Wednesday 8th of July 2020 07:40:59 PM

শ্রীমঙ্গল কমলগঞ্জ ৪ আসনের বার বার নির্বাচিত, আওয়ামীলীগের বর্শিয়ান নেতা “অনুমিত হিসাব সম্পর্কিত সংসদীয় কমিটির সভাপতি এবং সাবেক চীফ হুইপ উপাধ্যক্ষ ড. মোঃ আব্দুস শহীদ এমপি করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন। আলহামদুলিল্লাহ তিনি সুস্থ আছেন। স্যার, দেশবাসী এবং শ্রীমঙ্গল -কমলগঞ্জের সবার কাছে দোয়া চেয়েছেন। 

উল্লেখ্য স্যার, শেখ রাসেল জাতীয় গ্যাষ্ট্রোলিভার ইনিস্টিটিউট ও হাসপাতালে ভর্তি আছেন। আহাদ মোঃ সাঈদ হায়দার সভাপতির একান্ত সচিব অনুমিত হিসাব সম্পর্কিত সংসদীয় কমিটি বাংলাদেশ জাতীয় সংসদ” এই তথ্য দিয়েছেন।

অক্সিজেন সিলিন্ডার গ্রহণকালে এড. মোছাহেব উদ্দীন বখতিয়ার

গাউছিয়া কমিটি বাংলাদেশের যুগ্ম মহাসচিব আ্যডভোকেট মোছাহেব উদ্দীন বখতিয়ার বলেছেন, করোনা মহামারীর প্রকোপ দ্রুতই বৃদ্ধি পাচ্ছে। দিন দিন আক্রান্ত আর মৃত্যুর সংখ্যা বাড়ার সাথে সাথে প্রয়োজনীয় চিকিৎসা সেবারও ঘাটতি দেখা যাচ্ছে। বিনা চিকিৎসায় মারা যাচ্ছে অনেকেই। এ কঠিন সময়ে জাতিকে বাঁচাতে প্রয়োজন সম্মিলিত মানবিক উদ্যোগ। সরকারের পাশাপাশি বেসরকারী উদ্যোগেও করোনা আক্রান্তদের চিকিৎসা সেবা দেওয়ার মত পরিবেশ তৈরি করতে তিনি সমাজের সচেতন মহলের দৃষ্টি আকর্ষণ করেন।

১৬ জুন দুপুরে নগরীর বহদ্দারহাটস্থ আর.বি কনভেনশনে গাউসিয়া কমিটি বাংলাদেশের উদ্যোগে করোনা আক্রান্তদের জন্য অক্সিজেন সরবরাহ কার্যক্রমে সংগঠনের রাউজান উপজেলা কমিটির পক্ষ থেকে প্রদানকৃত অক্সিজেন সিলিন্ডার গ্রহণের সময় এসব কথা বলেন। গাউসিয়া কমিটি বাংলাদেশ করোনা মহামারীর শুরু থেকেই হতদরিদ্র, দরিদ্র ও মধ্যবিত্ত পরিবারে নিত্য প্রয়োজনীয় দ্রব্য, খাবার সহায়তার পাশাপাশি করোনায় মৃত্যুবরণকারীদের লাশ দাফনের কার্যক্রম চালিয়ে যাচ্ছে। সম্প্রতি করোনা রোগীদের জন্য অক্সিজেন সরবরাহ ও আইসোলেশন সেন্টার তৈরির উদ্যোগ নিয়েছে গাউছিয়া কমিটি বাংলাদেশ।

অক্সিজেন সিলিন্ডার প্রদানের সময় উপস্থিত ছিলেন গাউসিয়া কমিটি চট্টগ্রাম উত্তর জেলার সাধারণ সম্পাদক আলহাজ্ব এডভোকেট জাহাঙ্গীর আলম চৌধুরী, করোনায় মৃত্যুবরণকারীদের লাশ দাফন কার্যক্রম কমিটির সদস্য ও রাউজান উপজেলা স্বেচ্ছাসেবক টীম এর প্রধান সমন্বয়ক আলহাজ্ব আহসান হাবিব চৌধুরী হাসান, চট্টগ্রাম মহানগরের সাবেক প্রচার সম্পাদক মুহাম্মদ এরশাদ খতিবী, গাজী মাসুদ রানা, রিয়াদ বিন সিদ্দিক, কে এম রিমন প্রমুখ।

