধবার দুপুরে ওই রিপোর্টটি পজেটিভ এসেছে বলে জানান শার্শা উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার কল‍্যান কর্মকর্তা ডাক্তার ইউসুফ আলী।
ডাক্তার ইউসুফ আলী বলেন, মৃত্যু ব্যক্তি ছাড়াও শার্শা উপজেলায় আরো পাঁচ জনের শরীরে কোভিড-১৯ সনাক্ত হয়েছে। এর মধ্যে বেনাপোলেই তিন।
আক্রান্তরা হচ্ছেন, বেনাপোল আন্তর্জাতিক চেকপোস্ট ইমিগ্রেশনে কর্মরত একজন পুলিশ কনস্টেবল (৪১), বেনাপোল পৌরসভার একজন কর্মকর্তা (৩৭), একজনের বাড়ি ছোট আচড়া গ্রামে অপর দুই জনের বাড়ি শার্শার উলাশি ইউনিয়নের লাউতাড়া (২৪) ও জিরেনগাছা (৩২) গ্রামে।
করোনা আক্রান্তরা স্বাস্থ্য বিভাগের পরামর্শে নিজ বাসায় আইসোলেশনে আছেন। উপজেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে ওই সব বাড়ি লকডাউন করা হয়েছে বলেন ইউসুফ আলী ।

কমলগঞ্জ প্রতিনিধি: মৌলভীবাজারের কমলগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে কর্মরত ডাক্তারদের পার্সোনাল প্রটেক্টিভ ইকুইপমেন্ট (পিপিই) দিলেন মৌলভীবাজার জেলা যুবদলের সহ-সাংগঠনিক সম্পাদক ও ভানুগাছ বাজারের বিশিষ্ট ব্যবসায়ী গোলাম রব্বানী তৈমুর।

তিনি বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী দল (বিএনপি) এর ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমানের নির্দেশনায় ব্যক্তিগতভাবে বুধবার (২৪ জুন) দুপুর ১২টায় উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডাঃ এম, মাহবুবুল আলম ভূঁইয়ার হাতে ১৯ জন ডাক্তার ও নার্সদের জন্য ১৯টি পিপিই তুলে দেন। ডাক্তারদের পিপিই প্রদান করায় উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডাঃ এম, মাহবুবুল আলম ভূঁইয়া যুবদল নেতা গোলাম রব্বানী তৈমুরকে ধন্যবাদ জানান।

এসময় অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন সাংবাদিক সাজিদুর রহমান সাজু, আহমেদুজ্জামান আলম, ফারহান চৌধুরী, মোঃ কামরুজ্জামান, সাদিকুর রহমান সামু, মবু আহমেদ চৌধুরী, মোঃ আব্দুল মালিক প্রমুখ।

এছাড়াও উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে কর্মরত চিকিৎসকগণ উপস্থিত ছিলেন।