ফখরুল ইসলাম চৌধুরী,আন্তর্জাতিক চিকিৎসা ডেস্কঃ  একাধিক পরীক্ষামূলক করোনা ভাইরাস ভ্যাকসিনগুলি করোনা ভাইরাসকে সত্যিকার অর্থে প্রতিরোধ করতে পারে কিনা তা জানার জন্য এটির বৃহৎ আকারের গবেষণা হচ্ছে বিশ্বব্যাপী

মডারনা ইনক, চীনা সিনোভাক বায়োটেক এবং অক্সফোর্ডঅ্যাস্ট্রাজেনেকা পরীক্ষামূলক ভ্যাকসিনগুলিরই আগামী মাসে তৃতীয় পর্যায়ে ট্রায়ালগুলিতে যাবে বলে আশা করা হচ্ছে।

ইউএস ন্যাশনাল ইনস্টিটিউট অফ হেলথ (এনআইএইচ) এবং মডারনা  ইনক দ্বারা যৌথভাবে পরিচালিত মডারনা ভ্যাকসিন এর প্রাথমিক পরীক্ষার ফলাফলগুলিঅত্যন্ত আশাব্যঞ্জক 

স্বাস্থ্যকর স্বেচ্ছাসেবীরা (মোট ৪৫ জন), যারা প্রতিটি ভ্যাকসিনের দুটি ডোজ পেয়েছিলেন,তাদের শরীরে অ্যান্টিবডি তৈরি হয়েছে (ভাইরাস এবং ব্যাকটেরিয়ার মতো রোগজীবাণুগুলিকে নিরপেক্ষ করার জন্য প্রতিরোধ ব্যবস্থা দ্বারা উত্পাদিত প্রোটিন) যা ল্যাবের মানব কোষে পরীক্ষা করা হয়েছিল; যারা ভাইরাসটিকে পুন-উৎপাদন করা থেকে বিরত করতে সক্ষম হয়েছিল, এটি একটি কার্যকর ভ্যাকসিনের মূল প্রয়োজন। সংস্থাটি বলেছে যে এটি দ্বিতীয় পর্যায়ে পরীক্ষার ৩০০ তরুণ প্রাপ্তবয়স্কদের তালিকাভুক্ত করে শেষ করেছে এবং বয়স্ক প্রাপ্তবয়স্করা কীভাবে ভ্যাকসিনে প্রতিক্রিয়া দেখায় তা অধ্যয়ন শুরু করেছে

আগামী জুলাই মাসে পরীক্ষামূলক ভ্যাকসিনটি ৩০০০০ স্বেচ্ছাসেবীর উপর পরীক্ষা করা হবেকিছু সত্যিকারের ভ্যাকসিন এবং কিছুটিকে একটি ডামি ভ্যাকসিন দেওয়া হবে

 ভাইরাসটি বিশ্বের বিভিন্ন অংশে বন্ধ হয়ে যেতে শুরু করেছে। সংস্থাগুলি তাদের  সর্বশেষ পর্যায়ের পরীক্ষায় যে সমস্যার মুখোমুখি হচ্ছে তা স্বেচ্ছাসেবীর প্রয়োজনীয় সংখ্যা। চীনে  অনেক কম কভিড রুগী,দেশটির সিনোভাক বায়োটেক চূড়ান্ত পরীক্ষার জন্য লাতিন আমেরিকার প্রাদুর্ভাবের কেন্দ্রস্থল ব্রাজিলের দিকে প্রত্যাবর্তন করেছে। সাও পাওলো সরকার বৃহস্পতিবার ঘোষণা করেছে যে সিনোভ্যাক তার পরীক্ষামূলক ভ্যাকসিনের পর্যাপ্ত পরিমাণ পরীক্ষা করতে আগামী মাস থেকে ৯০০০ ব্রাজিলিয়ান পরীক্ষা করবে।