করে শিক্ষা বৃত্তি ও দুই ক্যান্সার রোগীকে ৫০ হাজার টাকা করে সহায়তা প্রদান 

কমলগঞ্জ প্রতিনিধি: বুধবার(২৪জুন) সকাল ১১টায় কমলগঞ্জ উপজেলা প্রশাসনের আয়োজনে উপজেলা পরিষদ মিলনায়তনে প্রধানমন্ত্রীর তহবিল থেকে মৌলভীবাজারের কমলগঞ্জে বসবাসরত উচ্চ শিক্ষায় অধ্যয়নরত মণিপুরি, চা জনগোষ্ঠী, ত্রিপুরী ও খাসিয়া, গারোসহ বিভিন্ন সম্প্রদায়ের মোট ১৪৪ জন শিক্ষার্থীদের জনপ্রতি ২৫ হাজার টাকা করে এককালীন শিক্ষাবৃত্তি প্রদান করা হয়। এ সময় প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন মৌলভীবাজারের অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিস্ট্রেট ও স্থানীয় সরকার বিভাগের উপ-পরিচালক (অতিরিক্ত দায়িত্ব) তানিয়া সুলতানা। অনুষ্ঠানে একই সাথে সমাজ কল্যাণ মন্ত্রণালয়ের মাধ্যমে কমলগঞ্জের দুইজন ক্যান্সার রোগীকে ৫০ হাজার টাকা করে অর্থ সহায়তা ও উপজেলা সমাজ সেবা অধিদপ্তর থেকে ১০ জন উপকারভোগীর মাঝে বয়স্ক ভাতার বই বিতরণ করা হয়েছে। কমলগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা আশেকুল হকের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন কমলগঞ্জ উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান অধ্যাপক মো. রফিকুর রহমান, সহকারী কমিশনার (ভূমি) নাসরিন চৌধুরী, উপজেলা পরিষদের ভাইস চেয়ারম্যান রামভজন কৈরী, মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান বিলকিছ বেগম, কমলগঞ্জ পৌরসভার মেয়র মো. জুয়েল আহমদ, উপজেলা বিআরডিবির সাবেক চেয়ারম্যান ইমতিয়াজ আহমেদ বুলুবুল, বৃহত্তর সিলেট আদিবাসী ফোরামের কো-চেয়ারম্যান জিডিশন প্রধান সুচিয়াং।
কমলগঞ্জ উপজেলা প্রশাসনিক কার্যালয় সূত্রে জানা যায়, প্রধানমন্ত্রীর তহবিল থেকে পার্বত্য চট্রগ্রাম ব্যতীত সমতলের ক্ষুদ্র নৃ-গোষ্ঠী হিসেবে কমলগঞ্জে বসবাসরত মণিপুরি, ত্রিপুরী, খাসিয়া, গারো ও চা বাগানের বিভিন্ন সম্প্রদায়ের মোট ১৪৪ জন ছাত্র-ছাত্রীকে এককালীন ২৫ হাজার টাকা করে মোট ৩৬ লাখ টাকার চেক প্রদান করা হয়েছে। একই সাথে সমাজ কল্যাণ মন্ত্রণালয়ের মাধ্যমে দুইজন ক্যান্সার আক্রান্ত রোগীকে সহায়তা হিসেবে ৫০ হাজার টাকা করে ১ লাখ টাকার চেক প্রদান করা হয়। একই সাথে কমলগঞ্জ উপজেলা সমাজ সেবা অধিদপ্তর কর্তৃক ১০ জন বয়স্কের মাঝে ভাতার বই বিতরণ করা হয়েছে।

 কমলাপুর এলাকার দেড় শতাধিক পরিবার

নূরুজ্জামান ফারুকী নবীগঞ্জ থেকেঃ  হবিগঞ্জ জেলার নবীগঞ্জ উপজেলার সদরের শহরতলি পৌরসভা সংলগ্ন (৩কিঃমিঃ মধ্যে) করগাও ইউনিয়নের সব আলোক উজ্জ্বল গ্রামের মধ্য অন্ধকারাচ্ছন্ন কমলাপুর গ্রাম।এ যেন বাতির নীচে অন্ধকার। সরকারিভাবে হবিগঞ্জ জেলার নবীগঞ্জ উপজেলাকে শতভাগ বিদ্যুতায়নের ঘোষণা করা পরও স্বাধীনতার ৪৯ বৎসর পরও বিদ্যুতের আওতায় আসতে পারেনি উপজেলার পৌরসভার সীমান্তবর্তী করগাঁও ইউনিয়নের অবহেলিত কমলাপুর গ্রাম। এতে এলাকার প্রায় দেড় শতাধিক পরিবারের সহস্রাধিক মানুষ বিদ্যুৎ-সুবিধা থেকে বঞ্চিত।

২০১৯ সালের ১৩ নভেম্বর গণভবন থেকে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে নবীগঞ্জকে শতভাগ বিদ্যুতায়নের ঘোষণা দেন। নবীগঞ্জ পল্লী বিদ্যুৎ বলছে, কমলাপুর এলাকায় ৬ মাস আগে বিদ্যুৎ নিয়ে যাওয়ার কাজ শুরু হয়েছিল। কিন্তু গ্রামের ভেতর দিয়ে বিদ্যুতের তার নিয়ে যাওয়ার ব্যাপারে গ্রামের একটি পক্ষের আপত্তির কারণে কাজ আর এগোয়নি। সম্প্রতি করোনা মহামারীর কারণে বিদ্যুতের লাইন স্থাপন কাজ করা যাচ্ছে না,করোনার প্রকোপ কমলে অতি শীঘ্রই কাজ শুরু করবে বলে জানায় পল্লী বিদ্যুৎতায়ন বোর্ড।

সম্প্রতি সরেজমিন দেখা যায়, নবীগঞ্জ পৌর শহর থেকে প্রায় ৩ কিঃমিঃ দূরে কমলাপুর গ্রামে হত দরিদ্র মানুষের বসবাস। আঁকাবাঁকা পথে আঁধা পাকা রাস্তা দিয়ে পৌঁছাতে হয় কমলাপুর গ্রামে। কমলাপুর গ্রামে ১৫০টি পরিবারের প্রায় ১০০০ লোকের বসবাস। তাদের আয়ের প্রধান উৎস কৃষি কাজ ও ঢোল বাদ্য বাজানো। কমলাপুর গ্রামের আশেপাশের সবগুলো গ্রামে ৮-১০ বৎসর আগে বিদ্যুৎতায়ন হলেও অবহেলিত এই গ্রামের দুই পাড়ার ১৫০টি পরিবারে প্রায় ১০০০ লোকের কুপি বাতির নীচে বসবাস। সেখানে এখনো বিদ্যুতের ছোঁয়া লাগেনি। এ যেন বাতির নীচে অন্ধকার। এমনকি উপজেলা সদর একবারে কাছে থেকেও গ্রামে পৌঁছানোর রাস্তা বেহাল দশা।

গ্রামের মুরুব্বী সুধীর দেব বলেন, গ্রামের স্কুল-কলেজ পড়ুয়া প্রায় ২০০ ছাত্রছাত্রী বেশির ভাগ সময় রাতের আধারে কুপি বাতির নিচে পড়াশুনা করতে হয়।

এছাড়া অসহ্য গরমে ছোট বাচ্চাদের নিয়ে নিদারুণ কষ্ট ভোগ করতে হয়। তিনি আরও বলেন বিদ্যুৎ ও রাস্তাঘাটের সমস্যার কারণে আমাদের চরম ভোগান্তি পোহাতে হচ্ছে। নবীগঞ্জ বাজার থেকে ৩ কিলোমিটার পশ্চিমে বিদ্যুৎতায়িত সব গ্রামের মধ্যে অন্ধকারাচ্ছন্ন কমলাপুর গ্রাম।

এ বিষয়ে স্থানীয় ওয়ার্ড মেম্বার ফনি ভূষণ দাশ বলেন, কমলাপুর গ্রামে বিদ্যুৎ লাইন স্থাপনের জন্য প্রায় এক বছর আগে বৈদ্যুতিক খুঁটি এনে রাখা হয়েছে। তবে গ্রামবাসীর এক পক্ষের আপত্তির কারণে কিছু সমস্যা সৃষ্টি হলেও,প্সরে তা সমাধান হওয়ার পরও ঠিকাদার না আসায় এখনো সেখানে বিদ্যুৎ বিতরণ লাইন স্থাপনের কাজ শেষ করা যায়নি।