এনআইএইচ এর ভ্যাকসিন গবেষণা কেন্দ্রকে নির্দেশনা দেওয়া জন মাসকোলার বরাত দিয়ে বার্তা সংস্থা এপি বলেছে, “যদি সবকিছু ঠিকঠাক হয়, তবে বছরের শেষের দিকে কোন ভ্যাকসিনগুলি কাজ করে তার উত্তর পাওয়ার সম্ভাবনা থাকবে।

এনআইএইচ এবং মডার্নার তৈরি টিকাটিতে কোনও প্রকৃত, ক্ষতযুক্ত ভাইরাস নেই; বরং এটি একটি এমআরএনএ টিকা। এটি মানব কোষগুলি বিদেশী প্রোটিন তৈরি করে, ইমিউন সিস্টেমকে সতর্ক করে, এমআরএনএ ভ্যাকসিন তৈরি করা সহজ তবে এটি একটি নতুন এবং অপ্রমাণিত প্রযুক্তি।

সংস্থাটি এক বিবৃতিতে বলেছে: “ইউএস ফুড অ্যান্ড ড্রাগ অ্যাডমিনিস্ট্রেশন (এফডিএ) এর মতামতের ভিত্তিতে মডার্না তৃতীয় ধাপে প্রোটোকলকে চূড়ান্ত করেছে। এই পরীক্ষায় মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের প্রায় ৩০০০০ অংশগ্রহণকারীকে অন্তর্ভুক্ত করা হবে বলে আশা করা হচ্ছে।সংস্থাটি প্রতি বছরে প্রায় ৫০০ মিলিয়ন ডোজ সরবরাহ করতে সক্ষম 

এটি যুক্তরাজ্যের বৃহত্তম বৃহত্তম কভিড -১৯ ভ্যাকসিন প্রকল্প,বর্তমানে অক্সফোর্ড বিশ্ববিদ্যালয় পরীক্ষা করছে। আগামী মাসে ব্রাজিলে এই ভ্যাকসিন পরীক্ষা করা হবে। সাও পাওলো ফেডারেল ইউনিভার্সিটি কর্তৃক সমন্বিত একটি প্রকল্পে সাও পাওলো এবং রিও ডি জেনেইরোতে অংশ নেওয়ার জন্য প্রায় হাজার ব্রাজিলিয়ানকে নির্বাচিত করা হবে। ব্রিটিশ ওষুধ জায়ান্ট অ্যাস্ট্রাজেনেকা অক্সফোর্ড বিশ্ববিদ্যালয় দলের সাথে একটিযুগান্তকারী অংশীদারিত্বপ্রকাশ করেছিল এবং বলেছিল যে ট্রায়ালগুলি সফল প্রমাণিত হলে বছরের শেষের দিকে ১০০ মিলিয়ন ডোজ দেওয়া যেতে পারে।

অ্যাস্ট্রাজেনেকা অনুসারে ভ্যাকসিনটি সাধারণ সর্দি (অ্যাডেনোভাইরাস) ভাইরাসের দুর্বল সংস্করণের উপর ভিত্তি করে রেপ্লিকেশনঅভাবজনিত শিম্পাঞ্জি ভাইরাল ভেক্টর ব্যবহার করেছেনযা শিম্পঞ্জিতে সংক্রমণ ঘটায় এবং এসএআরএসকোভি স্পাইক প্রোটিনের জিনগত উপাদান রয়েছে টিকা দেওয়ার পরে, পৃষ্ঠের স্পাইক প্রোটিন উত্পাদিত হয়, এটি পরে শরীরে সংক্রামিত হলে কোভিড১৯ আক্রমণ করতে প্রতিরোধ ব্যবস্থা প্রাইমিং করে।

অ্যাস্ট্রাজেনেকা ইউরোপের সমন্বিত ভ্যাকসিনস অ্যালায়েন্সের সাথে একটি পরীক্ষামূলক কভিড -১৯  ভ্যাকসিনের ৪০০ মিলিয়ন ডোজ সরবরাহ করার জন্য একটি চুক্তি করেছে। শনিবার চুক্তিভুক্ত অংশের অংশীদারদের ইচ্ছুক অন্যান্য ইউরোপীয় দেশগুলিতে ভ্যাকসিন সরবরাহ করবে।