পল্লী বিদ্যুৎতায়ন বোর্ডের সহকারী প্রকৌশলী মোঃ আজিজুর রহমান বলেন ঠিকাদারের সাথে স্থানীয় লোকজনের সমস্যার কারণে যথা সময়ে কাজ শেষ করতে না পারায় কমলাপুর গ্রামকে বিদ্যুতের আওতায় আনা যায়নি। শতভাগ বিদ্যুতের উপজেলা ব্যাপারে বলেন কোন উপজেলা ৯০ ভাগ বিদ্যুতের আওতায় আসলে আমরা সেই উপজেলাকে শত ভাগ বিদ্যুতের উপজেলা বলতে পারি।

হবিগঞ্জ পল্লী বিদ্যুৎ সমিতির আঞ্চলিক অফিসের সহকারী মহা ব্যবস্থাপক(ডিজিএম) আলিবর্দি খান সুজন বলেন, কমলাপুর গ্রামকে বিদ্যুতায়নের আওতায় আনতে ১ বৎসর আগে কাজ শুরু হয়েছিল। স্থানীয় এলাকাবাসীর সাথে ঠিকাদারের লোকজনের সমস্যার কারণে বিতরণ লাইনের কাজ শেষ না হওয়ায় আমরা কমলাপুর গ্রামকে এখনো বিদ্যুতায়নের আওতায় আনা যায়নি।

করোনা ভাইরাসের দেখা দেয়ার আগে এনজিও বা ক্ষুদ্র ঋণ প্রতিষ্ঠান থেকে ঋণ নিয়ে যেসব ক্ষুদ্র উদ্যোক্তা ব্যবসা করছেন আগামী সেপ্টেম্বর পর্যন্ত তাদের কাউকে নতুন করে ঋণ খেলাপি না করার নির্দেশ দেয়া হয়েছে।

মঙ্গলবার এ সংক্রান্ত একটি প্রজ্ঞাপন জারি করে সনদপ্রাপ্ত সব ক্ষুদ্রঋণ প্রতিষ্ঠানের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তার নিকট পাঠিয়েছে মাইক্রোক্রেডিট রেগুলেটরি অথরিটি (এমআরএ)। এর আগে এমআরএ গত ২২শে মার্চ প্রজ্ঞাপন জারি করে ৩০শে জুন পর্যন্ত কাউকে ঋণ খেলাপি না করার নির্দেশ দিয়েছিল। নতুন প্রজ্ঞাপনে সেটি আরো তিন মাস বাড়ানো হলো।

নতুন প্রজ্ঞাপনে বলা হয়, ‘বাংলাদেশের অর্থনীতিতে করোনা ভাইরাসের নেতিবাচক প্রভাব ও ক্ষুদ্রঋণ গ্রাহকদের স্বাভাবিক অর্থনৈতিক কর্মকাণ্ড ক্ষতিগ্রস্ত হওয়ার বিষয়টি বিবেচনায় নিয়ে গত ২২শে মার্চ প্রজ্ঞাপনের মাধ্যমে ঋণ শ্রেণিকরণের বিষয়ে এ মর্মে নির্দেশনা প্রদান করা হয়েছিল যে, চলতি বছরের ১ জানুয়ারি ঋণের শ্রেণিমান যা ছিল, আগামী ৩০শে জুন পর্যন্ত উক্ত ঋণ তদাপেক্ষা বিরূপমাণে শ্রেণিকরণ করা যাবে না। অর্থাৎ এ সময়ে ঋণের কিস্তি পরিশোধ না করলেও কাউকে ঋণ খেলাপি ঘোষণা করা যাবে না। তবে কোনো ঋণের শ্রেণিমানের উন্নতি হলে তা বিদ্যমান নিয়মানুযায়ী শ্রেণিকরণ করা যাবে।’