সিনোভাকের ভ্যাকসিনটি একটি ল্যাবে করোনভাইরাস বাড়িয়ে এবং পরে এটি হত্যা করে তৈরি করা হয়। জুলাইয়ে শুরু হওয়া সিনোভাকের শেষপর্যায়ে ট্রায়ালগুলি বিতরণের আগে তৃতীয় এবং শেষ পর্যায়ে প্রতিনিধিত্ব করে প্রায় ৯০০০ ব্রাজিলিয়ান পরীক্ষায় অংশ নেবে। যদি ভ্যাকসিন কার্যকর হয় তবে এটি ব্রাজিলে উত্পাদিত হবে। সাও পাওলো গভর্নর জোওও দোরিয়া বলেন ২০২১ সালের প্রথমার্ধে এই ভ্যাকসিন পাওয়া যেতে পারে।

নড়াইল প্রতিনিধিঃ    নড়াইলে বিলের ফসল ও মাছের অভয়াশ্রমকে নষ্ট ও জবরদখল করে মাছের ঘের সংক্রান্ত এক রিপোর্ট বিভিন্ন মিডিয়ায় প্রকাশিত হবার পর দিন আইনগত পদক্ষেপ নেওয়া শুরু হয়েছে। এ ঘটনায় অভিযুক্ত তিন হোতা কামাল প্রতাপ গ্রামের এনায়েত কাজী, আমাদা গ্রামের কামরুল খান এবং কামঠানা গ্রামের মিন্টু মিয়াকে পুলিশ আটক করেছে এবং সদও উপজেলা সহকারী কমিশনার(ভূমি) ঘটনাস্থল আন্ধারকোটা বিল পরিদর্শন করেছেন।
জানা গেছে, সদরের বাঁশগ্রাম ইউনিয়নের কামাল প্রতাপ গ্রামের আন্ধারকোটা বিলে গত দুই মাস পূর্ব থেকে এনায়েত কাজী প্রায় ১৫ একর, পার্শ্ববর্তী লোহাগড়া উপজেলার আমাদা গ্রামের কামরুল খান ৪০ একর এবং কামঠানা গ্রামের মিন্টু মিয়া আন্ধারকোটা বিলে ৬০ একর জমিতে জবরদখল করে এ মাছের ঘের করছে। কাজ প্রায় শেষের দিকে। এ অন্যায়ের প্রতিকার চেয়ে ভূক্তভোগিরা এক সপ্তাহ আগে জেলা প্রশাসক এবং পুলিশ সুপারের কাছে লিখিত আবেদন করেন।
অভিযোগে জানা গেছে, জেলা জাতীয় পার্টির সভাপতি কামাল প্রতাপ গ্রামের বাসিন্দা খন্দকার ফায়েকুজ্জামান ফিরোজের ৪২ শতক, শান্তিরাম বিশ্বাসের ১একর ২৬শতক ,সত্যরঞ্জন মালাকারের ১ একর ১৪ শতক,,দুলাল বিশ্বাসের ৯০ শতক, শক্তিপদ বিশ্বসের ৭৮শতক, সৈয়দ রানার ৭৫ শতক, প্রশান্ত বিশ্বাসের ৬০ শতক, সুশীল মন্ডলের ১২ শতক এবং সৈয়দ নায়েব আলীর ১একর, ভক্তদাস বিশ^াসের ৭৮শতক,সিদ্দিক মল্লিকের ১ একর ৩৫ জমি জবর দখল করে কামরুল, এনায়েত ও মিন্টু মাছের ঘের কেটেছে। এদিকে এমনভাবে ঘের কেটেছে তাতে ওই গ্রামের জয় বিশ্বাস, খায়ের মল্লিক, আমজাদ কাজীসহ অনেকের প্রায় ২০-২৫ একর জমিতে যাওয়ার কোনো পথ নেই। এসব অন্যায়ের প্রতিবাদ করা হলে হত্যাসহ বিভিন্ন প্রকার হুমকি দেওয়া হচ্ছে।
খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, জেলার বিভিন্ন বিলে কয়েক হাজার একর ফসলি জমিতে অপরিকল্পিত এবং জবরদখল করে অসংখ্য মাছের ঘের গড়ে উঠেছে। ফলে ফসলি জমি কমে যাচ্ছে,দেশী মাছের বিলুপ্তি হচ্ছে, খাল থেকে পানি জমিতে প্রয়োজনের সময় ঢুকতে এবং বের হতে না পারায় ফসল হানি ঘটছে।
এদিকে জানা গেছে, অভিযুক্ত তিন জনকে আটকের পর ভূক্তভোগি জমির মালিকরা মঙ্গলবার দুপুরে সদর থানায় যান দখলদারদের বিরুদ্ধে মামলা এবং বিচারের দাবিতে। তবে স্থানীয় অন্য একটি পক্ষ বিষয়টি মিমাংসার চেষ্টা করছে।
সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মোঃ ইলিয়াছ হোসেন বলেন, সোমবার রাতে অভিযুক্ত তিনজনকে কামাল প্রতাপ গ্রাম থেকে আটক করা হয়েছে। জোর করে ঘের করার ঘটনায় মামলা হলে পরবর্তী ব্যবস্থা নেওয়া হবে বলে জানান।
এ ব্যাপারে সদর উপজেলা সহকারী কমিশনার(ভূমি) কৃষ্ণা রায় বলেন, এ সংক্রান্ত একটি অভিযোগ পাওয়ার পর মঙ্গলবার (১৬জুন) সকালে ঘটনাস্থল আন্ধারকোটা বিল পরিদর্শন করেছি। পরবর্তীতে আইনগত পদক্ষেপ নেওয়া হবে।

নূরুজ্জামান ফারুকী নবীগঞ্জ থেকেঃ   নবীগঞ্জ সদর ইউনিয়নের কানাইপুর জামে মসজিদের ইমামের লঙ্কাকান্ড এলাকায় উত্তেজনা।  গ্রামবাসীর পক্ষে ১৫৭টি পরিবারের অভিবাবক তাদের লিখিত কাগজে স্বাক্ষর ও টিপসই দিয়ে বলেছেন কানাইপুর  গ্রামের জামে মসজিদের এখনও  হাফেজ নুর উদ্দিন ইমাম হিসাবে রয়েছেন বলে তার লিখিত ভাবে জানিয়েছেন।
উল্লেখ্য যে গত ৩ জুন দেশের বর্তমান করোনা ভাইরাসের পরিস্থিতে প্রধান মন্ত্রী শেখ হাসিনা নবীগঞ্জের ৬৩৮ টি মসজিদের ইমাম মোয়াজ্জিনদের নগদ ৫ হাজার টাকা করে প্রদান করেন। ওই সময় কানাইপুর গ্রামের এক শ্রেণীর স্বার্থলোভী লোক তাদের নিজ স্বার্থ হাসিল করার জন্য বর্তমান ইমাম হাফেজ নুর উদ্দিন ও মোতায়াল্লী আব্দুল কদ্দুসকে আড়াল করে ভূয়া কমিটি সাজিয়ে টাকা আত্নসাৎ চেষ্টা করেন। এ খবর পেয়ে নবীগঞ্জ উপজেলা নিবার্হী কর্মকর্তা বিশ্বজিত কুমার পালের কাছে লিখিত অভিযোগ দায়ের করেন।
এ ঘটনায় গ্রামে মসজিদের ইমাম ও সরকারি সাহায্য ৫ হাজার টাকা নিয়ে গ্রামবাসী দু ভাগে বিভক্ত হয়ে পরেন। হাফেজ নুর উদ্দিন ছুটিতে থাকাকালিন অবস্থায় মসজিদের ইমামতি দায়িত্ব পালন করেন মাওলানা আব্দুল লতিফ হাফেজ সাজিদুল মাওলানা ওয়াহেদ আলী। ওই স্বার্থনেশী মহল তাদের মনগড়া ভাবে  দাবি করছে বলে গ্রামের ১৫৭টি পরিবার লিখিত ভাবে এই দাবি করেছেন।