‘কিন্তু করোনার কারণে অর্থনীতির অধিকাংশ খাতই ক্ষতিগ্রস্ত এবং এর নেতিবাচক প্রভাব দীর্ঘায়িত হওয়ার আশঙ্কা দেখা দেয়ায় শিল্প, সেবা ও ব্যবসা খাত তাদের স্বাভাবিক কার্যক্রম পরিচালনা করতে পারছে না। বর্ণিত বিষয়াবলি বিবেচনায় এবং ক্ষুদ্র ঋণগ্রহীতাদের ব্যবসা-বাণিজ্য তথা স্বাভাবিক অর্থনৈতিক কর্মকাণ্ডের ওপর করোনার নেতিবাচক প্রভাব সহনীয় মাত্রায় রাখার লক্ষ্যে সিদ্ধান্ত গ্রহণ করা হয়েছে যে, চলতি বছরের ১লা জানুয়ারি ঋণের শ্রেণিমান যা ছিল আগামী ৩০শে সেপ্টেম্বর পর্যন্ত উক্ত ঋণ তদাপেক্ষা বিরুপমানে শ্রেণিকরণ করা যাবে না।’

‘অর্থাৎ করোনার প্রাদুর্ভাবের কারণে সৃষ্ট পরিস্থিতিতে ঋণগ্রহীতাদের আর্থিক অক্ষমতার কারণে ক্ষুদ্রঋণের কিস্তি অপরিশোধিত থাকলেও তাদের আর্থিক অবস্থা বিবেচনায় নিয়ে আগামী ৩০শে সেপ্টেম্বর পর্যন্ত প্রাপ্য কোনো কিস্তি বা ঋণকে বকেয়া বা খেলাপি দেখানো যাবে না। তবে কোনো ঋণের শ্রেণিমানের উন্নতি হলে তা বিদ্যমান নিয়মানুযায়ী শ্রেণিকরণ করা যাবে।’

এতে আরো বলা হয়, ‘এই সংকট সময়ে ক্ষুদ্র ঋণ প্রতিষ্ঠান কর্তৃক ঋণ গ্রহীতাদের কিস্তি পরিশোধে বাধ্য করা যাবে না। তবে কোনো আগ্রহী সক্ষম গ্রাহক ঋণের কিস্তি পরিশোধে ইচ্ছুক হলে সে ক্ষেত্রে কিস্তি গ্রহণে কোনো বাধা থাকবে না।’

‘এ ছাড়া গ্রামীণ ক্ষুদ্র অর্থনীতির চাকা সচল রাখার স্বার্থে অথরিটি কর্তৃক ইতোপূর্বে জারি সার্কুলারের প্রদত্ত নির্দেশনা অনুযায়ী ঋণ বিতরণ, সঞ্চয় উত্তোলন/ফেরত, জরুরি ত্রাণসামগ্রী বিতরণ, রেমিট্যান্স সেবা ও কর্মকর্তা-কর্মচারীদের বেতনভাতা প্রদানসহ বিভিন্ন সামাজিক কার্যক্রম পরিচালনার ক্ষেত্রে স্বাস্থ্য অধিদফতর কর্তৃক ঘোষিত স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলতে হবে।’।মানবজমিন

বেনাপোল প্রতিনিধি:  যশোরের শার্শা উপজেলায় গত ২৪ ঘন্টায় নতুন করে পুলিশসহ আরো ২জন করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন। এ নিয়ে উপজেলায় করোনা ভাইরাসে আক্রান্তের সংখ্যা দাঁড়ালো ৩৬ জন।
মঙ্গলবার (২৩ জুন) বিকালে শার্শা উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডাক্তার ইউসুফ আলী এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন।
আক্রান্তরা হলেন, শার্শা থানার সহকারী সাব-ইন্সপেক্টর (এএসআই) গোলাম নবী ও উপজেলার সদর ইউনিয়নের নাভারণ-কাজিরবেড় গ্রাম‍ের সাংবাদিক সেলিম রেজার ছেলে আবু হুরায়রা জয়।
শার্শা উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডাক্তার ইউসুফ আলী জানান, নতুন করে নমুনা সংগ্রহ করে গত রবিবার যশোর বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের ল্যাবে পাঠানো হয়। এতে তাদের ২ জনের নমুনায় করোনা পজেটিভ হয়েছে। তাদেরকে হোম কোয়ারেন্টাইনে রেখে চিকিৎসা সেবা দেয়া হচ্ছে। এবং তাদের বাড়ি লকডাউন ঘোষণা করা হয়েছে।
তিনি আরো বলেন, উপজেলায় এই নিয়ে করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন ৩৬ জন। এর মধ্যে ১৭ জন সুস্থ হয়েছেন। বাকিরা বাড়িতে ও হাসপাতালে চিকিৎসা সেবা নিচ্ছে।