নড়াইল  প্রতিনিধি: নড়াইলে গত ২৪ ঘণ্টায় নতুন করে আরও জনের করোনা ভাইরাস শনাক্ত হয়েছে। এর মধ্যে নড়াইল সদর উপজেলায় জন লোহাগড়া উপজেলায় জন রয়েছে।  এক জনের বাড়ি পৌর এলাকার আলাদাৎপুরে এবং ৩জনের বাড়ি লোহাগড়া উপজেলার বিভিন্ন গ্রামে।

আজ মঙ্গলবার বিষয়টি নিশ্চিত করে সিভিল সার্জন ডা. মো. আব্দুল মোমেন জানানআক্রান্তদের মধ্যে একজন হলেন সংসদ সদস্য মাশরাফি বিন মোত্তুর্জার শ্বাশুড়ী, পৌর এলাকার আলাদাৎপুরের হোসনে আরা সিরাজ। তার করোনার রির্পোটটি গতকাল সোমবার মৌখিক ভাবে পাওয়া গিয়েছিলে, আজ মঙ্গলবার অফিসিয়ালি পাওয়া গেছে। তিনি নিজ বাসায় আইসোলেশনে আসেন। বাকী জন লোহাড়ার উপজেলার বাসিন্দা। 

সিভিল সার্জন অফিস সূত্রে জানাগেছে , নিয়ে জেলায় সর্বমোট জন চিকিৎসক, ১৪ জন হাইওয়ে পুলিশ সদস্যসহ মোট ৬৫ জন করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন। এর মধ্যে কালিয়া উপজেলার চোরখালি গ্রামের বিশ্বজিত রায় (৫০) চৌধুরী  একই উপজেলার খাসিয়াল মসজিদের মোয়াজ্জিন মোঃ আলিম শেখ (৫০) করোনায় আক্রান্ত হয়ে মারা গেছেন। পর্যন্ত চিকিৎসকসহ সুস্থ হয়েছেন ২৩ জন। এখন  পজেটিভ আছে ৪০ জন  

জেলায় পর্যন্ত মোট ৯৪৯ জনের নমুনা সংগ্রহ করা হয়েছে, ৮৯৭ টি রির্পোট পাওয়া গেছে,বাতিল হয়েছে ৯৩টি।  ৫৪ টি নমুনা পেন্ডিং রয়েছে। জেলায় ১৭৭৬জন হোম কোয়ারেন্টাইনে রাখা হয়েছে, ছাড়পত্র পেয়েছে ১৭৬৫ জন। আইসুলেশনে রোগীর সংখ্যা ৪৩ জন।হাসপাতালে ভর্তি রোগীর সংখ্যা জন।

এম ওসমান, বেনাপোল : করোনা ভাইরাস কোভিড-১৯ বিস্তার রোধে ফ্রন্ট লাইন ফাইটার হিসাবে কাজ করায়, কাজের স্বীকৃতি স্বরুপ ভূমি মন্ত্রণালয়ের জারিকৃত এক পত্রের মাধ্যমে  শুভেচ্ছা বার্তা জানানো হলো শার্শা উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) খোরশেদ আলম চৌধুরীকে।
১০ জুন-২০ ভূমি মন্ত্রণালয়ের জারিকৃত পত্র নং-৩১.০০.০০০০.০১১.০৩৯.০০৬.১৯-২১ তে উল্লেখ করা হয়, বিশ্বব্যাপী ছড়িয়ে পড়া প্রাণঘাতী করোনা ভাইরাস গত মার্চ মাসে বাংলাদেশে হানা দেয়। প্রথম করোনা রোগী শনাক্ত হওয়ার পূর্ব থেকে অদ্যাবধি মাঠ পর্যায়ে এই মরণব্যাধি সংক্রমণ প্রতিরোধে অকুতোভয় সম্মুখ সমর যোদ্ধা হিসাবে লড়াই করে যাচ্ছেন। সেই সাথে সামাজিক দূরত্ব নিশ্চিতকরণ, গণসচেতনতা সৃষ্টি, অসহায় মানুষের ঘরে ঘরে ত্রাণ সহায়তা পৌঁছে দেওয়া, নিত্য প্রয়োজনীয় জিনিস পত্রের দাম নিয়ন্ত্রণ, মোবাইল কোর্ট পরিচালনা সহ নানা অনিয়মের বিরুদ্ধে ভূমিকা রাখছেন।
এজন্য ভূমি মন্ত্রণালয়ের পক্ষ থেকে আপনাকে অভিনন্দন জানাচ্ছি।
শার্শা উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) খোরশেদ আলম চৌধুরী বলেন, ভালো কাজের যথাযথ স্বীকৃতি পেলে, দায়িত্ববোধ সহ উৎসাহ ও অনুপ্রেরণা বেড়ে যায়। শ্রদ্ধেয় ভূমি সচিব স্যারের প্রতি অসংখ্য ধন্যবাদ ও কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করছি কাজের সঠিক মূল্যায়ন ও উৎসাহ প্রদানের জন্য। করোনা ভাইরাস কোভিড-১৯ বিস্তার রোধে ফ্রন্ট লাইন ফাইটার হিসেবে কাজ করায়  আমাকে ও আমার মাধ্যমে শার্শা উপজেলার সংশ্লিষ্ট সকলকে ধন্যবাদ জানানোর জন্য।

নূরুজ্জামান ফারুকী নবীগঞ্জ থেকেঃ সবাইকে সুস্থ রাখতে গিয়ে নিজেই অসুস্থ হয়ে হাসাপাতালে ভর্তি হলেন নবীগঞ্জ থানার সাবেক ওসি ইকবাল হোসেন। করোনা উপসর্গ নিয়ে সিলেট নর্থ ইষ্ট মেডিকেল কলেজ এন্ড হাসপাতালে  ভর্তি হয়েছেন নবীগঞ্জ থানার সাবেক ওসি ও বর্তমানে মাধবপুর থানার ওসি মোঃ ইকবাল হোসেন। গত রবিবার তাকে সিলেট নর্থ ইষ্ট মেডিকেল এন্ড হাসপাতালে ভর্তি  করা হয়েছে বলে জানা যায়।

এব্যপারে ওসি ইকবাল হোসেন বলেন গত ৭ই জুন মাধবপুরে করোনা পরীক্ষায় নেগেটিভ আসার পরও ‘কয়েক দিন ধরে শরীর খারাপ যাচ্ছিল। হালকা জ্বর ছিল। করোনা ভাইরাসের লক্ষন শরীরে বিদ্যমান থাকায় তাই উন্নত চিকিৎসার জন্য সিলেট নর্থ ইষ্ট মেডিকেল কলেজ  এন্ড হাসপাতালে ভর্তি হয়েছি। তিনি আরো বলেন করোনা ভাইরাস সংক্রমন আছে কিনা তা নিশ্চিত হতে সিলেট নর্থ ইষ্ট মেডিকেল এন্ড হাসপাতালে আবার নমুনা দেওয়া হয়েছে।অসুস্থ হওয়ার আগে তিনি মাধবপুর থানার আবাসিক কোয়াটারে ছিলেন। সেখান থেকেই তাকে সিলেট নর্থ ইষ্ট মেডিকেল এন্ড হাসপাতালে নেওয়া হয়। তিনি সার্বিক সুস্থতার জন্য সবার কাছে দোয়া চেয়েছেন।

  

এডিটর: আনিছুল ইসলাম আশরাফী, এনিমেটরস্ বাংলা মিডিয়া গ্রুপ কর্তৃক প্রকাশিত
সম্পাদকীয় কার্যালয়: কলেজ রোড, শ্রীমঙ্গল, মৌলভীবাজার।
Email: news.amarsylhet24@gmail.com Mobile: 01772 968 710

Developed By : i-Tech Sreemangal
Email : itech.official@hotmail.com
Facebook : http://facebook.com/itech.ctc