সুনামগঞ্জ প্রতিনিধি: সুনামগঞ্জে মাদকসহ সাবেক  উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান,আ’লীগ নেতাকে আটক করেছে পুলিশ।  আটক ব্যক্তি বিশ্বম্ভরপুর উপজেলার সাবেক ভাইস চেয়ারম্যান ও আওয়ামী লীগে নেতা সুলেমান তালুকদার।
সোমবার (২২ জুন) রাত সাড়ে ৯টায় বিশ্বম্ভরপুর উপজেলার পলাশ ইউনিয়নের বোয়ালিয়া এলাকা থেকে আটক করা হয়।
স্থানীয় সূত্রে জানা যায়,মাদকসেবী সুলেমান তালুকদার প্রায় সময় মাদক সেবন করে এলাকায় ঘুরে বেড়ায়। সোমবার (২২ জুন) রাত সাড়ে ৯টার দিকে সুনামগঞ্জের বিশ্বম্ভরপুর উপজেলার পলাশ ইউনিয়নের বোয়ালিয়া এলাকায় এসআই আবু জাফর,এ এস আই সাহাবউদ্দিন ও ওমর ফারুরের নেতৃত্বে পুলিশ চেক পোস্ট পরিচালনা করে মাদকসহ সুলেমান তালুকদার নামে এক উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যানকে  আটক করে।
বিশ্বম্ভরপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মাহবুবুর রহমান ঘটনাটি নিশ্চিত করে  জানান,মাদকসেবী সুলেমান মাদক সেবন করে বোয়ালিয়া এলাকা অবস্থান করছে এমন খবর পেয়ে সে এলাকায় চেক পোস্টে অবস্থান নেয় পুলিশ এবং তথ্য অনুযায়ী সেখানে মাতাল অবস্থায় আটক করা হয়। প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে সে মাদকের কথা অস্বীকার করে। কিন্তু পরে তাকে তল্লাশী করে তার সাথে অভিনব পন্থায় রাখা অফিসার চয়েজ চার বোতল মদ উদ্ধার করা হয়। এ ঘটনায় মাদকদ্রব্য আইনে মামলার প্রস্তুতি চলছে।

সুনামগঞ্জ প্রতিনিধি:  সুনামগঞ্জে বাংলাদেশে আওয়ামীলীগের ৭১তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীতে জেলা আওয়ামী লীগ যথাযোগ্য মর্যাদায় সরকারের দেওয়া স্বাস্থ্যবিধি মেনে জাতির জনকের প্রতিকৃতিতে শ্রদ্ধাঞ্জলী অর্পন করে ৭১তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী পালন করেছে।
মঙ্গলবার (২৩ জুন) সকাল ১১টায় জেলার ঐতিহ্য যাদুঘর প্রাঙ্গণে জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের প্রতিকৃতিতে দলটির ৭১তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উপলক্ষে সুনামগঞ্জ জেলা আওয়ামী লীগ সামাজিক দুরত্ব বজায় রেখে শ্রদ্ধাঞ্জলী নিবেদন করে।
জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ব্যারিস্টার এম.এনামুল কবির ইমনের নেতৃত্বে শ্রদ্ধাঞ্জলী অর্পনের সময় উপস্থিত ছিলেন, জেলা আওয়ামী লীগের সহ সভাপতি এডভোকেট শফিকুল, যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক হায়দার চৌধুরী লিটন, সাংগঠনিক সম্পাদক সিরাজুর রহমান সিরাজ, সাংগঠনিক সম্পাদক জুনেদ আহমদ, শিল্প ও বাণিজ্য বিষয়ক সম্পাদক দেওয়ান এমদাদ রেজা চৌধুরী, দুর্যোগও ত্রাণ বিষয়ক সম্পাদক অধ্যাপক শাহ আবু নাছের, ধর্ম বিষয়ক সম্পাদক মফিজ মিয়া, দপ্তর সম্পাদক নূর আলম সিদ্দিকী উজ্জ্বল, শ্রম বিষয়ক সম্পাদক এডভোকেট আজাদুল ইসলাম রতন,প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক গোলাম সাবেরিন সাবু,সদস্য দাউদ পীর, আতিকুল ইসলাম আতিক,মোতাহের হোসেন আখঞ্জী শামীম প্রমূখ।
দলীয় সূত্রে জানা যায়,প্রতিবছরের মতো এবারও দিবসটি পালন করার কথা ছিলো দলের নেতাকর্মীদের। কিন্তু বৈশ্বিক মহামারি করোনা ভাইরাস (কভিড-১৯)এর প্রকোপে দেশে মহামারির রূপ নেওয়ায় সরকারের বিধিনিষেধে গণসমাগম না করে সীমিত পরিসরে দিবসটি পালন করার।

চুনারুঘাট (হবিগঞ্জ) প্রতিনিধিঃ  হবিগঞ্জের চুনারুঘাটে নতুন করে আরোও ১০ জনের করোনা পজিটিভ এসেছে। এ নিয়ে উপজেলায় আক্রান্তের সংখ্যা বেড়ে দাঁড়িয়েছে ৯৯ জন।

মঙ্গলবার রাত ১০.৫৫ মিঃ সময়ে ১০জনের করোনা পজিটিভ আসে।

চুনারুঘাট উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা. মোজাম্মেল হোসেন এ তথ্য নিশ্চিত করে জানান, নতুন সুস্থ হয়েছে ২ জন, সর্বমোট সুস্থ হয়েছে ৫২ জন, আইসোলেসনে আছেন ৪৬ জন, একজনের মৃত্যু হয়েছে।

নিজস্ব প্রতিনিধিঃ  মা যখন বাবার হাতে খুন হয় এমন নির্মম স্মৃতি নিয়ে বেঁচে থাকা যে কত কষ্টকর তা কেবল একজন ভুক্তভুগিই অনুধাবন করতে পারে,আর তা যদি শিশুদের জীবনে ঘটে তা হলে ভালো মন্দ বুঝে উঠার আগেই জীবনের মূল্যবান ভালোবাসা ও বিশ্বাস হারিয়ে অজানা গন্তব্যের দিকে পাড়ি জমায় জীবন নামের উত্তাল সমুদ্রগামী নৌকা। এ সময় নিকটাত্মীয় ও দুরবর্তীদের বিশ্বাস বলতে যা থাকে সবই একাকার হয়ে যায়। কিন্তু  এমন পরিস্থিতিতে যে কেবল আইন রক্ষাকারী সংস্থার বিশ্বস্থরাই অসহায়ের সহায় হতে পারে তা মৌলভীবাজার জেলার শ্রীমঙ্গল থানার পুলিশের মানবিক আচরণ থেকেই উজ্জ্বল দৃষ্টান্ত হয়ে থাকবে যুগ যুগ ধরে।

জানা গেছে মৌলভীবাজার জেলা পুলিশের এসপি ফারুক আহমেদ পিপিএম এর নির্দেশনায় শ্রীমঙ্গল-কমলগঞ্জ সার্কেল সিনিয়র এএসপি আশরাফুজ্জামান আশিক এর তত্ত্বাবধানে ও  শ্রীমঙ্গল থানার ওসির সহযোগিতায় ইব্রাহিম (১০) ফাহিম (৫) পিতা-আজগর আলী মাতা-মৃত ইয়াসমিন সাং- বেলতলী, সিন্দুর খান, শ্রীমঙ্গল, শিশু দুইটির পাশে দাঁড়িয়ে আরেকটি মানবিক দৃষ্টান্ত স্থাপন করলেন শ্রীমঙ্গল পুলিশ প্রশাসন।

প্রঙ্গত আশিদ্রোন ইউনিয়নের পূর্ব জামসী গ্রামে গত ৪ জুন বৃহস্পতিবার দিবাগত রাতের গভীর রাতে খুন হওয়া জায়েদা বেগম (৫৫) ও ইয়াসমিন (২৪), শিশু দুটির মা ও নানীকে সকালে স্থানীয়রা তাদের ঘর থেকে মরদেহ উদ্ধার করে থানা পুলিশের সহযোগিতায়। পরে পুলিশের অভিযানে আটক জামাতা আজগর আলীকে নিজ এলাকা সিন্দুরখান ইউনিয়নের তালতলা গ্রাম থেকে গ্রেফতার করে। পরে আদালতে স্বীকারোক্তিমূলক বক্তব্য দেন এবং বিজ্ঞ আদালত তাকে কারাগারে প্রেরণ করেন।

এমতাবস্থায় খুন হওয়া নারী ইয়াসমিন ও ঘাতক খুনি আজগরের কারাগারে থাকার কারণে তাদের দুটি শিশু সন্তান ইব্রাহিম (১০) ফাহিম (৫) অভিবাবকহীন হয়ে পরলে এসপি ফারুক আহমেদ পিপিএম এর নির্দেশনায় শ্রীমঙ্গল-কমলগঞ্জ সার্কেল সিনিয়র এএসপি আশরাফুজ্জামান আশিকের তত্ত্বাবধানে ওসি আব্দুস ছালেকের সহায়তায় এবং ওসি অপারেশন নয়ন কারকুনের উপস্থিতিতে শিশু দু’টিকে সিলেট সমাজসেবা অধিদপ্তরের আওতাধীন সরকারী এতিমখানায় মঙ্গলবার দুপুরে প্রেরণ করেন এবং তাদের ব্যাপারে এক স্ট্যাটাসে এএসপি আশরাফুজ্জামান আশিক লিখেন (হুবহু তুলে ধরা হল)

 “ভালো থাকিস বাবারা,ভালো হয়ে ফিরে আসিস ,সমাজের অন্ধকার থেকে দূরে থাকিস,আলো হয়ে জ্বলে উঠিস।

আপনাদের পরামর্শে, পুলিশ সুপার মৌলভীবাজার এর সার্বিক তত্ত্বাবধানে, শ্রীমঙ্গল সার্কেল ও থানার আন্তরিকতায় হত্যাকারী বাবা এবং খুন হয়ে যাওয়া মায়ের দুটি শিশু সন্তানকে অবশেষে পাঠানো হলো সরকারি এতিমখানায় কিছুদিন আগে এ বিষয়ে একটি পোস্ট দেওয়ায় অনেকেই তাদের এতিমখানায় প্রেরণের জন্য আমাদের পরামর্শ প্রদান করেছিলেন।তাদের প্রতি আমাদের আন্তরিক ধন্যবাদ এবং কৃতজ্ঞতা।”

উপরোক্ত সংবাদের পুর্বের লিঙ্ক দেখতে হলে ক্লিক করুন নিচে

শ্রীমঙ্গলে মা-মেয়ে জোড়া খুনের রহস্য উন্মোচন,আটক-১

  

এডিটর: আনিছুল ইসলাম আশরাফী, এনিমেটরস্ বাংলা মিডিয়া গ্রুপ কর্তৃক প্রকাশিত
সম্পাদকীয় কার্যালয়: কলেজ রোড, শ্রীমঙ্গল, মৌলভীবাজার।
Email: news.amarsylhet24@gmail.com Mobile: 01772 968 710

Developed By : i-Tech Sreemangal
Email : itech.official@hotmail.com
Facebook : http://facebook.com/itech.ctc